Bartaman Patrika
রঙ্গভূমি
 

 ভীষণভাবে রাজনৈতিক ও প্রাসঙ্গিক এক নাটক
সীতায়ন

 দীর্ঘ বনবাস কাটিয়ে, রাবণকে যুদ্ধে পরাজিত ও নিহত করে, অবশেষে অযোধ্যা ফিরলেন রামচন্দ্র। স্বামীর অপেক্ষায় থাকা সীতার দুর্বিষহ জীবনযাপনের অবসান হতে চলল। কিন্তু সত্যি কি শেষ হল?
যে নারী লঙ্কাপুরীর অশোকবনে এতদিন অরক্ষিত ছিলেন, রাবণ যাকে হরণ করে নিয়ে গিয়েছিলেন, সেই জানকীর সতীত্বে কি এতটুকু আঁচ লাগেনি? অয্যোধ্যাবাসীর মনে উঁকি দেওয়া প্রশ্ন, রামচন্দ্রের মনে এসেও ধাক্কা মারে। সীতা তাঁর স্ত্রী, সহধর্মিনী। কিন্তু দশরথ নন্দন একই সঙ্গে একটি দেশের রাজা। তাঁর কাছে রাষ্ট্র বড়, আগে প্রজা। প্রজাদের ইচ্ছে, তাদের সুখই রাজার কাছে মুখ্য। তাদের জন্য সামান্য এক নারীকে ত্যাগ দেওয়াটা বড় কথা নয়, হোক না সীতা তাঁর স্ত্রী।
কিন্তু নারীর সূচিতা, শুদ্ধতার প্রশ্ন তোলা হচ্ছে কোন মানদণ্ডের মাপকাঠিতে? সেই মানদণ্ডে কেন পুরুষের শুদ্ধতা মাপা হবে না? সীতা সরাসরি আঙ্গুল তোলেন পুরুষ দ্বারা নির্মিত সমাজের উদ্দেশ্যে। একজন নারী পুরুষের দ্বারা অপমানিত হচ্ছে, অত্যাচারিত হচ্ছে, ধর্ষিত হচ্ছে, তখন কেন সেই শুধু শুচিতার পরীক্ষা দেবে? তার তো কোনও দোষ নেই। পুরুষ কেন পরীক্ষা দেবে না? যে রাম গর্ভবতী স্ত্রীকে গোপনে পরিত্যাগ করতে পারে, যে স্বামী, স্ত্রীর মর্যাদা দিতে পারে না সেই রামচন্দ্রের কাছে সতীত্বের পরীক্ষা সীতা কেন দেবেন?
না-না প্রশ্নগুলো মহাকাব্যের সীতা করেননি, করেছেন ‘সীতায়ন’-এর সীতা। শুধু রামচন্দ্রের কাছেই নয়, সমগ্র পুরুষজাতির উদ্দেশ্যে। পূর্বরঙ্গের নাটক ‘সীতায়ন’এর মধ্যে দিয়ে এক নতুন সীতাকে দর্শকদের সামনে নিয়ে এলেন নাট্যকার-নির্দেশক মলয় রায়। মল্লিকা সেনগুপ্তের উপন্যাস অবলম্বনে মলয় রায়ের ‘সীতায়ন’ হয়ে উঠেছে ভীষণভাবে রাজনৈতিক এবং প্রাসঙ্গিক।
সীতাকে রাবণ হরণ করে নিয়ে এসেছিলেন অশোকবনে। দোষ রাবণের। তাঁর তো কোনও পাপ নেই। যা কিছু পাপ করেছে একজন পুরুষ। ‘সীতায়ন’এর সীতার প্রশ্ন, রাঘব তো দ্বিগুণ পাপ করেছেন। অমন সুন্দর লঙ্কাকে জ্বালানোর খুব প্রয়োজন ছিল কি? যে কারণে কতশত নিরপরাধ নারী, শিশুর মৃত্যু হল। সূর্পণখা শুধুমাত্র প্রেম নিবেদন করেছিল, তাই বলে তার অত ভয়ঙ্কর শাস্তি। এসব পাপ নয়?
আসলে পুরুসাশিত সমাজে পুরুষ, তার চোখ দিয়েই নারীকে দেখতে ভালোবাসে। তার মতো করেই নারীর বিচার করে। নারীর প্রতি অপমান, অবহেলা, অত্যাচার, অন্যায় করার এই বহমানতা মহাকাব্যের যুগ পেরিয়ে আজও চলছে। আধুনিকতার বেড়াজালে নারী এমন ভাবে বন্দি যে তার যাবতীয় আশা-আকাঙ্খা, ইচ্ছে-অনিচ্ছের শেষ কথা বলে সেই পুরুষ। প্রেম বা বিয়েটাও হয়ে ওঠে পুরুষ দ্বারা নিয়ন্ত্রিত। স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্কে যদি বিশ্বাস, ভালোবাসা না থাকে তাহলে তো সম্পর্কটাই মিথ্যা। আর এই মিথ্যার জোরেই দশরথ নন্দন অনায়াসে বৈদেহীকে গর্ভবতী অবস্থায় বাল্মিকী আশ্রমে পাঠিয়ে দিতে পেরেছিলেন। ভয়ঙ্কর এক অন্যায় হচ্ছে জেনেও রামচন্দ্রের পুরুষাকার গর্জে ওঠেনি। আসলে তো তিনি পুরুষ সমাজের প্রতিনিধিত্ব করছেন। সমাজের প্রথম শ্রেণিভুক্ত। নারী যে দ্বিতীয় লিঙ্গ। আজও, এই সময়ে দাঁড়িয়ে। যে কারণে সীতাকে পাতাল প্রবেশ করতে হয়, অহল্যাকে পাথর হয়ে যেতে হয়, দ্রৌপদীকে জুয়া খেলায় বন্ধক রাখা যায় আর পদ্মিনীকে আত্মাহুতি দিতে হয়। নারীর হাহাকার, চিৎকার, ছড়িয়ে পড়ে গুজরাত, রাজস্থান হয়ে এই বাংলায়। যে বেদনা অনুরণিত হয় ‘সীতায়ন’এর সীতার মধ্যে। আজ এই ২০১৯-এ দাঁড়িয়ে মনে প্রশ্ন জাগে, নারীর অবস্থানগত পরির্বতন হয়েছে কি? মেয়েরা কবে নিজের শর্তে, নিজের মতো করে বাঁচতে পারবে? এই প্রশ্নগুলোকেই নতুন করে উসকে দেয় পূর্বরঙ্গের ‘সীতায়ন’।
মাত্র দু’জন শিল্পী। রোকেয়া রায় এবং প্লাবন বসু। রোকেয়া কখনও সীতা, কখনও কৌশল্যা, বা অন্য কোনও সাধারণ নারী। প্রত্যেকটি চরিত্রের বিভিন্নতা, বিচিত্রতা তাঁর অভিনয়ে প্রকাশ পায়। বেদনায় মূর্ত হয়ে ওঠা প্রত্যেকটি চরিত্র ভিন্ন হয়ে ওঠে রোকেয়ার শরীরী অভিনয়ের ওঠানামায়, সংলাপের নির্ভুল প্রক্ষেপণে। অভিনয়ের কোথায়, কতটা গভীরতার দরকার, কোথায় উচ্চকিত হওয়া দরকার, কোথায় বা নরম হতে হবে, কখনই বা গর্জে উঠতে হবে – শিল্পীর অসামান্য পরিমিতি বোধ নাটকটি ধরে রাখে শেষ পর্যন্ত। পাশাপাশি রাম, লক্ষ্মণ, বিভীষণ, বাল্মিকীকে অনায়াস দক্ষতায়, নৈপুন্যে মঞ্চে প্রতিষ্ঠা করেন প্লাবন। তাঁর অভিনয় চমক লাগায়। দুরন্ত নৃত্য বিভঙ্গের মধ্যে দিয়ে রোকেয়া আর প্লাবন কত কত চরিত্র হয়ে ওঠে। সমগ্র মঞ্চ তাঁদের ছন্দময়তার সাক্ষী থাকে। বহমান সময়কাল এবং নাটকের মুডকে চমৎকার ধরেছে রোকেয়ার মঞ্চ ভাবনা, পোশাক পরিকল্পনা। নাটকটিকে পরিপূর্ণতা দান করেছে সঙ্গীতাংশ (রোকেয়া-দিশারী-জয়দীপ)। মলয় রায়ের আলো এবং রোকেয়ার প্রপস-এর ব্যবহার তারিফযোগ্য।
অজয় মুখোপাধ্যায়
03rd  August, 2019
কতই রঙ্গ আছে প্রেমের দুনিয়ায় 
কাঁটা গাছে ফুটলো ফুল

সারা বিশ্বেই ফরাসি কমেডির এক অমোঘ আকর্ষণ রয়েছে। বিশেষ করে সে নাটক যদি হয় ‘ফ্লেউর দ্য ক্যাকটাস’। যার রচয়িতাদ্বয় হলেন প্যারি ব্যারিলেট এবং জাঁ পিয়ের গ্রেডি। এই নাটক সেই দেশের মঞ্চে অভিনীত হতে শুরু করেছিল ১৯৬৫ সালের ৮ ডিসেম্বর।
বিশদ

30th  November, 2019
দীনবন্ধু, গিরিশ ও শম্ভু মিত্র পুরস্কার প্রদান
পুরস্কার মূল্য দান করলেন ব্রাত্য

  পশ্চিমবঙ্গ তথ্য ও সংস্কৃতি বিভাগ এবং পশ্চিমবঙ্গ নাট্য অ্যাকাডেমির যৌথ উদ্যোগে, প্রতি বছরের মত এবারেও জমে উঠেছে ‘ঊনবিংশ নাট্যমেলা’। ১১ দিন ব্যাপী এই নাট্যোৎসবে কলকাতাসহ বিভিন্ন জেলার ২৩০টির মতো নাট্যদল তাদের প্রযোজনাকে মঞ্চস্থ করার সুযোগ পেয়েছে।
বিশদ

30th  November, 2019
 ছাতার নীচে বাঁচা

ভারি বর্ষার এক রাত। তুমুল ঝড়ে ভেঙ্গে গেল এক ব্যাঙের ছাতা। তাহলে উপায়? মাথাটাকে যে বাঁচাতে হবে! অতএব দুর্যোগের মধ্যেই সে বেরিয়ে পড়ল অন্য ছাতার খোঁজে। সে আসলে ব্যাঙ নয়। ব্যাঙরূপী কূপমন্ডক এক মানুষ। কিন্তু সে তো এই সমাজের জীব। কাজেই ছাতা যে তার চাই-ই। সমাজের কোন মানুষটি তাকে দেবে ছাতার আশ্রয়?
বিশদ

30th  November, 2019
সায়কের বর্ষপূর্তি উৎসব

 ৪৬ বছর অতিক্রম করল নাট্যদল সায়ক। সেই উপলক্ষে প্রতিবছরের মতো এবছরও একটি নাট্য উৎসবের আয়োজন করেছে তারা। অ্যাকাডেমি প্রেক্ষাগৃহে আগামী ১ ও ২ ডিসেম্বর মোট ৩টি নাটক মঞ্চস্থ হবে। বিশদ

30th  November, 2019
 থেসপিয়ানসের রৌপ্যজয়ন্তী

থেসপিয়ানস তাদের রৌপ্য জয়ন্তী উপলক্ষে গত ২৩ নভেম্বর স্টার থিয়েটারে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিল। মঞ্চস্থ হয় তাদের নতুন নাটক ‘বিসর্জন’। এরপর বিভিন্ন ক্ষেত্রের গুণি মানুষদের সম্মাননা জ্ঞাপন করা হয়।
বিশদ

30th  November, 2019
  সরস্বতী নাট্যোৎসব

  সম্প্রতি কলকাতার তপন থিয়েটারে পাঁচদিনব্যাপী নাট্যোৎসবের আয়োজন করেছিল ‘নেতাজিনগর সরস্বতী নাট্যশালা’। এবারের এই ‘সরস্বতী নাট্যোৎসব’এ পাঁচদিন ধরে মোট ১৭টি প্রযোজনা মঞ্চস্থ করে কলকাতা সহ জেলার বিভিন্ন নাট্যদল। বিশদ

30th  November, 2019
প্রেমের মাঝে এক ফোঁটা বিষ

১৯৯৮ সালে ভৈরব গঙ্গোপাধ্যায়ের অকালপ্রয়াণের পর, তাঁর সুযোগ্য পুত্র মেঘদূত গঙ্গোপাধ্যায় নিজের কাঁধেই তুলে নেন ভৈরব অপেরার দায়িত্বভার। এই অপেরার ব্যাটন এখন মেঘদূতের হাতে। প্রথম বছর মেঘদূত গঙ্গোপাধ্যায় লিখলেন ‘সাদা কাগজের বউ’। বিশদ

30th  November, 2019
প্রেমের মাঝে এক ফোঁটা বিষ 

১৯৯৮ সালে ভৈরব গঙ্গোপাধ্যায়ের অকালপ্রয়াণের পর, তাঁর সুযোগ্য পুত্র মেঘদূত গঙ্গোপাধ্যায় নিজের কাঁধেই তুলে নেন ভৈরব অপেরার দায়িত্বভার। এই অপেরার ব্যাটন এখন মেঘদূতের হাতে। তিনি তাঁর বিখ্যাত পিতৃদেবের পরম্পরা বজায় রেখেছেন।  
বিশদ

23rd  November, 2019
থেসপিয়ানসের রৌপ্যজয়ন্তী 

থেসপিয়ানস নাট্যগোষ্ঠীর পথ চলা শুরু ১৯৯৪ সালে। কয়েকজন নাট্যপ্রেমী তরুণ-তরুণী নিজেদের মতো করে নাট্যচর্চা করবে বলে দলটি গড়ে তোলে। কোনও বিশেষ ঘরানায় আটকে না থেকে সবার থেকে শিক্ষাগ্রহণ করে নিজেদের গড়ে তোলাই ছিল তাদের উদ্দেশ্য।  
বিশদ

23rd  November, 2019
কতই রঙ্গ আছে প্রেমের দুনিয়ায় 

সারা বিশ্বেই ফরাসি কমেডির এক অমোঘ আকর্ষণ রয়েছে। বিশেষ করে সে নাটক যদি হয় ‘ফ্লেউর দ্য ক্যাকটাস’। যার রচয়িতাদ্বয় হলেন প্যারি ব্যারিলেট এবং জাঁ পিয়ের গ্রেডি। এই নাটক সেই দেশের মঞ্চে অভিনীত হতে শুরু করেছিল ১৯৬৫ সালের ৮ ডিসেম্বর। টানা দু’বছর ১২৫০ রজনী অভিনীত হয়েছিল এ নাটক রয়্যাল থিয়েটারে।  
বিশদ

23rd  November, 2019
মুকুন্দদাস ও তাঁর স্বদেশি যাত্রা

চারণকবি মুকুন্দদাসের ব্রত ছিল পালাগানের মধ্যে দিয়ে দেশবাসীকে পরাধীনতার বিরুদ্ধে জাগিয়ে তোলা। মুকুন্দদাস ও তাঁর স্বদেশি যাত্রা নিয়ে লিখেছেন সন্দীপন বিশ্বাস।  বিশদ

23rd  November, 2019
 রং ছড়ালো ইন্দ্ররঙ মহোৎসব

সাতরঙা রামধনুর মতোই রঙের জেল্লা ছড়িয়ে সমাপ্ত হল তৃতীয় ইন্দ্ররঙ মহোৎসব। অনুষ্ঠানের জাঁকজমকে, নাট্যজগতের নক্ষত্রদের উপস্থিতিতে এবং সর্বোপরি প্রতিযোগিতায় বিজেতাদের প্রাপ্ত পুরস্কারের আর্থিক মূল্যের দিক থেকে যে কোনও সর্বভারতীয় প্রতিযোগিতামূলক নাট্যোৎসবকে টেক্কা দিয়েছে এই উৎসব।
বিশদ

16th  November, 2019
 এই দেশ এই সময় এই মৃত্যু উপত্যকা

সম্প্রতি মঞ্চস্থ হল পূর্বরঙ্গ নাট্যদলের সাম্প্রতিক প্রযোজনা ‘এই মৃত্যু উপত্যকা আমার দেশ নয়’। বলা যায়, কাব্যনাট্য। যে নাটকের বিষয় ১৬০০ খ্রিষ্টাব্দ থেকে আধুনিক ভারতবর্ষ – পরিবর্তিত আর্থ-সামাজিক প্রেক্ষাপটের হাত ধরে বদলে বদলে যাওয়া অনুভূতি, মনুষ্যত্ব আর রাজনীতি। বিশদ

16th  November, 2019
  রাজ্য বাচিক উৎসব

 বাচিক আর্টিস্ট ফোরাম গত ১৭ ও ১৮ সেপ্টেম্বর এই দু’দিন ধরে রবীন্দ্র ওকাকুরা ভবনে উদযাপন করল রাজ্য বাচিক উৎসব। উৎসবের উদ্বোধন করেন রুদ্রপ্রসাদ সেনগুপ্ত। পরে বিভিন্ন জেলা থেকে আসা শিল্পীরা আবৃত্তি ও বাচিক অভিনয় পরিবেশন করেন।
বিশদ

16th  November, 2019
একনজরে
বিএনএ, মালদহ: রোগীকে পরীক্ষার নাম করে তার শ্লীলতাহানির অভিযোগে অভিযুক্ত চিকিৎসকের খোঁজ মিলল না বৃহস্পতিবারেও। ইংলিশবাজার শহরে তার চেম্বারটিও বন্ধ রয়েছে বলে জানা গিয়েছে। এব্যাপারে মালদহ মহিলা থানা একটি মামলা দায়ের করেছে বলে পুলিস সূত্রে জানা গিয়েছে।  ...

 ইসলামাবাদ, ৫ ডিসেম্বর (পিটিআই): পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট আসিফ আলি জারদারির স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য মেডিক্যাল বোর্ড গঠনের নির্দেশ দিল পাকিস্তানের আদালত। বৃহস্পতিবার সংবাদমাধ্যমের এক রিপোর্টে এমনটাই জানা গিয়েছে। ...

 নয়াদিল্লি, ৫ ডিসেম্বর (পিটিআই): আইনজীবীদের আদালত অবমাননার হুঁশিয়ারি দেওয়ার পর করজোড়ে ক্ষমা চাইলেন বিচারপতি অরুণ মিশ্র। মঙ্গলবার বিচারপতি মিশ্রর নেতৃত্বাধীন পাঁচ সদস্যের বেঞ্চে এক জমি অধিগ্রহণ মামলার শুনানি চলছিল। ...

 সংবাদদাতা, উলুবেড়িয়া: বাড়িতে নিয়ে গিয়ে ভাইঝির উপর যৌন নির্যাতনের অভিযোগ উঠল খুড়তুতো জেঠার বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার দুপুরে শ্যামপুর থানার খাড়ুবেড়িয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের মরশাল গ্রামে। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
aries

অতিরিক্ত পরিশ্রমে শারীরিক ক্লান্তি। প্রিয়জনের বিপদগামিতায় অশান্তি ও মানহানির আশঙ্কা। সাংসারিক ক্ষেত্রে মতানৈক্য এড়িয়ে চলা ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮২৩: জার্মান দার্শনিক ম্যাক্সমুলারের জন্ম
১৮৫৩: ঐতিহাসিক ও শিক্ষাবিদ হরপ্রসাদ শাস্ত্রীর জন্ম
১৯৫৬: দলিত আন্দোলনের নেতা ভীমরাওজি রামাজি আম্বেদকরের মৃত্যু
১৯৮৫: ক্রিকেটার আর পি সিংয়ের জন্ম
১৯৯২: অযোধ্যার বিতর্কিত সৌধ ধ্বংস
২০১৬ - তামিলনাড়ুর প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী জয়ললিতার মৃত্যু





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৯.৯২ টাকা ৭৩.০৯ টাকা
পাউন্ড ৯১.৬২ টাকা ৯৬.০৫ টাকা
ইউরো ৭৭.৪২ টাকা ৮১.১৯ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,৭২৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,৭৪০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৭,২৯০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৪,২০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৪,৩০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ৬ ডিসেম্বর ২০১৯, শুক্রবার, দশমী অহোরাত্র। উত্তরভাদ্রপদ ৪২/৬ রাত্রি ১০/৫৭। সূ উ ৬/৬/৫৩, অ ৪/৪৭/৫৩, অমৃতযোগ দিবা ৬/৪৮ মধ্যে পুনঃ ৭/৩২ গতে ৯/৪০ মধ্যে পুনঃ ১১/৪৮ গতে ২/৩৯ মধ্যে পুনঃ ৩/২৩ গতে অস্তাবধি। রাত্রি ৫/৪১ গতে ৯/১৪ মধ্যে পুনঃ ১১/৫৪ গতে ৩/২৭ মধ্যে পুনঃ ৪/২০ গতে উদয়াবধি, বারবেলা ৮/৪৭ গতে ১১/২৭ মধ্যে, কালরাত্রি ৮/৭ গতে ৯/৪৭ মধ্যে।
১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ৬ ডিসেম্বর ২০১৯, শুক্রবার, দশমী ৫৮/২৮/৪৯ শেষরাত্রি ৫/৩১/৫০। উত্তরভাদ্রপদ ৪১/৪৫/৪১ রাত্রি ১০/৫০/৩৪, সূ উ ৬/৮/১৮, অ ৪/৪৮/২৩, অমৃতযোগ দিবা ৭/২ মধ্যে ও ৭/৪৪ গতে ৯/৫০ মধ্যে ও ১১/৫৭ গতে ২/৫১ মধ্যে ও ৩/২৭ গতে ৪/৪৮ মধ্যে এবং রাত্রি ৫/৪৫ গতে ৯/২১ মধ্যে ও ১২/৩ গতে ৩/৩৮ মধ্যে ও ৪/৩২ গতে ৬/৯ মধ্যে, কালবেলা ১০/৮/২০ গতে ১১/২৮/২১ মধ্যে, কালরাত্রি ৮/৮/২২ গতে ৯/৪৮/২১ মধ্যে।
৮ রবিয়স সানি

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে সিরিজের প্রথম টি-২০ জিতল ভারত

10:31:05 PM

 প্রথম টি২০: ভারত ১৭৭/২ (১৬ ওভার)

10:13:22 PM

প্রথম টি২০: ভারত ৮৯/১ (১০ ওভার) 

09:34:38 PM

প্রথম টি২০: ভারতকে ২০৮ রানের টার্গেট দিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ 

08:34:59 PM

প্রথম টি২০: ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১৪৪/৩ (১৫ ওভার) 

08:09:22 PM

প্রথম টি২০: ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১০১/২ (১০ ওভার) 

07:47:55 PM