Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

প্রতিবেশীর আতঙ্ক বাড়াতে আইএস
জঙ্গিদের প্রশিক্ষণ দিচ্ছে পাকিস্তানই
মৃণালকান্তি দাস

আমেরিকা কি সিরিয়ায় আইএস-এর বিরুদ্ধে অভিযানে বড় কোনও সাফল্য পেয়েছে?  মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের একটি ট্যুইট সেই জল্পনা ছড়িয়ে পড়েছে। মার্কিন সময় শনিবার রাতে ট্রাম্প ট্যুইটারে লেখেন, ‘এইমাত্র খুব বড় একটা ঘটনা ঘটল।’  তার মধ্যেই হোয়াইট হাউসের ডেপুটি প্রেস সেক্রেটারি হোগান গিডলে সংবাদমাধ্যমকে জানান, ‘‘মার্কিন সময় রবিবার সকাল নটায় বিরাট ঘোষণা করতে চলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।’’  মার্কিন সাপ্তাহিক  ‘নিউজউইক’  পদস্থ এক সেনা আধিকারিককে উদ্ধৃত করে দাবি করেছে, অভিযানে নিহত হয়েছে বাগদাদি। যদিও কোথায়, কীভাবে সেই সাফল্য এসেছে, সেই বিষয়ে ওই সেনা আধিকারিক কিছু বলতে চাননি। এ ক্ষেত্রেও অবশ্য নাম প্রকাশ করতে চাননি ওই সেনাকর্তা। তাহলে কি সত্যিই আইএস শীর্ষ নেতা আবু বকর আল বাগদাদি নিহত? যদিও গত পাঁচ বছরে একাধিকবার তার মৃত্যুর খবর এসেছে। কিন্তু সব জল্পনা উড়িয়ে বারবার আবির্ভাব ঘটেছে কুখ্যাত জঙ্গি আবু বকর আল বাগদাদির।
ডোনাল্ড ট্রাম্প গত বছরও জঙ্গি সংগঠন আইএসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে চূড়ান্ত বিজয় ঘোষণা করে একটি ট্যুইটে লিখেছিলেন, ‘‘আইএস পরাজিত হয়েছে। তুরস্কসহ অন্যসব দেশ এখন নিজেরাই অবশিষ্ট জঙ্গিদের সামলাতে পারবে। আমরা এখন (সিরিয়া থেকে) দেশে ফিরছি!’’  ওই বছরে তিন মাসের মধ্যে অন্তত ১৬টি ট্যুইট বার্তায় ট্রাম্প দাবি করেছিলেন, আইএস পরাজিত হয়েছে অথবা পরাজয়ের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে গিয়েছে। কিন্তু মার্কিন প্রতিরক্ষা এবং বিদেশ দপ্তরের দুই শীর্ষকর্তা এবং ইউএস এজেন্সি ফর ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্টের কর্তা ট্রাম্পের সেই দাবি উড়িয়ে দিয়েছিলেন। তাঁরা মার্কিন কংগ্রেসে একটি প্রতিবেদন দাখিল করে বলেছিলেন,  জমি হারালেও আইএস জঙ্গিরা এখনও সিরিয়া ও ইরাকে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রয়েছে এবং আবার তারা তাদের খিলাফত প্রতিষ্ঠার জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। মার্কিন গবেষণাপ্রতিষ্ঠান নিউ আমেরিকার সিইও অ্যান মারি স্লটার এবং জর্জ ওয়াশিংটন ইউনিভার্সিটির শিক্ষক আসা সি ক্যাসলবেরি জানাচ্ছেন, ‘‘সিরিয়া থেকে ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে সব মার্কিন সেনা এবং আফগানিস্তান থেকে অর্ধেক সেনা সরিয়ে নেওয়ার যে সিদ্ধান্ত ট্রাম্প নিয়েছিলেন, সেই সিদ্ধান্তই আইএসের তৎপরতা বৃদ্ধির আংশিক কারণ। ট্রাম্পের এই সিদ্ধান্তের সঙ্গে একমত হতে না-পারার কারণে প্রতিরক্ষা দপ্তরের দায়িত্ব থেকে জেমস ম্যাটিসকে সরে যেতে হয়েছিল। এই সিদ্ধান্তের কারণে আমেরিকার আঞ্চলিক পার্টনারদের সন্ত্রাস মোকাবিলায় জোর ধাক্কা খেতে হচ্ছে। শুধু তাই-ই নয়, ইরাকের বাগদাদ,  নিনেওয়া ও আল আনবার প্রদেশ ছাড়াও মধ্য ইউফ্রেটিস রিভার ভ্যালি এলাকায় আইএস জঙ্গিরা আবার ধীরে ধীরে সংগঠিত হচ্ছে। সিরিয়ায় আল রাক্কা এবং হোমস প্রদেশে আইএস আবার শক্তিশালী ঘাঁটি গড়ে তোলার চেষ্টা করছে। আইএসের যুদ্ধক্ষেত্র এখন যতটা না ‘ফিজিক্যাল’,  তার চেয়ে অনেক বেশি ‘ডিজিটাল’। এই দিকে নজর রেখে আমেরিকাকে অবশ্যই সজাগ হতে হবে। বিশেষত, তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে আইএস যাতে শক্তি সঞ্চয় না করতে পারে, সে বিষয়ে সচেষ্ট থাকতে হবে।’’
সবচেয়ে আতঙ্ক এখন আফগানিস্তানকে নিয়ে। আফগানিস্তানের ইসলামিক স্টেট (আইএস) স্থানীয়ভাবে ইসলামিক স্টেট ইন খোরসান (আইএসআইকে) নামে পরিচিত। ২০১৪ সালে প্রথম আইএসের উপস্থিতি টের পাওয়া গিয়েছিল আফগানিস্তানে। যদিও পেন্টাগন সেই জঙ্গিগোষ্ঠীটিকে পাকিস্তানি তালিবানের একটি বিচ্ছিন্ন গোষ্ঠী বলে পাত্তা দিতে চায়নি। হালফিল এর সদস্যসংখ্যা তিন হাজারের বেশি। আফগানিস্তানের পূর্বাঞ্চলে প্রধানত,  কুনার,  নানগারহার,  নুরিস্তান ও লাঘমান প্রদেশে তাদের শক্ত ঘাঁটি রয়েছে। সাম্প্রতিককালে উত্তরের কুন্দুজ ও পশ্চিমের হেরাতে আইএসআইকে তাদের ঘাঁটির বিস্তার ঘটিয়েছে। কাবুলে তাদের ইউনিটটি সবচেয়ে মারাত্মক। কারণ, ২০১৮ সালে গোষ্ঠীটি কাবুলে এককভাবে ২৪টি হামলা চালায়। এই সংখ্যা হাক্কানি নেটওয়ার্কের চালানো হামলার সংখ্যাকেও ছাপিয়ে গিয়েছিল। সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, ২০১৭ সালের ৭ এপ্রিল রাখমত আকিলভ নামে এক উজবেক সুইডেনের স্টকহোমে জঙ্গি হামলা চালায়,  যাতে পাঁচজন মারা যায়। সেই আকিলভের মগজধোলাই হয়েছিল নানগারহারের একজন আইএস নেতার হাতেই। সম্প্রতি প্রকাশিত রাষ্ট্রসঙ্ঘের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০১৮ সালের প্রথম ছয় মাসে আফগানিস্তানে ৩ হাজার ৮৮১ জন অসামরিক মানুষের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে ৪২৩ জনের মৃত্যু হয়েছে আইএসআইকে জঙ্গিদের হাতে।
আইএস বরাবরই রাজনৈতিক শূন্যতা ও অরক্ষিত পরিবেশের সুযোগ নিয়ে এক একটি এলাকায় অনুপ্রবেশ করে। সেই দিক দিয়ে আফগানিস্তান তাদের কাছে সবচেয়ে আকর্ষণীয় জায়গা। দু’বছর আগে ইরাকের মসুল পতনের পর সেখান থেকে পালিয়ে চলে আসা কয়েকজন তরুণ আইএস সদস্যের সাক্ষাৎকার নিয়েছিলেন পাকিস্তানের ‘ডন’ পত্রিকার সাংবাদিক আরসালা জাওয়াইদ। তাঁর কথায়, ‘‘ওই আইএস জঙ্গিদের প্রায় সবার কথায় একটি অভিন্ন ভাষা ছিল। বয়সে তরুণ জঙ্গিরা যখন শাসনক্ষমতার খুব কাছে যাওয়ার সুযোগ পায়, তাদের সিদ্ধান্ত যখন গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করা হয়, তখন তারা আইএসে যোগ দেওয়ার বিষয়ে আগ্রহী হয়ে ওঠে। একেকটি শহর পরিচালনার দায়িত্ব দেওয়া হয় অল্পসংখ্যক তরুণকে। এই শাসনক্ষমতার লোভ দেখিয়ে আফগানিস্তানেও তরুণদের আইএস দলে ভেড়াচ্ছে। আইএস মনে করছে, তালিবানের তরুণ জঙ্গিদের যত দ্রুত দলে ভেড়ানো যাবে, তত তাড়াতাড়ি আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণ নেওয়া সম্ভব হবে।’’
ভয় একটাই! দেশে দেশে ছড়িয়ে পড়ছে আইএস জঙ্গিরা। বছর দুই আগে, ফ্রান্স জানিয়েছিল, তাদের দেশ থেকে ১ হাজার ৭০০ জন আইএসের হয়ে লড়াই করতে দেশ ছেড়েছিল। এদের মধ্যে ৪০০ থেকে ৪৫০ জন মারা পড়েছে। দেশে ফিরেছে ২৫০ জন। ফরাসি বিদেশমন্ত্রী জ্যঁ-ইভ লুদরিও জানিয়েছিলেন, ইরাক ও সিরিয়ায় এখনও ৫০০ ফরাসি আইএসের হয়ে লড়ছে। তাদের জন্য এখন ফ্রান্সে ফিরে আসাটা বেশ কঠিন। এর বাইরেও ৫০০ জনের কোনও হদিসই নেই। তারা যুদ্ধের কৌশল রপ্ত করেছে, বোমা বানাতে পারে। আমেরিকার জর্জটাউন বিশ্ববিদ্যালয়ের সন্ত্রাসবাদ বিশেষজ্ঞ ব্রুস হফম্যান জানিয়েছেন, হাজার হাজার আইএস জঙ্গি ইরাক-সিরিয়ার যুদ্ধক্ষেত্র থেকে পালিয়েছে। তাদের অনেকে এখন বলকান অঞ্চলে গা ঢাকা দিয়েছে। সুযোগ খুঁজছে ইউরোপের বিভিন্ন দেশে ঢোকার জন্য। সন্ত্রাসবাদ-বিষয়ক আরেক বিশেষজ্ঞ থমাস স্যান্ডার্সের মতে,  অন্তত ৮০ জন আইএস জঙ্গি ফিলিপিন্সের দক্ষিণাঞ্চলে আবু সায়েফ বিদ্রোহীদের সঙ্গে যোগ দিয়েছে। তারা মরক্কো,  সৌদি আরব,  রাশিয়া ও ইয়েমেন থেকে পালিয়ে আইএসে যোগ দিয়েছিল। আফগানিস্তানের উত্তরাঞ্চলের বাসিন্দারা জানিয়েছেন, ফরাসি ভাষায় কথা বলে, এমন আইএস জঙ্গিরা তাদের এলাকায় ঢুকে পড়েছে। অনেকে সাধারণ মানুষের সঙ্গে মিশে গিয়েছে।
সম্প্রতি ভারতে নয়া  ‘প্রদেশ’  প্রতিষ্ঠার ঘোষণা করেছে জঙ্গি সংগঠন আইএস। গত মে মাসে কাশ্মীরের সোপিয়ানে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে মৃত্যু হয় ইশফাক আহমেদ সোফি ওরফে আবদুল্লা ভাই নামে এক জঙ্গির। ওই দিনই নিজেদের মুখপত্র  ‘আমাক’-এ  ‘উইলায়া অব হিন্দ’  অর্থাৎ ভারতীয় প্রদেশ প্রতিষ্ঠার ঘোষণা করছে ওই জঙ্গি সংগঠন। তবে সোফিকে আবু নাদের আল কাশ্মীরি বলে চিহ্নিত করে তারা। তার আগে, গত ফেব্রুয়ারি মাসে ‘আল রিসাল্লাহ্’  পত্রিকায় সোফির একটি সাক্ষাৎকার প্রকাশিত হয়। এই পত্রিকার সত্যতা যদিও যাচাই করা যায়নি, তবে বিভিন্ন সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইেট সেই সাক্ষাৎকার কিছু অংশ ছড়িয়ে পড়ে। তাতে কালো কাপড়ে মুখ ঢেকে, হাতে বন্দুক নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায় সোফিকে। নিজেকে উত্তর কাশ্মীরের বারামুল্লার বাসিন্দা বলে জানায় সে। তবে ওই পত্রিকার সঙ্গে আইএস-এর যোগ নাও থাকতে পারে বলে পুলিস সূত্রে বলা হয়েছে। তাদের যুক্তি,  আইএস-এর পত্রিকাগুলি দেখলে বোঝা যায়,  পেশাদার লোক নিয়োগ করে সেগুলি তৈরি করা হয়েছে। কিন্তু ‘আল রিসাল্লাহ্’ পত্রিকায় তার কোনও বৈশিষ্ট্যই চোখে পড়েনি। গোয়েন্দারা বার বার সতর্ক করছে, ভারতে হামলা চালাতে পারে আইএস,  নজরে কাশ্মীর এবং দক্ষিণের রাজ্যগুলি। কেরল পুলিস সূত্রে জানা গিয়েছে, গত কয়েক বছরে রাজ্য থেকে প্রায় ১০০ জন আইএসে যোগ দিয়েছে। তাদের আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়েছিল আরও কয়েক হাজার মানুষ। রাজ্যের ২১টি কাউন্সেলিং সেন্টারে তাদের মধ্যে তিন হাজার জনকে মূলস্রোতে ফেরানো গিয়েছে। তবে, নজরদারির মধ্যে রয়েছে তারা। গোয়েন্দাদের সতর্কবার্তা পেয়ে রাজ্যের নিরাপত্তা আটোসাঁটো করা হয়েছে। নজরদারি চলছে সোশ্যাল মিডিয়াতেও।
খোঁজ নিয়ে জানা গিয়েছে, প্রথমে পাকিস্তানি তালিবানদের একটি দুর্বল জোট হিসেবে যে গোষ্ঠীটিকে বিবেচনা করা হয়েছিল,  সেই আইএসআইকেতে এখন কাজাখস্তান,  তাজিকিস্তান,  ইরাক ও সিরিয়ার জঙ্গিরাও যুক্ত হয়েছে। বহু আফগান যুবক ও তালিবান ছেড়ে আসা জঙ্গিরাও তাদের যোদ্ধা। ওই জঙ্গিদের নাকি আফগান মানদণ্ডে বেশ ভালো অর্থ দেওয়া হয়। কোনও কোনও এলাকায় এই অর্থের পরিমাণ মাসে কয়েকশো ডলার। সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী,  কাঠ,  মাদক ও খনি থেকে পাওয়া মূল্যবান পাথর পাচার করে এবং তোলা তুলে আইএসআইকে অর্থ সংগ্রহ করে থাকে। প্রাথমিকভাবে আরব দুনিয়ার নেতারা আইএসআইকে আর্থিক সহায়তা দিতেন। কিন্তু এখন তারা স্বনির্ভর হিসেবে বিবেচিত। আব্দুল রহিম মুসলিমদোস্তের মতো কিছু দলছুট আইএস নেতার মতে, আইএসআইকে পাকিস্তানের সৃষ্টি। আফগান সাংবাদিক আব্দুল রহিম মুসলিমদোস্ত ইরাকে ও আফগানিস্তানে আইএসের সদস্য ছিল। ২০১৫ সালে সে আইএস-সঙ্গ ত্যাগ করে। বেশ কিছুদিন পাকিস্তানের কারাগারে ও গুয়ানতানামো বের বন্দিশিবিরে বন্দিও ছিল সে।
অনেকের যুক্তি, আফগানিস্তানে আইএসআইকের প্রায় রাতারাতি উত্থান এবং তাদের মোকাবিলা করতে আমেরিকার অনীহায় এই ধারণাই জোরালো হয় যে, তালিবানকে দুর্বল করার একটি গোপন প্রচেষ্টা হিসেবে আমেরিকাই আইএসআইকে নামে সংগঠনটাকে ইন্ধন জুগিয়েছে। বেশিরভাগ মানুষ যে তত্ত্বটি বিশ্বাস করে সেটা হচ্ছে আইএসআইকে সিআইএ-র তৈরি করা একটি জঙ্গি সংগঠন, যা পুনরুজ্জীবিত হওয়া তালিবানের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য মার্কিন সেনাবাহিনী এবং আফগান সরকার গঠন করেছে।
এই তত্ত্বের আরও একটি বিশ্বাসযোগ্য কারণ হল, আফগানিস্তানে অনেক প্যান-ইসলামিক গোষ্ঠীর উপস্থিতি— তালিবান, আল–কায়েদা এবং এখন আইএসআইকে। একই মতাদর্শ ও লক্ষ্য নিয়ে তারা আফগানিস্তানের মাটিতে ঘাঁটি গেড়েছে। আফগানিস্তানকে অস্থিতিশীল রাখাই তাদের মূল লক্ষ্য। আফগানিস্তানে শান্তি ফেরাতে পাকিস্তানের সাহায্যে চেয়েছে মার্কিন সরকার। কিন্তু, পাকআশ্রিত এবং পাকমদতে পুষ্ট জঙ্গিদের জন্য দেশের স্থিতিশীলতাই নষ্ট হচ্ছে বলে ইতিমধ্যেই অভিযোগ তুলেছে আফগান সরকার। সন্ত্রাসে মদত জোগানো নিয়ে এবার পাকিস্তানকে একহাত নিয়েছেন আফগানিস্তানের প্রাক্তন গুপ্তচর প্রধান তথা
প্রাক্তন অভ্যন্তরীণ মন্ত্রী আমরুল্লা সালেহ।
জয়েশ-ই-মহম্মদ, লস্কর-ই-তইবার পাশাপাশি আইএস জঙ্গিদেরও পাকিস্তান অস্ত্র প্রশিক্ষণ দিচ্ছে বলে দাবি তাঁর।
সম্প্রতি একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘‘তালিবানই অন্য জঙ্গি সংগঠনগুলিকে জায়গা করে দিয়েছিল। এই মুহূর্তে তালিবান দমনই প্রধান লক্ষ্য আমাদের। তারপর বাকি সংগঠনগুলির বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করা হবে। তবে ইতিমধ্যেই বেশ কয়েক জন আইএস জঙ্গিকে বন্দি করেছে আমাদের নিরাপত্তাবাহিনী। পাকিস্তান থেকে আর্থিক সাহায্য এবং অস্ত্র প্রশিক্ষণ পাওয়ার কথা স্বীকার করেছে তারা। আইএস জঙ্গিদের গতিবিধির উপর নজরদারিতেও পাকিস্তানের সঙ্গে তাদের যোগাযোগ ধরা পড়েছে। খোরাসানে আইএস-এর যে শাখা রয়েছে, সড়কপথে পাকিস্তানে যাতায়াতও আছে তাদের।’’  এর আগে আফগান বিদেশ মন্ত্রকের তরফেও পাকিস্তানের তীব্র সমালোচনা করা হয়েছিল। আফগান সরকার বলেছিল, ‘‘আফগানিস্তান কখনওই পাকিস্তানের পক্ষে বিপজ্জনক নয়। বরং ঠিক উল্টোটাই ঘটছে। পাকআশ্রিত এবং পাকমদতে পুষ্ট জঙ্গিদের জন্য আফগানিস্তানের স্থিতিশীলতাই নষ্ট হচ্ছে।’’
আফগানিস্তানে সম্প্রতি আইএসের উত্থান, অর্থের উৎস, লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য সম্পর্কে যা বলা হচ্ছে, তা নিয়ে অনেক জল্পনা রয়েছে। আফগানিস্তান কি আদৌ আইএসের চ্যালেঞ্জকে রুখতে সক্ষম হবে? নাকি আরব দুনিয়ার মতো ছড়িয়ে পড়বে গোটা এশিয়া ভূখণ্ডে। আর আইএসের সেই উত্থানের দায় নিতে হবে ইসলামাবাদকেই।
 
28th  October, 2019
সতর্ক প্রহরী
পি চিদম্বরম

ব্যারিস্টার ভি জি রো মাদ্রাজ হাইকোর্টের আইনজীবী ছিলেন। তিনি ছিলেন বাম-মনস্ক উদার। সমস্ত ধরনের বিজ্ঞানের ব্যবহারিক জ্ঞান, রাজনৈতিক শিক্ষা এবং শিল্প, সাহিত্য, নাটক প্রভৃতিকে জনপ্রিয় করে তুলতে তিনি পিপলস এডুকেশন সোসাইটি গড়েছিলেন।
বিশদ

একটু সময় দিন,
পাশে দাঁড়ান
হিমাংশু সিংহ

বামফ্রন্ট সরকার ১৯৭৭ সালে ক্ষমতায় আসার পরের বছরই ভয়াবহ বন্যার মুখোমুখি হয়েছিল বাংলা। ভেসে গিয়েছিল একের পর এক জেলা, দক্ষিণবঙ্গের বড় বড় শহর। কলকাতাও রেহাই পায়নি সেই বিপর্যয়ের হাত থেকে।
বিশদ

31st  May, 2020
বিশ্বাসযোগ্যতা ও বলিষ্ঠ
পদক্ষেপের এক বছর
রাজনাথ সিং

যে কোনও দেশের ইতিহাসে পাহাড়প্রমাণ পরিবর্তন দেখার সুযোগ খুব কমই আসে। ২০১৪ সালে ভারতের রাজনৈতিক ইতিহাসে এরকমই একটি বিরাট পরিবর্তন এসেছিল। দেশের মানুষ দুর্বল এবং দুর্নীতিগ্রস্ত প্রশাসনের হাত থেকে রেহাই পেতে চেয়েছিলেন।
বিশদ

30th  May, 2020
বন্দি যখন শিশুমন
তন্ময় মল্লিক

 ‘উফ, আর পারা যাচ্ছে না। কবে যে মুক্তি পাব?’ ‘কতদিন বাজার যাইনি। এইভাবে দমবন্ধ অবস্থায় থাকা যায়?’ ‘দিনরাত গাধার খাটুনি খাটছি। তার উপর তোদের জ্বালাতন। এবার ঠাস ঠাস করে চড়িয়ে দেব।’ লকডাউনের গৃহবন্দি জীবনে এমন সংলাপ আজ প্রায় ঘরে ঘরে।
বিশদ

30th  May, 2020
বাংলার দুর্ভাগ্য
সমৃদ্ধ দত্ত

এত বড় একটা সাইক্লোনে একটি রাজ্যের বৃহৎ অংশ একপ্রকার বিধ্বস্ত হয়ে গেল, অথচ গোটা দেশের কোনও দোলাচল নেই? প্রথমদিন ট্যুইটারে সমবেদনা জানিয়েই সকলে যে যার স্বাভাবিক জীবনে ফিরে গেল? কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে ঝাঁপিয়ে পড়ে এই ধ্বংসস্তূপ থেকে রাজ্যটাকে পুনরায় মাথা তুলে দাঁড়ানোর কোনও দৃপ্ত সহায়তা প্রতিজ্ঞাও তো দেখতে পাওয়া যাচ্ছে না।
বিশদ

29th  May, 2020
ভাবুন, সুন্দরবন নেই আর উম-পুন
বয়ে গিয়েছে কলকাতার উপর দিয়ে!
হারাধন চৌধুরী

ভাঙা যায়নি অনুন্নয়নের ট্র্যাডিশন। সামান্য উন্নয়নেও তীব্র বৈষম্য। ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যা। চাকরিপ্রার্থীর সংখ্যাও ক্রমবর্ধমান। পরিণামে কোটি কোটি মানুষ কাজের খোঁজে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যাচ্ছেন শত শত মাইল দূরে—চরম অনিশ্চয়তা আর বিপদকে সঙ্গী করে। অন্যদিকে, সঙ্কীর্ণ রাজনীতির বোড়ে হয়ে উঠেছেন দেশবাসীর প্রায় সকলে।
বিশদ

28th  May, 2020
‘আত্মসম্মান’ খ্যাত এক ভাঁড়ের রসিকতা
সন্দীপন বিশ্বাস 

অন্য দেশের রাজাদের মতো হবুরও আছে বিদূষক। অনেক বিদূষক তাঁর। তাঁদের তিনি ছড়িয়ে রেখেছেন বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যে। তাঁরা সেই সব রাজ্যের প্রপালক। তাঁদের কাজ হল মহারাজ হবুর মুৎসুদ্দি করা। আর নানা ধরনের মন্তব্য করে অঙ্গরাজ্যের জনগণকে আনন্দ বিতরণ করা।  বিশদ

27th  May, 2020
মানবিকতার উপর
বিশ্বাসটা যেন রাখতে পারি
শান্তনু দত্তগুপ্ত

একটা ঝড়... যা পথে বসিয়েছিল সরযূ মণ্ডলকে। জানতেও পারেননি, কোথায় উড়ে গিয়ে পড়েছিল তাঁর ছাদটা। কিন্তু সে দুঃখ ছাপিয়ে গিয়েছিল এক অন্য আতঙ্ক... নির্জলা মরতে হবে না তো? জলেই তার বসত, অথচ সে জল মুখে দেওয়া যায় না... তেষ্টা মেটে না।   বিশদ

26th  May, 2020
ব্যয় করো, ঋণ করো, টাকার জোগান বাড়াও 

পি চিদম্বরম: প্রধানমন্ত্রী গত ১২ মে ২০ লক্ষ কোটি টাকার যে স্টিমুলাস প্যাকেজ ঘোষণা করেছিলেন, গত সপ্তাহে আমি সেটার বিশ্লেষণ করেছিলাম। বিগত সপ্তাহে অর্থমন্ত্রী পাঁচ দফায় বিস্তারিতভাবে যে ঘোষণা করেছিলেন বিশেষজ্ঞ এবং অর্থনীতিবিদরা পরে সেসব কাটাছেঁড়া করেছেন।   বিশদ

25th  May, 2020
মহামারীর সঙ্গে মহাপ্রলয়,
তবু বাংলা জিতবেই
হিমাংশু সিংহ

ইতিহাসের অন্যতম কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে বাংলা। আমাদের বঙ্গভূমি। দেশভাগ, মন্বন্তর, বন্যা, মহামারী কিছুই আমাদের জীবনীশক্তিকে নিঃশেষ করতে পারেনি। ভেঙে গিয়েও আবার ঠিক ঘুরে দাঁড়িয়েছি আমরা। নতুন ভোরের স্বপ্নে শুরু হয়েছে ফের পথ চলা।
বিশদ

24th  May, 2020
আত্মকেন্দ্রিক হোন,
কিন্তু স্বার্থপর নয়
তন্ময় মল্লিক

 করোনাকে নিয়েই আমাদের বাঁচতে হবে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা হু এমনটাই জানিয়ে দিয়েছে। হু-এর এই ঘোষণার পিছনে যথেষ্ট যুক্তি আছে। চীন, জাপান, আমেরিকা, জার্মানি, ইতালি, ইজরায়েল যাই দাবি করুক না কেন, বাস্তবটা হল, করোনা ভ্যাকসিন নাগালের ধারেকাছে নেই।
বিশদ

23rd  May, 2020
করোনা প্যাকেজের অশ্বডিম্ব!
মৃণালকান্তি দাস

 প্রায় সাড়ে ৮ হাজার কোটির বিলাসবহুল বিমানের খবরটাই গিলে খেয়ে নিয়েছে করোনা সঙ্কট! খবরটা কী? এতদিন বোয়িং ৭৪৭ বিমানে বিদেশ সফরে যেতেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। খুব শীঘ্রই এর জায়গা নিতে আসছে বোয়িং ৭৭৭।
বিশদ

22nd  May, 2020
একনজরে
সংবাদদাতা, গঙ্গারামপুর: গঙ্গারামপুর পুরসভায় প্রশাসক বোর্ড দায়িত্ব নিয়েই শহরের জল প্রকল্প ও নিকাশি নালার কাজের উপর জোর দিল। গত ২০ মে পুরসভায় তৃণমূল পরিচালিত বোর্ডের মেয়াদ শেষ হয়েছে। এরপর রাজ্যের নির্দেশে পাঁচ জনের প্রশাসক বোর্ড ২৩ মে দায়িত্ব নিয়েছে।  ...

 সুখেন্দু পাল, বহরমপুর: সালাউদ্দিন পর্দার আড়ালে যেতেই রাজ্যে জেএমবির সংগঠন বিস্তারের দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছিল আব্দুল করিম। সামশেরগঞ্জে বসে সে বাংলাদেশেও জেএমবির সংগঠন মনিটরিং ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, বর্ধমান: আজ, সোমবার থেকে বর্ধমানের সর্বমঙ্গলা মন্দির খোলার কথা ঘোষণা করা হলেও করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে সেই সিদ্ধান্ত বদল করল মন্দির কর্তৃপক্ষ। ভক্তদের জন্য এখনই মন্দির খোলা হবে না। ...

মৃণালকান্তি দাস, কলকাতা: চার্লস মিলারের গল্পটা জানেন তো? স্কটল্যান্ডে পড়াশোনা শেষে চার্লস ব্রাজিলে ফিরেছিলেনএকটি ফুটবল হাতে নিয়ে। সবাই জানতে চেয়েছিল, ‘ওই গোল জিনিসটা কী?’ উত্তর ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কর্মপ্রার্থীদের কোনও সুখবর আসতে পারে। কর্মক্ষেত্রে পদন্নোতির সূচনা। গুপ্ত শত্রু থেকে সাবধান। নতুন কোনও প্রকল্পের ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

বিশ্ব দুগ্ধ দিবস
১৮৭৪ - ইষ্ট ইণ্ডিয়া কোম্পানি বিলুপ্ত হয়।
১৯২৬- আমেরিকার মডেল, অভিনেত্রী ও গায়িকা মেরিলিন মনরোর জন্ম
১৯২৯- অভিনেত্রী নার্গিসের জন্ম
১৯৩৪ - কবি, নাট্যকার ও চিত্রনাট্যকার মোহিত চট্টোপাধ্যায়ের জন্ম
১৯৬৪- সঙ্গীত পরিচালক ইসমাইল দরবারের জন্ম
১৯৬৮- মার্কিন লেখিকা ও সমাজকর্মী হেলেন কেলারের মৃত্যু
১৯৭০- অভিনেতা আর মাধবনের জন্ম
১৯৮৫ - ভারতীয় ক্রিকেটার দিনেশ কার্তিকের জন্ম।
১৯৯৬-ভারতের ষষ্ঠ রাষ্ট্রপতি নীলম সঞ্জীব রেড্ডির মৃত্যু
২০০১- নেপাল রাজপরিবারে হত্যাকাণ্ড। যুবরাজ দীপেন্দ্র গুলি করে হত্যা করে বাবা, মা, নেপালের রাজা বীরেন্দ্র এবং রানি ঐশ্বর্যসহ পরিবারের একাধিক সদস্যকে।
২০০২ - দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেট দলের প্রাক্তন অধিনায়ক হানসি ক্রোনিয়ের মৃত্যু,
২০০৯- রিও ডি জেনেইরো থেকে প্যারিস আসার পথে অতলান্তিক মহাসাগরে ভেঙে পড়ল এয়ার ফ্রান্সের এয়ারবাস এ ৪৪৭। মৃত ২২৮ আরোহী।



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৪.৭৯ টাকা ৭৬.৫১ টাকা
পাউন্ড ৯১.৭৩ টাকা ৯৫.০৩ টাকা
ইউরো ৮২.৪৬ টাকা ৮৫.৫০ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
31st  May, 2020
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪১,৮৮০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৯,৭৩০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪০,৩৩০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৮,৮০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৮,৯০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
22nd  March, 2020

দিন পঞ্জিকা

১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ১ জুন ২০২০, সোমবার, দশমী ২৫/৫ দিবা ২/৫৮। হস্তা নক্ষত্র ৫০/১৮ রাত্রি ১/৩। সূর্যোদয় ৪/৫৫/৩৬, সূর্যাস্ত ৬/১২/৫৫। অমৃতযোগ দিবা ৮/২৮ গতে ১০/১৪ মধ্যে। রাত্রি ৯/৫ গতে ১১/৫৫ মধ্যে পুনঃ ১/২১ গতে ২/৪৭ মধ্যে। বারবেলা ৬/৩৬ গতে ৮/১৫ মধ্যে পুনঃ ২/৫৩ গতে ৪/৩৩ মধ্যে। কালরাত্রি ১০/১৩ গতে ১১/৩৪ মধ্যে।
১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ১ জুন ২০২০, সোমবার, দশমী দিবা ১২/১৪। হস্তানক্ষত্র রাত্রি ১১/১। সূর্যোদয় ৪/৫৬, সূর্যাস্ত ৬/১৫। অমৃতযোগ দিবা ৮/৩০ গতে ১০/১৬ মধ্যে এবং রাত্রি ৯/৮ গতে ১১/৫৮ মধ্যে ও ১/২২ গতে ২/৫০ মধ্যে। কালবেলা ৬/৩৬ গতে ৮/১৬ মধ্যে ও ২/৫৫ গতে ৪/৩৫ মধ্যে। কালরাত্রি ১০/১৫ গতে ১১/৩৫ মধ্যে।
৮ শওয়াল

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
গত ২৪ ঘণ্টায় গুজরাতে করোনা আক্রান্ত আরও ৪৩৮ জন, রাজ্যে মোট আক্রান্ত ১৬,৭৯৪ 

31-05-2020 - 09:35:59 PM

মহারাষ্ট্রে করোনা পজিটিভ আরও ২,৪৮৭ জন, রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৬৭,৬৫৫ 

31-05-2020 - 09:16:18 PM

রাজস্থানে করোনা পজিটিভ আরও ২১৪ জন, রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৮,৮৩১ 

31-05-2020 - 09:08:26 PM

তামিলনাড়ুতে করোনা পজিটিভ আরও ১,১৪৯ জন, রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২২,৩৩৩ 

31-05-2020 - 06:59:00 PM

জলপাইগুড়িতে ৩২ লক্ষ টাকার বেআইনি মদ উদ্ধার 
অসম থেকে বিহার যাওয়ার পথে জলপাইগুড়ির গোশালা মোড়ে বিপুল পরিমাণ ...বিশদ

31-05-2020 - 06:46:00 PM

মাধ্যমিক: ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে খাতা জমা দেওয়ার হুঁশিয়ারি পর্ষদের 
এবছরের মাধ্যমিক পরীক্ষার খাতা জমা না দেওয়া পরীক্ষাকদের চরম হুঁশিয়ারি ...বিশদ

31-05-2020 - 06:45:35 PM