Bartaman Patrika
আমরা মেয়েরা
 

ভগিনী নিবেদিতা ও ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রাম

ভগিনী নিবেদিতা ভারতের মাটিতে বিপ্লববাদের ভিত গড়ে তুলেছিলেন। নিবেদিতার পূর্ব নাম মার্গারেট এলিজাবেথ নোব্‌ল। তৎকালীন সমাজের বিদগ্ধ, স্বনামধন্য লেখক, বৈজ্ঞানিক, শিক্ষাবিদ, রাজনীতিবিদদের সঙ্গে মার্গারেটের স্বতঃস্ফূর্ত মেলামেশা, নিত্য ওঠাবসা ছিল। কিছুদিনের মধ্যেই তিনি লন্ডনের বুদ্ধিজীবী মহলে এক স্থান দখল করে নেন। চার্চের অধীনে প্রথাগত ধর্মজীবনকে তিনি মন থেকে মেনে নিতে পারেননি। ধর্ম সম্বন্ধে বিভিন্ন বইপত্র পড়ে প্রকৃত ধর্মজীবনের পথ খুঁজতে চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু কিছুতেই শান্তি না পেয়ে ক্রমশ হতাশ হয়ে পড়ছিলেন। তাঁর এই হতাশা দূর হল স্বামী বিবেকানন্দের আবির্ভাবে। স্বামীজির ধর্ম ব্যাখ্যা ও ব্যক্তিত্বে মার্গারেট মুগ্ধ হলেন। মার্গারেট স্বামীজিকে গুরু বলে বরণ করে নিলেন। দুঃখ-দারিদ্রপূর্ণ, কুসংস্কারাচ্ছন্ন, পরাধীন যে ভারতবর্ষ চোখের সামনে রয়েছে তার আড়ালে আছে আধ্যাত্মিকতার ঐশ্বর্যে পূর্ণ ত্যাগ ও তপস্যাময় এক মহান ভারতবর্ষ। চিরন্তন ভারতবর্ষের সেই অতুলনীয় রূপ স্বামীজি মার্গারেটের সামনে তুলে ধরলেন। ভারতবর্ষকে ভালোবাসতে শুরু করলেন মার্গারেট, ভারতীয় জীবন গ্রহণের দুর্নিবার আগ্রহ তাঁর মধ্যে জেগে উঠল।
স্বামীজি ভরতবর্ষে ফিরে আসার পর নিবেদিতাকে অনেকগুলি চিঠি দিয়েছিলেন— উদ্দেশ্য পত্র বিনিময়ের মধ্য দিয়ে নিবেদিতাকে প্রস্তুত করা।
১৮৯৮ সালের ২৮ জানুয়ারি মার্গারেট ভারতের মাটিতে পা রাখলেন। ওই বছরের ২৫ মার্চ স্বামীজি মার্গারেটকে ব্রহ্মচর্য ব্রতে দীক্ষা দিলেন। তাঁর নাম দিলেন ‘নিবেদিতা’। ওই দিন স্বামীজি নিবেদিতাকে বলেছিলেন, ‘ভবিষ্যৎ ভারতসন্তানদের কাছে তুমি একাধারে জননী, সেবিকা ও বন্ধু হয়ে ওঠ।’ তাই নিবেদিতার একমাত্র উদ্দেশ্য হল ভারতবর্ষের সেবা করা। ভারতের আধ্যাত্মিকতার আদর্শ জগৎকে চিরকাল কল্যাণের পথ দেখাবে। তাই তাঁর ভারতসেবা আসলে ছিল সমগ্র মানবজাতির সেবা।
রামকৃষ্ণ সঙ্ঘের সঙ্গে যুক্ত হয়ে নানাবিধ মানবসেবায় নিজেকে নিয়োজিত করলেন। কিন্তু পরবর্তীকালে তিনি উপলব্ধি করলেন যে, ভারতবর্ষে নারীশিক্ষার প্রচলন অত্যন্ত প্রয়োজন। পরাধীন ভারতবর্ষের সামাজিক কুসংস্কারগুলিকে মুক্ত করতে হলে ঘরে ঘরে নারীশিক্ষার উদ্যোগ নেওয়া উচিত। সেই সঙ্গে ভারতবর্ষকে স্বাধীন করতে হবে। সে সময় বহু বিপ্লবী যেমন অরবিন্দ ঘোষ, বারীন ঘোষ, বিপিন পাল, ভূপেন্দ্রনাথ দত্ত (বিবেকানন্দের ছোট ভাই) নিবেদিতার কাছে আসতেন স্বাধীনতা সংগ্রামের ব্যাপারে নানা আলোচনা করতে। তিনি বিভিন্নভাবে তাঁদের সাহায্য করতেন। ১৯০২ সালের অক্টোবর মাসে নিবেদিতা বক্তৃতা দিতে বরোদা গিয়েছিলেন। তাঁকে স্টেশনে অভ্যর্থনা জানাতে এসেছিলেন শ্রীঅরবিন্দ। শ্রীঅরবিন্দ ইতিমধ্যে নিবেদিতার লেখা ‘কালী দি মাদার’ বইটি পড়ে মুগ্ধ হয়েছিলেন। শ্রীঅরবিন্দ তখন সবেমাত্র বিপ্লবীদের নিয়ে গুপ্ত সমিতি গঠন করেছেন। শ্রীঅরবিন্দের কাছ থেকে গুপ্ত সমিতির সম্পর্কে সব কিছু জেনে নিবেদিতা বরোদার মহারাজার সঙ্গে দেখা করে গুপ্ত সমিতিকে সাহায্য করার জন্য অনুরোধ করলেন। পরবর্তীকালে দেখা যায় যে, শ্রীঅরবিন্দের হাতে গুপ্ত সমিতির যে দলটি ছিল, নিবেদিতা হাতে-কলমে সে দলটিকে পরিচালনা করেছিলেন।
১৯০৫ সালে বাংলাদেশে বঙ্গভঙ্গের বিরুদ্ধে যে আন্দোলনের সূচনা হয় তা পরে ব্যাপকভাবে স্বদেশিয়ানা এবং বিদেশি বয়কট আন্দোলনে পরিণত হয়। নিবেদিতা এই আন্দোলনে সক্রিয়ভাবে যোগ দেন। ওই বছরের ১১ ফেব্রুয়ারি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন অনুষ্ঠানে লর্ড কার্জন তাঁর বক্তৃতাকালে প্রাচ্য দেশবাসীর সত্যতা সম্বন্ধে কটাক্ষ করে বলেন, ‘প্রাচ্য অপেক্ষা প্রতীচ্যের লোকদের নিকটে সত্য বিশেষ আদৃত।’ সভায় উপস্থিত বহু বিশিষ্ট ব্যক্তি লর্ড কার্জনের এই উক্তিতে অপমানবোধ করলেন, কিন্তু কেউই তার প্রতিবাদ করলেন না। নিবেদিতা এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। নিবেদিতা ক্রোধে, অপমানে উত্তেজিত হয়ে পড়লেন।
অমৃতবাজার পত্রিকার কার্যালয় ছিল বাগবাজারে, সেখানে নিবেদিতা থাকতেন। লর্ড কার্জনের বক্তৃতার আপত্তিকর অংশ ও তাঁর লেখা বইয়ের মিথ্যা বিবৃতির অংশ পাশাপাশি রেখে একটি প্রতিবাদপত্র ছাপার জন্য দিলেন। পরের দিন অমৃতবাজার পত্রিকায় প্রতিবাদপত্রটি ছাপা হয়। ১৪ ফেব্রুয়ারি পুনরায় প্রতিবাদপত্রটি স্টেটসম্যান পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। লর্ড কার্জনের বিরুদ্ধে দেশবাসীর মনে যে গভীর ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছিল তার কিছুটা প্রশমিত হল।
১৯০৭ সালে যুগান্তরের মামলায় বিপ্লবী প্রবন্ধ লেখার জন্য ভূপেন্দ্রনাথ দত্তকে গ্রেপ্তার করে। ভূপেন্দ্রনাথের পক্ষে নিবেদিতা জামিনদার হয়েছিলেন। ইতিমধ্যে ব্রিটিশ গোয়েন্দা বাহিনী নিবেদিতাকে সন্দেহের চোখে দেখতে লাগল। এই সময়ে জাতীয় নেতাদের পরামর্শে নিবেদিতা গ্রেপ্তার এড়াতে ভারতবর্ষ থেকে লন্ডনে পাড়ি দেন। আয়ারল্যান্ড ও আমেরিকা ঘুরে তিনি ১৯০৯ সালে ‘মিসেস মার্গট’ ছদ্মনামে জগদীশচন্দ্র বসুর সঙ্গে পুনরায় ভারতে ফিরে আসেন। নিবেদিতার অনুপস্থিতিতে বিপ্লবী আন্দোলন কিছুটা স্থিমিত হয়েছিল।
মাত্র এক দশকের মধ্যে তিনি যে জীবন দর্শন দেখিয়ে গিয়েছেন তা দেশবাসী শ্রদ্ধাবনত চিত্তে স্মরণ করে।
ড. অচিন্ত্যকুমার মাইতি
10th  August, 2019
মায়া প্রকৃতির সঙ্গে বিয়ে হয় মহুল গাছের ছাদনাতলায় 

আজও আদিবাসীদের বিয়েতে গাছ ও জলের সঙ্গে বিয়ে হয় প্রথমে, পরে হয় মানুষে মানুষে বিয়ে। লৌকিক বিশ্বাসের রীতি আজও ধরে রেখেছে আদিবাসী সমাজ। তারা তাদের জীবনে আম ও মহুল গাছকে ঈশ্বর জ্ঞানে বিশ্বাস করে, পূজা করে।   বিশদ

07th  December, 2019
বিয়ের ধর্মাধর্ম! 

ধর্মেও আছি, জিরাফেও আছি। এই প্রবচন বিলকুল খেটে যায় বিয়ের ব্যাপারে। খানিক খোলসা করে বলা যাক। বংশবিস্তার বা রাজ্যবিস্তারের মোক্ষম রাজনৈতিক চাল হিসেবে বিয়ের কথা প্রচলিত।  বিশদ

07th  December, 2019
পুরাণে পরিণয় 

হিন্দু পুরাণ হল ঐতিহ্যবাহী কথামালার এক বৃহৎ রূপ। রামায়ণ, মহাভারত সহ অষ্টাদশ পুরাণে নানা কথামালা গভীর ও সুস্পষ্টভাবে বর্ণিত হয়েছে। নানা রূপে এই সব আখ্যান পুরাণকথাকে সমৃদ্ধ করেছে। আজ আমরা দেখব পুরাণের পরিণয় কথা।  বিশদ

07th  December, 2019
ভলিবলে বিজয়িনী তারকেশ্বরের দুই কন্যা তিথি ও অনন্যা 

গ্রামবাংলার মেয়েরাও ক্রীড়াজগতে আজ পিছিয়ে নেই। বিভিন্ন প্রতিযোগিতামূলক খেলার আসরে অংশগ্রহণ করে ক্রীড়াচাতুর্যে বিজয় ডঙ্কা বাজিয়ে বিজয়িনী হয়ে তারা সাফল্যের স্বাক্ষর রেখে চলেছে। এমনই দুই মহিলা ভলিবল খেলোয়াড়ের সাফল্যের ইতিবৃত্ত সংবাদের শিরোনামে উঠে এসেছে। 
বিশদ

30th  November, 2019
নারীদের সূর্যপূজা 

ভারতের মেয়েরা সামাজিক তথা দেশীয় নির্দেশানুসারে ধর্মীয় অধিকার ও সুযোগ-সুবিধা থেকে বহুকালই বঞ্চিত ছিলেন। তাই তাঁরা বিভিন্ন ব্রত পালনের মধ্য দিয়ে তাঁদের আশা-আকাঙ্ক্ষাকে পূরণ করার চেষ্টা করতেন।  
বিশদ

30th  November, 2019
কন্যাসন্তানকে রুখে দাঁড়াতে শেখান, মানিয়ে নিতে নয় 

ঘরে বাইরে নারীর এত উন্নতি তবু দিনে দিনে বাড়ছে নারী নির্যাতন। আ‌জকের উন্নত সমাজেও মেয়েরা নিরাপত্তাহীনতায় ভোগে। কিন্তু কেন? কীভাবেই বা নারীর নিরাপত্তা বাড়িয়ে তোলা সম্ভব? প্রশ্ন তুললেন কমলিনী চক্রবর্তী। 
বিশদ

30th  November, 2019
লাল রং জোরিকার মনে শক্তি জাগায় 

গোটা জীবনই লালের মধ্যে কেটেছে বসনিয়ার জোরিকা রেবার্নিকের। মৃত্যুর পরও তিনি ঠিক এভাবেই থাকতে চান। গত চার দশক ধরে মাথা থেকে পা পর্যন্ত লাল রঙা পোশাক পরছেন জোরিকা। তাঁর স্বামী জোরানের সঙ্গে বিয়েটাও হয়েছিল লাল রঙের গাউন পরেই।  বিশদ

23rd  November, 2019
চা-বাগানে প্রথম মহিলা ম্যানেজার 

উত্তরপূর্ব ভারতের অসমে চা বাগানের ২০০ বছরের ইতিহাসে এই প্রথম কোনও একজন নারী ম্যানেজারের পদে নিযুক্ত হয়েছেন। ৬৩৩ হেক্টরেরও বেশি এলাকা জুড়ে থাকা বাগানের আনাচে-কানাচে মোটরবাইক বা সাইকেল অথবা জিপে চেপে ঘুরে দেখাশোনার কাজ করবেন ৪৩ বছর বয়সি মঞ্জু বড়ুয়া।  বিশদ

23rd  November, 2019
অল ইন ওয়ান মৈত্রেয়ী 

তারিখটা ছিল ৩ নভেম্বর, ১৯৭৯। বয়স তখন সবে মাত্র ১০ বছর ছাড়িয়েছে। কলকাতার রাশিয়ান কনস্যুলেট জেনারেলের অফিসের সাংস্কৃতিক বিভাগ থেকে তাকে চিঠি দিয়ে ডেকে পাঠানো হল গোর্কি সদনে।  বিশদ

23rd  November, 2019
অবসরের পর অবসাদ নয় 

শিক্ষা আর স্বনির্ভরতা—এই দুটি ডানায় ভর করে এখন মেয়েরা অনেক বেশি বাইরে কাজ করেন। সেই কাজ অত্যন্ত দায়িত্ব নিয়ে যোগ্যতার সঙ্গে তাঁরা পালন করেন। বহু বছর সেই কাজ দায়িত্ব নিয়ে পালন করার পর হঠাৎ সেই কর্মজগৎ থেকে সরে আসায় একটা মানসিক সমস্যায় অনেককেই ভুগতে দেখা যায়।  বিশদ

23rd  November, 2019
অ্যাডভেঞ্চার প্রিয় রাকুল 

রাকুল প্রীত সিংয়ের কেরিয়ার শুরু মডেলিং দিয়ে। এখন তিনি দক্ষিণের এবং বলিউডের ব্যস্ততম নায়িকা। নিজের লাইফস্টাইেলর কথা জানালেন রাকুল। 
বিশদ

16th  November, 2019
অ্যাথলেটিক্সে নয়া নজির
দুই মায়ের বিশ্বরেকর্ড 

অ্যাথলেটিক্সের ইতিহাসে দাপট এখন মেয়েদের, বলা চলে দুই মায়ের। যারা অসম্ভবকে সম্ভব করলেন। সম্প্রতি দোহায় অনুষ্ঠিত বিশ্ব অ্যাথলেটিক্স চ্যাম্পিয়নশিপে জামাইকার ‘স্প্রিন্ট কুইন’ শেলি অ্যান ফ্রেজার প্রাইস ১০০ মিটার দৌড়ে চার নম্বর সোনা জিতলেন দুর্দান্তভাবে।  বিশদ

16th  November, 2019
দুয়ের বেশি সন্তান মায়েদের
জন্য অশনিসংকেত 

দুয়ের বেশি সন্তান যে সব মায়েদের, তাঁদের জন্য আশঙ্কার খবর শুনিয়েছেন বিজ্ঞানীরা। যাঁদের সন্তান সংখ্যা দুই বা তার বেশি তাঁরা স্বাস্থ্যগত ঝুঁকিতে রয়েছেন। সাম্প্রতিক এক গবেষণার শেষে বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, নারীরা দুয়ের বেশি কয়টি সন্তানের জননী, তার ওপর নির্ভর করে তিনি কতটা স্বাস্থ্যগত ঝুঁকিতে রয়েছেন।   বিশদ

16th  November, 2019
পুরুষের তুলনায় ঘুমের
বেশি প্রয়োজন নারীদের 

নারী ও পুরুষের শারীরিক চাহিদা যে আলাদা সে কথা প্রায় সবারই জানা। যেমন পুরুষের তুলনায় নারীর ঠান্ডা লাগে বেশি। তেমনই ঘুম ব্যাপারটি পুরুষের তুলনায় নারীরই বেশি প্রয়োজন। সমীক্ষায় এমনই তথ্য সামনে এসেছে। সেখানে বলা হয়েছে নারীদের ঘুমের প্রয়োজন বেশি হওয়ার মূল কারণ দুটি। বিশদ

16th  November, 2019
একনজরে
অর্পণ সেনগুপ্ত, কলকাতা: স্কুলের কাছে ‘প্রায়র পারমিশন’ (পিপি) এসে পৌঁছনোর আগেই শিক্ষক পদপ্রার্থীদের হাতে তা চলে আসছে। আর তার প্রতিলিপি নিয়েই স্কুলে যোগ দিতে চলে আসছেন শিক্ষকরা। রাজ্যের বিভিন্ন স্কুলে এই ঘটনা ঘটছে। বদলির আবেদন করা শিক্ষকদের হাতে এই পিপি ...

সংবাদদাতা, রামপুরহাট: অজ্ঞাতপরিচয় এক সাধুর মৃত্যু হল রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। রবিবার রাতে তারাপীঠের শ্মশান থেকে অসুস্থ ওই সাধুকে উদ্ধার করে রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসে তারাপীঠ থানার পুলিস। সেখানে চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।   ...

ওয়েলিংটন, ৯ ডিসেম্বর (এএফপি): ছবির মতো সুন্দর হোয়াইট আইল্যান্ড। ভ্রমণের আনন্দে মশগুল পর্যটকের দল। ভরদুপুরে হঠাৎ করে জেগে উঠল আগ্নেয়গিরি। সোমবার নিউজিল্যান্ডের এই ঘটনায় মৃত্যু হল অন্তত পাঁচজনের। জখম ১৮ জন। সরকারি সূত্রে খবর, আটকে পড়েছেন বহু পর্যটক। তাঁদের উদ্ধারের ...

জম্মু, ৯ ডিসেম্বর (পিটিআই): কয়েকদিন বন্ধ থাকার পর ফের সংঘর্ষবিরতি চুক্তি লঙ্ঘন করে গুলি চালাল পাক সেনা। সোমবার ভোর পৌনে চারটে নাগাদ জম্মু ও কাশ্মীরের পুঞ্চ সেক্টরে ভারতীয় সেনার চৌকি লক্ষ্য করে তারা গুলি চালায়। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
aries

কর্মপ্রার্থীদের ক্ষেত্রে শুভ। সরকারি ক্ষেত্রে কর্মলাভের সম্ভাবনা। প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় সাফল্য আসবে। প্রেম-ভালোবাসায় মানসিক অস্থিরতা থাকবে। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

বিশ্ব মানবাধিকার দিবস,
১৮৭০- ঐতিহাসিক যদুনাথ সরকারের জন্ম,
১৮৮৮- শহিদ প্রফুল্ল চাকীর জন্ম,
২০০১- অভিনেতা অশোককুমারের মৃত্যু  





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৪৪ টাকা ৭২.১৪ টাকা
পাউন্ড ৯২.০৭ টাকা ৯৫.৩৭ টাকা
ইউরো ৭৭.৩৪ টাকা ৮০.২৯ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,২৮৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,৩২৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৬,৮৭০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৩,৫০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৩,৬০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, ত্রয়োদশী ১১/২৬ দিবা ১০/৪৪। কৃত্তিকা ৫৯/২৯ শেষ রাত্রি ৫/৫৭। সূ উ ৬/৯/৩১, অ ৪/৪৮/৪৩, অমৃতযোগ দিবা ৬/৫২ মধ্যে পুনঃ ৭/৩৫ গতে ১১/৮ মধ্যে। রাত্রি ৭/২৯ গতে ৮/২২ মধ্যে পুনঃ ৯/১৬ গতে ১১/৫৬ মধ্যে পুনঃ ১/৪৩ গতে ৩/৩০ মধ্যে পুনঃ ৫/১৭ গতে উদয়াবধি, বারবেলা ৭/২৮ গতে ৮/৪৮ মধ্যে পুনঃ ১২/৪৮ গতে ২/৮ মধ্যে, কালরাত্রি ৬/২৮ গতে ৮/৮ মধ্যে। 
২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, ত্রয়োদশী ১০/২/৪৮ দিবা ১০/১২/৫। কৃত্তিকা ৬০/০/০ অহোরাত্র, সূ উ ৬/১০/৫৮, অ ৪/৪৯/১৩, অমৃতযোগ দিবা ৭/৩ মধ্যে ও ৭/৪৫ গতে ১১/৬ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/৩৫ গতে ৮/২৯ মধ্যে ও ৯/২৩ গতে ১২/৪ মধ্যে ও ১/৫২ গতে ৩/৩৯ মধ্যে ও ৫/২৭ গতে ৬/১২ মধ্যে, কালবেলা ১২/৪৯/৫৩ গতে ২/৯/৩৯ মধ্যে, কালরাত্রি ৬/২৯/২৬ গতে ৮/৯/৩৯ মধ্যে।
 
মোসলেম: ১২ রবিয়স সানি 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
আজ থেকে ৬ দিন বন্ধ মোবাইল নম্বর পোর্টেবিলিটি পরিষেবা 
আজ, মঙ্গলবার থেকে আগামী রবিবার পর্যন্ত দেশজুড়ে বন্ধ থাকবে মোবাইল ...বিশদ

03:22:06 PM

বয়স ভাঁড়িয়ে বিপাকে ইস্ট বেঙ্গল  
বেশি বয়সের ফুটবলার খেলানোর অভিযোগে অনূর্ধ্ব ১৫ আই লিগ থেকে ...বিশদ

03:05:11 PM

মন্তেশ্বরে স্ত্রীকে খুন করে আত্মঘাতী স্বামী 

03:04:00 PM

আচার্য তথা রাজ্যপালের ক্ষমতা খর্ব, বিধানসভায় বিধি পেশ 
বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্ষেত্রে আচার্য তথা রাজ্যপালের ক্ষমতা খর্ব করার জন্য আজ ...বিশদ

01:59:00 PM

বিধানসভায় উঠল তৃণমূল বিধায়কদের বিক্ষোভ 

01:05:00 PM

মঙ্গলকোটে তৃণমূল নেতা খুনে অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করল সিআইডি 
মঙ্গলকোটে তৃণমূল নেতা ডালিম শেখকে খুনের অভিযোগে কুখ্যাত শ্যুটার আনার ...বিশদ

01:04:00 PM