Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

এ লড়াই বাঁচার লড়াই,
এ লড়াই জিততে হবে
তন্ময় মল্লিক

এখন দোষারোপের সময় নয়। এখন আঙুল তোলার সময় নয়। এখন সমালোচনার সময় নয়। এখন লড়াইয়ের সময়। এ এক কঠিন লড়াই। এ লড়াই বাঁচার লড়াই। এ লড়াই জিততে হবে।
লড়াই শুরু হয়ে গিয়েছে। মারণ ভাইরাস নভেল করোনার সঙ্গে মানব জাতির লড়াই। বিধ্বংসী শক্তি নিয়ে পৃথিবীর বুকে অবতীর্ণ করোনা। এই মারণ ভাইরাস গোটা বিশ্বকে কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে দাঁড় করিয়ে দিয়েছে। গভীর সঙ্কটের মুখে ফেলে দিয়েছে মানব সভ্যতাকে। চীন এই ভাইরাসের উৎপত্তিস্থল হলেও দেশের সীমানা মানেনি। ঝড়ের চেয়েও দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে এক দেশ থেকে অন্য দেশে। যে চীনে করোনা হামলার সূত্রপাত, সেখানে এখনও পর্যন্ত সরকারিভাবে ৮১ হাজারেরও বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। মারা গিয়েছেন ৩ হাজার ২৮৭জন।
মৃত্যুর ভয়াবহতায় চীনকেও ছাপিয়ে গিয়েছে ইতালি। সেখানে মৃত্যুর সংখ্যা সাত হাজারের আশপাশে। কারণ ইতালি করোনার ছোবলের বিষাক্ততাকে অনুমান করতে পারেনি। আমেরিকাতেও আক্রান্তের সংখ্যা প্রতিদিন হু হু করে বাড়ছে। বিশ্বকে বছরের পর বছর, যুগের পর যুগ শাসন করে আসা আমেরিকা ভেবেছিল, হেলায় হারাবে করোনাকে। তুচ্ছ তাচ্ছিল্য করেছিল। ভেবেছিল, তৃতীয় বিশ্বের দেশগুলোর মতোই করোনা আমেরিকার রক্তচক্ষুকে ভয় পাবে। নজজানু হয়ে বশ্যতা স্বীকার করবে। কিন্তু, ঘটেছে ঠিক তার উল্টোটাই। আমেরিকার অহঙ্কারে আঘাত হেনেছে করোনা। এই মুহূর্তে সেখানে প্রতিদিন গড়ে হাজার দশেক করে মানুষ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছেন। তাই আজ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ছাপিয়ে গিয়েছে চীনকেও। বাদ যায়নি ফ্রান্স, জার্মানি, ব্রিটেন, স্পেন সহ বিশ্বের কোনও উন্নত দেশই। যেখানেই করোনা থাবা বসাচ্ছে, সেখানেই মহামারীর ছাপ স্পষ্ট।
বিদেশে থাকা মানুষজনের হাত ধরে ভারতেও ঢুকে পড়েছে মারণ ভাইরাস। প্রথমদিকে অনেকেই ভেবেছিলেন, ঠান্ডার দেশে করোনা যতই হম্বিতম্বি করুক না কেন, গরমের দেশে পা রাখলেই বন্ধ হয়ে যাবে তার হাঁকডাক। তাপমাত্রা ২৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস অতিক্রম করলেই কাবু হবে করোনা। কিন্তু, বিশেষজ্ঞদের অনুমান ভুল প্রমাণ করে দিয়ে সে তার থাবা আরও তীক্ষ্ণ ও প্রসারিত করে চলেছে। ক্রমশই সে হয়ে উঠছে বিধ্বংসী। ভয়ঙ্কর। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে যেমন বাড়ে অভিজ্ঞতা, তেমনই করোনাও যেন অভিজ্ঞ হচ্ছে। সে দ্রুত বদলে ফেলছে নিজেকে। এখন সে যেন অনেক বেশি পরিণত। একের পর এক শক্তিশালী প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করে যেন ক্রমশই দুঃসহাসী হয়ে উঠছে। এই মুহূর্তে সে অপরাজেয়। তাকে বধ করার কোনও অস্ত্রই ব্রহ্মাণ্ডবাসীর হাতে নেই। তাই করোনা আতঙ্কে তটস্থ বিশ্ববাসী। সে থমকে দিয়েছে অগ্রগতির, সভ্যতার, এগিয়ে চলার সমস্ত চাকা। বিশ্বব্রহ্মাণ্ড থেকে মানব সভ্যতাকে উৎখাতের নেশায় সে যেন মত্ত। আসুরিক ক্ষমতায় বলীয়ান হয়ে সে যেন বিশ্ব শাসনে নেমেছে।
যা কিছু অশুভ, যা কিছু ধ্বংসাত্মক, তার শক্তি সব সময়ই হয় অত্যন্ত ভয়ঙ্কর, মারাত্মক। পুরাণ আমাদের দেখিয়েছে, আসুরিক শক্তি বারে বারে কোণঠাসা করেছে দেবশক্তিকে। কিন্তু, শেষ পর্যন্ত জয় হয়েছে সেই দেবশক্তির। ব্রহ্মার বরে পুষ্ট মহিষাসুর দেবকুলকে স্বর্গলোক থেকে উৎখাতের খেলায় মেতেছিল। অসুরকুলের দাপটে দেবতাদের আশ্রয় নিতে হয়েছিল ব্রহ্মলোকে। তারপর ব্রহ্মা, বিষ্ণু, মহেশ্বর সহ সমস্ত দেবতার শক্তিতে বলীয়ান হয়ে মা দুর্গা বধ করেছিলেন মহিষাসুরকে। জয়ী হয়েছিল শুভশক্তি।
মর্ত্যলোকে এখন অনেকটা সেই রকম পরিস্থিতিরই সৃষ্টি হয়েছে। নভেল করোনা ভাইরাসের দাপটে অতিষ্ঠ বিশ্ববাসী। তার মোকাবিলায় বিশ্বজুড়ে চলছে নানা পরীক্ষা নিরীক্ষা। চীন, আমেরিকা, ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি, ভারত সহ গোটা বিশ্বের সমস্ত চিকিৎসক এবং বিজ্ঞানী এই মারণ ভাইরাসের মোকাবিলায় নিরন্তর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। এই অবস্থায় করোনার ছোবলে গোটা বিশ্ব বিধ্বস্ত হয়ে যাচ্ছে। কিন্তু, শেষ পর্যন্ত তাকে হার মানতেই হবে। এটাই আমাদের বিশ্বাস। সেই বিশ্বাসে ভর করেই চালিয়ে যেতে হবে লড়াই। হতোদ্যম হওয়ার অবকাশ নেই। তবে, যতদিন না করোনাকে ঘায়েল করার অস্ত্র আবিষ্কার হচ্ছে, ততদিন নিজেদের সুরক্ষিত রাখতেই হবে। ক্ষুধিত পাষাণের মেহের আলির মতো একটাই মন্ত্র আমাদের জপে যেতে হবে, তফাৎ যাও, তফাৎ যাও।
সেই তফাৎ যাওয়াই আজ বিজ্ঞানের পরিভাষায়, কোয়ারেন্টাইন। নিজেকে গৃহবন্দি করে রাখার লড়াই। এ লড়াই বাঁচার লড়াই। এ লড়াই জিততে হবে। কঠোর অনুশাসনের বাঁধনে বাঁধতে হবে নিজেদের। এখন প্রমাণ করার সময়, আমরা শিক্ষিত। পুঁথিগত শিক্ষা নয়, এখন অর্জিত শিক্ষার পরীক্ষা। জীবনের পথ চলতে গিয়ে ঘাত প্রতিঘাতের মধ্যে দিয়ে আমরা একটু একটু করে যে শিক্ষা অর্জন করেছি, সেই সমস্ত শিক্ষা, অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগাতে হবে। বন্যার সময় সাপ আর মানুষ একই গাছের ডালে আশ্রয় নেয়। ভুলে যায় পারস্পরিক শত্রুতা। করোনা ভাইরাস সমগ্র মানব জাতিকে আজ এমনই বিপদের মুখে দাঁড় করিয়ে দিয়েছে। তাই আজ কোনও সমালোচনা নয়, আজ কোনও হিংসা নয়, আজ কোনও রাজনীতি নয়। আজ শুধুই লড়াই। করোনার বিরুদ্ধে লড়াই।
সেই লড়াইয়ে জিতে গেলে আমাদের সকলকে মেনে চলতে হবে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশ। মানতেই হবে তাঁদের নির্দেশিত লকডাউন। রাজ্য ও দেশ রক্ষার জন্য সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্তই তাঁরা নিয়েছেন। নিতান্ত জরুরি প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে কিছুতেই নয়। অন্য দেশের অবস্থার সঙ্গে তুলনা করলে আমরা এখনও অনেকটা ভালো জায়গায় আছি, একথা ঠিক। তবে, আত্মতুষ্টির কোনও জায়গা নেই। বাঁধনের রশি আলগা হলেই খেতে হবে করোনার ছোবল। সাপের ছোবলে মৃত্যু হয় একজনের। করোনার ছোবল খেলে তার বিষ ছড়িয়ে পড়বে গোটা পরিবারে। এই মুহূর্তে পরিবারকে, সন্তানকে ভালোবাসার পরীক্ষা দিতে হবে। আর সেই পরীক্ষার নামই হলো কোয়ারেন্টাইন।
বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা বলছেন, করোনার বিস্তার ঘটছে গুণোত্তর প্রগতিতে। অর্থাৎ তিনজন থেকে আক্রান্ত হবেন ন’জন। সেই ন’জন থেকে ২৭ জন, তারপর ৮১ জন, তারপর ২৪৩ জন, সেখান থেকে ৭২৯ জন। বৃদ্ধির হার ভয়ঙ্কর। তাই ভারতে আক্রান্তর সংখ্যা এখন যা আছে হাজারের নীচে, সতর্ক না হলে সেটা লাখ ছাড়াতে সপ্তাহও লাগবে না। আর আক্রান্তের সংখ্যা বাড়লেই ভেঙে পড়বে স্বাস্থ্য ব্যবস্থা। সুতরাং সাবধান। কথায় আছে, সাবধানের মার নেই।
একটা সময় বাংলা ছিল পথিকৃৎ। গোটা দেশ তাকিয়ে থাকত বাংলার দিকে। বাংলার সাহস, বাংলার মেধা শুধু দেশ নয়, তামাম বিশ্বে সমাদৃত। রবীন্দ্রনাথ, নজরুল, রামকৃষ্ণ, বিবেকানন্দকে গোটা বিশ্ব নতমস্তকে স্মরণ করে। ইহলোক ত্যাগের বহু বছর পরেও তাঁরা আমাদের মধ্যে বেঁচে আছেন। তাঁদের সৃষ্টি, তাঁদের শিক্ষা এবং ভাবনাই দান করেছে অমরত্ব। রবীন্দ্রনাথ আমাদের শিখিয়েছেন উদার হতে। নজরুল গেয়েছেন সাম্যবাদের গান। রামকৃষ্ণদেব শিখিয়েছেন উদারতা। স্বামী বিবেকানন্দ শিখিয়েছেন, সংযমী হতে। আজ তাঁদের প্রতিটি কথা অক্ষরে অক্ষরে পালন করে আমাদের প্রমাণ দিতে হবে, আমরা এই সমস্ত মনীষীর সার্থক উত্তরসূরি।
আর মাত্র কয়েকটা দিন। আর কয়েকটি দিনের এই চোয়ালচাপা লড়াই চালিয়ে যেতে পারলেই জয় নিশ্চিত। আমরা ফের গলার শিরা ফুলিয়ে বলতে পারব, আমরাও পারি। করোনা সঙ্কট আমাদের বাঙালি হিসেবে, ভারতবাসী হিসেবে একটা ইতিহাস সৃষ্টির সুযোগ করে দিয়েছে। সেই সুযোগ কিছুতেই হাতছাড়া করা যাবে না। এ লড়াই আমাদের বাঁচার লড়াই, এ লড়াই জিততে হবে। জিততেই হবে।
28th  March, 2020
ভীরু এবং আধখেঁচড়া
ব্যবস্থা, তবু স্বাগত
পি চিদম্বরম

গত ১৯ মার্চ, শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা করলেন যে ২২ মার্চ, রবিবার দেশজুড়ে ‘জনতা কার্ফু’ পালন করা হবে। আমি ভেবেছিলাম প্রধানমন্ত্রী জল মাপছেন, জনতা কার্ফুর শেষে তিনি নানা ধরনের লকডাউন ঘোষণা করবেন। কিন্তু রবিবার কোনও ঘোষণা শোনা গেল না। বিশদ

 করোনা যুদ্ধের অক্লান্ত সৈনিক ডাক্তারবাবুরা,
দোহাই ওদের গায়ে আর কেউ হাত তুলবেন না
হিমাংশু সিংহ

পৃথিবীব্যাপী এক ভয়ঙ্কর যুদ্ধ চলছে। অদৃশ্য জৈবযুদ্ধ। এলওসিতে দাঁড়িয়ে মেশিনগান হাতে কোনও সেনা নয়, রাফাল নিয়ে শত্রু ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলাও নয়। হাসপাতালের আইসিইউতে নিরস্ত্র ডাক্তারবাবুরা বুক চিতিয়ে এই নির্ণায়ক যুদ্ধ লড়ছেন রাতের পর রাত ক্লান্তিহীন। বিশদ

29th  March, 2020
মিসাইল বানানোর চেয়ে ডাক্তার
তৈরি অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ
মৃণালকান্তি দাস

লিউয়েনহুক যখন সাড়ে তিনশো বছর আগে আতশ কাঁচের নীচে কিলবিল করা প্রাণগুলোকে দেখতে পেয়েছিলেন, তখনও তিনি জানতেন না যে তিনি এক নতুন দুনিয়ার সন্ধান পেয়ে গিয়েছেন। তিনিই প্রথম আণুবীক্ষণিক প্রাণের দুনিয়াকে মানুষের সামনে উন্মোচিত করেন। ওই ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র প্রাণগুলোর নাম দেন ‘অ্যানিম্যালকুলস’। বিশদ

27th  March, 2020
করোনা ছুটছে গণিতের অঙ্ক মেনে,
থামাতে হবে ‘হাতুড়ি’র ঘা দিয়েই
ডাঃ সৌমিত্র ঘোষ

 জানেন কি, গণিতের নিয়ম মেনেই ভারত সহ গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ছে নোভেল করোনা ভাইরাস? একজন আক্রান্ত থেকে গুণিতক হারে অন্যদের মধ্যে ছড়াচ্ছে এই মারণ ভাইরাস! আর অসতর্কতার কারণে মাত্র এক-দু’সপ্তাহে আক্রান্তের সংখ্যা এক ঝটকায় অনেকটা বাড়ছে। ঠিক যেমন হয়েছে চীন, ইতালি, স্পেনের মতো দেশগুলিতে।
বিশদ

27th  March, 2020
পাহাড়প্রমাণ চ্যালেঞ্জ, অস্ত্র নাগরিক সচেতনতা
শান্তনু দত্তগুপ্ত

ডাঃ সুশীলা কাটারিয়া। জাতির উদ্দেশে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি যাঁদের জন্য পাঁচটা মিনিট সময় বের করার আর্জি জানিয়েছিলেন, ডাঃ কাটারিয়া তাঁদেরই মধ্যে একজন। গুরুগ্রামে একটি হাসপাতালের ইন্টারনাল মেডিসিনের ডিরেক্টর তিনি। বয়স ৪২ বছর। গত ৪ মার্চ যখন তাঁকে বলা হয়েছিল, আপনার দায়িত্বে ১৪ জন ইতালীয় পর্যটককে ভর্তি করা হচ্ছে, তখনও তিনি রোগের নাড়িনক্ষত্র ভালোভাবে জানেন না। 
বিশদ

24th  March, 2020
মন্বন্তরে মরিনি আমরা, মারী নিয়ে ঘর করি
 সন্দীপন বিশ্বাস

পৃথিবীর গভীর গভীরতর অসুখ এখন। আর এই ‘অসুখ’ থেকে বারবার মানুষ লড়াই করে ফিরে এসেছে। প্রতিবার অস্তিত্বের সঙ্কটের মুখে দাঁড়িয়ে একযোগে লড়াই করে মানুষ এগিয়ে গিয়েছে উত্তরণের পথে। প্রকৃতির কোনও মারণ আক্রমণেই সে পিছিয়ে পড়েনি। তাই মানুষ বারবার ঋণী মানুষেরই কাছে।  
বিশদ

23rd  March, 2020
কোভিড-১৯-এর বিরুদ্ধে লড়াই এবং তারপর
পি চিদম্বরম

আপনি এই লেখা যখন পড়ছেন, ততক্ষণে পরিষ্কার হয়ে গিয়েছে করোনা ভাইরাসের (কোভিড-১৯) মোকাবিলায় ভারত এগতে পারল না কি পিছনে পড়ে গেল। সরকার ব্যস্ত ভিডিও কনফারেন্সে, আক্রান্ত দেশগুলি থেকে ভারতীয়দের দেশে ফিরিয়ে আনতে এবং করোনা থেকে বাঁচার জন্য নির্দেশিকা (হাত জীবাণুমুক্ত করা, নাক-মুখ ঢেকে রাখা এবং মাস্ক পরা) জারিতে।  
বিশদ

23rd  March, 2020
ভয় পাবেন না, গুজব ছড়াবেন না, জনতা কার্ফুতে ঘরে থাকুন, বিশ্বযুদ্ধে ভাইরাস পরাজিত হবেই
হিমাংশু সিংহ

 এক মারণ ভাইরাসের ভয়ঙ্কর সংক্রমণের বিরুদ্ধে বিশ্বব্যাপী মহাযুদ্ধ চলছে। এই যুদ্ধের একদিকে করোনা আর অন্যদিকে গোটা মানবজাতির অস্তিত্ব। প্রবীণ মানুষরা বহু স্মৃতি ঘেঁটেও এমন নজির মনে করতে পারছেন না যেখানে দ্রুত ছড়িয়ে পড়া একটা রোগ ঘিরে এমন ত্রাস, আতঙ্ক দানা বেঁধেছে মানুষের মনে।
বিশদ

22nd  March, 2020
লড়াই
তন্ময় মল্লিক

 করোনা ভাইরাস। এই দু’টি শব্দই গোটা বিশ্বকে কাঁপিয়ে দিচ্ছে। করোনা আতঙ্কে থরহরি কম্প গোটা পৃথিবী। চীন, জার্মানি, ইতালি, আমেরিকা, ইংল্যান্ড, ফ্রান্স সহ বিশ্বের প্রথম সারির দেশগুলিকে ক্ষতবিক্ষত করে করোনা এবার থাবা বসাতে শুরু করেছে তৃতীয় বিশ্বের দেশগুলিতে।
বিশদ

21st  March, 2020
সময় এসেছে সিরিয়াস কিছু প্রশ্নের
সমৃদ্ধ দত্ত

তাহলে কিছুটা নিশ্চয়ই বোঝা গেল নিজের পাড়ায় দাঙ্গা এলে কী হবে? অতএব এটাও আশা করি আন্দাজ করা গেল যে, এনআরসি, সিএএ, এনপিআর, কংগ্রেস, বিজেপি, সিপিএম, হিন্দু মুসলমান সবই হল নেহাত সাধারণ টাইমপাস।  বিশদ

20th  March, 2020
যুদ্ধপরিস্থিতি
মেরুনীল দাশগুপ্ত

 এ সবকিছুর জন্য দায়ী ওই চীন, বুঝলেন। চীনেরাই ওই করোনা তৈরি করেছে। করে সামলাতে পারেনি। কোনওভাবে সেটা ফাঁক গলে বেরিয়ে পড়েছে। এখন নিজেরাও মরছে, আমাদেরও বিপদে ফেলে দিয়েছে। কাগজে পড়ছি ফ্রান্স, ইতালি, ইরান, ইরাক, আমেরিকা সব নাকি ওই ভাইরাসের দাপটে একেবারে নাজেহাল। বিশদ

19th  March, 2020
করোনায় আতঙ্কে অর্থনীতি
শান্তনু দত্তগুপ্ত

অমিতাভ রায় এখনও লন্ডনে। সঙ্গে স্ত্রী, আর সাড়ে পাঁচ বছরের ছেলে। নামজাদা তথ্য-প্রযুক্তি কোম্পানির কর্মী অমিতাভ। পেশার চাপে দেশে আগে দেশে ফিরতে পারেননি। এই দফায় আর হলও না...। একবুক আতঙ্ক নিয়ে বিদেশের মাটিতে কাটছে প্রত্যেকটা মুহূর্ত। কিন্তু সেটাও কতদিন! জানেন না তিনি। হাড়ে হাড়ে বুঝছেন, বাজারটা খালি হয়ে যাচ্ছে।
বিশদ

17th  March, 2020
একনজরে
বিএনএ, বহরমপুর: বাংলাদেশেও করোনার দাপট শুরু হয়ে যাওয়ায় সীমান্তবর্তী এলাকায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা আঁটোসাঁটো করল বিএসএফ। বাংলাদেশ সীমান্তের যেসব এলাকায় কাঁটাতার নেই সেখানে জওয়ানরা কার্যত ত্রিস্তরীয় ...

 রূপাঞ্জনা দত্ত, লন্ডন, ২৯ মার্চ: করোনা ভাইরাস মহামারীর মধ্যে ভারতে আটকে পড়া কয়েক হাজার ব্রিটিশ নাগরিকদের দেশে ফেরাতে বিদেশমন্ত্রী ডমিনিক রাবের কাছে আর্জি জানালেন লন্ডন অ্যাসেম্বলির সদস্য নবীন শাহ। ...

সংবাদদাতা, ময়নাগুড়ি: আজ, সোমবার থেকে ময়নাগুড়ি পুরাতন বাজারের মুদিখানা এবং ওষুধের দোকানগুলি অন্যান্য সময়ের মতোই খোলা থাকবে। কিছু দিন আগে ব্যবসায়ী সমিতি বৈঠক করে স্থির করেছিল মুদিখানা দোকান সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টে পর্যন্ত খোলা রাখা হবে।   ...

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: করোনা প্রতিরোধে জরুরি পরিষেবার সঙ্গে যুক্তদের জন্য যুদ্ধকালীন তৎপরতায় প্রতিদিন চার লক্ষ বোতল পানীয় জল সরবরাহ করছে জনস্বাস্থ্য কারিগরি দপ্তর (পিএইচই)। মুখ্যমন্ত্রী ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

ব্যবসায়ে যুক্ত হলে এই মুহূর্তে খুব একটা ভালো যাবে না। প্রেম প্রণয়ে বাধা। কারও সাথে ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

বিশ্ব চিকিৎসক দিবস
১৮৯৯ - বাঙালি লেখক ও চিত্রনাট্যকার শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়ের জন্ম
১৯১৯: রাওলাট আইনের বিরুদ্ধে প্রতিরোধের ডাক গান্ধীজির
১৯৪৫: অস্ট্রিয়াকে আক্রমণ করল সোভিয়েত ইউনিয়ন
১৯৫৬- বাংলা ভাষার রূপকথার বিশিষ্ট রচয়িতা ও সংগ্রাহক দক্ষিণারঞ্জন মিত্রমজুমদারের মৃত্যু
১৯৫৬: পরমাণু পরীক্ষা করল সোভিয়েত ইউনিয়ন
১৯৬৫- বাঙালি সাহিত্যিক সতীনাথ ভাদুড়ীর মৃত্যু
১৯৭৯ - মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিশিষ্ট জ্যাজ্ সঙ্গীত শিল্পী, পিয়ানো বাদক এবং অভিনেত্রী নোরা জোন্সের জন্ম
১৯৮১: ওয়াশিংটন ডিসি’র এক হোটেলের বাইরে জন হিঙ্কলে নামে এক ব্যক্তি প্রেসিডেন্ট রোনাল্ড রেগনকে গুলি করেন
১৯৮৬ - স্প্যানিশ ফুটবল খেলোয়াড় সার্জিও র্যামোসের জন্ম
২০০২- বিশিষ্ট কবি ও গীতিকার আনন্দ বক্সীর মৃত্যু
২০১৩ - মার্কিন কবি ও শিক্ষাবিদ ড্যানিয়েল হফম্যানের মৃত্যু



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৩.৫৯ টাকা ৭৫.৩১ টাকা
পাউন্ড ৮৯.৬০ টাকা ৯২.৮৬ টাকা
ইউরো ৮০.৮৪ টাকা ৮৩.৮৬ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
28th  March, 2020
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪১,৮৮০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৯,৭৩০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪০,৩৩০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৮,৮০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৮,৯০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
22nd  March, 2020

দিন পঞ্জিকা

১৬ চৈত্র ১৪২৬, ৩০ মার্চ ২০২০, সোমবার, (চৈত্র শুক্লপক্ষ) ষষ্ঠী ৫৪/১১ রাত্রি ৩/১৫। রোহিণী ২৯/১৭ অপঃ ৫/১৮। সূ উ ৫/৩৪/৫৩, অ ৫/৪৭/৩১, অমৃতযোগ দিবা ৭/১২ মধ্যে পুনঃ ১০/২৭ গতে ১/৫৪ মধ্যে। রাত্রি ৬/৩৫ গতে ৮/৫৬ মধ্যে পুনঃ ১১/১৭ গতে ২/২৫ মধ্যে, বারবেলা ৭/৭ গতে ৮/৩৮ মধ্যে পুনঃ ২/৪৪ গতে ৪/১৬ মধ্যে। কালরাত্রি ১০/১২ গতে ১১/৪০ মধ্যে।
১৬ চৈত্র ১৪২৬, ৩০ মার্চ ২০২০, সোমবার, ষষ্ঠী ৪২/৪৭/৫১ রাত্রি ১০/৪৩/৫১। রোহিণী ১৯/৫৮/২৮ দিবা ১/৩৬/৬। সূ উ ৫/৩৬/৪৩, অ ৫/৪৭/৪৪। অমৃতযোগ দিবা ৭/৫ মধ্যে ও ১০/২৪ গতে ১২/৫৩ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/৩৭ গতে ৮/৫৬ মধ্যে ও ১১/১৫ গতে ২/২০ মধ্যে। কালবেলা ৭/৮/৬ গতে ৮/৩৯/২৮ মধ্যে।
৫ শাবান

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
করোনা: গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে আক্রান্ত মোট ২২৭ জন 

11:49:49 PM

করোনা: তেলেঙ্গানায় নতুন করে আক্রান্ত হলেন ৬ জন 

11:15:52 PM

তারাপীঠ মন্দিরের জেনারেটর রুমে আগুন, অকুস্থলে দমকলের ১টি ইঞ্জিন 

09:12:28 PM

করোনা: দিল্লিতে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৯৭ 

09:08:28 PM

 করোনা: রাজ্যে আক্রান্ত আরও ২

09:00:11 PM

লকডাউনে প্রতিদিন দুপুর ১২টা-৪টে পর্যন্ত খোলা থাকবে মিষ্টির দোকান: মমতা 

07:37:30 PM