Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

বাৎসরিক আয়ু ক্রয়ের হাট
হারাধন চৌধুরী

 মহালয়া মানেই বাঙালির কাছে দুর্গাপুজোর শুরু। বীরেন্দ্রকৃষ্ণ ভদ্রের উদাত্ত কণ্ঠে চণ্ডীপাঠের ভোর থেকেই বাঙালির মন পড়ে থাকে পুজোমণ্ডপে। মা দুর্গাকে আবাহন করার জন্য প্রস্তুত হয়ে যায় আমাদের পুরো অস্তিত্ব। কিন্তু এবার মহালয়া যেন কোথা দিয়ে পেরিয়ে গেল! আমরা টেরই পেলাম না। সপ্তমী পুজোর জন্য—মহালয়া থেকে যদি টানা ৩৫ দিন হাপিত্যেশ করে বসে থাকতে হয়, তবে সেই প্রতীক্ষা আর আনন্দের থাকে না। আনন্দের রেশ বিলম্বের ক্লান্তিতে লীন হয়ে যায়। অন্য কোনও বছর হলে ব্যাপারটা হয়তো এতটা ম্যাড়মেড়ে হতো না। এবার যে পৃথিবীর অসুখ! 
অন্যবার মহালয়া মানেই বেশিরভাগ বাড়ির কেনাকাটা সারা। স্কুলে স্কুলে পুজোর ছুটি পড়ার অপেক্ষা। কার ক’টা জামা-প্যান্ট-জুতো হয়েছে—ছোটদের সেসব গোনাগুনতির পালা। মামা, পিসি, দাদু-দিদার তরফে কী গিফট পাওয়া গেল। মাসির ছেলে, কাকুর মেয়ের জন্য কোনটা যেন কেনা হল। কার যেন সাজের কোন জিনিসটা কেনা বাকি রয়ে গেছে! চলে এসব খুঁটিয়ে খোঁজ নেওয়া। কারও প্ল্যান, পুজোর ছুটিতে দার্জিলিং বা ডুয়ার্স বেড়াতে যাবার। কেউ-বা লাগেজ গুছিয়ে ফেলে ঝাড়গ্রাম, বিষ্ণুপুর, মুর্শিদাবাদ কিংবা ধান্যকুড়িয়ার গ্রামের বাড়িতে গিয়ে পুজোর দিনক’টা নিরিবিলি কাটাবে বলে। 
পাড়ার প্যান্ডেলে অষ্টমী ও নবমীতে পাত পেড়ে ভোগ খাওয়া এবং দশমীতে নাটকে অংশগ্রহণের জন্যই নাকি একটা করে বছর বেঁচে থাকেন মাঝবয়সি সমরেশবাবু! কোনও বাড়ির মেয়ে মধুজার সাফ কথা—পুজোয় কলকাতা ছেড়ে বেরনো? অসম্ভব। হাউজিংয়ের পুজোয় দিনভর আড্ডা আর গানের প্রতিযোগিতার জন্য সারা বছর অপেক্ষা করে থাকি। দৈনিক কাগজের ক্রোড়পত্র থেকে পুজো প্যান্ডেলের ম্যাপ কেটে রাখার ব্যস্ততা নতুন নয়—গুগল নামক সর্বরোগহরা হাতের মুঠোয় থাকতেও। বাবার অফিস কলিগের মাধ্যমে কিংবা বন্ধুর আইপিএস বাবাকে ধরে ভিআইপি পাস জোগাড়ের সে কী প্রতিযোগিতা। বন্ধুর বাবা পুলিসকর্তা, এই অধিকারে গোগোল তো হাউজিংয়ের দু’জন সিকিউরিটি গার্ডকে সেরা পুজোগুলোর পাস জোগাড় করে দেওয়ার দায়িত্ব নিয়ে বসে আছে। তারা সুভাষগ্রাম আর কানাইপুরের বাড়িতে দিয়ে আসবে, পঞ্চমীর আগেই। গার্ড দু’জন এজন্য ওই পুচকেটাকে বিশেষ খাতিরও করে। 
লিস্টি তৈরি হয়ে যায় উত্তরের কোন কোন পুজো কোন কোন দিন দেখতে যাওয়া হবে। দক্ষিণের জন্যও অনুরূপ প্ল্যান। পরিক্রমার শুরুটা উত্তর দিয়ে হবে নাকি দক্ষিণ দিয়ে—তা নিয়ে তর্কবিতর্কে শুধু ছোটরা কেন, বাড়ির মা জ্যাঠাইমা দিদারাও কি ঢুকে পড়েন না? মায়ের সর্বক্ষণের অ্যাসিস্ট্যান্ট ললিতা কিংবা শ্যামলীর মুহুর্মুহু ফোড়ন—সেও তো রয়েছে। 
মাঝখানে কোন রেস্তরাঁয় ডিনার হবে তা নিয়ে একমত হওয়াটাও সবদিন সম্ভব হয় না। প্ল্যান হয়ে যায়, নিউ আলিপুরে আমরা সৃজনদের টিমের সঙ্গে মিট করব। ডিনারটা হবে ওদেরই সঙ্গে। মেনু সিলেকশনে পিসির ছেলে সৃজনের জুড়ি নেই। কথায় কথায় চলে আসে, কোন বছর ডিনার শেষে গাড়ি খুঁজে পেতে কতটা হয়রানি হয়েছিল। অতএব পার্কিং নিয়ে বিশেষজ্ঞের মতামত দিতে পারে না—এমন একজনকেও খুঁজে পাওয়া যায় না। আগামী বছর যে-ছেলে প্রথম বোর্ড এগজাম দেবে, ‘বড়’ হয়ে যাওয়ার অধিকারে সে এগিয়ে আসে বিশেষ দায়িত্ব নিতে—ড্রাইভার কাকুর মোবাইল নম্বরটা কিন্তু আমার কাছে থাকবে। ব্যাপারটা আমাকে বুঝে নিতে দিও। জ্যাঠামণি, বড়পিসির মুচকি হাসি দেখে সেই লায়েক ছেলে লজ্জা লুকতে ব্যস্ত—এই কারণেই না তোমাদের জন্যে কিছু করতে নেই। সঙ্গে সঙ্গে দিদির বাঁকা প্রশ্ন ছুটে আসে—বাবা, গাড়ির চাকা দু’পা গড়াতেই কে যেন ঘুমোতেই জানে না? এই কথার লক্ষ্য যে, সে ঠিক বুঝে যায়। অমনি দিদিকে সারা বাড়ি তাড়া করে ফেরে পুজো পরিক্রমার সেই হবু গার্জেন। একজনের তো কয়েক বছরের পুরনো রাগ পুজো এলেই ফিরে আসে—ড্রাইভারটাকে কে জোগাড় করেছিল? জীবনে কলকাতা দেখেনি যে, তাকেই দিয়েছে পুজো দেখানোর দায়িত্ব! ফের যদি ওরকম কিছু হয়, আমি কিন্তু যাচ্ছি না। হুমকি দেন হাফ অ্যাডভোকেট সিন্থলবাবু।  কেউ একজন মনে করিয়ে দেয়, এবার ভিকিরা আসছে মনে আছে তো? পুজোর পরেই ভিকি স্টেটসে চলে যাবে। ইউসিএলএ-তে পিএইচ-ডি অ্যাডমিশন হয়ে গেছে। এরপর কবে আর পুজোর কলকাতায় আসতে পারবে কে জানে।  আরও আছে। সল্টলেকের মাঠে কিংবা শ্রীভূমিতে ঢুকে হারিয়ে যাওয়া। সেলফি তোলা নিয়ে কোন কোন প্যান্ডেলে স্বেচ্ছাসেবকদের সঙ্গে কী ঝামেলা হয়েছিল। কারও মনে পড়ে যায়—গুগল লোকাল গাইডস-এ কোন কোন পুজোর ছবি পোস্ট করে কত হাজার পয়েন্টস জোগাড় হয়েছিল। ইনস্টাগ্রাম, ফেসবুক পোস্ট থেকে কতটা খ্যাতিবৃদ্ধি হয়েছে।
যাই হোক, এইভাবেই সবার জন্য উত্তর ও মধ্য কলকাতায় সেজে ওঠে কুমোরটুলি পার্ক, বাগবাজার সর্বজনীন, কলেজ স্কয়্যার, সন্তোষ মিত্র স্কয়্যার, নলীন সরকার স্ট্রিট সর্বজনীন, মহম্মদ আলি পার্ক প্রভৃতি। ভিআইপি রোডকে মাঝখানে রেখে তৈরি থাকে সল্টলেক এবি, জিডি, এফডি ব্লক, শ্রীভূমি, দমদম পার্ক তরুণ সংঘ। একডালিয়া এভারগ্রিন, বালিগঞ্জ কালচারাল অ্যাসোসিয়েশন, দেশপ্রিয় পার্ক, যোধপুর পার্ক, বোসপুকুর শীতলামন্দির, সিংহী পার্ক সর্বজনীন, মুদিয়ালি ক্লাব, সুরুচি সংঘ, ত্রিধারা সম্মিলনী, নাকতলা উদয়ন সংঘ, বাবু বাগান সর্বজনীন, বাদামতলা আষাঢ় সংঘ প্রভৃতি জমিয়ে রাখে দক্ষিণকে।  
সর্বক্ষণ এসব নিয়ে আলোচনায় কোন বাড়ি না ‘পাখিরালয়’ হয়ে ওঠে! কিন্তু এবার সে অবকাশ আর কোথায় পাওয়া গেল? স্কুলপড়ুয়াদের টানা ছুটির ক্লান্তিটাই যে কাটছে না। আলাদাভাবে পুজোর ছুটির জন্য মন কেমন করা আসবে কী করে। এবার ক’জন আর পুজোর কেনাকাটা করতে যাওয়ার সাহস পেয়েছে? সবার পকেটে যে টাকাও নেই। কেমন যেন স্বপ্নের মতো মনে হচ্ছে, কলকাতায় নানান স্বাদের ও থিমের কয়েকশো পুজো হয়। পৃথিবীর বৃহত্তম উৎসবগুলোর একটা। কলকাতার দুর্গোৎসব ‘ইউনেস্কো ইনট্যানজিবল কালচারাল হেরিটেজ’-এর স্বীকৃতি লাভের প্রতীক্ষা করছে।    কিন্তু এবার মহালয়ায় পুজো পুজো ভাবটাই ছিল না। আজ যদি কাউকে জিগ্যেস করা হয়, মহালয়া কত তারিখ গেছে? ক্যালেন্ডারে চোখ না বুলিয়ে বেশিরভাগই বলতে পারবেন না। মাসাধিককাল আগের ইভেন্ট বলেই নয়, ১৭ সেপ্টেম্বর দিনটা এবার আমাদের নাড়া দিতেই পারেনি। 
তবু এবার পুজো। পাঁজি বলছে, ২২-২৬ অক্টোবর (ষষ্ঠী-দশমী)। বাংলাকে বিষাদের পরিবেশ থেকে বের করে আনার জন্য বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ৩৭ হাজার পুজো কমিটিকে ৫০ হাজার টাকা করে সহায়তা দিয়েছে সরকার। নাগরিক সমাজ এর মধ্যে সস্তা ভোটের রাজনীতি দেখলেও মুখ্যমন্ত্রী তা গায়ে মাখেননি। তিনি মোদ্দা কথা মাথায় রেখেছেন: এবার পুজো হওয়াটা জরুরি। নিয়মরক্ষার হলেও। অন্যথায়, বাঙালি আরও বিষাদে ডুবে যাবে। উৎসব হলে মানুষের কেনাকাটা কিছুটা বাড়বে। যার ভিতরে অর্থনীতির জন্য সুখবর লুকিয়ে থাকে। আর উৎসবের আলো, সুরের অন্তরে যে প্রাণ—তার নীরব শক্তি কতটা, প্রমাণ নতুন করে নেওয়ার কী আছে।
তবে, ব্যাপারটা দাঁড়িয়েছে শাঁখের করাতের মতো। পুজোর ভিড় থেকে সংক্রমণ বহুগুণ হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা যে থাকছেই। তাই আয়োজনের গোড়াতেই ডাক্তারদের একটা সংগঠন সরকারকে সতর্ক করেছে: অসতর্ক হলে ‘কোভিড সুনামি’ অনিবার্য! এই প্রসঙ্গে কেরল ও কর্ণাটকে ওনাম এবং মহারাষ্ট্রে গণেশ চতুর্থী মহাসমারোহে উদযাপনের পরিণাম স্মরণ করিয়ে দেওয়া হয়েছে। নিশ্চয় ভুলিনি, কোভিড মোকাবিলায় এই কেরলই কিন্তু ‘হু’-র প্রশংসা কুড়িয়েছিল। আর সেই রাজ্যই এখন হিমশিম খাচ্ছে। চিকিৎসক সংগঠনের বক্তব্য, অন্যদের ভুলগুলো থেকে আমাদের শিক্ষা নিতে হবে। কোনও ক্ষেত্রেই যেন মান্য স্বাস্থ্যবিধির সঙ্গে আমরা আপস না করি। সেটা হবে আত্মঘাতী পদক্ষেপ। 
রেকর্ড সংখ্যক আমন্ত্রণপত্র পেয়েও মুখ্যমন্ত্রী অনেক প্যান্ডেলে পুজো উদ্বোধনে যাননি। বাছাই কয়েকটির উদ্বোধন করেছেন ভার্চুয়ালি। প্রশংসনীয় সিদ্ধান্ত। একসঙ্গে বেশি মানুষের ভিড় যাতে না-হয় তার জন্য ঠাকুর দেখার দিনও বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। মানতে বলা হয়েছে একগুচ্ছ সরকারি নির্দেশিকা। ওইসঙ্গে যোগ হয়েছে আদালতের কিছু বিধিনিষেধ। সব মিলিয়ে এক অভূতপূর্ব পরিস্থিতি। দুর্গোৎসব আমাদের বহুদিনের এক অভ্যাস। একটা করে বছর বেঁচে থাকার মন্ত্র। বাৎসরিক আয়ু ক্রয়ের হাট। এবার এসব রক্ষা করতে হবে নতুনভাবে। অভিযোজনের এও এক প্রকরণ।  এই বাংলা বহু সঙ্কটের সাক্ষী। জয়ী হয়েছে অতীতের সব যুদ্ধে। আসুন, আমরা সবাই মিলে জয়ের সেই ধারাবাহিকতা অক্ষুণ্ণ রাখি। শুধু মনে রাখতে হবে, দিনের শেষে জয় প্রতীক্ষা করে শুধু কুশলী যোদ্ধার জন্যে।
22nd  October, 2020
লাভ জেহাদ: বিজেপির
একটি রাজনৈতিক অস্ত্র
সন্দীপন বিশ্বাস

আসলে এদেশে হিন্দু, মুসলিম, শিখ, খ্রিস্টান কেউই খতরে মে নেই। যখন নেতাদের কুর্সি খতরে মে থাকে, তখনই ধর্মীয় বিভেদকে অস্ত্র করে, সীমান্ত সমস্যা খুঁচিয়ে তার মধ্য থেকে গদি বাঁচানোর অপকৌশল চাগাড় দিয়ে ওঠে। বিশদ

ওবামার ‘প্রতিশ্রুতি’ এবং
বিতর্কের রাজনীতি
শান্তনু দত্তগুপ্ত

২০১৬ সালে ভারত সফরে এসে বারাক ওবামা সরব হয়েছিলেন ধর্মান্তরকরণ, ধর্মীয় অসহিষ্ণুতার বিরুদ্ধে...। মোদির সামনেই। কাজেই এরপরের অধ্যায় নিয়ে তিনি যদি কলম ধরেন, বিজেপিকে স্বস্তিতে রাখার মতো পরিস্থিতি হয়তো তৈরি হবে না। বিশদ

24th  November, 2020
বিকাশ না গরিমা,
সংস্কার কী জন্য?
পি চিদম্বরম

কিছু কারণে ড. পানাগড়িয়া জোড়াতাপ্পির জিএসটি-টাকে প্রাপ্য গুরুত্ব দেননি এবং বিপর্যয় ঘটাল যে ডিমানিটাইজেশন বা নোট বাতিল কাণ্ড সেটাকেও তিনি চেপে গেলেন। বিশদ

23rd  November, 2020
ভোটের আগে দিল্লির
এই খেলাটা বড় চেনা
হিমাংশু সিংহ

 দিলীপবাবুরা জানেন, সোজা পথে এখনও পশ্চিমবঙ্গ দখল কোনওভাবেই সম্ভব নয়। আর তা বুঝেই একদিকে পুরোদমে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতার অপব্যবহার শুরু হয়ে গিয়েছে। পাশাপাশি কাজ করছে তৃণমূলকেই ছলে বলে তৃণমূলের বিরুদ্ধে লড়িয়ে দেওয়ার কৌশল। বিশদ

22nd  November, 2020
মমতা বিরোধিতাই
যখন রাজনীতির লক্ষ্য
তন্ময় মল্লিক

বামেদের ধারণা, মমতা তৃণমূল না গড়লে তারা আরও অনেকদিন রাজ্যপাট চালিয়ে যেত। তাদের চোখে মমতা ‘জাতশত্রু’। সেই কারণেই বিজেপিকে সাম্প্রদায়িক, ফ্যাসিস্ট সহ নানা চোখা চোখা বিশেষণে ভূষিত করলেও মমতা বিন্দুমাত্র সুবিধা পান, এমন কাজ তাঁরা কিছুতেই করেন না। বিশদ

21st  November, 2020
বাইডেন জমানা, ইমরানের অস্বস্তি
মৃণালকান্তি দাস

পাকিস্তান জন্মের পর তাদের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনকারী দেশটির নাম আমেরিকা। তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নের সঙ্গে স্নায়ুযুদ্ধে পাকিস্তানকে পাশে পেতেই ঝাঁপিয়ে পড়েছিল ওয়াশিংটন। ভারতকে বাদ দিয়ে পাকিস্তানকে কেন কাছে টেনেছিল আমেরিকা? 
বিশদ

20th  November, 2020
বিজেপির হয়েই কি ব্যাট ধরছে কং-সিপিএম?
হারাধন চৌধুরী

বছর তিরিশ আগের কিছু কথা মনে পড়ছে। জ্যোতি বসুর মুখ্যমন্ত্রিত্বের তখন থার্ড টার্ম। সিদ্ধার্থ-জমানার সন্ত্রাসের বাস্তব অনেকটাই অতীত ততদিনে। সিপিএমের সন্ত্রাসটাই তখন হাতেগরম। সাতাত্তরে সিপিএম এবং জ্যোতি বসুর নামে যে মোহ জেগেছিল, অনেক সাচ্চা বামপন্থীদেরও ঘুচে গিয়েছে। সাংবাদিকতায় হাতেখড়ির সেই গোড়ার দিনগুলোতে আমাদের ব্যতিব্যস্ত রাখত সিপিএম পার্টি ক্যাডাররা।  
বিশদ

19th  November, 2020
কংগ্রেস কি দিনে দিনে অপ্রাসঙ্গিক হয়ে যাবে
সন্দীপন বিশ্বাস

 কংগ্রেসের বিগত কয়েক বছরের ব্যর্থতা বারবার নিঃশব্দে বলে গিয়েছে নেতৃত্বে গলদ রয়েছে। আজ বুঝি তাই ভিতর থেকে একটা ভূকম্পনের ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে। নতুন করে পার্টিটাকে বাঁধতে না পারলে মোদির সঙ্গে তার টক্কর দেওয়া সম্ভব নয়।
বিশদ

18th  November, 2020
ছুঁচ হয়ে ঢুকে ফাল হয়ে বেরনোর খেলা
শান্তনু দত্তগুপ্ত

পরীক্ষায় পাশ নরেন্দ্র মোদি। তবে উতরানোটা মোটেই খুব সহজ ছিল না! একদিকে মহামারীর আতঙ্ক, আর তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে রাজনৈতিক চ্যালেঞ্জ... প্রশ্ন একটাই, বিজেপির বিকল্প কি খোঁজার সময় এসে গিয়েছে? বিহার বলল, না আসেনি। কারণ, বিকল্প কেউ নেই। আপাতত...। তাই নরেন্দ্র মোদি জনপ্রিয়তার ফাঁকা ময়দানে গোল দিয়েই চলেছেন।   বিশদ

17th  November, 2020
করোনাকালে বায়ুদূষণ এক অশনিসঙ্কেত
অনির্বাণ মিত্র

ইতালির দু’টি অঞ্চলে সবচেয়ে বেশি রোগীর মৃত্যু হয়। ওই দুই অঞ্চলে দূষণ প্রচণ্ড। একই ধরনের রিপোর্ট আসে চীন থেকেও। যুক্তরাষ্ট্রেও যেখানে বায়ুদূষণের মাত্রা বেশি, সেখানেই তত বেশি করোনা রোগী মারা যাচ্ছেন।  বিশদ

16th  November, 2020
বিভাজন করেই আমাদের পতন হয়
পি চিদম্বরম

বিভাজনের প্রক্রিয়া চলতেই থাকবে এবং এটা গভীরতরও হতে পারে—মার্কিন মুলুকে, ওইসঙ্গে ভারতেও। ... ভারতের আঘাতটা হবে ভীষণ খারাপ। সমাজ বিভাজিত হয়ে যাবে। অর্থনীতি উদ্যম হারিয়ে বসবে।  বিশদ

16th  November, 2020
বাংলায় লড়াইয়ের
মঞ্চটা কার তৈরি?
হিমাংশু সিংহ

বাংলার রাজনীতি এই মুহূর্তে এক সন্ধিক্ষণে দাঁড়িয়ে। বিহার ভোটের ফল এরাজ্যের আসন্ন নির্বাচনের মাহাত্ম্যকে দ্বিগুণ বাড়িয়ে দিয়েছে। মাত্র একবছর আগে বিহারে লোকসভা ভোটে ৪০টির মধ্যে ৩৯টি আসন জিতেছিল মোদি-নীতীশ কুমারের এনডিএ। একবছরের মধ্যে সেই চিত্র কিন্তু আমূল বদলে গিয়েছে। সদ্য সমাপ্ত বিধানসভা ভোটে বিজেপি ও এনডিএর সেই একচেটিয়া কর্তৃত্ব অনেকটাই খর্ব হয়েছে। বিশদ

15th  November, 2020
একনজরে
সংবাদদাতা, পতিরাম: শিয়ালের অত্যাচারে অতিষ্ঠ বালুরঘাটের পাঁচটি গ্রামের বাসিন্দারা। সন্ধ্যা হলেই হুক্কা হুয়ার আওয়াজ। বাড়ি থেকে বেরতে ভয় পাচ্ছেন গ্রামবাসীরা। রাতের বেলা তো বটেই, দিনের ...

কথায় আছে, ভাঙবে তবু মচকাবে না। বিদায়ী মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অবস্থা এখন সেরকমই। দেশের সিংহভাগ সংবাদমাধ্যম জো বাইডেনকে প্রেসিডেন্টের চেয়ারে বসিয়ে দিয়েছে। ...

ইডির অভিযোগের ভিত্তিতে ফের গ্রেপ্তার সুদীপ্ত রায়চৌধুরী। ইডির তথ্য নকল করে টাকা তোলার অভিযোগে মঙ্গলবার সকালে তাকে গ্রেপ্তার করে বিধাননগর উত্তর থানার পুলিস। এর আগে ২০১৮ সালেও একবার তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল চিটফান্ড কাণ্ডে। ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, বর্ধমান: বিধায়ক তহবিলের টাকায় উন্নয়নে বাধা দেওয়ার অভিযোগ তুলে জেলাশাসকের দ্বারস্থ হলেন খোদ রাজ্যের গ্রন্থাগারমন্ত্রী সিদ্দিকুল্লা চৌধুরী। তাঁর অভিযোগ, মঙ্গলকোটে তাঁকে উন্নয়নের কাজ করতে দেওয়া হচ্ছে না। সেই সঙ্গে বালি খাদানের অনিয়ম নিয়েও তিনি সোচ্চার হয়েছেন।  ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

শরীর-স্বাস্থ্যের হঠাৎ অবনতি। উচ্চশিক্ষায় বাধা। সৃষ্টিশীল কাজে উন্নতি। পারিবারিক কলহ এড়িয়ে চলুন। জ্ঞাতি বিরোধ সম্পত্তি ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৭৫৯: ভয়াবহ ভূমিকম্পে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয় বেইরুট ও দামাস্কাসে, প্রাণ হারন ৩০-৪০ হাজার মানুষ
১৮৯৮: পরিচালক দেবকী কুমার বসুর জন্ম
১৯৩৩: কবি শক্তি চট্টোপাধ্যায়ের জন্ম
১৯৩৬: বার্লিনে জার্মানি ও জাপানের মধ্যে অ্যান্টি কমিন্টার্ন চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। সোভিয়েত ইউনিয়ন সংশ্লিষ্ট কোনও দেশকে অতর্কিতে আক্রমণ করলে, তার মোকাবিলার জন্যই এই চুক্তি করা হয়েছিল
১৯৪৩: দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর বসনিয়া ও হার্জিগোবিনিয়া ফের রাষ্ট্র বলে ঘোষিত হল
১৯৭৫: হল্যান্ডের হাত থেকে স্বাধীনতা পেল সুরিনাম
১৯৮১: সুরকার রাইচাঁদ বড়ালের মৃত্যু  



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৩.১৪ টাকা ৭৪.৮৫ টাকা
পাউন্ড ৯৬.৯৮ টাকা ১০০.৩৭ টাকা
ইউরো ৮৬.১২ টাকা ৮৯.৩০ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৫০, ০৬০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৪৭, ৫০০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪৮, ২১০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৬০, ৯০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৬১, ০০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৯ অগ্রহায়ণ, ১৪২৭, বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, একাদশী ৫৭/৫৭ শেষ রাত্রি ৫/১১। উত্তরভাদ্রপদ নক্ষত্র ৩০/৫১ সন্ধ্যা ৬/২০। সূর্যোদয় ৫/৫৯/৫৫, সূর্যাস্ত ৪/৪৭/২২। অমৃতযোগ দিবা ৬/৪২ মধ্যে পুনঃ ৭/২৬ গতে ৮/৯ মধ্যে পুনঃ ১০/১৯ গতে ১২/২৯ মধ্যে। রাত্রি ৫/৪০ গতে ৬/৩৩ মধ্যে পুনঃ ৮/১৯ গতে ৩/২২ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ দিবা ৬/৪২ গতে ৭/২৬ মধ্যে পুনঃ ১/১২ গতে ৩/২১ মধ্যে। বারবেলা ৮/২১ গতে ১০/২ মধ্যে পুনঃ ১১/২৩ গতে ১২/৪৪ মধ্যে। কালরাত্রি ২/৪০ গতে ৪/২০ মধ্যে।  
৯ অগ্রহায়ণ, ১৪২৭, বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, একাদশী অহোরাত্র। উত্তরভাদ্রপদ নক্ষত্র রাত্রি ৮/২৮। সূর্যোদয় ৬/২, সূর্যাস্ত ৪/৪৭। অমৃতযোগ দিবা ৬/৫৬ মধ্যে ও ৭/৩৮ গতে ৮/২০ মধ্যে ও ১০/২৮ গতে ১২/৩৫ মধ্যে এবং রাত্রি ৫/৪৩ গতে ৬/৩৬ মধ্যে ও ৮/২৪ গতে ৩/৩২ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ দিবা ৬/৫৬ গতে ৭/৩৮ মধ্যে ও ১/১৭ গতে ৩/২৪ মধ্যে। কালবেলা ৮/৪৩ গতে ১০/৪ মধ্যে ও ১১/২৫ গতে ১২/৪৫ মধ্যে। কালরাত্রি ২/৪৩ গতে ৪/২৩ মধ্যে। 
৯ রবিয়ল সানি।

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
জামশেদপুরকে ২-১ গোলে হারাল চেন্নাইয়ান এফসি 

24-11-2020 - 09:31:04 PM

জামশেদপুর ১ চেন্নাইয়ান এফসি ২ (হাফটাইম) 

24-11-2020 - 08:31:00 PM

দেশের সুরক্ষার কথা মাথায় রেখে ৪৩টি অ্যাপস ব্লক করল কেন্দ্র 
দেশের সুরক্ষার কথা মাথায় রেখে আজ, মঙ্গলবার ৪৩টি অ্যাপস ব্লক ...বিশদ

24-11-2020 - 05:51:24 PM

করোনা: নাগাল্যান্ডে নতুন করে আক্রান্ত ৭৯ 
নাগাল্যান্ডে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হলেন ৭৯ জন। মোট আক্রান্তের ...বিশদ

24-11-2020 - 05:20:31 PM

সফল উৎক্ষেপণ ব্রহ্মস সুপারসোনিক ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্রের

আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ থেকে সফল উৎক্ষেপণ ব্রহ্মস সুপারসোনিক ক্রুজ ...বিশদ

24-11-2020 - 04:46:12 PM

করোনা মোকাবিলায় ৯৫ শতাংশ কার্যকরী স্পুটনিক-৫ টিকা, দাবি রাশিয়ার 

24-11-2020 - 04:38:11 PM