Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

বাজেটের আগে অর্থমন্ত্রী
আরও বিভ্রান্ত করলেন
পি চিদম্বরম

‘আরও বিভ্রান্ত!’ চিৎকার করে উঠেছিল অ্যালিস (এতটাই অবাক হয়ে গিয়েছিল যে, মুহূর্তকালের জন্য সে পুরো বিস্মৃত হয়েছিল কীভাবে ঠিকঠাক ইংরেজি বলতে হয়।)
অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন খসড়া বাজেট তৈরি করবেন এবং এই প্রসঙ্গে তাঁর বিবৃতি ‘এমন বাজেট কখনওই হয়নি’ পড়ার পর আমি বস্তুত এমনটাই বলেছিলাম। 
ত্রুটিপূর্ণ আইনগুলোর বিষয়ে উদ্বিগ্ন সকলের সঙ্গে আলোচনা করার জন্য সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত কমিটির চার সদস্যের নাম (যাঁদের সকলেই কৃষি আইনের সমর্থক) পড়ার পরেও অনেকে এই কথাটা উচ্চারণ করেছিলেন। 
উদ্ধত ভঙ্গি
যে-দেশে আমরা আজ বাস করছি সেটা দিনে দিনে অচেনা এবং বিস্ময়কর হয়ে যাচ্ছে। এটা খুব অবাক ব্যাপার নয় কি গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে নির্বাচিত একটা সরকার তার পুরনো গোঁ ধরেই বসে থাকবে, বিশেষ করে দিল্লির ভয়ানক শীতের মধ্যেও কৃষকদের প্রতিবাদ আন্দোলন যখন ৫৬ দিনে পা দিয়েছে? এটা অদ্ভুত নয় কি একদিকে মন্ত্রী এবং পার্টির নেতারা প্রতিবাদী কৃষকদের খালিস্তানি (অর্থাৎ বিচ্ছিন্নতাবাদী) বলে বিঁধছেন আর অন্যদিকে সরকার তাঁদেরকেই আলোচনার টেবিলে ডাকছে?
বিস্ময়কর ব্যাপারগুলো নিভৃত জায়গা থেকে বেরিয়ে আসছে। তথ্যের অধিকার (আরটিআই) বিষয়ে এক উৎসাহী কর্মী হলেন অঞ্জলি ভরদ্বাজ। কৃষি আইনগুলোর ব্যাপারে প্রয়োজনীয় তথ্য দাবি করে তিনি সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে আরটিআই অনুসারে আবেদন করেছিলেন। তিনি বিশেষ করে জানতে চেয়েছিলেন ‘প্রস্তাবিত আইনের জন্য পরামর্শ গ্রহণের আলোচনার তারিখগুলো’ এবং ‘ওই সমস্ত বৈঠক/ আলোচনার সংক্ষিপ্ত কার্যবিবরণী’। সমস্ত সেন্ট্রাল পাবলিক ইনফরমেশন অফিসার (সিপিআইও) রিপোর্ট দিলেন যে ‘এই বিষয়ে এই সিপিআইও-র কাছে কোনও রেকর্ড বা তথ্যাদি থাকে না।’ ফলে অঞ্জলি দেবী একের পর এক দপ্তরে তাঁর প্রশ্নমালা পাঠিয়ে গেলেন। তা সত্ত্বেও সুপ্রিম কোর্টে হলফনামা দিয়ে সরকার দাবি করল যে ‘কেন্দ্রীয় সরকার এবং সংসদ কোনও ইস্যুতে কখনওই পরামর্শ গ্রহণ কিংবা খতিয়ে দেখার প্রক্রিয়ার ভিতর দিয়ে যায়নি—প্রতিবাদীরা এই যে ভুল ধারণা ফেরি করেছেন, তা দূর করার জন্যই’ এই হলফনামা দেওয়া হচ্ছে। খেয়াল করুন—‘প্রতিবাদীরা ফেরি করেছেন’ শব্দগুলো হলফনামার মতো একটা বিধিসম্মত গুরুগম্ভীর জিনিসের ভিতরে তাচ্ছিল্যভরে ঢুকিয়ে দেওয়া হয়েছে। 
আরটিআই থেকে  কোনও উত্তরই মেলেনি, এটা সংবাদপত্রে ফাঁস হয়ে যাওয়ার পর কৃষিমন্ত্রক তড়িঘড়ি  ‘ব্যাখ্যা’ দিয়েছে যে, বিষয়টা অনেকগুলো আদালতে বিচারাধীন রয়েছে বলে এই সংক্রান্ত কোনও তথ্যই দেওয়া যাবে না! অ্যালিসের মতোই বলা যায়, এটা আরও বিভ্রান্তিকর ঠেকছে। 
কোনও পরামর্শ করা হয়নি 
সত্যিটা এই যে, ২০২০ সালের ৫ জুন অর্ডিন্যান্সগুলো জারি করার আগে প্রস্তাবিত কৃষি বিলগুলো নিয়ে না কৃষক, না কৃষি অর্থনীতিবিদ কারও সঙ্গেই পরামর্শ/আলোচনা করা হয়নি।  এমনকী, বিস্তারিত আলোচনা (অথবা সংসদের সিলেক্ট কমিটিতে পাঠানো) ‘এবং’ ভোটাভুটির মাধ্যমে ‘ডিভিশন’-এর দাবি এড়িয়ে গিয়েই বিলগুলো তথাকথিত ধ্বনি ভোটে পাশ করিয়ে নেওয়া হয়। কৃষকদের একটা বড় অংশই এই ক্ষতিকর আইনগুলো চান না। তাঁরা বিহারের দিকে আমাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন, যেখানে নীতীশ কুমার সরকার কয়েক বছর আগে এগ্রিকালচারাল প্রোডিউস মার্কেট কমিটি (এপিএমসি) আইন বাতিল করেছে। পরিণাম এটাই হয়েছে: যখন ন্যূনতম সহায়ক মূল্য (এমএসপি) ১৮৫০ টাকা তখন সেখানকার কৃষকরা এক কুইন্টল ধান বিক্রি করেন মাত্র ৮০০ টাকায়। 
কৃষকরা চান আইনগুলো প্রত্যাহার করা হোক, আর সরকার আইনের পক্ষে সাফাই গেয়েছে এবং কৃষক প্রতিনিধিদের বলেছে, আইনগুলোর ধারা ধরে ধরে আলোচনা করতে! অদৃষ্টের পরিহাসটাও  দেখুন: যে সরকার ধারা ধরে ধরে আলোচনা কিংবা ভোটাভুটি ছাড়াই বিলগুলো রাজ্যসভার মাধ্যমে গছিয়ে দিল, সেই সরকারের উচিত হচ্ছে কি সিংঘুরের রাস্তায় ‘ক্লজ বাই ক্লজ’ ডিসকাশনের জন্য অফার করা! 
অবশ্যকর্তব্য, কিন্তু করবেন না
এর মধ্যে আমরা পেলাম অর্থমন্ত্রীর কৌতূহলোদ্দীপক ঘোষণা। তিনি কী করতে পারেন এবং করবেন, সেটার থেকে তাঁর অবশ্যকর্তব্যটা ভীষণ আলাদা। প্রত্যেক নামী অর্থনীতিবিদ একমত যে ২০২০-২১ অর্থবর্ষে অনেক কিছুই করা উচিত ছিল, কিন্তু ভয়, দুর্বলতা অথবা অজ্ঞতার কারণে সেসব করা হয়নি:
১. সবচেয়ে গরিব মানুষগুলোর অ্যাকাউন্টে নগদ টাকা ট্রান্সফার করা হয়নি। 
২. পরোক্ষ করগুলো, বিশেষত জিএসটির হার, কমানো হয়নি।
৩. সরকারের মূলধনী ব্যয় বাড়ানো হয়নি। 
৪. অতি ক্ষুদ্র, ছোট ও মাঝারি শিল্পের (এমএসএমই) পুনরুজ্জীবন প্রকল্পটাকে—সংস্থাগুলো এবং সংশ্লিষ্ট শ্রমিক-কর্মচারীদের চাকরি বাঁচাবার মতো করে সাজানো হয়নি।
ডঃ অরবিন্দ পানাগড়িয়া, ডঃ সি রঙ্গরাজন এবং ডঃ জাহাঙ্গির আজিজ-সহ অনেক অর্থনীতিবিদ উপর্যুক্ত  ব্যবস্থাগুলো গ্রহণ করা উচিত বলে বারবার পরামর্শ দিয়েছেন। তাঁরা বলেছেন, বৃদ্ধি ফিরিয়ে আনার জন্য অন্তত এখনকার মতো এই পদক্ষেপ করা প্রয়োজন। মহামারীর আগের তিন বছরের মোট অভ্যন্তরীণ উৎপাদনের (জিডিপি) দিকে তাকানো যাক, যা নিত্যমূল্যে (কনস্ট্যান্ট প্রাইস) নির্ধারিত: ২০১৭-১৮ সালে ছিল ১৩১.৭৫ লক্ষ কোটি টাকা, ২০১৮-১৯ সালে ১৩৯.৮১ লক্ষ কোটি টাকা এবং ২০১৯-২০ সালে ১৪৫.৬৫ লক্ষ কোটি টাকা। ফার্স্ট অ্যাডভান্সড এস্টিমেটস অনুসারে, ২০২০-২১ সালের জিডিপি হবে ১৩৪.৪০ লক্ষ কোটি টাকা। তার মানে এই দাঁড়াচ্ছে যে, ২০১৯-২০ সালের জিডিপির স্তরে পৌঁছতেও ২০২১-২২ সালের অর্থনৈতিক বৃদ্ধির হারকে ৮.৩৭ শতাংশে উন্নীত করতে হবে। বৃদ্ধির হার এর চেয়ে যে-কোনও পরিমাণ কম হওয়ার অর্থ ২০২০-২১ সালে অর্থনীতি ১১ লক্ষ কোটি টাকা (কনস্ট্যান্ট প্রাইসে) হারাবে, যার জেরে ২০২১-২২ সালেও নতুনভাবে আর্থিক ক্ষতির সমস্যায় পড়তে হবে। আর বর্তমান মূল্যে (কারেন্ট প্রাইস), সাধারণ মানুষের পক্ষে যা সহজে বোধগম্য, ২০২০-২১ সালে ক্ষতির পরিমাণটা দাঁড়াবে ৯ লক্ষ কোটি টাকা বা ১২০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। 
২০২১-২২ সালে বৃদ্ধির হারটাকে ৮.৩৭ শতাংশে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য অর্থমন্ত্রী কী করতে পারেন? রাজস্ব নিয়ে চাপের ভিতরে (কারণ অর্থনীতির অবনমন ঠেকানোর জন্য যতটা করা জরুরি ছিল তা করা হয়নি) থাকাকালে ক্যাশ ট্রান্সফার বা করের হার কমানোর পথে তিনি যাবেন কি না তা নিয়ে আমার সংশয় আছে। সমস্ত সরকারি ব্যয় তিনি বাড়াতে পারতেন এবং (১) এমএসএমই-র জন্য ‘রেসকিউ প্ল্যান’ কার্যকর ও (২) পরিকাঠামো ক্ষেত্রে আরও বিনিয়োগ করতে পারতেন। অন্যদিকে, (৩) প্রতিরক্ষা এবং (৪) স্বাস্থ্য পরিকাঠামোতেও ব্যয় বৃদ্ধির জন্য উচ্চকণ্ঠে দাবি উঠবে। কিছু দিতে হবে এবং আমার মনে হয় সেটা হবে এমএসএমই রেসকিউ প্ল্যান এবং স্বাস্থ্য পরিকাঠামো। 
যদি পরোক্ষে ২০২১-২২ সালের বাজেটের ‘কনটেক্সট’-এ অর্থমন্ত্রী ওই কথাটা বলে থাকেন তবে তিনি ঠিক। আশা করি, ‘কনটেন্ট’-এর প্রশ্নেও তিনি দেশবাসীকে হতাশ করবেন না, যেমনটা তিনি মহামারী মোকাবিলার বছরে করে ফেলেছেন।  
লেখক সংসদ সদস্য এবং ভারতের প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী। মতামত ব্যক্তিগত
18th  January, 2021
নন্দীগ্রাম নয়, মমতার চ্যালেঞ্জ একলপ্তে ২৯১
শান্তনু দত্তগুপ্ত 

মোক্ষম জবাবটা দিয়েছেন ওমর আবদুল্লা। গত শনিবার বেহালার মুচিপাড়ায় শুভেন্দু অধিকারী বলেছিলেন, ‘তৃণমূল ক্ষমতায় ফিরলে পশ্চিমবঙ্গটা কাশ্মীর হয়ে যাবে।’ ২০১৯ সালে কাশ্মীর থেকে ৩৭০ অনুচ্ছেদ বিদায় নেওয়ার পর থেকে ওমর আবদুল্লা ভালোই ভুগছেন। 
বিশদ

অর্থনীতির পাশাপাশি স্বাধীনতাও বিপন্ন
পি চিদম্বরম 

ভারতীয় অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়াচ্ছে কি না তা একটা বিতর্কের বিষয়। চলতি অর্থবর্ষের তৃতীয় ত্রৈমাসিকে ০.৪ শতাংশ বৃদ্ধির যে এস্টিমেট ন্যাশনাল স্ট্যাটিস্টিকস অফিস (এনএসও) দিয়েছে, সরকার সেটাকে ‘সেলিব্রেট করছে’। 
বিশদ

08th  March, 2021
বাইশে উত্তরপ্রদেশে কুড়ি
দফায় ভোট হবে তো!
হিমাংশু সিংহ 

প্রার্থী তালিকা প্রকাশ হতে শুরু করেছে। খেলেঙ্গে, লড়েঙ্গে, জিতেঙ্গে আবেগে ভাসছে নন্দীগ্রাম। সব পক্ষই বলছে, খেলা হবে। বাংলা ও বাঙালির ভবিষ্যৎ নিয়ে ভয়ঙ্কর নির্ণায়ক খেলা। বহিরাগত শক্তি বনাম হাসিমুখে ঘরের মেয়ের লড়াই। তবে বাংলার কৃষ্টি ও সংস্কৃতিকে বাঁচিয়েই খেলতে হবে। তাকে আক্রান্ত করে, জখম করে নয়। 
বিশদ

07th  March, 2021
যেখানে ‘ডবল ইঞ্জিন’
সেখানেই হেরেছে বিজেপি
তন্ময় মল্লিক

বিজেপির নেতাদের মুখে ‘ডবল ইঞ্জিন’-এর প্রশংসার ফুলঝুরি ফুটছে। তাঁরা বোঝাতে চাইছেন, কেন্দ্রে ও রাজ্যে একই দলের সরকার থাকলে প্রচুর উন্নতি হবে। কলকারখানা হবে। চাকরি হবে। মাস্টারমশাই, সরকারি কর্মীদের বেতন বাড়বে। 
বিশদ

06th  March, 2021
বিদায় শ্রেণিসংগ্রাম, স্বাগত টুম্পা
সমৃদ্ধ দত্ত

আত্মীয় অথবা পরিবারের মধ্যে কিছু কিছু বিশেষ ব্যক্তিকে দেখা যায়, যাঁরা কোনও একটি সিদ্ধান্ত গ্রহণ করার পর সেটি যে শ্রেষ্ঠ, সেকথা উচ্চৈঃস্বরে প্রতিষ্ঠা করার চেষ্টা করেন। অন্যদের মতামত অথবা মৃদু বিরোধিতাকে পাত্তা দেন না তাঁরা। কিন্তু পরে যখন প্রমাণ হয় যে, ওই সিদ্ধান্ত শুধু যে ভুল ছিল তা‌ই নয়, গোটা পরিবারের পক্ষেও ক্ষতিকর হয়ে গিয়েছে, তখনই বিড়ম্বনার সৃষ্টি। 
বিশদ

05th  March, 2021
নদীবাঁধ রক্ষাই সুন্দরবনের অস্তিত্বের প্রধান শর্ত
কান্তি গাঙ্গুলী

প্রাচীন ইতিহাসে টলেমি ও মেগাস্থিনিসের বিবরণে গঙ্গারিডি বলে যে ভূখণ্ডের উল্লেখ পাওয়া যায়, আজকের সুন্দরবন ও তৎসংলগ্ন নিম্নগাঙ্গেয় উপত্যকা সম্ভবত সেই ভূখণ্ডই। কলকাতার এন্টালি অঞ্চলটির নামকরণের পিছনে হেঁতাল গাছের প্রভূত উপস্থিতির কারণও হয়তো বিদ্যমান।  
বিশদ

04th  March, 2021
গোল্লায় যাবে শিল্প-সংস্কৃতি
ব্রাত্য বসু 

বাংলা ও তার সংস্কৃতি বাঁচাতে গেলে বহিরাগত এই বিজেপি রাজনীতিকে ঠেকাতেই হবে। বিজেপি কখনও বাংলায় এসে রবীন্দ্রনাথের জন্মস্থান বদলে দিচ্ছে, কখনও বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভেঙে তছনছ করছে, কখনও চৈতন্যদেবের মৃত্যুর অন্তত দুশো বছর পরে তাঁকে কাটোয়ায় জীবিত করে তুলছে, কখনও আবার বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিশেষণে ঔপন্যাসিক না লিখে বলছে ‘উপনিবেশিক’। 
বিশদ

04th  March, 2021
মোদির সব প্রতিশ্রুতি যেন গল্পদাদুর আসর
সন্দীপন বিশ্বাস 

হঠাৎই জহর রায়ের একটি কৌতুক নকশা মনে পড়ল। এক ভদ্রলোক একটি ঘর ভাড়া নিতে গিয়েছেন। ঘর দেখে পছন্দও হয়েছে। দু’টি ঘর, রান্নাঘর, সঙ্গে আলাদা বাথরুম। কিন্তু ভাড়া শুনে ভদ্রলোকের মাথার চুল খাড়া হয়ে গেল। ভাড়া ৫০০ টাকা।  
বিশদ

03rd  March, 2021
৮ দফার পর নিশ্চয়ই রিগিংয়ের
অভিযোগ উঠবে না!
শান্তনু দত্তগুপ্ত

সেশন সাহেব, বড্ড মিস করছি আপনাকে। আপনি বলতেন, ‘গণতন্ত্র হল এমন একটা ব্যবস্থা, যেখানে আইনের শাসন সবার জন্য সমানভাবে বলবৎ থাকবে।’ সব মানুষের জন্য। সব রাজনৈতিক দলের জন্য। আপনি প্রমাণ করেছেন, এটা ছেলে ভুলানো গল্প নয়।  
বিশদ

02nd  March, 2021
আদালতগুলি স্বাধীনতার ঘণ্টাধ্বনি দিচ্ছে
পি চিদম্বরম

ঠিক যখন আমরা আশা ছেড়ে দিচ্ছি, তখনই ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে যে ব্যক্তি স্বাধীনতার বর্মটা হারিয়ে যায়নি। আমেরিকার স্বাধীনতার ঘোষণা সম্পর্কিত স্বাক্ষর হয়েছিল ১৭৭৬-এর ৪ জুলাই। 
বিশদ

01st  March, 2021
কে প্রধান শত্রু, আজ ব্রিগেডে
পরিষ্কার করুক সিপিএম 
হিমাংশু সিংহ

প্রয়াত সলিল চৌধুরী আজ বেঁচে থাকলে ‘টুম্পা সোনা’ শুনে কী বলতেন জানি না। তবে তাঁর ‘ও আলোর পথযাত্রী’ কিংবা ‘ঢেউ উঠছে কারা টুটছে’ যে এত তাড়াতাড়ি ব্রাত্য হয়ে যাবে কে ভেবেছিল! অভাবে স্বভাব নষ্ট আর দুর্দিনে চরিত্র। তাই আর ঘোমটার তলায় খ্যামটা নাচ নয়। 
বিশদ

28th  February, 2021
মমতাকে ঠেকাতে শেষে ‘রামধনু’ জোট
তন্ময় মল্লিক

‘এই বাংলা যতটা আব্বাস সিদ্দিকির ততটাই দিলীপ ঘোষের। দক্ষিণ ভারত থেকে এসেছেন ওয়াইসি, তাঁরও ততটাই অধিকার।’এখানে শেষ হলে মনে হতো, এটি কোনও ধর্মনিরপেক্ষ মানুষের বক্তব্য। উদ্দেশ্য স্পষ্ট হয়েছে এর পরের কথায়, ‘ওয়াইসি এসে এখানে মিম তৈরি করলে দিদিমণির টেনশন হচ্ছে কেন? 
বিশদ

27th  February, 2021
একনজরে
ভোটের আগেই বাংলায় জাল টাকা ছড়ানোর আন্তঃরাজ্য চক্রের হদিশ পেল পুলিস। কুলটি থানা এলাকা থেকে ৭৮ হাজার টাকার জাল নোট উদ্ধারের ঘটনার তদন্তে নেমে পুলিস ...

শীপুর কেন্দ্রে বিজেপির প্রার্থী হচ্ছেন কমলাকান্ত হাঁসদা। সোমবার এই ঘোষণা করেছে বিজেপি। কাশীপুর কেন্দ্রে ভোট রয়েছে প্রথম দফাতেই। শনিবার রাজ্যের প্রথম দুই দফার ভোটের ৫৭টি আসনের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করেছিল বিজেপি।  ...

আন্তর্জাতিক নারী দিবসে দিল্লি সীমানার সিঙ্ঘু, তিক্রি এবং গাজিপুরে কৃষক আন্দোলনে নেতৃত্ব দিলেন মহিলা কষকরা। শুধু প্রতিবাদ মিছিলে অংশ নেওয়াই নয়, আন্দোলনের সমর্থনে জ্বালাময়ী ভাষণ দেন মহিলারা।   ...

নর্থ ইস্ট ইউনাইটেডের বিরুদ্ধে প্রথম লেগে শেষপর্বে গোল হজম করেছিল এটিকে মোহন বাগান। রক্ষণের সেই ভুল কিছুতেই মানতে পারছেন না কোচ আন্তোনিও লোপেজ হাবাস। শেষ ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

উচ্চতর বিদ্যায় সফলতা আসবে। সরকারি ক্ষেত্রে কর্মলাভের সম্ভাবনা। প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় সাফল্য আসবে। প্রেম-প্রণয়ে মানসিক অস্থিরতা ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৪৫৪: আমেরিগেডস পুচির (তাঁর নামানুসারে আমেরিকার নাম করন হয়) জন্ম
১৮৫৮: দ্বিতীয় বাহাদুর শাহ জাফারি রেঙ্গুনে নির্বাসিত
১৯৩৪: মহাকাশচারী ইউরি গ্যাগারিনের জন্ম
১৯৫১: তবলাবাদক জাকির হুসেনের জন্ম
১৯৫৯: নিউ ইয়র্কে আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল টয় ফেয়ারে আত্মপ্রকাশ করল বার্বি ডল
১৯৬১: মহাকাশ যান স্ফুটনিক ৯-এর সফল উৎক্ষেপণ
২০১২: বলিউড অভিনেতা ও পরিচালক জয় মুখার্জির মৃত্যু 



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭২.৩৯ টাকা ৭৪.১০ টাকা
পাউন্ড ৯৯.৪৩ টাকা ১০২.৯২ টাকা
ইউরো ৮৫.৬০ টাকা ৮৮.৭৭ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪৫, ১৫০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৪২, ৮৫০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪৩, ৫০০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৬৬, ১০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৬৬, ২০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২৫ ফাল্গুন, ১৪২৭, মঙ্গলবার, ৯ মার্চ ২০২১। একাদশী ২২/৪৯ দিবা ৩/৩। উত্তরাষাঢ়া নক্ষত্র ৩৬/৫৬ রাত্রি ৮/৪১। সূর্যোদয় ৫/৫৫/১, সূর্যাস্ত ৫/৩৯/৪৩। অমৃতযোগ দিবা ৮/১৫ গতে ১০/৩৬ মধ্যে পুনঃ ১২/৫৭ গতে ২/৩২ মধ্যে পুনঃ ৩/১৯ গতে ৪/৫৩ মধ্যে। রাত্রি ৬/২৯ মধ্যে পুনঃ ৮/৫৫ গতে ১১/২১ মধ্যে পুনঃ ১/৪৮ গতে ৩/২৫ মধ্যে। বারবেলা ৭/২৩ গতে ৮/৫১ মধ্যে পুনঃ ১/১৫ গতে ২/৪৩ মধ্যে। কালরাত্রি ৭/১০ গতে ৮/৪৩ মধ্যে।  
২৪ ফাল্গুন ১৪২৭, মঙ্গলবার, ৯ মার্চ ২০২১। একাদশী অপরাহ্ন ৪/১৫। উত্তরাষাঢ়া নক্ষত্র রাত্রি ৯/৫৪। সূর্যোদয় ৫/৫৭, সূর্যাস্ত ৫/৩৯। অমৃতযোগ দিবা ৮/৩ গতে ১০/২৮ মধ্যে ও ১২/৫৪ গতে ২/৩১ মধ্যে ও ৩/১৯ গতে ৪/৫৬ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/৩২ মধ্যে ও ৮/৫৫ গতে ১১/১৭ মধ্যে ও ১/৪০ গতে ৩/১৫ মধ্যে। বারবেলা ৭/২৫ গতে ৮/৫৩ মধ্যে ও ১/১৬ গতে ২/৪৪ মধ্যে। কালরাত্রি ৭/১২ গতে ৮/৪৪ মধ্যে।  
২৪ রজব। 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
আইএসএল : টাইব্রেকারে ম্যাচ জিতে ফাইনালে মুম্বই সিটি এফসি
 

08-03-2021 - 10:36:07 PM

আইএসএলের দ্বিতীয় পর্বের সেমিফাইনাল গড়াল অতিরিক্ত সময়ে
 

08-03-2021 - 09:38:35 PM

ফের কলকাতা মেট্রোতে চালু হচ্ছে টোকেন ব্যবস্থা
ফের আগামী ১৫ মার্চ থেকে কলকাতা মেট্রোতে চালু হচ্ছে টোকেন ...বিশদ

08-03-2021 - 09:05:49 PM

আইএসএল: মুম্বই সিটি ০ – গোয়া ০ (হাফটাইম) 

08-03-2021 - 08:26:33 PM

কাশীপুর বিধানসভা কেন্দ্রে বিজেপি প্রার্থী কমলাকান্ত হাঁসদা  

08-03-2021 - 07:57:48 PM

স্ট্যান্ড রোড সংলগ্ন বহুতলে আগুন
স্ট্যান্ড রোডে রেলের একটি ভবনে আগুন। জানা গিয়েছে, ওই বহুতলটির ...বিশদ

08-03-2021 - 06:58:00 PM