Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

মমতা মডেলে উজ্জীবিত গোটা দেশ
মৃণালকান্তি দাস

বাংলার ভোটে দেশবাসীকে দু’টি বার্তা দিয়েছেন জননেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রথম বার্তা, আরএসএস-বিজেপি কোনও অজেয় শক্তি নয়। দ্বিতীয় বার্তা, মহাশক্তিধর এই রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে হারাতে কোনও রাজ্যে বহু দলের জোটও জরুরি নয়। মমতার এই বার্তা সাড়া ফেলেছে গোটা দেশেই। মমতার এই মডেল উজ্জীবিত করছে দেশের উত্তর-দ‌ক্ষিণের সব আঞ্চলিক দলকেও।
ধর্মীয় জাতীয়তাবাদ মানেই একটা তীব্র আবেগ, যার মূলে থাকে সাম্প্রদায়িক চেতনা। এই জাতীয়তাবাদ নিজের গোষ্ঠী ও সম্প্রদায়কেই শুধু গৌরবান্বিত করার চেষ্টা করে, সেই স্বার্থসিদ্ধির জন্য অন্য গোষ্ঠী, জাতি, দেশ বা সম্প্রদায়ের প্রতি অসহিষ্ণুতা ও ঘৃণার বীজ বোনে। নরেন্দ্র মোদি, অমিত শাহের লাগাতার অসহিষ্ণুতার অভিযান এবং ধর্মীয় জাতীয়তাবাদী আবেগের আড়ালে লুকনো বিদ্বেষকেই বাংলা ও বাঙালি প্রত্যাখ্যান করেছে এই ভোটে। একক জেদ আর সাহসে সেই ভয়ঙ্কর অভিযানকে থামিয়ে দেশজুড়ে তুমুল বিস্ময়ের জন্ম দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, যা গোটা দেশের কাছে এক মহান শিক্ষা। আঞ্চলিক দলগুলোও এর মধ্যে নতুন করে স্বপ্ন দেখা শুরু করেছে।
কে না জানে, বিজেপি একটা ক্যাডারভিত্তিক দল। তার ক্যাডারদের মুখ্য অস্ত্র হিন্দুত্ববাদ। ৮০ শতাংশ হিন্দু ধর্মাবলম্বীর দেশে এরকম এক শক্তিশালী বিশাল আয়তনের ক্যাডারভিত্তিক অভিযানকে মোকাবিলা সহজ কথা নয়। মমতা সেখানেই বিকল্প রাস্তা দেখিয়েছেন। তিনি সরাসরি সংঘাতে হাজির হয়েছেন মূলত ভাষাভিত্তিক জাতীয়তাবাদী উন্মাদনা নিয়ে। যাকে বলে, বাঙালি জাতিসত্তার রাজনৈতিক তাস! অমিত শাহরা যে অভিযানকে ধর্মীয় মেরুকরণের যুদ্ধে পরিণত করার চেষ্টা করেছিলেন, মমতা তাকে ‘বাঙালি’ জাতীয়তাবাদ দিয়ে সামলেছেন। মমতা বারবার বলেছেন, মোদি-অমিত শাহরা অনেকটা নাদির শাহের মতো আক্রমণ করতে এসেছে এবং বঙ্গসংস্কৃতিকে তছনছ করে দিতে চাইছে। এখানেই জোর ধাক্কা খেয়েছে বিজেপি।
বাঙালি সম্পর্কে হোমওয়ার্ক বা ব্যাকগ্রাউন্ড রিসার্চ-এর দুর্বলতাই বিজেপির বাড়া ভাতে ছাই ঢেলে দিয়েছে। ২০১৯-এর লোকসভা নির্বাচনে ১৮ আসনে জিতে এবং ১২২টি বিধানসভা কেন্দ্রে এগিয়ে থেকে যে পদ্মফুল ঘাসফুলের ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলছিল বলে মনে হচ্ছিল, তাদেরই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘাড় ধরে পাঠিয়ে দিয়েছেন পরাজিতদের ডেরায়। এই বঙ্গে যে আজও মীরজাফর বা জগৎশেঠদের মতো ষড়যন্ত্রকারীদের ঘৃণা করা হয়, সেটা বিজেপি ভাবতেই পারেনি। আসলে মোদি-অমিত শাহরা পশ্চিমবাংলার মাটি চিনতেই পারেনি। তাই সারাক্ষণ ন্যক্কারজনক সাম্প্রদায়িক উসকানির মধ্যেই আটকে ছিল গেরুয়া শিবির। বিজেপি খুব খোলাখুলি এই তাসটি খেলেছিল ৭০ শতাংশ হিন্দু ভোট এককাট্টা করতে। পারেনি। রাম দিয়ে এখানে যাত্রাপালা হতে পারে, ভোট পাওয়া মুশকিল। বাংলার ভোট সামনে রেখে রবীন্দ্রনাথের দাড়ির নকল বানানো যায়, কিন্তু তাতে বাঙালির মনে বিন্দুমাত্র রেখাপাত করা সম্ভব নয়। ধর্মীয় জিগির তুলে সাম্প্রদায়িক মেরুকরণ ঘটানোও এখানে বড্ড কঠিন। ফলে মরিয়া প্রচেষ্টা সত্ত্বেও বাংলার ভোটারদের সামগ্রিক ভাবে ধর্মীয় মেরুকরণের দিকে টেনে নিয়ে যেতে পারেনি বিজেপি। যদি তাই হতো, তাহলে ৩০ শতাংশ সংখ্যালঘু ভোটের বিপরীতে দাঁড়িয়ে ‘হিন্দুত্ব’-এর জিগির তোলা দলটি এইভাবে খড়কুটোর মতো উড়ে যেত না। তাই আজ এটা দৃঢ়ভাবে বলা যায় যে, বাংলার জনগণ ভোটের মেশিনে বোতাম টেপার সময় হিন্দু-মুসলিম বিচার করেনি। ‘এক দেশ-এক জাতি’র যে স্লোগানে বহু সংস্কৃতির ভারতকে আরএসএস-বিজেপি এতদিন বাঁধতে চেয়েছে, সেই জবরদস্তির বিকল্প দেখিয়েছেন মমতা। প্রতিটি প্রান্তিক রাজ্যের সাংস্কৃতিক নিজস্বতার শক্তিই ফুটে উঠেছে মমতার ‘জয় বাংলা’ ধ্বনিতে। ঠিক এখানেই নয়া সম্ভাবনা দেখা শুরু করেছে ওড়িশা, পাঞ্জাব, উত্তরপ্রদেশ, মহারাষ্ট্রের মতো রাজ্যের আঞ্চলিক জাতীয়তাবাদীরা। তারা এখন দ্রুত আঞ্চলিক ভাষা, সংস্কৃতি ও অর্থনৈতিক ইস্যুগুলোতে সংঘবদ্ধ হওয়াকে রাজনৈতিক কৌশল হিসেবে বাড়তি গুরুত্ব দেবে, যা দেশের বৃহত্তর রাজনৈতিক ছক পাল্টে দিতে পারে।
ভারতের রাজনীতিতে সদ্য যুক্ত হওয়া এই ‘মমতা মডেল’ একইসঙ্গে বিজেপি ও কংগ্রেস উভয়ের জন্য সাংগঠনিক ও আদর্শগত সঙ্কটও তৈরি করবে। ‘মমতা মডেল’ নিয়ে বিজেপির সঙ্কটের জায়গা দু’টি। হিন্দুত্ববাদ হিন্দুসমাজকে ভোটবাক্সে নিয়ে আসার একমাত্র অস্ত্র হতে পারে না, একইসঙ্গে হিন্দুরা বিজেপির পুরোনো রাজনৈতিক পণ্যটিকে আর গ্রহণ করছে না—মমতা সেটা প্রমাণ করে দিয়েছেন। বিজেপি নেতারা ভাবতেই পারেনি, মসজিদ-মন্দিরের রাজনীতি এবং মুসলিম-খ্রিস্টান বিদ্বেষ প্রতিপ‌ক্ষের নতুন কোনও কৌশলের সামনে যে ভোঁতা হয়ে যেতে পারে। বিজেপি আদৌ তার জন্য প্রস্তুত ছিল না। আর দ্বিতীয়ত, গেরুয়া শিবির অমিত শাহের নির্বাচনী কৌশলবিদ্যাকে অপ্রতিরোধ্য হিসেবে ব্র্যান্ডিং করেছিল, মমতা সেই বিশ্বাস ভেঙে চুরমার করে দিয়েছেন। মমতা প্রমাণ করেছেন, সঠিক রণকৌশল গ্রহণ করে অসমযুদ্ধেও জেতা যায়। সঠিক রণকৌশল নেওয়া হলে নির্বাচন কমিশন, মিডিয়া, রাষ্ট্রীয় বিভিন্ন বাহিনীর বৈরিতা এবং অর্থশক্তিতে দুর্বল থেকেও শক্তিশালী প্রতিপক্ষকে মাটিতে নামিয়ে আনা যায়। জরুরি হল, আঞ্চলিক সংস্কৃতিকে বুঝে সরাসরি মেঠো জনসংযোগ। মানুষ চায় সংবেদনশীল ও সৎ প্রশাসন, সুষ্ঠু পরিষেবা ও কর্মের অধিকার। রাজনীতির কাছে মানুষের চাহিদা খুবই সামান্য। রাজনীতির পরিসরও সমাজের কাছে খুব অল্প। ধর্ম, সংস্কৃতি, শিক্ষা, সামাজিক জীবন, ব্যক্তিস্বাধীনতা—এসবই রাজনীতির পরিসরের বাইরে। তবু রাজনৈতিক দলগুলো এসবের মধ্যে ঢুকে তালগোল পাকিয়ে ফেলে, যা করেছে গেরুয়া শিবির।
অন্যদিকে, বিজেপিকে মোকাবিলায় রাজ্যে রাজ্যে কংগ্রেসকে সঙ্গে নেওয়ার অপরিহার্যতাকেও প্রশ্নের মুখে ফেলে দিয়েছেন মমতা। তাঁর জয় কংগ্রেস নেতৃত্বের রাজনৈতিক প্রজ্ঞাকেও আরেকবার প্রশ্নবিদ্ধ করছে। মমতাকে বাদ দিয়ে বামেদের সঙ্গে কেন নির্বাচনী আঁতাত করেছিল, তার একটা গ্রহণযোগ্য ব্যাখ্যা দেওয়া সোনিয়া গান্ধীর জন্য এখন দুরূহ হয়ে উঠেছে। স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে, ‘মমতা মডেল’ আঞ্চলিক দলগুলোর কাছে কংগ্রেসের গুরুত্ব আরও কমাবে। পশ্চিমবঙ্গের বাইরে এর বড় প্রমাণ এবারের অসমের নির্বাচন। অসমে এনআরসি নিয়ে বিজেপি এবার অত্যন্ত কঠিন অবস্থায় ছিল। যে-কোনও আঞ্চলিক দল মমতার মতো অসমিয়া জাতীয়তাবাদী অবস্থান নিলে অসমের নির্বাচনী ফল ভিন্ন হতে পারত। মূলত কংগ্রেসের ব্যর্থতার কারণেই অসমে বিজেপি-বিরোধী শিবির জেতেনি এবার। আর তাই কংগ্রেসকে পিছনে সরিয়ে ‘মমতা মডেল’ গোটা দেশে মোদি-বিরোধী শিবিরের জন্য অক্সিজেনের এক খনি হিসেবে হাজির হয়েছে। যেখানে গুরুত্ব বাড়বে অঞ্চলভিত্তিক রাজনৈতিক কৌশলের।
তবে, মুখ্যমন্ত্রী খুব ভালো করেই জানেন, বিজেপির যে নীতি অর্থাৎ সাম্প্রদায়িকতা বা ধর্মকে কেন্দ্র করে রাজনীতি, তা সে যে ধর্মই হোক না কেন, সেই অসুস্থ রাজনীতিটা তো মরেনি! বরং এই প্রবণতাটা হয়তো ধীরে ধীরে আমাদের রাজ্যে বাড়বে বই কমবে না। বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ মজুমদার এই ভোটের পরেই বলেছেন, ‘হ্যাঁ আমরা যা বলেছিলাম তা করতে পারিনি। তবে এটা ভুললে চলবে না যে আমরা ৩ থেকে বেড়ে ৭০ ছাড়িয়েছি— এই লাফটাও কিন্তু কম নয়।’ তার চেয়েও বড় কথা, উনি আরও বলছেন, ‘আজ বিজেপি আর তৃণমূলের মাঝখানে আর কেউ নেই। সংসদীয় বিরোধী বলতে এরাজ্যে আজ আর কংগ্রেস রইল না, যে-ক’জন বামপন্থী ছিলেন, তাঁরাও নিশ্চিহ্ন হয়ে গিয়েছেন। বিজেপি এরাজ্যে প্রধান বিরোধী নয়, একমাত্র বিরোধী।’ ফলে বোঝাই যায়, বিজেপির সর্বভারতীয় নেতাদের বিষাক্ত নিঃশ্বাস এখনও বাংলায় বইছে। সাম্প্রদায়িক হিংসার বয়ান তৈরির আপ্রাণ চেষ্টা চালাচ্ছে যাতে পশ্চিমবঙ্গে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করানো যায়। বিপুল অর্থব্যয়, এলোপাথাড়ি দলবদল, ভারতের নানা প্রান্ত থেকে নেতা-নেত্রী, বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের উড়ে এসে ভোট প্রচার, আইটি সেলের তীব্র উত্থান, মিডিয়ার সদাসজাগ নজর, সেফোলজিস্ট-রাজনীতি বিশেষজ্ঞদের তীক্ষ্ণ বিশ্লেষণ, ধর্মীয় বিভাজনের অঙ্ক—সব মিলিয়ে এই নির্বাচনের রেশ দ্রুত মিলিয়ে যাবে না, বরং আগামী দিনের সামাজিক-রাজনৈতিক বিন্যাসে গভীর ছাপ রেখে যাবে বলেই মনে হয়।
সব মিলিয়ে বাংলার ভোটের পর, ২০২৪-এর লোকসভা নির্বাচন আরও ইন্টারেস্টিং হয়ে উঠেছে। সমস্ত সরকারি এজেন্সিকে মাঠে নামিয়ে, বিজেপির গোটা ভোট-মেশিনারি এবং কয়েক হাজার কোটি টাকার বাজেট নিয়ে যেভাবে বাংলা দখলের ব্লু-প্রিন্ট তৈরি করা হয়েছিল, তা মমতা যে একাই ভেস্তে দিতে পারেন, সেটা বিজেপি স্বপ্নেও ভাবতে পারেননি। বঙ্গদখলে মরিয়া বিজেপি লড়াইটাকে করে তুলেছিল মমতা বনাম নরেন্দ্র মোদির। পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির পরাজয়, মমতার কাছে নরেন্দ্র মোদির হার হিসেবেই গোটা দেশ দেখছে। আর এইখানেই জাতীয় রাজনীতিতে নেত্রী হিসেবে মমতার গুরুত্ব রাতারাতি বেড়ে গিয়েছে বেশ কয়েক গুণ। মমতাই হয়ে উঠেছেন মোদির বিকল্প!
13th  May, 2021
মমতার সিদ্ধান্তের উপর
ঝুলছে বিজেপির ভাঙন
তন্ময় মল্লিক

রাজনীতি অনেকটা নাগরদোলার মতো। উপরে উঠলে নামতে হবেই। এটাই ভবিতব্য। অপেক্ষাটা শুধু সময়ের। বিজেপির দিল্লির নেতারা উপরে উঠে নামার কথা ভুলে গিয়েছিলেন। বাংলার নির্বাচন বিজেপির সেই নামার দিকটাই নির্দেশ করে দিয়েছে। বিশদ

ভারতের প্রশাসনের স্থাপত্য
গোপালকৃষ্ণ গান্ধী

রাজনীতিক-সিভিল সার্ভেন্ট সম্পর্কের মজবুত ভিতটা নির্মাণ করে গঠন, বিশ্বাস ও পারস্পরিক শ্রদ্ধা। সর্দার প্যাটেল এটা অনুধাবন করেছিলেন।
বিশদ

18th  June, 2021
বিরুদ্ধ মত মানেই
দেশদ্রোহ নয়
সমৃদ্ধ দত্ত

 

১৮৭৬ থেকে ১৯০০ সালের মধ্যে অন্তত ১৮টি দুর্ভিক্ষ হয়েছে। প্রায় ২ কোটি মানুষের মৃত্যু হয়। তা সত্ত্বেও মানুষের উপর ল্যান্ড ট্যাক্সের বোঝা না কমিয়ে আরও কঠোর ব্যবস্থা নিয়েছিল ব্রিটিশ।
বিশদ

18th  June, 2021
লাক্ষাদ্বীপে গেরুয়া অ্যাজেন্ডার আতঙ্ক!
মৃণালকান্তি দাস

টলিউড বা বলিউডের মতো প্রচুর ছবি তৈরি হয় না এখানে। নামমাত্র ছবিতেই বিনোদন খোঁজে এই প্রবাল দ্বীপ। তবুও সংবাদ শিরোনামে দ্বীপের এক অভিনেত্রী এবং পরিচালক আয়েশা সুলতানা।
বিশদ

17th  June, 2021
মুখরক্ষা করল উত্তরবঙ্গ,
পোড়াচ্ছে তাকেই!
হারাধন চৌধুরী

সম্ভাবনা ছিল দু’টো। মমতা ফিরবেন অথবা নতুন শক্তি হিসেবে উঠে আসবে বিজেপি। বিজেপি ফেল করেছে। ফিরেছেন মমতা। কিন্তু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হ্যাট্রিকের শক্তি এতটা প্রবল হবে, অনেকেই বোঝেনি।
বিশদ

16th  June, 2021
মূল্যবৃদ্ধির যন্ত্রণা: আত্মনির্ভরতার নতুন থিম সং
শান্তনু দত্তগুপ্ত

সেপ্টেম্বর ১, সাল ২০১৩। দিল্লিতে বিজেপির বাইক র‌্যালি। প্রতিবাদ চলছে পেট্রল-ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধির বিরুদ্ধে... ঠুঁটো কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে। সেই বাইক মিছিল সেদিন রওনা দিয়েছিল দিল্লির তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী শীলা দীক্ষিতের বাসভবনের উদ্দেশে।
বিশদ

15th  June, 2021
দায়িত্ব নিন, আলোচনা
করুন, প্ল্যান বানান
পি চিদম্বরম

টিকাকরণ নিয়ে যে বিশৃঙ্খলা হল, তা ইতিহাসে লেখা থাকবে। ৭ জুন, টেলিভিশন ভাষণে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দু’টো ভুল শুধরে নিয়েছেন। আমি মনে করি, এটাই তাঁর ভুল স্বীকার করে নেওয়ার কায়দা।
বিশদ

14th  June, 2021
মমতার নির্দেশে
অভিষেকের মাস্টারস্ট্রোক
হিমাংশু সিংহ

এতদিন বাংলার রাজনীতিতে মাস্টারস্ট্রোক কথাটা শুধু জননেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গেই সমার্থক ছিল ষোলোআনা। কিন্তু এখন তার আর এক দাবিদার উপস্থিত। পুত্রসম অভিষেক।
বিশদ

13th  June, 2021
সেলিব্রেটি থেকে সংগঠক,
রাজনীতির নতুন ধারা
তন্ময় মল্লিক

অনেকেই বলে থাকেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যতদিন, তৃণমূল ততদিন। তারপর পার্টিটাই আর থাকবে না। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তার জবাবও দিয়েছেন। তিনি বহুবার বলেছেন, ‘যাঁরা ভাবছেন, আমি চলে গেলে দলটা উঠে যাবে, তাঁরা ভুল ভাবছেন। তৃণমূলের পরবর্তী প্রজন্ম তৈরি।’ এতদিন তিনি যে কথা মুখে বলতেন, এবার সেটা করে দেখাচ্ছেন।
বিশদ

12th  June, 2021
পুরুষ আধিপত্যের ভিড়ে
সফল শাসক দুই বাঙালি নারী
সমৃদ্ধ দত্ত

রাজনীতির হিসেব-নিকেশ বাদ দিয়ে নিছকই জাতিগত আকাঙক্ষার তাগিদে ২০২৪ সালের দিকে আমরা বাঙালিরা অত্যন্ত আগ্রহ নিয়ে লক্ষ করব এই জাতিটির জার্নিতে সত্যিই কি একটি নতুন ইতিহাস রচিত হবে? একদা একসঙ্গে থাকা দু’টি পাশাপাশি দেশের দুই প্রধানমন্ত্রীই কি বাঙালি নারী হবেন? বিশদ

11th  June, 2021
অবলুপ্তির আত্মঘাতী
পথে সিপিএম
মৃণালকান্তি দাস

গোটা দেশের লোক যখন মোদি-মমতার মরণপণ দ্বৈরথ দেখছে, সিপিএম তখন চোখ বন্ধ রেখে বলেছে, ও-সব ‘সেটিং’। আসলে দল তো একটাই, তার নাম বিজেমূল। ছায়ার সঙ্গে এই পুরো যুদ্ধটাই করা হয়েছে বিজেপি-তৃণমূল বাইনারি ভাঙার নাম করে। ফল যা হওয়ার তাই হয়েছে। বিজেমূল নামক এই বকচ্ছপ ধারণাটাকে জনতা স্রেফ ডাস্টবিনে ছুড়ে ফেলে দিয়েছে।
বিশদ

10th  June, 2021
দেশ নিয়ে মোদির ভাবার
এত সময়ই নেই
সন্দীপন বিশ্বাস

মোদির জনপ্রিয়তার পাড় ভাঙছে। অন্য পাড়ে ক্রমেই জেগে উঠছে মমতা নামের এক নতুন সবুজ, স্বপ্নের ভূমি। সর্বভারতীয় ক্ষেত্রে চোখে চোখ রেখে পাঙ্গা লড়ার শক্তি তিনি আপন ক্ষমতাবলে অর্জন করেছেন। বিশদ

09th  June, 2021
একনজরে
আমতার বিধায়ক সুকান্ত পালের উদ্যোগে ঘরে ফিরলেন প্রায় শ’খানেক বিজেপি কর্মী। ভোটের আগে বিজেপি’র প্রলোভনে পা দিয়ে অনেকেই সেই সময় দলবদল করেন। শুধু তাই নয়, তাঁরা বহু মানুষকে ভুল বুঝিয়ে বিজেপির দিকে টানারও চেষ্টা করেন। ...

বিশ্বজুড়ে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার জন্য ফের চীনকেই দায়ী করলেন ডোনান্ড ট্রাম্প। আর সেই সূত্রেই প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্টের বক্তব্য, করোনার জেরে বিধ্বস্ত হয়ে গিয়েছে ভারত। চীনকে কাঠগড়ায় তুলে তিনি নতুন করে দাবি তুললেন, গোটা পৃথিবীর এই পরিস্থিতির জন্য জরিমানা আদায় ...

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ নিয়ন্ত্রণে এলেও চোখ রাঙাচ্ছে তৃতীয় ঢেউ। বিশেষজ্ঞদের আশঙ্কা, আগামী অক্টোবরেই ফের মাথাচাড়া দিতে পারে ভাইরাস সংক্রমণ। এই অবস্থায় কোভিড মোকাবিলায় আটদফা জরুরি পদক্ষেপের সুপারিশ করল আন্তর্জাতিক মেডিক্যাল জার্নাল ল্যানসেট। ...

জমিতে মাটি কাটা নিয়ে বিবাদকে কেন্দ্র করে মারামারির জেরে দু’পক্ষের বেশ কয়েকজন জখম হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে তুফানগঞ্জ-১ ব্লকের বলরামপুরের সরেয়ারপাড় গ্রামে এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়ায়। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

শরীর-স্বাস্থ্যের প্রতি নজর দেওয়া প্রয়োজন। কর্মক্ষেত্রে উন্নতির সম্ভাবনা। গুপ্ত শত্রুতার মোকাবিলায় সতর্কতা প্রয়োজন। উচ্চশিক্ষায় বিলম্বিত ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

 
১৫৯৫ - ষষ্ঠ শিখ গুরু  গুরু হরগোবিন্দের জন্ম
১৯০৭ - শিক্ষাবিদ ও নারী শিক্ষা প্রচারক উমেশচন্দ্র দত্তের মৃত্যু
১৯৪৭- লেখক সলমন রুশদির জন্ম
১৯৬২ - অভিনেতা আশিষ বিদ্যার্থীর জন্ম
১৯৭০- রাজনীতিক রাহুল গান্ধীর জন্ম
১৯৮১- ভারতে টেস্ট টিউব বেবির জনক সুভাষ মুখোপাধ্যায়ের মৃত্যু
১৯৮৫ - অভিনেত্রী কাজল আগরওয়ালের জন্ম
২০০৮- বর্তমানের প্রতিষ্ঠাতা-সম্পাদক বরুণ সেনগুপ্তের মৃত্যু 



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭২.৪৬ টাকা ৭৫.৭৪ টাকা
পাউন্ড ১০০.৮০ টাকা ১০৫.৬৮ টাকা
ইউরো ৮৬.২৭ টাকা ৯০.৪৪ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪৮,০০০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৪৫,৫৫০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪৬,২৫০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৭০,৬৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৭০,৭৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৪ আষাঢ় ১৪২৮, শনিবার, ১৯ জুন ২০২১। নবমী ৩৪/৩৪ রাত্রি ৬/৪৬। হস্তা নক্ষত্র ৩৮/৫০ রাত্রি ৮/২৮। সূর্যোদয় ৪/৫৬/১৬, সূর্যাস্ত ৬/১৯/২৮। অমৃতযোগ দিবা ৩/৩৮ গতে অস্তাবধি। রাত্রি ৭/২ গতে ৭/৪৪ মধ্যে পুনঃ ১১/১৬ গতে ১/২৪ মধ্যে পুনঃ ২/৪৯ গতে উদয়াবধি। মাহেন্দ্রযোগ প্রাতঃ ৫/৫০ মধ্যে পুনঃ ৯/২৪ গতে ১২/৪ মধ্যে। বারবেলা দিবা ৬/৩৭ মধ্যে পুনঃ ১/১৮ গতে ২/৫৮ মধ্যে পুনঃ ৪/৩৯ গতে অস্তাবধি। কালরাত্রি রাত্রি ৭/৩৯ মধ্যে পুনঃ ৩/৩৭ গতে উদয়াবধি। 
৪ আষাঢ় ১৪২৮, শনিবার, ১৯ জুন ২০২১। নবমী দিবা ২/৩০।  হস্তা নক্ষত্র অপরাহ্ন ৫/১। সূর্যোদয় ৪/৫৫, সূর্যাস্ত ৬/২২। অমৃতযোগ দিবা ৩/৪২ গতে ৬/২২ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/৫ গতে ৭/৪৭ মধ্যে ও ১১/২০ গতে ১/২৮ মধ্যে ও ২/৫৩ গতে ৪/৫৫ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ দিবা ৫/৫৪ মধ্যে ও ৯/২৮ গতে ১২/৮ মধ্যে। কালবেলা ৬/৩৬ মধ্যে ও ১/২০ গতে ৩/০ মধ্যে ও ৪/৪১ গতে ৬/২২ মধ্যে। কালরাত্রি ৭/৪১ মধ্যে ও ৩/৪৬ গতে ৪/৫৫ মধ্যে।  
৮ জেল্কদ।

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
বাংলা ভাষায় এবার পেশাগত কোর্সের বই আনছে ম্যাকাউট
সংবাদদাতা, কল্যাণী: বাংলা ভাষায় পেশাগত কোর্সের বই প্রকাশের সিদ্ধান্ত নিল ...বিশদ

11:56:34 AM

ইউরোয় আজ
হাঙ্গেরি : ফ্রান্স (সন্ধ্যা ৬-৩০ মিনিটে) পর্তুগাল : জার্মানি (রাত ৯-৩০ ...বিশদ

11:52:42 AM

খেজুরিতে দেওয়াল চাপা পড়ে মৃত্যু বৃদ্ধ দম্পতির
পাশের বাড়ির জীর্ণ দেওয়াল ভেঙে প্রাণ হারালেন বৃদ্ধ দম্পতি। জখম ...বিশদ

11:46:01 AM

প্রয়াত সাংবাদিক বরুণ সেনগুপ্তের প্রয়াণ দিবসে শ্রদ্ধার্ঘ্য মুখ্যমন্ত্রীর
প্রয়াত কিংবদন্তি সাংবাদিক বরুণ সেনগুপ্তের ১৩ তম মৃত্যুবার্ষিকীতে তাঁর স্মৃতির ...বিশদ

11:39:25 AM

নিউ দীঘায় হোটেল মালিকের রহস্যমৃত্যু
নিউ দীঘায় নিজের হোটেলেই রহস্যমৃত্যু মালিকের। মৃতের নাম সুব্রত সরকার ...বিশদ

11:13:00 AM

বারুইপুরে শ্যুটআউট
একমাস কাটতে না কাটতেই ফের শ্যুট আউটের ঘটনা দক্ষিণ ২৪ ...বিশদ

11:04:50 AM