Bartaman Patrika
আমরা মেয়েরা
 

ডুব দে রে মন কালী বলে 

জব চার্নকের শহরে উত্তর থেকে দক্ষিণ অজস্র কালীবাড়ি রয়েছে। কোনও কালীবাড়ি সম্ভ্রান্ত পরিবারের রানির হাত ধরে, কোনওটা বা ফিরিঙ্গি সাহেবের প্রচেষ্টায় প্রতিষ্ঠা পেয়েছে। সারাবছর যে নিয়মই থাকুক না কেন দীপান্বিতা অমাবস্যায় অর্থাৎ কালীপুজোর বিশেষ দিনে কীভাবে পূজিত হন কলকাতার বিখ্যাত সব মন্দিরের মাতৃমূর্তি? নিয়মকানুন, রীতি-নীতিই বা কী কী রয়েছে? এমন নানা প্রশ্ন আমাদের মনে উঁকি মারে। আসুন জেনে নেওয়া যাক।

দক্ষিণেশ্বর কালী মন্দির: কালীপুজো উপলক্ষে অন্তত দশদিন আগে দেবী মায়ের অঙ্গরাগ শুরু হয়। কালীপুজোর দিনে ভোরে বিশেষ মঙ্গল আরতিই পুজোর প্রধান আকর্ষণ। এছাড়া রয়েছে ঘট স্নান। যে ঘটটি মন্দিরে থাকে সেটিকেই গঙ্গায় নিয়ে গিয়ে নতুন করে জল ভরে পুনঃপ্রতিষ্ঠা করা হয়। কালীপুজোর রাতে এখানে ডাবের জল দিয়ে পুজোর নিয়ম রয়েছে। শ্রীরামকৃষ্ণ প্রদর্শিত পথেই দেবীর আরাধনা হয়। কালীপুজোর রাতে জাঁকজমকপূর্ণ পুজোয় থাকে নানাবিধ ভোগ-উপচার। সাদাভাত, ঘি, পাঁচরকমের ভাজা, শুক্তো, তরকারি, চার থেকে পাঁচরকমের মাছের পদ, চাটনি, পায়েস আর মিষ্টি নিবেদন করা হয়। সেদিন মন্দির চত্বর সারাদিন খোলা থাকে। পুজো শেষের পর মায়ের ভোগ ভক্তদের হাতে হাতে দেওয়া হয়। কালীপুজোয় বলিপ্রথা বন্ধ। ভবতারিণী মাকে অন্যান্য দিনের মতো বেনারসি পরানো হয়। পরানো হয় সোনার অলঙ্কার। সোনার বাউটি, বালা, তাবিজ, বাজু, গলায় চিক, মুক্তোর সাতনর মালা, বত্রিশনর, তারাহার, সোনার মুণ্ডমালা। মাথায় মুকুট। কানে কানবালা, কানপাশা, ঝুমকো। নাকে নোলক ও নথ। এছাড়াও অন্যান্য বহু অলঙ্কারে সুসজ্জিত হন মা। দক্ষিণেশ্বর মন্দিরের একটি বিশেষ বিষয় হল এখানে মা সারাবছর বেনার঩সি শাড়ি পরিধান করেন। কোনও ভক্ত যদি দিতে চান তাহলে আজকের দিনের হিসেব অনুযায়ী প্রায় সতেরো-আঠারো বছর পর তা মাকে পরানো হবে। তবে তার আগে চিঠি দিয়ে তাঁকে বা তার পরিবারকে জানানো হয়।

ঠনঠনিয়া কালীবাড়ি: বিধান সরণীতে অবস্থিত ঠনঠনিয়া কালীবাড়ি। সারাবছর ভক্ত সমাগম এখানে লেগেই থাকে। প্রায় তিনশোর বেশি বয়েসের পুরনো এই মন্দির। এখানে রামকৃষ্ণদেব নিজে আসতেন। শিষ্য কেশবচন্দ্র সেন অসুস্থ থাকার সময় তিনি ডাব আর চিনি দিয়ে সিদ্ধেশ্বরী মাকে মানত করে পুজো দিয়েছিলেন। দীপান্বিতা কালীপুজোর জন্য কৃষ্ণাপঞ্চমীতে মাকে বেদি থেকে নামানো হয়। সে সময় দেবীর অঙ্গরাগ হয়। ধন ত্রয়োদশীতে ‘মা’কে পঞ্চমুণ্ডির আসনে আবার প্রতিষ্ঠা করা হয়। কালীপুজোর দিন পরানো হয় দুর্মূল্য বেনারসি শাড়ি। এছাড়া নানা অলঙ্কারে সাজানো হয় বিগ্রহকে। কালীপুজোর দিন ঠনঠনিয়া মন্দিরে সাজ সাজ রব। বিশাল আয়োজন। ভূতচতুর্দশীতে মা সিদ্ধেশ্বরীকে সাজানো হয় রাজরাজেশ্বরী রূপে। দেবীর মাথায় নটি রুপোর ছাতা, মুকুট, কানপাশা, বালা, কঙ্কণ, মানতাসা, সীতাহার তোড়া সহ নানা অলঙ্কারে সুসজ্জিতা করা হয়। মন্দিরের বহু বছরের পুরনো সেবায়েত গুণময় ভট্টাচার্যের কথায় মায়ের রাজরাজেশ্বরী বেশ দেখার জন্য দূরদূরান্ত থেকে ভক্তরা ছুটে আসে। এদিন মঙ্গলারতি হয় ভোর চারটেয়। রাতে নিরামিষ ভোগ হয়। ভক্তরা কুপন কাটলে মায়ের প্রসাদ পেতে পারেন। কালীপুজোর বিশেষ ভোগে থাকে লুচি, তিন থেকে পাঁচরকম ভাজা, আলুর দম, ধোঁকার ডালনা, ও নানা ধরনের মিষ্টি। আজও এই মন্দিরে বলিদান হয়। পুরোহিত গুণময় ভট্টাচার্য জানিয়েছেন, কালীপুজোর দিন বা অন্যান্য সময়ে ভক্তদের দেওয়া সমস্ত উপচার মাকে অত্যন্ত যত্নের সঙ্গে নিবেদন করা হয়।

ফিরিঙ্গি কালীবাড়ি: প্রথম এই মন্দিরটি প্রতিষ্ঠিত হয় শিবমন্দির হিসেবে। পরবর্তীকালে অ্যান্টনি সাহেবের হাত ধরে আজ থেকে প্রায় সাড়ে তিনশো থেকে চারশো বছর আগে মায়ের মূর্তি প্রতিষ্ঠিত হয়। সেই নামানুসারে এবং ফিরিঙ্গি পাড়া হিসেবে এই মায়ের মন্দিরের নাম হয়ে যায় ফিরিঙ্গি কালীবাড়ি। হিন্দু ব্রাহ্মণ বিধবা নারী সৌদামিনির সঙ্গে বিয়ের পর সাহেব ক্রমশ হিন্দু ধর্মের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে পড়ে। চর্চাও বেড়ে যায়। এরপর তিনি কবিগানও গাইতে শুরু করেন। মন্দিরের বর্তমান সেবায়েত সুদর্শন বিরাজ কুমার বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছ থেকে এই সুপ্রাচীন ইতিহাস শুনতে খুব ভালো লাগছিল। দীপান্বিতা অমাবস্যায় এই মন্দিরে বিশেষ পুজোপাঠ চলে। যার তোড়জোড় শুরু হয় লক্ষ্মীপুজোর পর থেকেই। মন্দির সাফসুতরো ও রং হয়। অঙ্গরাগ শুরু হয়ে যায় দেবীর। চলে সাত দিন ধরে। কালীপুজোর আগের দিন মাকে সাজিয়ে বেদিতে তোলা হয়। জমকালো শাড়িতে ও গয়নায় সুসজ্জিত করা হয়। নতুন রূপে, নতুন সাজে মায়ের রূপ দেখে মোহিত হয় দর্শনার্থীরা। সোনা, রুপোর মায়ের যত গয়না আছে মুকুট, বালা, চূড়, শাঁখা, পলা, হার, নাকের নথ, সোনা ও রুপোর মুণ্ডমালা, পায়ের নূপুর সবই মাকে পরানো হয়। সেবায়েতের তরফ থেকে শাড়ি পরানো হলেও ভক্তদের দেওয়া বিশেষ বিশেষ শাড়ি প্রায় একুশটা মতো শাড়ি মাকে পরানো হয় পর্যায়ক্রমে। এছাড়াও বাদবাকি সমস্ত শাড়ি ঘটে ও মায়ের চরণে নাম-গোত্র ধরে নিবেদন করে পুজো করা হয়। ওইদিন পঞ্চব্যঞ্জনসহ অন্ন ভোগ দেওয়া হয়, পোলাও, খিচুড়ি, সাত থেকে ন’রকম ভাজা, তরকারি দু’রকম, পায়েস এবং ন’রকমের মিষ্টি। সর্বসাধারণের মধ্যে পুজো শেষে ভোগ বিতরণ করা হয়। পরের দিন থাকে অন্নকূট মহোৎসব।

কালীঘাট মন্দির: একান্ন শক্তিপীঠের অন্যতম হিন্দু তীর্থক্ষেত্র এই কালীঘাট মন্দির। পৌরাণিক কিংবদন্তি অনুসারে, সতীর দেহত্যাগের পর তাঁর ডান পায়ের চারটি (মতান্তরে একটি) আঙুল এই তীর্থে পড়ে। এই তীর্থের পীঠদেবী দক্ষিণাকালী এবং ভৈরব বা পীঠরসক দেবতা নকুলেশ্বর। কালীঘাট মন্দির আটচালা গড়নের। মন্দিরের চূড়ায় তিনটি কলস। মাঝেরটিতে একটি পতাকা ও ত্রিশূলের অবস্থান। শিব ও শক্তির বর্ণময় সমারোহ কালীঘাটের মন্দির শীর্ষে। মন্দিরটি ছটি ভাগে বিভক্ত। ষষ্ঠীতলা, নাটমন্দির, জোড়বাংলা, হাড়িকাঠতলা, রাধাকৃষ্ণ মন্দির এবং কুণ্ড পুকুর। বড়িশার বিখ্যাত জমিদার সাবর্ণ রায়চৌধুরিদের বংশধরদের উদ্যোগে বর্তমান মন্দিরটি নির্মিত হয়। তবে আদি মন্দিরটি কত পুরনো তা নিয়ে ঐতিহাসিকদের মধ্যে মতভেদ আছে।
দীপান্বিতা অমাবস্যায় কালীঘাটের মহাকালীকে পুজো করা হয় লক্ষ্মীরূপে। কালী নয়, লক্ষ্মীকেই মূর্তির মধ্যে প্রত্যক্ষ করার রীতি এই শক্তিপীঠে। সারারাত ধরে চলে মা লক্ষ্মীর আরাধনা। নিত্যপূজার সঙ্গে ঘোর অমানিশার রাতে রাজবেশে অপরূপা সাজে আবির্ভূতা হন দেবী কালিকা। এদিনও দেবীর নিত্যপূজায় কোনও পরিবর্তন হয় না। খুব ভোরে দেবীকে জাগিয়ে মঙ্গলারতি করা হয়। দুপুরবেলা দেবীকে আরতি করে ভোগ নিবেদন হয়। নিত্যদিনের ভোগ হিসেবে থাকে বেগুনভাজা, পটলভাজা, কপি, আলু ও কাঁচকলা ভাজা, ঘিয়ের পোলাও, ঘি ডাল, শুক্তো, শাকভাজা, মাছের কালিয়া, পাঁঠার মাংস ও চালের পায়েস। অসংখ্য পাটকাঠি জ্বেলে মন্দিরকে তিনবার প্রদক্ষিণের পর শুরু হয় মায়ের রাত্রিকালীন পুজো। রাতে নিরামিষ ভোগ দেওয়া হয় লুচি, বেগুনভাজা, আলু ভাজা, জ্বাল দেওয়া দুধ, ছানার সন্দেশ আর রাজভোগ। কালীপুজোর রাতে মায়ের অঙ্গসজ্জায় চোখ ধাঁধানো রূপ। লাল বেনারসি, জরিপাড়ের শাড়িতে সিঁদুর পরিয়ে রাজবেশ ধারণ করানো হয়। সোনার অলঙ্কার আর ফুলের সাজে মায়ের তখন মোহময়ী মহামায়া রূপ। কষ্টিপাথরের এই মূর্তির জিভ, খাঁড়া, মুণ্ডমালা সব সোনার। ভক্তদের দেওয়া অলঙ্কার, শাড়ি, ফুল, মালা ভোগ সবই নিবেদন করা হয় দেবী কালিকাকে।

বাগবাজার ভবতারিণীর মন্দির: শোভাবাজার রাজবাড়ি থেকে দানপত্র হিসেবে এই মন্দিরটি পেয়েছেন বাগবাজার নিবাসী মুখোপাধ্যায় পরিবার। প্রায় তিনশো বছরের পুরনো। পূর্বপুরুষ কালীকিঙ্কর মুখোপাধ্যায়, অমূল্যরতন মুখোপাধ্যায়, পরেশনাথ মুখোপাধ্যায়ের হাত ধরে বর্তমানে কেদারনাথ মুখোপাধ্যায় আর অমরনাথ মুখোপাধ্যায় চারপুরুষের মন্দির। সকাল সাড়ে ছ’টা থেকে দুপুর একটা অবধি খোলা থাকে। আবার বিকেল সাড়ে চারটে থেকে রাত সাড়ে ন’টা। সারা বছর পুজোপাঠ লেগে থাকে। এই ভবতারিণী মায়ের অঙ্গরাগ অন্যান্য মন্দিরের মতো কালীপুজোর আগে হয় না। অঙ্গরাগ প্রক্রিয়া শুরু হয়ে যায় মহালয়ার আগে থেকেই। সারাবছর অমাবস্যার পুজো দিনেরবেলা হয়। শুধু কালীপুজো আর ফলহারিণীপুজো রাতে পুজো হয়। রাত এগারোটা থেকে ভোর তিনটে অবধি অমাবস্যা তিথি অনুযায়ী পুজো চলে। মা তো রাজরাজেশ্বরী তাই উনি বেনারসি পরেন। দুর্গাপুজো থেকেই মাকে সুন্দর করে সাজানো হয়। একেকদিন চার পাঁচখানা শাড়ি হয়। ভক্তরা কামনা-বাসনা পূর্ণ হলে মাকে দেয়। কালীপুজোর দিন ভক্তদের দেওয়া সব শাড়ি মাকে দেওয়া হয়। বারোমাসই মা বেনারসি পরেন। এক ভক্ত প্রতি মাসে তিরিশ তারিখে এসে বেনারসি দিয়ে যান। কালীপুজোর দিন ও মন্দির প্রতিষ্ঠার দিনে মায়ের বিশেষ ভোগ হয়। খিচুড়ি, পোলাও, বেগুনি, আলুরদম, ফুলকপির কোর্মা, ন’রকমের ভাজা, মিষ্টি, খেজুর-আমসত্ত্বের চাটনি, পায়েস। প্রত্যেক মাসের মঙ্গলবার ঘটের ডাব পাল্টানোর রীতি। শীতলা মন্দিরও রয়েছে। শীতলা মন্দিরও খুব জাগ্রত। মন্দির থেকে শাড়ি, চাদর দুঃস্থদের মধ্যে বিতরণ করা হয়। কালীপুজোর দিন ভোররাত থেকে পরের দিন পর্যন্ত সবাইকে প্রসাদ দেওয়া হয়।
তনুশ্রী কাঞ্জিলাল মাশ্চরক 
26th  October, 2019
শুধু লোকাচারে বিয়েকে
বেঁধে ফেললেই বিপদ

একটি বিবাহবিচ্ছেদের মামলাকে কেন্দ্র করে গৌহাটি হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি অজয় লাম্বা ও বিচারপতি সৌমিত্র শইকিয়া রায় দিয়েছেন, হিন্দু এয়োস্ত্রীর শাঁখা-সিঁদুরে ভূষিত না থাকার অর্থ নিজেকে ‘অবিবাহিত’ মনে করা। এই রায় কি আদৌ সমর্থনযোগ্য? বিশ্লেষণ করলেন সমাজতত্ত্ববিদ বুলা ভদ্র। বিশদ

11th  July, 2020
নাম বদলালে কালোর
কদর হবে নাকি ?

এত উন্নতি। তবু আজও নারীর রূপের বিচার হয়, গুণের কদর হয় না। তাই তো কালো মেয়ের বাবা- মায়ের কপালে চিন্তার ভাঁজ পড়ে। কোনও প্রসাধনী সামগ্রীর নাম পাল্টে গেলে সেই মেয়েদের ভাগ্য বদলাবে কি? প্রশ্ন তুললেন অন্বেষা দত্ত।
বিশদ

11th  July, 2020
এমসিসির প্রথম
মহিলা-প্রেসিডেন্ট 

ঐতিহ্যবাহী মেরিলেবন ক্রিকেট ক্লাবে (এমসিসি) ২৩৩ বছরের ইতিহাসে প্রথম মহিলা-প্রেসিডেন্ট হতে চলেছেন ক্লেয়ার কনর। ইংল্যান্ড মহিলা ক্রিকেট দলের সাবেক এই অধিনায়ক ২০২১ সালের ১ অক্টোবর মর্যাদাপূর্ণ এই পদে বসতে চলেছেন।
বিশদ

11th  July, 2020
মধ্যপ্রদেশের সেরা কন্যা 

অত্যন্ত কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে পড়াশোনার জন্য প্রতিনিয়ত লড়াই চালাতে হয়েছে রোশনি ভাদোরিয়াকে। শুধু সরকারি স্কুলে পড়বে বলে ২৪ কিলোমিটার পথ রোজ সাইকেল চালিয়ে যাতায়াত করেছে সে। অবশেষে এই খাটুনির ফলও পেয়েছে সে।
বিশদ

11th  July, 2020
সবার অনুপ্রেরণা হয়ে উঠব,
সেটাই ছিল আমার স্বপ্ন: শিবাঙ্গী  

লেফটেন্যান্ট শিবাঙ্গী হিসেবেই তিনি পরিচিত। পদবি ব্যবহারে বড্ড আপত্তি। নামই বরং হয়ে উঠুক পরিচয়, ক্ষতি কী? তবে গত ডিসেম্বর মাস থেকে তাঁর পরিচয়ের পরিধি আর একটু প্রসারিত। তিনি এখন লেফটেন্যান্ট শিবাঙ্গী, ভারতীয় নৌসেনার প্রথম মহিলা পাইলট।  বিশদ

04th  July, 2020
পেশার দুনিয়ায় প্রথা ভেঙে প্রথমা
বাঁধা গতে নয়, এগিয়ে যেতে চাই নিজের পছন্দে: হর্ষিণী কনহেকর  

মেয়েদের সম্পর্কে পুরনো ধারণাগুলো একে একে পাল্টে দিতে আমরা মেয়েরাই পারি। ভিন্নধর্মী দু’টি পেশায় নিযুক্ত দু’জন মহিলার তেমনই পদক্ষেপ সম্পর্কে জানালেন কমলিনী চক্রবর্তী। 
বিশদ

04th  July, 2020
এখন মেয়েরা 

এখন সময় মানবিকতার। করোনা সঙ্কটে কাউকে কাছে টানা যায় না ঠিকই, কিন্ত পাশে থাকা যায়। যেসব মানুষ লকডাউনের কারণে অনিশ্চিত জীবনের মধ্যে পড়ে গিয়েছেন, তাঁদের পাশে বিত্তবানদের দাঁড়ানো উচিত।  বিশদ

04th  July, 2020
নাচেই মুক্তির দিশা 

শুধু নাচ শেখানো নয়। নাচকে আত্মবিশ্বাস ফেরানোর কাজে লাগাতে চেয়েছিলেন তিনি। পাচার হয়ে যাওয়া মেয়েদের বেঁচে থাকাকে সম্মান জানাতে চেয়েছিলেন। তাই নির্যাতনে কুঁকড়ে গিয়ে একদিন যাঁদের জীবন থমকে গিয়েছিল, তাঁরাই আজ অগ্রণী। ৩০ জুলাই, আর্ন্তজাতিক মানব-পাচার বিরোধী দিবস। তার আগে কলকাতা সংবেদের সোহিনী চক্রবর্তীর সঙ্গে কথা বলেছেন অন্বেষা দত্ত। 
বিশদ

04th  July, 2020
বিশ্বের সেরা সুন্দরী ঠাকুমা
ভারতের আরতিদেবী 

সম্প্রতি ইউরোপের দেশ বুলগেরিয়ার রাজধানী সোফিয়ায় শেষ হল ‘গ্র্যান্ডমা আর্থ ২০২০-র আসর। বিশ্বের সবচেয়ে সুন্দরী ঠাকুমার মুকুট উঠেছে ভারতীয় মহিলা আরতি চাটলানির মাথায়। এই পুরস্কার এই প্রথম কোনও ভারতীয় মহিলার মাথায় উঠল। চলতি বছর (২০২০) ১৯ থেকে ২৩ জানুয়ারি বুলগেরিয়ায় এই অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়।  
বিশদ

27th  June, 2020
৯০ বছর বয়সে ব্যবসায়
হাতেখড়ি বৃদ্ধার 

৯০ বছরের মায়ের সঙ্গে গল্প জুড়েছিলেন মেয়ে। বৃদ্ধা মা এখন ভালো করে হাঁটতে পারেন না, চোখের দৃষ্টিও আগের চেয়ে অনেক ঝাপসা। মায়ের কী করতে ভালো লাগে? ৯০ বছর কাটানোর পর জীবনটাকে কীভাবে দেখেন তিনি? এইসব নিয়ে কথা এগোচ্ছিল। কথা প্রসঙ্গেই মাকে জিজ্ঞেস করেছিলেন মেয়ে, তাঁর জীবনে কোনও আক্ষেপ রয়েছে কি না।  
বিশদ

27th  June, 2020
মহিলাদের মধ্যে বেকারত্ব বাড়ছে লকডাউনের জন্য 

দীর্ঘ লকডাউনের ফলে অনেকেই চাকরি হারিয়েছেন। রোজগার বন্ধ হয়েছে বহুজনের। তার মধ্যে মহিলারা যতটা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন, পুরুষরা ততটা হননি। অন্তত পরিসংখ্যান তাই বলছে। এই বিষয়ে হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে সম্প্রতি একটি গবেষণা করেছেন র‌্যাশেল লেভেনসন ও লায়লা ও’কেন।  বিশদ

27th  June, 2020
সঙ্কটে দাম্পত্য, বাড়ছে নারী নির্যাতন
বন্দি ঘরের মধ্যে বেড়েছে হিংসা, আমরা চেষ্টা করেছি পাশে থাকার 

লকডাউনের অনেক অসুবিধার মধ্যে শিরোনামে এসেছে বাড়িতে দাম্পত্য অশান্তি, মনোমালিন্য থেকে শুরু করে পুরোদস্তুর নির্যাতন বেড়ে যাওয়ার ঘটনা। মহিলা এবং শিশুরাই যার প্রাথমিক শিকার। ২০-৩১মার্চের মধ্যে (লকডাউনের প্রথম সপ্তাহ) চাইল্ডলাইন ১০৯৮এ সারা দেশ থেকে ৯২ হাজার এসওএস কল গিয়েছে। জাতীয় মহিলা কমিশন শুধু এপ্রিলেই ৩১৫টি পারিবারিক হিংসার অভিযোগ পেয়েছে। পরিসংখ্যানগুলোর গ্রাফ কিন্তু এখনও উর্ধ্বমুখী। এ ব্যাপারে সমাজকর্মী অনুরাধা কাপুরের সঙ্গে আলোচনায় কমলিনী চক্রবর্তী এবং অন্বেষা দত্ত।  
বিশদ

27th  June, 2020
সঙ্কটে দাম্পত্য, বাড়ছে নারী নির্যাতন
ক্রমশ বাড়ছে অন্তর্দ্বন্দ্ব, নড়বড়ে হচ্ছে বৈবাহিক সম্পর্কের ভিত

লকডাউনের অনেক অসুবিধার মধ্যে শিরোনামে এসেছে বাড়িতে দাম্পত্য অশান্তি, মনোমালিন্য থেকে শুরু করে পুরোদস্তুর নির্যাতন বেড়ে যাওয়ার ঘটনা। মহিলা এবং শিশুরাই যার প্রাথমিক শিকার। ২০-৩১মার্চের মধ্যে (লকডাউনের প্রথম সপ্তাহ) চাইল্ডলাইন ১০৯৮এ সারা দেশ থেকে ৯২ হাজার এসওএস কল গিয়েছে। জাতীয় মহিলা কমিশন শুধু এপ্রিলেই ৩১৫টি পারিবারিক হিংসার অভিযোগ পেয়েছে। পরিসংখ্যানগুলোর গ্রাফ কিন্তু এখনও উর্ধ্বমুখী। এ ব্যাপারে সমাজতত্ত্ববিদ অভিজিৎ মিত্রের সঙ্গে আলোচনায় কমলিনী চক্রবর্তী এবং অন্বেষা দত্ত।  
বিশদ

27th  June, 2020
যোগাসনে সুস্থ মন 

এই অনিশ্চিত সময়ে ভালো থাকুন যোগাসনে। পরামর্শ দিলেন
যোগবিদ রাজশ্রী চৌধুরী। 
বিশদ

20th  June, 2020
একনজরে
নিজস্ব প্রতিনিধি, আরামবাগ: সোমবার গভীর রাতে আরামবাগ শহরের কালীপুরে তৃণমূলের পতাকা ও ফ্লেক্স ছিঁড়ে ফেলার ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। শাসক দলের অভিযোগ, বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরাই ওই কাজ করেছে। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করেছে বিজেপি।   ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: হাসপাতালের দরজায় দরজায় ঘুরে প্রায় বিনা চিকিৎসায় তরতাজা ছেলেকে হারানো বাবা-মা অবশেষে ন্যায়ের প্রতীক আদালতের দরজায় মাথা কুটে সামান্য হলেও বিচার পেলেন। ...

লখনউ: গ্যাংস্টার বিকাশ দুবের ঘনিষ্ঠ এক সহযোগী তথা আত্মীয়কে গ্রেপ্তার করল উত্তরপ্রদেশ পুলিস। ধৃতের নাম শশীকান্ত ওরফে সোনু পাণ্ডে। তাকে জেরা করে এনকাউন্টারের দিন পুলিসের ...

সংবাদদাতা, মালদহ: মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের আধুনিক ট্রমা কেয়ার সেন্টারটি নভেম্বর মাস নাগাদ চালু হতে পারে। করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসার পরেই এই বিশেষ চিকিৎসা কেন্দ্রটি চালু করার কথা ভাবনাচিন্তা করছে মেডিক্যাল কর্তৃপক্ষ।   ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

পড়শির ঈর্ষায় অযথা হয়রানি। সন্তানের বিদ্যা নিয়ে চিন্তা। মামলা-মোকদ্দমা এড়িয়ে চলা প্রয়োজন। প্রেমে বাধা।প্রতিকার: একটি ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮২০: সাহিত্যিক অক্ষয়কুমার দত্তের জন্ম
১৯০৩: রাজনীতিক কে কামরাজের জন্ম
১৯০৪: রুশ লেখক আস্তন চেকভের মৃত্যু
১৯৫৪: আর্জেন্তিনার ফুটবলার মারিও কেম্পেসের জন্ম  



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৪.৪৬ টাকা ৭৬.১৭ টাকা
পাউন্ড ৯২.৯৩ টাকা ৯৬.২০ টাকা
ইউরো ৮৩.৮৮ টাকা ৮৬.৯৯ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪৯, ৭৭০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৪৭, ২২০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪৭, ৯৩০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৫১, ৯০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৫২, ০০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৩১ আষাঢ় ১৪২৭, ১৫ জুলাই ২০২০, বুধবার, দশমী ৪৩/৯ রাত্রি ১০/২০। ভরণী ২৯/৭ অপঃ ৪/৪৩। সূর্যোদয় ৫/৪/৪২, সূর্যাস্ত ৬/২০/১৪। অমৃতযোগ দিবা ৭/৪৩ গতে ১১/১৫ মধ্যে পুনঃ ১/৫৫ গতে ৫/২৭ মধ্যে। রাত্রি ৯/৫৫ মধ্যে পুনঃ ১২/৪ গতে ১/৩০ মধ্যে। বারবেলা ৮/২৩ গতে ১০/৩ মধ্যে পুনঃ ১১/৪২ গতে ১/২১ মধ্যে। কালরাত্রি ২/২৩ গতে ৩/৪৪ মধ্যে।  
৩০ আষাঢ় ১৪২৭, ১৫ জুলাই ২০২০, বুধবার, দশমী রাত্রি ৮/৪৩। ভরণী নক্ষত্র অপরাহ্ন ৪/৭। সূযোদয় ৫/৪, সূর্যাস্ত ৬/২৩। অমৃতযোগ দিবা ৭/৪৩ গতে ১১/১৬ মধ্যে ও ১/৫৬ গতে ৫/২৮ মধ্যে এবং রাত্রি ৯/৫৬ মধ্যে ও ১২/৪ গতে ১/৩০ মধ্যে। কালবেলা ৮/২৪ গতে ১০/৪ মধ্যে ও ১১/৪৩ গতে ১/২৩ মধ্যে। কালরাত্রি ২/২৪ গতে ৩/৪৪ মধ্যে।
২৩ জেল্কদ  

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
মাধ্যমিকে ষষ্ঠ অশোকনগরের অস্মি চৌধুরি চিকিৎসক হতে চায় 
মাধ্যমিকে রাজ্যে ষষ্ঠ স্থান অধিকার করেছে অশোকনগর বাণীপিঠ ...বিশদ

01:46:07 PM

বিহারে রাজভবনের ২০ জন কর্মী করোনায় আক্রান্ত 

01:36:04 PM

মাধ্যমিকে সপ্তম চন্দননগরের সুহা ঘোষ ভবিষ্যতে বিজ্ঞানের শিক্ষক হতে চায় 

01:35:35 PM

৭০১ পয়েন্ট উঠল সেনসেক্স

01:32:50 PM

মাধ্যমিকে দশম জুনায়েদ হাসান চিকিৎসক হতে চায় 

01:29:42 PM

ময়নাগুড়িতে  ব্যারিকেড করে বিজেপির মিছিল আটকাল পুলিস 

01:27:50 PM