Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

সিবিআইয়ের বন্দিদশা কাটবে কবে?
হিমাংশু সিংহ

সিবিআইকে রাজনৈতিক প্রয়োজনে ব্যবহার বন্ধ হবে কবে? এ প্রশ্ন বারে বারে উঠেছে। বিতর্ক হয়েছে। সংসদে ঝড় বয়ে গিয়েছে। মীমাংসা হয়নি। হওয়ার কথাও নয়। ক্ষমতার হাত বদল হয়, কিন্তু কোনও কিছুই এতটুকু বদলায় না এ দেশে। দম্ভ, আস্ফালন, স্বজনপোষণ, দুর্নীতি সবই চলতে থাকে নিজের নিয়মে। একটা মৃত্যুরহস্য উদ্ঘাটনে দেশের সবকটা তদন্ত এজেন্সির অতি সক্রিয়তা আবার সেই একই প্রশ্নের মুখোমুখি দাঁড় করাচ্ছে আমাদের। মনে হচ্ছে, এই ভয়ঙ্কর বিপন্ন সময়ে দাঁড়িয়েও দেশে বুঝি আর অন্য কোনও সমস্যাই নেই। এই বিজেপি দলই বিগত ইউপিএ আমলে সিবিআইকে ‘কংগ্রেস ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন’ বলে তোপ দাগতে কসুর করেনি। আর আজ? ‘এই রাজা আসে ওই রাজা যায়। জামা কাপড়ের রং বদলায় ... দিন বদলায় না।’ অসহায় সিবিআইয়ের ক্ষেত্রেও একথা সমানভাবে সত্য।
সুশান্তের মৃত্যু হয় ১৪ জুন। আর আজ ১৩ সেপ্টেম্বর। তাঁর আকস্মিক চলে যাওয়ার পর ঠিক তিন মাস অতিক্রান্ত। প্রতিভাবান অভিনেতার মৃত্যু রহস্যের তদন্তে কোথাকার জল কোথায় গিয়ে দাঁড়ায় তার তল খুঁজে পাচ্ছেন না তুখোড় সিবিআই গোয়েন্দারাও। কিংবা বলা ভালো, সত্যি তল খোঁজার চেষ্টা হচ্ছে কি? না একটা দুঃখজনক ঘটনাকে সামনে রেখে শিবসেনার বিরুদ্ধে চরম প্রতিশোধ নিতে চাইছে কেন্দ্রের সরকার। আর এই নোংরা খেলায় অসহায় সিবিআই কর্তারা একটা সামান্য ঘুঁটি মাত্র। উদ্ধব থ্যাকারেকে জোট ছেড়ে বেরিয়ে কংগ্রেসের সঙ্গে হাত মেলানোর ‘বেইমানি’র মাশুল যে চোকাতেই হবে কড়ায়-গণ্ডায়। কেন্দ্রের সরকারের এই পণ! আর সেই রাজনৈতিক চাপ থেকেই তদন্তে নতুন নতুন অ্যাঙ্গেল যোগ হচ্ছে রোজ। গৌণ হয়ে যাচ্ছে, কী কারণে মৃত্যু, সত্যি আত্মহত্যা না খুন? যদি খুনই হবে, তাহলে সন্দেহ কোন কোন রাঘব বোয়ালকে? সুশান্তর টাকা আত্মসাৎ করেছে কারা? তাদের শেষ পর্যন্ত ধরা যাবে তো? নাকি আসল অপরাধীকে ছেড়ে লোক দেখানো টানাপোড়েনই চলবে বছরভর। যেমনটা এরাজ্য দেখেছে সারদা কেলেঙ্কারির তদন্তে। ভোটের আগে ঝড় ওঠে, আলোড়ন হয়। কিন্তু কোনও মামলারই নিষ্পত্তি হয় না।
বলা বাহুল্য, সুশান্তকাণ্ডেও অপরাধীকে ধরা আপাতত পিছনে চলে গিয়েছে। তার বদলে এখন বড় হয়ে সামনে আসছে যা, তা তো চিরদিনই ছিল বলিউডে। নেপোটিজম, মাদক চক্র, যৌনতার পর্দা ফাঁস। এবং, সেই লাস্যের আড়ালে কোটি কোটি টাকার বেআইনি লেনদেন। সেই ঘাত-প্রতিঘাতে মুম্বইয়ে পা রাখা বিহারের এক অভিনেতার বড় তাড়াতাড়ি ফুরিয়ে যাওয়ার কাহিনী। এবং, অবশেষে মৃত্যু! এসব নতুন নাকি? এ স্ক্রিপ্ট তো মোটেই অচেনা নয়। বলিউডের চড়া পারফিউমের গন্ধে ম ম করা চোরাগলির বাঁকে এরকম ঝকঝকে প্রতিভার হারিয়ে যাওয়ার গল্প কম পড়িয়াছে নাকি! যে হঠাৎ সব ভুলে ইডি, সিবিআই, নারকোটিক্স ব্যুরো সর্বশক্তি নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়ল এক অনামী অভিনেত্রীর উপর। ভাবটা এমন যেন ওকে ধরলেই দেশের দুর্নীতি আর অপরাধের গ্রাফটা নিম্নমুখী হবে নিমেষে। করোনাসুরকে বধ করে আবার সবকিছু স্বাভাবিক হবে দেশে!
আসলে ওসব কিচ্ছু না। সবটাই একটা নির্ধারিত স্ক্রিপ্ট অনুযায়ী চলছে। যার সুতোটা ধরা আছেন ...। ভেবে দেখুন তো, সুশান্তকাণ্ডে কোন অপরাধটা নতুন? চুক্তি করে অন্যায়ভাবে তার লঙ্ঘন। শেষ মুহূর্তে শর্ত ভেঙে অন্য কাউকে দিয়ে কাজটা করিয়ে নেওয়া। বড় কোনও মাতব্বরের চাপে বান্ধবীর হাত বদল। প্রয়োজন ফুরলেই পিছন থেকে ছুরি। এ তো স্টারডমের নেশায় পাগল রুপোলি পর্দার বহু পুরনো অসুখ। কথায় বলে, মানবিক সম্পর্কে বয়স কখনও বাধা হয়ে দাঁড়ায় না। আর রোজগারের পথে? এই রঙিন দুনিয়ায় কাজের প্রয়োজনে ওসব ছুৎমার্গ তো মূল্যহীন। বয়সের ফারাককে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে সম্পর্ক গড়ে নেওয়াটাই এই দুনিয়ায় রীতিমতো দস্তুর। নায়ক নায়িকাদের কাছে জলভাত। তাহলে হঠাৎ আজ চোখ কপালে উঠছে কেন? মুম্বইয়ের ফিল্ম জগতে কান পাতলে এরকম দুশো কিসিমের গল্প তো আকছার শোনা যায়। একজন প্রায় অপরিচিত অনামী অভিনেত্রীর গ্রেপ্তার ঘিরেই বা মিডিয়াতে এত আলোড়ন কীসের? নারকোটিক্স ব্যুরো কি দু’মাস আগেও জানত না বডিউডে মাদক কারবার চলে। শুধু চলে বললে ভুল হবে। বলা ভালো, বুক ফুলিয়ে চলে! তদন্ত হয়। জেরা হয়। কিন্তু মাথা পর্যন্ত হাত পৌঁছয় না। তার আগেই অদৃশ্য সুতোর টানে থেমে যায় খাঁচায় বন্দি কবুতরের যাবতীয় লাফালাফি। মাছেরা টের পায় দীঘির থেকে দীর্ঘ হওয়ার যন্ত্রণা!
সিবিআইয়ের হাতে থাকা কেসগুলোর একের পর এক ছানবিন করুন, দেখতে পাবেন কী ভয়ানক সব পরিণতি। কেন্দ্রে ক্ষমতা বদলের পর পরই একাধিক হাই প্রোফাইল মামলা কেমন ঘুমিয়ে পড়ে। অধিকাংশ মামলাতেই প্রথমটায় ছোটাছুটি চলে খুব। ধরপাকড়ের অন্ত নেই। একে ডাকো, ওর বাড়িতে রেড করো, সবই চলতে থাকে দম ফেলার ফুরসত না দিয়ে। কিন্তু পরিণতি? একযুগ পর নীরবে নিভৃতে নয়, বিচারের বাণীকে ভরা আদালতে কাঁদিয়ে বিচারক ঘোষণা করেন, তথ্য-প্রমাণের অভাবে কাউকেই দোষী সাব্যস্ত করা গেল না। অভিযুক্তরা মুক্ত। বোফর্সের কথা মনে নেই। ঠিক ঠিক তদন্ত শেষই হয়নি! চার্জশিটে শুধু ধুলো জমেছে দিনের পর দিন। ৮০ শতাংশ মামলাতেই এই অবস্থা। সাধে কি সুপ্রিম কোর্ট সিবিআইকে বলেছে, খাঁচায় বন্দি তোতাপাখি! এমনকী কয়লার ব্লক বণ্টন কেলেঙ্কারিতে কী হল। শেষে প্রাক্তন ডিরেক্টর রঞ্জিত সিনহার বিরুদ্ধেই দুর্নীতির তদন্তে নামতে হল খোদ সিবিআইকে। আর বোফর্স মামলায় মিডলম্যান কাত্রোচ্চির ফ্রিজ করা ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট কোন জাদুমন্ত্রে খুলে গেল সোনিয়া-মনমোহনের ইউপিএ জমানায় ২০০৬ সালে? এসবের উত্তর নেই। উত্তর হয় না। শুধু মুচকি হেসে অন্য প্রসঙ্গে চলে যেতে হয়। ক্ষমতা এমনই বিষম বস্তু! আর অবসর নিয়ে অসহায় সিবিআই কর্তারা নিজেদের হতাশা উগরে দিতে বিতর্কিত বই লেখেন, ‘হু ওনস সিবিআই’। কিন্তু পরিস্থিতি একচুলও বদলায় না। পুরনো ট্র্যাডিশন মেনে সমানে চলতে থাকে নতুন নতুন নাটক। কিন্তু রাজনৈতিক ক্ষমতা দখলের এই সংকীর্ণ খেলায় এজেন্সি আর কতদিন মুখ লুকিয়ে থাকবে?
উত্তরটা সবার জানা। অত্যন্ত সোজা উত্তর, দেশের সর্বশক্তিমান শাসক যতদিন চাইবে! সিবিআইকে রাজনৈতিক প্রভাবমুক্ত করা কি আদৌ সম্ভব? না সম্ভব নয়। সোনার পাথরবাটির মতোই তা এক অলীক কল্পনা মাত্র। কে আনবে সেই আইন? এদেশে ভোট বড় বালাই। তাই সত্য উদ্ঘাটন তো স্রেফ একটা বাহানা। রাজনীতির প্রয়োজনেই বিহার পুলিস, মুম্বই প্রশাসন ও কেন্দ্রের সবকটা তদন্ত সংস্থার নাওয়া খাওয়া ছুটেছে। মনে হচ্ছে, বিহার ও মুম্বই পুলিসের মধ্যে যেন অঘোষিত যুদ্ধ চলছে। ভাবটা এমন, নভেম্বরের আগে যে করেই হোক একটা হেস্তনেস্ত চাই। ঠিক কতদিন চলবে এরকম? যতদিন পূর্ব ভারতের বিহার নামক পিছিয়ে পড়া অবহেলিত অঙ্গরাজ্যের বিধানসভার ভোটপর্ব না চোকে। বিহারের ভোটের খেলা শেষ হলেই সিবিআইয়ের পরের গন্তব্যও সবার জানা, মমতার বাংলা। পশ্চিমবঙ্গ। জননেত্রীকে ডিসটার্ব করতে হবে না! সারা দেশে বিরোধীরা ছত্রভঙ্গ, মাথা উঁচু করে লড়াই করছেন তো একজনই। পশ্চিমবঙ্গের বিগত বিধানসভা ভোটের কথা মনে নেই। সারদা কেলেঙ্কারি নিয়ে কী তৎপরতা! যেন একমাস নয়, এক সপ্তাহ নয়, একদিনও নয়, কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই চিচিং ফাঁক করতে হবে। পর পর গ্রেপ্তার। জেরা। তল্লাশি। সব চলল। তার পর ভোট মিটতেই সব শান্ত। আর জেরা নেই। ধরপাকড় নেই। চার্জশিট সযত্নে মুছে লকারে। সারদা তদন্তটাই যেন মাঝপথে পথ হারালো। জেল থেকে সবাই দিব্যি বেরিয়েও এল। এবারও বিহারের ভোট মিটলে আবার যে একইভাবে বাংলা নিয়ে একটা নড়াচড়া শুরু হবে, তা তো বিলক্ষণ বোঝা যাচ্ছে। কিন্তু পশ্চিমবঙ্গের মানুষ খেলাটা ধরে ফেলেছে। আগের বারই সারদা, নারদ কেলেঙ্কারির কোনও ছাপ পড়েনি বিধানসভা ভোটে। আর এবারও সেই একই ওষুধে বাংলার জননেত্রীকে ঘায়েল করা খুব একটা সহজ হবে না। পশ্চিমবঙ্গের মানুষই তা প্রতিহত করবে।
13th  September, 2020
শাসনতন্ত্রের বেসামাল
নৌকায় সওয়ার দেশ
শান্তনু দত্তগুপ্ত

 পিতৃতন্ত্র আর শাসনতন্ত্র একটা জায়গায় এসে মিলেমিশে এক হয়ে যায়। দুই ক্ষেত্রেই চাপিয়ে দেওয়ার কারবার। আধিপত্য কায়েম করা। এনসিবি এখন বলিউডের মাদক কারবারের অন্দরে ঢুকতে চাইছে। অথচ ছবি যা দেখা যাচ্ছে, তাতে কোনও পুরুষ নেই। ব্যাপারটা এমন, অভিনেতারা সব ধোয়া তুলসী পাতা, মাদক সেবনের কারবারটা সম্পূর্ণই অভিনেত্রীদের। বিশদ

সব মানুষকে সব সময়
বোকা বানানো হচ্ছে
পি চিদম্বরম

 নোট বাতিল ছিল একটি বিপর্যয়। ২০১৭-১৮ থেকে দেশজুড়ে অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে অব্যবস্থা ছিল তারই ধারাবাহিক পরিণাম। তেমনি আইনে পরিণত হওয়ার পথে কৃষি বিল দু’টিও ভারতীয় কৃষক শ্রেণীকে এবং কৃষি অর্থনীতিকে দুর্বল করে দেবে। তারা রাজ্যগুলির অধিকার এবং ফেডারালিজমের উপরেও আঘাত হানল।
বিশদ

28th  September, 2020
কৃষক, শ্রমিকের সঙ্গে বিপন্ন গণতন্ত্রও
হিমাংশু সিংহ

 রাজ্যের হাত থেকে কৃষির অধিকার প্রায় সবটাই চলে যাচ্ছে কেন্দ্রের জিম্মায়। একে একে রাজ্যের সব অধিকারই প্রায় কেড়ে নিচ্ছে কেন্দ্র। জিএসটি সেই দিক দিয়ে ছিল এক বড় আঘাত। বাকি ছিল যৌথ তালিকায় থাকা কৃষিক্ষেত্র। এবার তাও যাচ্ছে। যার ফলে বিপন্ন হতে বাধ্য যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোর ভিত্তি।
বিশদ

27th  September, 2020
সদিচ্ছায় জটিল সমস্যাও
হয় জলবৎ তরলং
তন্ময় মল্লিক

জঙ্গি এখন রাজনীতির মস্ত বড় ইস্যু। রাজনীতির কারবারিরা ঘোলা জলে মাছ ধরার জন্য রীতিমতো কোমর বেঁধে নেমে পড়েছেন। অনেকেই মনে করছেন, জঙ্গি গ্রেপ্তারের ঘটনাকে সামনে রেখে চলছে মেরুকরণের জোরদার চেষ্টা।
বিশদ

26th  September, 2020
বিধবাবিবাহ আইন ও বিদ্যাসাগর
তরুণকান্তি নস্কর

 বিদ্যাসাগর মহাশয়ের জন্মের দ্বিশতবর্ষের প্রারম্ভে গত বছর ২৬ সেপ্টেম্বর তাঁর শিক্ষাচিন্তার উপর এই লেখকের একটি উত্তর-সম্পাদকীয় প্রবন্ধ প্রকাশিত হয়েছিল। দ্বিশতজন্মবার্ষিকীর সমাপ্তিতে তাঁর জীবন সংগ্রামের অন্য কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ দিক আলোচনার জন্য এই প্রয়াস।
বিশদ

26th  September, 2020
ইতিহাস কি আবার
তালিবানের পক্ষে?
মৃণালকান্তি দাস

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে আফগান শান্তি আলোচনায় একধাপ এগনো দরকার। যা ট্রাম্পকে নির্বাচনী যুদ্ধের প্রচারে এগিয়ে রাখবে। ট্রাম্প দেখাতে চাইছেন, দেশকে ১৯ বছরের যুদ্ধ থেকে মুক্তি দিচ্ছেন তিনি। এর জন্য ওই অঞ্চলের সব খেলোয়াড়কে তারা ‘শান্তি প্রক্রিয়া’য় শামিল করতে চায়। বিশদ

25th  September, 2020
করোনাকে মওকা ধরেই তৎপর জঙ্গি গোষ্ঠীগুলো
হারাধন চৌধুরী

জঙ্গিরা মনে করে, আমেরিকা, ভারত এবং আফ্রিকা ও ইউরোপের কিছু দেশে হামলা করার এটাই সুবর্ণ সুযোগ। এই সময় আঘাত হানতে পারলে সবচেয়ে বেশি ক্ষতি করা যাবে। কারণ, এই দেশগুলোর সরকার, এবং আর্মিও করোনা মোকাবিলা নিয়ে এখন ব্যতিব্যস্ত। বিশদ

24th  September, 2020
স্বাবলম্বী শরীর কোভিড রুখতে সক্ষম
মৃন্ময় চন্দ 

সারা পৃথিবী আশঙ্কিত। অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিনটির তৃতীয় পর্যায়ের মানব শরীরে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলাকালীন হঠাৎই এক স্বেচ্ছাসেবক গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। গোটা পৃথিবীর বিশ্বাস অক্সফোর্ডের ‘কোভিশিল্ডেই’ মিলবে করোনার হাত থেকে নিষ্কৃতি।  
বিশদ

23rd  September, 2020
বারবার তাঁর হাতে দেখি মৃত্যুর পরোয়ানা 
সন্দীপন বিশ্বাস

আমাদের স্কুলের এক শিক্ষক বলতেন, যে একবার ভুল করে, সে অজ্ঞতা থেকে করে। তিনবার পর্যন্ত ভুল অজ্ঞতা থেকে হতে পারে। কিন্তু কেউ যদি বারবার ভুল করতে থাকে, তবে বুঝতে হবে, সে ইচ্ছে করেই ভুল করছে এবং তার পিছনে কোনও দুরভিসন্ধি আছে। প্রতিটি ক্ষেত্রে মোদিমশাইয়ের বারবার ভুল করা দেখে সেই শিক্ষকের কথা মনে পড়ে গেল। 
বিশদ

23rd  September, 2020
কৃষি সংস্কার: দেখনদারির
মোড়কে আশঙ্কার মেঘ
শান্তনু দত্তগুপ্ত 

ভূতনাথ পাল। কেতুগ্রামের বিল্বেশ্বর এলাকায় বাড়ি ছিল তাঁর। অনেক কষ্টে ধারদেনায় ডুবে আলুচাষ করেছিলেন। ভেবেছিলেন, এখন আলুর বাজারটা ভালো যাচ্ছে। ক’টা দিন তো কষ্ট... তারপরই সুদিন আসবে। সুদিন মানে, দু’বেলা দু’মুঠো...। 
বিশদ

22nd  September, 2020
এবার মহালয়ার ৩৫ দিন পর
দুর্গাপুজো কেন, কী বলছে শাস্ত্র?
জয়ন্ত কুশারী
 

এবার মহালয়ার ৩৫ দিন পর দুর্গাপুজো কেন, কী বলছে শাস্ত্র?
‘মা বুঝি চইলাছে কোয়ারেন্টিনে...’ বরেণ্য লোকগীতি শিল্পী অমর পাল জীবিত থাকলে বুঝি এমনটাই গাইতেন। যদিও তিনি গেয়েছিলেন, ‘মা বুঝি কৈলাসে চইলাছে...’ 
মহালয়া থেকে সপ্তমী, দিন পঁয়ত্রিশের এই ব্যবধান পাল্টে দিল এমন একটি গানের লাইন। আসলে মানুষের মুখে মুখে এখন যে ফিরছে এই কথাটি। 
বিশদ

21st  September, 2020
কেন্দ্রের কথার খেলাপ, রাজ্যগুলোর অর্থাভাব
পি চিদম্বরম

কর ব্যবস্থার ক্ষেত্রে পণ্য ও পরিষেবা কর (জিএসটি) একটা ভয়ানক লড়াই হয়ে উঠেছে। যে অর্থনীতিতে পূর্বাহ্নেই দ্রুত পতনের সূচনা হয়েছিল, সেটা যখন মহামারীতে আরও বিধ্বস্ত হল তখন কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে বিরাট বিচক্ষণতার পরিচয় দেওয়া উচিত ছিল। 
বিশদ

21st  September, 2020
একনজরে
সংবাদদাতা, ঝাড়গ্রাম: ঝাড়গ্রাম জেলায় করোনার সংক্রমণ বাড়তে থাকায় আরও একটি করোনা হাসপাতাল তৈরির সিদ্ধান্ত নিল স্বাস্থ্যদপ্তর ও প্রশাসন। শহরের পুরাতন ঝাড়গ্রাম এলাকায় একটি নবনির্মিত মহিলা হস্টেলকে ৭৫ বেডের করোনা হাসপাতাল করা হবে।  ...

সংবাদদাতা, পতিরাম: গঙ্গারামপুর ব্লকের বেলবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের মোহিনীপাড়ায় রবিবার গভীর রাতে ভেঙে গেল পূনর্ভবা নদী বাঁধের একাংশ। ভোররাত থেকেই বাঁধ বাঁচাতে কাজ শুরু করেছে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা সেচ দপ্তর। যদিও রবিবার রাত থেকেই ওই নদী বাঁধ সংলগ্ন এলাকায় জল ঢুকে ...

 অভিষেকেই জয়ের স্বাদ পেলেন বার্সেলোনার কোচ রোনাল্ড কোম্যান। দলের প্রাণভোমরা লিও মেসির গোল তাঁকে স্বস্তি দিয়েছে। গত মরশুমের ব্যর্থতা ঝেড়ে ফেলে ঘরের মাঠ ক্যাম্প ন্যু’য়ে ...

বরফ দেওয়া থার্মোকলের বাক্সের ভিতরে বোঝাই করে চলে আসছে ‘রুপোলি শস্য’। কোথাও নদীপথ, কোথাও কাঁটাতারের ফাঁক গলে এপারে তারা। চকচক করতে থাকা আটশো থেকে এক ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কর্মক্ষেত্রে প্রভাব প্রতিপত্তি বৃদ্ধি। অত্যধিক ব্যয় প্রবণতায় রাশ টানা প্রয়োজন। ব্যবসায়ীদের ক্ষেত্রে আজ শুভ। সৎসঙ্গে ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯৩২: অভিনেতা মেহমুদের জন্ম
১৯৭১: ওড়িশা, পশ্চিমবঙ্গে ঝড় ও সামুদ্রিক জলোচ্ছ্বাসে অন্তত ১০ হাজার মানুষের মৃত্যু  



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭২.৮৭ টাকা ৭৪.৫৮ টাকা
পাউন্ড ৯২.৫৪ টাকা ৯৫.৮৪ টাকা
ইউরো ৮৪.২৪ টাকা ৮৭.৩৭ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৫০, ৩১০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৪৭, ৭৩০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪৮, ৪৫০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৫৮, ৪৪০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৫৮, ৫৪০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

১২ আশ্বিন ১৪২৭, সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, দ্বাদশী ৩৮/৪১ রাত্রি ৮/৫৯। ধনিষ্ঠানক্ষত্র ৪২/৪৯ রাত্রি ১০/৩৮। সূর্যোদয় ৫/৩০/৪৪, সূর্যাস্ত ৫/২৩/৫৬। অমৃতযোগ দিবা ৭/৫ মধ্যে পুনঃ ৮/৪০ গতে ১১/৪ মধ্যে। রাত্রি ৭/৪৯ গতে ১১/৪ মধ্যে পুনঃ ২/১৭ গতে ৩/৬ মধ্যে। বারবেলা ৭/০ গতে ৮/২৯ মধ্যে পুনঃ ২/২৭ গতে ৩/৫৬ মধ্যে। কালরাত্রি ৯/৫৭ গতে ১১/২৭ মধ্যে।
১১ আশ্বিন ১৪২৭, সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, দ্বাদশী রাত্রি ৯/৪৮। ধনিষ্ঠানক্ষত্র রাত্রি ১২/২৮। সূর্যোদয় ৫/৩০, সূর্যাস্ত ৫/২৬। অমৃতযোগ দিবা ৭/৯ মধ্যে ও ৮/৪১ গতে ১০/৫৯ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/৩৭ গতে ১০/৫৭ মধ্যে ও ২/১৭ গতে ৩/৭ মধ্যে। কালবেলা ৭/০ গতে ৮/২৯ মধ্যে ও ২/২৭ গতে ৩/৫৭ মধ্যে। কালরাত্রি ৯/৫৮ গতে ১১/২৮ মধ্যে।
১০ শফর।

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
আইপিএল: দিল্লি ক্যাপিটালস ১০৪/৩ (১৫ ওভার) 

10:58:27 PM

আইপিএল: দিল্লি ক্যাপিটালস ৫৪/২ (১০ ওভার) 

10:33:05 PM

আইপিএল: দিল্লি ক্যাপিটালস ২৭/১ (৫ ওভার) 

10:09:48 PM

করোনা আক্রান্ত দেশের উপ-রাষ্ট্রপতি বেঙ্কাইয়া নাইডু 

10:01:01 PM

আইপিএল: দিল্লি ক্যাপিটালসকে ১৬৩ রানের টার্গেট দিল হায়দরাবাদ 

09:30:56 PM

আইপিএল: হায়দরাবাদ ১২৮/২ (১৬ ওভার) 

09:09:08 PM