Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

পুজো এসে গেল
শুভা দত্ত

দিন গোনা শেষ। বছরভর প্রতীক্ষার অবসান। গতকাল মহালয়ার ভোর ফুটতেই এবারের দেবীপক্ষের সূচনা হয়ে গেল। আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়ে গেল দুর্গাপুজো, মানে মহামায়া বন্দনার উদ্‌যোগ-আয়োজনের ফাইনাল রাউন্ড। আর সেইসঙ্গেই বাঙালির সংবৎসরের সবচেয়ে বড় উৎসব—শারদোৎসবের ঢাকেও কার্যত কাঠি পড়ে গেল। শহর মহানগর থেকে গ্রাম গ্রামান্ত পাড়ায়-পাড়ায় মাঠে-ঘাটে, পথে-রাজপথে এবার শুরু হয়ে যাবে পুজোর প্রতিমা-মণ্ডপের উদ্বোধন। রাজনৈতিক নক্ষত্র থেকে টলিউড-বলিউডের তারকা, খ্যাতিমান কবি, সাহিত্যিক, সেলিব্রিটি—আগামী এক-দেড় হপ্তা দিনরাত একাকার করে মণ্ডপ থেকে মণ্ডপে ছুটে বেড়াবেন কখনও উদ্বোধনের খাতিরে, কখনও পুজোয় পুজোয় সেরার লড়াইয়ে সেরার সেরা বাছাই করার বিচারক হিসেবে। তবে যতদূর খবর, এবারও পুজো উদ্বোধনে অন্তত সংখ্যার বিচারে আর সকলকে বহু পিছনে ফেলে নিজের রেকর্ড নিজেই ভাঙতে চলেছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নামীদামি থেকে সাধারণ—এত পুজোর উদ্বোধনের অনুরোধ তাঁর দপ্তরে এসে পৌঁছেছে যে সেগুলোর সবকটিতে হাজিরা দিতে গেলে নাকি কালীপুজো পার হয়ে যাবে! রসিকতার মেজাজে এমনই কথা শুনিয়েছেন আমাদের এক তথ্যভিজ্ঞ বন্ধু।
তবে, এই রসিকতার পিছনে একটা সত্যিও কি নেই! ইতিমধ্যেই তো খবর ছড়িয়েছে যে বিগত বছরগুলোর
মতো এবারও, রাজনীতির যাবতীয় টানাপোড়েন বিতর্ক অস্বস্তি
উড়িয়ে পশ্চিমবঙ্গে দুর্গাপুজো উদ্বোধনের ময়দানে তিনি এক এবং অদ্বিতীয়। বিজেপি’র রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বা রাজ্য-রাজনীতির অন্য দিকপালেরাও পুজো উদ্বোধনের দৌড়ে আছেন বটে তবে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে তাঁদের ফারাকটা এবারেও যোজন যোজন। পাশাপাশি, দিল্লি, মুম্বই বা দেশের অন্য রাজ্য থেকেও এইসময় যে বিশিষ্ট অতিথি-অভ্যাগতবৃন্দ পুজোর উদ্বোধন বা সেরা নির্বাচনের প্রতিযোগিতায় যোগ দিতে আসেন এবং এবারও আসছেন, তাঁদের সেলেব দ্যুতিতে সংশ্লিষ্ট মণ্ডপে আড়ম্বর গরিমা, কৌতূহলী মানুষের ভিড় বাড়বে সন্দেহ নেই, কিন্তু জনপ্রিয়তায় এবারও সকলকে টেক্কা দেবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা। এমনটাই আশা করছেন পুজোর উদ্যোক্তা থেকে সাধারণ মানুষজন। এই যদি হয় বাস্তব তাহলে রসিক মানুষ ওটুকু মজা তো করতেই পারেন, তাই না?
তবে, ওয়াকিবহালেরা বলছেন, পুজো উদ্বোধন বা জনপ্রিয়তার নিরিখে দ্বিতীয় স্থানে অবধারিতভাবেই থাকবেন পদ্মশিবিরের মধ্যমণি দিলীপ ঘোষ। কয়েক বছর আগে রামনবমীতে সশস্ত্র মিছিল করে সাড়া ফেলে দেওয়ার পর শেষ লোকসভা ভোটে ১৮ আসনের চমক বিজেপি রাজ্যশিবিরের সভাপতি দিলীপ ঘোষকে কেবল প্রধান মুখ হিসেবেই তুলে ধরেনি, দলের সদস্য সমর্থককুলে তাঁকে এক মহানেতার শিরোপায় ভূষিত করেছে। সেই সুবাদে বিরোধী নেতা দিলীপ ঘোষের আকর্ষণ যে রাজনীতির পরিসরের বাইরেও যথেষ্ট ছড়িয়েছে তাও আজ কেউ খুব অস্বীকার করেন না। ফলে পুজো উদ্বোধনের মঞ্চে উদ্যোক্তাদের কাছে অন্যদের তুলনায় তাঁর গ্রহণযোগ্যতা যে অধিক হবে তা বলাই বাহুল্য। এখন এই গ্রহণযোগ্যতার বলে শাসক তৃণমূলের বাদবাকি নেতা-মন্ত্রীদের তিনি কতটা টেক্কা দিতে পারেন তা দেখার জন্য বাংলার কমপিটিশনপ্রিয় জনতা যে উদ্‌গ্রীব সেটা পথেঘাটে আড্ডা আলোচনা থেকে বেশ ভালোই বোঝা যাচ্ছে। সুরসিক বন্ধুর সংযোজন, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে লাগাতার গরম গরম তরজা, রোখাচোখা বাক্যবাণ দিলীপ ঘোষের যে যুদ্ধং দেহি ভাবমূর্তি তৈরি করেছে সেটা শান্ত-শিষ্ট ভক্তিমাধুর্যমণ্ডিত পুজোর আসরে কেমন দেখায় তা দেখার কৌতূহলও পাবলিক মনে দানা বাঁধতে শুরু করেছে। অস্বাভাবিক নয়। বাঁধতেই পারে। সবমিলিয়ে তাই অনেকেই বলছেন পুজোর লড়াইয়ের পাশাপাশি এবার মহোৎসবে মুখ্য আকর্ষণের ক্রম তালিকায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যতিরেকে বাদবাকিরা উদ্বোধন-সংখ্যার লড়াইতে কে কোন পজিশন দখল করেন তা দেখার উৎসাহ আতিশয্য ক্রমশ সাধারণজনের মধ্যে প্রবলতর হচ্ছে।
কিন্তু, জনতার এই উৎসাহ আগ্রহে বাদ সাধতে কি উঠেপড়ে লাগল বৃষ্টি! ভাদ্র শেষ হয়ে আশ্বিন পড়েছে কবেই। এখন কোথায় ঝলমলে রোদ্দুরে তুলো মেঘ ভাসা নীল আকাশ থাকবে, তা না, দেখলে মনে হচ্ছে ভরা শ্রাবণ! ঘন কালো আবার কখনও ধোঁয়াটে ধূসর একটা আকাশ, সারাদিনরাত কলকাতা সহ গোটা দক্ষিণবঙ্গে দফায় দফায় অঝোর ঝরে চলেছে, থামা নেই! পরিস্থিতি যেদিকে গড়াচ্ছে তাতে পুজোর চার দিন রেহাই পাবে কিনা তা নিয়েই তো ঘোর সন্দেহ দেখা দিয়েছে। আবহাওয়া অফিসও জোর দিয়ে তেমন কিছু এখনও বলতে পারছে না! অন্তত, শুক্রবার এই লেখা যখন লেখা হচ্ছে তখনও সেরকম কিছু শোনা গেল না! শেষ পর্যন্ত কী হবে কে জানে? তবে অনেকবার এমনও হয়েছে, পঞ্চমী অব্দি যে আকাশ মুখ ভার করে রইল মাঝে মধ্যেই ভাসাল, সেই আকাশটাই ষষ্ঠীর ভোরে ভোল পাল্টে এক্কেবারে ঝকঝকে সুন্দর হয়ে দেখা দিল! সেই নীল শরতের আকাশ, পুজোর গন্ধ আর ঢাকের শব্দে জমে গেল উৎসবের আমেজ, আবালবৃদ্ধবনিতার মুখে ফুটল হাসি। এমনটা এর আগে অনেকবারই হয়েছে। কিন্তু এবার?!উদ্যোক্তা থেকে সাধারণ উৎসবমুখর মানুষ—সকলের মনেই এখন ওই একটি প্রশ্নের উত্তর নিয়ে সংশয়ের দোলাচল। কুমোরটুলির মতো রাজ্যের পটুয়াপাড়াতেও কোথাও কোথাও সে দোলাচালের অস্বস্তি। প্রতিমায় শেষ তুলির টান দেওয়ার লগ্নে যদি বৃষ্টিজল বিপত্তি বাধায় তবে সে অস্বস্তি তো স্বাভাবিক। এমনিতেই প্রতিমা তৈরিতে নতুন প্রজন্মের অনীহা পটুয়াপাড়ার ভিতরে ভিতরে একটা সমস্যা বাড়িয়ে চলেছে। তা সত্ত্বেও যেটুকু আছে সেটুকু উজাড় করে দিয়ে যাঁরা অক্লান্ত পরিশ্রমে নিষ্ঠায় লাভালাভের চিন্তা ভুলে বাঙালির সবচেয়ে বড় সবচেয়ে মহিমাময় এই উৎসবকে বছর বছর সফল করে চলেছেন তাঁদের যাবতীয় শ্রম যদি অকালবর্ষণে বিপন্ন হয়ে পড়ে তবে সমস্যার ভার যে আরও ভারী হয় তা কি বলার অপেক্ষা রাখে?
তার উপর রাজ্য-রাজনীতিতে যা শুরু হয়েছে সেটাও তো পুজো উৎসবের মরশুমের পক্ষে খুব স্বস্তিদায়ক নয়। এতদিন কিছু হল না হঠাৎ পুজোর একেবারে মুখে দুই আইপিএস অফিসারকে সারদা-নারদা কাণ্ড নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করতে তৎপর হল সিবিআই। একজন গ্রেপ্তার হলেন অন্যজন বেপাত্তা। আর সিবিআইয়ের এই তৎপরতা নিয়ে অনিবার্যভাবেই রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল এবং প্রধান বিরোধী বিজেপি’র শীর্ষ নেতৃত্বের মধ্যে জোর তরজা শুরু হয়ে গেল। রাজ্যে এনআরসি লাগু করা নিয়ে ইতিমধ্যে এমনিতেই রাজনীতির হাওয়া গরম হয়ে আছে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সাফ জানিয়ে দিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গে কোনও অবস্থাতেই এনআরসি করতে দেবেন না। আর তার পাল্টা রাজ্যে এনআরসি করতে বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ ও তাঁর সহযোগীরা একরকম চ্যালেঞ্জই নিয়ে বসেছেন! শেষ পর্যন্ত কী হবে সেটা সময় বলবে। কিন্তু পুজোর সময় সারদা-নারদা এনআরসি এবং অবশ্যই যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে বাবুল সুপ্রিয়র সাম্প্রতিক ব্যাপারটা নিয়ে বাংলায় যে চাপা রাজনৈতিক উত্তাপ ও উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে তাতে পুজোর আনন্দে যে কিছুটা হলেও বেসুর বেজেছে তাতে সন্দেহ কী? গতকাল মহালয়ার দিনটিতেও রাজনীতি রেহাই দিল না। কী আশ্চর্য!
অথচ, একটা সময় ছিল যখন এই মহালয়ার ভোরে বীরেন্দ্রকৃষ্ণের মহিষাসুরমর্দিনী আর গঙ্গার ঘাটে ঘাটে পিতৃপুরুষের উদ্দেশ্য তর্পণের মন্ত্রে এই দিনটাকে অন্য দিনগুলোর চেয়ে কেমন যেন আলাদা মনে হতো। প্রিয়জনের উস্কে ওঠা স্মৃতি আর পুজোর গন্ধ মিলেমিশে উৎসবের একটা আবেশ-আমেজ তৈরি করে দিত। বলতে কী, মহালয়ার ভোর এলেই যেন শুরু হয়ে যেত বাঙালির মহাপূজার মহোৎসব। রাজ্যে-রাজনীতির যত টানাপোড়েনই থাক, এই দিন থেকে সাময়িক বিরতিতে চলে যেত যাবতীয় বাক্‌-বিতণ্ডা। শাসক-বিরোধী শত্রু-মিত্র সমস্ত বিবাদ ভুলে একযোগে মেতে উঠত উৎসবে। বাঙালির মহাপুজোর সেই চিরচেনা ছবিটা কি তবে আর পাঁচটার সঙ্গে বদলেই গেল! আর তাই কি পুজোর উষ্ণতা পুজোর আবেগ এখন রাজনীতির চক্রপাক কূটকচাল উপেক্ষা করে আপন ছন্দে দুর্নিবার হয়ে উঠতে থমকায়, ইতস্তত করে এবং উৎসবপ্রিয় সাধারণ জনের মনে নিঃশব্দে নীরবে সংশয়ের বীজ বুনে দিয়ে যায়! তাই ঩কি, প্রাণখোলা হাসি উল্লাসের উৎসবে গা ভাসিয়েও বাঙালি এখন আর পুরোপুরি স্বস্তি পায় না, তার মনের কোণে একটা কাঁটা ফুটতেই থাকে! এবং রাজ্য-রাজনীতির দাপটে এবার কি সে কাঁটার জ্বালা একটু বেশিই?! কে জানে? তবে তথ্যভিজ্ঞদের অভিমত তো তেমনই।
তবু, তার মধ্যেও পুজো এসে গেল। মহালয়ার দেবীপক্ষের উদ্বোধনের পর মাঝে আর কটামাত্র দিন। তারপরই সব ভোলানোর সেই দিনগুলো এসে পড়বে। এবং চোখের পলক ফেলতে না ফেলতেই দেখব আমাদের বছরভরের প্রতীক্ষায় রেখে কোথায় হারিয়ে গেল দিনগুলো! আলো নেভানো প্রতিমাহীন প্যান্ডেলের বিষাদ পিছনে ফেলে আপামর বাঙালি ফের নেমে পড়বে দৈনন্দিনের কাজে। কিন্তু তার আগে বাঙালিজন আপাতত মহামায়ার আরাধনার ওই চারদিনে অপার আনন্দের প্রত্যাশায় উন্মুখ। এখন লাগাতার বৃষ্টি আর সংঘাতময় রাজনীতির প্রতিকূলতা কাটিয়ে সাধারণের সেই প্রত্যাশা কতটা পূরণ হয় সেটাই দেখার। তবে আমাদের বিশ্বাস, মহামায়ার আশীর্বাদে সব বিঘ্ন কেটে যাবে, মানুষ পুজোর চারটে দিন নির্মল আনন্দে মাতোয়ারা হতে পারবে। পারবেই। 
29th  September, 2019
পুলিস ও আমরা
তন্ময় মল্লিক

 বহু বছর আগের কথা। এক আত্মীয়ের মালবাহী গাড়ির কেবিনে বসে কলকাতার দিকে যাচ্ছিলাম। গাড়িতে কাপড় ছিল। ড্রাইভার বড় রাস্তার মোড়ে দাঁড়িয়ে থাকা পুলিসের হাতে টাকা দিচ্ছিলেন। টাকা দেওয়ার কারণ জানতে চাইলে ড্রাইভার বললেন, ‘টাকা না দিলে ঝামেলা করবে।
বিশদ

পশ্চাতে টানিছে সে
রঞ্জন সেন

 অপুষ্টি, অস্বাস্থ্য আর দারিদ্র্যে ব্যাহত হচ্ছে শিশুদের বৃদ্ধি। পাঁচ বছরের নীচে বয়স, দেশের প্রতি তিনজন শিশুর একজনের শরীর স্বাস্থ্যের এমনই হাল। বাড়ের বয়সেই আটকে গেছে এদের বৃদ্ধি। এমন শিশুরা জীবনের রাস্তায় কতটা এগতে পারবে বা আদৌ পারবে কিনা তা বলা সত্যিই খুব কঠিন। বিশদ

রাজনৈতিক জুটি, অন্য সমীকরণ
সমৃদ্ধ দত্ত

গান্ধীজিকে রক্ষা করতে না পারা সরকারের ব্যর্থতা। আর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক সেই দায় এড়াতে পারে না। পুলিস এবং আর্মিও ব্যর্থ। অসংখ্য চিঠি আছড়ে পড়ছে গভর্নর জেনারেল মাউন্টব্যাটেনের অফিসে। প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহরুর দপ্তরে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর অফিসে।
বিশদ

18th  October, 2019
মহারাষ্ট্র ও হরিয়ানার ভোট: বিধ্বস্ত বিরোধী
বনাম দোর্দণ্ডপ্রতাপ মোদি-অমিত শাহ জুটি
বিশ্বনাথ চক্রবতী

 ২০১৯-এর লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির বিপুল জয়ের পর চার মাসের মধ্যে মহারাষ্ট্র ও হরিয়ানার বিধানসভা নির্বাচনের সম্মুখীন মোদি-অমিত শাহ জুটি। এই দুই রাজ্যে পাঁচ বছর শাসন করবার পরও মোদিই বিজেপির প্রধান ভরসার স্থল। বিশদ

17th  October, 2019
আফ্রিকায় ‘আবিম্যানিয়া’
মৃণালকান্তি দাস

 ইথিওপিয়ার মানুষ আজ মনে করেন, আবি আহমেদ আলি আর কেউ নন, স্বয়ং ভগবানের দূত! তাদের রক্ষাকর্তা! বিশদ

17th  October, 2019
সোনিয়ার দলে অন্ধকার যুগ, মহারাষ্ট্র-হরিয়ানায় অ্যাডভান্টেজ মোদি বাহিনীই
শান্তনু দত্তগুপ্ত

যতদূর মনে পড়ে সময়টা ১৯৯৬। সর্বভারতীয় একটি ইংরেজি দৈনিকে মোহিত সেনের নিবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে। বিষয়বস্তু তোলপাড় ফেলে দেওয়ার মতো। তাঁর বিশ্লেষণ, সোনিয়া গান্ধীর সক্রিয় রাজনীতিতে এসে কংগ্রেসের হাল ধরা উচিত। এই প্রসঙ্গে তিনি কংগ্রেসের প্রথম মহিলা প্রেসিডেন্টের কথা উল্লেখ করেছেন। অ্যানি বেসান্ত। বিশদ

15th  October, 2019
শেখ হাসিনার দিল্লি সফর: ভারত-বাংলাদেশ দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের সোনালি অধ্যায়
গৌরীশংকর নাগ 

দুঁদে কূটনীতিক মুচকুন্দ দুবের মতে, সামঞ্জস্যের প্রত্যাশা না করেও যদি এক্ষেত্রে ভারতকে তার স্বার্থ সামান্য বিসর্জন দিতেও হয় তাও ভেবে দেখা যেতে পারে। কারণ বাংলাদেশের সমৃদ্ধি ও অভ্যন্তরীণ স্থিরতা ভারতের সুরক্ষা তথা শক্তিকেই সুনিশ্চিত করবে। সুতরাং ভারতের উচিত অর্থনৈতিক বিষয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে যথাসম্ভব তালমিল রেখে কাজ করা।
বিশদ

14th  October, 2019
বদলে যাচ্ছে পুজো
শুভময় মৈত্র

পুজো এখন এক লক্ষ কোটি টাকা কিংবা তার থেকেও বেশি অঙ্কের ব্যবসা। এমনটা সব ধর্মেই হয়। মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ যে বিভিন্ন সময় উৎসব করেন তারও একটা বাজার আছে। রোজার সময় সন্ধেবেলা জিভে জল আনা খাবারের গন্ধ বিনা পয়সায় শোঁকা যেতেই পারে, কিন্তু কিনে খেতে গেলে পয়সা লাগবেই। ফলে ব্যবসা সেখানে অবধারিত। 
বিশদ

12th  October, 2019
সাচ্চা ক্যাপিটালিস্ট হওয়ার পাঠ শেখাচ্ছে সত্তর বছরের গণচীন
মৃণালকান্তি দাস

এখন সাধারণ পোশাক পরা মাও বা টায়ারের চপ্পল পায়ে হো চি মিনরা আর সমাজতান্ত্রিক নেতৃত্বে নেই। এখন স্যুট টাই পরা বিলাসী সাহেবরা নেতৃত্বে। কমিউনিস্ট নাম ধারণ করে আছে শুধু রাষ্ট্রীয় কাঠামোতে দলীয় একনায়কতন্ত্র অব্যাহত রাখার গরজে। ব্রিটিশরা যেমন বলে থাকেন আওয়ার কিং ইজ ডেড, লং লিভ আওয়ার কিং। ঠিক তেমনই। আগে ধনতন্ত্র পরে সমাজতন্ত্র। তার জন্য জানলা খুললে কিছু মাছি-মশা আসবে। কথাটা বলেছিলেন দেং নিজেই। অবশ্য এই মাছি-মশা নিয়ে তাঁদের কোনও ভ্রুক্ষেপ নেই। কী করে সাচ্চা ক্যাপিটালিস্ট হতে হয় সেটাও শেখাচ্ছে চীন! 
বিশদ

11th  October, 2019
এক কাপ চায়ে 
অতনু বিশ্বাস

এক কাপ চা, কত গল্প বলে সকাল, বিকেল, সন্ধে বেলা...।
এ গানের লিরিকের মতোই চা নিয়ে এবং চায়ের টেবিলে গল্পেরও কোনও শেষ নেই। এক কাপ চায়ে আমেজ আছে নিশ্চয়ই। দার্শনিক কিংবা কবি এক কাপ চায়ে খুঁজে পেতে পারে জীবনের জয়ধ্বনি, অবরুদ্ধ আবেগ, অনাবিল অনুভূতি, মুক্তির আনন্দ কিংবা উল্লাস। এমনকী গণতন্ত্রও।  
বিশদ

10th  October, 2019
জল সঙ্কট নিরসনে: শারদীয়া দুর্গোৎসবের বার্তা
জয়ন্ত কুশারী
 

শারদীয়া দুর্গোৎসব বাঙালির প্রধান উৎসব। বাঙালি দুর্গোৎসবকে কলিযুগের অশ্বমেধযজ্ঞ বলে মনে করেন। দেবীপুরাণের পুজো প্রকরণেও এ প্রসঙ্গে বলা হয়েছে—অশ্বমেধমবাপ্নোতি ভক্তিনা সুরসত্তমঃ, মহানবম্যাং পূজেয়ং সর্বকামপ্রদায়িকা।
বিশদ

05th  October, 2019
‘দিদিকে বলো’ কোনও ম্যাজিক নয়
তন্ময় মল্লিক
 

প্রশান্ত কিশোরের ‘দিদিকে বলো’ দাওয়াই তৃণমূল কংগ্রেসকে কতটা বেনিফিট দেবে, তা জানা যাবে ২০২১ সালে। কিন্তু বঙ্গ রাজনীতিতে ‘পিকে’ যে আলোড়ন ফেলে দিয়েছেন, তাতে কোনও সন্দেহ নেই। বিধায়কদের দলীয় কর্মীর বাড়িতে নিশিযাপন, মানুষের মুখোমুখি হওয়ার টোটকায় অনেক বিধায়ক মাটিতে আছাড় খাচ্ছেন। কৃতকর্মের জবাবদিহি করতে না পারলেই অভিমান সীমা অতিক্রম করছে।  
বিশদ

05th  October, 2019
একনজরে
সংবাদদাতা, নবদ্বীপ: নবদ্বীপ আঞ্চলিক ক্রীড়া সংস্থা পরিচালিত দ্বিতীয় ডিভিশন ফুটবল লিগের ক্রীড়াসূচি তৈরি হয়ে যাওয়ার পরে তিনটি ক্লাব নাম প্রত্যাহার করে নেওয়ায় লিগ বন্ধ হয়ে যায়। ওই তিনটি ক্লাবকে শোকজও করা হয়েছে। ...

সংবাদদাতা, লালবাগ: শুক্রবার থেকে মুর্শিদাবাদ-জিয়াগঞ্জ ব্লকে দিদিকে বলো কর্মসূচির দ্বিতীয় পর্যায়ের প্রচার অভিযান শুরু হল। এদিন বেলা ১২টা থেকে শনিবার সকাল পর্যন্ত ব্লকের মুকুন্দবাগ গ্রাম ...

সংবাদদাতা, পুরাতন মালদহ: শুক্রবার মালদহ জেলাজুড়ে গান্ধী সংকল্প যাত্রা শুরু করল বিজেপি। বিধানসভা এলাকা ভিত্তিক সংকল্প যাত্রার আ‌য়োজন করা হয়েছে। এদিন উত্তর মালদহের হবিবপুর ব্লকের বুলবুলচণ্ডী থেকে পাকুয়া পর্যন্ত প্রায় ২৪ কিলোমিটার সংকল্প যাত্রার সূচনা করেন উত্তর মালদহের সংসদ সদস্য ...

 নয়াদিল্লি, ১৮ সেপ্টেম্বর (পিটিআই): ২০১৯-২০ অর্থবর্ষের দ্বিতীয় ত্রৈমাসে রিলায়েন্স ইন্ড্রাস্ট্রিজের নিট মুনাফা বাড়ল ১৮.৬ শতাংশ। বেড়ে হয়েছে ১১ হাজার ২৬২ কোটি টাকা। ফলে নয়া রেকর্ড গড়ল রিলায়েন্স ইন্ড্রাস্ট্রিজ। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে মতান্তরে না যাওয়াই শ্রেয়। কর্মক্ষেত্রে স্থান পরিবর্তন হতে পারে। ব্যবসায় উপার্জন বাড়বে। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮৬৯: স্বাধীনতা সংগ্রামী মাতঙ্গিনী হাজরার জন্ম
১৯৫০: কোরিয়ার যুদ্ধে যোগ দিল গণপ্রজাতন্ত্রী চীন। রাষ্ট্রসংঘের সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধ অভিযানে অংশ নিতে ইয়ালু নদী পার হল চীনের এক হাজার সেনা।
১৯৫৬: বলিউড তারকা সানি দেওল জন্মগ্রহণ করেন।
২০০৫: মানবতা বিরোধী অপরাধে সাদ্দাম হুসেনের বিচার প্রক্রিয়া শুরু হল বাগদাদে।





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৩৪ টাকা ৭২.০৪ টাকা
পাউন্ড ৮৯.৮৬ টাকা ৯৩.১৫ টাকা
ইউরো ৭৭.৭৩ টাকা ৮০.৬৮ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,৮৭৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,৮৮৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৭,৪৪০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৫,৩৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৫,৪৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

১ কার্তিক ১৪২৬, ১৯ অক্টোবর ২০১৯, শনিবার, পঞ্চমী ৫/১৪ দিবা ৭/৪৪। মৃগশিরা ৩০/৫ সন্ধ্যা ৫/৪০। সূ উ ৫/৩৮/১১, অ ৫/৫/৭, অমৃতযোগ দিবা ৬/২৪ মধ্যে পুনঃ ৭/১০ গতে ৯/২৭ মধ্যে পুনঃ ১১/৪৫ গতে ২/৪৭ মধ্যে পুনঃ ৩/৩৩ গতে অস্তাবধি। রাত্রি ১২/৩৮ গতে ২/১৮ মধ্যে, বারবেলা ৭/৪ মধ্যে পুনঃ ১২/৪৭ গতে ২/১৩ মধ্যে পুনঃ ৩/৩৯ গতে অস্তাবধি, কালরাত্রি ৬/৩৯ মধ্যে পুনঃ ৪/৫ গতে উদয়াবধি।
১ কার্তিক ১৪২৬, ১৯ অক্টোবর ২০১৯, শনিবার, ষষ্ঠী ৫৬/১৮/৪৬ শেষরাত্রি ৪/১০/১২। মৃগশিরা ২৫/৪১/৩৪ দিবা ৩/৫৫/২০, সূ উ ৫/৩৮/৪২, অ ৫/৬/৪২, অমৃতযোগ দিবা ৬/৩১ মধ্যে ও ৭/১৬ গতে ৯/২৯ মধ্যে ও ১১/৪২ গতে ২/৪০ মধ্যে ও ৩/২৫ গতে ৫/৭ মধ্যে এবং রাত্রি ১২/৩৮ গতে ২/২১ মধ্যে, বারবেলা ১২/৪৮/৪২ গতে ২/১৪/৪২ মধ্যে, কালবেলা ৭/৪/৪২ মধ্যে ও ৩/৪০/৪২ গতে ৫/৬/৪২ মধ্যে, কালরাত্রি ৬/৪০/৪২ মধ্যে ও ৪/৫/১০ গতে ৫/৩৯/১০ মধ্যে।
১৯ শফর

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
কলকাতায় বেড়াতে আসা বিদেশী পর্যটকের অস্বাভাবিক মৃত্যু 
শহরে বেড়াতে এসে প্রাণ গেল এক বিদেশী পর্যটকের। আজ সকালে ...বিশদ

06:16:50 PM

সাগরদত্ত মেডিক্যালে ইন্টার্নদের কর্মবিরতি
নিরাপত্তার দাবিতে আজ কামারহাটির সাগরদত্ত মেডিক্যাল কলেজে কর্মবিরতি শুরু করলেন ...বিশদ

04:00:12 PM

তৃতীয় টেস্ট: কম লাইটের জন্য খেলা বন্ধ, ভারত ২২৪/৩ 

03:23:53 PM

হিমাচলের মাণ্ডিতে একটি গোডাউনে আগুন 

03:18:00 PM

সেক্টর ফাইভে মহিলাকে হেনস্তার অভিযোগে গ্রেপ্তার যুবক 

01:36:00 PM

মালদহের রতুয়ায় পথ অবরোধ
 

মালদহের রতুয়ায় সামসি কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রীর পচাগলা মৃতদেহ ...বিশদ

12:44:07 PM