Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

ফজলুর রহমানের উত্থান, ইমরানের মাথাব্যথা
মৃণালকান্তি দাস

ক্ষমতা টলমল পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের! সরকারের অপদার্থতা, ভোটে রিগিং এবং আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগ তুলে পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরানের খানের পদত্যাগের দাবি তুলেছেন জমিয়াত উলেমা-এ-ইসলামের প্রধান মৌলানা ফজলুর রহমান। একই দাবিতে পাকিস্তানের বিরোধী দলনেতাদের নিয়ে গত ২৭ অক্টোবর দক্ষিণ সিন্ধ প্রদেশে ‘আজাদি মার্চ’ নামে একটি বিক্ষোভ র‌্যালি করেন। সেই শুরু। মিছিল যত রাজধানীর দিকে পৌঁছেছে, ততই তার দৈর্ঘ্য এবং প্রস্থ বেড়েছে।
এরপর পাকিস্তান দেখেছে, দাড়িওয়ালা বিক্ষোভকারীদের গাড়ির বিশাল বিশাল কনভয়। হাতে উঁচু করে ধরা কালো ও সাদা পতাকা। সুক্কুর, মুলতান, লাহোর এবং গুজরানওয়ালা হয়ে সর্ষে হলুদ রঙের পোশাক পরা প্রতিবাদকারীরা শুক্রবার পাকিস্তানের রাজধানী ইসলামাবাদে জড়ো হয়েছে। তাদের দাবি, ‘অদক্ষ প্রশাসক’ প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে পদত্যাগ করতে হবে। বিক্ষোভকারীদের গাড়ির বহর যতই চোখ ধাঁধানো হোক না কেন সেখানে আরও একটি বিষয় নজর কাড়ছে সকলের, এই বিক্ষোভে নেই কোনও মহিলার অংশগ্রহণ। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, আজাদি মার্চ শুরু হওয়ার আগে যে লিফলেট প্রকাশ করা হয়েছে তাতে মহিলাদের ঘরে থাকার আহ্বান জানিয়ে বলা হয়েছে, ‘রোজা ও নামাজ পড়তে’।
পাকিস্তানের বিরোধী দল জমিয়াত উলেমা-এ-ইসলামের প্রধান মৌলানা ফজলুর রহমানের দাবি, ‘আমরা যাতে সফল হই, সে জন্য তাঁরা রোজা রেখে আল্লার কাছে দোয়া করছেন।’ একইসঙ্গে তাঁর ঘোষণা, ‘এখন দেশ আমাদের নিয়ন্ত্রণে। আমরা ভেঙে পড়া অর্থনীতিকে মাথা তুলে দাঁড় করাব। অর্থনীতিকে একটি স্থিতিশীল অবস্থায় নিয়ে আসাই আমাদের লক্ষ্য।’ সেই সঙ্গে দেশের ‘শক্তিশালী’ প্রতিষ্ঠানগুলিকে নিরপেক্ষ থাকতে অনুরোধ করেন ফজলুর। ‘শক্তিশালী’ প্রতিষ্ঠান বলতে তিনি যে সেনাকে বুঝিয়েছেন, তা নিয়ে পাক রাজনীতিকদের সন্দেহ ছিল না। বিক্ষোভ সমাবেশে বারবার বলেছেন, ইমরান খান সেনাদের পুতুল।
ইমরান খানকে পদত্যাগের জন্য রবিবার পর্যন্ত সময় বেঁধে দেওয়া হয়েছিল। ফজলুর রহমান ইঙ্গিত দিয়েছেন, রবিবারের মধ্যে ইমরান পদত্যাগ না করলে বিক্ষোভকারীদের নিয়ে তিনি রেড জোনে প্রবেশ করবেন। কোনও চাপেই তিনি নতি স্বীকার করবেন না। পাল্টা জবাবে ইমরান খানও জানিয়ে দিয়েছেন, কোনও অগণতান্ত্রিক দাবি মানা হবে না। বিক্ষোভকারীরা যেন সরকারকে ব্ল্যাকমেল করতে না পারে সে বিষয়েও সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছেন। পরিস্থিতি যে একটা ভয়াবহ আকার ধারণ করতে চলেছে, তা আঁচ করেই পাক পুলিস-প্রশাসন প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিয়েছে। ইসলামাবাদের গুরুত্বপূর্ণ জায়গাগুলোতে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।
হিংসা রুখতে রাজধানীর সর্বত্র সেনা এবং আধাসামরিক বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে প্রশাসনকে সতর্ক থাকতে নির্দেশ দিয়েছেন পাকিস্তানের অভ্যন্তরীণ মন্ত্রী ইজাজ শাহ। পার্লামেন্টের সামনে সাঁজোয়া যান মোতায়েন করা হয়েছে। স্পর্শকাতর জায়গাগুলোতে নিরাপত্তা বাহিনীর অতিরিক্ত সদস্যও আনা হয়েছে। জমিয়াত উলেমা-এ ইসলামের প্রধানের হুমকির পর প্রধানমন্ত্রীর বানি গালা বাসভবনের দিকের সড়কগুলোতে নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে।
প্রশ্ন হল, ইমরান খানকে উৎখাতের ডাক দেওয়া কে এই ফজলুর রহমান? বাবা মুফতি মাহমুদের হাত ধরেই ফজলুর রহমানের রাজনীতিতে আসা। ১৯৭৯ সালের ৯ নভেম্বর করাচির খালিকে দুনিয়া হলে মৌলানা প্রথম রাজনৈতিক বক্তব্য রাখেন। এই বক্তব্যে তিনি তৎকালীন সেনাশাসক জেনারেল জিয়াউল হকের রাষ্ট্রপ্রধান পদে বসার সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করেন। এরপর থেকে তাঁর জেলে যাওয়া আসা শুরু। ১৯৮১ সালে তিনি যখন জেনারেল জিয়াউল হকের বিরুদ্ধে আন্দোলন করে কারাবন্দি হন। তখন তাঁকে জমিয়াতে উলেমা-এ ইসলামের জেনারেল সেক্রেটারি নির্বাচন করা হয়। ১৯৯৫ সালের ২৮ মার্চ জামেয়া মাদানিয়া করিমপার্কে ৩২৫ সদস্যের অধিকাংশের মতামতের ভিত্তিতে ফজলুর রহমান সভাপতি নির্বাচিত হন। ফজলুর রহমান রাজনৈতিক মামলায় মোট ১০ বার কারাবরণ করেছেন।
১৯৯৩ সনে বেনজির ভুট্টো দ্বিতীয়বার প্রধানমন্ত্রী হলে ফজলুর রহমান জাতীয় সংসদের বিদেশ বিষয়ক কমিটির সভাপতি নির্বাচিত হন। ১৯৯৬ সালে যখন বেনজির ক্ষমতাচ্যুত হন, তখন নওয়াজ শরিফের তদন্ত ব্যুরো সর্বশক্তি নিয়োগ করেও ফজলুর রহমানের বিরুদ্ধে কোনও অভিযোগ আনতে পারেনি। আগেও পাকিস্তানে ইসলামি অনেক দল ছিল, কিন্তু তা কোনও জাতীয় শক্তির রূপ ধারণ করতে পারেনি। ফজলুর রহমান ২০০২ সালে সব ইসলামি দল নিয়ে ‘মুত্তাহিদা মজলিসে আমল’ (এমএমএ) নামে একটি জোট গঠন করেন। যার সভাপতি ছিলেন বেরেলভিপন্থি মৌলানা শাহ আহমদ নুরানি এবং মুখপাত্র ছিলেন তিনি নিজে। এতে জামাত, শিয়াসহ সব মত ও পথের লোকেরা তাঁর নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ হয় এবং এমএমএ কেন্দ্রীয় ও প্রাদেশিক পরিষদে ৭২টি আসনে জয়লাভ করে।
পাকিস্তানের সাংবাদিক হামিদ মীর একবার তাঁর এক সম্পাদকীয় কলামে লেখেন, ‘অনেক যুবক আমাকে জিজ্ঞেস করেন যে, পাকিস্তানে সবচেয়ে উঠতি রাজনীতিবিদ কে? আমি সাধারণত এমন প্রশ্ন এড়িয়ে চলি। কিন্তু কিছু নাছোড়বান্দা যখন আমাকে চেপে ধরে, তখন অনায়াসে তাদের জবাবে মুখ থেকে বেরিয়ে আসে, মৌলানা ফজলুর রহমান। মজার কথা হল, কেউ কেউ এই জবাব শুনে খুশিতে আত্মহারা হয়ে যান, আবার কেউ কেউ অগ্নির্শমা হয়ে বলেন যে, তাহলে তাঁকে ‘ডিজেল মৌলানা’ বলা হয় কেন? আমি সাধারণত এ কথার জবাব এভাবে দিই যে, তাঁকে ডিজেল মৌলানা খেতাবদাতা জনাব আতাউল হক কাসেমিও একথা অকপটে স্বীকার করতে বাধ্য যে, ফজলুর রহমান পাকিস্তানের উঠতি রাজনীতিবিদের প্রথম সারির একজন।’
এহেন ফজলুর রহমান ডাক দিয়েছেন, ‘পাকিস্তানের গর্বাচেভকে পদত্যাগ করতে হবে।’ বিক্ষোভকারীদের উদ্দেশ্যে দেওয়া বক্তৃতায় বলেন, ‘২৫ জুলাইয়ের নির্বাচন ছিল জালিয়াতিতে ভরা। ওই নির্বাচনের পর ক্ষমতায় আসা সরকার কিংবা সরকারকে স্বীকৃতি দিচ্ছি না আমরা। সরকারকে আমরা এক বছর সময় দিয়েছি। কিন্তু এখন আর বেশি সময় দেওয়া যাবে না। ইসলাম ও পাকিস্তান কখনও আলাদা হতে পারে না। ইসলামি সাংবিধানিক ধারাগুলো বাস্তবায়নের দাবিগুলো থেকে দূরে রাখতে পিটিআই সরকারের কোনও কর্তৃত্ব নেই।’ পিটিআই সরকারের চাপিয়ে দেওয়া দাসত্বের অর্থনীতি বিরোধী দল মেনে নেবে না বলে দাবি করেন এই রাজনীতিবিদ। আর এই দাবিতেই জমিয়াত উলেমা-এ ইসলামের আজাদি মার্চ জনসমুদ্রের রূপ নিয়েছে।
পাকিস্তানি ও দলীয় পতাকা উড়িয়ে কয়েক হাজার গাড়ি নিয়ে এই পদযাত্রায় অংশ নিয়েছে আন্দোলনকারীরা। ইমরানবিরোধী ‘গো নিয়াজি গো’ স্লোগানসহ সরকারবিরোধী প্রচারে গোটা দেশ উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে। ইমরান বিরোধী হাওয়াকে আরও উস্কে দিতে সরকারবিরোধী এই পদযাত্রায় পাকিস্তান পিপল’স পার্টি, পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজ, আওয়ামি ন্যাশনাল পার্টিসহ বিভিন্ন দলের প্রতিনিধিরাও সমর্থন দিয়ে অংশ নিয়েছেন। ইসলামাবাদে ফজলুরের বাড়িতে তাঁর সঙ্গে আলোচনায় বসেন পাকিস্তান পিপলস পার্টির বিলাবল ভুট্টো জারদারি, পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজের আহসান ইকবাল, খাজা আসিফ, পাখতুনখোয়া মিল্লি আওয়ামি পার্টির মেহমুদ খান আছাকজাইয়ের মতো বিরোধী নেতারা।
বিশাল এই জনরোষ সত্ত্বেও নির্বাচিত সরকারের প্রধান ইমরান খানের উপরই আস্থা প্রকাশ করেছে পাক সেনাবাহিনী। সেনাবাহিনীর মুখপাত্র মেজর জেনারেল আসিফ গফুর জানিয়ে দিয়েছেন, আমরা আইন ও সংবিধানে বিশ্বাসী। আমাদের সমর্থন নির্বাচিত সরকারের উপরই থাকবে, কোনও নির্দিষ্ট দলের পক্ষে নয়। সেনাবাহিনীর দিকে ইঙ্গিত করে ফজলুর রহমান জানিয়ে দিয়েছেন, যদি ইমরান খান পদত্যাগ না করেন এবং তাঁর ‘প্রতিষ্ঠানটি’-র সুরক্ষা দেওয়ার চেষ্টা করেন, তাহলে ওই ‘প্রতিষ্ঠানের’ বিরুদ্ধেও জনমত গঠন করা হবে। বিরোধীরা অবাধে এই জনমত গঠন করবে। সেনাবাহিনী যাই বলুক না কেন, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের পদত্যাগ এবং পুনরায় নির্বাচনের দাবিতে অনড় বিরোধীরা। কী হতে চলেছে পাকিস্তানে? কেউ জানে না।
পাকিস্তানে অনেকে ঠাট্টা করে বলছেন, ফজলুর রহমানের উত্থানে ইমরানের ফের পিঙ্কি পীরনির দ্বারস্থ হওয়া ছাড়া উপায় নেই! পিঙ্কি পীরনি কে জানেন? পাকিস্তানের ফার্স্ট লেডি। তিনি একজন মহিলা পীর। স্বপ্ন আর ভবিষ্যৎ নিয়েই বুশরা মানেকার কারবার। ভক্তরা তাঁকে পিঙ্কি পীরনি বলেই চেনেন। নিজের শহর লাহোরের বাইরেও তাঁর অনেক অনুসারী। সেই পিঙ্কি পীরনি এক রাতে স্বপ্ন দেখলেন। ২০১৫ সালে মানেকা যাঁকে স্বপ্নে দেখেছিলেন তিনিও একসময় তাঁর ভক্তদের দলে শামিল হলেন।
সেই ভক্তের নাম ইমরান খান। ইমরান খান তাঁর আত্মজীবনীতে লিখেছেন, ‘পাকিস্তানে বিশেষ করে গ্রামাঞ্চলে লাখ লাখ মানুষ তাঁদের অনুসরণ করে, ধর্মীয় থেকে নিত্যদিনের জীবনের সমস্যা নিয়ে তাঁদের কাছে পরামর্শ চায়।’ ১৯৯০–এর মাঝামাঝি ইমরানের সৌভাগ্যে মেঘের চিহ্ন ছিল না। বিশ্বকাপ জিতেছেন। ধনী সুন্দরীকে বিয়ে করেছেন। মায়ের স্মরণে ক্যান্সার হাসপাতাল গড়েছেন। এত সব অর্জনের মধ্যে পাকিস্তানের এক ছোট শহরের এক মহিলা পীরের ভবিষ্যদ্বাণী তাঁকে আর কী দিয়েছে জানেন? রাজনীতি।
অনেক প্রতিষ্ঠিত রাজনীতিবিদ, সামরিক বাহিনীর বড় কর্তারা ইমরানকে নিজের কাছে টানার চেষ্টা করছিলেন। শেষ পর্যন্ত ইমরান খান ১৯৯৬ সালে নিজের দল বানালেন। নাম দিলেন তেহরিক ই ইনসাফ। মানে ন্যায়ের জন্য আন্দোলন, যা পিটিআই নামে পরিচিত। প্রথম নির্বাচনে পার্টি কোনও আসন পেল না। পরের নির্বাচনে জিতলেন শুধু নিজের আসনে। ২০১৩ সালে তাঁর ব্যক্তিগত জনপ্রিয়তা যখন তুঙ্গে, তখনও পিটিআই জিতল মাত্র ৩৫ আসন। ২০ বছর ধরে তিনি বিদেশে থাকা বন্ধুদের বলতেন, ‘পরের বার দেশে এলে দেখবে আমি প্রধানমন্ত্রী।’ চারটা নির্বাচন গেল, দুটো বিয়ে ভাঙল কিন্তু প্রধানমন্ত্রী হওয়ার আশা অধরাই রয়ে গেল। ঠিক এই সময়ই বুশরা মানেকা তাঁর স্বপ্ন দেখলেন।
এর পরের অংশ এক আরব্য রজনীর গল্প হয়ে পাকিস্তানিদের মুখে মুখে ফেরে। মানেকার স্বপ্নে নাকি এক কণ্ঠস্বর বলেছিল, ইমরান খান যদি প্রধানমন্ত্রী হতে চান তাহলে তাঁকে সঠিক মহিলাকে বিয়ে করতে হবে। সঠিক মহিলা মানে মানেকার পরিবারের কেউ। এই গল্পের অন্য সংস্করণ বলছে যে বিয়ের জন্য মানেকা প্রথমে তাঁর ছোট বোনের কথা বলেন। আরেক গল্প বলছে, তাঁর আপন মেয়ের কথা। ইমরান দুই প্রস্তাবই নাকচ করেন। মানেকা আবার স্বপ্ন দেখলেন।
এবার আর কোনও ইশারা নয়। স্বপ্নে জানতে পারলেন ইমরানের যে স্ত্রী দরকার, সেটা তিনি নিজেই। পাঁচ সন্তানের মা মানেকা প্রস্তুত হলেন। তাঁর কাস্টমস অফিসার স্বামী আপসে বিবাহ বিচ্ছেদে রাজিও হয়ে গেলেন। ২০১৮–এর ফেব্রুয়ারিতে ক্রিকেটার আর ভবিষ্যৎ–দ্রষ্টার বিয়ে হল ঘনিষ্ঠজনদের নিয়ে ছোট পারিবারিক অনুষ্ঠানে। এর ছয় মাস পর ইমরান খান হলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী। পিঙ্কি পীরনি হলেন পাকিস্তানের ফার্স্ট লেডি। পিঙ্কি পীরনি কি পারবেন, এ যাত্রায় ইমরানকে বাঁচাতে? 
08th  November, 2019
আর ক’জন ধর্ষিতা হলে রামরাজ্য পাব
সন্দীপন বিশ্বাস 

রাত অনেক হল। মেয়েটি এখনো বাড়ি ফেরেনি। কোথাও আটকে গিয়েছে। অনেক লড়াই করে, পুরুষের সঙ্গে পাশাপাশি ঘাম ঝরিয়ে তাকে বেঁচে থাকতে হয়। বাড়িতে বাবা-মা অস্থির হয়ে ওঠেন।  বিশদ

অর্থনীতিবিদদের ছাড়াই অর্থনীতি
পি চিদম্বরম

প্রত্যেকেই অর্থনীতিবিদ। যে গৃহবধূ পরিবার সামলানোর বাজেট তৈরি করেন, তাঁকে থেকে শুরু করে একজন ডেয়ারি মালিক যিনি দুধ বিক্রির জন্য গোদোহন করেন এবং একজন ছোট উদ্যোগী যিনি বড় নির্মাণ ব্যবসায়ীর জন্য যন্ত্রাংশ তৈরি করেন, সকলেই এই গোত্রে পড়েন।  বিশদ

বাজার আগুন, বেকারত্ব লাগামছাড়া,
শিল্পে মন্দা, সরকার মেতে হিন্দুরাষ্ট্রে
হিমাংশু সিংহ

 দেশভাগ, শরণার্থীর ঢল, বার বার ভিটেমাটি ছাড়া হয়ে উদ্বাস্তু হওয়ার তীব্র যন্ত্রণা আর অভিশাপের মাশুল এই বাংলা বড় কম দেয়নি। ইতিহাস সাক্ষী, সাবেক পূর্ববঙ্গের শত শত নিরাশ্রয় মানুষকে নিজের বুকে টেনে নিতে গিয়ে প্রতি মুহূর্তে তৈরি হয়েছে নতুন নতুন সঙ্কট। বদলে গিয়েছে গোটা রাজ্যের জনভিত্তি।
বিশদ

08th  December, 2019
বাঙালি হিন্দু উদ্বাস্তুর প্রাপ্য অধিকার
জিষ্ণু বসু

 কয়েকদিন আগেই রাজ্যসভায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের কথা বলেছেন। চলতি অধিবেশনেই হয়তো পাশ হবে ঐতিহাসিক নাগরিকত্ব সংশোধনী। এটি আইনে রূপান্তরিত হলে পাকিস্তান, বাংলাদেশ ও আফগানিস্তান থেকে ধর্মীয় কারণে অত্যাচারিত হয়ে আসা হিন্দু, জৈন, বৌদ্ধ, শিখ, খ্রিস্টান ও পারসিক সম্প্রদায়ের মানুষেরা এদেশের পূর্ণ নাগরিকত্ব পাবেন।
বিশদ

08th  December, 2019
কর্পোরেটদের যথেষ্ট সুবিধা দিলেও অর্থনীতির বিপর্যয় রোধে চাহিদাবৃদ্ধির সম্ভাবনা ক্ষীণ
দেবনারায়ণ সরকার

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর তাঁর ‘ক্ষণিকা’ কাব্যগ্রন্থে ‘বোঝাপড়া’ কবিতায় লিখেছিলেন, ‘ভালো মন্দ যাহাই আসুক সত্যেরে লও সহজে।’ কিন্তু কেন্দ্রের অন্যান্য মন্ত্রীরা থেকে শুরু করে অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন ভারতীয় অর্থনীতির চরম বেহাল অবস্থার বাস্তবতা সর্বদা চাপা দিতে ব্যস্ত। 
বিশদ

07th  December, 2019
অণুচক্রিকা বিভ্রাট
শুভময় মৈত্র

সরকারি হাসপাতালে ভিড় বেশি, বেসরকারি হাসপাতালের তুলনায় সুবিধে হয়তো কম। তবে নিম্নবিত্ত মানুষের তা ছাড়া অন্য কোনও পথ নেই। অন্যদিকে এটাও মাথায় রাখতে হবে যে রাজ্যে এখনও অত্যন্ত মেধাবী চিকিৎসকেরা সরকারি হাসপাতালে কাজ করেন। 
বিশদ

06th  December, 2019
সার্ভিল্যান্স যুগের প্রথম পরীক্ষাগার উইঘুর সমাজ
মৃণালকান্তি দাস

চীনের সংবাদ মানেই তো যেন সাফল্যের খবর। সমুদ্রের উপর ৩৪ মাইল লম্বা ব্রিজ, অতিকায় যাত্রী পরিবহণ বিমান তৈরি, প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে নয়া উদ্ভাবন, চাঁদের অপর পিঠে অবতরণ...। মিহিরগুল তুরসুনের ‘গল্প’ সেই তালিকায় খুঁজেও পাবেন না। ১৪১ কোটি জনসংখ্যার চীনে মিহিরগুল মাত্র সোয়া কোটি উইঘুরের প্রতিনিধি। 
বিশদ

06th  December, 2019
আর ঘৃণা নিতে পারছে না বাঙালি
হারাধন চৌধুরী

 এটাই বোধহয় আমার শোনা প্রথম কোনও ছড়া। আজও ভুলতে পারিনি। শ্রবণ। দর্শন। স্পর্শ। প্রথম অনেক জিনিসই ভোলা যায় না। জীবনের উপান্তে পৌঁছেও সেসব অনুভবে জেগে থাকে অনেকের। কোনোটা বয়ে বেড়ায় সুখানুভূতি, কোনোটা বেদনা। এই ছড়াটি আমার জীবনে তেমনই একটি। যখন প্রথম শুনেছি তখন নিতান্তই শিশু। বিশদ

05th  December, 2019
আগামী ভোটেও বিজেপির গলার কাঁটা এনআরসি
বিশ্বনাথ চক্রবর্তী

রাজ্যের তিন বিধানসভা কেন্দ্রে বিজেপির বিপর্যয় বিশ্লেষণ করতে গিয়ে যখন ওই প্রার্থীদের পরাজয়ের ব্যাপারে সকলেই একবাক্যে এনআরসি ইস্যুকেই মূল কারণ হিসেবে চিহ্নিত করেছেন, তখনও বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব এনআরসিতে অটল। তিন বিধানসভা কেন্দ্রের বিপর্যয়ের পর আবারও অমিত শাহ এনআরসি কার্যকর করবার হুংকার ছেড়েছেন।  
বিশদ

03rd  December, 2019
সিঁদুরে মেঘ ঝাড়খণ্ডেও
শান্তনু দত্তগুপ্ত

ভারতের গণতান্ত্রিক রাজনীতিতে একটা কথা বেশ প্রচলিত... এদেশের ভোটাররা সাধারণত পছন্দের প্রার্থীকে নয়, অপছন্দের প্রার্থীর বিরুদ্ধে ভোট দিয়ে থাকেন। ২০১৪ সালে যখন নরেন্দ্র মোদিকে নির্বাচনী মুখ করে বিজেপি আসরে নামল, সেটা একটা বড়সড় চমক ছিল। 
বিশদ

03rd  December, 2019
আচ্ছে দিন আনবে তুমি এমন শক্তিমান!
সন্দীপন বিশ্বাস

আমাদের সঙ্গে কলেজে পড়ত ঘন্টেশ্বর বর্ধন। ওর ঠাকুর্দারা ছিলেন জমিদার। আমরা শুনেছিলাম ওদের মাঠভরা শস্য, প্রচুর জমিজমা, পুকুরভরা মাছ, গোয়ালভরা গোরু, ধানভরা গোলা সবই ছিল। দেউড়িতে ঘণ্টা বাজত। ছিল দ্বাররক্ষী। কিন্তু এখন সে সবের নামগন্ধ নেই। ভাঙাচোরা বাড়ি আর একটা তালপুকুর ওদের জমিদারির সাক্ষ্য বহন করত। 
বিশদ

02nd  December, 2019
বিজেপির অহঙ্কারের পতন
হিমাংশু সিংহ

সবকিছুর একটা সীমা আছে। সেই সীমা অতিক্রম করলে অহঙ্কার আর দম্ভের পতন অনিবার্য। সভ্যতার ইতিহাস বারবার এই শিক্ষাই দিয়ে এসেছে। আজও দিচ্ছে। তবু ক্ষমতার চূড়ায় বসে অধিকাংশ শাসক ও তার সাঙ্গপাঙ্গ এই আপ্তবাক্যটা প্রায়শই ভুলে যায়।  বিশদ

01st  December, 2019
একনজরে
হায়দরাবাদ, ৮ ডিসেম্বর (পিটিআই): তেলেঙ্গানায় পশু চিকিৎসককে গণধর্ষণ করে পুড়িয়ে মারায় অভিযুক্ত চারজনের পুলিসি এনকাউন্টার নিয়ে রবিবারও পুরোদস্তর তদন্তের প্রক্রিয়া চালাল জাতীয় মানবাধিকার কমিশন। শনিবার থেকে এই তদন্ত শুরু হয়েছে।  ...

বিএনএ, চুঁচুড়া: খো খো প্রতিযোগিতায় দেশকে জিতিয়ে ঘরে ফিরলেন চুঁচুড়ার সোনার মেয়ে ঈশিতা। ঈশিতা বিশ্বাস সাউথ এশিয়ান গেমসের সোনাজয়ী ভারতীয় খো খো দলের সদস্য ছিলেন। ...

বিএনএ, সিউড়ি ও সংবাদদাতা, শান্তিনিকেতন: লাভপুরে একই পরিবারের তিন ভাইয়ের হত্যা মামলায় নতুন করে সাপ্লিমেন্টারি চার্জশিট জমা দিল পুলিস। নতুন করে চার্জশিটে নাম জুড়ল বিজেপি নেতা মনিরুল ইসলামের।  ...

নয়াদিল্লি, ৮ ডিসেম্বর: চলতি বছরের নভেম্বর মাসে গাড়ির উৎপাদন ৪.৩৩ শতাংশ বৃদ্ধি করল মারুতি সুজুকি ইন্ডিয়া (এমএসআই)। বাজারে চাহিদা না থাকায় টানা ন’মাস ধরে গাড়ির উৎপাদন কমিয়ে এনেছিল সংস্থাটি। মারুতি সুজুকি ইন্ডিয়া তরফে জানানো হয়েছে, নভেম্বর মাসে ১ লক্ষ ৪১ ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
aries

মাঝে মধ্যে মানসিক উদ্বেগের জন্য শিক্ষায় অমনোযোগী হয়ে পড়বে। গবেষণায় আগ্রহ বাড়বে। কর্মপ্রার্থীদের নানা সুযো ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৪৮৩: অন্ধকবি সুরদাসের জন্ম
১৮৯৮: বেলুড় মঠ প্রতিষ্ঠিত হল
১৬০৮: ইংরেজ কবি জন মিলটনের জন্ম
১৯৪৬: কংগ্রেস নেত্রী সোনিয়া গান্ধীর জন্ম
১৯৪৬: অভিনেতা শত্রুঘ্ন সিনহার জন্ম
২০১১: আমরি হাসপাতালে আগুন 





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৪৯ টাকা ৭২.১৯ টাকা
পাউন্ড ৯২.২০ টাকা ৯৫.৫৪ টাকা
ইউরো ৭৭.৭৫ টাকা ৮০.৭৪ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
07th  December, 2019
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮, ৩৮৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬, ৪২০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৬, ৯৬৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৩, ৪০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৩, ৫০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
08th  December, 2019

দিন পঞ্জিকা

২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ৯ ডিসেম্বর ২০১৯, সোমবার, দ্বাদশী ৯/২৩ দিবা ৯/৫৪। ভরণী ৫৭/৯ শেষ রাত্রি ৫/০। সূ উ ৬/৮/৫৩, অ ৪/৪৮/২৯, অমৃতযোগ দিবা ৭/৩৩ মধ্যে পুনঃ ৮/৫৮ গতে ১১/৬ মধ্যে। রাত্রি ৭/২৮ গতে ১১/২ মধ্যে পুনঃ ২/৩৫ গতে ৩/৩০ মধ্যে, বারবেলা ৭/২৭ গতে ৮/৪৮ মধ্যে পুনঃ ২/৮ গতে ৩/২৮ মধ্যে, কালরাত্রি ৯/৪৮ গতে ১১/২৮ মধ্যে। 
২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ৯ ডিসেম্বর ২০১৯, সোমবার, দ্বাদশী ৭/১০/১১ দিবা ৯/২/২২। ভরণী ৫৭/৩১/১০ শেষরাত্রি ৫/১০/২৬, সূ উ ৬/১০/১৮, অ ৪/৪৯/১, অমৃতযোগ দিবা ৭/৩৯ মধ্যে ও ৯/৪ গতে ১১/১১ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/৩১ গতে ১১/৫ মধ্যে ও ২/৪০ গতে ৩/৩৪ মধ্যে, কালবেলা ৭/৩০/৮ গতে ৮/৪৯/৫৯ মধ্যে, কালরাত্রি ৯/৪৯/৩০ গতে ১১/২৯/৪০ মধ্যে।
১১ রবিয়স সানি 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
দ্বিতীয় টি২০: ওয়েস্ট ইন্ডিজ ভারতের বিরুদ্ধে ৮ উইকেটে জিতল

08-12-2019 - 10:32:44 PM

দ্বিতীয় টি২০: ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৭৩/১ (১০ ওভার) 

08-12-2019 - 09:47:37 PM

দ্বিতীয় টি২০: ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ১৭১ রানের টার্গেট দিল ভারত 

08-12-2019 - 08:47:23 PM

কোচবিহারে বিজেপি-তৃণমূল সংঘর্ষ, জখম ২ 
কোচবিহারে ফের বিজেপি-তৃণমূল সংঘর্ষ। বোমার ঘায়ে জখম দুই তৃণমূল সমর্থক। ...বিশদ

08-12-2019 - 08:23:24 PM

দ্বিতীয় টি২০: ভারত ১৩২/৪ (১৫ ওভার) 

08-12-2019 - 08:19:18 PM

দ্বিতীয় টি২০: ভারত ১১২/৩ (১২ ওভার) 

08-12-2019 - 08:06:46 PM