Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ নিয়ে সত্য মিথ্যা
প্রকাশ জাভরেকর

 

জানুয়ারির গোড়ার দিকে দেশে কোভিড পরিস্থিতির যথেষ্ট উন্নতি হয়েছিল। নতুন করে সংক্রমণও কমছিল। কিন্তু দেখা গেল, কেরলে সেই সময় সংক্রমণ বাড়তে শুরু করল। ওই রাজ্য থেকেই নতুন সংক্রমণের এক-তৃতীয়াংশের খবর আসছিল। ৬ জানুয়ারি কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যসচিব এক চিঠিতে রাজ্য সরকারকে দ্রুত পদক্ষেপ করার পরামর্শ দেন। রাজ্যে কোভিড পরিস্থিতির মোকাবিলায় সাহায্য করতে পরদিন একটি উচ্চ পর্যায়ের কেন্দ্রীয় দল সেখানে পাঠানো হয়। গত বছরেও এধরনের অনেক কেন্দ্রীয় দল পাঠানো হয়েছিল। এতেই প্রমাণ হয় যে দেশজুড়ে কোভিড সংক্রমণের হার কমাতে কেন্দ্রের নিরন্তর নজরদারি রয়েছে। কেন্দ্র প্রয়োজনীয় পদক্ষেপও করে চলেছে। 
আমি বিষয়টির উল্লেখ এই কারণে করলাম যে, এমন একটা ভ্রান্ত ধারণা তৈরি করা হছে যেন কেন্দ্র, কোভিড সংক্রমণের প্রথম ঢেউ মোকাবিলা করার পর নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়েছে। এবং, কয়েক মাস ধরে পুরো বিষয়টি শুধু রাজ্যগুলির উপর ছেড়ে দিয়েছে। এটা সত্যের অপলাপ মাত্র। স্বাস্থ্য যদিও রাজ্যের আওতাভুক্ত বিষয়, তবু কেন্দ্রীয় সরকার কোভিড ব্যবস্থাপনার জন্য সবসময়ই সক্রিয় রয়েছে। কারণ, এই মহামারীকে নিয়ন্ত্রণ করতে জাতীয় স্তরে সমন্বয় ও সম্পদ দু’য়েরই প্রয়োজন। সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে রাজ্য সরকারগুলিকে শুরু থেকেই প্রয়োজনীয় সাহায্য ও পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রক ২০২০-র ফেব্রুয়ারি থেকে পরিস্থিতির উপর নজর রেখে চলেছে। রাজ্যগুলির প্রস্তুতি, তাদের প্রয়োজনীয় সাহায্য এবং রাজ্য স্তরে ও জেলা স্তরে কী ধরনের কৌশল নেওয়া হয়েছে, প্রতিটি বিষয়কে কেন্দ্র গুরুত্বসহকারে বিবেচনা করছে।
কেন্দ্রের কোভিড ব্যবস্থাপনা শুধুমাত্র নতুন দিল্লি থেকে কিছু পরামর্শ বা নীতি নির্দেশিকা দেওয়ার মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকেনি। বহু সময়েই সাহায্যের জন্য উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধি দল পাঠিয়েছে। রাজ্যগুলির প্রস্তুতি গ্রহণে সাহায্য ও পরামর্শ দিয়েছে তারা। প্রভূত সাহায্য ও পরামর্শ দিয়েছে সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণেও। কেন্দ্রের সবসময়ের লক্ষ্য সংক্রমণে দ্রুত ইতি টানা। ২০২০-র সেপ্টেম্বর থেকে বিভিন্ন রাজ্যে কেন্দ্রীয় সরকারের আধিকারিক এবং জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের নিয়ে গঠিত ৭৫টি উচ্চ পর্যায়ের দল পাঠানো হয়েছে। এই দলগুলির দেওয়া রিপোর্টের ফলে কেন্দ্র ও রাজ্যের মধ্যে তথ্যের ক্ষেত্রে অসংলগ্নতা কমেছে। রাজ্যগুলির প্রস্তুতি ও বিভিন্ন কৌশল গ্রহণের ক্ষেত্রে কোথায় ফাঁক থেকে যাচ্ছে, সেগুলি শনাক্ত করতে সুবিধে হয়েছে।
তাহলে এটা বলা যায় কি, বর্তমানে যে ঢেউ শুরু হয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার সেই বিষয়ে উদাসীন ছিল? আমরা যদি সময় সারণির দিকে নজর রাখি তাহলে বুঝতে পারব একদম প্রথম থেকেই কেন্দ্র কীভাবে বিষয়টির উপর নজর রেখেছিল। 
২১ ফেব্রুয়ারি যখন দৈনিক সংক্রমণ ১৩ হাজারের নীচে ছিল সেই সময় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের নজরে আসে কয়েকটি রাজ্যে পরিস্থিতির পরিবর্তন হচ্ছে। মন্ত্রক তৎক্ষণাৎ ছত্তিশগড়, কেরল ও মহারাষ্ট্রের মতো যেসব রাজ্যে সংক্রমণ বাড়ছিল সেখানে একটি চিঠি পাঠায়। এরপর নজরে আসে মহারাষ্ট্র, কেরল, ছত্তিশগড়, মধ্যপ্রদেশ, গুজরাত, পাঞ্জাব, কর্ণাটক, তামিলনাড়ু ও পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত জম্মু ও কাশ্মীরে সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ার বিষয়টি। পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে সাহায্য করার জন্য এবং প্রকৃত অবস্থা জানতে ২৪ ফেব্রুয়ারি সাতটি রাজ্যে উচ্চ পর্যায়ের কেন্দ্রীয় দল পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।
পুরো মার্চ মাস ধরে কেন্দ্র এইসব রাজ্যের সংক্রমণের বিষয়টি বিশেষভাবে পর্যবেক্ষণ করে। রাজ্য সরকারগুলি পরিস্থিতি মোকাবিলায় কী কী ব্যবস্থা নিয়েছে এবং কেন্দ্রীয় দলগুলি অবস্থা সামাল দিতে কী কী পরামর্শ দিয়েছে সেসব কিছু নিয়ে আলাপ-আলোচনা হয়েছে। যদি সংশ্লিষ্ট রাজ্যগুলি কেন্দ্রের সতর্কতা এবং পরামর্শ প্রথমেই গুরুত্বসহকারে বিবেচনা করত তাহলে আজকের সংক্রমণ এতটা তীব্র হতো না। কেন্দ্র যখন সক্রিয়ভাবে কোভিড নিয়ন্ত্রণে উদ্যোগী হয়েছে, বিরোধী নেতারা তখন স্বভাবসিদ্ধভাবে তাঁদের রাজনীতি চালিয়ে গিয়েছেন। উদ্ধব থ্যাকারে মহাউসুলি কেলেঙ্কারি চাপা দিতে সক্রিয় হয়েছিলেন। আর সেই সময় কংগ্রেস নেতৃত্ব—রাহুল গান্ধী ও প্রিয়াঙ্কা গান্ধী ওয়াধেরা কী করছিলেন? এনিয়ে আলোচনা না করাই ভালো। ছত্তিশগড়ের মুখ্যমন্ত্রীর টিকা নিয়ে মনোভাব এবং দীর্ঘ সময় ধরে রাজ্যে অনুপস্থিতির কথাও সকলের জানা। এই সময়েই কিছু কিছু বিরোধী-শাসিত রাজ্য কোটি কোটি টাকা ব্যয় করে কোভিড ব্যবস্থাপনার খবর ঢালাওভাবে প্রচার করেছে।
সরকার অকাল বিজয় উদযাপন শুরু করেছে বলে কোনও কোনও মহল থেকে ভ্রান্ত সমালোচনা করা হচ্ছে। কিন্তু, আমরা যদি ১৭ মার্চ মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী কী বলেছিলেন সেটা একবার মনে করি, তাহলে বিষয়টা পরিষ্কার হয়ে যাবে। করোনায় প্রভাবিত বিশ্বের অধিকাংশ দেশই একাধিক বার মারণ এই ভাইরাসের প্রতিকূল পরিস্থিতির মধ্যে পড়েছে। আমাদের দেশেও আক্রান্তের হার নিম্নমুখী হওয়া সত্ত্বেও হঠাৎ করেই কয়েকটি রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। ... আমরা এটাও লক্ষ করেছি যে, মহারাষ্ট্র ও মধ্যপ্রদেশে আক্রান্তের হার এবং আক্রান্তের সংখ্যাও তুলনামূলক বেশি। ... বর্তমানে এমন সমস্ত এলাকা ও জেলা দেখা যাচ্ছে, যেখানে সংক্রমণের ঘটনা বাড়ছে কিন্তু এতদিন সেই সমস্ত জায়গায় সেভাবে সংক্রমণ ছড়ায়নি। একসময় এই জায়গাগুলি নিরাপদ বলে চিহ্নিত হয়েছিল। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে এখন এই জায়গাগুলিতেই সংক্রমণ বাড়ছে। দেশে ৭০টি জেলায় গত কয়েক সপ্তাহে ১৫০ শতাংশের বেশি সংক্রমণের হার বেড়েছে। এই পরিস্থিতিতে অবিলম্বে যদি মহামারীর উপর লাগাম টানা না-যায়, তাহলে সারা দেশে আরও একবার মারণ এই ভাইরাসের ঢেউ ছড়িয়ে পড়বে। তাই, আমাদের ক্রমবর্ধমান ‘দ্বিতীয় ঢেউ অবিলম্বে আটকাতে হবে। আমাদের তাড়াতাড়ি সিদ্ধান্ত নিতে হবে। আমার মনে হয়, বর্তমান পরিস্থিতিতে স্থানীয় স্তরে প্রশাসনিক ব্যবস্থায় যেসব সমস্যা রয়েছে, তা অবিলম্বে পর্যালোচনা করে দ্রুত সমাধান খুঁজে বের করা প্রয়োজন। প্রশাসনিক ব্যবস্থার কার্যকারিতা যাচাইয়ের উপযুক্ত সময় এসেছে। করোনার বিরুদ্ধে এই লড়াইয়ে আমাদের বিশ্বাস যেন আত্মবিশ্বাসে পরিণত না-হয় এবং আমাদের সাফল্য যেন কোনওভাবেই উপেক্ষার বিষয় না-হয়ে ওঠে, সেদিকে সতর্ক থাকতে হবে।’
এরপর কি মনে হয় যে কেউ বিজয় ঘোষণা করছেন এবং তিনি সঙ্কটের বিষয়ে অবগত নন! বর্তমান ঢেউয়ের বিষয়ে আন্দাজ করে কেন্দ্র সবথেকে ক্ষতিগ্রস্ত রাজ্য এবং জেলাগুলিতে বিশেষ দল পাঠিয়েছিল। এপ্রিল মাসে দেশজুড়ে সবচাইতে ক্ষতিগ্রস্ত জেলাগুলিতে ৫০টি কেন্দ্রীয় দল পাঠানো হয়। এই দলগুলি সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থাপনা ও নজরদারির বিষয়ে রাজ্য সরকারগুলিকে সাহায্য করেছে। মার্চের শেষে সংক্রমণ যখন বাড়তে থাকে, রাজ্যগুলি জেলা স্তরে সেই সময় বিশেষ ব্যবস্থা নিতে শুরু করে। ২৭ মার্চ থেকে ১৫ এপ্রিলের মধ্যে কেন্দ্রীয় সরকারের আধিকারিকরা প্রায় ২০০টি জেলার পরিস্থিতির পর্যালোচনা করেছেন। এখন যেহেতু প্রতিনিয়ত নতুন নতুন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হচ্ছে তাই কেন্দ্র নাগরিকদের জীবনরক্ষার জন্য বহুবিধ উদ্যোগ নিয়েছে। প্রথম পর্যায়ের টিকাকরণ অভিযানে স্বাস্থ্যকর্মী, সামনের সারিতে থাকা করোনা যোদ্ধা এবং প্রবীণ নাগরিকদের টিকা দেওয়া হয়েছে। সংক্রমণ দ্রুত বাড়তে থাকায় অনেক রাজ্য স্বাস্থ্য পরিকাঠামোর অপ্রতুলতা উপলব্ধি করে ওষুধ, অক্সিজেন সিলিন্ডার এবং ভেন্টিলেটরের মতো গুরুত্বপূর্ণ সরঞ্জামগুলি দ্রুত পাঠানোর জন্য কেন্দ্রের কাছে আর্জি জানিয়েছে।
যে ভুল তথ্য তুলে ধরা হচ্ছে প্রকৃতপক্ষে আসল সত্য হল কেন্দ্রীয় সরকার মহামারীর মোকাবিলায় সবরকমের ব্যবস্থা নিয়েছে। এটা খুবই দুর্ভাগ্যজনক যে, চলতি সঙ্কটেও কেউ কেউ ভুল তথ্য দিয়ে রাজনৈতিকভাবে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বক্তব্য প্রচার করে যাচ্ছেন। আমরা এই মহামারীর মোকাবিলা করা এবং নাগরিকদের চাহিদা পূরণ করার বিষয়গুলিকে সবথেকে অগ্রাধিকার দিয়ে আসছি। এই যুদ্ধে গোটা দেশকে একজোট হয়ে লড়তে হবে।
 লেখক কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার, পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী। মতামত ব্যক্তিগত 
11th  May, 2021
মমতার সিদ্ধান্তের উপর
ঝুলছে বিজেপির ভাঙন
তন্ময় মল্লিক

রাজনীতি অনেকটা নাগরদোলার মতো। উপরে উঠলে নামতে হবেই। এটাই ভবিতব্য। অপেক্ষাটা শুধু সময়ের। বিজেপির দিল্লির নেতারা উপরে উঠে নামার কথা ভুলে গিয়েছিলেন। বাংলার নির্বাচন বিজেপির সেই নামার দিকটাই নির্দেশ করে দিয়েছে। বিশদ

ভারতের প্রশাসনের স্থাপত্য
গোপালকৃষ্ণ গান্ধী

রাজনীতিক-সিভিল সার্ভেন্ট সম্পর্কের মজবুত ভিতটা নির্মাণ করে গঠন, বিশ্বাস ও পারস্পরিক শ্রদ্ধা। সর্দার প্যাটেল এটা অনুধাবন করেছিলেন।
বিশদ

18th  June, 2021
বিরুদ্ধ মত মানেই
দেশদ্রোহ নয়
সমৃদ্ধ দত্ত

 

১৮৭৬ থেকে ১৯০০ সালের মধ্যে অন্তত ১৮টি দুর্ভিক্ষ হয়েছে। প্রায় ২ কোটি মানুষের মৃত্যু হয়। তা সত্ত্বেও মানুষের উপর ল্যান্ড ট্যাক্সের বোঝা না কমিয়ে আরও কঠোর ব্যবস্থা নিয়েছিল ব্রিটিশ।
বিশদ

18th  June, 2021
লাক্ষাদ্বীপে গেরুয়া অ্যাজেন্ডার আতঙ্ক!
মৃণালকান্তি দাস

টলিউড বা বলিউডের মতো প্রচুর ছবি তৈরি হয় না এখানে। নামমাত্র ছবিতেই বিনোদন খোঁজে এই প্রবাল দ্বীপ। তবুও সংবাদ শিরোনামে দ্বীপের এক অভিনেত্রী এবং পরিচালক আয়েশা সুলতানা।
বিশদ

17th  June, 2021
মুখরক্ষা করল উত্তরবঙ্গ,
পোড়াচ্ছে তাকেই!
হারাধন চৌধুরী

সম্ভাবনা ছিল দু’টো। মমতা ফিরবেন অথবা নতুন শক্তি হিসেবে উঠে আসবে বিজেপি। বিজেপি ফেল করেছে। ফিরেছেন মমতা। কিন্তু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হ্যাট্রিকের শক্তি এতটা প্রবল হবে, অনেকেই বোঝেনি।
বিশদ

16th  June, 2021
মূল্যবৃদ্ধির যন্ত্রণা: আত্মনির্ভরতার নতুন থিম সং
শান্তনু দত্তগুপ্ত

সেপ্টেম্বর ১, সাল ২০১৩। দিল্লিতে বিজেপির বাইক র‌্যালি। প্রতিবাদ চলছে পেট্রল-ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধির বিরুদ্ধে... ঠুঁটো কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে। সেই বাইক মিছিল সেদিন রওনা দিয়েছিল দিল্লির তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী শীলা দীক্ষিতের বাসভবনের উদ্দেশে।
বিশদ

15th  June, 2021
দায়িত্ব নিন, আলোচনা
করুন, প্ল্যান বানান
পি চিদম্বরম

টিকাকরণ নিয়ে যে বিশৃঙ্খলা হল, তা ইতিহাসে লেখা থাকবে। ৭ জুন, টেলিভিশন ভাষণে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দু’টো ভুল শুধরে নিয়েছেন। আমি মনে করি, এটাই তাঁর ভুল স্বীকার করে নেওয়ার কায়দা।
বিশদ

14th  June, 2021
মমতার নির্দেশে
অভিষেকের মাস্টারস্ট্রোক
হিমাংশু সিংহ

এতদিন বাংলার রাজনীতিতে মাস্টারস্ট্রোক কথাটা শুধু জননেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গেই সমার্থক ছিল ষোলোআনা। কিন্তু এখন তার আর এক দাবিদার উপস্থিত। পুত্রসম অভিষেক।
বিশদ

13th  June, 2021
সেলিব্রেটি থেকে সংগঠক,
রাজনীতির নতুন ধারা
তন্ময় মল্লিক

অনেকেই বলে থাকেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যতদিন, তৃণমূল ততদিন। তারপর পার্টিটাই আর থাকবে না। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তার জবাবও দিয়েছেন। তিনি বহুবার বলেছেন, ‘যাঁরা ভাবছেন, আমি চলে গেলে দলটা উঠে যাবে, তাঁরা ভুল ভাবছেন। তৃণমূলের পরবর্তী প্রজন্ম তৈরি।’ এতদিন তিনি যে কথা মুখে বলতেন, এবার সেটা করে দেখাচ্ছেন।
বিশদ

12th  June, 2021
পুরুষ আধিপত্যের ভিড়ে
সফল শাসক দুই বাঙালি নারী
সমৃদ্ধ দত্ত

রাজনীতির হিসেব-নিকেশ বাদ দিয়ে নিছকই জাতিগত আকাঙক্ষার তাগিদে ২০২৪ সালের দিকে আমরা বাঙালিরা অত্যন্ত আগ্রহ নিয়ে লক্ষ করব এই জাতিটির জার্নিতে সত্যিই কি একটি নতুন ইতিহাস রচিত হবে? একদা একসঙ্গে থাকা দু’টি পাশাপাশি দেশের দুই প্রধানমন্ত্রীই কি বাঙালি নারী হবেন? বিশদ

11th  June, 2021
অবলুপ্তির আত্মঘাতী
পথে সিপিএম
মৃণালকান্তি দাস

গোটা দেশের লোক যখন মোদি-মমতার মরণপণ দ্বৈরথ দেখছে, সিপিএম তখন চোখ বন্ধ রেখে বলেছে, ও-সব ‘সেটিং’। আসলে দল তো একটাই, তার নাম বিজেমূল। ছায়ার সঙ্গে এই পুরো যুদ্ধটাই করা হয়েছে বিজেপি-তৃণমূল বাইনারি ভাঙার নাম করে। ফল যা হওয়ার তাই হয়েছে। বিজেমূল নামক এই বকচ্ছপ ধারণাটাকে জনতা স্রেফ ডাস্টবিনে ছুড়ে ফেলে দিয়েছে।
বিশদ

10th  June, 2021
দেশ নিয়ে মোদির ভাবার
এত সময়ই নেই
সন্দীপন বিশ্বাস

মোদির জনপ্রিয়তার পাড় ভাঙছে। অন্য পাড়ে ক্রমেই জেগে উঠছে মমতা নামের এক নতুন সবুজ, স্বপ্নের ভূমি। সর্বভারতীয় ক্ষেত্রে চোখে চোখ রেখে পাঙ্গা লড়ার শক্তি তিনি আপন ক্ষমতাবলে অর্জন করেছেন। বিশদ

09th  June, 2021
একনজরে
আমতার বিধায়ক সুকান্ত পালের উদ্যোগে ঘরে ফিরলেন প্রায় শ’খানেক বিজেপি কর্মী। ভোটের আগে বিজেপি’র প্রলোভনে পা দিয়ে অনেকেই সেই সময় দলবদল করেন। শুধু তাই নয়, তাঁরা বহু মানুষকে ভুল বুঝিয়ে বিজেপির দিকে টানারও চেষ্টা করেন। ...

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে উত্তর ২৪ পরগনা জেলায় লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়েছে সংক্রমণ। সংক্রমণের নিরিখে রাজ্যে প্রথম স্থানে উঠে এসেছে এই জেলা। যা সবার কপালেই দুশ্চিন্তার ভাঁজ ফেলেছে। ...

বৃষ্টিতে ভেস্তে গেল বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনালের প্রথম দিনের খেলা। তবে এমটা যে হতে পারে, তার পূর্বাভাস ছিলই। তাই এমন মেগা ম্যাচের ভেন্যু নির্বাচনের ক্ষেত্রে ...

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ নিয়ন্ত্রণে এলেও চোখ রাঙাচ্ছে তৃতীয় ঢেউ। বিশেষজ্ঞদের আশঙ্কা, আগামী অক্টোবরেই ফের মাথাচাড়া দিতে পারে ভাইরাস সংক্রমণ। এই অবস্থায় কোভিড মোকাবিলায় আটদফা জরুরি পদক্ষেপের সুপারিশ করল আন্তর্জাতিক মেডিক্যাল জার্নাল ল্যানসেট। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

শরীর-স্বাস্থ্যের প্রতি নজর দেওয়া প্রয়োজন। কর্মক্ষেত্রে উন্নতির সম্ভাবনা। গুপ্ত শত্রুতার মোকাবিলায় সতর্কতা প্রয়োজন। উচ্চশিক্ষায় বিলম্বিত ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

 
১৫৯৫ - ষষ্ঠ শিখ গুরু  গুরু হরগোবিন্দের জন্ম
১৯০৭ - শিক্ষাবিদ ও নারী শিক্ষা প্রচারক উমেশচন্দ্র দত্তের মৃত্যু
১৯৪৭- লেখক সলমন রুশদির জন্ম
১৯৬২ - অভিনেতা আশিষ বিদ্যার্থীর জন্ম
১৯৭০- রাজনীতিক রাহুল গান্ধীর জন্ম
১৯৮১- ভারতে টেস্ট টিউব বেবির জনক সুভাষ মুখোপাধ্যায়ের মৃত্যু
১৯৮৫ - অভিনেত্রী কাজল আগরওয়ালের জন্ম
২০০৮- বর্তমানের প্রতিষ্ঠাতা-সম্পাদক বরুণ সেনগুপ্তের মৃত্যু 



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭২.৪৬ টাকা ৭৫.৭৪ টাকা
পাউন্ড ১০০.৮০ টাকা ১০৫.৬৮ টাকা
ইউরো ৮৬.২৭ টাকা ৯০.৪৪ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪৮,০০০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৪৫,৫৫০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪৬,২৫০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৭০,৬৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৭০,৭৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৪ আষাঢ় ১৪২৮, শনিবার, ১৯ জুন ২০২১। নবমী ৩৪/৩৪ রাত্রি ৬/৪৬। হস্তা নক্ষত্র ৩৮/৫০ রাত্রি ৮/২৮। সূর্যোদয় ৪/৫৬/১৬, সূর্যাস্ত ৬/১৯/২৮। অমৃতযোগ দিবা ৩/৩৮ গতে অস্তাবধি। রাত্রি ৭/২ গতে ৭/৪৪ মধ্যে পুনঃ ১১/১৬ গতে ১/২৪ মধ্যে পুনঃ ২/৪৯ গতে উদয়াবধি। মাহেন্দ্রযোগ প্রাতঃ ৫/৫০ মধ্যে পুনঃ ৯/২৪ গতে ১২/৪ মধ্যে। বারবেলা দিবা ৬/৩৭ মধ্যে পুনঃ ১/১৮ গতে ২/৫৮ মধ্যে পুনঃ ৪/৩৯ গতে অস্তাবধি। কালরাত্রি রাত্রি ৭/৩৯ মধ্যে পুনঃ ৩/৩৭ গতে উদয়াবধি। 
৪ আষাঢ় ১৪২৮, শনিবার, ১৯ জুন ২০২১। নবমী দিবা ২/৩০।  হস্তা নক্ষত্র অপরাহ্ন ৫/১। সূর্যোদয় ৪/৫৫, সূর্যাস্ত ৬/২২। অমৃতযোগ দিবা ৩/৪২ গতে ৬/২২ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/৫ গতে ৭/৪৭ মধ্যে ও ১১/২০ গতে ১/২৮ মধ্যে ও ২/৫৩ গতে ৪/৫৫ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ দিবা ৫/৫৪ মধ্যে ও ৯/২৮ গতে ১২/৮ মধ্যে। কালবেলা ৬/৩৬ মধ্যে ও ১/২০ গতে ৩/০ মধ্যে ও ৪/৪১ গতে ৬/২২ মধ্যে। কালরাত্রি ৭/৪১ মধ্যে ও ৩/৪৬ গতে ৪/৫৫ মধ্যে।  
৮ জেল্কদ।

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
পর্ণশ্রীতে বহুজাতিক সংস্থার প্রাক্তন কর্মীর অস্বাভাবিক মৃত্যু
বহুজাতিক সংস্থার প্রাক্তন এক কর্মীর অস্বাভাবিক মৃত্যু। আজ, শনিবার সকালে ...বিশদ

12:30:54 PM

বাংলা ভাষায় এবার পেশাগত কোর্সের বই আনছে ম্যাকাউট
সংবাদদাতা, কল্যাণী: বাংলা ভাষায় পেশাগত কোর্সের বই প্রকাশের সিদ্ধান্ত নিল ...বিশদ

11:56:34 AM

ইউরোয় আজ
হাঙ্গেরি : ফ্রান্স (সন্ধ্যা ৬-৩০ মিনিটে) পর্তুগাল : জার্মানি (রাত ৯-৩০ ...বিশদ

11:52:42 AM

খেজুরিতে দেওয়াল চাপা পড়ে মৃত্যু বৃদ্ধ দম্পতির
পাশের বাড়ির জীর্ণ দেওয়াল ভেঙে প্রাণ হারালেন বৃদ্ধ দম্পতি। জখম ...বিশদ

11:46:00 AM

প্রয়াত সাংবাদিক বরুণ সেনগুপ্তের প্রয়াণ দিবসে শ্রদ্ধার্ঘ্য মুখ্যমন্ত্রীর
প্রয়াত কিংবদন্তি সাংবাদিক বরুণ সেনগুপ্তের ১৩ তম মৃত্যুবার্ষিকীতে তাঁর স্মৃতির ...বিশদ

11:39:25 AM

নিউ দীঘায় হোটেল মালিকের রহস্যমৃত্যু
নিউ দীঘায় নিজের হোটেলেই রহস্যমৃত্যু মালিকের। মৃতের নাম সুব্রত সরকার ...বিশদ

11:13:00 AM