Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

ঘরে ঘরে হানাদার 
শান্তনু দত্তগুপ্ত

উওটার স্লটবুম আমস্টারডামের একটি কাফেতে ঢুকলেন। সঙ্গে একজন ডাচ সাংবাদিক। কাফেতে ওয়াই-ফাই চলছে। স্লটবুম একটি চেয়ার টেনে বসে তাঁর ল্যাপটপটা খুললেন। পাশে ছোট কালো রঙের একটা ডিভাইস। সবকিছু সেট করে নিয়ে কাফের ওয়াই-ফাইয়ের সঙ্গে নিজের ল্যাপটপটাকে কানেক্ট করলেন। কিছুক্ষণ পর দেখা গেল, ল্যাপটপে অন্য বহু ডিভাইসের আলাদা আলাদা উইন্ডো খুলে ফেলেছেন তিনি। কোন ডিভাইস? ওই কাফের ওয়াই-ফাই ব্যবহার করে যাঁরা কাজ করছিলেন, তাঁদেরই মোবাইল ফোন বা ল্যাপটপ... কেউ হয়তো গুগলে ঢুকে কিছু সার্চ করছেন, কেউ আবার ই-মেল করছেন... সবটাই দেখা যাচ্ছে স্লটবুমের ল্যাপটপে। আপনার ফোনে কোন কোন অ্যাপ ইনস্টল করা রয়েছে, আপনার ই-মেলের ইউজার আইডি ও পাসওয়ার্ড, গুগলে কী কী সার্চ করা হয়েছে এবং আরও অনেক কিছু। স্লটবুম একজন এথিক্যাল হ্যাকার। শুনতে ভালো না লাগলে গালভরা অন্য নামও আছে—তথ্য প্রযুক্তির নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ। পাবলিক ওয়াই-ফাইয়ের নিরাপত্তার অভাব নিয়ে তাঁর কাজ। স্লটবুমের দাবি, ৮০-৯০ ডলার খরচ করে একটা সফ্‌টওয়্যার লাগিয়ে নিলেই হবে। কয়েক মিনিটের মধ্যে ডজন ডজন ব্যক্তিগত তথ্য হাতের নাগালে। এমনকী, ই-মেলের সঙ্গে যে যে অ্যাকাউন্টের সংযোগ রয়েছে, সেই সবও হাতিয়ে নেওয়া সম্ভব। ওই একটি কালো ডিভাইস দিয়ে। অনায়াসে তথ্যপাচার।
হ্যাকিং বিষয়টা এখন এমনই জলভাত। কিছু বিদ্যাবুদ্ধি যদি থাকে, তার সঙ্গে ঠিকঠাক সফ্‌টওয়্যার লাগিয়ে নিলেই হল। সাধারণ মানুষও অন্যের মোবাইল ফোন বা ল্যাপটপের আইপি হ্যাক করে নিতে পারে। সামান্য সামর্থ্য নিয়েই। আর যদি এটাই কোনও রাষ্ট্র করতে চায়? তার কিন্তু ক্ষমতা, প্রযুক্তি এবং দক্ষ কর্মী... সবই বেশি। ইচ্ছেমতো।
সোশ্যাল মিডিয়ায় সবচেয়ে নিরাপদ মাধ্যম ধরা হয় হোয়াটসঅ্যাপকে। কারণ, এই মিডিয়াম দিয়ে কোনও মেসেজ বা কল করলে সেটা ‘এন্ড টু এন্ড এনক্রিপটেড’ হয়। অর্থাৎ যে মেসেজ পাঠাচ্ছে, আর যার কাছে পৌঁছচ্ছে, এই দু’জন ছাড়া আর কেউ তা দেখতে বা বুঝতে পারবে না। শুধু একটি উপায়ে সেই লোহার সিন্দুকে ফুটো করা সম্ভব। যদি ডিভাইসে বিশেষ একটা ম্যালওয়্যার ঢুকিয়ে দেওয়া যায়। তার নাম পেগাসাস। কী হয় এতে? পেগাসাসের অপারেটর আপনাকে একটা লিঙ্ক পাঠাবে, যাকে বলা হয় ‘এক্সপ্লয়েট লিঙ্ক’। তাতে ক্লিক করা মাত্রই চিচিং ফাঁকের মতো আপনার ফোন বা কম্পিউটারের নিরাপত্তা ব্যবস্থা সেই হ্যাকারের কাছে উন্মুক্ত হয়ে যাবে। কারণ ততক্ষণে আপনার অজান্তেই ওই ডিভাইসে পেগাসাস ইনস্টল হয়ে গিয়েছে। অ্যান্ড্রয়েড মোবাইলে ঢুকে পড়েছে ‘ক্রাইসাওর’ ম্যালওয়্যার। কোনও অ্যাপ ইনস্টল করার সময় ডিভাইস ব্যবহারকারীর থেকে যে অনুমতি চাওয়া হয়, সেটাও কিন্তু এই পেগাসাস চাইবে না। আপনার ফোন বা ল্যাপটপটি সরাসরি চলে যাবে সেই অপারেটরের নিয়ন্ত্রণে। আর তার নির্দেশ মতো আপনার ডিভাইসের কনট্যাক্ট, ই-মেল, পাসওয়ার্ড, ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট সহ যাবতীয় তথ্য চুরি করে নেবে পেগাসাস। শুধু তাই নয়, আপনার মেসেজ দেখা এবং ভয়েস কল শোনার কাজটাও সেই অপারেটর বিনা বাধায় করতে পারবে। ধরুন আপনি কোনও গুরুত্বপূর্ণ মিটিংয়ে আছেন, সেই অপারেটর তখন আপনার ফোনের ক্যামেরা এবং মাইক্রোফোন অন করে সব কিছু রেকর্ড করে নিতে পারে। আপনি জানতেও পারবেন না। আর এর নবতম সংযোজন? ‘এক্সপ্লয়েট লিঙ্ক’-এও দরকার নেই। হোয়াটসঅ্যাপে একটা মিসড ভিডিও কলই এখন যথেষ্ট। ২০১৬ সালের জুলাই-আগস্ট মাসে মেক্সিকোর এক স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞের উপর পেগাসাস ‘হামলা’ হয়। একের পর এক মেসেজ... কোথাও লেখা, আপনার মেয়ের ভয়াবহ অ্যাক্সিডেন্ট হয়েছে। নীচের লিঙ্কে ক্লিক করুন, তাহলে বিস্তারিত জানতে পারবেন। কয়েকদিন পরই আরও একটা মেসেজ... আপনার স্ত্রী অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়েছে। লিঙ্কে ক্লিক করলেই ছবি দেখতে পাবেন। মেক্সিকোর সেই ব্যক্তি অবশ্য একটি ফাঁদেও পা দেননি। বুঝেছিলেন, সবই এক্সপ্লয়েট লিঙ্ক। যদি একটিতেও তিনি ক্লিক করতেন, সঙ্গে সঙ্গে তাঁর মোবাইলে পেগাসাস ইনস্টল হয়ে যেত। আর তাহলেই... খেল খতম।
এই ‘পেগাসাস’-এর প্রস্তুতকারক ইজরায়েলের এনএসও গ্রুপ। হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ ইতিমধ্যেই সান ফ্রান্সিসকোর মার্কিন ফেডেরাল আদালতে একটি মামলা দায়ের করেছে। তারা জানিয়েছে, বিশ্বজুড়ে ১ হাজার ৪০০ হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীকে টার্গেট করেছে এনএসও। যার মধ্যে বেশ কিছু নম্বর ভারতেরও। সঠিক সংখ্যা? জানায়নি হোয়াটসঅ্যাপ। তবে নেহাৎ কম নয়! শোনা যাচ্ছে ১২১ জন। আক্রান্তদের নাম কিন্তু সংস্থা জানাতে চায়নি। তবে হ্যাঁ, হোয়াটসঅ্যাপ স্বীকার করেছে, ভারতে যাদের নিশানা করা হয়েছে তাঁদের মধ্যে রয়েছেন, আইনজীবী, সাংবাদিক, মানবাধিকার কর্মী। হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষের দাবি, সেই প্রত্যেক ব্যক্তির সঙ্গে তারা যোগাযোগ করেছে এবং পেগাসাস থেকে বাঁচতে কী করতে হবে, সেটাও জানিয়েছে। এনএসও গ্রুপের একটি চুক্তি হয়েছিল সৌদি আরবের সঙ্গে... সাংবাদিক জামাল খাসোগি খুনের আগে। খাসোগি কোথায় আছেন, কী করছেন সব জানার জন্য ‘এক্সপ্লয়েট লিঙ্ক’-এর মাধ্যমে একটি স্পাইওয়্যার ঢুকিয়ে দেওয়া হয়েছিল তাঁর ডিভাইসে। ওয়াশিংটন পোস্টের সাংবাদিক ছিলেন জামাল খাসোগি। সৌদি রাজপরিবারের ঘনিষ্ঠ... তারপর সেই রাজতন্ত্রেরই সমালোচক। ইস্তানবুলে সৌদির দূতাবাসে খুন হতে হয় তাঁকে। বাকিটা ইতিহাস এবং বর্তমানও বটে। কারণ, খাসোগি খুনের ঝাপটা এখনও খেতে হচ্ছে সৌদি আরবকে। যুবরাজ মহম্মদ বিন সলমনও স্বীকার করে নিয়েছেন, দায় তিনি এড়িয়ে যেতে পারেন না।
এ পর্যন্ত ৪৫টি দেশে পেগাসাস আঘাত হেনেছে বলে খবর। যার মধ্যে ভারতও আছে। পাঁচটি অপারেটর কাজ করছে এশিয়ায়। বিভিন্ন সূত্র মারফত পাওয়া খবর, একটি রাজনৈতিক ডোমেনের নামে পর্যন্ত এদেশে পেগাসাস অপারেটর কাজ চালাচ্ছে। তাহলে কি এর নেপথ্যে কোনও সরকার বা রাজনৈতিক দল আছে? বিরোধীরা ইতিমধ্যেই এই প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছে। সরব হয়েছেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কংগ্রেস আবার দাবি করেছে, স্বয়ং প্রিয়াঙ্কার ফোনও নাকি হ্যাক হয়েছে। তিনি হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষের থেকে মেসেজ পাচ্ছেন। হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ বলছে, আগেই কেন্দ্রীয় সরকারকে তারা সতর্ক করেছিল। একবার মে মাসে, আর একবার সেপ্টেম্বরে। আর কেন্দ্র বলছে, সে সময় এমন একটা আপাদমস্তক টেকনিক্যাল আর তালগোল পাকানো বার্তা তারা পাঠিয়েছিল, যার কিছুই বোঝা যায়নি। খুব স্বাভাবিক। এমনটা হতেই পারে। বুঝতে না পারার পর নতুন করে তার বিস্তারিত কি হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষের কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিল? তাহলে এখন বিষয়টার ব্যাখ্যা চেয়ে হম্বিতম্বি করে কী লাভ?
এনএসও গ্রুপের দাবি আরও মারাত্মক... পেগাসাস শুধু সরকার এবং সরকারি গোয়েন্দা সংস্থাগুলিকে বিক্রির জন্য। ব্যক্তিবিশেষকে নয়! সেটাও সন্ত্রাসবাদ এবং ভয়াবহ অপরাধ ঠেকানোর জন্য। এই দাবি সত্যিই নড়েচড়ে বসার মতো। জানা যাচ্ছে, পেগাসাসের জন্য ২০১৫ সালে ঘানার ন্যাশনাল সিকিউরিটি এজেন্সির সঙ্গে এনএসও এবং স্থানীয় এক মধ্যস্থতাকারীর চুক্তি হয়েছিল ৮০ লক্ষ মার্কিন ডলারের। একইভাবে মেক্সিকোর ফেডেরাল এজেন্সিগুলি ২০১১ থেকে ২০১৭ সালের জন্য এনএসও থেকে এই স্পাইওয়্যার কিনেছিল ৮ কোটি মার্কিন ডলারে। কোনও সাধারণ মানুষের কি এত দাম দিয়ে পেগাসাস কেনার ক্ষমতা আছে? তাহলে কি সরকারের এখনই বিষয়টা নিয়ে একটু সিরিয়াস হওয়া উচিত নয়? ভারতে এমন কে আছে, যে এত টাকা দিয়ে পেগাসাস কিনতে পারে? অবশ্যই এর তদন্ত দরকার? সরকার এই নজরদারি না চালিয়ে থাকলে এটা পরিষ্কার, যেই একাজ করে থাকুক না কেন, মুখ পুড়ছে রাষ্ট্রের। কেন্দ্রীয় সরকারের। এই প্রবণতা ভয়ঙ্কর। রাজনৈতিক দিক থেকে সরকার বিরোধিতা এক, আর সেটাই যদি জাতীয় নিরাপত্তার উপর আঘাত হানে, তার থেকে খারাপ কিছু হতে পারে না। সরকার যদি এর যথাযথ তদন্ত না করে, মানুষের মনেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করবে... রাষ্ট্রই এর নেপথ্যে নেই তো? তাই সত্যিটা সামনে আসা খুব জরুরি। এক সময় বাজারে গুজব ছড়িয়েছিল, একজন আইপিএস অফিসারের হাতে নাকি ইজরায়েলে তৈরি এমনই একটা সফ্‌টওয়্যার আছে। যার মাধ্যমে ফোনে আড়ি পাতা যায়। রাষ্ট্র যদি শুধু সন্ত্রাসবাদ বা অন্যান্য বড় অপরাধ দমনে এর ব্যবহার করে, তা নিয়ে প্রশ্ন তোলাটা অর্বাচীনের কাজ। কিন্তু সাধারণ মানুষকে অসহায় করে তাঁর সর্বস্ব কেড়ে নেওয়াটা গণতান্ত্রিক দেশের শাসকের কাজ হতে পারে না। কারণ এ শুধু আড়ি পাতা নয়, পেগাসাস ব্যবহার মানে ঘরের ভিতর ঢুকে পড়া। হানা দেওয়া গোপনীয়তার অধিকার রক্ষায়। রাষ্ট্র ছাড়া এই পরিমাণ অর্থ জোগাতে পারে জঙ্গি সংগঠন। তাও শত্রু কোনও দেশের সাহায্যে। সেটা হলে সাধারণ হ্যাকারদের কাছেও খুব তাড়াতাড়ি পৌঁছে যাবে পেগাসাস। ডিজিটাল ইন্ডিয়ার সাইবার সিস্টেম ধ্বংস হতে তখন কিন্তু বেশি সময় লাগবে না! এ হবে আর এক ধরনের সন্ত্রাসবাদী হামলা।
সাধারণ মানুষ কী করতে পারেন? খুব বেশি হলে তাঁর ফোনের সিস্টেম এবং যাবতীয় অ্যাপ সবসময় আপডেট রাখা। ডেস্কটপ বা ল্যাপটপ হলে অপারেটিং সিস্টেম। ব্যাস।
বাকিটা রাম ভরোসে।  
05th  November, 2019
সবচেয়ে ভালোর জন্য আশা করে সবচেয়ে খারাপের জন্য প্রস্তুতি
পি চিদম্বরম

আর একটি বছর শুরু হল, আর একটি বাজেট পেশের অপেক্ষা, এবং এটি ভারতীয় অর্থনীতির আর একটি গুরুতর বছর। ২০১৬-১৭ সাল থেকে প্রতিটি বছর আমাদের জন্য অনেক বিস্ময় এবং ব্যথা নিয়ে এসেছে। ২০১৬-১৭ গিয়েছে সর্বনাশা নোটবন্দির বছর। ত্রুটিপূর্ণ জিএসটি এবং সেটা তড়িঘড়ি রূপায়ণের বছর গিয়েছে ২০১৭-১৮।  বিশদ

সংবিধান ও গণতন্ত্রের ভিত দুর্বল হলে ভারতের আত্মাও বিপন্ন হতে বাধ্য
হিমাংশু সিংহ

১৫ আগস্ট যদি দেশের জন্মদিন হয়, তাহলে ২৬ জানুয়ারি হচ্ছে কোন মতাদর্শ ও আইন মেনে কীসের ভিত্তিতে দেশ পরিচালিত হবে, তার লিখিত বয়ান চূড়ান্ত করার বর্ণাঢ্য উদযাপনের শুভ মুহূর্ত। নবজাতক শিশু স্কুলে ভর্তি হলে একটা নির্দিষ্ট নিয়ম শৃঙ্খলা মেনে ধীরে ধীরে পরিণত হয়। 
বিশদ

১৬০০ কোটি টাকায় কী হতে পারে?
মৃণালকান্তি দাস

শুধুমাত্র অসমে এনআরসি প্রক্রিয়া করতে গিয়েই সরকার খরচ করে ফেলেছে ১৬০০ কোটি টাকা! এত টাকা কীভাবে খরচ হল সেটা খতিয়ে দেখতে দাবি উঠেছে সিবিআই তদন্তের। শুধু তাই-ই নয়, এই এনআরসি করতে বিপুল আর্থিক দুর্নীতি হয়েছে, এই অভিযোগ তুলেছেন অসমের বিজেপি নেতা তথা অর্থমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা। সেই দুর্নীতির কথা ধরা পড়েছে ক্যাগের প্রতিবেদনেও। এনআরসির মুখ্য সমন্বয়কারী প্রতীক হাজেলাকে মধ্যপ্রদেশে বদলি করে দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। মুখ লুকোনোর জায়গা পাচ্ছে না বিজেপি।
বিশদ

25th  January, 2020
মুখ হয়ে ওঠার নিরন্তর প্রয়াস
তন্ময় মল্লিক

কথায় আছে, মুখ হচ্ছে মনের আয়না। আবার কেউ কেউ মনে করেন, সুন্দর মুখের জয় সর্বত্র। তাই অনেকেরই ধারণা, সাফল্য লাভের গুরুত্বপূর্ণ উপাদানই হল মুখ। রাজনীতিতেও সেই মুখের গুরুত্ব অপরিসীম। তবে রাজনীতিতে সৌন্দর্য অপেক্ষা অধিকতর প্রাধান্য পেয়ে থাকে মুখের কথা, ভাষাও।  
বিশদ

25th  January, 2020
নিরপেক্ষ রাজনৈতিক চেতনার অভাব
সমৃদ্ধ দত্ত

 আজকাল একটি বিশেষ শ্রেণীর কাছে দুটি শব্দ খুব অপছন্দের। সেকুলার এবং ইন্টেলেকচুয়াল। ওই লোকটিকে আমার পছন্দ নয়, কারণ লোকটি সেকুলার। ওই মানুষটি আসলে সুবিধাবাদী এবং খারাপ, কারণ তিনি ইন্টেলেকচুয়াল। সমাজের এই অংশের উচ্চকিত তর্জন গর্জন হাসি ঠাট্টা কটাক্ষ শুনলে মনে হবে, সেকুলার হওয়া বোধহয় সাংঘাতিক অপরাধ। বিশদ

24th  January, 2020
বাজেটের কোনও অঙ্কই মিলছে না, আসন্ন বাজেটে বৃদ্ধিতে গতি ফিরবে কীভাবে?
দেবনারায়ণ সরকার

বস্তুত, বর্তমান অর্থবর্ষে ভারতের অর্থনীতির চিত্র যথেষ্ট বিবর্ণ। সমৃদ্ধির হার ক্রমশ কমে ৫ শতাংশে নামার ইঙ্গিত, যা ১১ বছরে সর্বনিম্ন। মুদ্রাস্ফীতি গত ৩ বছরে সর্বাধিক। শিল্পে সমৃদ্ধির হার ৮ বছরে সর্বনিম্ন। পরিকাঠামো শিল্পে বৃদ্ধির হার ১৪ বছরে সর্বনিম্ন। বিদ্যুতের চাহিদা ১২ বছরে সর্বনিম্ন। বেসরকারি লগ্নি ১৬ বছরে সর্বনিম্ন। চাহিদা কমায় বাজারে ব্যাঙ্ক লগ্নি কমেছে, যা গত ৫৮ বছরে সর্বনিম্ন। রপ্তানিও যথেষ্ট ধাক্কা খাওয়ার ইঙ্গিত বর্তমান বছরে। এর উপর ভারতে বেকারত্বের হার গত ৪৫ বছরে সর্বনিম্ন।
বিশদ

24th  January, 2020
ক্ষমা করো সুভাষ
জয়ন্ত চৌধুরী

মুক্তিপথের অগ্রদূত তিনি। অখণ্ড ভারত সাধনার নিভৃত পথিক সুভাষচন্দ্রের বৈপ্লবিক অভিঘাত বাধ্য করেছিল দ্রুত ক্ষমতা হস্তান্তরের পটভূমি রচনা করতে। দেশি বিদেশি নিরপেক্ষ ঐতিহাসিকদের লেখনীতে আজাদ হিন্দের অসামান্য আত্মত্যাগ স্বীকৃত হয়েছে। সর্বাধিনায়কের হঠাৎ হারিয়ে যাবার বেদনা তাঁর জন্মদিনেই বড় বেশি স্পর্শ করে যায়।  
বিশদ

23rd  January, 2020
স্বামীজি, বিশ্বকবি ও নেতাজির খিচুড়ি-বিলাস
বিকাশ মুখোপাধ্যায়

মঙ্গলকাব্য থেকে কাহিনীটা এভাবে শুরু করা যেতে পারে।
সকাল সকাল ঘুম থেকে উঠেই মা দুর্গা নন্দিকে তলব করেছেন, যাও ডাব পেড়ে নিয়ে এসো।
নন্দির তখনও গতরাতের গাঁজার খোঁয়ার ভাঙেনি। কোনওরকমে জড়ানো স্বরে বলল, ‘এত্তো সকালে মা?’  বিশদ

23rd  January, 2020
‘যে আপনকে পর করে...’
শান্তনু দত্তগুপ্ত

মহাত্মা গান্ধী একটা কথা বলতেন, মনপ্রাণ দিয়ে দেশের সেবা যিনি করেন, তিনিই সত্যিকারের নাগরিক। নাগরিক কাহারে কয়? বা নাগরিক কয় প্রকার ও কী কী? এই জাতীয় প্রশ্ন এখন দেশে সবচেয়ে বেশি চর্চিত। সবাই নিজেকে প্রমাণে ব্যস্ত। ভালো নাগরিক হওয়ার চেষ্টাচরিত্র নয়, নাগরিক হতে পারলেই হল। তার জন্য কাগজ লাগবে। এক টুকরো কাগজ প্রমাণ করবে, আপনি আমি ভারতের বাসিন্দা।   বিশদ

21st  January, 2020
আইন ও বাস্তব
পি চিদম্বরম

আপনি যখন এই লেখা পড়ছেন তখন ইন্টারনেট, আন্দোলন, জনসমাবেশ, রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড, ভাষণ ও লেখালেখি এবং কাশ্মীর উপত্যকার পর্যটকদের উপর নিয়ন্ত্রণ জারি রয়েছে। কোনোরকম ‘চার্জ’ ছাড়াই রাজনৈতিক নেতাদের হেপাজতবাসও চলছে যথারীতি। সুতরাং প্রশ্ন উঠছে—আদালতের রায়ের পরেও বাস্তবে কিছু পরিবর্তন হয়েছে কি?
বিশদ

20th  January, 2020
নেতাজি—আঁধারপথে অনন্ত আলোর দীপ্তি
সন্দীপন বিশ্বাস

স্বাধীনতার পর অতিক্রান্ত বাহাত্তর বছর। কিন্তু আজও যেন তার নাবালকত্ব ঘুচল না। আসলে দেশের যাঁরা হাল ধরেন, তাঁরাই যদি নাবালকের মতো আচরণ করেন, তাহলে দেশও নাবালকই থেকে যায়। এই নাবালকত্ব আসলে এক ধরনের অযোগ্যতা। সেই অযোগ্যতার পথ ধরেই দেশ ডুবে আছে অসংখ্য সঙ্কটে। দুর্নীতিই হল সেই সঙ্কটের মধ্যমণি।  
বিশদ

20th  January, 2020
মানুষকে সঙ্কটে ফেলা ছাড়া নোটবাতিলের
আর কোনও উদ্দেশ্যই সফল হয়নি 
হিমাংশু সিংহ

আর-একটা সাধারণ বাজেট পেশ হতে চলেছে দু’সপ্তাহের মধ্যে। নিঃসন্দেহে এবারের বাজেটের প্রধান লক্ষ্য, বেনজির আর্থিক মন্দার মোকাবিলা করা, নতুন কাজের সুযোগ সৃষ্টি করা এবং একইসঙ্গে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পকে চাঙ্গা করা। ছাপ্পান্ন ইঞ্চি ছাতির নরেন্দ্র মোদি যতই নিজের ঢাক পেটান না কেন, দেশের অর্থনীতি এই মুহূর্তে ভয়ঙ্কর সঙ্কটে জর্জরিত। 
বিশদ

19th  January, 2020
একনজরে
 নয়াদিল্লি, ২৫ জানুয়ারি (পিটিআই): বিনিয়োগ, বাণিজ্য, তেল, গ্যাস, সাইবার সুরক্ষা এবং তথ্যপ্রযুক্তি ক্ষেত্রে ব্রাজিলের সঙ্গে ১৫টি চুক্তি করল ভারত। শনিবার ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জায়ের মেসিয়াস বলসোনারোর ...

 অর্পণ সেনগুপ্ত, কলকাতা: খোদ গাইডই জালিয়াতির অভিযোগ এনেছেন। তাই এ বছর কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তনে এম ফিলের শংসাপত্র পাওয়া হচ্ছে না গবেষক কার্তিক নস্করের। দু’বছর ধরে এই অভিযোগের কোনও মীমাংসাও হয়নি। বাংলা বিভাগের গবেষক কার্তিকের দাবি, বোর্ড অব ডিসিপ্লিন বিষয়টি দেখছে। ...

সংবাদদাতা, বর্ধমান: টেস্ট ক্রিকেটের আকর্ষণ ফিরিয়ে আনার জন্য উদ্যোগ আইসিসিকেই নিতে হবে। তা চারদিনের হোক বা পাঁচদিনের টেস্ট হোক। মানুষ টেস্টে ফল দেখতে চায়। নিস্ফলা ড্র দেখতে মানুষ মাঠে আসবে না। ফলটাই হল আসল। সেই জন্য চারদিন হোক বা পাঁচদিনের ...

সংবাদদাতা, কাঁথি: এসপি১২৫, বিএস-VI এবং অ্যাকটিভা বিএস-VI নামে নতুন বাইক ও স্কুটির মডেল বাজারে নিয়ে এল হোন্ডা। ২৩ জানুয়ারি কাঁথি প্রভাত কুমার কলেজ ফুটবল গ্রাউন্ডে পিএমপি হোন্ডা ও প্রশান্ত হোন্ডার যৌথ উদ্যোগে ‘অ্যাডভান্সড ফেস্ট’ অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে এই দুটি মডেলের ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কোনও কিছুতে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে ভাববেন। শত্রুতার অবসান হবে। গুরুজনদের কথা মানা দরকার। প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় সুফল ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

সাধারণতন্ত্র দিবস
১৮৪১: আনুষ্ঠানিকভাবে হংকং দখল করল ব্রিটিশরা
১৯৩০: পরাধীন ভারতে এই দিনটিকে ‘পূর্ণ স্বরাজ দিবস’ বা ‘স্বাধীনতা দিবস’ হিসাবে ঘোষণা করল জাতীয় কংগ্রেস
১৯৫০: লাগু হল ভারতের সংবিধান। রাষ্ট্রপতি পদে রাজেন্দ্র প্রসাদ দায়িত্ব গ্রহণ করে সূচনা করলেন গণতন্ত্রের।
১৯৫৪: রাজনীতিবিদ মানবেন্দ্রনাথ রায়ের মৃত্যু
১৯৬৫- হিন্দিকে সরকারি ভাষা হিসেবে স্বীকৃতি দিল কেন্দ্র
১৯৯২: পরমাণু অস্ত্রের মাধ্যমে আমেরিকার বিভিন্ন শহরকে নিশানা করা থেকে রাশিয়া বিরত হবে বলে জানালেন বরিস ইয়েলৎসেন
২০০১: গুজরাতের ভুজে বিধ্বংসী ভূমিকম্পে মৃত্যু হল প্রায় ২০ হাজার মানুষের
২০০৪: আফগানিস্তানের নয়া সংবিধানে স্বাক্ষর করলেন প্রেসিডেন্ট হামিদ কারজাই





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৫১ টাকা ৭২.২১ টাকা
পাউন্ড ৯১.৯৮ টাকা ৯৫.৩২ টাকা
ইউরো ৭৭.৩৮ টাকা ৮০.৩৩ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
25th  January, 2020
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪০,৯৮৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৮,৮৮৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৯,৪৭০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৭,১০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৭,২০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

১১ মাঘ ১৪২৬, ২৬ জানুয়ারি ২০২০, রবিবার, (মাঘ শুক্লপক্ষ) দ্বিতীয়া ৫৯/৪৫ শেষ রাত্রি ৬/১৬। ধনিষ্ঠা অহোরাত্র। সূ উ ৬/২১/৫৩, অ ৫/১৬/১৩, অমৃতযোগ দিবা ৭/৫ গতে ১০/০ মধ্যে। রাত্রি ৭/১ গতে ৮/৪৬ মধ্যে। বারবেলা ১০/২৭ গতে ১/১০ মধ্যে। কালরাত্রি ১/২৭ গতে ৩/৬ মধ্যে। 
১১ মাঘ ১৪২৬, ২৬ জানুয়ারি ২০২০, রবিবার, দ্বিতীয়া ৫৬/১৭/৫২ শেষরাত্রি ৪/৫৬/৫। ধনিষ্ঠা ৫৮/৫৪/২৯ শেষরাত্রি ৫/৫৮/৪৪। সূ উ ৬/২৪/৫৬, অ ৫/১৪/৫৬, অমৃতযোগ দিবা ৭/১ গতে ৯/৫৯ মধ্যে ও রাত্রি ৭/৮ গতে ৮/৫১ মধ্যে। কালবেলা ১১/৪৯/৫৬ গতে ১/১১/১১ মধ্যে। কালরাত্রি ১/২৮/৪১ গতে ৩/৭/২৬ মধ্যে।
৩০ জমাদিয়ল আউয়ল 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
শুভেচ্ছা ও ছুটি

আজ রবিবার দেশের ৭১তম সাধারণতন্ত্র দিবস। এই উপলক্ষে বর্তমান পত্রিকার ...বিশদ

08:00:00 AM

পদ্মভূষণ পাচ্ছেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মনহর পারিক্কর, ব্যবসায়ী আনন্দ মহিন্দ্রা ও ভেনু শ্রীনিবাসন, ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড় পিভি সিন্ধু, নাগাল্যান্ডের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী এস সি জমির এবং জম্মু ও কাশ্মীরের রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব মুজাফ্ফর হোসেন বেগ 

25-01-2020 - 09:18:00 PM

পদ্মবিভূষণ পাচ্ছেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অরুণ জেটলি, স্বরাজ, জর্জ ফার্ণান্ডেজ, বক্সার মেরি কম, মরিশাসের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অনিরুদ্ধ জগন্নাথ 

25-01-2020 - 09:13:00 PM

 পদ্মশ্রী পাচ্ছেন কঙ্গনা রানউত, একতা কাপুর, আদনান সামি এবং করণ জোহর

25-01-2020 - 09:07:04 PM

ম্যাচ চলাকালীন অশ্লীল ভাষা ব্যবহার, ম্যাচ ফি কাটা হল বেন স্টোকসের
জোহানেসবার্গ টেস্ট চলাকালীন অশ্লীল ভাষা ব্যবহারের অপরাধে ইংল্যান্ডের খেলোয়ার বেন ...বিশদ

25-01-2020 - 08:05:00 PM

ম্যাচ চলাকালীন অশ্লীল ভাষা ব্যবহার, ম্যাচ ফি কাটা হল বেন স্টোকসের
আজ সিএএ, এনআরসি ইস্যু নিয়ে দলীয় বৈঠক করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ...বিশদ

25-01-2020 - 06:32:00 PM