Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

চাকরির আকাল ঘোচাবে
মমতার সাইকেল শিল্প
হারাধন চৌধুরী

বাম জমানা উপহার দিয়ে গিয়েছিল এক শিল্পশ্মশান। বাংলাকে সেখান থেকে উদ্ধার করতে মরিয়া উদ্যোগ নিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মা-মাটি-মানুষের সরকার শ্রমনিবিড় শিল্পস্থাপনের নীতি নিয়েছে ২০১১ সালেই। এই নীতির উল্লেখযোগ্য দিক হল শিল্পস্থাপনের পদ্ধতির সরলীকরণ, কর্মসংস্কৃতি ফেরানো এবং শিল্প-বাণিজ্যের গন্তব্য হিসেবে বাংলাকে তুলে ধরা। দেশের এবং বিদেশের বিনিয়োগ আকর্ষণের জন্য প্রতিবছর শিল্প-বাণিজ্য সম্মেলন করা হচ্ছে। সেই সূত্রে এ পর্যন্ত বিপুল বিনিয়োগ সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। তারই একটি হল খড়্গপুরের সাইকেল পার্ক। সম্প্রতি মুখ্যমন্ত্রী এই শিল্প প্রতিষ্ঠার সুসংবাদ ঘোষণা করেছেন। রাজ্যেরই পাঁচজন উদ্যোগপতি এখানে আপাতত ২০০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করবেন। সাইকেল ছাড়াও ই-বাইক ও ব্যাটারি চালিত গাড়ি তৈরিরও পরিকল্পনা ঘোষিত হয়েছে। এই পার্কে একবছরে অন্তত একহাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ হবে বলে আশা করে সরকার। প্রথম পর্যায়ের পাঁচটি ইউনিটে আপাতত চারহাজার বেকার যুবক-যুবতীর চাকরি হবে।   
১৯৩৯-এর ১ সেপ্টেম্বর দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শুরু হওয়ার অল্পদিনের মধ্যেই তার ধাক্কা এসে লাগে ভারতের আমদানি নির্ভর সাইকেল ব্যবসায়। কারণ, যুদ্ধকালে ইউরোপে উৎপাদন শিল্প মুখ থুবড়ে পড়ে। বিয়াল্লিশে বন্ধই হয়ে যায় বিলাতি পণ্যের আমদানি। সমস্যা বহুগুণ হয় জ্বালানি তেলের সঙ্কট তীব্রতর হওয়ায়। পঁয়তাল্লিশে যুদ্ধ বন্ধ হওয়ার পরেও পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়নি। স্বভাবতই সাইকেলের চাহিদা ঊর্ধ্বমুখী হতে থাকে। এই সুবর্ণ সুযোগের সদ্ব্যবহার করেছিল সদ্য স্বাধীন ভারত। শিল্পায়নের সেই উদ্যোগে উজ্জ্বল উপস্থিতি ছিল বাংলার, বাঙালির। 
তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ বেধে যাওয়ার আশঙ্কা করেছিল পৃথিবী কিছুদিন আগেই। বিশ্বযুদ্ধ না বাধলেও ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২২ রাশিয়া ইউক্রেন আক্রমণ করে। এই যুদ্ধকে কেন্দ্র করে পৃথিবী স্পষ্টত দ্বিধাবিভক্ত হয়ে গিয়েছে। তার বিরূপ প্রভাব পড়েছে আন্তর্জাতিক বাণিজ্যে। সবচেয়ে বেশি সঙ্কট সৃষ্টি হয়েছে খনিজ তেলের ক্রয়-বিক্রয়ে। ভারতের প্রয়োজনের ৮০ শতাংশ তেল আমদানিকৃত। পেট্রল, ডিজেল ও রান্নার গ্যাস ইদানীং যে অগ্নিমূল্য হয়েছে তার বড় কারণ যুদ্ধ। পেট্রপণ্যের দামবৃদ্ধির কারণে পরিবহণ শিল্পে নাভিশ্বাস উঠে গিয়েছে। পরিবহণ খরচ ক্রমশ ঊর্ধ্বমুখী। সবকিছুরই দাম সাধারণের সাধ্যের বাইরে চলে গিয়েছে ইতিমধ্যেই। কেন্দ্র-রাজ্য সম্পর্ক যে একেবারে তলানিতে পৌঁছেছে তারও কেন্দ্রে পেট্রল, ডিজেলের দাম বিতর্ক।      
ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধের পরিণামে এই যে অভূতপূর্ব সঙ্কট, তার সুবিধা পাবে বাংলার নয়া শিল্পচিন্তা। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধকালের দৃষ্টান্ত সামনেই রয়েছে। গত শতকের প্রথমার্ধ দূষণ নিয়ে উদ্বিগ্ন এবং সচেতন—কোনওটাই ছিল না। আজকের দূষণ দানব সাইকেল নামক গ্রিন বাহনকে আরও প্রাসঙ্গিক করে তুলেছে। খড়্গপুরের সাইকেল পার্কে বছরে দুই-আড়াই লক্ষ সাইকেল তৈরি হবে। এই পরিকল্পনার প্রাণভোমরা রাজ্যের স্কুলপড়ুয়াদের মধ্যে সাইকেল বিতরণ কর্মসূচি। সার্থক নাম ‘সবুজসাথী’। 
দূরে দূরে স্কুলে যাতায়াতের সুবিধা সব জায়গায় নেই। বাম আমলে স্কুলছুটের  এ ছিল অন্যতম এক কারণ। এই সমস্যার শিকার সবচেয়ে বেশি হয়েছিল মেয়েরা। সুরাহা বের করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ২০১৫ সালে রাজ্যে চালু হয় ‘সবুজসাথী’—পড়ুয়াদের মধ্যে বিনামূল্যে সাইকেল দেওয়ার প্রকল্প। এই প্রকল্পে বছরে প্রায় ১২ লক্ষ সাইকেল বণ্টিত হয়। এ পর্যন্ত ১ কোটি ৫ লক্ষের মতো সাইকেল দেওয়া হয়ে গিয়েছে। সাইকেল বিতরণের এত বড় কর্মসূচির কথা কোনও রাজ্য এর আগে ভাবতেও পারেনি। এর সঙ্গে শাপে বরের মতোই যোগ হয়েছিল করোনাকাল। করোনাপর্বে গণপরিবহণ ব্যবস্থা আক্ষরিক অর্থেই মুখ থুবড়ে পড়েছিল। ফলে টানা দু’বছর বহু মানুষের চলাচল হয়ে উঠেছিল সাইকেল নির্ভর। করোনা নিয়ন্ত্রণে আসার পরেও সেই অভ্যাস অনেকের ক্ষেত্রে রয়ে গিয়েছে। সেটা মূলত অগ্নিমূল্যের পেট্রল, ডিজেলের সৌজন্যে। তাই রাজ্যে সাইকেল ব্যবহারকারীর সংখ্যা যথেষ্ট বেড়েছে। 
জাতীয় পরিবার স্বাস্থ্য সমীক্ষার পঞ্চম রিপোর্ট অনুসারে, সারা দেশের মধ্যে সবচেয়ে বেশি পরিবারের হাতে সাইকেল রয়েছে এই বাংলাতেই। কোনও সন্দেহ নেই, করোনাকালের নয়া অভ্যাসের প্রতিফলন তাতে পড়েছে। এই সূচকে বৃহত্তম রাজ্য উত্তরপ্রদেশকেও পিছনে ফেলে দিয়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের রাজ্য। জাতীয় সমীক্ষায় প্রকাশ, সাইকেল ব্যবহারকারী পরিবারের জাতীয় গড় ৫০.৪ শতাংশ। অন্যদিকে, যোগীরাজ্যে সাইকেল আছে ৭৫.৬ শতাংশ বাড়িতে। এই হার বাংলার ক্ষেত্রে ৭৮.৯ শতাংশ। এরাজ্যের শহর ও গ্রামীণ দুই এলাকাতেই সাইকেলের ব্যবহার বেশ ভালো।  গ্রামবাংলায় সাইকেল চড়ে ৮২.৩ শতাংশ পরিবার। আর, ৭১.৯ শতাংশ পরিবারে সাইকেল আছে বাংলার শহরাঞ্চলে।
শিল্প-বাণিজ্যের প্রাণ হল চাহিদা। বাংলার আর্থ-সামাজিক কাঠামোয় সাইকেলের চাহিদা সবসময়ই ছিল। সেই চাহিদাকে বহুবর্ধিত করেছে রাজ্য সরকার। এত বড় আশীর্বাদ, কোনও একটি শিল্প সচরাচর পায় না। দুর্ভাগ্য হল, দেশের মধ্যে সর্বাধিক চাহিদার রাজ্যের নিজস্ব কোনও সাইকেল কারখানা নেই। সবটাই চলে আমদানির ভরসায়। চাকাটিকেই এবার উল্টোদিকে ঘুরিয়ে দেওয়ার সঙ্কল্প নিয়েছেন মমতা। 
ভারতের সাইকেল শিল্পের অতীতে চোখ রাখা যায়। ব্রিটিশ যুগের শিল্পনীতি ছিল দেশীয় শিল্পের শত্রু। স্বাধীন ভারতের প্রথম শিল্পমন্ত্রী শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় কর্তৃক ঘোষিত শিল্পনীতিতে আশান্বিত হন সাইকেল উৎপাদনে আগ্রহীরা। সুধীরকুমার সেন একটি পূর্ণাঙ্গ পরিকল্পনা জমা দেন শ্যামাপ্রসাদের কাছে। ১৯৪৮-এ ইংলন্ডের র‌্যালে ইন্ডাস্ট্রিজের প্রযুক্তিগত সহযোগিতা আর সুধীরকুমার সেনের ঈর্ষণীয় পরিচালন দক্ষতার সম্মিলনে ভূমিষ্ঠ হল ভারতের সেরা সাইকেল কোম্পানি সেন-র‌্যালে। যন্ত্রাংশের জন্য প্রযুক্তিগত সহযোগিতা নিলেন জার্মানির দুটি কোম্পানির। সেন র‌্যালে পূর্ণতা পায় ব্রিটেন ও জার্মানির সহযোগিতায়। আর এই স্বয়ংসম্পূর্ণ সংস্থাটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হয় সাত দশক আগে (১৯৫২-র ২১ জুন)। ‘রবিনহুড’ ব্র্যান্ডের সাইকেল দিয়ে ওই বছর অক্টোবরে সেন র‌্যালে কারখানায় উৎপাদনের শুভ সূচনা হয়। পর্যায়ক্রমে র‌্যালে, হাম্বার ও রাজ ব্র্যান্ডও বাজারে আনে সংস্থাটি। প্রায় একই সময়ে মাদ্রাজে প্রস্তুত হতে থাকে ‘টিআই’ কোম্পানির ফিলিপস ও হারকিউলিস সাইকেল। এছাড়া কমবেশি কমপ্লিট সাইকেল উৎপাদন ছিল অ্যাটলাস ইন্ডিয়া ও হিন্দুস্থান কোম্পানির। তবে সারা ভারতের শিল্পমহল নির্দ্বিধায় মেনে নিয়েছিল যে ভারতে সাইকেল ব্যাবসা তথা সাইকেল শিল্পের সঙ্গে এস কে সেন নামটি সমার্থক হয়ে গিয়েছে, সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রের পথপ্রদর্শক তিনিই। তাই সেন-র‌্যালের একাধিক প্রতিযোগী থাকলেও কন্যাপুর সাইকেল শিল্পনগরীর উপরেই ভারতের সাইকেল শিল্প ও ব্যাবসার সাফল্য-ব্যর্থতা একান্তভাবে নির্ভরশীল হয়ে পড়েছিল।
আমরা আশা রাখব, খড়্গপুরের প্রস্তাবিত সাইকেল পার্ক বাংলার সেই ঐতিহ্য পুনরুদ্ধারেরই এক সোনালি অধ্যায় হয়ে উঠবে। বাড়বে দেশ-বিদেশের বিনিয়োগ। রাজ্যের বিপুল চাহিদাকে পাথেয় করে সাইকেল কারখানার সংখ্যাও বাড়বে ধীরে ধীরে। সাইকেল শিল্পের পথ ধরেই গড়ে উঠবে যন্ত্রাংশ ও টায়ার শিল্প। জোয়ার আসবে বাংলার চাকরির বাজারে। অচিরেই প্রমাণিত হবে ‘বেঙ্গল মিনস বিজনেস’ নিছক কোনও স্লোগান নয়, একটি সত্যের ঘোষণা। 
25th  May, 2022
প্যাকেজিংয়ের ঘোড়ায়
বিভাজনের সওয়ারি
শান্তনু দত্তগুপ্ত

সংস্কারের ঘোড়ায় চেপে প্রবল গতিতে ছুটে চলেছেন মোদিজি। তাই তো দখল হচ্ছে একের পর এক রাজ্য। একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা নেই! থোড়াই কেয়ার। নানা ছক বেরিয়ে আসছে আস্তিন থেকে। তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়ছে একের পর এক রাজ্য সরকার। এত ব্যস্ততার মধ্যে নূপুর শর্মার মতো ছোট্ট ইস্যুতে কি সত্যিই কথা বলা যায়?
বিশদ

দু’টি বিভক্ত গণতন্ত্র
পি চিদম্বরম

ভারত এমনিতেই বর্ণ, ধর্ম, ভাষা এবং লিঙ্গ বৈষম্যে বিভক্ত। এরপর বিজেপির সংখ্যাগরিষ্ঠের আধিপত্যবাদ এবং নীতির কেন্দ্রীকরণে ভারত নতুনভাবে আরও বিভক্ত হয়ে চলেছে। … আপনি কি কখনও কল্পনা করেছিলেন যে এমন একটি দিন আসবে যখন দু’টি বৃহৎ যুক্তরাষ্ট্রীয় গণতন্ত্র বিভক্ত হবে?
বিশদ

04th  July, 2022
বিজেপির পরের লক্ষ্য কি বিহার ও রাজস্থান?
হিমাংশু সিংহ

জার্মানির মাটিতে দাঁড়িয়ে জরুরি অবস্থার আদ্যশ্রাদ্ধ করছেন প্রধানমন্ত্রী। সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতার পক্ষে লম্বা চওড়া সওয়াল করে বেআব্রু করছেন কংগ্রেস থুড়ি ইন্দিরা জমানার কালো সময়টাকে।
বিশদ

03rd  July, 2022
নিঃস্ব বামেরা বিজেপিকে
শক্তি জোগাচ্ছে
তন্ময় মল্লিক

উস্কানি এভারেস্ট ছুঁলেও বিজেপি তা থেকে ফায়দা তুলতে পারল না। মহকুমা পরিষদের নির্বাচন বুঝিয়ে দিল, বাংলা ভাগের ফাঁদে পা দেয়নি শিলিগুড়ি। তাই কর্পোরেশনের পর মহকুমা পরিষদের নির্বাচনেও ভরসা থাকল সেই শাসক দলেই। বিশদ

02nd  July, 2022
সবকা বিকাশ? বিজলি
পানি সড়কই হল না! 
সমৃদ্ধ দত্ত

এত সরকারি, বেসরকারি অফিসার। এত গাড়ি। এত বড় বড় ট্রাক। ওড়িশার ময়ূরভঞ্জ জেলার উপারবেড়া গ্রামের মানুষ উত্তেজিত। গ্রামে বড়সড় কোনও ঘটনা ঘটতে চলেছে নিশ্চয়ই।
বিশদ

01st  July, 2022
মোদি জমানায় সুইস
ব্যাঙ্কে কালো টাকার পাহাড়!
মৃণালকান্তি দাস

২০১৪ সালে মোদি ক্ষমতায় আসার আগে বিজেপির দাবি ছিল, সুইস ব্যাঙ্কে ভারতীয়দের সাড়ে ১৭ লক্ষ কোটি কালো টাকা লুকনো রয়েছে। সেই টাকা তাঁরা উদ্ধার করবেন প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন মোদি। ‘কালো টাকা’ উদ্ধারের গাজর ঝুলিয়ে দেশবাসীকে আজও বোকা বানিয়ে চলেছেন। আর উল্টো দিকে, কোটি কোটি টাকা ঋণখেলাপ করে ‘ঘনিষ্ঠ’ শিল্পপতিরা একে একে বিদেশ চলে যাচ্ছেন।
বিশদ

30th  June, 2022
বুলডোজার রাজনীতিই
চিনিয়ে দেয় স্বৈরতন্ত্রকে
সন্দীপন বিশ্বাস

প্রধানমন্ত্রী হিসেবে এখন তো তিনিই দায়বদ্ধ। তিনি অনায়াসেই বলতে পারেন, তাঁর আমলে কাদের টাকা সুইস ব্যাঙ্কে ঢুকেছে। তাহলে কি দেখা যাচ্ছে? নোট বাতিলে ধরা পড়ল না একটাও কালো টাকা। উল্টে তারপরেই সুইস ব্যাঙ্কে বেড়ে গেল কালো টাকার পরিমাণ। নোট বাতিলের ‘সুফল’ কারা ভোগ করলেন? তাই দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির উচিত সুইস ব্যাঙ্কের তথ্যপ্রকাশ করে প্রকৃত রাজধর্ম পালন করা। বিশদ

29th  June, 2022
দেশকে গনগনে আগুনের পথেই ঠেলে দিতে অগ্নিপথ
হুমায়ুন কবীর

ভারতের স্বাধীনতার দিনেই ‘ব্রিটিশ ইন্ডিয়ান আর্মি’-র আনুগত্য পাল্টে যায়। তবে, আমাদের সেনার পথ চলা শুরু ১৯৫০ সালের ২৬ জানুয়ারি সংবিধান কার্যকর হওয়ার দিন থেকে।
বিশদ

28th  June, 2022
একটি আত্মনির্ভরতার কাহিনি
শান্তনু দত্তগুপ্ত

মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া ঘাট। মাস দুয়েক আগের ছবিটাও ছিল এক্কেবারে অন্যরকম। ঈদ আসছে... আর বাড়ি ফিরছে মানুষ। এই সময়টার জন্যই যে অপেক্ষায় থাকে মুজিবুর রহমানের দেশ। 
বিশদ

28th  June, 2022
ছুঁচ গলে না, হাতি পেরিয়ে যায়
পি চিদম্বরম

সরকার যেসব তথাকথিত পরিবর্তন করেছে এবং কিছু ছাড় দিয়েছে তা থেকে এই মৌলিক প্রশ্নের উত্তর মিলছে না যে, যৎসামান্য-প্রশিক্ষিত, নামমাত্র অনুপ্রাণিত এবং মূলত চুক্তিভিত্তিক প্রতিরক্ষা বাহিনী দেশের নিরাপত্তা ব্যবস্থাকে ভীষণভাবে দুর্বল করে দেবে কি না।
বিশদ

27th  June, 2022
বালাসাহেব থাকলে এই
দিন দেখতে হতো না...
হিমাংশু সিংহ

অতিরিক্ত আত্মবিশ্বাস পতন ডেকে আনে। বালা সাহেবের উগ্র হিন্দুত্বের লাইন থেকে সরে শারদ পাওয়ারের কথায় পথ চলা একদিন না একদিন যে ব্যুমেরাং হবেই, তাও নিশ্চিতই ছিল। সেই সুযোগটারই ফায়দা তুলতে নেমেছে গেরুয়া শিবির। সঙ্গে শিবসেনার হিন্দু ভোটব্যাঙ্ক দখলের হাতছানি! এই খেলার অন্তিম পরিণতি জানতে আরও বেশকিছুটা সময় অপেক্ষা করতেই হবে। শিবসৈনিকদের রাশ কার হাতে থাকবে তা এখনও অনিশ্চিত।
বিশদ

26th  June, 2022
মানুষ কিনতে না পেরেই ‘রায়’ কেনার মরিয়া চেষ্টা
তন্ময় মল্লিক

‘পারিব না—এ কথাটি বলিও না আর,...একবার না-পারিলে দেখ শতবার।’ কবি কালীপ্রসন্ন ঘোষ। বিজেপির দিল্লির নেতৃত্ব কি কবির এই কথাতেই অনুপ্রাণিত? সেই কারণেই কি প্রথম দু’বারের চেষ্টা ব্যর্থ হওয়ায় মুখে কালি লাগলেও হাল ছাড়েনি!​​​​ 
বিশদ

25th  June, 2022
একনজরে
তৃতীয়বার ক্ষমতায় এসে রাজ্যে বিনিয়োগ টানাই যে তাঁর মূল লক্ষ্য তা আগেই পরিষ্কার করে দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শিল্পে বিনিয়োগ টানার পাশাপাশি কৃষি ক্ষেত্রে আরও ...

মেমারির আমাদপুর দিঘিরপাড়ের বাবু ঘোষ ও অনিতা ঘোষ পাঁচ মাস আগেই ভালোবেসে বিয়ে করেছিলেন। দু’জনের এটা ছিল দ্বিতীয় বিয়ে। তাঁদের দু’জনেরই আগের পক্ষের একটি করে ছেলে রয়েছে। দ্বিতীয়বার বিয়ে করার পর প্রথম দু’-তিন মাস তাঁদের ভালোই চলছিল। হঠাৎ করেই অনিতার ...

বাস খাদে পড়ে মৃত্যু হল ১২ জনের। গুরুতর জখম আরও তিনজন। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার হিমাচল প্রদেশের কুলুতে।  এদিন সকালে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাসটি খাদে পড়ে যায়। ...

‘গর্বের পদ্মা সেতু’ নিয়ে আবেগে ভাসছে গোটা বাংলাদেশ। সেই সঙ্গে দেশবাসীর প্রশংসাও কুড়িয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গত ২৫ জুন বাংলাদেশের দীর্ঘতম পদ্মা সেতুর উদ্বোধন করেন ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

দেবকর্মে অমনোযোগিতা ও বাধা। আইনজীবীদের কর্মোন্নতি ও উপার্জন বৃদ্ধি। স্বাস্থ্য চলনসই থাকবে। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৬৮৭: ইংরেজ বিজ্ঞানী এবং আধুনিক বিজ্ঞানের অন্যতম পথিকৃৎ স্যার আইজাক নিউটনের লেখা ফিলোসফিয়া ন্যাচারালিস প্রিন্সিপিয়া ম্যাথামেটিকা  প্রকাশিত হয়
১৮৪১: টমাস কুক প্রথম ট্রাভেল এজেন্সি চালু করেন
১৯০১:বিশিষ্ট চলচ্চিত্র প্রযোজক ও কলকাতার নিউ থিয়েটার্সের প্রতিষ্ঠাতা  বীরেন্দ্রনাথ সরকারের জন্ম
 ১৯৪৪: অভিনেতা দীপঙ্কর দের জন্ম
১৯৪৬: রাজনীতিক রামবিলাস পাসোয়ানের জন্ম
১৯৭৩: নৃত্যশিল্পী তথা বিশিষ্ট কোরিওগ্রাফার গীতা কাপুরের জন্ম
১৯৮২: সঙ্গীত শিল্পী জাভেদ আলির জন্ম
১৯৯৩: অভিনেতা  কালী বন্দ্যোপাধ্যায়ের মৃত্যু
১৯৯৫: বিশিষ্ট ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড় পি ভি সিন্ধুর জন্ম 
২০০৫: ক্রিকেটার বালু গুপ্তের মূত্যু
২০০৭: অভিনেতা শুভেন্দু চট্টোপাধ্যায়ের মৃত্যু 



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৮.১৩ টাকা ৭৯.৮৭ টাকা
পাউন্ড ৯৩.৯১ টাকা ৯৭.২৪ টাকা
ইউরো ৮০.৯০ টাকা ৮৩.৯০ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
03rd  July, 2022
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৫২,৮৫০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৫০,১৫০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৫০,৯০০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৫৮,৭৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৫৮,৮৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
03rd  July, 2022

দিন পঞ্জিকা

২০ আষাঢ়, ১৪২৯, মঙ্গলবার, ৫ জুলাই ২০২২। ষষ্ঠী ৩৬/১১ রাত্রি ৭/২৯। পূর্বফাল্গুনী নক্ষত্র ১৩/৪৪ দিবা ১০/৩০। সূর্যোদয় ৫/০/৩৯, সূর্যাস্ত ৬/২১/১৩। অমৃতযোগ দিবা ৭/৪০ মধ্যে পুনঃ ৯/২৭ গতে ১২/৭ মধ্যে পুনঃ ৩/৪১ গতে ৪/৩৪ মধ্যে। রাত্রি ৭/৪ মধ্যে পুনঃ ১২/২ গতে ২/১০ মধ্যে। রাত্রি ৮/২৯ গতে ৯/৫৪ মধ্যে। বারবেলা ৬/৪১ গতে ৮/২১ মধ্যে পুনঃ ১/২১ গতে ৩/১ মধ্যে। কালরাত্রি ৭/৪১ গতে ৯/১ মধ্যে। 
২০ আষাঢ়, ১৪২৯, মঙ্গলবার, ৫ জুলাই ২০২২। ষষ্ঠী দিবা ৩/১৩। পূর্বফাল্গুনী নক্ষত্র দিবা ৭/২৭। সূর্যোদয় ৫/০, সূর্যাস্ত ৬/২৩। অমৃতযোগ দিবা ৭/৪৩ মধ্যে ও ৯/২৯ গতে ১২/৯ মধ্যে ও ৩/৪২ গতে ৪/৩৫ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/৪ মধ্যে ও ১২/৪ গতে ২/৫৫ মধ্যে। বারবেলা ৬/৪১ গতে ৮/২১ মধ্যে ও ১/২২ গতে ৩/৩ মধ্যে। কালরাত্রি ৭/৪৩ গতে ৯/৩ মধ্যে। 
৫ জেলহজ্জ।

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
পঞ্চম টেস্ট: ভারতকে হারিয়ে ৭ উইকেটে জিতল ইংল্যান্ড, সিরিজ ড্র (২-২)

04:45:14 PM

রেকর্ড, ডলার প্রতি টাকার দাম কমে হল ৭৯.৩৬

04:31:00 PM

বার্মিংহাম টেস্ট: পঞ্চম দিনে দ্বিতীয় ইনিংসে ইংল্যান্ড ৩৫৮/৩, জয়ের জন্য প্রয়োজন ২০ রান

04:27:00 PM

১০০ পয়েন্ট পড়ল সেনসেক্স

04:01:29 PM

হলদিয়ায় শিল্প সংস্থাগুলিকে নিয়ে জেলা প্রশাসনের বৈঠক

04:00:56 PM

নেপালের দুর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১১

03:13:39 PM