Bartaman Patrika
আমরা মেয়েরা
 

কন্যাসন্তানকে রুখে দাঁড়াতে শেখান, মানিয়ে নিতে নয় 

ঘরে বাইরে নারীর এত উন্নতি তবু দিনে দিনে বাড়ছে নারী নির্যাতন। আ‌জকের উন্নত সমাজেও মেয়েরা নিরাপত্তাহীনতায় ভোগে। কিন্তু কেন? কীভাবেই বা নারীর নিরাপত্তা বাড়িয়ে তোলা সম্ভব? প্রশ্ন তুললেন কমলিনী চক্রবর্তী।

‘একা! একা কেন হব? মা তো থাকবে আমার সঙ্গে।’ টিউশন ক্লাস থেকে রাত করে ফেরার পথে কিশোরী কন্যার রক্ষাকবচ হিসেবে মধ্য যৌবনা মায়ের উপস্থিতি কি যথেষ্ট? প্রশ্নটা সেখানেই। বহু যুগ ধরেই ঘরে ও বাইরে নারীর নিরাপত্তা ঘিরে এমন প্রশ্ন উঠছে। আর এই নিরাপত্তাহীনতার ফাঁক গলে নারীর শিক্ষা ও স্বনির্ভরতা কোনওটাই প্রবেশ করতে পারছে না। শিক্ষিত ও স্বনির্ভর নারী তবু নিরাপত্তাহীনতায় ভোগে। এই চিত্রটা শহর থেকে গ্রাম সর্বত্রই মোটামুটি একইরকম।
নারী নিরাপত্তার উপায় সেক্ষেত্রে কীরকম হতে পারে? এই বিষয়ে ইউনিসেফের উইমেন’স সেলের আধিকারিকের বক্তব্য, প্রথমত নারীর কণ্ঠস্বরকে জোরদার করতে হবে। আমাদের সমাজে এখনও মেয়েদের উপস্থিতি গৌণ। তাই তাদের কথার ততটা গুরুত্ব নেই। যতদিন মেয়েদের কথা পুরুষের সমান গুরুত্ব না পাবে ততদিন নারী নিরাপত্তার ওপর প্রশ্নবোধক চিহ্নটা ঝুলেই থাকবে। মেয়েদের কথা না শোনার প্রবণতাটা সেই ছোটবেলা থেকে শুরু হয়। প্রথম যখন বাচ্চা মেয়েটার গায়ে কাকা বা মামা স্থানীয় পুরুষটির অবাঞ্ছিত আদুরে হাত পড়ে এবং সেই কথা মাকে বললে মা ধমক দিয়ে মেয়েকে বলেন, ‘ছিঃ তোমার কাকু...কত ভালোবাসে তোমায়...।’ তখনই নারী নিরাপত্তার গায়ে প্রথম আঁচড় লাগে। ছোট্ট মেয়েটি হয়তো মায়ের বকুনি বা বাবার অবিশ্বাসের চাউনির ভয়ে নীরবে মেনে নেয় কাকা বা মামার অবাঞ্ছিত আদর। এরপর রাস্তাঘাটে নির্যাতনের মুখে পড়েও অনেক সময় মেয়েরা সামাজিক কটাক্ষের লজ্জায় সরব হওয়ার সাহস পায় না। সাধারণত নির্যাতনের বিরুদ্ধে সরব হলে মেয়েটির দিকেই সমাজের আঙুল ওঠে। ক্রমশ নির্যাতন সহ্য করতে করতে মেয়েটি বড় হয়ে যায়। বিয়ের পিঁড়িতে গিয়ে বসে। তারপর কখনও স্বামী বা শ্বশুরবাড়ির অত্যাচার অসহ্য হলে সে বিষয়ে বাপের বাড়িতে বলতে এসেও ফল পায় না। অনেক মা বাবাই মানিয়ে নেওয়ার পরামর্শ দেন নিজের কন্যাটিকেই। কারণ সমাজের চোখে আজও মেয়ের বাড়ির তুলনায় ছেলের বাড়ির জোর বেশি। বধূ নির্যাতনের বিরুদ্ধে যতই কড়া আইন আনা হোক না কেন, সমাজ আজও স্ত্রীর থেকে স্বামীর কথার গুরুত্ব দেয় বেশি।
তাহলে কি নারীর এই নিরাপত্তাহীনতা কোনওদিনই কাটবে না? সামাজিক অগ্রগতি সত্ত্বেও ঘরে বাইরে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগবে মেয়েরা? ইউনিসেফের আধিকারিকের বক্তব্য, নারী জীবনে নিরাপত্তা আনার জন্য আমাদের সমাজকে একটু ভাবতে হবে। কোনও মেয়ে যখন নির্যাতনের নালিশ নিয়ে পুলিসের কাছে যায় তখন সেই নালিশের বিরুদ্ধে সঠিক পদক্ষেপ নেওয়া অত্যন্ত জরুরি। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই দেখা যায় সঠিক পদক্ষেপ তো নেওয়া হয়ই না, উল্টে মেয়েটিকে বিদ্রুপের শিকার হতে হয়। সমাজের এই মনোভাব যতদিন না বদলাবে ততদিনই নারী নিরাপত্তাহীনতায় ভুগবে।
মেয়েদের বিরুদ্ধে এই যে কটাক্ষ বা বিদ্রুপ তার কারণ বেশিরভাগ পুলিস থানা বা অন্যান্য আবেদনকেন্দ্রই পুরুষ নিয়ন্ত্রিত। ফলে মেয়েদের কথা, তাদের অভিযোগ সবসময়ই পুরুষের কাছে গিয়ে পড়ে। আর তখনই পক্ষপাত বা কটাক্ষের প্রশ্ন ওঠে। তাই এই পক্ষপাত এড়াতে মহিলাদের শীর্ষে রেখে যদি কিছু অভিযোগকেন্দ্র গড়ে তোলা যায় তাহলে নারী নিরাপত্তা বিষয়টি সমাজের চোখে বেশি গুরুত্ব পাবে। শহরে ও গ্রামে বা মফস্‌সলে যত তাড়াতাড়ি এমন নারী কেন্দ্রিক অভিযোগকেন্দ্র গড়ে তোলা যাবে ততই নারী নিরাপত্তা বিষয়টি সমাজের চোখে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠবে।
সোশ্যাল মিডিয়ার ভূমিকাও এক্ষেত্রে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এমন কিছু প্ল্যাটফর্ম থাকা দরকার যেখানে নারী নিরাপত্তার বিভিন্ন প্রসঙ্গ বারে বারে তুলে ধরা যায়। নারী নিরাপত্তার নানা দিক যত বেশি সমাজের সামনে উত্থাপিত হবে ততই বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠবে। এমন বিভিন্ন এনজিও রয়েছে যারা মহিলাদের নিয়ে কাজ করে, সেইসব এনজিওগুলোকেও আরও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে হবে নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে। লাঞ্ছিত মহিলাদের কথা তাদের মারফতও উঠে আসতে পারে সোশ্যাল মিডিয়ার আয়নায়। মোটমাট নারীকে বোঝাতে হবে তারাও এই সমাজের অর্ধেকটা জুড়ে রয়েছে। মেয়েদের সসম্মানে বাঁচার অধিকার না থাকলে তা সমাজেরই ব্যর্থতা। তবে ঘরে ও বাইরে নারী নিরাপত্তা আরও দৃঢ় করার জন্য সবচেয়ে বেশি দরকার নারীর সচেতনতাবোধ। মেয়েদের বুঝতে হবে লাঞ্ছিত হয়ে মাথা নিচু করার মধ্যে কোনও কৃতিত্ব নেই। বরং মাথা উঁচু করে নির্যাতনের প্রতিবাদ করাই এ যুগের মেয়েদের ধর্ম।
তাই নির্যাতনের বিরুদ্ধে সরব হন। অত্যাচারের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ান। এভাবে নিজেই হয়ে উঠুন নিজের রক্ষাকবচ। আর দোহাই মায়েদের, ছোট থেকে কন্যাসন্তানটিকে মানিয়ে নিতে শেখাবেন না। 
30th  November, 2019
ভলিবলে বিজয়িনী তারকেশ্বরের দুই কন্যা তিথি ও অনন্যা 

গ্রামবাংলার মেয়েরাও ক্রীড়াজগতে আজ পিছিয়ে নেই। বিভিন্ন প্রতিযোগিতামূলক খেলার আসরে অংশগ্রহণ করে ক্রীড়াচাতুর্যে বিজয় ডঙ্কা বাজিয়ে বিজয়িনী হয়ে তারা সাফল্যের স্বাক্ষর রেখে চলেছে। এমনই দুই মহিলা ভলিবল খেলোয়াড়ের সাফল্যের ইতিবৃত্ত সংবাদের শিরোনামে উঠে এসেছে। 
বিশদ

30th  November, 2019
নারীদের সূর্যপূজা 

ভারতের মেয়েরা সামাজিক তথা দেশীয় নির্দেশানুসারে ধর্মীয় অধিকার ও সুযোগ-সুবিধা থেকে বহুকালই বঞ্চিত ছিলেন। তাই তাঁরা বিভিন্ন ব্রত পালনের মধ্য দিয়ে তাঁদের আশা-আকাঙ্ক্ষাকে পূরণ করার চেষ্টা করতেন।  
বিশদ

30th  November, 2019
লাল রং জোরিকার মনে শক্তি জাগায় 

গোটা জীবনই লালের মধ্যে কেটেছে বসনিয়ার জোরিকা রেবার্নিকের। মৃত্যুর পরও তিনি ঠিক এভাবেই থাকতে চান। গত চার দশক ধরে মাথা থেকে পা পর্যন্ত লাল রঙা পোশাক পরছেন জোরিকা। তাঁর স্বামী জোরানের সঙ্গে বিয়েটাও হয়েছিল লাল রঙের গাউন পরেই।  বিশদ

23rd  November, 2019
চা-বাগানে প্রথম মহিলা ম্যানেজার 

উত্তরপূর্ব ভারতের অসমে চা বাগানের ২০০ বছরের ইতিহাসে এই প্রথম কোনও একজন নারী ম্যানেজারের পদে নিযুক্ত হয়েছেন। ৬৩৩ হেক্টরেরও বেশি এলাকা জুড়ে থাকা বাগানের আনাচে-কানাচে মোটরবাইক বা সাইকেল অথবা জিপে চেপে ঘুরে দেখাশোনার কাজ করবেন ৪৩ বছর বয়সি মঞ্জু বড়ুয়া।  বিশদ

23rd  November, 2019
অল ইন ওয়ান মৈত্রেয়ী 

তারিখটা ছিল ৩ নভেম্বর, ১৯৭৯। বয়স তখন সবে মাত্র ১০ বছর ছাড়িয়েছে। কলকাতার রাশিয়ান কনস্যুলেট জেনারেলের অফিসের সাংস্কৃতিক বিভাগ থেকে তাকে চিঠি দিয়ে ডেকে পাঠানো হল গোর্কি সদনে।  বিশদ

23rd  November, 2019
অবসরের পর অবসাদ নয় 

শিক্ষা আর স্বনির্ভরতা—এই দুটি ডানায় ভর করে এখন মেয়েরা অনেক বেশি বাইরে কাজ করেন। সেই কাজ অত্যন্ত দায়িত্ব নিয়ে যোগ্যতার সঙ্গে তাঁরা পালন করেন। বহু বছর সেই কাজ দায়িত্ব নিয়ে পালন করার পর হঠাৎ সেই কর্মজগৎ থেকে সরে আসায় একটা মানসিক সমস্যায় অনেককেই ভুগতে দেখা যায়।  বিশদ

23rd  November, 2019
অ্যাডভেঞ্চার প্রিয় রাকুল 

রাকুল প্রীত সিংয়ের কেরিয়ার শুরু মডেলিং দিয়ে। এখন তিনি দক্ষিণের এবং বলিউডের ব্যস্ততম নায়িকা। নিজের লাইফস্টাইেলর কথা জানালেন রাকুল। 
বিশদ

16th  November, 2019
অ্যাথলেটিক্সে নয়া নজির
দুই মায়ের বিশ্বরেকর্ড 

অ্যাথলেটিক্সের ইতিহাসে দাপট এখন মেয়েদের, বলা চলে দুই মায়ের। যারা অসম্ভবকে সম্ভব করলেন। সম্প্রতি দোহায় অনুষ্ঠিত বিশ্ব অ্যাথলেটিক্স চ্যাম্পিয়নশিপে জামাইকার ‘স্প্রিন্ট কুইন’ শেলি অ্যান ফ্রেজার প্রাইস ১০০ মিটার দৌড়ে চার নম্বর সোনা জিতলেন দুর্দান্তভাবে।  বিশদ

16th  November, 2019
দুয়ের বেশি সন্তান মায়েদের
জন্য অশনিসংকেত 

দুয়ের বেশি সন্তান যে সব মায়েদের, তাঁদের জন্য আশঙ্কার খবর শুনিয়েছেন বিজ্ঞানীরা। যাঁদের সন্তান সংখ্যা দুই বা তার বেশি তাঁরা স্বাস্থ্যগত ঝুঁকিতে রয়েছেন। সাম্প্রতিক এক গবেষণার শেষে বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, নারীরা দুয়ের বেশি কয়টি সন্তানের জননী, তার ওপর নির্ভর করে তিনি কতটা স্বাস্থ্যগত ঝুঁকিতে রয়েছেন।   বিশদ

16th  November, 2019
পুরুষের তুলনায় ঘুমের
বেশি প্রয়োজন নারীদের 

নারী ও পুরুষের শারীরিক চাহিদা যে আলাদা সে কথা প্রায় সবারই জানা। যেমন পুরুষের তুলনায় নারীর ঠান্ডা লাগে বেশি। তেমনই ঘুম ব্যাপারটি পুরুষের তুলনায় নারীরই বেশি প্রয়োজন। সমীক্ষায় এমনই তথ্য সামনে এসেছে। সেখানে বলা হয়েছে নারীদের ঘুমের প্রয়োজন বেশি হওয়ার মূল কারণ দুটি। বিশদ

16th  November, 2019
নারীবাদ ও নারীমুক্তি  

মহিষাসুরের কবল থেকে স্বর্গরাজ্য উদ্ধারের জন্য দেবতাগণ দেবী দুর্গার আবাহন করেছিলেন। তিনি দশভুজা, অসুরদলনী এবং সর্বোপরি তিনি মা। নারীকে তুলনা করা হয় দেবী দুর্গার সঙ্গে। ঋগ্‌বেদের যুগে সমাজ ছিল মাতৃতান্ত্রিক। সেই সমাজে নারীই ছিল প্রধান।  বিশদ

16th  November, 2019
 শিশুর সামাজিক বিকাশে নারীর ভূমিকা

বর্তমান জীবনের প্রেক্ষাপটে বিশ্লেষণ করলে শিশু কতটা সফল তা অনেকটাই নির্ভর করে শিশুর সামাজিক বিকাশের উপর। সুন্দর সামাজিক বিকাশ শিশুকে পরবর্তী জীবনে করে তোলে সফল, সক্ষম ও সুনাগরিক। বিশদ

09th  November, 2019
 ৭৫ বছর ধরে মেয়েদের স্বাবলম্বী করার লক্ষ্যে
নারী সেবা সংঘ

  ১৯৪৩ সাল। সবে শেষ হয়েছে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ। দেশ তথা বাংলা তখন ভয়াবহ দুর্ভিক্ষের কবলে পড়ে প্রায় বিধ্বস্ত। আর সে সময়ই বাংলার কিছু সমাজ সচেতন ব্যক্তি এগিয়ে আসেন, দুর্ভিক্ষের কবলে পড়ে করুণ অবস্থার শিকার হওয়া মহিলা আর শিশুদের উপকার করার জন্য। বিশদ

09th  November, 2019
 অগ্নিযোদ্ধা তানিয়া

 হাতে সময় মাত্র ২ মিনিট ১৮ সেকেন্ড, আর সেটাই হচ্ছে সারভাইভাল টাইম। বিমান দুর্ঘটনা ঘটলে, এটুকু সময়ের মধ্যেই যা করার করতে হবে। উদ্ধার কাজ শেষ করার জন্য বরাদ্দ এই সময়টাকে কাজে লাগাতে না পারলে প্রাণ বাঁচানো যাবে না বিমানযাত্রী এবং কর্মীদের। তাই গোটা প্রক্রিয়াটাই খুব চ্যালেঞ্জিং।
বিশদ

09th  November, 2019
একনজরে
সংবাদদাতা, কুমারগ্রাম: উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তর আলিপুরদুয়ার শহরের ইন্ডোর স্টেডিয়ামের পাশে অত্যাধুনিক ব্যায়ামাগার তৈরির কাজ শুরু করছে। এই কাজ অনেকটাই এগিয়ে গিয়েছে। জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, এটির কাজ সম্পূর্ণ হয়ে গেলে আলিপুরদুয়ার জেলা ক্রীড়া সংস্থার হাতে তা তুলে দেওয়া হবে।  ...

 ন্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জে যেসব সংস্থার শেয়ার গতকাল লেনদেন হয়েছে শুধু সেগুলির বাজার বন্ধকালীন দরই নীচে দেওয়া হল। ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্র চালানোর খরচের ৯০ শতাংশ আগে কেন্দ্রীয় সরকার দিত। এখন দিচ্ছে ৪০ শতাংশ। ফলে রাজ্য সরকারকে দিতে হচ্ছে বাকি ৬০ শতাংশ টাকা। পরিস্থিতি এরকম হলেও রাজ্য সরকার অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রগুলি চালিয়ে যাবে বলে সোমবার বিধানসভায় জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী ...

সংবাদদাতা, গাজোল: শীত এখনও সেভাবে না পড়লেও মাল্টার জন্য এখন থেকেই অপেক্ষা শুরু হয়ে গিয়েছে মালদহে। অনেকটা কমলালেবুর মতোই দেখতে এই ফল বিগত দুয়েকবছর ধরে ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

দীর্ঘদিনের পরিশ্রমের সুফল আশা করতে পারেন। শেয়ার বা ফাটকায় চিন্তা করে বিনিয়োগ করুন। ব্যবসায় ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

বিশ্ব প্রতিবন্ধী দিবস
১৮৮২: চিত্রশিল্পী নন্দলাল বসুর জন্ম
১৮৮৯: বিপ্লবী ক্ষুদিরাম বসুর জন্ম
১৯৫৬: সাহিত্যিক মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়ের মৃত্যু
১৯৭৯: হকির জাদুকর ধ্যানচাঁদের মৃত্যু
১৯৮২: কবি বিষ্ণু দে’র মৃত্যু
২০১১: অভিনেতা দেব আনন্দের মৃত্যু



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৯৪ টাকা ৭২.৬৫ টাকা
পাউন্ড ৯১.০৫ টাকা ৯৪.৩৪ টাকা
ইউরো ৭৭.৬১ টাকা ৮০.৬১ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,৪৮০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,৫১০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৭,০৬০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৪,৪০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৪,৫০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ৩ ডিসেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, সপ্তমী ৪২/৫৩ রাত্রি ১১/১৪। ধনিষ্ঠা ২০/২৯ দিবা ২/১৭। সূ উ ৬/৪/৫৩, অ ৪/৪৭/২৯, অমৃতযোগ দিবা ৬/৪৬ মধ্যে পুনঃ ৭/২৯ গতে ১১/৪ মধ্যে। রাত্রি ৭/২৭ গতে ৮/২০ মধ্যে পুনঃ ৯/১৩ গতে ১১/৫২ মধ্যে পুনঃ ১/৩৯ গতে ৩/২৫ মধ্যে পুনঃ ৫/৫২ গতে উদয়াবধি, বারবেলা ৭/২৫ গতে ৮/৪৫ মধ্যে পুনঃ ১২/৪৭ গতে ২/৭ মধ্যে, কালরাত্রি ৬/২৭ গতে ৮/৬ মধ্যে। 
১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ৩ ডিসেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, সপ্তমী ৪২/৪৮/৩২ রাত্রি ১১/১৩/৪৯। ধনিষ্ঠা ২২/৪৯/২৩ দিবা ৩/১৪/৯, সূ উ ৬/৬/২৪, অ ৪/৪৭/৫২, অমৃতযোগ দিবা ৭/০ মধ্যে ও ৭/৪২ গতে ১১/১৩ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/৩২ গতে ৮/২৬ মধ্যে ও ৯/২০ গতে ১২/১ মধ্যে ও ১/৪৯ গতে ৩/৩৬ মধ্যে ও ৫/২৪ গতে ৬/৭ মধ্যে, কালবেলা ১২/৪৭/১৯ গতে ২/৭/৩০ মধ্যে, কালরাত্রি ৬/২৭/৪১ গতে ৮/৭/৩০ মধ্যে। 
৫ রবিয়স সানি  

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
শহরে এটিএম জালিয়াতি, আরও ১৪টি অভিযোগ দায়ের 
যাদবপুরের পর এবার চারু মার্কেট থানা এলাকা। শহরে ফের জাঁকিয়ে ...বিশদ

05:13:00 PM

বাংলায় এনআরসি হবে না, ধর্মের ভিত্তিতে ভাগাভাগি করা যাবে না: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় 

04:06:10 PM

বুলবুল: রাজ্যকে আর্থিক সাহায্য পাঠাল কেন্দ্র
বুলবুল-এ ক্ষতিগ্রস্ত রাজ্য হিসাবে পশ্চিমবঙ্গকে আর্থিক সাহায্য পাঠাল কেন্দ্র। রাজ্যকে ...বিশদ

03:42:00 PM

আগামী ২ দিন বসবে না বিধানসভা অধিবেশন
রাজভবনে আটকে রয়েছে বিল । সেখান থেকে বিল না আসায় ...বিশদ

03:36:00 PM

বাগুইআটি উড়ালপুলে ফাটল আতঙ্ক 
বাগুইআটি উড়ালপুলে একটি ফাঁককে ঘিরে আতঙ্ক। উড়ালপুলে ফাটল দেখা দিয়েছে ...বিশদ

02:56:51 PM

বাসন্তীতে তৃণমূল কর্মী খুন 
দক্ষিণ ২৪ পরগনার বাসন্তীতে এক তৃণমূল কর্মীকে গুলি করে খুন ...বিশদ

02:13:31 PM