Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

মোদির স্বৈরতান্ত্রিক
শাসনের নয়া বিচ্ছুরণ
মৃণালকান্তি দাস

‘সাহুকার সে সমৃদ্ধি।’
নতুন সমবায় মন্ত্রক তৈরির লক্ষ্য হিসাবে কেন্দ্রের তরফে বলা হয়েছে এমনই কথা। অর্থাৎ, গ্রামে যে মহাজনী শোষণ চলে তার থেকে মুক্তি দিয়ে সেখানে সমৃদ্ধির জোয়ার বইয়ে দিতে চায় এই মন্ত্রক। এও বলা হয়েছে, মন্ত্রক সমবায় চালানোর জন্য আলাদা প্রশাসনিক কাঠামো, আইন ও নীতি গ্রহণ করবে। তার লক্ষ্য হবে সমবায় আন্দোলনকে তৃণমূল স্তরে পৌঁছে দেওয়া। রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের মতো সেই পুরানো ‘সহজ ব্যবসার পথ করবে’ সমবায়। সত্যিই কি তাই? নাকি এর পিছনে রয়েছে কোনও রাজনীতি? কাজ যদি সমবায়েরই হয়, তাহলে মন্ত্রকের নাম সমন্বয় রাখা হল কেন? নতুন মন্ত্রকের দায়িত্ব খোদ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে কেন?
বিরোধীদের দাবি শুনছে কে? 
প্রশ্ন উঠছে, আগামী লোকসভা ভোটের আগে মোদি কেন দেশের সমবায় সংস্থা ও ব্যাঙ্কগুলি নিয়ে চিন্তিত হয়ে পড়লেন? বিরোধীদের দাবি, মোদি সরকার নয়া কৃষি আইন জারি করে যে কর্পোরেটদের হাতে কৃষিক্ষেত্র তুলে দেওয়ার পথ সুগম করেছে, সেই কর্পোরেটের হাতেই সমবায়ের অর্থ তুলে দেওয়ার ছক কষছে। যদিও নয়া কৃষি আইনের জেরে গ্রাম ভারতে একেবারেই বিচ্ছিন্ন হয়ে পরেছে বিজেপি। বিচ্ছিন্নতা কাটাতে তাই দেশের সমস্ত সমবায়ের দখল নিয়ে গ্রাম ভারতে সমর্থন বাড়ানোর একটা কৌশল নিচ্ছে বিজেপি।
দেশের গ্রামীণ অর্থনীতিতে সমবায়ের প্রভাব অপরিসীম। বিভিন্ন রাজ্যে সমবায় ব্যাঙ্কের কৃষি ও ক্ষুদ্র শিল্পে ঋণ বিলির ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা রয়েছে। পশ্চিমবঙ্গে কৃষিতে ঋণসহায়তায় উল্লেখযোগ্য সমবায়। রাজ্যে এই মুহূর্তে রয়েছে ৬ হাজার প্রাথমিক কৃষি সমবায় সমিতি। সেই সমবায় সমিতির ৪০ শতাংশ রাজ্যে কৃষি ঋণ বিলির কাজ করে চলেছে। সমবায় প্রসারে অগ্রণী পাঞ্জাবও। সেই রাজ্যে প্রাথমিক কৃষি সমবায় সমিতির সংখ্যা হবে সাড়ে ৩ হাজার। এছাড়া রয়েছে ৫ হাজার সমবায় দুগ্ধ ফেডারেশন। সমবায়ে এগিয়ে থাকা রাজ্য মহারাষ্ট্রও। প্রাথমিক কৃষি সমবায় ও দুগ্ধ সমবায়ের সংখ্যা ২০০। রয়েছে চিনি কলের বড় ২০০টি সমবায়। উত্তরপ্রদেশে সমবায়ের সংখ্যা ২৫ হাজার ৯০৭টি। পড়শি রাজ্য বিহারে সমবায়ের প্রসার ঘটেছে। কর্ণাটক, গুজরাত, তামিলনাড়ু, কেরল সহ দক্ষিণ ভারতের বিভিন্ন রাজ্যেও সমবায়ের অগ্রগতি লক্ষণীয়। সবমিলিয়ে বছরে দেশে ২০ লক্ষ কোটি টাকার উপর ঋণ লেনদেন করে থাকে এই সমবায়গুলি। এই বিপুল অর্থের উপর কেন্দ্রের কোনও প্রভাব থাকবে না? মোদি তা মানবেন কেন? অতএব, নতুন মন্ত্রক, নয়া মন্ত্রী। অথচ, সংবিধানের ৭ তফসিল অনুসারে এতদিন সমবায় ছিল রাজ্য সরকারের অধীনস্ত বিষয়।
সমবায়ের শক্তি চিনিয়েছিল ‌‘আমুল’
গ্রামীণ ভারতে সমবায়ের প্রভাব নরেন্দ্র মোদি টের পেয়েছিলেন গুজরাতের মুখ্যমন্ত্রী থাকার সময়ই। সেই গল্পের শুরুটা অবশ্য ১৯৪৯ সালে। ভার্গিজ কুরিয়েনের হাত ধরেই গুজরাতের আনন্দ জেলায় জন্ম নিয়েছিল একটা বিপ্লব। এ দেশের গ্রামীণ সমবায় শিল্পোদ্যোগের ইতিহাসকে ‘আমুল’-এর বদলে দেওয়ার বিপ্লব। যার দৌলতে গুজরাতের গ্রামে ৩২ লক্ষ মানুষ আর্থিক ভাবে স্বয়ম্ভর, যার দৌলতে ভারত বিশ্বের পয়লা নম্বর দুধ উৎপাদক দেশ। আমুল মানে পৃথিবীর বৃহত্তম দুগ্ধ সমবায়। আমুল পরিচালনা করে গুজরাত কো-অপারেটিভ মিল্ক মার্কেটিং ফেডারেশন লিমিটেড। যার অংশীদার গুজরাতের ৩৬ লক্ষ দুধ উৎপাদক। গুজরাতের ১৩ হাজার গ্রামে বিস্তৃত ১৩টি জেলার মিল্ক ইউনিয়নের প্রতিনিধিরা। তাঁরাই এখন ঠিক করেন গুজরাতের গ্রাম কার হাতে থাকবে।
গুজরাতের গ্রামাঞ্চলে দুধ উৎপাদন দীর্ঘদিনেরই রেওয়াজ। তৈরি হয়েছিল কাইরা জেলা দুধ উৎপাদক ইউনিয়ন। ১৯৪৯ সালে ওই সংস্থায় যোগ দেন কুরিয়েন। তারপর শুধুই সমৃদ্ধির ইতিহাস।
শুরু হয়েছিল মাত্র দু’টি গ্রাম নিয়ে, দিনে ২৪৭ লিটার দুধ আসত তখন। ১৯৫৫ সালের মধ্যে এলাকা যেমন বাড়ল, তেমনই বাড়ল দুধের পরিমাণ। দৈনিক ২০ হাজার লিটার। গোরুর দুধে আটকে না থেকে মোষের দুধকে কাজে লাগানোর পথিকৃৎ কুরিয়েনের সমবায়ই। শ্বেত বিপ্লব, অপারেশন ফ্লাড, ন্যাশনাল ডেয়ারি ডেভেলপমেন্ট বোর্ড, গুজরাত কোঅপারেটিভ মিল্ক মার্কেটিং ফেডারেশন... কুরিয়েনের কর্মযজ্ঞ আরও যত ধাপই পেরোক না কেন, শুরুটা ওই তিনটি বর্ণে— ‘আমুল’।
১৯৭৩ সালে গড়ে উঠেছিল গুজরাত কোঅপারেটিভ মিল্ক মার্কেটিং ফেডারেশন। আনন্দ জেলার চৌহদ্দি ছাড়িয়ে গোটা গুজরাতের প্রতিনিধি হয়ে উঠেছিল ‘আমুল’। কুরিয়েন বিশ্বাস করতেন, উন্নয়নের সবচেয়ে ভালো উপায় হচ্ছে, উন্নয়নের হাতিয়ারকে মানুষের হাতে তুলে দেওয়া। জীবনের শেষ অঙ্কে নিজের হাতে গড়া কর্মীদের চাপেই নিজের হাতে গড়া সমবায় থেকে সরতে বাধ্য হয়েছিলেন যদিও। কিন্তু কুরিয়েন তাঁর ভাবনা বদলাননি। সেই ভাবনা বলত, ‘আমি ক্ষমতায়নের ব্যবসা করি, দুধ তার উপাদান মাত্র।’ তাঁর সেই ভাবনায় ভর করে ‘ব্যবসা’ করছে বিজেপি। তফাৎ শুধু একটাই, কুরিয়েন চেয়েছিলেন উন্নয়নকেন্দ্রিক ক্ষমতায়ন। বিজেপির হাতে তা হয়ে উঠেছে রাজনীতির ক্ষমতায়ন। আর সেটা করতে গিয়ে কুরিয়েন সমবায় পরিচালনায় যে স্বাধীন এবং স্বতন্ত্র ধারা গড়েছিলেন, তা ভেঙে চুরমার করে দিয়েছে বিজেপি।
নব্বইয়ের দশকে গুজরাতে বিজেপি সরকার ক্ষমতায় আসার পর দ্রুত নষ্ট হতে শুরু করে আমুল সহ গুজরাতের সমস্ত জেলার দুগ্ধ সমবায়গুলির স্বতন্ত্রতা। মুখ্যমন্ত্রী মোদির নেতৃত্বে বাড়তি গতি পায় দুগ্ধ সমবায়গুলির গৈরিকীকরণ। তা নিয়ে কুরিয়ানের সঙ্গে মোদির তিক্ততা এমন পর্যায়ে যায় যে, ২০১২ সালে ভার্গিজ কুরিয়ানের মৃত্যুর দিনে মাত্র ২০ কিলোমিটার দূরে রাজনৈতিক কর্মসূচি থাকলেও শেষ শ্রদ্ধাটুকু জানাতে আসার ভদ্রতা দেখাননি নরেন্দ্র মোদি। 
বর্তমানে গুজরাতের ১৮টি জেলার প্রতিটির দুগ্ধ সমবায়গুলি বিজেপির দখলে। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, গুজরাতের বিজেপির দীর্ঘদিন ক্ষমতা ধরে রাখার পিছনে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রয়েছে জেলা দুগ্ধ সমবায়গুলির উপরে বিজেপির দখলদারি। প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে যে জেলা দুগ্ধ সমবায়গুলির প্রভাব প্রায় ১ কোটি ভোটারের উপর। আসলে আমুল হয়ে উঠেছে বিজেপির গুজরাতের ভোট প্রক্রিয়ার রসায়নাগার। কে না জানে, গুজরাতে বিধানসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আমুলের দুধের দাম কমানো বা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত এবং সেই বাড়তি আয় থেকে প্রার্থীদের নির্বাচনী প্রচারের খরচ বহন করার প্র্যাকটিস বিজেপির ইউএসপি। নোট বাতিলের সময়, দেশের মধ্যে সবচেয়ে বেশি বাতিল ৫০০ কিংবা ১০০০ টাকার নোট জমা পড়েছিল যে সমবায় ব্যাঙ্কে সেই ব্যাঙ্কটির নাম আমেদাবাদ জেলা সমবায় ব্যাঙ্ক, অধিকর্তা অমিত শাহ। আবার অমিত শাহের পুত্র জয় শাহের কোম্পানির অ্যাকাউন্টে স্রেফ একটা চিঠির ভিত্তিতে ২৫ কোটি টাকার খণ দিয়েছিল যে ব্যাঙ্ক সেটাও গুজরাতের কালুপুর কমার্শিয়াল সমবায় ব্যাঙ্ক। মোদি-অমিত শাহরা জানেন, গুজরাতের মতো গোটা দেশের সমবায় ক্ষেত্র হাতের মুঠোয় থাকা মানে মৌরসি পাট্টা। বিজেপিরও পোয়াবারো।
সমবায় মানেই গ্রামীণ ভারতের ভোট
এনসিপি নেতা শারদ পাওয়ার, অজিত পাওয়ারের উত্থান সমবায় আন্দোলন থেকে। এনসিপি নেতাদের বক্তব্য, শিবসেনা-এনসিপি-কংগ্রেস জোট সরকারের আগে বিজেপির দেবেন্দ্র ফড়নবিশ মুখ্যমন্ত্রী হয়েছিলেন। তখনও এনসিপি, কংগ্রেসের হাতে সমবায়ের লাগাম থেকেছে। বিজেপি সেখানেই হস্তক্ষেপ চাইছে বলে বিরোধীদের আশঙ্কা। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বৈঠক করে কেন্দ্রের নতুন গড়া সমবায় মন্ত্রক নিয়ে তাঁর আপত্তির কথা জানিয়ে দিয়েছেন শারদ পাওয়ার। সমবায় মন্ত্রকের বিরোধিতা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। বিরোধীরা বলছেন, গুজরাতে কংগ্রেসের হাতে থাকা সমবায় সংস্থাগুলি একে একে দখল করেই নিজেদের রাজনৈতিক শিকড় ছড়িয়েছিল বিজেপি। সেই কৌশলেই এগতে চাইছেন প্রধানমন্ত্রী মোদি।
জার্মানি ও ব্রিটেনেও সমবায়ে তাক লাগানো বিকাশ হয়েছিল গত শতাব্দীর গোড়ার দিকেই। নাৎসি ইতিহাস ঘেঁটে দেখলেই খোঁজ পাবেন, হিটলারও ক্ষমতায় আসার পর জার্মানির সমবায়গুলিকে রাজনৈতিকভাবে দখল করেছিলেন। অস্ট্রিয়া, পোল্যান্ড, ফ্রান্স, ইউরোপের প্রতিটি জায়গায় সমবায়গুলিকে খর্ব করা বা সেগুলি দখল করার ক্ষেত্রেও হিটলার ও নাৎসি পার্টির ভূমিকা ছিল গুরুত্বপূর্ণ। ইতিহাসের সেই পথেই অমিত শাহ এখন দেশের সমস্ত সমবায় ব্যাঙ্কের হর্তাকর্তা। তিনিই ব্যাঙ্কের সর্বসময়ের ম্যানেজিং ডিরেক্টর নিয়োগ করবেন। রিজার্ভ ব্যাঙ্কের সার্কুলার অনুসারে, প্রত্যেক সমবায় ব্যাঙ্ক একজন পেশাগত দক্ষ একজিকিউটিভ ডিরেক্টর নিয়োগ করবে। এই নিয়োগের অনুমোদন দেবে কেন্দ্রীয় সরকার, অর্থাৎ অমিত শাহ। আর এর অর্থ, পশ্চিমবঙ্গে সমবায় ব্যাঙ্কগুলিতে একজিকিউটিভ ডিরেক্টর কে নিযুক্ত হবেন সেটার সুপারিশ করবেন স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব। এক্ষেত্রে দলের সুপারিশের ব্যক্তিকেই যে অমিত শাহ নিয়োগ করবেন তাতে কোনও সন্দেহ নেই। আর তাই যুক্তরাষ্ট্রীয় পরিকাঠামোকে বাইপাস করে, গুজরাত মডেলে আমুলের মতো দেশের সমবায়গুলির 
উপর কেন্দ্রীয় নিয়ন্ত্রণ চাইছে মোদি সরকার। যার মাধ্যমে দীর্ঘমেয়াদি রাজনৈতিক ক্ষমতায়ন চাইছে গেরুয়াবাহিনী। আসলে মোদি সরকারের সমবায় মন্ত্রক তৈরির সিদ্ধান্ত বিজেপির স্বৈরতান্ত্রিক শাসনের নয়া বিচ্ছুরণ ছাড়া কিছু নয়!
05th  August, 2021
আত্মবিশ্বাস ও আবেগের মিশেল...মমতা
শান্তনু দত্তগুপ্ত

এতটুকু ফাঁক রাখতে নারাজ তৃণমূল নেত্রী। রাজনীতির প্রোটোকল মেনে, গা বাঁচিয়ে, ঠুনকো সম্মানের চাদর গায়ে দিয়ে ভাষণ নয়, বরং মানুষের সঙ্গে মিশে আর্জিটুকু পৌঁছে দেওয়া... আপনাদের প্রত্যেকটা ভোট আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ। বিশদ

বিদ্বেষপূর্ণ এবং মিথ্যে ধর্মযুদ্ধ

ইতিহাস বলছে, ক্রুসেডস হল কিছু ধর্মযুদ্ধ, যা একাদশ শতকের শেষাশেষি শুরু হয়েছিল। লড়াইগুলো হয়েছিল ১০৯৫ এবং ১২৯১ খ্রিস্টাব্দের ভিতরে। ইতিহাস সাক্ষ্য দেয় যে এসব সংঘটিত হয়েছিল ইউরোপীয় খ্রিস্টানদের দ্বারা। বিশদ

27th  September, 2021
ভবানীপুর থেকেই শুরু হোক নয়া ইতিহাস
হিমাংশু সিংহ

রাজ্য রাজনীতির এই সন্ধিক্ষণে ভবানীপুর থেকেই অশুভ শক্তির বিনাশের শপথ নিতে হবে। বাংলার পবিত্র মাটিতে ভিনদেশি ষড়যন্ত্রকে হারাতে হবে। ৩০ সেপ্টেম্বর ঝড় বৃষ্টি দুর্যোগ যাই হোক ভোট দেওয়া প্রত্যেক ভবানীপুরবাসীর অবশ্য কর্তব্য। বিশদ

26th  September, 2021
‘উপেক্ষিত নায়ক’ হয়েই
থেকে গেলেন দিলীপ
তন্ময় মল্লিক

মুখ বদলে ‘মুখরক্ষা’ মোদি-অমিত শাহ জমানার নয়া কৌশল। গুজরাত থেকে বাংলা, সর্বত্র একই ট্রেন্ড। কেন্দ্রের ব্যর্থতার দায় অন্যের ঘাড়ে চাপিয়ে দিয়ে মানুষকে বোকা বানানোর এই টেকনিক তাঁদেরই আমদানি। দিলীপ ঘোষকে সরিয়ে দিয়ে সুকান্ত মজুমদারকে বসানো তারই অঙ্গ। বিশদ

25th  September, 2021
ম্যানগ্রোভকে ঘিরেই
সুন্দরবনবাসীর হাসি-কান্না
শ্যামল মণ্ডল

লক্ষ্য সুন্দরবনের মধ্যে আরও একটি ‘সুন্দর’বন গড়ে তোলা। আর এই উদ্দেশ্য সফল করতে নদীবাঁধের ধার বরাবর বিভিন্ন প্রজাতির ম্যানগ্রোভ গাছের প্রাচীর গড়ে তোলা হচ্ছে। গত তিন বছর ধরে চলছে এই কৃত্রিম ‘ম্যানগ্রোভ বন’ তৈরির কাজ। বিশদ

25th  September, 2021
প্রধানমন্ত্রী হওয়ার চেষ্টায়
অন্যায়ের কী আছে?
সমৃদ্ধ দত্ত

উত্তমকুমার বাংলা সিনেমা জগতে সুপারস্টার হয়ে যাওয়ার পর স্থির করেছিলেন, এবার একবার হিন্দি চলচ্চিত্র সাম্রাজ্যে ভাগ্যান্বেষণের চেষ্টা করলে কেমন হয়? সেই প্রয়াস তিনি করেছিলেন। কিন্তু ভুল গাইডেন্স, সঠিক পরিকল্পনার অভাব এবং কিছু পারিষদবর্গের স্বার্থান্বেষী দিশানির্দেশের সম্মিলিত ফলাফল হিসেবে তাঁর সেই উদ্যোগটি সফল হতে পারেনি।
বিশদ

24th  September, 2021
বিমা দুর্নীতির ইতিহাস
ভুলে গিয়েছেন মোদি
মৃণালকান্তি দাস

সরকারি জীবন বিমা সংস্থায় আমজনতা টাকা রাখেন নিরাপদ মনে করে। একের পর এক দুরবস্থা সামাল দিতে তাকেই এগিয়ে দিয়ে সাধারণ মানুষের কষ্টার্জিত পুঁজিকে ঝুঁকির মুখে ফেলা হচ্ছে কেন? যে রুগ্ন সংস্থাগুলিকে এলআইসি টাকা ধার দিয়েছে, তা শোধ না হলে কী হবে?
বিশদ

23rd  September, 2021
আফগান মেয়েদের কথা
ভাবলই না চীন, রাশিয়া
হারাধন চৌধুরী

চীন-রাশিয়ারই অস্ত্রে বলীয়ান হয়ে তালিবান এই যে মানবাধিকারকে লাগাতার বলাৎকার করে যাচ্ছে, তাতে সিলমোহর দিচ্ছে কোন নীতিতে এই দুই ‘মহান’ রাষ্ট্র? শুধু চীন, রাশিয়ার ‘অর্ধেক আকাশ’ মুক্ত থাকলেই হল, তাই তো! বিশদ

22nd  September, 2021
লগ্ন মেনেই টিকা!
মোদির ভারতের ভবিতব্য
শান্তনু দত্তগুপ্ত

আপনার জন্মদিনের প্রোপাগান্ডায় আড়াই কোটি ভ্যাকসিনের ডোজ আমাদের মনে কিছু প্রশ্নের ঝড় তুলে দেয়। সেখানেও হিসেবে গরমিলের অভিযোগ ওঠে। আমরা ভাবতে বাধ্য হই, আপনি শুধুই নিজের তূণীর সমৃদ্ধ করতে বেশি আগ্রহী। একদিন ২৫ লক্ষ ভ্যাকসিন, আর একদিন আড়াই কোটি ডোজের অঙ্কে সাধারণ মানুষের জীবনের পথ মসৃণ হয় না। তাতে কাঁটার সংখ্যা বাড়তেই থাকে। 
বিশদ

21st  September, 2021
বৈষম্য ও অবিচার
বড্ড চোখে লাগছে
পি চিদম্বরম

রাজ্য সরকারগুলি রাজ্যের করদাতাদের টাকায় কেন সরকারি মেডিক্যাল কলেজ প্রতিষ্ঠা করবে? কেন ছেলেমেয়েরা মাতৃভাষার মাধ্যমে পড়বে? কেন রাজ্য বোর্ডের পরীক্ষায় বসবে? রাজ্য শিক্ষা বোর্ড রেখে দেওয়ার আদৌ যুক্তি আছে কি আর? শহুরে ছাত্ররা কি পিএইচসি এবং মফস্‌সলের হাসপাতালগুলিতে রোগীর সেবা করবে? ‘মেরিট’ সম্পর্কে এক সন্দেহজনক তত্ত্ব খাড়া করে নিট মারাত্মক বৈষম্য ও অবিচারের এক নতুন যুগের সূচনা করছে।
বিশদ

20th  September, 2021
মোদির গৌরব, অগৌরব
ও বিপন্ন সাংবাদিকতা
হিমাংশু সিংহ

আমেদাবাদের সাংবাদিক ধবল প্যাটেল গত প্রায় এক বছর দেশছাড়া। তাঁর অপরাধ কী? সওয়া এক বছর আগে তিনি লিখেছিলেন গুজরাতের মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রুপানিকে সরতে হচ্ছে। আজ ১৬ মাস বাদে তাঁর পূর্বাভাস মিলেও গিয়েছে হুবহু। গত ১১ সেপ্টেম্বর নিজেই ইস্তফা দিয়েছেন কিংবা বাধ্য হয়ে সরে গিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী রুপানি। বিশদ

19th  September, 2021
মোদিকে টক্কর দিচ্ছেন মমতা
তন্ময় মল্লিক

ক্ষমতায়, পদমর্যাদায়, দাপটে, প্রভাবে যে কোনও মুখ্যমন্ত্রীর চেয়ে প্রধানমন্ত্রী অনেক অনেক এগিয়ে। কিন্তু টাইমের সমীক্ষায় ফারাকটা তেমন কিছু নয়, বরং খুব কাছাকাছি। পৃথিবীর বিখ্যাত ম্যাগাজিন ‘টাইম’ জানিয়ে দিল, এই মুহূর্তে নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে টক্কর দেওয়ার ক্ষমতা ভারতবর্ষের একজনেরই আছে। নাম তাঁর মমতা।
বিশদ

18th  September, 2021
একনজরে
আমেরিকা, ব্রিটেন, ফ্রান্স, অস্ট্রেলিয়া, জাপান আগেই উচ্চারণ করেছে কড়া সতর্কবার্তা। এবার জার্মানি। সরাসরি তারা তালিবানকে জানিয়ে দিয়েছে, ভারতে কিংবা কোনও প্রতিবেশি রাষ্ট্রে সন্ত্রাসে মদত দেওয়া ...

২ অক্টোবর থেকে পলাশী স্টেশনে রেল পুলিসের ফাঁড়ি (জিআরপিপি) চালু হচ্ছে। কৃষ্ণনগর জিআরপি থানার অধীনে কাজ করবে এই ফাঁড়ি। যাত্রী সুরক্ষা ও আইনশৃঙ্খলার কথা মাথায় রেখে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ২০১৮ সালের ১ ফেব্রুয়ারি এই ফাঁড়ির অনুমোদন দিয়েছিল রাজ্য সরকার। ...

নিউটাউনে স্কুল করার জন্য সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে প্রায় দুই একর জমি দিয়েছিল রাজ্য সরকার তথা হিডকো। বিতর্ক দেখা দেওয়ায় তিনি জমি ফিরিয়ে দেন। রাজ্যও তাঁর জমা দেওয়া জমির দাম ফিরিয়ে দেয়। ...

: শহরের রাস্তায় নির্মাণ সামগ্রী পড়ে থাকলে তা তুলে নেবে পুর কর্তৃপক্ষ। এবং সেই সামগ্রী পুরসভার প্রয়োজনে ব্যবহার করা হবে। পুজোর আগে শহরের রাস্তাঘাট পরিষ্কার রাখতে সোমবার এমন নির্দেশিকা জারি করেছে পুর প্রশাসন। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কর্মে শুভ অগ্রগতি ও বিত্তলাভের অনুকূলে যোগ। মৃৎ ও চিত্র শিল্পীদের শুভদিন। দাম্পত্যে ও বিদ্যায় ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

বিশ্ব জলাতঙ্ক দিবস
খ্রিঃ পূঃ ৫৫১: মহান চীনা দার্শনিক ও শিক্ষাগুরু কনফুসিয়াসের জন্ম
১৫৭৩: ইতালীয় অনন্য চিত্রশিল্পী মাইকেলাঞ্জেলোর জন্ম
১৭৪৬: প্রাচ্য তত্ত্ববিদ ও এশিয়াটিক সোসাইটির প্রতিষ্ঠাতা উইলিয়াম জোনসের জন্ম
১৭৯৩: রাণী রাসমণির জন্ম
১৮৮৯: সাহিত্যিক, সাংবাদিক, কবি নলিনীকান্ত সরকারের জন্ম
১৮৯৫: ফরাসি রসায়নবিদ ও অণুজীববিজ্ঞানী লুই পাস্তুরের মৃত্যু
১৯০৭: বিপ্লবী ভগৎ সিংয়ের জন্ম
১৯২৮ - স্যার অ্যালেকজান্ডার ফ্লেমিং প্রথমবারের মতো পেনিসিলিন আবিষ্কারের কথা ঘোষণা করেন
১৯২৯: সুরসম্রাজ্ঞী লতা মঙ্গেশকরের জন্ম
১৯৪৭: বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্ম
১৯৭৫: অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার স্টুয়ার্ট ক্লার্ক জন্মগ্রহণ করেন।
১৯৮২: শ্যুটার অভিনব ব্রিন্দার জন্ম
১৯৮২: অভিনেতা রণবীর কাপুরের জন্ম



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭২.৯১ টাকা ৭৪.৬২ টাকা
পাউন্ড ৯৯.১৬ টাকা ১০২.৬০ টাকা
ইউরো ৮৪.৯৪ টাকা ৮৮.০৫ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪৬,৮৫০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৪৪, ৪৫০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪৫,১৫০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৬০,৬০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৬০,৭০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

১১ আশ্বিন ১৪২৮, মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১। সপ্তমী ৩১/৫৬ সন্ধ্যা ৬/১৭। মৃগশিরা নক্ষত্র ৩৮/৩ রাত্রি ৮/৪৪। সূর্যোদয় ৫/৩০/৪০, সূর্যাস্ত ৫/২৪/১২।  অমৃতযোগ দিবা ৬/১৭ মধ্যে পুনঃ ৭/৫ গতে ১১/৪ মধ্যে। রাত্রি ৭/৪৯ গতে ৮/৩৯ মধ্যে পুনঃ ৯/২৭ গতে ১১/৫২ মধ্যে পুনঃ ১/২৯ গতে ৩/৬ মধ্যে পুনঃ ৪/৪১ গতে উদয়াবধি। মাহেন্দ্রযোগ রাত্রি ৭/৪৯ মধ্যে। বারবেলা ৭/০ গতে ৮/২৯ মধ্যে পুনঃ ১২/৫৭ গতে ২/২৭ মধ্যে। কালরাত্রি ৬/৫৬ গতে ৮/২৬ মধ্যে। 
১১ আশ্বিন ১৪২৮, মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১। সপ্তমী দিবা ৩/১০।  মৃগশিরা নক্ষত্র রাত্রি ৭/০। সূর্যোদয় ৫/৩০, সূর্যাস্ত ৫/২৬। অমৃতযোগ দিবা ৬/২১ মধ্যে ও ৭/৮ গতে ১১/০ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/৪১ গতে ৮/৩০ মধ্যে ও ৯/২০ গতে ১১/৪৮ মধ্যে ও ১/২৭ গতে ৩/৬ মধ্যে ও ৪/৪৫ গতে ৫/৩১ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ রাত্রি ৭/৪১ মধ্যে। বারবেলা ৭/০ গতে ৮/২৯ মধ্যে ও ১২/৫৮ গতে ২/২৭ মধ্যে। কালরাত্রি ৬/৫৭ গতে ৮/২৭ মধ্যে। 
২০ শফর

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
পাঞ্জাব প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতির পদ থেকে ইস্তফা দিলেন নভজ্যোৎ  সিং সিধু

03:23:38 PM

আইপিএল ২০২১ : দিল্লির বিরুদ্ধে টসে জিতে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত কেকেআরের

03:04:58 PM

বিশ্বভারতীর এমএডের মেধা তালিকা ঘিরে চূড়ান্ত বিভ্রান্তি
একশোর মধ্যে কেউ পেয়েছে ২০০, কেউবা ১৯৮, আবার কেউ ১৫১। ...বিশদ

01:31:30 PM

মেঘাচ্ছন্ন কলকাতার আকাশ

01:17:45 PM

বারুইপুরে প্রোমোটারের কাছে ৫ লক্ষ টাকা দাবি দুষ্কৃতীর, চলল গুলি
প্রোমোটারের কাছে ৫ লক্ষ টাকা দাবি স্থানীয় দুষ্কৃতীর। প্রোমোটার তা ...বিশদ

01:13:22 PM

উপনির্বাচনের দিন ঘোষণা হতেই দিনহাটাতে ব্যস্ততা শুরু রাজনৈতিক মহলে
দিনহাটা বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনের দিন ঘোষণা হতেই প্রশাসনিক ও রাজনৈতিক ...বিশদ

12:59:09 PM