Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

রাজনীতি এমন করে মেলাতে পারে না কেন?

হিমাংশু সিংহ: কিছুই হারায়নি। এই সুপ্রাচীন সংস্কৃতি আর স্বতঃস্ফূর্ত মিলনমেলা ঠিক যেমনটি ছিল তেমনই আছে। হাতের কাছেই নিখুঁত গোছানো টানটান। প্রবাসীর ঘরে ফেরা, রাত জেগে উদ্বেল ঠাকুর দেখা, ভোররাতে পায়ে ফোস্কা—সব একই আছে। গত দু’বছর বিশ্বব্যাপী মহামারীর আঘাত, ভোটের স্বার্থে মানুষে মানুষে বিভেদ তৈরির কুটিল ষড়যন্ত্র, মূল্যবৃদ্ধির ধাক্কা, কাজ হারানো শ্রমিকের কান্না, নেতাদের কথা না রাখা, এখানে ওখানে টাকার পাহাড় আবিষ্কার নিশ্চিতভাবে নাড়া দিয়েছে বঙ্গজীবনকে, কিন্তু বদলে দিতে পারেনি অনাবিল মনটাকে। অন্যায় হয়েছে, অপরাধ বেড়েছে। কিন্তু ঢেউ চলে গেলেই সমুদ্রতটের বালুকাবেলা যেমন আগের মতোই একাকার হয়ে যায়, আমাদের জীবনও অবিকল তেমনই। না-হলে রাস্তায় বসে থাকা চাকরিপ্রার্থীদের সুবিচার পাইয়ে দিতে আদালতকে এমন সক্রিয় হতে দেখা গিয়েছে কবে?
আশ্বিন প্রাতে বীরেন্দ্রকৃষ্ণ ভদ্রের মহিষাসুরমর্দিনী রেডিওতে বাজতেই ধরণীর অন্তর ও বহিঃআকাশ বদলের সঙ্গে তাল রেখেই বাঙালি মন আবারও তাই পুজোমুখী। বিশ্বের দরবারে দুর্গাপুজোর অনন্য স্বীকৃতি এবারের উৎসবকে নতুন মাত্রা দিয়েছে। সেই উৎসাহ থেকেই জাতপাত ভুলে বর্ধমানের পুজো সফল করতে ছুটছেন মহম্মদ ইসমাইল। অন্ডালে একই ভূমিকায় মহম্মদ ফিয়াজ। ওদের ধর্ম যাই হোক, নাওয়া-খাওয়ার সময় নেই এই পুজোয়। নিঃসন্দেহে এক বিরল দৃশ্য। এই একটা উপলক্ষ, যার জন্য দেওয়াল লিখতে হয় না, মাইকে সকাল বিকেল গর্জন করতে হয় না। বিজ্ঞাপন দিতে হয় না। ‘ব্রিগেড চলুন’ পোস্টার সাঁটাতে হয় না। স্ট্রিট কর্নার করতে হয় না। পাঁজি, নির্ঘণ্ট কোনও কিছুর খোঁজ না রাখলেও আপনাআপনি মনটা কেমন অন্যরকম হয়ে যায়। কোনও কিছুর তোয়াক্কা না করেই পেঁজা তুলোর মতো উড়ে যায় এক মণ্ডপ থেকে অন্যত্র একান্ত প্রিয়জনের হাত ধরে। কেমন যেন একটা মন হারানো সুর কড়া নাড়ে দরজায়। সবার অজান্তেই ‘মা আসছেন’, এই অমোঘ ধ্বনি পৌঁছে যায় ধনীর সাতমহলা থেকে কুঁড়েঘরের ভগ্ন দালানের চুনসুরকি খসা কড়ি-বরগায়, টালির চালে। এঁদোগলি থেকে রাজপথের সর্বত্র। ম্যাজিকের মতো আপামর বাঙালির এই চারদিনের বদলে যাওয়া জীবন চর্চায় ধনী-দরিদ্র, হিন্দু-মুসলিম, তৃণমূল, বিজেপি, বাম কোনও বিভেদই কাজে আসে না। খামতি ঢাকতে রাজনৈতিক দলগুলো জনসংযোগে ঝাঁপায় বটে, তাতে যেন কোনও ভ্রুক্ষেপই নেই মানুষের। ধর্ম যার যার, উৎসব সবার—এই আপ্তবাক্যটির মর্মার্থ আর কোনও সময় এমন জীবন্ত হয়ে ধরা পড়ে না দৈনন্দিন যাপনে। এই ক’দিন কলকাতা থেকে ক্যালিফোর্নিয়া আমাদের একটাই পরিচয়—বাঙালি। সেই আবহমান সংস্কৃতির এমন উচ্চকিত উদযাপন আর কোথায় মেলে? কেউ জানলে সন্ধান দেবেন। সেইসঙ্গে রাজনীতির ওস্তাদ কারবারিদের কাছে প্রশ্ন, তাঁরাও তো চেষ্টা করলেই মানুষকে ছোট ছোট গোষ্ঠীতে বিভক্ত করার বদলে একই বৃন্তে ঠাঁই করে দেওয়ার প্রয়াসে ব্রতী হতে পারেন? কিন্তু তা করেন না কেন? রাজনীতির সুখ কি শুধু ভাঙনেই? বোধ আর অনুভবকে ভোঁতা করে মানুষে মানুষে সুদীর্ঘ প্রাচীর তুলে দেওয়ায়!
যত দিন যাচ্ছে পুজো ততই এগিয়ে আসছে। চার নয়, দশদিনের উৎসবে পরিণত হচ্ছে। আমাদের ছোটবেলায়ও ষষ্ঠীর আগে বড় একটা ঠাকুর দেখার চল ছিল না। আস্তে আস্তে তার ব্যাপ্তি বাড়ছে। গতবারও তৃতীয়া-চতুর্থীর আগে ফুটপাত লাগোয়া বাঁশের বেড়ার ঘেরাটোপে মানুষকে বড় একটা হাঁটতে দেখিনি। আর এবার মহালয়া কিংবা তারও আগে থেকেই ঠাকুর দেখার ভিড় শুরু হয়ে গিয়েছে। অধিকাংশ ঠাকুর কুমোরটুলি থেকে মণ্ডপে চলে গিয়েছে মহালয়ার মধ্যেই। কোথাও থিম তো কোথাও আবার সাবেকিয়ানার জয়গান, সর্বত্রই আয়োজন সম্পূর্ণ। মহালয়া থেকেই সব দুঃখ, পরাজয়, ব্যর্থতা, না-পাওয়া ভুলে মানুষ হেঁটে চলেছেন—দেবীদর্শনে, না নিজেকে এই আনন্দোৎসবের অকৃত্রিম যাত্রায় শামিল করতে। সেই ভিড়ে ধর্ম সম্প্রদায় কোনওদিন প্রাচীর হয়ে ওঠেনি। দেওয়াল তুলে দেয়নি কোনও রাজনৈতিক রং। একই কারণে, এই রবিবার থেকে একটা সপ্তাহ যাবতীয় চর্চা আর আড্ডাতেও পুজো ছাড়া আর কিছুই ঠাঁই পায় না বঙ্গজদের সুসজ্জিত ড্রইংরুম থেকে আটপৌরে চায়ের দোকানে। মা যতক্ষণ মর্তে, রাজনীতির কূটকচালি নেতাদের জারিজুরি, ভোলবদল, ডিগবাজি সব ব্রাত্য!
অফিস থেকে বাড়ি ফেরার সময় উত্তর কলকাতার টালাপার্কে দেখেছি, দুই ভিন্ন সম্প্রদায়ের মানুষ কেমন একই লাইনে সারিবদ্ধভাবে এগচ্ছেন প্রত্যয়ের সঙ্গে মায়ের ভুবনভোলানো মুখ চাক্ষুষ করতে। একই ছবি পার্কসার্কাসেও। শ্রীভূমি, একডালিয়া, চালতাবাগান, সুরুচি সঙ্ঘ, কলেজস্ট্রিট, চেতলা অগ্রণী সর্বত্র। শুধু বদলে যায় স্থান-কাল, আঙ্গিক আর সাজ। আসলে সবটাই যেন একই ক্যানভাসের অংশ। সব ভুলে কেমন যেন মন্ত্রমুগ্ধের মতো পলকহীন দৃষ্টিতে চেটেপুটে নিতে চায় এই আনন্দযজ্ঞের ভাগটুকু। কোনও রাজনৈতিক সভা নয়। নানা ছুতোয় বিক্ষোভ দেখানোর দু’শো ফিরিস্তিও নয়, স্রেফ একটা পুজো কত কাছে নিয়ে আসতে পারে সব রং, সব আয় ও ধর্মের মানুষকে। আমাদের নেতানেত্রীরা যখন ক্রমাগত বিভাজনের তাস খেলেন, মানুষে মানুষে দূরত্ব রচনা করে ভোট কুড়নোর খেলায় মত্ত হয়ে ওঠেন, কিন্তু সবকিছুকে ছাপিয়ে জিতে যায় বাঙালির এই উৎসব। এই মিলনমেলা ছাপিয়ে যায় স্বার্থান্বেষীদের চক্রান্ত থেকে যাবতীয় ব্যক্তিগত দুঃখ আর চোখের জলের নির্মম আর্তিকেও।
করোনায় মারা গিয়েছে বাড়ির একমাত্র রোজগেরে ছেলে অনির্বাণ। সেই কুড়ি সালের আগস্ট থেকে ও বাড়িতে আলোটা কেমন ম্লান। একুশের শ্রাবণে ভালো পাত্র দেখে ঘটা করে বাড়ির বড় মেয়ের বিয়ে দিয়েছেন তুষার ভট্টাচার্য। বছর ঘুরতে না ঘুরতেই সব পাঠ চুকিয়ে মেয়ে ফিরে এসেছে বাপের ঘরে। অনন্তবাবু অনেক কষ্ট করে সারাজীবনের সঞ্চয় ভাঙিয়ে ছেলেকে বিদেশে পাঠিয়েছেন পাঁচ বছর আগে। কিন্তু বিদেশে চাকরি পেয়ে ছেলে ওখানেই বিয়ে করে সেটল করেছে। আর বৃদ্ধ বাবা-মাকে মনে রাখেনি। অনন্তবাবু ও তাঁর স্ত্রী এখন নিঃসহায়। কোনওক্রমে ডালভাতটুকু জুটে যায়। ওষুধের খরচেও বেজায় টান। পোস্ট অফিসের ওই ক’টা টাকায় আর কী হয়! এই সব হাজারো ক্ষয় আর সব হারানো সর্বনাশের গল্প থেকে একটুকু আলোর ছোঁয়া আর স্বস্তি দিতেই যেন আবির্ভাব হয় তাঁর। বিশ্বজননীর। সুন্দরবনের প্রান্তিক মানুষ থেকে উত্তরে চা বাগানের শীর্ণ শ্রমিক সবার রক্তেই একটু জীবন খেলে যায়। বাংলার সীমা ছাড়িয়ে সব দেশে সব কালে সর্বজনীন তাঁর আবেদন। এই গ্রহে যেখানেই বাঙালি আছে সেখানেই। 
মহাসপ্তমীর এই পুণ্য মুহূর্তে কামনা একটাই, এই আলো আর উৎসবের বন্যায় ভেসে যাক যাবতীয় দুঃখ আর না-পাওয়ার অন্ধকার। অমৃত ছোঁয়া ছড়িয়ে পড়ুক প্রত্যেকের জীবনে। পুজো সবার ভালো কাটুক, শান্তিতে কাটুক। দেবীর মুখের দীপ্তি আর আলো যাবতীয় অন্ধকার ঢেকে দিয়ে নতুন ভোর নিয়ে আসুক মর্তলোকে।
02nd  October, 2022
বোঝাপড়ার অঙ্কেই কি এত আসন দাবি?
তন্ময় মল্লিক

দৃশ্য-১: স্থান-পি সুন্দরাইয়া ভবন। পূর্ব মেদিনীপুর জেলার নন্দকুমারের সিপিএমের এরিয়া অফিস। কিছুক্ষণ পরেই হবে শীতলপুর পশ্চিম গ্রাম পঞ্চায়েতের বোর্ড গঠনের ভোটাভুটি। তাই বাইরে দলীয় কর্মী সমর্থকদের জটলা। একটি ঘরে চলছে পঞ্চায়েত দখলের শলাপরামর্শ। বিশদ

চল্লিশ বছর: একটি সত্যি রূপকথা
সমৃদ্ধ দত্ত

কৃষ্ণনগর থেকে বাসে  কয়েক ঘণ্টার জার্নির পর করিমপুর। তারপর সেখান থেকে শিকারপুর। এবার যেতে হবে ভ্যানে চরমেঘনা। ভারতীয় গ্রামের অনেক জমি বাংলাদেশের এলাকা দিয়ে ঘেরা অংশে পড়ে গিয়েছে।
বিশদ

08th  December, 2023
ডেভিলস অ্যাডভোকেট
মৃণালকান্তি দাস 

ইতিহাস কীভাবে এই শতবর্ষী কূটনীতিক কিসিঞ্জারকে  মনে রাখবে? বিশ শতকের রাজনীতিতে তাঁর প্রভাব অস্বীকার করার জো নেই। আগ্রাসী মার্কিন বিদেশনীতির তিনিই প্রণেতা। জাতীয় স্বার্থের নামে যে ‘রিয়েল পলিটিক’ তিনি প্রস্তাব করেন, তার কারণে শুধু লাখ লাখ মানুষের প্রাণহানিই ঘটেনি, বিশ্বের মানুষের কাছে আমেরিকা নিন্দিত হয়েছে। বিশ ও একুশ শতকে আমেরিকার ইতিহাস যে তার সাম্রাজ্যবাদী আগ্রাসনের ইতিহাস, তার রূপকার কিসিঞ্জার-ই। বাঙালি সেই প্রয়াত হেনরি কিসিঞ্জারকে মনে রাখবে খুনে ইয়াহিয়ার দোসর হিসেবেই।
বিশদ

07th  December, 2023
টোকাটুকিতে ফার্স্টের আস্ফালন
হারাধন চৌধুরী

কংগ্রেস হিমাচল প্রদেশে সরকার তৈরি করেছিল ১১ ডিসেম্বর, ২০২২। বিজেপির জয়রাম ঠাকুরকে ক্ষমতাচ্যুত করে মুখ্যমন্ত্রী হন কংগ্রেসের সুখবিন্দর সিং সুখু।
বিশদ

06th  December, 2023
প্রশ্নগুলো তোলা থাক লোকসভা ভোটের জন্য
শান্তনু দত্তগুপ্ত

প্রশ্ন ১: এক্সিট পোলে প্রায় সব জাতীয় সংবাদমাধ্যমই জিতিয়ে দিয়েছিল কংগ্রেসকে। ঠিক তখনই সাংবাদিক সম্মেলন ডাকলেন রামন সিং। ছত্তিশগড়ের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী।
বিশদ

05th  December, 2023
পাঁচ রাজ্যের ভোটে আপনার সেরা বাজি কারা?
পি চিদম্বরম

এই নিবন্ধটি লিখেছি গত বৃহস্পতিবার (৩০ নভেম্বর)। সেদিনই ভোট নেওয়া হয়েছে তেলেঙ্গানায়। ওইসঙ্গেই শেষ হয়েছে পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন।
বিশদ

03rd  December, 2023
ভোটের গন্ধেই ডেলি প্যাসেঞ্জারি শুরু
হিমাংশু সিংহ

এই লেখা যখন আজ পাঠকের হাতে পৌঁছচ্ছে তখন সবাই উদগ্রীব তেলেঙ্গানায় কংগ্রেসের উত্থান দেখতে। মধ্যপ্রদেশ ও রাজস্থান মোদি না সোনিয়া গান্ধী, কার কপালে জনগণ জয়তিলক পরিয়ে দিল তা জানতে। 
বিশদ

03rd  December, 2023
এলেন, দেখলেন, কিন্তু জয় হল কি?
তন্ময় মল্লিক

এলেন, দেখলেন এবং ফিরে গেলেন। উদ্দেশ্য ছিল জয় করার। কিন্তু পারলেন কি? বঙ্গ বিজেপিকে অক্সিজেন জোগাতে এসে অমিত শাহ বাড়িয়ে দিলেন অস্বস্তি। তুলে দিয়ে গেলেন একগুচ্ছ প্রশ্ন। কী সেই প্রশ্ন? এক, অমিত শাহ বাংলা থেকে তাঁর ৩৫ আসনের দাবির কথা কেন কর্মীদের ফের স্মরণ করিয়ে দিলেন না? বিশদ

02nd  December, 2023
উত্তরকাশী সুড়ঙ্গ শেখালো ঐক্যের শক্তি
সমৃদ্ধ দত্ত

শাবা আহমেদের কাছে আমরা একটা শিক্ষা পেলাম। পুরনো শিক্ষা। নতুন করে। তিনি শিক্ষা দেবেন বলে বলেছেন এমন নয়। খুবই স্বাভাবিকভাবে বলছিলেন কথাগুলো। কিন্তু প্রতিটি বাক্যে আমরা বুঝলাম হ্যাঁ, এটাই হল সফল, সুখী আর মনের শক্তি অর্জনের চাবিকাঠি। বিশদ

01st  December, 2023
সোশ্যাল মিডিয়ায় বিজেপি-রাজ!
মৃণালকান্তি দাস

ভিক্ট্রি ল্যাব: দ্য সিক্রেট সায়েন্স অব উইনিং ক্যাম্পেনস। বইটিতে মার্কিন সাংবাদিক সাশা আইজেনবার্গের লিখেছিলেন, নির্বাচনের সময় সোশ্যাল মিডিয়া নির্বাচকদের মতামতকে কতটা প্রভাবিত করতে পারে, তার প্রথম সফল পরীক্ষা–নিরীক্ষা হয়েছিল আমেরিকায়। বিশদ

30th  November, 2023
জো হুজুর রাজ্যপাল ও পদের কলঙ্ক আখ্যান
সন্দীপন বিশ্বাস

একটি কথায় সুপ্রিম কোর্ট বুঝিয়ে দিয়েছে, এই মুহূর্তে বিরোধী রাজ্যগুলিতে অভিষিক্ত রাজ্যপালরা কেমন কাজ করছেন। অত্যন্ত ভর্ৎসনার সুরেই দেশের সর্বোচ্চ আদালতের প্রধান বিচারপতি রাজ্যপালদের উদ্দেশে বলেছেন, ‘আগুন নিয়ে খেলবেন না।’
বিশদ

29th  November, 2023
কেসিআরের পথ এবার কিন্তু সহজ নয়
শান্তনু দত্তগুপ্ত

তেলুগু রাজনীতিতে পবন কল্যাণ এক অদ্ভুত চরিত্র। আম ভারতীয়রা তাঁকে চিরঞ্জীবির ভাই হিসেবে চেনে। দক্ষিণে তিনি নিজেও কিন্তু বেশ জনপ্রিয় অভিনেতা। 
বিশদ

28th  November, 2023
একনজরে
শুরুতে লিড নিয়েও পয়েন্ট খোয়াল মহমেডান স্পোর্টিং। শুক্রবার নৈহাটিতে সাদা-কালো ব্রিগেডকে রুখে দিল গোকুলাম কেরল। ম্যাচের ফল ১-১। ...

মিগজাউমের প্রভাবে টানা দু’দিনের বৃষ্টিতে আরামবাগ মহকুমার চাষিদের কার্যত দিশেহারা অবস্থা। বিঘার পর বিঘা জমির ফসল ডুবে গিয়েছে। ধান, আলু সহ সব্জি চাষে বিপুল ক্ষয়ক্ষতির ...

আসন্ন গঙ্গাসাগর মেলায় এবার ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র ইসরোর সাহায্য নেবে দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা প্রশাসন। যে সব ভেসেলে পুণ্যার্থীরা যাতায়াত করবেন, তার উপর নজর ...

লোকসভা ভোটের আগে এবার পশ্চিমবঙ্গের দুয়ারে সরকারের ধাঁচে নয়া প্রকল্প চালু করছে পাঞ্জাবের আপ সরকার। বৃহস্পতিবার এই প্রকল্পের ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী ভগবন্ত মান। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

ব্যবসায় লাভ বৃদ্ধি ও ব্যবসা প্রসারের উদ্যোগ গ্রহণ। আর্থিকক্ষেত্র সুরক্ষিত থাকবে। মনে বিক্ষিপ্তভাব থাকবে। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

আন্তর্জাতিক দুর্নীতি বিরোধী দিবস
আন্তর্জাতিক গণহত্যা স্মরণ ও প্রতিরোধ দিবস
১৪৮৩: অন্ধকবি সুরদাসের জন্ম
১৬০৮: ইংরেজ কবি জন মিলটনের জন্ম
১৭৫৮: তৎকালিন মাদ্রাজকে নিয়ে উপনিবেশবাদী বৃটেন ও ফ্রান্সের মধ্যে ১৮ মাসের যুদ্ধ শুরু হয়
১৮৮০: সাহিত্যিক এবং সমাজ সংস্কারক বেগম রোকেয়া সাখাওয়াত হোসেনের জন্ম
১৮৮৩: ভবতারিণী (মৃণালিনী) দেবীর সঙ্গে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের বিয়ে হয়
১৮৯৮: বেলুড় মঠ প্রতিষ্ঠিত হল
১৯২৪: কলকাতা ইসলামিয়া কলেজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপিত হয়
১৯২৭: ইংলিশ চ্যানেল বিজয়ী সাঁতারু ব্রজেন দাসের জন্ম
১৯৩২: সাহিত্যিক ও সমাজ সংস্কারক বেগম রোকেয়া সাখাওয়াত হোসেনের মৃত্যু
১৯৪৬: কংগ্রেস নেত্রী সোনিয়া গান্ধীর জন্ম
১৯৪৬: অভিনেতা শত্রুঘ্ন সিনহার জন্ম
১৯৮১: মডেল এবং অভিনেত্রী দিয়া মির্জার জন্ম
২০১১: আমরি হাসপাতালে আগুন



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৮২.৫৪ টাকা ৮৪.২৮ টাকা
পাউন্ড ১০৩.১২ টাকা ১০৬.৫৬ টাকা
ইউরো ৮৮.৩৪ টাকা ৯১.৪৭ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
08th  December, 2023
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৬২,৮৫০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৬৩,১৫০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৬০,০৫০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৭৪,১৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৭৪,২৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
08th  December, 2023

দিন পঞ্জিকা

২২ অগ্রহায়ণ, ১৪৩০, শনিবার, ৯ ডিসেম্বর ২০২৩। একাদশী ০/৫৮ প্রাতঃ ৬/৩২। চিত্রা নক্ষত্র ১১/২৫ দিবা ১০/৪৩। সূর্যোদয় ৬/৮/৫৩, সূর্যাস্ত ৪/৪৮/২৯। অমৃতযোগ দিবা ৬/৫১ মধ্যে পুনঃ ৭/৩৩ গতে ৯/৪১ মধ্যে পুনঃ ১১/৪৯ গতে ২/৪০ মধ্যে পুনঃ ৩/২৩ গতে অস্তাবধি। রাত্রি ১২/৪৮ গতে ২/৩৫ মধ্যে। বারবেলা ৭/২৮ মধ্যে পুনঃ ১২/৪৮ গতে ২/৮ মধ্যে পুনঃ ৩/২৮ গতে অস্তাবধি। কালরাত্রি ৬/২৮ মধ্যে পুনঃ ৪/২৮ গতে উদয়াবধি। 
২২ অগ্রহায়ণ, ১৪৩০, শনিবার, ৯ ডিসেম্বর ২০২৩।  দ্বাদশী শেষরাত্রি ৫/১৭। চিত্রা নক্ষত্র দিবা ৯/৩২। সূর্যোদয় ৬/১০, সূর্যাস্ত ৪/৪৯। অমৃতযোগ দিবা ৭/৩ মধ্যে ও ৭/৪৫ গতে ৯/৫২ মধ্যে ও ১২/২ গতে ২/৪৯ মধ্যে ও ৩/৩১ গতে ৪/৪৯ মধ্যে এবং রাত্রি ১২/৫৯ গতে ২/৪৬ মধ্যে। কালবেলা ৭/৩০ মধ্যে ও ১২/৫০ গতে ২/৯ মধ্যে ও ৩/২৯ গতে ৪/৪৯ মধ্যে। কালরাত্রি ৬/২৯ মধ্যে ও ৪/৩০ গতে ৬/১১ মধ্যে।
২৪ জমাদিয়ল আউয়ল।

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
দীপিকা পাড়ুকোনকে কুমড়ো পাঠালেন মন্ত্রী
‘মস্তানি’র জন্য বিশেষ উপহার পাঠালেন নাগাল্যান্ডের মন্ত্রী। নাগাল্যান্ডের পর্যটন এবং ...বিশদ

08-12-2023 - 06:06:14 PM

পুনের মোমবাতি কারখানায় আগুন, মৃত কমপক্ষে 
বিধ্বংসী অগ্নিকাণ্ড! পুনের পিম্পরি চিঞ্চওয়াড় এলাকার একটি মোমবাতি কারখানায় আগুন ...বিশদ

08-12-2023 - 05:44:01 PM

ইউপিআই ব্যবহারকারীদের জন্য স্বস্তির খবর
ইউপিআই ব্যবহারকারীদের জন্য বিরাট স্বস্তির খবর! এবার থেকে ইউপিআই-এর মাধ্যমে ...বিশদ

08-12-2023 - 05:24:05 PM

চোখের ভিতর থেকে বের হল ৬০টি জীবন্ত কৃমি
চোখের ভিতর থেকে বের হল ৬০টি কৃমি। তাও আবার জীবন্ত। ...বিশদ

08-12-2023 - 05:09:30 PM

খুবই দুঃখজনক, ভোটে তাকে পরাজিত করতে না পেরে, আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ না দিয়ে বিজেপি রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করেছে, দল ওঁর পাশে আছে, থাকবে: মমতা

08-12-2023 - 04:04:43 PM

প্রমাণ ছাড়াই পদক্ষেপ নিয়েছে এথিক্স কমিটি, প্রতিক্রিয়া মহুয়া মৈত্রর

08-12-2023 - 03:46:08 PM