Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

জম্মু-কাশ্মীর: উন্নয়ন ও অন্তর্ভুক্তির নতুন প্রভাত
রবিশঙ্কর প্রসাদ
 

জম্মু-কাশ্মীরের সাধারণ মানুষের কল্যাণে সংবিধানের ৩৭০ ধারা বাতিল করা হয়েছে। এর ফলে, ৭০ বছরের পুরনো একটা সমস্যার নতুন সরকারের ক্ষমতা গ্রহণের ৭০ দিনেরও কম সময়ে সমাধান হল। এই কারণে আমাদের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সাহস ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের ইচ্ছাশক্তিকে প্রশংসা করা উচিত।
ভারতের সংবিধানে একটি প্রতিকূল পরিস্থিতিতে সাময়িকভাবে ৩৭০ ধারা যুক্ত করা হয়েছিল। ৩৭০ ধারার মতো কোনও সাময়িক ব্যবস্থা ছাড়াই ৫৬০টির বেশি রাজন্যশাসিত রাজ্য ভারতে অন্তর্ভুক্ত হয়েছিল। রাজন্যশাসিত এইসব রাজ্যে বিভিন্ন ঐতিহ্যশালী সম্প্রদায় বাস করত। কিন্তু ৩৭০ ধারার মতন কোনও বিশেষ ব্যবস্থা আমাদের সংবিধানপ্রণেতারা তাদের জন্য করেননি। কারণ, আমাদের সংবিধানপ্রণেতারা ছিলেন জ্ঞানী ও দূরদৃষ্টিসম্পন্ন। এখানে একটি বিষয় মনে রাখা জরুরি। তা হল জম্মু-কাশ্মীর ছাড়া বাকি ৫৬০টির বেশি রাজন্যশাসিত রাজ্যের ভারতভুক্তির কাজটি করেছিলেন সর্দার বল্লভভাই প্যাটেল। আর ওই রাজ্যগুলি আজ ভারতের অংশ বলে গর্বিত। জম্মু-কাশ্মীরের ভারতভুক্তির বিষয়টি নিয়ে কাজ করেছিলেন জওহরলাল নেহরু। সর্দার প্যাটেল সেই সময় ছিলেন উপপ্রধানমন্ত্রী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনিই রাজন্যশাসিত রাজ্যগুলির ভারতভুক্তির বিষয়টি নিয়ে কাজ করছিলেন। ফলে, নেহরুর এই ভূমিকায় তিনি বিব্রতই হয়েছিলেন।
জম্মু-কাশ্মীরের সমস্যাটি ৭০ বছরের বেশি থেকে গেল। এই সমস্যায় ৪২হাজার মানুষের প্রাণ গেল। বন্দুকের নলের মুখে কাশ্মীরি পণ্ডিতদের উদ্বাস্তু হতে হল। তথাকথিত ওই বিশেষ ব্যবস্থায় ভারত-বিরোধী শক্তিগুলি উৎসাহ পেল। কেন্দ্রের কংগ্রেস সরকার ১১ বছর শেখ আবদুল্লাকে কারাবন্দি করে রেখেছিল। ১৯৯০ থেকে ১৯৯৬ সাল পর্যন্ত উপত্যকায় বছরে গড়ে ২০০ দিন কারফিউ থাকত। অতীত বিচার করলে নেহরুজির মানসিক যোগের ফলশ্রুতিতে জম্মু-কাশ্মীরের বিষয়ে বিষণ্ণ এই চিত্রই ফুটে ওঠে।
স্বাধীনতার ৭৩ বছর পরে আমরা অবশ্যই সবথেকে যুক্তিসঙ্গত প্রশ্নটি করব, তা হল এই ৩৭০ ধারায় কারা লাভবান হলেন? জম্মু-কাশ্মীরের সাধারণ মানুষ তো নিশ্চিতভাবেই হননি। পাহাড়ি, শিয়া সম্প্রদায়, গুজ্জর, বাক্কারওয়ালস, গাড্ডি, অন্যান্য তফসিলি জাতি ও উপজাতিভুক্তরা এবং লাদাখ ও কার্গিলের অধিবাসীরা এই ধারার থেকে কোনোভাবেই উপকৃত হননি।
সরকারের ভ্রান্ত সিদ্ধান্তের জন্য জম্মু-কাশ্মীরের জনগণ সমস্যার মধ্যে ছিলেন। নতুন দিল্লি ভাবত, যদি জম্মু-কাশ্মীরের কয়েকটি পরিবারকে তুষ্ট রাখা যায় তাহলে ওই পরিবারগুলি রাজ্যের সব সমস্যা দূর করে ফেলবে। এই কয়েকটি পরিবার ৩৭০ ধারা ব্যবহার করে তাঁদের কুক্ষিগত ক্ষমতা চিরস্থায়ী করার চেষ্টা করেছে, দুর্নীতিকে প্রশ্রয় দিয়েছে। আর যখনই দায়বদ্ধতার প্রশ্ন উঠেছে, তখনই তাঁরা ৩৭০ ধারার আশ্রয় নিয়েছেন। আমলা এবং রাজনৈতিক কর্তৃপক্ষ ক্ষমতার অপব্যবহার করে দুর্নীতির আশ্রয় নিলে তাঁদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবার জন্য দুর্নীতি প্রতিরোধ আইন রয়েছে। অথচ ওই আইন জম্মু-কাশ্মীরের জন্য প্রযোজ্য ছিল না। যেমন ছিল না শিক্ষার অধিকার আইন, বাল্যবিবাহ নিষিদ্ধ আইন, তথ্যের সুরক্ষা আইন, হাত দিয়ে ময়লা সাফাই প্রতিরোধ আইন। এগুলির আজ কীভাবে বিচার করা হবে? রাজ্যে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্যও ৩৭০ ধারা একটি বাধা ছিল। মানুষের
এখনও মনে আছে, দীর্ঘ সময় পরে অটল বিহারী বাজপেয়ি প্রধানমন্ত্রী থাকার সময় সেখানে একটি সুষ্ঠভাবে নির্বাচন করা সম্ভব হয়েছিল।
যাঁরা আজ ৩৭০ ধারার বিপক্ষে কথা বলছেন, আশ্চর্যজনকভাবে তাঁরা, সেনা আধিকারিক উম্মের ফয়াজ, রাইফেলম্যান ঔরঙ্গজেবের মতন বহু সাহসী কাশ্মীরি মুসলমানকে যখন নৃশংসভাবে জঙ্গিরা হত্যা করেছিল, সেইসময় নীরব ছিলেন।
৩৭০ ধারার অপব্যবহার করে রাজ্যের প্রচুর প্রাকৃতিক সম্পদের থেকে কীভাবে কয়েকটি পরিবার লাভবান হতো, সেই বিষয়ে বিস্তারিত জানা যায় জম্মু-কাশ্মীরের প্রাক্তন রাজ্যপাল জগমোহনের লেখা বই ‘মাই ফ্রোজেন টারবুলেন্স’ থেকে। ওই সম্পদের অপব্যবহারের ফলে রাজ্যের রাজস্বের ক্ষতি হয়েছে। ওই অর্থ শিক্ষা, স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে ব্যবহার করা যেত।
আমাদের ভুলে গেলে চলবে না জম্মু-কাশ্মীরের আইন পরিষদ ১৯৫৬ সালে রাজ্যের জন্য সংবিধান প্রণয়ন করেছিল। সেখানে তৃতীয় অনুচ্ছেদের দ্বিতীয় ধারায় লেখা ছিল “জম্মু-কাশ্মীর রাজ্য এখন এবং ভবিষ্যতেও ভারতের অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ।“ ১৪৭ নম্বর অনুচ্ছেদের তৃতীয় ধারায় উল্লেখ ছিল ওই (জম্মু-কাশ্মীর রাজ্য এখন এবং ভবিষ্যতেও ভারতের অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ) ধারাটির পরিবর্তনে কোনও আইন বা সংশোধনী রাজ্য বিধানসভার কোনও কক্ষে আনা যাবে না। যখন জম্মু-কাশ্মীর রাজ্যের আইন পরিষদ একটি সংবিধান প্রণয়ন করে, যেখানে স্পষ্ট উল্লেখ আছে—যে-কোনও অবস্থাতেই জম্মু-কাশ্মীর রাজ্য এখন এবং ভবিষ্যতেও ভারতের অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ—এই ব্যবস্থার কোনও পরিবর্তন ঘটানো যাবে না, তখন তো ৩৭০ ধারারই আর প্রাসঙ্গিকতা থাকে না।
৩৭০ ধারা ছিল পুরোপুরি একটি সাময়িক বন্দোবস্ত। প্রধানমন্ত্রী সঠিকভাবেই পর্যবেক্ষণ করেছেন যে যাঁরা এটিকে সমর্থন করেন, তাঁদের এটিকে স্থায়ী করার সাহসও ছিল না। এটা খুবই জরুরি যে, যখন আইন পরিষদ সংবিধানকে কার্যকর করেছিল, সেই সংবিধান অনুযায়ী ১৪৭ ধারার সংশোধনের কাজ করতে পারে রাজ্য বিধানসভা। এই প্রেক্ষিতে রাষ্ট্রপতির বিজ্ঞপ্তি মোতাবেক ৩৭০-এর (৩) ধারা অনুযায়ী আইন পরিষদ বিবেচিত হবে রাজ্য বিধানসভা হিসেবে। যেহেতু রাজ্যে এখন রাষ্ট্রপতির শাসন চলছে, তাই ভারতের সংবিধানের ৩৫৬-র ১-এর বি উপধারা অনুসারে সংসদেরই সংবিধানসম্মতভাবে সেই সংশোধনের ক্ষমতা রয়েছে।
সংসদে উভয় কক্ষে বিতর্কের সময় জম্মু-কাশ্মীরের সব অঞ্চলের বক্তব্য শোনা গিয়েছিল। এই প্রসঙ্গে এটাও মনে রাখতে হবে, বিজেপি ভারতের জনগণকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল সংবিধানের ৩৭০ ধারা বাতিল করা হবে। আর বিজেপি বিপুলভাবে মানুষের সমর্থন পেয়েছে। আলোচনার সময় অনেকে বলেছেন, উত্তর পূর্বাঞ্চল ও উপজাতি এলাকার জন্য ৩৭০-এর মতো যে ধারাগুলি রয়েছে সেগুলিও বাতিল করা উচিত। কিন্তু, এই যুক্তি এখানে প্রযোজ্য নয়। ৩৭১ ধারার এ থেকে জে পর্যন্ত উপধারাগুলি সংবিধান অনুযায়ী বিশেষ সংস্থান। এগুলি সাময়িক বন্দোবস্ত নয়। তাই সেগুলি থাকবে। নতুন নতুন রাজ্য গঠনের সময় নির্দিষ্ট অঞ্চল বা নির্দিষ্ট জনজাতির উন্নয়নের জন্য এই বিশেষ সংস্থানগুলি করা হয়েছিল। এগুলি স্থায়ীভাবে করা হয়েছে।
কাশ্মীর উপত্যকার অনেক মুসলমান তরুণী যখন রাজ্যের বাইরের কাউকে বিয়ে করেছেন, তখন তাঁরা তাঁদের সব অধিকার হারিয়েছেন। সম্প্রতি আমার সঙ্গে সর্বভারতীয় কৃত্যকে কর্মরত এক তরুণী আধিকারিকের দেখা হয়েছিল। তিনি জম্মুর মেয়ে এবং হিন্দু। তিনি জানান, অন্য রাজ্যের বাসিন্দা এক সরকারি আধিকারিককে বিয়ে করায় তিনি জম্মু-কাশ্মীরের সব অধিকার হারিয়েছেন। অশ্রুসিক্ত অবস্থায় সেই আধিকারিক নরেন্দ্র মোদির প্রতি তাঁর কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন। তিনি মনে করেন, ৩৭০ ধারা বাতিল করে প্রধানমন্ত্রী তাঁর প্রতি সুবিচার করেছেন।
সরকারের উন্নয়নমুখী উদ্যোগের ফলে আজ শ্রীনগর, সোপোর, বাদ্গাম, ভারেরওয়া এবং জম্মুতে বিপিও সংস্থাগুলি দপ্তর খুলেছে। রাজ্যজুড়ে ৩১৫৮টি ‘কমন সার্ভিস সেন্টার’ কাজ করছে। এর ফলে নাগরিকরা সেখান থেকে নানা ডিজিটাল পরিষেবা পাচ্ছেন। যখনই আমার তাঁদের সঙ্গে দেখা হয়, আমি তাঁদের চোখে আশার আলো দেখি। এইসব যুবক-যুবতী জানিয়েছেন, আরও সুন্দর ভবিষ্যতের জন্য তাঁদের আরও সুযোগ-সুবিধা পাওয়া উচিত।
নিশ্চিতভাবেই জম্মু-কাশ্মীরের জন্য উন্নয়ন ও অন্তর্ভুক্তির নতুন প্রভাত সূচিত হয়েছে। এর ফলে যাঁরা অবহেলিত ও বঞ্চিত হয়েছিলেন, তাঁরা এখন নানা সুযোগ-সুবিধে পাবেন। স্বাভাবিকভাবেই জঙ্গিবাদ ও বিচ্ছিন্নতাবাদীদের মদতদাতারা এতে অখুশি, কিন্তু এই ভারতে তাঁদের কোনও ঠাঁই হবে না।
 লেখক ভারতের আইন ও বিচার, যোগাযোগ এবং বৈদ্যুতিন ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী 
20th  August, 2019
১২৫ বছরে স্বামী প্রণবানন্দজি মহারাজ 
অয়ন বন্দ্যোপাধ্যায়

স্বামী প্রণবানন্দজি অবিভক্ত ভারতবর্ষের পূর্ববঙ্গের ফরিদপুর জেলার মাদারিপুর মহকুমার অন্তর্গত বাজিতপুর গ্রামে ১৩০২ বঙ্গাব্দের ১৬ মাঘ (১৮৯৬ সালের ২৯ জানুয়ারি) পূর্ণিমা তিথিতে জন্মগ্রহণ করেন। পিতার নাম বিষ্ণুচরণ দাস (ভুঁইয়া) ও মাতা সারদা দেবী। 
বিশদ

আম আদমির বাজেট প্রত্যাশা
শান্তনু দত্তগুপ্ত

কর্পোরেট কর ২৫ শতাংশ, আর ব্যক্তিগত আয়কর ৩০ শতাংশ... এটা তো হতে পারে না! কাজেই আসন্ন বাজেটে ব্যক্তিগত আয়করের দিক থেকে সাধারণ চাকরিজীবীরা লাভবান হতে পারেন। তাও বিষয়টা সম্ভাবনা আকারেই আছে। তার কারণ, লোকসভা নির্বাচন সদ্য শেষ হয়েছে। আগামী চার বছর তো মোদি সরকার নিশ্চিন্ত! এখনই আয়করে বড় ছাড়ের মতো ঘোষণা করে দিলে ভোটের আগে কী হবে?এই প্রশ্ন আপাতত শনিবার পর্যন্ত সিন্দুকে তোলা থাক।
বিশদ

28th  January, 2020
সবচেয়ে ভালোর জন্য আশা করে সবচেয়ে খারাপের জন্য প্রস্তুতি
পি চিদম্বরম

আর একটি বছর শুরু হল, আর একটি বাজেট পেশের অপেক্ষা, এবং এটি ভারতীয় অর্থনীতির আর একটি গুরুতর বছর। ২০১৬-১৭ সাল থেকে প্রতিটি বছর আমাদের জন্য অনেক বিস্ময় এবং ব্যথা নিয়ে এসেছে। ২০১৬-১৭ গিয়েছে সর্বনাশা নোটবন্দির বছর। ত্রুটিপূর্ণ জিএসটি এবং সেটা তড়িঘড়ি রূপায়ণের বছর গিয়েছে ২০১৭-১৮।  বিশদ

26th  January, 2020
সংবিধান ও গণতন্ত্রের ভিত দুর্বল হলে ভারতের আত্মাও বিপন্ন হতে বাধ্য
হিমাংশু সিংহ

১৫ আগস্ট যদি দেশের জন্মদিন হয়, তাহলে ২৬ জানুয়ারি হচ্ছে কোন মতাদর্শ ও আইন মেনে কীসের ভিত্তিতে দেশ পরিচালিত হবে, তার লিখিত বয়ান চূড়ান্ত করার বর্ণাঢ্য উদযাপনের শুভ মুহূর্ত। নবজাতক শিশু স্কুলে ভর্তি হলে একটা নির্দিষ্ট নিয়ম শৃঙ্খলা মেনে ধীরে ধীরে পরিণত হয়। 
বিশদ

26th  January, 2020
১৬০০ কোটি টাকায় কী হতে পারে?
মৃণালকান্তি দাস

শুধুমাত্র অসমে এনআরসি প্রক্রিয়া করতে গিয়েই সরকার খরচ করে ফেলেছে ১৬০০ কোটি টাকা! এত টাকা কীভাবে খরচ হল সেটা খতিয়ে দেখতে দাবি উঠেছে সিবিআই তদন্তের। শুধু তাই-ই নয়, এই এনআরসি করতে বিপুল আর্থিক দুর্নীতি হয়েছে, এই অভিযোগ তুলেছেন অসমের বিজেপি নেতা তথা অর্থমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা। সেই দুর্নীতির কথা ধরা পড়েছে ক্যাগের প্রতিবেদনেও। এনআরসির মুখ্য সমন্বয়কারী প্রতীক হাজেলাকে মধ্যপ্রদেশে বদলি করে দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। মুখ লুকোনোর জায়গা পাচ্ছে না বিজেপি।
বিশদ

25th  January, 2020
মুখ হয়ে ওঠার নিরন্তর প্রয়াস
তন্ময় মল্লিক

কথায় আছে, মুখ হচ্ছে মনের আয়না। আবার কেউ কেউ মনে করেন, সুন্দর মুখের জয় সর্বত্র। তাই অনেকেরই ধারণা, সাফল্য লাভের গুরুত্বপূর্ণ উপাদানই হল মুখ। রাজনীতিতেও সেই মুখের গুরুত্ব অপরিসীম। তবে রাজনীতিতে সৌন্দর্য অপেক্ষা অধিকতর প্রাধান্য পেয়ে থাকে মুখের কথা, ভাষাও।  
বিশদ

25th  January, 2020
নিরপেক্ষ রাজনৈতিক চেতনার অভাব
সমৃদ্ধ দত্ত

 আজকাল একটি বিশেষ শ্রেণীর কাছে দুটি শব্দ খুব অপছন্দের। সেকুলার এবং ইন্টেলেকচুয়াল। ওই লোকটিকে আমার পছন্দ নয়, কারণ লোকটি সেকুলার। ওই মানুষটি আসলে সুবিধাবাদী এবং খারাপ, কারণ তিনি ইন্টেলেকচুয়াল। সমাজের এই অংশের উচ্চকিত তর্জন গর্জন হাসি ঠাট্টা কটাক্ষ শুনলে মনে হবে, সেকুলার হওয়া বোধহয় সাংঘাতিক অপরাধ। বিশদ

24th  January, 2020
বাজেটের কোনও অঙ্কই মিলছে না, আসন্ন বাজেটে বৃদ্ধিতে গতি ফিরবে কীভাবে?
দেবনারায়ণ সরকার

বস্তুত, বর্তমান অর্থবর্ষে ভারতের অর্থনীতির চিত্র যথেষ্ট বিবর্ণ। সমৃদ্ধির হার ক্রমশ কমে ৫ শতাংশে নামার ইঙ্গিত, যা ১১ বছরে সর্বনিম্ন। মুদ্রাস্ফীতি গত ৩ বছরে সর্বাধিক। শিল্পে সমৃদ্ধির হার ৮ বছরে সর্বনিম্ন। পরিকাঠামো শিল্পে বৃদ্ধির হার ১৪ বছরে সর্বনিম্ন। বিদ্যুতের চাহিদা ১২ বছরে সর্বনিম্ন। বেসরকারি লগ্নি ১৬ বছরে সর্বনিম্ন। চাহিদা কমায় বাজারে ব্যাঙ্ক লগ্নি কমেছে, যা গত ৫৮ বছরে সর্বনিম্ন। রপ্তানিও যথেষ্ট ধাক্কা খাওয়ার ইঙ্গিত বর্তমান বছরে। এর উপর ভারতে বেকারত্বের হার গত ৪৫ বছরে সর্বনিম্ন।
বিশদ

24th  January, 2020
ক্ষমা করো সুভাষ
জয়ন্ত চৌধুরী

মুক্তিপথের অগ্রদূত তিনি। অখণ্ড ভারত সাধনার নিভৃত পথিক সুভাষচন্দ্রের বৈপ্লবিক অভিঘাত বাধ্য করেছিল দ্রুত ক্ষমতা হস্তান্তরের পটভূমি রচনা করতে। দেশি বিদেশি নিরপেক্ষ ঐতিহাসিকদের লেখনীতে আজাদ হিন্দের অসামান্য আত্মত্যাগ স্বীকৃত হয়েছে। সর্বাধিনায়কের হঠাৎ হারিয়ে যাবার বেদনা তাঁর জন্মদিনেই বড় বেশি স্পর্শ করে যায়।  
বিশদ

23rd  January, 2020
স্বামীজি, বিশ্বকবি ও নেতাজির খিচুড়ি-বিলাস
বিকাশ মুখোপাধ্যায়

মঙ্গলকাব্য থেকে কাহিনীটা এভাবে শুরু করা যেতে পারে।
সকাল সকাল ঘুম থেকে উঠেই মা দুর্গা নন্দিকে তলব করেছেন, যাও ডাব পেড়ে নিয়ে এসো।
নন্দির তখনও গতরাতের গাঁজার খোঁয়ার ভাঙেনি। কোনওরকমে জড়ানো স্বরে বলল, ‘এত্তো সকালে মা?’  বিশদ

23rd  January, 2020
‘যে আপনকে পর করে...’
শান্তনু দত্তগুপ্ত

মহাত্মা গান্ধী একটা কথা বলতেন, মনপ্রাণ দিয়ে দেশের সেবা যিনি করেন, তিনিই সত্যিকারের নাগরিক। নাগরিক কাহারে কয়? বা নাগরিক কয় প্রকার ও কী কী? এই জাতীয় প্রশ্ন এখন দেশে সবচেয়ে বেশি চর্চিত। সবাই নিজেকে প্রমাণে ব্যস্ত। ভালো নাগরিক হওয়ার চেষ্টাচরিত্র নয়, নাগরিক হতে পারলেই হল। তার জন্য কাগজ লাগবে। এক টুকরো কাগজ প্রমাণ করবে, আপনি আমি ভারতের বাসিন্দা।   বিশদ

21st  January, 2020
আইন ও বাস্তব
পি চিদম্বরম

আপনি যখন এই লেখা পড়ছেন তখন ইন্টারনেট, আন্দোলন, জনসমাবেশ, রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড, ভাষণ ও লেখালেখি এবং কাশ্মীর উপত্যকার পর্যটকদের উপর নিয়ন্ত্রণ জারি রয়েছে। কোনোরকম ‘চার্জ’ ছাড়াই রাজনৈতিক নেতাদের হেপাজতবাসও চলছে যথারীতি। সুতরাং প্রশ্ন উঠছে—আদালতের রায়ের পরেও বাস্তবে কিছু পরিবর্তন হয়েছে কি?
বিশদ

20th  January, 2020
একনজরে
পোচেস্ট্রুম, ২৮ জানুয়ারি: লড়াকু ব্যাটিং এবং দুরন্ত বোলিংয়ের অনবদ্য মেলবন্ধনে অস্ট্রেলিয়াকে ৭৪ রানে হারিয়ে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের সেমি-ফাইনালে ভারত। প্রথমে ব্যাট করে টিম ইন্ডিয়া নির্ধারিত ৫০ ...

জাহানাবাদ (বিহার), ২৮ জানুয়ারি (পিটিআই): ‘পাঁচ লাখ মানুষ এক হলে অসমকে ভারত থেকে আলাদা’ করার হুমকি দিয়েছিলেন সিএএ তথা শাহিনবাগ আন্দোলনের অন্যতম মাথা শারজিল ইমাম। মঙ্গলবার তাঁকেই বিহারের জেহানাবাদ থেকে গ্রেপ্তার করল দিল্লি পুলিসের ক্রাইম ব্রাঞ্চ।  ...

ন্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জে যেসব সংস্থার শেয়ার গতকাল লেনদেন হয়েছে শুধু সেগুলির বাজার বন্ধকালীন দরই নীচে দেওয়া হল।  ...

নয়াদিল্লি, ২৮ জানুয়ারি: স্থানীয় এক দুষ্কৃতী গোষ্ঠীর সঙ্গে বিরোধের জেরে পাকিস্তানে খুন হল ভারতে ‘ওয়ান্টেড’ খলিস্তান লিবারেশন ফোর্সের (কেএলএফ) এক শীর্ষ নেতা। পাকিস্তানের পুলিস সূত্রে খবর, হত কেএলএফ জঙ্গির নাম হরমিত সিং ওরফে হ্যাপি পিএইচডি।   ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

সম্পত্তি সংস্কার বিষয়ে চিন্তাভাবনা ফলপ্রসূ হতে পারে। কর্মক্ষেত্রে প্রভাব-প্রতিপত্তি বৃদ্ধি। যাবতীয় আটকে থাকা কাজের ক্ষেত্রে ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮৯৬: ভারত সেবাশ্রম সঙ্ঘের প্রতিষ্ঠাতা স্বামী প্রণবানন্দের জন্ম
১৯৬৬: ব্রাজিলের ফুটবলার রোমারিওর জন্ম
১৯৭০: ওলিম্পিকে রুপোজয়ী শ্যুটার রাজ্যবর্ধন সিং রাঠোরের জন্ম
২০০৬: প্রথম ভারতীয় হিসেবে টেস্ট ক্রিকেটে প্রথম ওভারে হ্যাটট্রিক করলেন ইরফান পাঠান  





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৫৮ টাকা ৭২.২৮ টাকা
পাউন্ড ৯১.৬১ টাকা ৯৪.৯০ টাকা
ইউরো ৭৭.২৫ টাকা ৮০.১৯ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪১,১৪০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৯,০৩০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৯,৬১৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৬,৯০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৭,০০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

১৪ মাঘ ১৪২৬, ২৯ জানুয়ারি ২০২০, বুধবার, (মাঘ শুক্লপক্ষ) চতুর্থী ১১/৩ দিবা ১০/৪৬। পূর্বভাদ্রপদ ১৪/৪১ দিবা ১২/১৩। সূ উ ৬/২১/৩, অ ৫/১৮/১৭, অমৃতযোগ দিবা ৭/৪৮ মধ্যে পুনঃ ১০/০ গতে ১১/২৮ মধ্যে পুনঃ ৩/৭ গতে ৪/৩৫ মধ্যে। রাত্রি ৬/১১ গতে ৮/৪৮ মধ্যে পুনঃ ২/০ গতে উদয়াবধি। বারবেলা ৯/৫ গতে ১০/২৭ মধ্যে পুনঃ ১১/৫০ গতে ১/১২ মধ্যে। কালরাত্রি ৩/৬ গতে ৪/৪৪ মধ্যে। 
১৪ মাঘ ১৪২৬, ২৯ জানুয়ারি ২০২০, বুধবার, চতুর্থী ৫/৫৫/২৫ দিবা ৮/৪৬/৪। পূর্ব্বভাদ্রপদ ১০/৫৭/৫৮ দিবা ১০/৪৭/৫। সূ উ ৬/২৩/৫৪, অ ৫/১৭/১৩, অমৃতযোগ দিবা ৭/৪৭ মধ্যে ও ১০/০ গতে১১/২৯ মধ্যে ও ৩/১০ গতে ৪/৩৯ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/১৫গতে ৮/৫০ মধ্যে ও ২/০ গতে ৬/২৪ মধ্যে। কালবেলা ৯/৭/১৪ গতে ১০/২৮/৫৪ মধ্যে। কালরাত্রি ৩/৭/১৪ গতে ৪/৪৫/৩৪ মধ্যে। 
মোসলেম: ৩ জমাদিয়স সানি 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
নির্ভয়া কাণ্ড: মুকেশ সিংয়ের আবেদন খারিজ করল সুপ্রিম কোর্ট 
ফাঁসির হাত থেকে বাঁচতে আর কোনও বিকল্প পথই থাকল না ...বিশদ

11:45:05 AM

দঃ ২৪ পরগনার রায়দিঘীতে আগ্নেয়াস্ত্র, কার্তুজ সহ গ্রেপ্তার কুখ্যাত দুষ্কৃতী 

11:15:00 AM

নাসিকে বাস-অটোর মুখোমুখি সংঘর্ষ, মৃত ২১
 

নাসিকে বাস-অটোর মুখোমুখি সংঘর্ষ। দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে প্রায় ২১ জনের। ...বিশদ

10:40:00 AM

শহরে ট্রাফিকের হাল
আজ, বুধবার সকালে শহরের রাস্তাঘাটে যান চলাচল মোটের উপর স্বাভাবিক। ...বিশদ

10:36:00 AM

যাদবপুরের বহুতল থেকে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা এক ব্যক্তির 

10:20:44 AM

জম্মু ও কাশ্মীরের রাজৌরিতে ব্যাপক তুষারপাত 

10:20:00 AM