Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

ম্যানগ্রোভকে ঘিরেই
সুন্দরবনবাসীর হাসি-কান্না
শ্যামল মণ্ডল

লক্ষ্য সুন্দরবনের মধ্যে আরও একটি ‘সুন্দর’বন গড়ে তোলা। আর এই উদ্দেশ্য সফল করতে নদীবাঁধের ধার বরাবর বিভিন্ন প্রজাতির ম্যানগ্রোভ গাছের প্রাচীর গড়ে তোলা হচ্ছে। গত তিন বছর ধরে চলছে এই কৃত্রিম ‘ম্যানগ্রোভ বন’ তৈরির কাজ। কোটি কোটি চারাগাছ তৈরির কাজে যুক্ত হয়েছেন স্থানীয় মানুষজন। এমজিএনআরইজিএ দপ্তরের মাধ্যমে চলছে এই কাজ। কাজের ভার দেওয়া হয়েছে বনদপ্তর, স্থানীয় বিডিও এবং গ্রাম পঞ্চায়েতগুলিকে। সুন্দরবন অধ্যুষিত কিছুটা উত্তর ২৪ পরগনা ছাড়াও দক্ষিণ ২৪ পরগনা এবং মেদিনীপুর এলাকাতেও ম্যানগ্রোভ প্রসারের কাজ চলছে।
সুন্দরবনে লোকালয়কে বাদ দিলে বাংলাদেশ এবং আমাদের দেশে পশ্চিমবঙ্গের সুন্দরবনে ম্যানগ্রোভ গাছ রয়েছে। তা বাংলাদেশে রয়েছে ১০,৮১৩ বর্গ কিলোমিটার (৬২শতাংশ) এবং পশ্চিমবঙ্গে রয়েছে ৪,৭২৬ বর্গ কিলিমিটার (৩৮শতাংশ)। গোটা বনে খান-পঁচিশ প্রজাতির ম্যানগ্রোভের অস্তিত্ব টিকে রয়েছে। প্রাকৃতিক কারণে জঙ্গলের পাড় ভাঙতে ভাঙতে বনের অংশ ক্রমশ ছোট হয়ে যাচ্ছে। নদীরগুলির নাব্যতাও কমে যাচ্ছে। অল্প বৃষ্টিতে এবং সামান্য ঝড়ে জলোচ্ছ্বাসের কারণে নদীর বাঁধ ছাপিয়ে কৃষিজমি প্লাবিত হচ্ছে। অনিশ্চিত হয়ে যাচ্ছে কৃষি-জীবিকা। 
পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণাংশে প্রায় ৪,৭২৬ বর্গ কিমি এলাকা জুড়ে ম্যানগ্রোভ জঙ্গল রয়েছে। প্রশ্ন হল, তা সত্ত্বেও কেন আবার নতুন করে ম্যানগ্রোভ সৃষ্টির উদ্যোগ নেওয়া হল? আসলে মাটি ধ্বংসের ফলে সুন্দরবনের জঙ্গল ক্রমশ সংকুচিত হয়ে আসছে। পলি জমে-জমে নদীর নাব্যতা কমে যাওয়ায় প্রায়ই বন্যা দেখা দিচ্ছে। সুন্দরবন এখন অস্তিত্ব রক্ষার সঙ্কটজনক পরিস্থিতিতে রয়েছে। সুন্দরবন মূলত গড়ে 
উঠেছে ম্যানগ্রোভকে ঘিরেই। আর এই ম্যানগ্ৰোভই এখানকার মানুষের বেঁচে থাকার প্রধান অবলম্বন। 
অথচ প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে হারিয়ে যাচ্ছে তাঁদের জীবন-জীবিকা। সেই কারণেই বর্তমানে ম্যানগ্রোভের প্রসার ঘটানো খুব জরুরি হয়ে পড়েছে।
এখানকার অধিকাংশ মানুষ জল-জঙ্গলের উপর সরাসরি নির্ভরশীল। সরকারি নির্দেশে বনে ঢোকায় বেশ কিছু নিষেধাজ্ঞা আছে। প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে নদীর বাঁধ ভেঙে বারবার বন্যাও হচ্ছে। অতিবর্ষণেও হয় ফসলের ক্ষতি। চাষিদের তাই মাথায় হাত। যুব সম্প্রদায়ের একটা বিশাল অংশ এখন জীবিকার খোঁজে সুন্দরবন ছেড়ে ভিনরাজ্যে পাড়ি দিচ্ছেন। এদিকে, দারিদ্রের সুযোগ নিয়ে সেখানে সক্রিয় হয়ে উঠেছে মহিলা ও শিশু পাচারের অসাধু চক্র। অসহায় মহিলাদের অনেকেই আবার অভাবের কারণে তো স্বেচ্ছায় ‘বিকোচ্ছেন’। বিষয়টি খুবই বেদনাদায়ক।
পরিবেশবিদ, প্রকৃতিবিদ, ভূতাত্ত্বিক এবং গবেষকরা বারবার বলছেন, সুন্দরবন ক্রমশ ধ্বংসের মুখে এগিয়ে যাচ্ছে। এমতাবস্থায় সুন্দরবন বাঁচানো এখন রাজ্য সরকারের প্রধান লক্ষ্য। কীভাবে সুন্দরবনকে রক্ষা করা যাবে? সেই নিয়েও চলেছে বিস্তর কাটাছেঁড়া। ২০০৫ সালে ‘আয়লা’ ঝড় এবং ২০২০ সালে ‘উমপুনে’ ক্ষতি হয়েছে নদী বাঁধের। কিন্তু ম্যানগ্রোভ অধ্যুষিত এলাকা রক্ষা পেয়েছিল। এরপরই প্রয়োজন বুঝেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ‘ম্যানগ্রোভ প্রকল্প’ গ্রহণ করেন। তাঁর নির্দেশে প্রকল্প কার্যকর করতে দক্ষিণ ২৪ পরগনার জেলাশাসক ড. পিউলগানাথন ম্যানগ্রোভ অভিজ্ঞদের নিয়ে বারবার বৈঠক করেছেন। এবং বিভিন্ন দপ্তরের অধিকারিকদের নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েছেন ‘ম্যানগ্রোভ প্রাচীর’ গড়ার কাজে। জেলাশাসক ম্যানগ্রোভ তৈরির পাশাপাশি গ্রামীণ কর্মসংস্থানের উপরও জোর দিয়েছেন। এমজিএনআরইজিএ-র মাধ্যমে স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলাদেরও এই কাজে নিযুক্ত করা হয়েছে। জেলাশাসকের এই উদ্যোগে গ্রামের মানুষ স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছেন। খুশিতে আপ্লুত সুন্দরবনের মানুষ।
নদী লাগোয়া এলাকার মানুষজনকে সঙ্গে নিয়েই নদীবাঁধের ধারে চলছে ম্যানগ্রোভ নার্সারি তৈরি, পাশাপাশি রোপনের কাজও। পুরো ম্যানগ্রোভ প্রকল্পের কাজ সফল করার ভার এসে পড়েছে এমজিএনআরইজিএ দপ্তরের জেলা আধিকারিকের উপর। নাওয়া-খাওয়া ভুলে তিনিও পড়ে রয়েছেন বাদাবনে। প্রতিটি মানুষকে নিয়মিত কাজ দেওয়া এবং সঠিক পারিশ্রমিক পাইয়ে দেওয়ায় দায়িত্ব ম্যানগ্রোভপ্রেমী ওই আধিকারিকের। এছাড়াও দক্ষিণ ২৪পরগনা বন বিভাগের ডিভিশনাল ফরেস্ট অফিসার, সহকারী অফিসার ও ম্যানগ্রোভ নোডাল অফিসার, সুন্দরবন ব্যাঘ্র প্রকল্প দপ্তরের অ্যাসিস্ট্যান্ট ফিল্ডের ডিরেক্টর এবং ম্যানগ্রোভ নোডাল অফিসাররাও রোদবৃষ্টিকে উপেক্ষা করে বাদাবনে পড়ে রয়েছেন প্রকল্পটির সার্থক রূপায়ণের তাগিদে। সুন্দরবনের মানুষের কাছে তাঁরা যেন হয়ে উঠছেন কল্পতরু। নদীর পাড়ে-পাড়ে ঘুরে বেড়িয়ে এবং শ্রমিকদের সঙ্গে মিশে গিয়ে ম্যানগ্রোভপ্রেমী সরকারি আধিকারিকরা আনন্দের সঙ্গেই তাঁদের দায়িত্ব পালন করে চলেছেন। তাই খুশি সুন্দরবনবাসী। একটি পরিসংখ্যান থেকে জানা গেছে, ২০২০-২১ আর্থিক বছরে সুন্দরবনে আড়াই হাজার হেক্টর চরে পাঁচ কোটি ম্যানগ্রোভ রোপন করা হয়েছে। (সুন্দরবন ব্যাঘ্র প্রকল্পের অধীনে ৫০০ হেক্টর এবং দক্ষিণ ২৪-পরগনা  বন বিভাগের অধীনে ২০০০ হেক্টর)। চলতি ২০২১-২২ আর্থিক বছরে আরও তিন হাজার হেক্টর চরে নতুন করে চারা বসানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। চারা বসানোর লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে পনেরো কোটি। নার্সারিতে জন্মানো সমস্ত চারাগাছ তুলে আগামী তিন মাসের (ডিসেম্বর) মধ্যে রোপন করতে হবে। নির্ধারিত সময়ে কাজ শেষ করার জন্য একাজে যুক্ত মানুষের মধ্যে চলছে তীব্র প্রতিযোগিতা। আধিকারিক এবং শ্রমিকদের মনোবল বাড়াতে জেলাশাসকও মাঝেমধ্যে সময় করে চক্কর মেরে আসছেন। 
এবার বিরল প্রজাতির ম্যানগ্রোভ সংরক্ষণের বিষয়ে জোর দেওয়া হয়েছে। সেইসঙ্গে সুন্দরী, ওড়া, কেওড়া’র বিশেষ নার্সারি বানানো হয়েছে। শীতে সুন্দরবন ভ্রমণ পর্ব শুরু হলে পর্যটকদের মাধ্যামেও একটি করে ম্যানগ্রোভ চারা সুন্দরবনের মাটিতে রোপণ করানোরও চিন্তাভাবনা প্রশাসনের তরফে করা হয়েছে । এর ফলে সুন্দরবন বাঁচানোর ক্ষেত্রে তাঁদেরও একটা অবদান থাকবে। এইভাবে সকলেরই অংশগ্রহণের মাধ্যমে সুন্দরবনকে বাঁচানোর যে চেষ্টা শুরু হয়েছে এই রাজ্যে তা সম্ভব হলে ম্যানগ্রোভপ্রেমী সুন্দরবনবাসীদের আর সুন্দরবন ছেড়ে অন্য কোথাও পালাতে হবে না। আবার নিশ্চিত করা যাবে তাঁদের জীবন-জীবিকাও।
লেখক প্রাক্তন অতিরিক্ত জেলাশাসক, দক্ষিণ ২৪ পরগনা, মতামত ব্যক্তিগত
25th  September, 2021
দু’টো ডোজ মানেই
বিশল্যকরণী নয়
শান্তনু দত্তগুপ্ত

করোনা বিদায় নেয়নি। তা সত্ত্বেও আনন্দে মেতেছেন এঁরা... পুজো কমিটির ধারক ও বাহকেরা। তাঁরা প্রভাবশালী। তাই ২০০৯ সালের কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশ হেলায় অমান্য করতে পারেন। আদালত তো জানিয়েই দিয়েছিল, কোনওভাবে মণ্ডপের উচ্চতা যেন ৪০ ফুট না ছড়ায়। তা সত্ত্বেও বছরের পর বছর বহু পুজো কমিটি ইচ্ছেমতো প্রভাব খাটিয়ে চলেছে।
বিশদ

মানবাধিকারের পক্ষে ক্ষতিকারক মানসিকতা
পি চিদম্বরম

গত তিন বৎসরাধিককালে প্রধানমন্ত্রী ভীমা কোরেগাঁও মামলায় বন্দিদের মানবাধিকার নিয়ে একটি শব্দও খরচ করেননি। এমনকী এনআইএ নামক যে সংস্থার দায়িত্বে তিনি রয়েছেন তার তরফে এই মামলার অভিযোগ গঠনে দীর্ঘ বিলম্বের কারণ নিয়েও তিনি নিশ্চুপ। ... আমি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সম্পূর্ণ একমত যখন তিনি বলেন, ‘‘এই ধরনের মানসিকতা মানবাধিকারের প্রভূত ক্ষতিসাধন করে।’’ বিশদ

18th  October, 2021
ক্ষুধার দেশে মোদিজিকে
ধন্যবাদ, শুভেচ্ছা...
হিমাংশু সিংহ

এই অবনমনের ব্যর্থতা শুধু অনাহার আর ক্ষুধার সূচকেই সীমাবদ্ধ নেই। আছে যুদ্ধক্ষেত্রেও। ৫৬ ইঞ্চি ছাতির সেই দাপট যেন কোথায় স্তিমিত বিগত বেশ কিছুদিন ধরে। নাকি হিসেব তোলা থাকছে আগামী চব্বিশ সালের সাধারণ নির্বাচনের আগে ফের কোনও বিতর্কিত ধামাকার জন্য।
বিশদ

17th  October, 2021
সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা ছাড়া
স্কুল খোলা উচিত নয়
মৃন্ময় চন্দ

ভারতে স্কুল বন্ধ ১৭ মাস। লকডাউন পর্বে বেহাল শিক্ষার হালহকিকত জানতে বিহারের, ঔরাঙ্গাবাদের বিজেপি সাংসদ সুশীল কুমার সিং, শিক্ষামন্ত্রীর কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ কিছু প্রশ্ন লিখিত আকারে পেশ করেছেন। যেমন, করোনা অতিমারীর কারণে রাজ্যভিত্তিক স্কুলছুটের সঠিক তথ্য-পরিসংখ্যান সরকারের কাছে আছে কি না? বিশদ

17th  October, 2021
গণেশ জননী নবপত্রিকাবাসিনী দুর্গা
চৈতন্যময় নন্দ

মার্কণ্ডেয় পুরাণের অন্তর্গত সপ্তশতী চণ্ডীতে দেবী দুর্গা শস্যদেবীরূপে যেন জগতে অবতীর্ণা এ বার্তা দৃপ্ত কণ্ঠে বিঘোষিত। সর্বজীবের প্রাণরক্ষার উপযোগী শাক-শস্যের দ্বারা তিনি পৃথিবীকে পালন করেন তাই মহাজননী শারদেশ্বরীর আর এক নাম শাকম্ভরী।  বিশদ

12th  October, 2021
১৮ লক্ষ প্রদীপ এবং কিছু বাস্তব
শান্তনু দত্তগুপ্ত

উত্তরপ্রদেশে ১৮ লক্ষ দিয়া জ্বালিয়ে এই অবিচারের অন্ধকার দূর হবে কি? কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে, আপনার তরফ থেকে একটাও বিবৃতি জারি হয়নি। এখনও না। কেন? ওই মানুষগুলো কি এতটুকুরও যোগ্য নয়? করুণা তারা চায়নি। টাকাও নয়। তারা চেয়েছিল বিচার। বিশদ

12th  October, 2021
কার আইন, কার আদেশ?
পি চিদম্বরম

শব্দগুলি জোরে এবং স্পষ্ট, উচ্চাঙ্গে, প্রায় নাটকীয়ভাবে বেজে ওঠে, ‘আমরা, ভারতের জনগণ ... নিজেদেরকে এই সংবিধান দিয়েছি।’ এবং স্বাধীনতা, সৌভ্রাতৃত্ব এবং অন্যান্য উদ্দেশ্যগুলির মধ্যে সবাইকে সুরক্ষিত করার জন্য আমরা আমাদেরকে এই সংবিধান দিয়েছি।
বিশদ

11th  October, 2021
কৃষকের রক্ত লেগেছে
হাতে তবু পুলিস নির্বিকার...
হিমাংশু সিংহ

সুপ্রিম কোর্ট স্বতঃপ্রণোদিত মামলায় কেন্দ্রকে নিশানা করে যোগী সরকারকে জোরালো ভর্ৎসনা না করলে হয়তো গ্রেপ্তারির প্রক্রিয়া শুরু হতো না। সমনের নোটিসও ইস্যু হতো না মন্ত্রিপুত্রের নামে। শুধু একটা এফআইআর করেই দায় সারতে চেয়েছিল উত্তরপ্রদেশ সরকার। যেন মৃতদের পরিবারের জন্য নেহাতই একটা সান্ত্বনা পুরস্কার।​​​
বিশদ

10th  October, 2021
 মমতাকে আটকানোই যেন লক্ষ্য না হয়
 
​​​​​​​

কেউ উপরে উঠতে গেলেই শুরু হয়ে যায় টেনে নামানোর মরিয়া চেষ্টা। কর্মক্ষেত্র থেকে রাজনীতি, সর্বত্র একই ছবি। সেই কারণে মুখে মুখে ছড়ানো ‘বাঙালি কাঁকড়া’র গল্প এত জনপ্রিয়। জাতীয় রাজনীতিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের গুরুত্ব বাড়তেই শুরু হয়েছে তাঁকে টেনে নামানোর লড়াই।​​​​​​
বিশদ

09th  October, 2021
সিপিএমের রাজনৈতিক
ভবিষ্যৎ কী হতে চলেছে?
সমৃদ্ধ দত্ত

মানুষ তৃণমূলকে কেন ভোট দিচ্ছে? এসব বিশ্লেষণ না করে, সিপিএমের বিশ্লেষণ করা উচিত ছিল যে, আমাদের কেন দিচ্ছে না? এখন বিশ্লেষণ করে কাজ হবে? না হবে না। দেরি হয়ে গিয়েছে। বাংলায় সিপিএম ক্রমেই পরিণত হয়ে যাবে একটি অতীত পার্টিতে! স্মৃতির রাজনীতি হয়ে! বাঙালির নতুন নস্টালজিয়া-সিপিএম!
বিশদ

08th  October, 2021
এ নরেন সে নরেন নয়!
মৃণালকান্তি দাস

বিশ্বকে মানবতার মূল্য শিখিয়েছিলেন স্বামীজি...
তারিখটি ছিল ৯/১১। শিকাগো ভাষণের বর্ষপূর্তিতে স্বামী বিবেকানন্দকে স্মরণ করে এমনই মন্তব্য করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। মোদি বলেছিলেন, মানবতার মূল্য বুঝতে আজও ১৮৯৩ সালের সেই বক্তৃতার গুরুত্ব অপরিসীম। প্রধানমন্ত্রী বেলুড় মঠের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে থাকা স্বামীজির বাণী সংযুক্ত করেছিলেন নিজের টুইটে।
বিশদ

07th  October, 2021
মোদি সরকারের ভ্যাকসিন ব্যর্থতা
হারাধন চৌধুরী

টিকাকরণের স্বল্পতা এবং ধীরগতির পুরো দায় সরকারের। ভ্যাকসিন ইস্যুতে আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে দেশের মাথা হেঁট হয়ে যাওয়ার দায়ও নিতে হবে মোদি সরকারকে। বিদেশের মাটিতে এই যে উপর্যুপরি মর্যাদাহানি, এটা ভারতের বিরাট কূটনৈতিক ব্যর্থতাও বটে। বিশদ

06th  October, 2021
একনজরে
সাইকেল চোর সন্দেহে বছর বত্রিশের এক হাইস্কুল শিক্ষককে মারধরের অভিযোগ উঠল ইংলিশবাজার পুরসভার ওয়ার্ড কোঅর্ডিনেটর তৃণমূল কংগ্রেসের পরিতোষ চৌধুরী ওরফে সেভেন ও তাঁর সঙ্গীদের বিরুদ্ধে। ...

পুজোর আগে থেকেই সব্জির বাজার ঊর্ধ্বমুখী ছিল। টোম্যাটো, পটল, বেগুন বা অন্যান্য সব্জি কিনতে গিয়ে ক্রেতাদের মাথায় হাত পড়েছে। অনেকেই আশা করেছিলেন, পুজোর কয়েকটা দিন ...

এটিকে মোহন বাগানের নতুন সহকারী কোচ হচ্ছেন বাস্তব রায়। সঞ্জয় সেন টানা পাঁচ মাস জৈব বলয়ে থাকতে চাইছেন না বলেই তাঁকে দায়িত্ব দেওয়া হল। যুব উন্নয়নের দায়িত্বে রাখা হচ্ছে সঞ্জয় সেনকে। ...

‘বর্তমান’-এর প্রাক্তন কর্মী গণেশচন্দ্র দাস প্রয়াত। বেলঘরিয়ার বাসিন্দা গণেশবাবু গত ১০ অক্টোবর বেলা ১টা ২০ মিনিট নাগাদ একটি বেসরকারি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তাঁর ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কর্মে বাধা থাকলেও অগ্রগতি হবে। ব্যবসায় লাভ হবে সর্বাধিক। অর্থাগম যোগটি শুভ। কর্মক্ষেত্রে এবং রাজনীতিতে ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৩৮৬: জার্মানীর সর্বাপেক্ষা প্রাচীন উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠান হাইডেলবার্গ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয়
১৮৬৯: স্বাধীনতা সংগ্রামী মাতঙ্গিনী হাজরার জন্ম
১৮৮৮: রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর শান্তিনিকেতন প্রতিষ্ঠা করেন
১৯০৩:বিশিষ্ট সুরকার তথা সঙ্গীত পরিচালক রাইচাঁদ বড়ালের জন্ম
১৯২৪: কবি নীরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তীর জন্ম
১৯৫৬: বলিউড তারকা সানি দেওলের জন্ম
২০০৫: বাগদাদে শুরু হয় সাদ্দাম হুসেনের বিচার প্রক্রিয়া



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৩.৬০ টাকা ৭৬.৯২ টাকা
পাউন্ড ১০০.৯৮ টাকা ১০৫.৮৩ টাকা
ইউরো ৮৫.১৫ টাকা ৮৯.২৫ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪৮,০০০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৪৫,৫৫০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪৬,২৫০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৬৩,৫০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৬৩,৫০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

দিনপঞ্জি----------------------

দৃকসিদ্ধ: ২ কার্তিক, ১৪২৮, মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১। চর্তুদ্দশী ৩৩/৩৩ রাত্রি ৭/৪। উত্তরভাদ্রপদ নক্ষত্র ১৬/২৫ দিবা ১২/১২। সূর্যোদয় ৫/৩৮/১৪, সূর্যাস্ত ৫/৫/২। অমৃতযোগ দিবা ৬/২৪ মধ্যে পুনঃ ৭/১০ গতে ১০/৫৯ মধ্যে। রাত্রি ৭/৩৭ গতে ৮/২৭ মধ্যে পুনঃ ৯/১৬ গতে ১১/৪৭ মধ্যে পুনঃ ১/২৭ গতে ৩/৭ মধ্যে পুনঃ ৪/৪৮ গতে উদয়াবধি। মাহেন্দ্রযোগ রাত্রি ৭/৩৭ মধ্যে। বারবেলা ৭/৪ গতে ৮/৩০ মধ্যে পুনঃ ১২/৪৭ গতে ২/১৩ মধ্যে। কালরাত্রি ৬/৩৯ গতে ৮/১৩ মধ্যে। 
১ কার্তিক, ১৪২৮, মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১। চর্তুদ্দশী রাত্রি ৬/৪৫। উত্তরভাদ্রপদ নক্ষত্র দিবা ১/৮। সূর্যোদয় ৫/৩৯, সূর্যাস্ত ৫/৬। অমৃতযোগ দিবা ৬/৩৩ মধ্যে ও ৭/১৭ গতে ১০/৫৮ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/২৭ গতে ৮/১৯ মধ্যে ও ৯/১৯ গতে ১১/৪৬ মধ্যে ও ১/৩০ গতে ৩/১৩ মধ্যে ও ৪/৫৭ গতে ৫/৪০ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ রাত্রি ৭/২৭ মধ্যে। বারবেলা ৭/৫ গতে ৮/৩১ মধ্যে ও ১২/৪৮ গতে ২/১৪ মধ্যে। কালরাত্রি ৬/৪০ গতে ৮/১৪ মধ্যে।
১২ রবিয়ল আউয়ল।

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
উত্তরপ্রদেশ নির্বাচনে মহিলাদের ৪০ শতাংশ টিকিট দেবে কংগ্রেস
আগামী বছর উত্তরপ্রদেশ নির্বাচনে মহিলাদের ৪০ শতাংশ টিকিট দেবে কংগ্রেস। ...বিশদ

03:35:25 PM

ভারত-পাক ম্যাচের আগে একসঙ্গে দুই কোচ
রবিবার মরুশহরে আয়োজিত হবে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ। ভারত-পাক ম্যাচ শুরু হওয়ার ...বিশদ

03:13:30 PM

বিশ্ব ক্রমতালিকায় প্রথম দশ থেকে ছিটকে গেলেন ফেডেরার
লন টেনিসের অন্যতম কিংবদন্তি রজার ফেডেরোর। এখনও পর্যন্ত ২০টি গ্র্যান্ড ...বিশদ

02:51:17 PM

সাপের কামড়ে মৃত্যু গৃহবধূর
ঘরে ঘুমানোর সময় সাপের কামড়ে মৃত্যু হল এক গৃহবধূর। গুসকরা ...বিশদ

02:44:10 PM

নৈনিতালের লেকের জল উপচে পড়ছে রাস্তায়
একটানা বৃষ্টির ফলে উত্তরাখণ্ডের নৈনিতালে লেকের জল উপচে পড়ছে রাস্তায়। ...বিশদ

02:13:39 PM

হলদিয়ার এলপিজি বটলিং প্ল্যান্টে জখম শ্রমিকের সঙ্গে দেখা করলেন তাপস মাইতি
হলদিয়ার এলপিজি বটলিং প্ল্যান্টে দুর্ঘটনায় গুরুতর জখম শ্রমিকের সঙ্গে মঙ্গলবার ...বিশদ

02:09:58 PM