Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

বিশ্ববাজারে ক্ষমতা হারাচ্ছে চীন
মৃণালকান্তি দাস

গত বছর গোটা দুনিয়ার অর্থনীতিকেই ধাক্কা দিয়েছিল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের শুল্ক-যুদ্ধ। যার প্রভাবে বিভিন্ন দেশে বৃদ্ধির হার কমেছে। এরই সঙ্গে ইউরোপে যোগ হয়েছিল ব্রেক্সিট ঘিরে অনিশ্চয়তা। এই দু’টি বিষয় এখন কিছুটা হলেও নিয়ন্ত্রণে। যখন ভাবা হচ্ছিল নতুন বছরে অর্থনীতির পালে হাওয়া লাগবে, ঠিক তখনই এসেছে নতুন ধাক্কা। শুরুটা গত ডিসেম্বরে। হঠাৎ নিউমোনিয়ায় থরহরি কম্প চীনের উহান শহর। আবির্ভাব ভয়ঙ্কর ‘নভেল করোনা ভাইরাসের’। এই মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর থেকে দেড় মাস ‘তালাবন্ধ’ উহান শহর। ধীরে ধীরে তালা পড়েছে আশপাশের ১৮টি শহরে। ‘গৃহবন্দি’ হুবেই প্রদেশের ৫ কোটি মানুষ। সরকারি হিসেবে, মৃতের সংখ্যা ২৬০০ ছাড়িয়েছে। সংক্রমিত অন্তত ৭৭,০০০। বিশেষজ্ঞদের অনুমান, করোনার বিস্তার হয়তো কল্পনার পরিসর ছাড়াতে চলেছে। ইতালি থেকে সুদূর ইজরায়েলেও ছড়িয়ে পড়েছে ওই ভাইরাসের উপস্থিতি। চীনের চলতি বিপর্যয়ে ইউরোপ-আমেরিকার প্রাথমিক গোপন উচ্ছ্বাসও উবে গিয়েছে ইতিমধ্যে। কারণ, গোটা বিশ্ব অর্থনীতিতেও ধাক্কা দিয়েছে এই ভাইরাস।
অথচ, ২০২০-২১ সাল হওয়ার কথা ছিল চীনের ইতিহাসের স্বর্ণালি বছর। পরিকল্পনা ছিল, এই বছর ১৪০ কোটি মানুষের দেশ চীন থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে দারিদ্র্য বিদায়ের কথা ঘোষণা করা হবে। পরের বছর হবে দেশের শাসক দল কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিসি) প্রতিষ্ঠার ১০০ বছর পূর্তি উৎসব। আর ২০২২-এ হওয়ার কথা দলের নেতা হিসেবে জি জিনপিং জমানার ১০ বছর পূর্তি। কিন্তু একটা ভাইরাসের ছোবল বদলে দিয়েছে গোটা পরিস্থিতি। করোনা শনাক্ত হওয়ার পর থেকে প্রতিদিন বদলে যাচ্ছে চীন। বিশ্বের কর্তৃত্ববাদী শাসকদের অন্যতম মডেল চীন। উন্নয়ন ও গণতন্ত্রের মধ্যে একটাকে বেছে নেওয়ার জন্য চীনকে দৃষ্টান্ত হিসেবে তুলে ধরা হতো। বিশ্বের যে শাসকদের এতদিন ‘আঙ্কেল জি’ হওয়ার বাসনা ছিল, তারাও এখন চীনের থেকে নিজেকে যতটা সম্ভব দূরে সরিয়ে রাখতে ব্যস্ত। রাশিয়া, হংকং, উত্তর কোরিয়াও তাদের সীমান্তের দরজা বন্ধ করে দিয়েছে। ইতিমধ্যে চীন বিশ্বে প্রায় একঘরে হয়ে পড়েছে। অসন্তোষ বাড়ছে ‘কমিউনিস্ট পার্টি’র বিরুদ্ধেও।
প্রেসিডেন্ট জি জিনপিংও জনসমক্ষে আসা কমিয়ে দিয়েছেন। সিপিসির ৭০ বছরের শক্ত মেরুদণ্ডে ক্ষীণ এক আতঙ্কবোধ বইতে শুরু করেছে। যে পার্টি এত দিন ২০৪৯-এ চীনের বিপ্লবের শত বছর পূর্তির আয়োজন নিয়ে ভাবছিল, তারা এখন আগামী দিনগুলো নিয়ে ভাবতে বসেছে। ঝাঁপ বন্ধ হয়ে গিয়েছে একের পর এক শিল্প-কারখানার। আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ডগুলো ইতিমধ্যে চীনের বহু শহরে তাদের দোকানপাট ও কার্যালয় বন্ধ করে দিয়েছে। আফ্রিকা ও এশিয়ার যেসব দেশে চীনের যৌথ বিনিয়োগ রয়েছে, সেখানে কাজের গতি থমকে গিয়েছে। করোনা যেখান থেকে ছড়িয়েছে, সেই উহান চীনের শিক্ষা ও বিজ্ঞানচর্চার তৃতীয় গুরুত্বপূর্ণ জায়গা। ৮৩টি বড় বড় কারিগরি প্রতিষ্ঠান রয়েছে এখানে। শহরটি অবস্থা আপাতত মৃত্যুপুরী। এর চারপাশের শহরগুলোও স্তব্ধ। এই মুহূর্তে সবচেয়ে ক্ষতির মুখে পড়েছে পর্যটন ক্ষেত্র। হোটেল-রেস্টুরেন্টের বিপন্ন দশা। গত বছর চীনের জিডিপি ছিল ৬ শতাংশ। যা গত তিন দশকের মধ্যে সর্বনিম্ন। চলতি বছর তা আরও কমে যাবে। এখন কল্পনা করাও কঠিন যে ঠিক এক দশক আগে ২০১০-এ চীনের জিডিপি ছিল ১০ শতাংশ।
গোটা বিশ্বের মতো ভারতের বাজারও হারাচ্ছে চীন। তথ্য বলছে, চীন ২০১৩-১৪ থেকে ২০১৭-১৮ অর্থবছর পর্যন্ত ভারতের শীর্ষ বাণিজ্যিক অংশীদার ছিল। বর্তমানে ভারতের শীর্ষ বাণিজ্যিক অংশীদারে পরিণত হয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। দেশের বাণিজ্য মন্ত্রকের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৮-১৯ অর্থবছরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ভারতের দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য হয়েছে ৮ হাজার ৭৯৫ কোটি ডলার। একই সময় চীনের সঙ্গে এই বাণিজ্যের পরিমাণ ছিল প্রায় ৮ হাজার ৭০৭ কোটি ডলার। একইভাবে ২০১৯-২০ অর্থবছরের এপ্রিল থেকে ডিসেম্বরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র-ভারতের বাণিজ্যের পরিমাণ গিয়ে দাঁড়ায় ৬ হাজার ৮০০ কোটি ডলারে। অন্যদিকে ওই সময়ে ৬ হাজার ৪৯৬ কোটি ডলারের দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য হয় ভারত ও চীনের মধ্যে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বাণিজ্যের এই ধারা ভবিষ্যতে অব্যাহত থাকবে। চীন ক্রমশ পিছিয়ে পড়বে। করোনা ভাইরাসের মহামারী নাছোড়বান্দার মতো লেগে থাকলে চীনের পক্ষে ভারতের মাটিতে ব্যবসা-বাণিজ্য চালানো মুশকিল হবে।
মারণ ভাইরাস চোখ রাঙাচ্ছে দক্ষিণ কোরিয়া, ইরান, ইতালির মতো দেশে। করোনা ভাইরাসের আক্রমণে ইরানে এখনও পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ১২ জনের। আক্রান্তের সংখ্যা ৬১ ছাড়িয়েছে। এঁদের মধ্যে রয়েছেন স্বয়ং দেশের উপস্বাস্থ্যমন্ত্রীও। আতঙ্ক ছড়াচ্ছে ইতালি আর দক্ষিণ কোরিয়াতেও। ইতালিতে এখনও পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ৫। দক্ষিণ কোরিয়ায় আক্রান্তের সংখ্যা ৯০০। স্বাভাবিকভাবেই বিশ্বের বিভিন্ন দেশে চীন সম্পর্কে বৈরী মনোভাব বেড়ে গিয়েছে। অনেক সময় তা বাস্তবিক উদ্বেগের মাত্রাকে ছাড়িয়ে যাচ্ছে। জাপানে ট্যুইটার ট্রেন্ডিংয়ে রয়েছে ‘চীনারা জাপানে এসো না’ হ্যাশট্যাগ। সিঙ্গাপুরে কয়েক হাজার মানুষ চীনা নাগরিকদের প্রবেশ নিষিদ্ধ করতে একটি আবেদন করেছেন সরকারের কাছে। হংকং, দক্ষিণ কোরিয়া ও ভিয়েতনামের ব্যবসায়ীরা একটি প্রতীক তুলে ধরছেন। যাতে বলা হচ্ছে, চীনা ক্রেতাদের স্বাগত জানানো হবে না। ফ্রান্সে একটি আঞ্চলিক দৈনিক পত্রিকায় ‘হলুদ সংকেত’ প্রকাশ করে সতর্কতা জারি করেছে। কানাডার টরেন্টোর উপকূলে একটি স্কুলের অভিভাবকরা দাবি করেছেন, সম্প্রতি চীন থেকে ফেরা একটি পরিবারের শিশুদের ১৭ দিনের জন্য ক্লাসে ঢুকতে দেওয়া যাবে না। ভিয়েতনামের জনপ্রিয় পর্যটন এলাকা হোই অ্যান-এ ব্রেড বক্স নামে একটি রেস্তরাঁর মালিক এই মাসের শুরুতে একটি সাইনবোর্ড টানিয়েছেন। তাতে লেখা রয়েছে, ‘আমরা চীনাদের পরিষেবা দিতে পারছি না, দুঃখিত’। ডানাং রিভারসাইট হোটেল ঘোষণা করে দিয়েছে, ভাইরাসের কারণে তারা কোনও চীনা অতিথিকে গ্রহণ করবে না। জাপানে ট্যুইটারে চীনের পর্যটকদের ‘নোংরা’ এবং ‘রাসায়নিক সন্ত্রাসবাদী’ বলে প্রচার করা হচ্ছে। ইউনিভার্সিটি অব হাওয়াইয়ের এশিয়ান স্টাডিসের সহকারী অধ্যাপক ক্রিস্টি গোভেলার কথায়, এরকম চীনবিরোধী মনোভাবের নেপথ্যে অর্থনৈতিক উত্তেজনার আশঙ্কা রয়েছে।
করোনা আতঙ্কের বাজ পড়েছে বিশ্ব বাজারে। বিশ্বজুড়ে প্রতিটি শেয়ার বাজারে পতন শুরু হয়েছে। আন্তর্জাতিক অর্থভাণ্ডারও (আইএমএফ) সতর্ক করে বলেছে, করোনার জেরে বিশ্ব অর্থনীতির ঘুরে দাঁড়ানো আরও কঠিন হতে পারে। ইতিমধ্যেই এর বিরূপ প্রভাব পড়েছে চীনের অর্থনীতিতে। যার প্রভাব কাটাতে দ্বিতীয় ত্রৈমাসিক ফুরিয়ে যেতে পারে। এই অবস্থায় অন্যান্য দেশে ভাইরাসের প্রভাব বাড়লে, তা হবে মারাত্মক। অবস্থা সামলানোই কঠিন হবে। ভারত সহ বিভিন্ন দেশের শেয়ার বাজারকে টেনে নামাচ্ছে সেই আশঙ্কাই। অন্যদিকে সুরক্ষিত সোনায় লগ্নি বাড়ছে। ফলে বাড়ছে তার চাহিদা। বিশ্ব বাজারে চড়ছে দাম। আর ভারতে সোনার দাম মূলত ওঠানামা করে আন্তর্জাতিক দামের ভিত্তিতেই। তার উপর ডলারের সাপেক্ষে টাকার দাম তিন মাসের তলানি ছুঁয়েছে। এ দেশে প্রয়োজনীয় সোনার প্রায় সবটাই মেটাতে হয় আমদানি করে। আর তা হয় ডলারে। এই পরিস্থিতিতে বিদেশ থেকে সোনা কেনার জন্য ডলার জোগাড় করতে টাকা লাগছে বেশি। এটাও ঠেলে তুলছে সোনার দামকে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনা সংক্রমণের ভয় যে আন্তর্জাতিক দুনিয়ায় আমদানি-রপ্তানির পথে বিরাট বাধা হতে পারে, তা পরিষ্কার। তার উপরে চীনের মতো এত বড় অর্থনীতি ধাক্কা খেলে, তার প্রভাব বইতে বাধ্য গোটা বিশ্ব। সেই ঝাপ্টা থেকে বাদ যাবে না ভারতও। পণ্য জোগান ব্যাহত হওয়ায় আর্থিক ক্ষেত্রে বড় মাপের সমস্যা দেখা দিতে পারে। এর বিরূপ প্রভাব ইতিমধ্যেই শিল্পক্ষেত্রে পড়তে শুরু করেছে।
সব থেকে বড় কথা, জীবনের প্রতি পদে রাষ্ট্রীয় নিষেধাজ্ঞা ও বিধিনিষেধ কতটা বিধ্বংসী হয়ে উঠতে পারে, তা চীনের মানুষ প্রাণ দিয়ে বুঝতে পারছে। এর ফলে সবচেয়ে ভয়ানক যে ঘটনা ঘটতে পারে, তা হল চীনে শাসনব্যবস্থাটাই ভেঙে পড়তে পারে। এটা এমন নয় যে হুট করে সরকারের পতন হবে। এই মহামারী আরও বিস্তৃত হলে জন-অস্থিরতা বেড়ে যেতে পারে এবং তা গৃহযুদ্ধে মোড় নিতে পারে। গৃহযুদ্ধের একপর্যায়ে ইরাকের সাদ্দাম হোসেন এবং লিবিয়ার গদ্দাফিকে উৎখাত হতে হয়েছিল। চীনে যদি সে ধরনের গৃহযুদ্ধ বাধে, তাহলে তা গোটা বিশ্বের জন্য মহাদুর্যোগ বয়ে আনবে। ইউনিভার্সিটি অব মিশিগানের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ইউয়েন অং-এর দাবি, চীনের অভ্যন্তরীণ কড়াকড়ি নীতি নিয়ে যে সমালোচনার ঝড় উঠেছে, তার দায় জি জিনপিং এড়াতে পারেন না। যে চিকিৎসক করোনা ভাইরাসের বিষয়ে প্রথম সবাইকে সতর্ক করার পর সরকারের হাতে নিগৃহীত হয়েছিলেন, সেই লি ওয়েনলিয়াং ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়ায় সরকারের উপর মানুষ ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রেসিডেন্ট জিনপিংয়ের তীব্র সমালোচনা শুরু হয়েছে। যা এতদিন ভাবাই যেত না। সর্বত্র একটাই প্রশ্ন, তাহলে কি আঙ্কেল জি-র স্বর্ণযুগ শেষ হচ্ছে? 
28th  February, 2020
 করোনা যুদ্ধের অক্লান্ত সৈনিক ডাক্তারবাবুরা,
দোহাই ওদের গায়ে আর কেউ হাত তুলবেন না
হিমাংশু সিংহ

পৃথিবীব্যাপী এক ভয়ঙ্কর যুদ্ধ চলছে। অদৃশ্য জৈবযুদ্ধ। এলওসিতে দাঁড়িয়ে মেশিনগান হাতে কোনও সেনা নয়, রাফাল নিয়ে শত্রু ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলাও নয়। হাসপাতালের আইসিইউতে নিরস্ত্র ডাক্তারবাবুরা বুক চিতিয়ে এই নির্ণায়ক যুদ্ধ লড়ছেন রাতের পর রাত ক্লান্তিহীন। বিশদ

এ লড়াই বাঁচার লড়াই,
এ লড়াই জিততে হবে
তন্ময় মল্লিক

 এখন দোষারোপের সময় নয়। এখন আঙুল তোলার সময় নয়। এখন সমালোচনার সময় নয়। এখন লড়াইয়ের সময়। এ এক কঠিন লড়াই। এ লড়াই বাঁচার লড়াই। এ লড়াই জিততে হবে।
বিশদ

28th  March, 2020
মিসাইল বানানোর চেয়ে ডাক্তার
তৈরি অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ
মৃণালকান্তি দাস

লিউয়েনহুক যখন সাড়ে তিনশো বছর আগে আতশ কাঁচের নীচে কিলবিল করা প্রাণগুলোকে দেখতে পেয়েছিলেন, তখনও তিনি জানতেন না যে তিনি এক নতুন দুনিয়ার সন্ধান পেয়ে গিয়েছেন। তিনিই প্রথম আণুবীক্ষণিক প্রাণের দুনিয়াকে মানুষের সামনে উন্মোচিত করেন। ওই ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র প্রাণগুলোর নাম দেন ‘অ্যানিম্যালকুলস’। বিশদ

27th  March, 2020
করোনা ছুটছে গণিতের অঙ্ক মেনে,
থামাতে হবে ‘হাতুড়ি’র ঘা দিয়েই
ডাঃ সৌমিত্র ঘোষ

 জানেন কি, গণিতের নিয়ম মেনেই ভারত সহ গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ছে নোভেল করোনা ভাইরাস? একজন আক্রান্ত থেকে গুণিতক হারে অন্যদের মধ্যে ছড়াচ্ছে এই মারণ ভাইরাস! আর অসতর্কতার কারণে মাত্র এক-দু’সপ্তাহে আক্রান্তের সংখ্যা এক ঝটকায় অনেকটা বাড়ছে। ঠিক যেমন হয়েছে চীন, ইতালি, স্পেনের মতো দেশগুলিতে।
বিশদ

27th  March, 2020
পাহাড়প্রমাণ চ্যালেঞ্জ, অস্ত্র নাগরিক সচেতনতা
শান্তনু দত্তগুপ্ত

ডাঃ সুশীলা কাটারিয়া। জাতির উদ্দেশে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি যাঁদের জন্য পাঁচটা মিনিট সময় বের করার আর্জি জানিয়েছিলেন, ডাঃ কাটারিয়া তাঁদেরই মধ্যে একজন। গুরুগ্রামে একটি হাসপাতালের ইন্টারনাল মেডিসিনের ডিরেক্টর তিনি। বয়স ৪২ বছর। গত ৪ মার্চ যখন তাঁকে বলা হয়েছিল, আপনার দায়িত্বে ১৪ জন ইতালীয় পর্যটককে ভর্তি করা হচ্ছে, তখনও তিনি রোগের নাড়িনক্ষত্র ভালোভাবে জানেন না। 
বিশদ

24th  March, 2020
মন্বন্তরে মরিনি আমরা, মারী নিয়ে ঘর করি
 সন্দীপন বিশ্বাস

পৃথিবীর গভীর গভীরতর অসুখ এখন। আর এই ‘অসুখ’ থেকে বারবার মানুষ লড়াই করে ফিরে এসেছে। প্রতিবার অস্তিত্বের সঙ্কটের মুখে দাঁড়িয়ে একযোগে লড়াই করে মানুষ এগিয়ে গিয়েছে উত্তরণের পথে। প্রকৃতির কোনও মারণ আক্রমণেই সে পিছিয়ে পড়েনি। তাই মানুষ বারবার ঋণী মানুষেরই কাছে।  
বিশদ

23rd  March, 2020
কোভিড-১৯-এর বিরুদ্ধে লড়াই এবং তারপর
পি চিদম্বরম

আপনি এই লেখা যখন পড়ছেন, ততক্ষণে পরিষ্কার হয়ে গিয়েছে করোনা ভাইরাসের (কোভিড-১৯) মোকাবিলায় ভারত এগতে পারল না কি পিছনে পড়ে গেল। সরকার ব্যস্ত ভিডিও কনফারেন্সে, আক্রান্ত দেশগুলি থেকে ভারতীয়দের দেশে ফিরিয়ে আনতে এবং করোনা থেকে বাঁচার জন্য নির্দেশিকা (হাত জীবাণুমুক্ত করা, নাক-মুখ ঢেকে রাখা এবং মাস্ক পরা) জারিতে।  
বিশদ

23rd  March, 2020
ভয় পাবেন না, গুজব ছড়াবেন না, জনতা কার্ফুতে ঘরে থাকুন, বিশ্বযুদ্ধে ভাইরাস পরাজিত হবেই
হিমাংশু সিংহ

 এক মারণ ভাইরাসের ভয়ঙ্কর সংক্রমণের বিরুদ্ধে বিশ্বব্যাপী মহাযুদ্ধ চলছে। এই যুদ্ধের একদিকে করোনা আর অন্যদিকে গোটা মানবজাতির অস্তিত্ব। প্রবীণ মানুষরা বহু স্মৃতি ঘেঁটেও এমন নজির মনে করতে পারছেন না যেখানে দ্রুত ছড়িয়ে পড়া একটা রোগ ঘিরে এমন ত্রাস, আতঙ্ক দানা বেঁধেছে মানুষের মনে।
বিশদ

22nd  March, 2020
লড়াই
তন্ময় মল্লিক

 করোনা ভাইরাস। এই দু’টি শব্দই গোটা বিশ্বকে কাঁপিয়ে দিচ্ছে। করোনা আতঙ্কে থরহরি কম্প গোটা পৃথিবী। চীন, জার্মানি, ইতালি, আমেরিকা, ইংল্যান্ড, ফ্রান্স সহ বিশ্বের প্রথম সারির দেশগুলিকে ক্ষতবিক্ষত করে করোনা এবার থাবা বসাতে শুরু করেছে তৃতীয় বিশ্বের দেশগুলিতে।
বিশদ

21st  March, 2020
সময় এসেছে সিরিয়াস কিছু প্রশ্নের
সমৃদ্ধ দত্ত

তাহলে কিছুটা নিশ্চয়ই বোঝা গেল নিজের পাড়ায় দাঙ্গা এলে কী হবে? অতএব এটাও আশা করি আন্দাজ করা গেল যে, এনআরসি, সিএএ, এনপিআর, কংগ্রেস, বিজেপি, সিপিএম, হিন্দু মুসলমান সবই হল নেহাত সাধারণ টাইমপাস।  বিশদ

20th  March, 2020
যুদ্ধপরিস্থিতি
মেরুনীল দাশগুপ্ত

 এ সবকিছুর জন্য দায়ী ওই চীন, বুঝলেন। চীনেরাই ওই করোনা তৈরি করেছে। করে সামলাতে পারেনি। কোনওভাবে সেটা ফাঁক গলে বেরিয়ে পড়েছে। এখন নিজেরাও মরছে, আমাদেরও বিপদে ফেলে দিয়েছে। কাগজে পড়ছি ফ্রান্স, ইতালি, ইরান, ইরাক, আমেরিকা সব নাকি ওই ভাইরাসের দাপটে একেবারে নাজেহাল। বিশদ

19th  March, 2020
করোনায় আতঙ্কে অর্থনীতি
শান্তনু দত্তগুপ্ত

অমিতাভ রায় এখনও লন্ডনে। সঙ্গে স্ত্রী, আর সাড়ে পাঁচ বছরের ছেলে। নামজাদা তথ্য-প্রযুক্তি কোম্পানির কর্মী অমিতাভ। পেশার চাপে দেশে আগে দেশে ফিরতে পারেননি। এই দফায় আর হলও না...। একবুক আতঙ্ক নিয়ে বিদেশের মাটিতে কাটছে প্রত্যেকটা মুহূর্ত। কিন্তু সেটাও কতদিন! জানেন না তিনি। হাড়ে হাড়ে বুঝছেন, বাজারটা খালি হয়ে যাচ্ছে।
বিশদ

17th  March, 2020
একনজরে
বিএনএ, শিলিগুড়ি: বৃহস্পতিবার উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের পরীক্ষা শুরু হওয়ার কথা থাকলেও শেষ পর্যন্ত তাতে বাধা পড়ে। এই পরিস্থিতিতে সোমবার থেকে উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চালু হতে চলেছে ভাইরাল রিসার্চ সেন্টার অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার বা ভিআরডিএল ল্যাব। ...

বিএনএ, মেদিনীপুর: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হস্তক্ষেপে শালবনীর সিমেন্ট কারখানায় আটকে থাকা ভিনরাজ্যের শ্রমিকদের এক মাসের রেশনের ব্যবস্থা করা হল। লকডাউনের জেরে সিমেন্ট কারখানার সেকেন্ড ইউনিটে ভিনরাজ্যের সাড়ে চারশো শ্রমিক আটকে পড়েছিলেন।  ...

  তেল আভিব, ২৮ মার্চ (পিটিআই): বিশ্বজুড়ে করোনা ভাইরাস নিয়ে আতঙ্কের মধ্যেই ৩১৪ জন নাগরিককে দেশে ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য এয়ার ইন্ডিয়াকে ধন্যবাদ জানাল ইজরায়েল। ...

  বিএনএ, বারাসত ও বারাকপুর: করোনার ভাইরাস দূর করতে এবার জল কামান নিয়ে রাস্তায় নামল বারাসত জেলা পুলিস। শনিবার বারাসতের ডাক বাংলো থেকে দোলতলা পর্যন্ত ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় সাফল্য আসবে। প্রেম-প্রণয়ে আগ্রহ বাড়বে। তবে তা বাস্তবায়িত হওয়াতে সমস্যা আছে। লোহা ও ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮৫৭: বারাকপুরে মঙ্গল পাণ্ডের নেতৃত্বে শুরু হল সিপাহী বিদ্রোহ
১৯২৯: অভিনেতা উৎপল দত্তের জন্ম
১৯৮২: তেলুগু দেশম পার্টির প্রতিষ্ঠা





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৩.৫৯ টাকা ৭৫.৩১ টাকা
পাউন্ড ৮৯.৬০ টাকা ৯২.৮৬ টাকা
ইউরো ৮০.৮৪ টাকা ৮৩.৮৬ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
28th  March, 2020
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪১,৮৮০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৯,৭৩০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪০,৩৩০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৮,৮০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৮,৯০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
22nd  March, 2020

দিন পঞ্জিকা

১৫ চৈত্র ১৪২৬, ২৯ মার্চ ২০২০, রবিবার, (চৈত্র শুক্লপক্ষ) পঞ্চমী ৫১/৫ রাত্রি ২/২। কৃত্তিকা ২৪/১৪ দিবা ৩/১৮। সূ উ ৫/৩৫/৫২, অ ৫/৪৭/৮, অমৃতযোগ দিবা ৬/৩৫ গতে ৯/৪০ মধ্যে। রাত্রি ৭/২১ গতে ৮/৫৬ মধ্যে, বারবেলা ১০/১০ গতে ১/১৩ মধ্যে। কালরাত্রি ১/৯ গতে ২/৩৮ মধ্যে।
১৫ চৈত্র ১৪২৬, ২৯ মার্চ ২০২০, রবিবার, পঞ্চমী ৪১/৩৯/১২ রাত্রি ১০/১৭/২৪। কৃত্তিকা ১৬/৫০/৮ দিবা ১২/২১/৪৬। সূ উ ৫/৩৭/৪৩, অ ৫/৪৭/২২। অমৃতযোগ দিবা ৬/১৫ মধ্যে ও ১২/৫২ গতে ১/৪১ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/৩৬ গতে ৭/২২ মধ্যে ও ১২/১ গতে ৩/৬ মধ্যে। কালবেলা ১১/৪২/৩২ গতে ১/১৩/৪৫ মধ্যে।
 ৪ শাবান

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
জলপাইগুড়িতে সাধারণদের মধ্যে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করলেন উত্তরবঙ্গ উন্নয়নমন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ 

12:56:00 PM

জলপাইগুড়ির বানারহাটে দূরত্ব বজায় রেখে রেশন বিলি করা হল চা শ্রমিকদের মধ্যে

12:55:00 PM

করোনা: রাজ্যের ত্রান তহবিলে সাড়ে ৫ লক্ষ টাকা দিলেন কাউন্সিলর সুশান্ত ঘোষ 
১০৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর তথা ১২ নং বরো-র চেয়ারম্যান সুশান্ত ...বিশদ

12:49:00 PM

মুখ্যমন্ত্রীর প্রশংসায় রাজ্যপাল
করোনা মোকাবিলায় পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী যে পদক্ষেপ নিচ্ছেন তার ভূয়সী প্রশংসা ...বিশদ

12:41:03 PM

ভূস্বর্গেও বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা
ভূস্বর্গে কাশ্মীরেও বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। আজ এখানকার আরও ৫ ...বিশদ

12:32:34 PM

করোনা: জরুরি পরিষেবায় যুক্তদের ট্যুইটে ধন্যবাদ মমতার 
করোনা পরিস্থিতিতে চিকিৎসক, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মী, পুলিস, সরকারি আধিকারিক এবং জরুরি ...বিশদ

11:50:59 AM