Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

মতাদর্শ শিকেয় তুলে রেখেছেন মোদি-শাহ
মৃণালকান্তি দাস

দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তখন লালকৃষ্ণ আদবানি। আর স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আমেদাবাদ পূর্ব লোকসভা আসনে সাত-সাতবার ভোটে জেতা সাংসদ, আদবানি ঘনিষ্ঠ হারিন পাঠক।
২০০০ সালের ৩ নভেম্বর, আমেদাবাদের এক আদালতে হারিন পাঠক এবং গুজরাতের তৎকালীন স্বাস্থ্যমন্ত্রী অশোক ভাটের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল হয়। অভিযোগ, গুজরাতে কোটা বিরোধী আন্দোলনের সময় ১৯৮৫-র ২৪ এপ্রিল হেড কনস্টেবল লক্ষ্মণ দেশাইকে পিটিয়ে হত্যা করার জন্য মারমুখি জনতাকে উস্কে দিয়েছিলেন তাঁরাই। সেই সময়ে, পাঠক ছিলেন পৌরসভার কাউন্সিলার এবং ভাট রাজ্য বিধানসভার সদস্য। সেই কোটা বিরোধী আন্দোলনের জেরে পতন হয়েছিল মাধবসিংহ সোলাঙ্কি সরকারেরও। যদিও দুই নেতা দাবি তুলেছিলেন, তাঁরা ষড়যন্ত্রের শিকার।
৮ নভেম্বর হরিন পাঠক ও অশোক ভাট প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ির সঙ্গে দেখা করেছিলেন। গদি বাঁচাতে ছুটে গিয়েছিলেন ‘গুরু’ আদবানির কাছেও। কিন্তু কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী অরুণ জেটলি ততক্ষণে প্রধানমন্ত্রী বাজপেয়িকে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, দাঙ্গার মামলায় অভিযোগ গঠনের পর হারিন পাঠক এবং অশোক ভাটকে পদত্যাগ করতেই হবে। এটা নৈতিকতার প্রশ্ন। ১৫ বছর পুরানো মামলার জেরে বাজপেয়ি মন্ত্রিসভার স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর পদ খোয়াতে হয়েছিল হারিন পাঠককে।
২০১০ সাল। মধ্যপ্রদেশের স্বাস্থ্যমন্ত্রী তখন বাজপেয়ির ভাগ্নে অনুপ মিশ্র। গোয়ালিয়রের এক যুবকের মৃত্যুর ঘটনায় অভিযুক্ত হিসেবে নাম জড়িয়ে পড়ে অনুপ মিশ্রের ছেলের। অনুপ মিশ্রের ছেলে অশ্বিন মিশ্র, অনুপের ভাই অভয় মিশ্র এবং অজয় মিশ্র সহ ১৫ জনের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেছিলেন মৃত যুবকের ভাই। শোরগোল পড়ে যায় মধ্যপ্রদেশের রাজনীতিতে। বিরোধীরা অনুপ মিশ্রের পদত্যাগের দাবি তোলে। তৎকালীন মধ্যপ্রদেশের বিজেপির ইনচার্জ অনন্ত কুমার এবং মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান আদবানির মতামত চেয়েছিলেন। আদবানি বলেছিলেন, অনুপ মিশ্রকে পদত্যাগ করতে হবে। হাওলা কেলেঙ্কারিতে জড়িত থাকার অভিযোগে আদবানি নিজেও ১৯৯৬ সালে এমপি পদ থেকে পদত্যাগ করেছিলেন। উচ্চ আদালত তাঁকে মুক্তি দেওয়ার পর ১৯৯৮ সালে পুনরায় নির্বাচিত হন।
২০০১ সালের মার্চে, নিউজ পোর্টাল তেহেলকা-র একটি স্টিং অপারেশন তোলপাড় করে দিয়েছিল দেশের রাজনীতি। তৎকালীন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি বঙ্গারু লক্ষ্মণের বিরুদ্ধে এক জাল অস্ত্র ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ ওঠে। সমতা পার্টির প্রাক্তন সভানেত্রী জয়া জেটলির বিরুদ্ধেও তৎকালীন প্রতিরক্ষামন্ত্রী জর্জ ফার্নান্ডেজের সরকারি বাসভবনে বসে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ ওঠে। বঙ্গারু লক্ষ্মণকে দলের সভাপতির পদ থেকে সরিয়ে দিতে নিজে উদ্যোগ নিয়েছিলেন বাজপেয়ি। আর প্রতিরক্ষামন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগ করতে হয়েছিল জর্জ ফার্নান্ডেজকেও।
এটাই ছিল বাজপেয়ি-আদবানির বিজেপি। তাঁরা সেই যুগ দেখেছিলেন, যখন শাস্ত্রীজি ট্রেন দুর্ঘটনার দায় নিয়ে পদত্যাগ করেছিলেন। নৈতিকতা ছিল জনজীবনের মূল্যবোধের অংশ। দুর্নীতি বা ফৌজদারি মামলায় অভিযুক্ত একের পর এক নেতাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। অনেককে ভোটের লড়ার টিকিটও আর দেওয়া হয়নি। মিডিয়ার প্রশ্নকে মর্যাদা দেওয়া হয়েছে। তখন উস্কানিমূলক বক্তৃতায় অভিযুক্ত একাধিক বিজেপি মন্ত্রীকে পদত্যাগও করতে হয়েছে। ২০১৩ সালে, মধ্যপ্রদেশের আদিবাসী মন্ত্রী বিজয় শাহকে মহিলাদের বিরুদ্ধে অবমাননাকর মন্তব্যের জন্য পদত্যাগ করতে বলা হয়েছিল। কিন্তু নরেন্দ্র মোদি-অমিত শাহের জমানায় যাবতীয় নজর সাংগঠনিক সম্প্রসারণের দিকে চলে গিয়েছে। সেখানে নৈতিকতার কোনও বালাই নেই। আজ ঘৃণার বক্তৃতা বা অপরাধমূলক অভিযোগে অভিযুক্ত মন্ত্রীরা বহাল তবিয়তে ক্ষমতা ভোগ করছেন।
বাজপেয়ি-আদবানি জুটির আদর্শ ছিল ‘পার্টি উইথ এ ডিফারেন্স।’ যে কোনও মূল্যে ক্ষমতা অর্জন তাঁদের লক্ষ্য ছিল না। দলের সুস্পষ্ট মতাদর্শ ছিল। ‘আমাদের বিরোধী মানেই, তারা দেশবিরোধী— এমন আদর্শ বিজেপির ছিল না।’ ব্লগে লিখেছিলেন আদবানিজি। বিজেপি ক্যাডার ভিত্তিক পার্টি। রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের আঁতুড়ঘরে যত্ন সহকারে বিজেপি নেতাদের গড়ে তোলা হতো। কিন্তু মোদি-শাহের এই নতুন যুগে দলের ধারাবাহিক সাংগঠনিক সম্প্রসারণের তাগিদই প্রধান লক্ষ্য হয়ে উঠেছে। রাজনীতি স্বচ্ছ করার কোনও তাগিদ নেই। গেরুয়া শিবিরে অনেক নেতাই আজ প্রকাশ্যে বলেন, অন্য দলে কারও দমবন্ধ লাগলেই শ্বাস নিতে বিজেপিতে চলে আসুন। বিজেপি অক্সিজেন সিলিন্ডার নিয়ে দাঁড়িয়ে!
প্রধানমন্ত্রী মোদি কংগ্রেসি নেতাদের ‘নামদার’ বলে কটাক্ষ করেন। জনসঙ্ঘের প্রতিষ্ঠাতারা মনে করতেন, কোনও নীতি ছাড়া ‘নামদার’-দের জড়ো করে তৈরি কংগ্রেস একদিন টুকরো হয়ে যাবে। এই নামদাররা স্রেফ ক্ষমতার লোভে কংগ্রেসে নাম লিখিয়েছেন। ক্ষমতা গেলে তাঁরাও পালাবেন। তাঁরা ভুল ভাবতেন না। কিন্তু কী আশ্চর্য! মোদি-শাহের জমানায় বিজেপি সেই নামদারদেরই দলে টানছে। শিকেয় তুলে রাখা হয়েছে মতাদর্শ! জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ার হাত ধরে মধ্যপ্রদেশের কংগ্রেসের বিধায়করা যেদিন বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন, তাঁদের হাতে বিজেপির প্রাক্তন সভাপতি কুশাভাউ ঠাকরের জীবনী ধরিয়ে দেওয়া হয়েছিল। বলা হয়েছিল, পণ্ডিত দীনদয়াল উপাধ্যায়, শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের অবদানও আত্মস্থ করতে হবে। নতুন দলের মতাদর্শ মগজে ঢোকাতে হবে। যাকে বলে ‘মগজ ধোলাই’। কিন্তু মগজ ধোলাই কতটা কাজে দিয়েছে, তার ভূরি ভূরি উদাহরণ রয়েছে পশ্চিমবঙ্গে। মোদি-শাহের জমানায় বেড়াল সাদা না কালো তাতে কিছু যায় আসে না, ইঁদুর ধরতে পারলেই তাকে শাবাশি দাও। লাইনটা পরিষ্কার। সেখানে কে নামদার, কে বংশপরম্পরায় ক্ষমতায়, কার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ— তার চুলচেরা বিচার হয় না।
আজ একের পর এক সংখ্যালঘু বিদ্বেষী, উস্কানিমূলক ঘৃণাভাষণ, অস্ত্র হাতে তুলে নেওয়ার ডাকের মতো বক্তব্য রেখেও নিশ্চিন্তেই আছেন কেন্দ্রীয় নেতামন্ত্রীরা। ‘গোলি মারো শালোকো’, স্লোগান তুলে পদোন্নতি হয়েছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুরের। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হলে বিদ্বজ্জনদের গুলি করে মারার নির্দেশ দিতেন বলে মন্তব্য করেছিলেন কর্ণাটকের বিজয়পুরার বিজেপি বিধায়ক বসনগৌড়া পাতিল ইয়াতনাল। অপভাষা ক্রমশই একটি স্বয়ংসম্পূর্ণ বিনোদনীমূল্য অর্জন করেছে। বাক্‌স্বাধীনতার দোহাই দিয়ে যা চলছে, তার নাম রাজনীতি। বিজেপি বুঝে গিয়েছে, লখিমপুর থেকে হাতরাস, কোনও কিছুর প্রভাব পড়বে না ভোটে। তাই এখনও স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী হিসেবে বহাল লখিমপুর খেরি কুখ্যাত অজয় মিশ্র। জাল ডিগ্রি নিয়ে বিতর্ক থাকলেও পদ খোয়াতে হয়নি মোদির মন্ত্রী স্মৃতি ইরানিকে।
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী হিসেবে তিনজনকে বেছে নিয়েছিলেন। অমিত শাহের ডেপুটি হিসেবে ওই তিন ‘দাবাং’ সাংসদ নিত্যানন্দ রাই, নিশীথ প্রামাণিক এবং অজয় মিশ্র। নিশীথ প্রামাণিক তাঁর হলফনামায় ১১টি মামলার উল্লেখ করেছিলেন। সেখানে খুন থেকে শুরু করে খুনের চেষ্টা, ডাকাতি, চুরির মাল কেনার মতো মারাত্মক সব অভিযোগ রয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে। মামলার বহর দেখলে মনে হবে রীতিমতো ‘বাহুবলী’। শুধু দিনহাটা থানাতে তাঁর বিরুদ্ধে রয়েছে ৮টি মামলা। জেলার কোতোয়ালি থানায় রয়েছে একটি মামলা এবং পাশের জেলা আলিপুরদুয়ারেও রয়েছে দু’টি মামলা। খুন, ডাকাতি, অস্ত্র আইনে একাধিক মামলা থাকলেও কোনও মামলাতেই তাঁর বিরুদ্ধে চার্জ গঠন হয়নি। কোনও মামলাতেই তিনি দোষীও সাব্যস্ত হননি। একসময় তাঁর বিরুদ্ধে সিবিআই তদন্তও শুরু হয়। বিজেপিতে যোগ দিতেই সবই ধামাচাপা পড়ে গিয়েছে। আরও এক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী নিত্যানন্দ রাই। তোলাবাজি, ধর্মের ভিত্তিতে বিভিন্ন গোষ্ঠীর মধ্যে শত্রুতা প্রচার এবং মারাত্মক অস্ত্রে সজ্জিত বেআইনি সমাবেশে যোগদানের অভিযোগ রয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে। অ্যাসোসিয়েশন ফর ডেমোক্রেটিক রিফর্মস-এর বিশ্লেষণে দেখা গিয়েছে, কেন্দ্রের মোদি নেতৃত্বাধীন সরকারের ৭৮ জন মন্ত্রীর মধ্যে ৩৩ জন মন্ত্রীর বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা রয়েছে।
এটাই বাজপেয়ি-আদবানি জমানার সঙ্গে ফারাক। আসলে শক্তিশালী বিরোধী জোটের অভাবে মোদি-শাহ জুটি রাজনীতিতে নতুন খেলা খুঁজে পেয়েছেন। যে খেলায় ‘ফাউল’ বলার কোনও রেফারি থাকবে না!
26th  May, 2022
প্যাকেজিংয়ের ঘোড়ায়
বিভাজনের সওয়ারি
শান্তনু দত্তগুপ্ত

সংস্কারের ঘোড়ায় চেপে প্রবল গতিতে ছুটে চলেছেন মোদিজি। তাই তো দখল হচ্ছে একের পর এক রাজ্য। একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা নেই! থোড়াই কেয়ার। নানা ছক বেরিয়ে আসছে আস্তিন থেকে। তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়ছে একের পর এক রাজ্য সরকার। এত ব্যস্ততার মধ্যে নূপুর শর্মার মতো ছোট্ট ইস্যুতে কি সত্যিই কথা বলা যায়?
বিশদ

দু’টি বিভক্ত গণতন্ত্র
পি চিদম্বরম

ভারত এমনিতেই বর্ণ, ধর্ম, ভাষা এবং লিঙ্গ বৈষম্যে বিভক্ত। এরপর বিজেপির সংখ্যাগরিষ্ঠের আধিপত্যবাদ এবং নীতির কেন্দ্রীকরণে ভারত নতুনভাবে আরও বিভক্ত হয়ে চলেছে। … আপনি কি কখনও কল্পনা করেছিলেন যে এমন একটি দিন আসবে যখন দু’টি বৃহৎ যুক্তরাষ্ট্রীয় গণতন্ত্র বিভক্ত হবে?
বিশদ

04th  July, 2022
বিজেপির পরের লক্ষ্য কি বিহার ও রাজস্থান?
হিমাংশু সিংহ

জার্মানির মাটিতে দাঁড়িয়ে জরুরি অবস্থার আদ্যশ্রাদ্ধ করছেন প্রধানমন্ত্রী। সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতার পক্ষে লম্বা চওড়া সওয়াল করে বেআব্রু করছেন কংগ্রেস থুড়ি ইন্দিরা জমানার কালো সময়টাকে।
বিশদ

03rd  July, 2022
নিঃস্ব বামেরা বিজেপিকে
শক্তি জোগাচ্ছে
তন্ময় মল্লিক

উস্কানি এভারেস্ট ছুঁলেও বিজেপি তা থেকে ফায়দা তুলতে পারল না। মহকুমা পরিষদের নির্বাচন বুঝিয়ে দিল, বাংলা ভাগের ফাঁদে পা দেয়নি শিলিগুড়ি। তাই কর্পোরেশনের পর মহকুমা পরিষদের নির্বাচনেও ভরসা থাকল সেই শাসক দলেই। বিশদ

02nd  July, 2022
সবকা বিকাশ? বিজলি
পানি সড়কই হল না! 
সমৃদ্ধ দত্ত

এত সরকারি, বেসরকারি অফিসার। এত গাড়ি। এত বড় বড় ট্রাক। ওড়িশার ময়ূরভঞ্জ জেলার উপারবেড়া গ্রামের মানুষ উত্তেজিত। গ্রামে বড়সড় কোনও ঘটনা ঘটতে চলেছে নিশ্চয়ই।
বিশদ

01st  July, 2022
মোদি জমানায় সুইস
ব্যাঙ্কে কালো টাকার পাহাড়!
মৃণালকান্তি দাস

২০১৪ সালে মোদি ক্ষমতায় আসার আগে বিজেপির দাবি ছিল, সুইস ব্যাঙ্কে ভারতীয়দের সাড়ে ১৭ লক্ষ কোটি কালো টাকা লুকনো রয়েছে। সেই টাকা তাঁরা উদ্ধার করবেন প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন মোদি। ‘কালো টাকা’ উদ্ধারের গাজর ঝুলিয়ে দেশবাসীকে আজও বোকা বানিয়ে চলেছেন। আর উল্টো দিকে, কোটি কোটি টাকা ঋণখেলাপ করে ‘ঘনিষ্ঠ’ শিল্পপতিরা একে একে বিদেশ চলে যাচ্ছেন।
বিশদ

30th  June, 2022
বুলডোজার রাজনীতিই
চিনিয়ে দেয় স্বৈরতন্ত্রকে
সন্দীপন বিশ্বাস

প্রধানমন্ত্রী হিসেবে এখন তো তিনিই দায়বদ্ধ। তিনি অনায়াসেই বলতে পারেন, তাঁর আমলে কাদের টাকা সুইস ব্যাঙ্কে ঢুকেছে। তাহলে কি দেখা যাচ্ছে? নোট বাতিলে ধরা পড়ল না একটাও কালো টাকা। উল্টে তারপরেই সুইস ব্যাঙ্কে বেড়ে গেল কালো টাকার পরিমাণ। নোট বাতিলের ‘সুফল’ কারা ভোগ করলেন? তাই দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির উচিত সুইস ব্যাঙ্কের তথ্যপ্রকাশ করে প্রকৃত রাজধর্ম পালন করা। বিশদ

29th  June, 2022
দেশকে গনগনে আগুনের পথেই ঠেলে দিতে অগ্নিপথ
হুমায়ুন কবীর

ভারতের স্বাধীনতার দিনেই ‘ব্রিটিশ ইন্ডিয়ান আর্মি’-র আনুগত্য পাল্টে যায়। তবে, আমাদের সেনার পথ চলা শুরু ১৯৫০ সালের ২৬ জানুয়ারি সংবিধান কার্যকর হওয়ার দিন থেকে।
বিশদ

28th  June, 2022
একটি আত্মনির্ভরতার কাহিনি
শান্তনু দত্তগুপ্ত

মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া ঘাট। মাস দুয়েক আগের ছবিটাও ছিল এক্কেবারে অন্যরকম। ঈদ আসছে... আর বাড়ি ফিরছে মানুষ। এই সময়টার জন্যই যে অপেক্ষায় থাকে মুজিবুর রহমানের দেশ। 
বিশদ

28th  June, 2022
ছুঁচ গলে না, হাতি পেরিয়ে যায়
পি চিদম্বরম

সরকার যেসব তথাকথিত পরিবর্তন করেছে এবং কিছু ছাড় দিয়েছে তা থেকে এই মৌলিক প্রশ্নের উত্তর মিলছে না যে, যৎসামান্য-প্রশিক্ষিত, নামমাত্র অনুপ্রাণিত এবং মূলত চুক্তিভিত্তিক প্রতিরক্ষা বাহিনী দেশের নিরাপত্তা ব্যবস্থাকে ভীষণভাবে দুর্বল করে দেবে কি না।
বিশদ

27th  June, 2022
বালাসাহেব থাকলে এই
দিন দেখতে হতো না...
হিমাংশু সিংহ

অতিরিক্ত আত্মবিশ্বাস পতন ডেকে আনে। বালা সাহেবের উগ্র হিন্দুত্বের লাইন থেকে সরে শারদ পাওয়ারের কথায় পথ চলা একদিন না একদিন যে ব্যুমেরাং হবেই, তাও নিশ্চিতই ছিল। সেই সুযোগটারই ফায়দা তুলতে নেমেছে গেরুয়া শিবির। সঙ্গে শিবসেনার হিন্দু ভোটব্যাঙ্ক দখলের হাতছানি! এই খেলার অন্তিম পরিণতি জানতে আরও বেশকিছুটা সময় অপেক্ষা করতেই হবে। শিবসৈনিকদের রাশ কার হাতে থাকবে তা এখনও অনিশ্চিত।
বিশদ

26th  June, 2022
মানুষ কিনতে না পেরেই ‘রায়’ কেনার মরিয়া চেষ্টা
তন্ময় মল্লিক

‘পারিব না—এ কথাটি বলিও না আর,...একবার না-পারিলে দেখ শতবার।’ কবি কালীপ্রসন্ন ঘোষ। বিজেপির দিল্লির নেতৃত্ব কি কবির এই কথাতেই অনুপ্রাণিত? সেই কারণেই কি প্রথম দু’বারের চেষ্টা ব্যর্থ হওয়ায় মুখে কালি লাগলেও হাল ছাড়েনি!​​​​ 
বিশদ

25th  June, 2022
একনজরে
‘গর্বের পদ্মা সেতু’ নিয়ে আবেগে ভাসছে গোটা বাংলাদেশ। সেই সঙ্গে দেশবাসীর প্রশংসাও কুড়িয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গত ২৫ জুন বাংলাদেশের দীর্ঘতম পদ্মা সেতুর উদ্বোধন করেন ...

এবার লালবাড়ির রং বদলের অপেক্ষা। ত্রিস্তর পঞ্চায়েত নির্বাচনের ফল প্রকাশ হওয়ার পরই শিলিগুড়ি মহকুমা পরিষদের ভবনের রং নীল-সাদা করার দাবি ওঠে। সেই দাবি পূরণের প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। সংশ্লিষ্ট ভবনে পদাধিকারিকদের ঘর সাফাইয়ের কাজ শুরু হয়েছে। গ্রামে গ্রামে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ...

রবিবার বিরাট কোহলির সঙ্গে তরজাকে খেলার অঙ্গ হিসেবেই দেখছেন জনি বেয়ারস্টো। ইংল্যান্ডের প্রথম ইনিংসের শতরানকারীর তা নিয়ে কোনও রাগ বা ক্ষোভ নেই। বরং বিরাটের স্লেজিং ...

মেমারির আমাদপুর দিঘিরপাড়ের বাবু ঘোষ ও অনিতা ঘোষ পাঁচ মাস আগেই ভালোবেসে বিয়ে করেছিলেন। দু’জনের এটা ছিল দ্বিতীয় বিয়ে। তাঁদের দু’জনেরই আগের পক্ষের একটি করে ছেলে রয়েছে। দ্বিতীয়বার বিয়ে করার পর প্রথম দু’-তিন মাস তাঁদের ভালোই চলছিল। হঠাৎ করেই অনিতার ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

দেবকর্মে অমনোযোগিতা ও বাধা। আইনজীবীদের কর্মোন্নতি ও উপার্জন বৃদ্ধি। স্বাস্থ্য চলনসই থাকবে। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৬৮৭: ইংরেজ বিজ্ঞানী এবং আধুনিক বিজ্ঞানের অন্যতম পথিকৃৎ স্যার আইজাক নিউটনের লেখা ফিলোসফিয়া ন্যাচারালিস প্রিন্সিপিয়া ম্যাথামেটিকা  প্রকাশিত হয়
১৮৪১: টমাস কুক প্রথম ট্রাভেল এজেন্সি চালু করেন
১৯০১:বিশিষ্ট চলচ্চিত্র প্রযোজক ও কলকাতার নিউ থিয়েটার্সের প্রতিষ্ঠাতা  বীরেন্দ্রনাথ সরকারের জন্ম
 ১৯৪৪: অভিনেতা দীপঙ্কর দের জন্ম
১৯৪৬: রাজনীতিক রামবিলাস পাসোয়ানের জন্ম
১৯৭৩: নৃত্যশিল্পী তথা বিশিষ্ট কোরিওগ্রাফার গীতা কাপুরের জন্ম
১৯৮২: সঙ্গীত শিল্পী জাভেদ আলির জন্ম
১৯৯৩: অভিনেতা  কালী বন্দ্যোপাধ্যায়ের মৃত্যু
১৯৯৫: বিশিষ্ট ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড় পি ভি সিন্ধুর জন্ম 
২০০৫: ক্রিকেটার বালু গুপ্তের মূত্যু
২০০৭: অভিনেতা শুভেন্দু চট্টোপাধ্যায়ের মৃত্যু 



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৮.১৩ টাকা ৭৯.৮৭ টাকা
পাউন্ড ৯৩.৯১ টাকা ৯৭.২৪ টাকা
ইউরো ৮০.৯০ টাকা ৮৩.৯০ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
03rd  July, 2022
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৫২,৮৫০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৫০,১৫০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৫০,৯০০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৫৮,৭৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৫৮,৮৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
03rd  July, 2022

দিন পঞ্জিকা

২০ আষাঢ়, ১৪২৯, মঙ্গলবার, ৫ জুলাই ২০২২। ষষ্ঠী ৩৬/১১ রাত্রি ৭/২৯। পূর্বফাল্গুনী নক্ষত্র ১৩/৪৪ দিবা ১০/৩০। সূর্যোদয় ৫/০/৩৯, সূর্যাস্ত ৬/২১/১৩। অমৃতযোগ দিবা ৭/৪০ মধ্যে পুনঃ ৯/২৭ গতে ১২/৭ মধ্যে পুনঃ ৩/৪১ গতে ৪/৩৪ মধ্যে। রাত্রি ৭/৪ মধ্যে পুনঃ ১২/২ গতে ২/১০ মধ্যে। রাত্রি ৮/২৯ গতে ৯/৫৪ মধ্যে। বারবেলা ৬/৪১ গতে ৮/২১ মধ্যে পুনঃ ১/২১ গতে ৩/১ মধ্যে। কালরাত্রি ৭/৪১ গতে ৯/১ মধ্যে। 
২০ আষাঢ়, ১৪২৯, মঙ্গলবার, ৫ জুলাই ২০২২। ষষ্ঠী দিবা ৩/১৩। পূর্বফাল্গুনী নক্ষত্র দিবা ৭/২৭। সূর্যোদয় ৫/০, সূর্যাস্ত ৬/২৩। অমৃতযোগ দিবা ৭/৪৩ মধ্যে ও ৯/২৯ গতে ১২/৯ মধ্যে ও ৩/৪২ গতে ৪/৩৫ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/৪ মধ্যে ও ১২/৪ গতে ২/৫৫ মধ্যে। বারবেলা ৬/৪১ গতে ৮/২১ মধ্যে ও ১/২২ গতে ৩/৩ মধ্যে। কালরাত্রি ৭/৪৩ গতে ৯/৩ মধ্যে। 
৫ জেলহজ্জ।

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
পঞ্চম টেস্ট: ভারতকে হারিয়ে ৭ উইকেটে জিতল ইংল্যান্ড, সিরিজ ড্র (২-২)

04:45:14 PM

রেকর্ড, ডলার প্রতি টাকার দাম কমে হল ৭৯.৩৬

04:31:00 PM

বার্মিংহাম টেস্ট: পঞ্চম দিনে দ্বিতীয় ইনিংসে ইংল্যান্ড ৩৫৮/৩, জয়ের জন্য প্রয়োজন ২০ রান

04:27:00 PM

১০০ পয়েন্ট পড়ল সেনসেক্স

04:01:29 PM

হলদিয়ায় শিল্প সংস্থাগুলিকে নিয়ে জেলা প্রশাসনের বৈঠক

04:00:56 PM

নেপালের দুর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১১

03:13:39 PM