Bartaman Patrika
রঙ্গভূমি
 

যাত্রাসম্রাজ্ঞী জ্যোৎস্না দত্ত

 মান্না দে বললেন, জ্যোৎস্না তুমি হারমোনিয়ামকেও হারিয়ে দিয়েছ...। জ্যোৎস্না দত্তকে নিয়ে লিখেছেন সন্দীপন বিশ্বাস।

শিল্পীতীর্থের ‘বৈজু-বাওরা’ পালার গানের রিহার্সাল চলছে। সেই পালার সঙ্গীত পরিচালক ছিলেন মান্না দে। তিনি গান তোলাচ্ছেন অভিনেত্রী জ্যোৎস্না দত্তকে। অসাধারণ গানের গলা ছিল জ্যোৎস্না দত্তের। তিনি সেই গানকে তুলে নিয়ে গেলেন অসাধারণ এক উচ্চতায়। হারমোনিয়াম ছেড়ে মান্না দে বসে বসে সেই গান শুনলেন। তারপরে বললেন, ‘জ্যোৎস্না তোমার গলা যে পর্দা ছুঁয়ে ফেলছে, আমার হারমোনিয়াম সেখানে রিড খুঁজে পাচ্ছে না। তুমি হারমোনিয়ামকেও হারিয়ে দিয়েছ।’
তিনি শুধু সঙ্গীতেই অসাধারণ প্রতিভার অধিকারী ছিলেন না, ছিলেন অনেক বড় মাপের অভিনেত্রীও। একেবারে ফ্রক পরা বয়সে ঢুকেছিলেন যাত্রাদলে। স্বাধীনতার পরের বছরে বরিশালে জন্ম। তাঁকে যাত্রাদলে এনেছিলেন ঢোলবাদক যোগেশ নট্ট। অভিনয়ের আবহের মধ্যে মিশে তিনি বড় হয়েছেন। তাঁর শ্বাস প্রশ্বাসের মধ্যে মিশে গিয়েছিল অভিনয়, জীবনে জীবন যোগ করে তিনি হয়ে উঠেছিলেন যাত্রাসম্রাজ্ঞী।
কিশোরী বয়সে নায়িকা চরিত্রে অভিনয়ের সুযোগ পেলেন। তাও এল এক আকস্মিক ঘটনার মধ্য দিয়ে। চণ্ডী অপেরা, জ্যোতিষ অপেরা, মুক্তকেশী অপেরা ঘুরে ততদিনে তিনি এসেছেন সত্যম্বর অপেরায়। প্রথম বড় দল। সেখানেও তিনি সখির দলে নাচ করতেন। সেদিন সিয়ারশোল রাজিবাড়িতে বসেছে গানের আসর। পালার অন্যতম নারী চরিত্রের অভিনেতা নন্দরানী (নন্দদুলাল অধিকারী) সেদিন সময়মতো আসরে এসে পৌঁছতে পারেননি। তিনি শেফালি চরিত্রে অভিনয় করতেন। দলমালিক বিপাকে পড়ে কিশোরী জ্যোৎস্নার হাতে চার আনা পয়সা দিয়ে বললেন, ‘শোন, আজকে তোকে শেফালি চরিত্রটি করতে হবে’। জ্যোৎস্না রোজ বসে বসে দেখতেন, কে কেমন অভিনয় করেন। সব সংলাপ তাঁর মুখস্থ। অবাক হয়ে দেখতেন, কী অসম্ভব দক্ষতায় ছেলেরা মঞ্চে গিয়ে মেয়ের ভূমিকায় অভিনয় করেন। মনে মনে ভাবতেন, সুযোগ পেলেও আমি হয়তো কখনও ওইরকম অভিনয় করতে পারব না। সেই সুযোগ এসে গেল। গুরুপদ ঘোষ ছিলেন তাঁর বিপরীতে। তিনি শুধু বললেন, ‘যা বলবি জোরে জোরে বলবি। সবাই যাতে শুনতে পায়।’ সবাই চেয়েছিলেন সেদিনের মতো যাতে কাজটুকু উৎরে যায়। কিন্তু মঞ্চে যখন জ্যোৎস্না অভিনয় করলেন, দলের সকলেই অবাক হয়ে গেলেন। তাঁর ভিতরের সুপ্ত প্রতিভাকে চিনতে পারলেন। নন্দরাণী ফিরে আসার পর এই খবর পেয়ে বললেন, ‘খুব ভালো। জ্যোৎস্না তুই অনেক বড় হবি।’ আর তিনি দলমালিককে বললেন, ‘আমাকে অন্য চরিত্র দিন। এই চরিত্রটা জ্যোৎস্নাই করুক।’ সকলের অজান্তেই শুরু হল এক নায়িকার পথচলা। পরের বছর নায়িকা চরিত্র পেলেন। নারীর ভূমিকায় নারী। যাত্রায় হয়তো এই প্রথম নয়। কিন্তু জ্যোৎস্নার পথের রেখা ধরে যাত্রাদলে খুলে গিয়েছিল, নারীর ভূমিকায় একজন নারীর অভিনয়ের পথ। সেও ছিল এক নিঃশব্দ বিপ্লব।
পরের বছর ‘ছিন্নশির’ পালায় নায়িকা কাঁকনবাঈয়ের ভূমিকায়। ক্রমে ক্রমে নদী এগিয়ে চলল সাগরের দিকে। যাত্রায় একদিন আলোড়ন ফেলে দিল ব্রজেন্দ্রনাথ দের সোনাই দীঘি পালা। সোনাইয়ের চরিত্রে জ্যোৎস্না দত্তের গান ও অভিনয় সাড়া ফেলে দিল। বছরের পর বছর মানুষ আত্মহারা হয়ে একই পালা দেখতে লাগলেন। আসরে স্থান দেওয়া যাচ্ছে না। মানুষের ঢল নেমেছে সোনাই দীঘি পালা দেখতে। একই আসরে পরপর তিন-চার রাত্রি একই পালার অভিনয় হচ্ছে। যাত্রার ইতিহাসে অমর হয়ে রইল সোনাই দীঘি। অমর হয়ে রইলেন জ্যোৎস্না দত্ত। একবার এইচএমভি সোনাই দীঘি পালার লং প্লেয়িং রেকর্ড বের করার পরিকল্পনা নেয়। তারা সোনাই চরিত্রে অন্য কোনও শিল্পীকে নেওয়ার ভাবনাচিন্তা করেন। সেকথা শুনে ব্রজেন দে বলেছিলেন, ‘সোনাই চরিত্রে জ্যোৎস্না ছাড়া অন্য কেউ করলে আমি অনুমতি দেব না।’
দীর্ঘ অভিনয় জীবনের মধ্যে পেয়েছেন বহু আঘাতও। সম্পর্কের ভাঙাগড়ায়, প্রেমের অবমাননায় মন বিক্ষুব্ধ হয়েছে। কিন্তু মঞ্চে যখন উঠেছেন তখন তিনি এক অনন্য সাম্রাজ্ঞী। দর্শকরা তাঁর সামনে নতশির। সত্যম্বর অপেরা, নবরঞ্জন অপেরা, নট্ট কোম্পানি, শিল্পীতীর্থে তাঁর বহু পালা মানুষের মন জয় করেছে। তাঁর সুপারহিট পালাগুলির মধ্যে আছে বন্দির ছেলে, পাষাণের মেয়ে, নটী লক্ষহীরা, বিবি আনন্দময়ী, নটী বিনোদিনী, কবি, মাদার ইন্ডিয়া, বিনয়-বাদল-দীনেশ প্রভৃতি।
স্বপনকুমারের সঙ্গে অভিনয় করেন মাইকেল মধুসূদন পালায়। স্বপনকুমার মাইকেল এবং তিনি দেবকীর চরিত্রে। যখন সেই পালায় মঞ্চে উঠে জ্যোৎস্না গাইতেন, ‘কেন হেরেছিলেম তারে..’ মানুষ অবাক হয়ে যেতেন। সহ অভিনেতাদের মধ্যে পেয়েছিলেন ফণিভূষণ বিদ্যাবিনোদ, মহেন্দ্র গুপ্ত, তপনকুমার, মোহিত বিশ্বাস, দিলীপ চট্টোপাধ্যায়, অসীমকুমার, গুরুদাস ধাড়া প্রমুখ অভিনেতাকে। গুরুদাস ধাড়ার সঙ্গে মঞ্চে এবং ব্যক্তিগত জীবনেও জুটি বেঁধেছিলেন।
জ্যোৎস্না দত্তের আর একটি ক্ষমতা ছিল। অনেকসময় তিনি পার্ট মুখস্থ না করেও শুধু প্রম্পট শুনে অভিনয় করতে পারতেন। পরের দিকে যখন যাত্রার আসর থেকে প্রম্পটার পদটিই ধীরে ধীরে বিদায় নিতে শুরু করল, তখনও তিনি ব্যক্তিগত প্রম্পটার নিয়ে অভিনয় করতেন। এমনও হয়েছে, প্রম্পটার হাতে টর্চ নিয়ে গ্রামবাংলায় স্টেজের নীচে বসে প্রম্পট করতেন। শোনা যায়, রিহার্সালের আগে তিনি নিজে পার্ট পড়তেন না। তাঁর পার্ট একজন পড়ে দিতেন এবং তিনি শুনে শুনে পার্ট মুখস্থ করতেন। ১৯৮৫ সালে নিজেই তৈরি করেছিলেন গীতাঞ্জলি অপেরা। প্রথম বছরের পালা আলতারাঙা পা বিশেষ বাণিজ্য সফল হয়নি। পরের বছর অর্থাৎ ’৮৬ সালে তিনি অভিনয় করেন সুনীল চৌধুরির মুচি মায়ের শুচি ছেলে। ভক্ত রুইদাসের জীবনী নিয়ে নাটক। সেই পালায় জ্যোৎস্না করেছিলেন রুইদাসের মায়ের চরিত্র। সেই পালার রিহার্সালের একটি অভিজ্ঞতার কথা শুনেছি নাট্যকার ও নির্দেশক সুনীল চৌধুরীর মুখে। সেদিন সুনীলবাবু সকলকে পালার পার্ট বিতরণ করছিলেন। একে একে সকলকে দিয়ে যখন তিনি জ্যোৎস্না দত্তকে পার্টের খাতা দেন, তখন তিনি সুনীলবাবুকে প্রণাম করতে যান। আপত্তি জানিয়ে সুনীলবাবু বলেন, ‘আমি আপনার থেকে অনেক ছোট। আমাকে প্রণাম করবেন না।’ তখন জ্যোৎস্না দত্ত বলেন, ‘আপনি এই পালার নির্দেশক। মানে নাট্যশিক্ষক। এখানে বড়ছোটর কোনও প্রশ্ন নেই। শিক্ষক সবসময় প্রণম্য। তুলসীপাতা কিংবা শালগ্রাম শিলার আবার ছোটবড় হয় নাকি!’ কিন্তু সব সুনাম, সব খ্যাতি, অর্থ একদিন খসে পড়ল পদ্মপাতার জলের মতো। শেষের দিকে গ্ল্যামার গেল, সংলাপ মনে রাখতে পারতেন না। কোনও দলই তাঁকে নিতে চাইত না। তিনি সবাইকে শুধু বলতেন, ‘আমাকে একটা কাজ দেবে।’ গুরুদাস ধাড়া মারা গিয়েছেন। অসহায় অবস্থা তাঁর। সেই সময় যাত্রাভিনেতা অসীমকুমার কয়েক মাস তাঁর কাছে রেখেছিলেন। সেইরকম এক সময়ে এই প্রতিবেদক হেদুয়ার কাছে তাঁর বাড়িতে সাক্ষাতের জন্য গিয়েছিল। নিজের ভাগ্য আর দুরবস্থার কথা বলে তিনি সেদিন হাউহাউ করে কেঁদে বলেছিলেন, ‘আমার আজ কিচ্ছু নেই। আমি শূন্য, আমি শূন্য।’ এ কোনও যাত্রাপালার সংলাপ বা অভিনয়ের কান্না ছিল না। খ্যাতি এবং বিত্তের চূড়া থেকে অতল খাদে পড়ে যাওয়া এক তাপিত হৃদয়ের প্রকৃত কান্না। নিঃশব্দে উঠে চলে এসেছিলাম।
04th  May, 2019
আমি চপল ভাদুড়ী
না চপলরানি!

একসময় নারী চরিত্রে পুরুষদের অভিনয় করাটাই ছিল রেওয়াজ। সেই যুগের শেষ জীবিত প্রতিনিধি চপল ভাদুড়ীর সঙ্গে কথা বললেন সঞ্জীব বসু। বিশদ

04th  May, 2019
হাল্কাচালের হাসির নাটক

গত ১৯শে মার্চ বেহালার শরৎ সদনে অনুষ্ঠিত হল ‘ক্রিয়েটিভ বেহালা’ অয়োজিত নাটক ‘সোনার মাদুলি’। নাটকটি রচনা করেছেন বিমল বন্দোপাধ্যায়। পরিচালনায় সুদীপ বন্দোপাধ্যায়। সুদীপ ব্যানার্জী ক্রিয়েশনের সহযোগিতায় বেহালার এই দলটি আগামীদিনে নাট্য জগতে বিশেষভাবে এগিয়ে আসছে।
বিশদ

04th  May, 2019
ঐহিকের নাট্য আসর

গতবারের মতো এবারেও ‘ঐহিক সৃষ্টি সুখের উল্লাসী’ আয়োজন করেছিল সারাদিনব্যাপী এক নাটকের আসরের। যার শিরোনাম ‘বাংলার নটনটী—অভিনয়ের অঙ্গনে নটনটীর দক্ষতা’। তপন থিয়েটারে ৩ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হয় এই নাট্য আসর।
বিশদ

04th  May, 2019
আজও প্রাসঙ্গিক বিসর্জন

আজ আর কোনও দেশের সঙ্গে কোনও দেশ সরাসরি যুদ্ধে জড়িয়ে পড়ে না। এখন হয় যুদ্ধ যুদ্ধ খেলা, যার গালভারি নাম ছায়া যুদ্ধ। যুদ্ধ হচ্ছে না অথচ যুদ্ধের প্রস্তুতি চলছে সব দেশেই। কেনা হচ্ছে অস্ত্রশস্ত্রের সম্ভার। বাড়ছে সামরিক খাতে ব্যয় বরাদ্দ। তাছাড়া রয়েছে সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ।
বিশদ

04th  May, 2019
বহুরূপীর নাট্যোৎসব 

বাংলার সবথেকে পুরনো নাট্যদল বহুরূপী ৭১ বছর পূর্ণ করল। আগামী ১ মে তারা ৭২ বছরে পদার্পণ করবে। এই উপলক্ষে প্রতিবছরের মতো এবারেও অ্যাকাডেমি অব ফাইন আর্টসের মঞ্চে তারা আয়োজন করেছে নাট্যোৎসবের। উৎসবের শুরু ৩০ এপ্রিল। চলবে ২ মে পর্যন্ত। 
বিশদ

27th  April, 2019
শৌভনিক ৬৩ 

আগামী ১ মে ৬৩ বছরে পা দিতে চলেছে শৌভনিক নাট্যদল। বিগত ৬২ বছরে বহু স্বল্পদৈর্ঘ্য ও পূর্ণাঙ্গ নাটক প্রযোজনা করেছে শৌভনিক। যার মধ্যে অধিকাংশই মঞ্চসফল। শুধু নাট্য প্রযোজনাই নয়।  
বিশদ

27th  April, 2019
দেখতে ভালো লাগে অভিনয় ও কোরিওগ্রাফির জন্য 

সম্প্রতি ‘তৃপ্তি মিত্র নাট্যগৃহে’ এক অন্তরঙ্গ নাট্য উৎসবের আয়োজন করে ছিল ‘সিমলা এ-বং পজিটিভ’ নাট্যদল। প্রথমেই তাদের উপস্থাপনা ছিল, বাংলাদেশের কবি কালপুরুষের ‘ঈশ্বর ও তুমি’ কবিতার নাট্যরূপ।
বিশদ

27th  April, 2019
মঞ্চে মার্ক টোয়েনের কথা 

শুধুমাত্র উপস্থাপনার গুণে কীভাবে নিছক কিছু কথা, বর্ণনা আর সংলাপক্ষেপণ শরীরীভাষার সঙ্গে মিলেমিশে দর্শককে নাটক দেখার আনন্দ দেয় তা বোঝা গেল বিনয় শর্মার অভিনয় দেখে। সম্প্রতি পদাতিকের নিজস্ব মঞ্চে অভিনীত হল ‘মার্ক টোয়েন-লাইভ ইন বোম্বে’। 
বিশদ

27th  April, 2019
আটেশ্বরতলার নাট্যোৎসব
যথার্থই মানুষের উৎসব 

নাট্যোৎসব তো কতই হয়। কিন্তু সেটা সত্যি সত্যি উৎসবের চেহারা নেয় ক’টা জায়গায়? বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই তো নিমন্ত্রিত বিশিষ্ট অতিথিদের সমাগমে প্রেক্ষাগৃহ ভরে ওঠে। সাধারণ মানুষের স্বতস্ফূর্ত অংশগ্রহণ দেখা যায় ক’টা ক্ষেত্রে? একসময় কয়েকটা ক্ষেত্রে হলেও এখন বোধহয় একটি ক্ষেত্রেও তা চোখে পড়ে না।  
বিশদ

27th  April, 2019
গানের আসরেই অসুস্থ হয়ে পড়ে গেলেন দাশু রায় 

অকাবাঈয়ের দলে যে গান দাশরথী বাঁধতেন, তা খুব উচ্চমানের ছিল না। কেননা তার শ্রোতারা ছিলেন যথেষ্ট নিম্নরুচি সম্পন্ন। তাই দাশরথী রায় তৃপ্তি পাচ্ছিলেন না। শুধু অকাবাঈকে ভালোবেসে তিনি পড়েছিলেন সেই দলে। অকাবাঈয়ের সংসর্গ কাটানোর জন্য তাঁর মামা অন্যত্র একটা চাকরির ব্যবস্থা করে দিলেন।  
বিশদ

27th  April, 2019
সভাগার থিয়েটার ফেস্টিভ্যাল

 সংস্কৃতি সাগর ও সেন্টার স্টেজ ক্রিয়েশনের যৌথ উদ্যোগে ২২ থেকে ২৪ মার্চ বিড়লা সভাগৃহে হয়ে গেল সভাগার থিয়েটার ফেস্টিভ্যাল। ছিল তিনটি ভিন্নস্বাদের নাটক। পৌরাণিক, সামাজিক ও মনস্তাত্ত্বিক নাটকগুলির আলোচনায় কমলিনী চক্রবর্তী।
বিশদ

20th  April, 2019
 কালিন্দী নাট্যসৃজনের নতুন নাটক

  মোহন রাকেশের ‘আষাঢ়কা একদিন’ নাটকের অবলম্বনে কালিন্দী নাট্যসৃজনের নতুন প্রযোজনা ‘আষাঢ়ের প্রথম দিনে’। বাংলা রূপান্তর করেছেন গৌতম চৌধুরী। নাটকটি আগামী ছাব্বিশে এপ্রিল সন্ধে ছ’টায় তপন থিয়েটারে অভিনীত হতে চলেছে। মোহন রাকেশ নাটকটি লিখেছিলেন উনিশো আটান্ন সালে।
বিশদ

20th  April, 2019
 চতুর্থ অন্তরঙ্গ চর্যাপদ

 আসানসোল চর্যাপদ বিশ্ব নাট্যবিদসে আয়োজন করেছিল চতুর্থ অন্তরঙ্গ চর্যাপদের। যা আসলে অন্তরঙ্গ নাটকের একটি উৎসব। উৎসব শুরু হয় একটি আলোচনা সভা দিয়ে, যার বিষয়বস্তু ছিল, ‘অন্তরঙ্গ থিয়েটার—প্রতিবন্ধকতা ও সম্ভাবনা’। 
বিশদ

20th  April, 2019
দাশরথী রায়কে গানের জগতে
নিয়ে এলেন অকাবাঈ

কলকাতা যে সময়ে বিদ্যাসুন্দর নিয়ে মেতে উঠেছিল, সেই সময়ে গ্রাম বাংলার বুকে ঝড় তুলেছিল পাঁচালি গান। কত রকম পালাগান হত সেই সব পাঁচালি গানের আসরে। কৃষ্ণগান, মঙ্গলকাব্য থেকে বেহুলার ভাসান, লাউসেনের কাহিনী, রামায়ণের গান, মহাভারতের কথা আরও কত কী! গান, দোহার, কাব্য, কথা ইত্যাদির মধ্য দিয়ে একটা কাহিনীকে তুলে ধরা হতো।
বিশদ

20th  April, 2019
একনজরে
 সংবাদদাতা, মালবাজার: ফুল ঝাড়ুকেই এখন প্রধান অর্থনৈতিক ফসল হিসাবে বেছে নিয়েছেন কালিম্পং জেলার গোরুবাথান ব্লকের সামসিং ফরেস্ট কম্পাউন্ড বস্তির কয়েকশ চাষি। অন্যান্য ফসলের তুলনায় সকলেই এখন ঝাড়ুকেই বেশি প্রাধান্য দিচ্ছেন। কারণ ঝাড়ু ফলিয়ে তাঁরা এখন বেশি লাভের মুখ দেখছেন। একবার ...

বীরেশ্বর বেরা, কলকাতা: বালিগঞ্জ ফার্ন রোডের অভিজাত এলাকায় সাদা রঙের দোতলা বাড়ির বাসিন্দা মিতা চক্রবর্তী। এবার তিনি কলকাতা দক্ষিণ কেন্দ্রের কংগ্রেস প্রার্থী। প্রথমবার নির্বাচনে দাঁড়ালেও ...

 নয়াদিল্লি, ১৫ মে (পিটিআই): ষষ্ঠ দফা ভোটের মধ্যেই বিজেপি কেন্দ্রে সরকার গড়ার মতো সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করে ফেলেছে। সপ্তম দফার ভোট সম্পন্ন হলে বিজেপির আসন ৩০০ অতিক্রম করে যাবে। বুধবার দিল্লিতে সাংবাদিক বৈঠকে এই মন্তব্য করেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। ...

 ব্রিস্টল, ১৫ মে: জাতীয় দলের জার্সিতেও আইপিএলের দুরন্ত ফর্ম বজায় রেখেছেন জনি বেয়ারস্টো। ব্রিস্টলে পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ান ডে’তে তাঁর অনবদ্য সেঞ্চুরিতে ভর করে ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

উপস্থিত বুদ্ধি ও সময়োচিত সিদ্ধান্তে শত্রুদমন ও কর্মে সাফল্য। ব্যবসায় গোলযোগ। প্রিয়জনের শরীর-স্বাস্থ্যে অবনতি। উচ্চশিক্ষায় ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮৩১: বঙ্গ নাট্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা যতীন্দ্রমোহন ঠাকুরের জন্ম
১৯৭০: টেনিস খেলোয়াড় গ্যাব্রিয়েলা সাবাতিনির জন্ম
১৯৭৫: প্রথম মহিলা হিসেবে এভারেস্ট জয় করলেন জুঙ্কো তাবেই
১৯৭৮: অ্যাথলিট সোমা বিশ্বাসের জন্ম





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৯.৪৯ টাকা ৭১.১৮ টাকা
পাউন্ড ৮৯.১৯ টাকা ৯২.৪৬ টাকা
ইউরো ৭৭.৩৪ টাকা ৮০.৩৩ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩২,৮১৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩১,১৩৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩১,৬০০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৭,৩৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৭,৪৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৬ মে ২০১৯, বৃহস্পতিবার, দ্বাদশী ৮/৮ দিবা ৮/১৬। চিত্রা ৫৮/১০ রাত্রি ৪/১৬। সূ উ ৫/০/৮, অ ৬/৫/৪৪, অমৃতযোগ দিবা ৩/২৮ গতে অস্তাবধি। রাত্রি ৬/৪৯ গতে ৯/০ মধ্যে পুনঃ ১১/৫৫ গতে ২/৬ মধ্যে পুনঃ ৩/৩৪ গতে উদয়াবধি, বারবেলা ২/৪৯ গতে অস্তাবধি, কালরাত্রি ১১/৩৩ গতে ১২/৫৫ মধ্যে।
১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৬ মে ২০১৯, বৃহস্পতিবার, দ্বাদশী ৫/৩২/৪৭ দিবা ৭/১৩/২৬। চিত্রানক্ষত্র ৫৭/১১/১৩ রাত্রি ৩/৫২/৪৮, সূ উ ৫/০/১৯, অ ৬/৭/১৫, অমৃতযোগ দিবা ৩/৩৪ গতে ৬/৭ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/৫৮ গতে ৯/৪ মধ্যে ও ১১/৫৬ গতে ২/৪ মধ্যে ও ৩/৩০ গতে ৫/০ মধ্যে, বারবেলা ৪/২৮/৫৩ গতে ৬/৭/১৫ মধ্যে, কালবেলা ২/৫০/৩১ গতে ৪/২৮/৫৩ মধ্যে, কালরাত্রি ১১/৩৩/৪৭ গতে ১২/৫৫/২৫ মধ্যে।
১০ রমজান
এই মুহূর্তে
ঝড়-বৃষ্টিতে তার ছিঁড়ে অন্ধকারে ডুবল জলপাইগুড়ি
জলপাইগুড়ি শহরের বিস্তীর্ন অংশ ডুবে রয়েছে অন্ধকারে। সন্ধ্যা থেকে ঝড়-বৃষ্টির ...বিশদ

08:10:08 PM

ডায়মন্ডহারবারের এসডিপিও এবং আমহার্স্ট স্ট্রিট থানার ওসিকে সরিয়ে দিল নির্বাচন কমিশন

07:27:00 PM

বিমান সংস্থার উপর চটলেন শ্রেয়া
বিমানে বাদ্যযন্ত্র নিয়ে যেতে বাধা দেওয়া হয় সঙ্গীতশিল্পী শ্রেয়া ঘোষালকে। ...বিশদ

06:21:47 PM

ভোটের দিন গরম বাড়বে
উত্তর বঙ্গের পাঁচ জেলায় বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকলেও ভোটের দিন কিন্তু ...বিশদ

06:10:39 PM

এবার কমিশনের তোপের মুখে খোদ সিইও দপ্তরের আধিকারিকরাই
রাজনৈতিক দল ও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব নয়। এবার নির্বাচন কমিশনের তোপের ...বিশদ

05:49:03 PM

সল্টলেকে ৪০ লক্ষ টাকা সহ ধৃত ১
রবিবার ভোট। ঠিক তার মুখে আজ বৃহস্পতিবার সল্টলেকের এফ ই ...বিশদ

05:39:55 PM