Bartaman Patrika
চারুপমা
 

আংটি নামে গয়নাটি

আংটি নামে ছোট্ট গয়নাটি মানুষের জীবনের অনেকখানি জায়গা জুড়ে আছে। সেই সঙ্গে জায়গা করে নিয়েছে জীবনের দর্পণ সাহিত্যের পাতায়ও। আংটি নিয়ে গল্প শুনিয়েছেন শ্যামলী বসু।

গয়নাটি ছোট হলেও সাজ সম্পূর্ণ হয় না আংটি ছাড়া। আর এই ছোট্ট গয়নাটির সঙ্গে এত রহস্য, রোমান্স, রোমাঞ্চ জড়িয়ে আছে, অন্য গয়নার সঙ্গে তেমন নেই! বিভিন্ন সময়ে, নানা উপলক্ষে উপহার হিসাবেও আংটির তুলনা মেলা ভার! মেয়ের বিয়ের গয়নার তালিকায়, বরাভরণের আবশ্যিক অঙ্গ হিসাবে, আংটি ছাড়া জীবন অচল। এছাড়া, বিয়ে, বউভাত, উপনয়ন, অন্নপ্রাশন, পরীক্ষার সাফল্যে আংটি বেশ প্রত্যাশিত উপহার। এছাড়া প্রণয়ীযুগল বা দম্পতির প্রণয় উপহার হিসাবেও আংটির কদর বড় কম নয়। আংটি হয় তামা, রুপো, কিন্তু প্রধানত সোনার। মিনে করা, নকশা করা, ছিলা কাটা কি পাথর বসানো। কখনও বা সোনার ওপর মিনাকারি করে ধারকের নাম বা নামের আদ্যক্ষর লেখা থাকে। হীরে, মুক্তো, পান্না, চুনি, পোখরাজ বসানো সোনার আংটির কদর ও দাম দুইই বেশি। এসব হল জড়োয়া আংটি। সোনা ছাড়া সঙ্গতি থাকলে হীরে বসানো হয় প্ল্যাটিনামের আংটিতে। আর গ্রহশান্তির জন্য জ্যোতিষীদের পরামর্শে আঙুলে ধারণ করা হয়। পলা, নীলা, ক্যাটসআই বা বৈদুর্যমণি ইত্যাদির গ্রহরত্নের আংটি।
বিয়ের সাজে মেয়েদের আঙুলে থাকে আংটি, বরাভরণে বরকেও যৌতুক দেওয়া হয় আংটি, কিন্তু বরসাজেরও একটা অঙ্গ সোনা বা জড়োয়া আংটি। দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুরের সেজ ছেলে হেমেন্দ্রনাথ নিজেই লিখেছেন নিজের বিবাহ প্রসঙ্গে বর সাজের কথা। বেনারসি জোড়, হীরের কণ্ঠা, মুক্তোমালা, জড়োয়া আংটি, হীরের বালার সাজে সুপুরুষ হেমেন্দ্রনাথকে দেখে বালিকা, শ্যালিকা প্রফুল্লময়ীর মনে হয়েছিল— ‘স্বয়ং মহাদেব যেন ধরাতলে অবতীর্ণ’ হয়েছেন।
গগনেন্দ্রনাথ ঠাকুরের মেয়ে পূর্ণিমা লিখেছেন, দাদা গেহেন্দ্রের বিয়ের সাজ ছিল ‘বেনারসি জোড় পাঞ্জাবি... হীরের কণ্ঠা, হাতে (আঙুলে) হীরের আংটি’ ইত্যাদি।
উনিশ শতকের শেষের দিকে ইঙ্গবঙ্গ সমাজে বিলিতি অনুকরণ ও অনুসরণে বিয়ের আগে, ভাবী বর-ভাবী বধূকে আংটি পরিয়ে দিত ‘এনগেজমেন্টের’ চিহ্ন হিসাবে। এমনই এক বিলেত ফেরত ভূতাত্ত্বিক পাত্র প্রমথনাথ বসু ভাবী স্ত্রী, রমেশচন্দ্র দত্তের বড় মেয়ে কমলার আঙুলে পরিয়ে দিয়েছিলেন হীরের আংটি। প্রবাস থেকে তিনি কমলাকে লিখেছিলেন, ‘আমি তোমাকে যে আংটি দিয়াছিলাম, তার অন্য মানে আছে। তোমার আত্মীয় ও বন্ধু বান্ধবদের কাছে আংটি এনগেজমেন্টের চিহ্ন, কারণ লজ্জায় তুমি বলিতে পারিবে না।’ প্রথম যুগের ব্রাহ্ম বিয়ের রীতিতে কিছুটা খ্রিস্টান প্রথার অনুকরণ ছিল। তারই অনুসরণে কনের আঙুলে পরিয়ে দেওয়া হতো বিয়ের আংটি বা ‘ওয়েডিং রিং’। লীলা মজুমদার স্মৃতিচারণে লিখেছেন, বিয়ের পর তাঁর মায়ের আঙুলে থাকত ‘প্লেন সোনার বিয়ের আংটি’। নিজের বিয়ের প্রসঙ্গে লীলা লিখেছেন ‘আমার আঙুলে প্লেন সোনার একটা তিন সাইজ বড় আংটি পরানো হল।’
বিশ শতকের তিরিশের দশকে শিল্পী মুকুল দে বলেছেন, ভাবী স্ত্রী বীণাকে দেখে তাঁর ‘যাকে বলে লাভ অ্যাট ফার্স্ট সাইট’ তাই হয়েছিল। বিয়ে করতে দেরি করেননি মুকুল। মণিকারের দোকানে বীণাকে নিয়ে গিয়েছিলেন তাঁর পছন্দ করা আংটি পরিয়ে দেবেন বলে। বীণা লিখেছেন বীণার পছন্দ মতো ‘হীরে, মুক্তো বা কোনও পাথর বসানো নয়, কোনও কারুকাজ করা ডিজাইনও নয়, সম্পূর্ণ প্লেন একটি (সোনার) আংটি আমার আঙুলের মাপে কিনে পরিয়ে দিয়েছিলেন।’
বিজয়া রায় স্মৃতিচারণে লিখেছেন, বিয়ের রেজিস্ট্রেশনের আগে বোম্বাই-এ তাঁকে নিয়ে সত্যজিৎ গিয়েছিলেন ‘এনগেজমেন্ট রিং’ কিনতে। ‘শেষকালে ফিরোজ শাহ মেহেতা রোডে একটা দোকানে ‘রুপোর উপর সোনার জল করা কৃষ্ণের মূর্তি, মুখে বাঁশি আর পিছনে একটা গোরু গা ঘেঁষে রয়েছে দেখে আমার ভারী পছন্দ হল। উনি (সত্যজিৎ) অবাক হয়ে বললেন ‘সেকি, হীরে, রুবি সব ছেড়ে শেষকালে সোনার জল করা একটা রুপোর আংটি?’
অবশ্য পরে পঁচিশ বছরের বিবাহবার্ষিকীতে বিজয়াকে হীরের কানফুল ও হীরের আংটি উপহার দিয়েছিলেন সত্যজিৎ। হীরের আংটি পছন্দ করতেন বলে বিজয়া স্বোপার্জিত অর্থে আরও একটি হীরের আংটি কিনেছিলেন। তবে দাদাশ্বশুর উপেন্দ্রকিশোর রায়চৌধুরির হীরে বসানো সোনার আংটিটি হারিয়ে ফেলে খুবই দুঃখ পেয়েছিলেন।
অবনীন্দ্রনাথ ঠাকুর লিখেছেন বাবা গুণেন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রসঙ্গে। গুণেন্দ্রনাথ শৌখিন পুরুষ ছিলেন। হাতে কাট গ্লাসের আতরের শিশি বসানো ছড়ি, আঙুলে ‘বনস্পতি’ হীরের আংটি পরে যেতেন বেড়াতে। একবার হীরেটি আংটি থেকে খুলে পড়ে যায়। তাঁর বুদ্ধু বেহারা একটা সাধারণ পাথর ভেবেই সেটি আলমারিতে তুলে রেখেছিল!
অবনীন্দ্রনাথ একবার একটি আশ্চর্য সুন্দর ছোট্ট পাথর খুঁজে পান। দৌহিত্র মোহনলাল লিখেছেন, ‘এতটুকু তেঁতুল বীচির মতো অদ্ভুত একটি পাথর। বাদামি তার রং। আলোর দিকে ধরলে স্বচ্ছ দেখায়। আর অবাক কাণ্ড! তার ঠিক মাঝখানে একটি মৌমাছি জমে পাথর হয়ে রয়েছে। দাদামশায় সেই অপূর্ব পাথরটি বাঁধিয়ে আংটি করিয়েছিলেন। প্রায়ই পরতেন।’
মুকুল দে’কে এক জ্যোতিষী বলেছিলেন, সোনা বাঁধানো ক্যাটস ‘আই’ বা বৈদুর্যমণি ধারণ করতে। একবার সপরিবারে সিংহলে গিয়েছিলেন। সেখানে এক সম্ভ্রান্ত মহিলা তাঁকে উপহার দিয়েছিলেন বৈদুর্যমণি বা ‘ক্যাটস আই’ খচিত সোনার আংটি। আংটি পরে মুকুলের ছবি প্রদর্শনী হলে খ্যাতি ছড়িয়ে পড়ে চতুর্দিকে। খুবই সম্মান পেয়েছিলেন সেখানে। প্রচুর ছবি বিক্রি হয়। অনেক পোর্ট্রেট করেন, ছবি আঁকেন। বহু অর্থ উপার্জন করেন, খরচও করেন দু’হাতে। ফেরার পথে ট্রেনে আংটি থেকে পাথরটি কোথায় যেন পড়ে যায়। তারপর থেকেই মুকুল আবার নিঃস্ব। বীণা তাঁর ঝুলি ঝেড়ে কুলি বিদায় করেন। মুকুল নিজেই বলেছেন ‘পুনর্মূষিক হওয়া গেল!’
সেকালের অভিজাত পরিবারের মেয়ে-বউদের অলঙ্কার প্রাচুর্য যে পরিবারের অর্থকৌলীন্য আর বনেদিয়ানা— দুইই বোঝাত। দামি বা বিরল গয়নাপত্র কি দুষ্প্রাপ্য রত্ন নিয়ে বনেদি পরিবারের মধ্যে অলিখিত রেষারেষিও চলত সেকালে। এমন এক অতি ধনী প্রতিদ্বন্দ্বী পরিবারে নিমন্ত্রণ রাখতে এসেছিলেন। আরেক ধনী বনেদি পরিবারের চূড়ামণি দত্তর মেয়ে। মেয়ে এসে নিমন্ত্রণ বাড়িতে দাঁড়ালে, দেখা গেল, গোটা শামিয়ানার রং পাল্টে ময়ূরকণ্ঠি আভা লেগেছে! এর কারণ অনুসন্ধান করে দেখা গেল ওই মেয়ের আঙুলের আংটির পাথর থেকেই এমন আভা দেখাচ্ছে। গল্পের আর শেষ নেই আংটি নিয়ে।
তেমনই শেষ নেই বাঙালির সাহিত্যে আংটি প্রসঙ্গের। বঙ্কিমচন্দ্রের দুর্গেশনন্দিনী, দেবী চৌধুরানী, যুগলাঙ্গুরীয় উপন্যাসে পাঠক তার পরিচয় পেয়েছেন। ভূদেব মুখোপাধ্যায় লিখেছিলেন— অঙ্গুরীয় বিনিময়। রবীন্দ্রনাথের ‘বিচারক’ গল্পে আংটি প্রসঙ্গ পাঠকের মন ভিজিয়ে দেয়। আর রহস্য গল্পে হেমেন্দ্রকুমার রায়, নীহাররঞ্জন গুপ্ত, সত্যজিৎ রায় বারবার এনেছেন আংটির কথা। সহৃদয় পাঠকের তা অজানা নেই!
আংটির ছবি: শ্যামসুন্দর কোং জুয়েলার্স                                                                              
ফোন: গড়িয়াহাট, ফোন: ২৪৬৪২৪৬৪, বেহালা ফোন: ২৩৯৮৮৮২২, বারাসত, ফোন: ২৫৫২৮৮২২
06th  July, 2019
আজ সরস্বতী-সাজ 

শীত শেষের দামামা বেজে গিয়েছে। আসন্ন মাঘের শুক্লা পঞ্চমী তিথি। বসন্তের এই শুভ সূচনা লগ্নে কেমন হবে সাজ জানাচ্ছেন সোমা লাহিড়ী।  বিশদ

25th  January, 2020
বিয়ের কনের সাজবদল 

বাঙালি কনের ঐতিহ্য বজায় রেখে অথচ একঘেয়ে সাজ থেকে বেরিয়ে নতুন রকমের সাজে কনেকে সবার কাছে আকর্ষণীয় করে তোলার পরামর্শ দিলেন এস্থেটিশিয়ান ও মেকআপ আর্টিস্ট রুবি বিশ্বাস। লিখেছেন পাপিয়া মণ্ডল। 
বিশদ

18th  January, 2020
বেনারসির সাতকাহন 

সারা বছর জিনস টিশার্ট আর কুর্তি কামিজে দৌড়ঝাঁপ করা মেয়েটি বিয়ের ক’টা দিন কনে বউটি। বিয়ে আর বউভাতের রিসেপশনের সন্ধেতে কন্যে যেন রাজকন্যে। ট্র্যাডিশনাল বাঙালি কনের সাজের মাধুর্যে অভিভূত বিশ্ব। তাই গয়নায়, বেনারসিতে, মেকআপে আমরা ধরে রাখতে চাই বাঙালি ঐতিহ্য, বাঙালি ঘরানা। কী দেখে বেনারসি কিনবেন জানাচ্ছেন সোমা লাহিড়ী। 
বিশদ

18th  January, 2020
পার্টির মধ্যমণি 

শীতের সান্ধ্য পার্টি হোক বা বিয়ের রিসেপশন, কেমন সাজে হয়ে উঠবেন অনন্যা জানালেন সোমা লাহিড়ী।  বিশদ

11th  January, 2020
স্টাইলে সাজুন উইন্টারে 

শীতকাল মানেই জমাটি পার্টি, পিকনিক, আবছা রোদ গায়ে মেখে ইতিউতি ঘুরে বেড়ানো। এমন খুশির দিনে পোশাক হওয়া চাই স্টাইলিশ, চমকদার, রঙে রঙে রঙিন। সঙ্গে মেকআপ, হেয়ারস্টাইল ও অ্যাকসেসরিজও হওয়া চাই মানানসই। পথ দেখালেন সোমা লাহিড়ী। 
বিশদ

04th  January, 2020
নিউ ইয়ারে ইংলিশ স্টাইল 

নিউ ইয়ার’স ইভের পার্টিতে একটু সাহেবি কেতা চাই-ই। জানাচ্ছেন সোমা লাহিড়ী।  বিশদ

28th  December, 2019
 কচিদের ক্রিসমাস

ক্রিসমাস মানেই সান্টা ক্লজ আর উপহারের ঝুলি। ক্রিসমাস মানেই শীত রোদ গায়ে মেখে হুটোপাটি। ক্রিসমাস মানেই হইহই। ক্রিসমাস মানেই পিকনিক, কমলালেবু আর কেক। আর ক্রিসমাস মানেই জাঁকালো শীত আর ফ্যাশনদার সোয়েটার। রঙিন গরমজামা গায়ে চড়িয়ে ছুটির মেজাজে এদিক সেদিক ঘোরাঘুরি। ক্রিসমাসের এই ঘোরাঘুরি কিন্তু ফ্যাশনদার শীত পোশাক ছাড়া অসম্পূর্ণ। বিশদ

21st  December, 2019
স্টাইলিশ শাল স্টোল 

তিনটি তিন ধরনের শাল, স্টোল ও র‌্যাপারের কথায় সোমা লাহিড়ী।  বিশদ

14th  December, 2019
স্টাইলিশ উইন্টার মুড 

শীত আসছে। বাতাসে হিমের পরশ। মুডটা এমনিই ভালো হয়ে যায়। আর মুড যখন ভালো তখন স্টাইল তো জমবেই। স্টাইলিশ উইন্টার ওয়্যারের খবরে সোমা লাহিড়ী। 
বিশদ

30th  November, 2019
চরিত্র যেমন সাজ তেমন 

১৩ ডিসেম্বর মুক্তি পাবে পরিচালক অভিরূপ ঘোষের ছবি জম্বিস্থান। ছবির কাহিনী, চিত্রনাট্য, সংলাপ ও পোশাক পরিকল্পনার দায়িত্বে স্বয়ং পরিচালক। খবরে চৈতালি দত্ত। 
বিশদ

23rd  November, 2019
জ্যাকেটে জমজমাট হেমন্ত 

হেমন্তের হিমেল হাওয়ায় জ্যাকেট এল নতুন সাজে। ফ্যাব্রিক থেকে ডিজাইন সব কিছুতেই বেশ বদল হয়েছে এবার। কেমন সেই বদল? ছবিতে লেখায় রইল সেই হেমন্ত স্পেশাল জ্যাকেটের হদিশ। হদিশ দিলেন সোমা লাহিড়ী। 
বিশদ

23rd  November, 2019
পাঞ্জাবিতে জমে যাক আড্ডা 

সব বয়সের সবার প্রিয় পাঞ্জাবি। ঠিক আড্ডার মতোই বাঙালির পছন্দের পোশাক পাঞ্জাবি। পাঞ্জাবির গল্প বলছেন সোমা লাহিড়ী।  বিশদ

16th  November, 2019
অভিনব ফ্যাশন শো
ন্যাশনাল প্যাজেন্ট ইন্ডিয়া 

একসঙ্গে পা মিলিয়ে সাত পা হাঁটলে বন্ধুত্বের অঙ্গীকার করতে হয়। মাত্র সাত পা নয় ওঁরা একসঙ্গে পা মিলিয়ে অনেক পা হাঁটলেন আর হাঁটতে হাঁটতে এই বার্তাই পৌঁছে দিলেন সমাজের কাছে, যে ওঁদের বন্ধুত্বের দাবি নারী, পুরুষ, রূপান্তকরকামী নির্বিশেষে মানবতার সঙ্গে। ওঁরা তাই লিঙ্গভেদ মানেন না, শুধু আস্থা রাখেন ‘মানুষ’ শব্দটার ওপর।  
বিশদ

09th  November, 2019
গ্রেসফুলি বয়স
বাড়লে ক্ষতি কী?

ঋতুপর্ণা, তুমি এখনও জানো না আজ তোমার সবথেকে কাছের মানুষটি সিঙ্গাপুরের ঝলমলে পাঁচতারা হোটেলে তোমার জন্মদিন সেলিব্রেট করার জন্য একটা পার্টির আয়োজন করেছেন গোপনে। তোমাকে সারপ্রাইজ দেবে বলে কেউ কিচ্ছুটি জানায়নি। এমনকী তোমার পুচকে মেয়েটাও মাকে চমকে দেবে বলে চুপিচুপি বাবা আর দাদার সঙ্গে অনেকরকম প্ল্যান করেছে।  বিশদ

09th  November, 2019
একনজরে
  নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: তিনি দায়িত্ব নেওয়ার পর আই লিগে শেষ ছ’টি ম্যাচের একটিতেও হারেনি ট্রাউ এফসি। তবুও গড়াপেটার অভিযোগে কোচ দিমিত্রিস দিমিত্রিউকে বরখাস্ত করল মণিপুরের ক্লাবটি। সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রাউয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ‘দিমিত্রিসকে কোচের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া ...

সংবাদদাতা, গুসকরা: গোরুর বাঁটে মুখ লাগিয়ে দিব্যি দুধ খাচ্ছে ছাগলের বাচ্চা। এমনই ঘটনা দেখতে সোমবার নিমেষের মধ্যে ভিড় জমে যায় আউশগ্রামের বেরেণ্ডা পঞ্চায়েত এলাকার কুরুম্বার ...

গোয়ালিয়র, ২৭ জানুয়ারি (পিটিআই): মধ্যপ্রদেশের গোয়ালিয়র সেন্ট্রাল জেলে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করল এক বন্দি। নাম নরোত্তম রাওয়াত। গত ২৩ জানুয়ারি থেকে জেলে ছিল সে। রবিবার রাতে জেল চত্বরের একটি গাছ থেকে নরোত্তমের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়।  ...

লুজিওবেলজানা, ২৭ জানুয়ারি (এএফপি): পদত্যাগের কথা ঘোষণা করলেন স্লোভানিয়ার প্রধানমন্ত্রী মারযান সারেক। সোমবার তিনি নতুন করে নির্বাচনের ডাক দেন। ২০১৮ সালে স্লোভানিয়ার প্রধানমন্ত্রী হন সারেক। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

শিক্ষার জন্য দূরে কোথাও যেতে পারেন। প্রেম-প্রণয়ে নতুন যোগাযোগ হবে। বিবাহের কথাবার্তাও পাকা হতে পারে। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৫৫৬:দ্বিতীয় মোঘল সম্রাট হুমায়ুনের মৃত্যু
১৮৬৫: স্বাধীনতা সংগ্রামী পাঞ্জাব কেশরী লালা লাজপত রাইয়ের জন্ম
১৮৯৮: ভারতের মাটিতে পা রাখলেন ভগিনী নিবেদিতা
১৯২৫: বিজ্ঞানী রাজা রামান্নার জন্ম
১৯৩০: গায়ক যশরাজের জন্ম
১৯৩৭: গায়িকা সুমন কল্যাণপুরের জন্ম





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৬৪ টাকা ৭২.৩৪ টাকা
পাউন্ড ৯১.৭৩ টাকা ৯৫.০২ টাকা
ইউরো ৭৭.৩৫ টাকা ৮০.৩৩ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪১,৩২০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৯,২০০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৯,৭৮০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৭,৪৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৭,৫৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

১৩ মাঘ ১৪২৬, ২৮ জানুয়ারি ২০২০, মঙ্গলবার, (মাঘ শুক্লপক্ষ) তৃতীয়া ৫/৩ দিবা ৮/২২। শতভিষা ৭/৩৪ দিবা ৯/২৩। সূ উ ৬/২১/২১, অ ৫/১৭/৩৫, অমৃতযোগ দিবা ৮/৩২ গতে ১০/৪৩ মধ্যে পুনঃ ১২/৫৪ গতে ২/২২ মধ্যে পুনঃ ৩/৫ গতে ৪/৩৩ মধ্যে। রাত্রি ৬/৯ মধ্যে পুনঃ ৮/৪৬ গতে ১১/২২ মধ্যে পুনঃ ২/০ গতে ৩/৪৪ মধ্যে। বারবেলা ৭/৪৩ গতে ৯/৫ মধ্যে পুনঃ ১/১২ গতে ২/৩৪ মধ্যে। কালরাত্রি ৬/৫৬ গতে ৮/৩৪ মধ্যে।
১৩ মাঘ ১৪২৬, ২৮ জানুয়ারি ২০২০, মঙ্গলবার, তৃতীয়া ০/৪৫/৪৫ প্রাতঃ ৬/৪২/৩৩। শতভিষা ৪/৩৯/৩৪ দিবা ৮/১৬/৫। সূ উ ৬/২৪/১৫, অ ৫/১৬/২৮, অমৃতযোগ দিবা ৮/৩১ গতে ১০/৪৩ মধ্যে ও ও ১২/৫৬ গতে ২/২৫ মধ্যে ও ৩/৯ গতে ৪/৩৭ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/১৩ মধ্যে ও ৮/৪৯ গতে ১১/২৫ মধ্যে। কালবেলা ১/১১/৫৩ গতে ২/৩৩/২৫ মধ্যে। কালরাত্রি ৬/৫৪/৫৬ গতে ৮/৩৩/২৫ মধ্যে।
২ জমাদিয়স সানি

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
 চন্দননগরে সরস্বতী প্রতিমা কিনে এনে আত্মঘাতী সপ্তম শ্রেণীর ছাত্র
বুধবার সরস্বতী পুজো। মঙ্গলবার বাবার সঙ্গে গিয়ে আনন্দ করেই সরস্বতী ...বিশদ

03:59:00 PM

ট্যুইটে আক্ষেপ রাজ্যপালের
সমাবর্তন অনুষ্ঠান ছেড়ে বেরিয়ে আসার সময় আমার মনে সম্মানের বিষয়টিই ...বিশদ

02:32:28 PM

এবার ক্যানভাসে সিএএ-র প্রতিবাদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের 

02:16:00 PM

এই প্রথম বারুইপুর আদালতে ফাঁসির নির্দেশ
এই প্রথম ফাঁসির নির্দেশ দিল বারুইপুর আদালত। আজ এই আদালতে ...বিশদ

01:56:00 PM

 শিক্ষকদের জন্য সুখবর মমতার
শিক্ষকদের জন্য বড় সিদ্ধান্ত ঘোষণা রাজ্যের। ট্যু ইট করে সেই ...বিশদ

01:51:21 PM

সমাবর্তন অনুষ্ঠানে যোগ না দিয়ে ফিরেই গেলেন রাজ্যপাল 
সমাবর্তন অনুষ্ঠানে যোগ না দিয়ে ফিরে গেলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকার। ...বিশদ

01:42:00 PM