Bartaman Patrika
রঙ্গভূমি
 

আসরে মার খেতে খেতে বেঁচে গিয়েছিলেন 

যাত্রার নায়িকা শর্মিষ্ঠা গঙ্গোপাধ্যায়কে নিয়ে লিখেছেন সন্দীপন বিশ্বাস। 

বাবা ছিলেন রানিগঞ্জ কোলিয়ারি এলাকার ডাক্তার। বাবার মতোই ডাক্তার হতে চেয়েছিলেন নমিতা চক্রবর্তী। কিন্তু ঘটনাচক্রে হয়ে গেলেন যাত্রার বিশিষ্ট অভিনেত্রী। মানুষ তাঁকে চেনেন শর্মিষ্ঠা গঙ্গোপাধ্যায় হিসাবে। কোলিয়ারিতে বিভিন্ন যাত্রা দল যায়। তাদের আড্ডা জমে ডাক্তার গুরুপদ চক্রবর্তীর বাড়িতে। ফলে সকলকেই চিনতেন শর্মিষ্ঠাকে। কিন্তু কখনও তিনি যাত্রাশিল্পী হবেন, এটা কল্পনাতেও ছিল না। একদিন আকাশবাণীতে গানের অডিশন দিতে এসেছেন তাঁর শিক্ষকের সঙ্গে। সেখানে দেখা চলচ্চিত্র পরিচালক পিনাকী মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে। তাঁর সঙ্গীত-শিক্ষকের সঙ্গে পরিচয় ছিল। তিনি শর্মিষ্ঠাকে দেখে বললেন, ‘আমার ছবিতে ওকে দিয়ে একটা রোল করাতে চাই। ছবির নাম ‘ভক্তের ভগবান’। ওর চরিত্রটা হবে কালী ঠাকুরের।’ শর্মিষ্ঠা বলেছিলেন, ‘আমি ছবিতে অভিনয় করেছি শুনে আনন্দময় বন্দ্যোপাধ্যায় বললেন, ‘অভিনয়ই যদি করবি, তবে তুই যাত্রায় অভিনয় কর।’ পরিচালক গোপেন দেব গিয়ে ধরলেন বাবাকে। যাত্রায় অভিনয়ের অনুমতি চাইলেন।’ অনুমতি মিলে গেল। শর্মিষ্ঠা চলে এলেন যাত্রায়। তখন শ্রীদুর্গা অপেরা নামে একটি দল ছিল। নতুন দল। উৎসাহ নিয়ে এলেন বটে কিন্তু যাত্রার কষ্ট যে কতটা তা আগে বোঝেননি। কিন্তু সেই দল চলল না।
পরের বছর পঞ্চু সেনের ডাকে যোগ দিলেন লোকনাট্য দলে। সে বছর লোকনাট্যের যাত্রা শুরু। শিল্পী তালিকাও ঝলমলে। শ্যামল সেন, কেতকী দত্ত, সমীর লাহিড়ী। পালা ‘মুকুন্দ দাস’ এবং ‘মর্জিনা অবদাল্লা’। তখন ভালো করে মেক আপ করতেও জানতেন না। নিজের হাতে শর্মিষ্ঠাকে মেক আপ করে দিতেন কেতকী দত্ত। রিহার্সাল হল। কিন্তু যেদিন দল প্রথম শোয়ে বের হবে, সেদিনই গোঁ ধরে বসলেন শর্মিষ্ঠা। তিনি অভিনয় করবেন না। বাড়ি ফিরে যাবেন। কেন না দল যাচ্ছে লরিতে। সামনে ড্রাইভারের পাশে সাধারণত তখন বসতেন দলের প্রধান চরিত্রের অভিনেতা অভিনেত্রীরা। সেই সুবাদে সামনে জায়গা হল সমীর লাহিড়ী এবং কেতকী দত্তের। কিন্তু শর্মিষ্ঠা বললেন, তিনি এভাবে যেতে পারবেন না। মহা সঙ্কট! সমাধানে এগিয়ে এলেন সমীর লাহিড়ী। বললেন, ‘শর্মিষ্ঠাই সামনে বসুক। আমি না হয় লরির উপরে চেপে যাব।’
পরের বছর লোকনাট্যে এলেন শেখর গঙ্গোপাধ্যায়। সে বছর দলের পালা ছিল উৎপল দত্তের ‘দিল্লি চলো’। তখন শর্মিষ্ঠা মনস্থির করে ফেলেছেন, আর যাত্রা করবেন না। এত কষ্ট করে থাকা তাঁর সহ্য হচ্ছিল না। সেসময় শেখরবাবুই তাঁকে দল না ছাড়ার অনুরোধ করলেন।
সেই প্রথম শেখর গঙ্গোপাধ্যায়কে দেখা। তার আগে বাবার কাছে শুনেছিলেন শেখরের নাম। ‘বাবা আমাকে বললেন, ‘একটা ছেলে আমাদের এখানে এসে ‘রামকৃষ্ণ’ চরিত্রে অভিনয় করে গেল। কী অভিনয় করল! আমি এত ভালো রামকৃষ্ণের অভিনয় আগে দেখিনি।’ শেখরবাবু, নিরঞ্জন ঘোষের অনুরোধে আর যাত্রার সঙ্গত্যাগ হল না। তাছাড়া সেবছর থেকে বাসও এল। ওই বছরে লোকনাট্যের আলোড়নকারী পালা ছিল ‘দিল্লি চলো’। এলেন উৎপল দত্ত। নতুন ছন্দে বাঁধলেন যাত্রাকে। প্রতিটি চরিত্রের মধ্য দিয়ে তৈরি করলেন এক নতুন অভিনয় ধারা। সে কী দুরন্ত টিম! ছিলেন বিজন মুখোপাধ্যায়ও। আর একটি পালাও সে বছর ছিল। ভৈরব গঙ্গোপাধ্যায়ের ‘পাঁচ পয়সার পৃথিবী’।
‘দিল্লি চলো’ পালায় সোখা চরিত্রটি করে খুব সুনাম হল শর্মিষ্ঠার। নাগা বিপ্লবী চরিত্র। সেই পালায় অসাধারণ একট গান ছিল তাঁর কণ্ঠে। জ্বলন্ত প্রদীপ হাতে করে কুড়ি-বাইশ জন মঞ্চে ঢুকে গান গাইতেন। শর্মিষ্ঠা লিড করতেন। স্টেজের সমস্ত আলো নিভিয়ে দেওয়া হতো। শুধু ওই হাতের প্রদীপের আলোয় অভিনয় হতো। অপূর্ব একটা সিকোয়েন্স তৈরি হতো। কয়েকটি ভাষায় সে গান গাইতে হতো। ‘বাসি ফুলের মালাগুলো জলে ফেলে দে/.. সামা জিলিয়াং জিলিয়াং সামা’। খুব হাততালি পেত সিনটা। ওই পালায় একটা দৃশ্য ছিল। শর্মিষ্ঠা দৌড়ে এসে ইংরেজদের আসার খবরটা দিচ্ছে। কিন্তু কিছুতেই হাঁফাতে হাঁফাতে সংলাপটা বলতে পারছেন না। রিহার্সালে সেটা দেখে উৎপল দত্ত তাঁকে বললেন, ‘তুই এই বাড়ির একতলায় চলে যা। তারপর সিঁড়ি দিয়ে ছুটতে ছুটতে আয়। এসে এখানে ডায়ালগটা বল। দেখ কীভাবে সত্যি করে হাঁফাতে হাঁফাতে কথাটা থ্রো করছিস।’ এভাবেই শিখেছেন।
লোকনাট্যেই শেখরবাবুর সঙ্গে প্রেম ও বিবাহ। বিয়ে নিয়ে শর্মিষ্ঠা বললেন, ‘আমার থেকে শেখরবাবু অন্তত কুড়ি বছরের বড় ছিলেন। কিন্তু প্রেম হয়ে গেল। তিনি ছিলেন আমার শিক্ষকের মতো। অনেক কিছু তাঁর কাছ থেকেই .শিখেছি। আমার প্রেমের মধ্যেই তাই শ্রদ্ধার স্থান ছিল অনেকখানিই। কিন্তু যাত্রাওয়ালার সঙ্গে কিনা বিয়ে! আমার বাড়ির অনেকেই এটা পছন্দ করল না। সেই সময় অনেক আত্মীয় আমাদের বয়কট করেছিল। কিন্তু আমার বাবা সেদিন পাশে দাঁড়িয়েছিল বলেই সেই প্রেম বিয়ে পর্যন্ত পৌঁছেছিল।’
তখনও তিনি নমিতা চক্রবর্তী। তখনকার বহু লিফলেট হ্যান্ডবিলে এই নাম পাওয়া যাচ্ছে। তারপর তরুণ অপেরায় এসে হয়ে গেলেন শর্মিষ্ঠা। একদিন অমর ঘোষ শান্তিগোপালকে বললেন, ‘ওর নমিতা নামটা সেকেলে। অন্য নাম দেওয়া দরকার।’ তারপর শান্তিগোপাল এবং অমর ঘোষ মিলে নামকরণ করলেন শর্মিষ্ঠা। তারপর থেকেই তিনি শর্মিষ্ঠা গঙ্গোপাধ্যায়। তরুণ অপেরায় অভিনয় করলেন, ‘হিটলার’, ‘লেনিন’, ‘আমি সুভাষ’ ইত্যাদি পালায়।
উৎপল দত্ত না থাকলে অবশ্য শর্মিষ্ঠা এই খ্যাতি পেতেন না। তিনি তাঁকে হাতে ধরে অভিনয় শিখিয়েছেন। পাশে পেয়েছিলেন শেখরকেও।
উৎপল দত্তের বিভিন্ন অমর পালায় তিনি অভিনয় করেছেন, ‘দিল্লি চলো’র পাশাপাশি ‘সমুদ্র শাসন’, ‘ফেরারী ফৌজ’ প্রভৃতি পালায়। শিল্পীতীর্থ দলে তিনি অভিনয় করলেন ‘দ্বীপান্তর’ পালায়। সেখানে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করতেন জ্যোৎস্না দত্ত। আর ছিলেন অসীমকুমার, গুরুদাস ধাড়া, সীমা বসু প্রমুখ। সেবছর ‘সন্তোষী মা’ খুব জনপ্রিয় হয়েছিল। সেই পালায় শর্মিষ্ঠা করতেন মেজবউয়ের চরিত্র। চরিত্রটা খলনায়িকার। সেই অভিনয় দেখে বহু দর্শক রুষ্ট হয়ে কটূমন্তব্য করতেন। ‘কোথাও কোথাও দর্শকরা মাঝে মাঝে মঞ্চে উঠে আমাকে মারতে আসত। আমি তখন সন্তান সম্ভবা। আমাকে আড়াল করে বাঁচাতেন জ্যোৎস্নাদিই। সেই খলনায়িকার ভূমিকায় অভিনয় করেই পেয়েছিলাম দিশারী পুরস্কার।’ ‘দ্বীপান্তর’ পালায় একটা দৃশ্যে ছিল স্বামীর মৃত্যুর দৃশ্য। সেখানে একটা কান্নার সিন ছিল। দীর্ঘ সেই দৃশ্যের অভিনয় প্রসঙ্গে শর্মিষ্ঠা পুরনো স্মৃতি ফিরিয়ে এনে বললেন, ‘সেই অভিনয়ে এতটাই মানসিক যোগ তৈরি হয়ে যেত যে ওই দৃশ্যের শেষে গ্রিন রুমে ফিরে অনেকদিনই আমি অজ্ঞান হয়ে যেতাম।’
বহু সার্থক পালায় অভিনয় করেছেন তিনি। সত্যম্বর অপেরায় ‘দিন বদলের ডাক’, ‘কান্না ঘাম রক্ত’, অগ্রগামীতে করলেন ‘বাবা তারকনাথ’, ‘কালো তলোয়ার’, বঙ্গলোক অপেরায় করলেন ‘ভিখারি সম্রাট’, আর্য অপেরায় করলেন ‘দামামা ওই বাজে’ ইত্যাদি। অনেক পুরস্কার পেয়েছেন। দিশারীর পাশাপাশি নটরাজ পুরস্কার, আইকা পুরস্কার ইত্যাদি।
শেখর গঙ্গোপাধ্যায় সম্পর্কে শর্মিষ্ঠা বললেন, ‘শেষের দিকে শেখরবাবু অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। একটা জায়গায় শো করতে গিয়ে উনি পায়ে তার জড়িয়ে পড়ে গিয়েছিলেন। তারপর থেকেই ওঁর মধ্য একটা পরিবর্তন দেখতে থাকি। যাত্রার ডায়ালগ ভুলে যেতে লাগলেন। মনটাও উদাসী হয়ে গেল তাঁর। মাঝে মাঝে বাড়ি থেকে নিরুদ্দেশ হয়ে যেতেন। সেই সঙ্গে বাড়ছিল মদ্যপানের অভ্যাস। বহুবার বহু জায়গা থেকে গিয়ে ধরে নিয়ে এসেছি। সেই সময় চিকিৎসার জন্য অনেক সাহায্য পেয়েছি সুভাষ চক্রবর্তীর সঙ্গে।’ জীবনের জুটি একদিন ভেঙে গেল। ২০০৯ সালের ২১ এপ্রিল বিদায় নিলেন শেখর। সবকিছুর মধ্যেও আজ এক শূন্যতা ঘিরে আছে শর্মিষ্ঠাকে। শেখরবিহীন জীবনে জুড়ে আছে নানা স্মৃতি। দুই মেয়েকে শোনান সেই সব কাহিনী। এখনও মনে আছে বিভিন্ন পালার গান। মাঝে মাঝে ডুবে যান সেই সব গানে।
29th  June, 2019
সালকিয়া আগন্তুকের নাট্যোৎসব 

সালকিয়া আগন্তুক নাট্য সংস্থার পরিচালনায় উজ্জ্বল ঘোষ স্মরণে দুদিনব্যাপী একটি নাট্যোৎসবের আয়োজন করা হয়েছিল হাওড়ার রামগোপাল মঞ্চে।   বিশদ

07th  December, 2019
অশনি নাট্যমের নাট্যোৎসব 

অবরুদ্ধ কাশ্মীর, এনআরসি, ডিটেনশন ক্যাম্প, নয়া ইউএপিএ আইন, অর্থনৈতিক মন্থরতা এসব নিয়ে দেশের মানুষের যখন উদ্বিগ্ন হওয়ার কথা তখনই ধর্ম ও মেকী জাতীয়তাবাদের মোড়ক দিয়ে দেশের নাগরিকদের ভুলিয়ে রাখার প্রচেষ্টা চোখে পড়ছে।  বিশদ

07th  December, 2019
উদীয়মান নারীর মঞ্চ 

গত বছরের মতো এবছরও মানিকতলা দলছুট নাট্য সংস্থা আয়োজন করেছে তাদের ‘উদীয়মান নারীর মঞ্চ’। আগামী ১৯ ডিসেম্বর থেকে ২২ ডিসেম্বর পর্যন্ত গোবরডাঙা সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে চলবে এই উৎসব।  বিশদ

07th  December, 2019
নান্দীকারের জাতীয় নাট্য উৎসব 

প্রতিবছরের মতো এবছরও নান্দীকার আয়োজিত জাতীয় নাট্যমেলা শুরু হতে চলেছে আগামী ১৬ ডিসেম্বর থেকে অ্যাকাডেমি অব ফাইন আর্টসের মঞ্চে। চলবে ২৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত। এবছর এই নাট্য উৎসব ৩৬ বছরে পা দিল।  বিশদ

07th  December, 2019
গঙ্গা যমুনা নাট্য উৎসব 

আগামী ১৫ ডিসেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে ‘অনীকের গঙ্গ যমুনা নাট্য উৎসব’। এই উৎসব এবার ২২ বছরে পড়ল। এবছর তপন থিয়েটারে এই নাট্য উৎসবের সূচনা ডলস থিয়েটারের পুতুল নাটক দিয়ে।  বিশদ

07th  December, 2019
নটসেনার সরোজ নাট্যমেলা 

নটসেনা তাদের প্রয়াত পরিচালক সরোজ রায়কে স্মরণ করে আয়োজন করেছে একটি নাট্যমেলার, যার শিরোনাম ‘সরোজ নাট্যমেলা’। আজ থেকে আগামী ১১ ডিসেম্বর পর্যন্ত দক্ষিণ কলকাতার তপন থিয়েটারে অনুষ্ঠিত হবে এই নাট্যমেলা।  বিশদ

07th  December, 2019
মাঙ্গলিকের পরিবর্তন 

আমাদের চারধারে চলছে নানা বুজরুকির ব্যবসা। প্রচুর মানুষ নিয়মিত ঠকছেন। ঠকে শিখছেন। এক শ্রেণীর কর্মবিমুখ অলস মানুষ যারা অল্প আয়াসেই ধনী হওয়ার স্বপ্ন দেখে তারাই মূলত এই ধরনের ব্যবসার সফল উদ্যোগপতি।  বিশদ

07th  December, 2019
দেশের বর্তমান পরিস্থিতিতে প্রাসঙ্গিক এক নাট্য 

নবম বর্ষে তিলজলা ঋতুর নবতম প্রযোজনা ‘তরবারি সুমঙ্গল’ নাটকটি মঞ্চস্থ হল মধুসূদন মঞ্চে। গত ২৯শে অক্টোবর এই নাটকটির প্রথম উপস্থাপনা ছিল। নাটকটি লিখেছেন অশোক মুখোপাধ্যায়, নির্দেশনায় জয়ন্ত দীপ চক্রবর্তী।  বিশদ

07th  December, 2019
মুকুন্দদাস ও তাঁর স্বদেশি যাত্রা 

চারণকবি মুকুন্দদাসের ব্রত ছিল পালাগানের মধ্যে দিয়ে দেশবাসীকে পরাধীনতার বিরুদ্ধে জাগিয়ে তোলা। মুকুন্দদাস ও তাঁর স্বদেশি যাত্রা নিয়ে লিখেছেন সন্দীপন বিশ্বাস। 
বিশদ

07th  December, 2019
কতই রঙ্গ আছে প্রেমের দুনিয়ায় 
কাঁটা গাছে ফুটলো ফুল

সারা বিশ্বেই ফরাসি কমেডির এক অমোঘ আকর্ষণ রয়েছে। বিশেষ করে সে নাটক যদি হয় ‘ফ্লেউর দ্য ক্যাকটাস’। যার রচয়িতাদ্বয় হলেন প্যারি ব্যারিলেট এবং জাঁ পিয়ের গ্রেডি। এই নাটক সেই দেশের মঞ্চে অভিনীত হতে শুরু করেছিল ১৯৬৫ সালের ৮ ডিসেম্বর।
বিশদ

30th  November, 2019
দীনবন্ধু, গিরিশ ও শম্ভু মিত্র পুরস্কার প্রদান
পুরস্কার মূল্য দান করলেন ব্রাত্য

  পশ্চিমবঙ্গ তথ্য ও সংস্কৃতি বিভাগ এবং পশ্চিমবঙ্গ নাট্য অ্যাকাডেমির যৌথ উদ্যোগে, প্রতি বছরের মত এবারেও জমে উঠেছে ‘ঊনবিংশ নাট্যমেলা’। ১১ দিন ব্যাপী এই নাট্যোৎসবে কলকাতাসহ বিভিন্ন জেলার ২৩০টির মতো নাট্যদল তাদের প্রযোজনাকে মঞ্চস্থ করার সুযোগ পেয়েছে।
বিশদ

30th  November, 2019
 ছাতার নীচে বাঁচা

ভারি বর্ষার এক রাত। তুমুল ঝড়ে ভেঙ্গে গেল এক ব্যাঙের ছাতা। তাহলে উপায়? মাথাটাকে যে বাঁচাতে হবে! অতএব দুর্যোগের মধ্যেই সে বেরিয়ে পড়ল অন্য ছাতার খোঁজে। সে আসলে ব্যাঙ নয়। ব্যাঙরূপী কূপমন্ডক এক মানুষ। কিন্তু সে তো এই সমাজের জীব। কাজেই ছাতা যে তার চাই-ই। সমাজের কোন মানুষটি তাকে দেবে ছাতার আশ্রয়?
বিশদ

30th  November, 2019
সায়কের বর্ষপূর্তি উৎসব

 ৪৬ বছর অতিক্রম করল নাট্যদল সায়ক। সেই উপলক্ষে প্রতিবছরের মতো এবছরও একটি নাট্য উৎসবের আয়োজন করেছে তারা। অ্যাকাডেমি প্রেক্ষাগৃহে আগামী ১ ও ২ ডিসেম্বর মোট ৩টি নাটক মঞ্চস্থ হবে। বিশদ

30th  November, 2019
 থেসপিয়ানসের রৌপ্যজয়ন্তী

থেসপিয়ানস তাদের রৌপ্য জয়ন্তী উপলক্ষে গত ২৩ নভেম্বর স্টার থিয়েটারে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিল। মঞ্চস্থ হয় তাদের নতুন নাটক ‘বিসর্জন’। এরপর বিভিন্ন ক্ষেত্রের গুণি মানুষদের সম্মাননা জ্ঞাপন করা হয়।
বিশদ

30th  November, 2019
একনজরে
নয়াদিল্লি, ৮ ডিসেম্বর: চলতি বছরের নভেম্বর মাসে গাড়ির উৎপাদন ৪.৩৩ শতাংশ বৃদ্ধি করল মারুতি সুজুকি ইন্ডিয়া (এমএসআই)। বাজারে চাহিদা না থাকায় টানা ন’মাস ধরে গাড়ির উৎপাদন কমিয়ে এনেছিল সংস্থাটি। মারুতি সুজুকি ইন্ডিয়া তরফে জানানো হয়েছে, নভেম্বর মাসে ১ লক্ষ ৪১ ...

বিএনএ, সিউড়ি ও সংবাদদাতা, শান্তিনিকেতন: লাভপুরে একই পরিবারের তিন ভাইয়ের হত্যা মামলায় নতুন করে সাপ্লিমেন্টারি চার্জশিট জমা দিল পুলিস। নতুন করে চার্জশিটে নাম জুড়ল বিজেপি নেতা মনিরুল ইসলামের।  ...

সংবাদদাতা, পুরাতন মালদহ : যে আমবাগান থেকে দিন তিনেক আগে উদ্ধার করা হয়েছে দগ্ধ মহিলার দেহ, তার এক প্রান্তে রয়েছে আড়াপুর জোত টিপাজানি আহ্লাদমণি ঘোষ ...

হায়দরাবাদ, ৮ ডিসেম্বর (পিটিআই): তেলেঙ্গানায় পশু চিকিৎসককে গণধর্ষণ করে পুড়িয়ে মারায় অভিযুক্ত চারজনের পুলিসি এনকাউন্টার নিয়ে রবিবারও পুরোদস্তর তদন্তের প্রক্রিয়া চালাল জাতীয় মানবাধিকার কমিশন। শনিবার থেকে এই তদন্ত শুরু হয়েছে।  ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
aries

মাঝে মধ্যে মানসিক উদ্বেগের জন্য শিক্ষায় অমনোযোগী হয়ে পড়বে। গবেষণায় আগ্রহ বাড়বে। কর্মপ্রার্থীদের নানা সুযো ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৪৮৩: অন্ধকবি সুরদাসের জন্ম
১৮৯৮: বেলুড় মঠ প্রতিষ্ঠিত হল
১৬০৮: ইংরেজ কবি জন মিলটনের জন্ম
১৯৪৬: কংগ্রেস নেত্রী সোনিয়া গান্ধীর জন্ম
১৯৪৬: অভিনেতা শত্রুঘ্ন সিনহার জন্ম
২০১১: আমরি হাসপাতালে আগুন 





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৪৯ টাকা ৭২.১৯ টাকা
পাউন্ড ৯২.২০ টাকা ৯৫.৫৪ টাকা
ইউরো ৭৭.৭৫ টাকা ৮০.৭৪ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
07th  December, 2019
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮, ৩৮৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬, ৪২০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৬, ৯৬৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৩, ৪০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৩, ৫০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
08th  December, 2019

দিন পঞ্জিকা

২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ৯ ডিসেম্বর ২০১৯, সোমবার, দ্বাদশী ৯/২৩ দিবা ৯/৫৪। ভরণী ৫৭/৯ শেষ রাত্রি ৫/০। সূ উ ৬/৮/৫৩, অ ৪/৪৮/২৯, অমৃতযোগ দিবা ৭/৩৩ মধ্যে পুনঃ ৮/৫৮ গতে ১১/৬ মধ্যে। রাত্রি ৭/২৮ গতে ১১/২ মধ্যে পুনঃ ২/৩৫ গতে ৩/৩০ মধ্যে, বারবেলা ৭/২৭ গতে ৮/৪৮ মধ্যে পুনঃ ২/৮ গতে ৩/২৮ মধ্যে, কালরাত্রি ৯/৪৮ গতে ১১/২৮ মধ্যে। 
২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ৯ ডিসেম্বর ২০১৯, সোমবার, দ্বাদশী ৭/১০/১১ দিবা ৯/২/২২। ভরণী ৫৭/৩১/১০ শেষরাত্রি ৫/১০/২৬, সূ উ ৬/১০/১৮, অ ৪/৪৯/১, অমৃতযোগ দিবা ৭/৩৯ মধ্যে ও ৯/৪ গতে ১১/১১ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/৩১ গতে ১১/৫ মধ্যে ও ২/৪০ গতে ৩/৩৪ মধ্যে, কালবেলা ৭/৩০/৮ গতে ৮/৪৯/৫৯ মধ্যে, কালরাত্রি ৯/৪৯/৩০ গতে ১১/২৯/৪০ মধ্যে।
১১ রবিয়স সানি 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
দ্বিতীয় টি২০: ওয়েস্ট ইন্ডিজ ভারতের বিরুদ্ধে ৮ উইকেটে জিতল

08-12-2019 - 10:32:44 PM

দ্বিতীয় টি২০: ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৭৩/১ (১০ ওভার) 

08-12-2019 - 09:47:37 PM

দ্বিতীয় টি২০: ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ১৭১ রানের টার্গেট দিল ভারত 

08-12-2019 - 08:47:23 PM

কোচবিহারে বিজেপি-তৃণমূল সংঘর্ষ, জখম ২ 
কোচবিহারে ফের বিজেপি-তৃণমূল সংঘর্ষ। বোমার ঘায়ে জখম দুই তৃণমূল সমর্থক। ...বিশদ

08-12-2019 - 08:23:24 PM

দ্বিতীয় টি২০: ভারত ১৩২/৪ (১৫ ওভার) 

08-12-2019 - 08:19:18 PM

দ্বিতীয় টি২০: ভারত ১১২/৩ (১২ ওভার) 

08-12-2019 - 08:06:46 PM