Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

জিতে গেলেন শ্যামাপ্রসাদ
জিষ্ণু বসু 

দিনটি ছিল ১১ মে, ১৯৫৩। পারমিট ছাড়া কাশ্মীরে প্রবেশের অপরাধে পাঠানকোটের মাধোপুর সীমান্তে গ্রেপ্তার হলেন শ্যামাপ্রসাদ। সেখান থেকে শ্রীনগর ৩০০ কিমির বেশি। এতটা পথ পুলিসের জিপে আনা হল তাঁকে। মাত্র কয়েক বছর আগে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ছিলেন তিনি। তাঁকে প্রথমে শ্রীনগরের সেন্ট্রাল জেলে রাখা হল। তার পর শহরের বাইরে একটা বাংলোয়। সেখানে না-ছিল ঠিকঠাক খাবার, না-দেওয়া হতো ওষুধপত্র। পুরনো শুকনো হাঁপানি আবার বেড়ে গেল, সঙ্গে পিঠে ব্যথা আর রাত্রে ধুম জ্বর। ২৩ জুন ভোট ৩টে ৪০ মিনিটে চলে গেলেন শ্যামাপ্রসাদ। কিন্তু, কেন অকালে এত কষ্ট সহ্য করে প্রাণ দিতে হল দেশবরেণ্য মানুষটিকে? কী চেয়েছিলেন তিনি? তিনি চেয়েছিলেন এক দেশে একজনই প্রধানমন্ত্রী থাকবেন। একটিই আইন হবে আর জাতীয় পতাকাও এক হবে। মানে, সংবিধানে কাশ্মীরের জন্য যে বিশেষ ব্যবস্থা দেওয়া হয়েছে ৩৭০ ধারাতে তা তিনি মানবেন না। স্বাধীন ভারতে প্রথম শহিদ হলেন তিনি।
২০১৯ সালের ৫ আগস্ট। ভারতের ইতিহাসে এক স্মরণীয় দিন। দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বাতিলের কথা ঘোষণা করলেন। সেইসঙ্গে মাননীয় রাষ্ট্রপতি বিলোপ করলেন সংবিধানের ৩৫এ ধারা—যার বলে এতদিন কাশ্মীরে আলাদা করে স্থায়ী বাসিন্দার সংজ্ঞা দেওয়া হতো। ভারতের অন্যকোনও প্রদেশের নাগরিক সেখানে স্থাবর সম্পত্তির অধিকারী হতে পারতেন না। শ্যামাপ্রসাদ ঠিক যেমনটি চেয়েছিলেন ৬৬ বছর পর ঠিক তাই হল। কাশ্মীর ভারতের অন্যসব এলাকার মতোই সমান মর্যাদা পেল। দেশের সর্বস্তরের মানুষ এই বলিষ্ঠ পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েছে। সরকারের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে বিজু জনতা দল, বহুজন সমাজ পার্টি, আম আদামি পার্টির মতো বিরোধীরাও।
সমর্থন করেছে মহারাষ্ট্র, অন্ধ্রপ্রদেশ, তামিলনাড়ুর প্রায় সব ক’টি আঞ্চলিক দল। রাজ্যসভায় এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করেছেন তৃণমূল কংগ্রেসের ডেরেক ও’ ব্রায়েন। তাঁর মতে, এই ৩৭০ ধারা বিলোপের দিনটি হল ‘কালো সোমবার’! ভারতের কমিউনিস্ট পার্টিও ৩৫এ ধারা বিলোপের বিষয়ে গভীর আপত্তি জানিয়েছে। কারণ, ওই ধারা মতে, কেবল কাশ্মীরের ভূমিপুত্ররাই কাশ্মীরের জমির অধিকারী হবেন।
কিন্তু ভূমিপুত্র আসলে কারা? যে ছ’লক্ষের বেশি কাশ্মীরি পণ্ডিত মৌলবাদীদের অত্যাচারে নিজের দেশেই উদ্বাস্তু হয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন তাঁরা কাশ্মীরের স্থায়ী বাসিন্দা নন? ১৯৮৯ সালের আগস্ট থেকেই উপত্যকায় জেহাদি দৌরাত্ম্য বাড়তে থাকে। রাজ্যের ক্ষমতায় তখন শেখ আবদুল্লার ছেলে ফারুক আবদুল্লা। কাশ্মীরি পণ্ডিতদের জনপ্রিয় রাজনেতা ছিলেন টিকালাল টাপলু। প্রকাশ্যে খুন হলেন তিনি। ১৯৮৯ সালের ৪ নভেম্বর নির্মমভাবে হত্যা করা হল বিচারপতি নীলকণ্ঠ গঞ্জুকে। বিচারপতির দেহ প্রকাশ্য রাজপথে ঘণ্টার পর ঘণ্টা পড়ে থাকল। কেউ স্পর্শ করতেও সাহস করল না! শিক্ষিকা গিরিরাজ টিপ্পুকে গণধর্ষণ করে হত্যা করা হল! ১৯৯০ সালের ১৯ জানুয়ারি জেহাদিরা মাইকে ঘোষণা করল—পণ্ডিতরা যেন কাশ্মীর উপত্যকা ছেড়ে চলে যান। ন্যাশনাল কনফারেন্সের সরকার কেবল দর্শকের ভূমিকায় ছিল। সেদিন কিন্তু কোনও বামপন্থী দল, কোনও লেফট লিবারাল স্তম্ভ লেখক প্রশ্ন তোলেননি কেন এই সভ্য যুগেও একটি এলাকার আদি বাসিন্দাদের এত নির্মম অত্যাচার করে বিতাড়িত করা হবে?
সংবিধানের ৩৭০ ধারা কাশ্মীরের হিন্দু বা মুসলমান কারোরই কোনও উপকার করেনি। যেখানে সারা ভারতের বিভিন্ন প্রদেশের মুসলমান সম্প্রদায়ের মানুষ নিজেকে সম্পূর্ণরূপে ভারতীয় ভেবে উন্নতির চরম শিখরে পৌঁছচ্ছেন, তৈরি হয়েছেন এ পি জে আব্দুল কালামের মতো বিশ্ববরেণ্য ব্যক্তিত্ব আর সেখানে কাশ্মীরে একটি ছেলে যুবক হয়ে ওঠার সঙ্গে সঙ্গে বিচ্ছিন্নতাবাদের পাঠ পেয়েছেন। কখনও জয়েশ-ই-মহম্মদ, কখনও লস্কর-ই-তোইবা, হিজবুল মুজাহিদিনের মতো জঙ্গি সংস্থার হাতের পুতুল তৈরি হয়েছেন। কাশ্মীরে ৩৭০ বা ৩৫এ ধারা থাকার জন্যই আল কায়েদা বা আইএসআইএস উৎসাহ পেয়েছে কাশ্মীরকে জেহাদের লক্ষ্য বানাতে।
কিন্তু কাশ্মীর থেকে ভারতীয়ত্ব মুছে ফেলা অত সহজ ছিল না। কাশ্মীরের সংস্কৃতির হৃদপিণ্ডই হল ভারতবর্ষ। ইউরোপের অনেক ঐতিহাসিক কারকোটা বংশের রাজা ললিতাদিত্য মুক্তাপিড়কে ‘ভারতবর্ষের আলেকজান্দার’ বলেছেন। কাশ্মীরের এই রাজা আজকের আফগানিস্তান হয়ে মধ্যপ্রাচ্য পর্যন্ত এগিয়ে গিয়েছিলেন। সময়টা ৭৫০ খ্রিস্টাব্দের আশপাশে। ভারতবর্ষের সর্বকালের অন্যতম শ্রেষ্ঠ দার্শনিক অভিনব গুপ্ত দশম শতকে এই কাশ্মীরেই জন্মেছিলেন। জগদ্‌গুরু আদি শঙ্করাচার্য কাশ্মীরে এসে খ্রিস্টপূর্ব দ্বিতীয় শতকে এক মন্দির খুঁজে পান। সেই মন্দিরকে সংস্কার করেই তিনি তৈরি করেন জ্যোতিশ্বর শিবের মন্দির। সংস্কৃত সাহিত্যের যুগান্তকারী সৃষ্টি ‘রাজতরঙ্গিনী’ কবি কাশ্মীরে বসেই লিখেছিলেন। ১১৪৮ খ্রিস্টাব্দের কিছু আগে-পরে লোহার রাজহর্ষের রাজসভায় পরিবেশিত হয়েছিল রাজতরঙ্গিনী। স্বামী বিবেকানন্দ অমরনাথ দর্শনে গিয়েছিলেন, ক্ষীরভবানী মন্দিরে গিয়ে আকুল হয়ে কেঁদেছিলেন। কাশ্মীর উপত্যকার কোণায় কোণায় ভারতবর্ষের হাজার হাজার বছরের সভ্যতার স্পর্শ। বিদেশি মদতপুষ্ট জেহাদিরা শত চেষ্টা করেও যা নিশ্চিহ্ন করতে পারেনি। তাই আরও উগ্র আর হিংস্র হয়েছে তাদের আচরণ। হিন্দু কী মুসলমান—যে মানুষই ভারতের পক্ষ নিয়েছেন তাঁকেই তারা নির্দয়ভাবে হত্যা করেছে।
অবাক করার মতো বিষয় হল—এই নরঘাতক জঙ্গিদেরকে আগাগোড়া সমর্থন করে এসেছেন তথাকথিত বাম ‘মুক্তমনা’ বুদ্ধিজীবীরা। দিল্লি বা কলকাতার কোনও বিশ্ববিদ্যালয়ে ভাষণ দেওয়ার জন্য আনা হয়েছে এমন কুখ্যাত জল্লাদদের। ধর্মান্ধ জেহাদি আর নাস্তিক বামপন্থীকে একমঞ্চে এনেছে একটাই স্লোগান—‘ভারত তেরে টুকরে হোঙ্গে’। দুই শিবিরের মূল লক্ষ্যই হল—ভারতকে টুকরো টুকরো করা। এই বোঝাপড়া তাদের কেবল বিচারের ক্ষেত্রে নয় লড়াইয়ের ময়দানেও এক করেছে। ২০১০ সালে কলকাতার সেন্ট্রাল ফরেনসিক সায়েন্স ল্যাবরেটরির অধিকর্তা এক সাংবাদিক বৈঠকে জানিয়েছিলেন, কীভাবে মাওবাদীরা কাশ্মীরের মুজাহিদিনদের সাহায্যে আফগানিস্তানের তালিবানদের কাছ থেকে দূর নিয়ন্ত্রিত বিস্ফোরণ প্রযুক্তি সর্বপ্রথম ভারতে এনেছিল।
সংবিধানের ৩৭০ ধারা যে এমনই ভয়ানক বিপদ ডেকে আনবে তা সর্দার প্যাটেল, বাবা সাহেব আম্বেদকর, শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়রা বুঝেছিলেন। কিন্তু পণ্ডিত নেহরুর অর্থহীন জেদ আর শেখ আব্দুল্লাকে খুশি করার আশ্চর্য বাসনা দেশের বুকে এত বড় বিপদ ডেকে এনেছিল। শেখ আব্দুল্লাকে ঘর থেকে বের করে দিয়েছিলেন বাবা সাহেব আম্বেদকর। সংবিধানের জনক এই প্রাজ্ঞ মানুষটি উত্তেজিত হয়ে বলেছিলেন, ভারতের সেনা জওয়ানরা বুকের রক্ত দিয়ে কাশ্মীরকে পাহারা দেবে আর ভারতের কোনও নাগরিকের সেই ভূখণ্ডে কোনও অধিকার থাকবে না—এরকম অন্যায় তিনি হতে দেবেন না। বেগতিক দেখে বাবা সাহেবকে এড়িয়ে জওহরলাল নেহরু এই ৩৭০ ধারা সংসদে এনেছিলেন। এ নিয়ে আলোচনার দিন আম্বেদকরজি একটিও প্রশ্নের উত্তর দেননি। আর প্রতিবাদ করেছিলেন ভারতকেশরী শ্যামাপ্রসাদ।
শ্যামাপ্রসাদ খুব কম বয়সে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হয়েছিলেন। উপাচার্য হিসেবে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে তিনি সমাবর্তন ভাষণ দেওয়ার আমন্ত্রণ জানান। পরাধীন ভারতে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো ঐতিহ্যমণ্ডিত শিক্ষাক্ষেত্রে গুরুদেব বাংলায় ভাষণ দিলেন! সে সাহস কেবল শ্যামাপ্রসাদেরই ছিল। আজকে সাহা ইনস্টিটিউট অফ নিউক্লিয়ার ফিজিক্সের প্রতিষ্ঠার সময় বিজ্ঞানী মেঘনাদ সাহার সবচেয়ে বড় ভরসাস্থল ছিলেন শ্যামাপ্রসাদ। কাজী নজরুল ইসলাম এক পত্রে লিখেছিলেন নতুন স্বাধীন ভারতের কাণ্ডারী হবেন সুভাষচন্দ্র বসু আর শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়। এই কৃতী বঙ্গসন্তান দেশের জন্য সবকিছিু ছেড়ে সুদূর কাশ্মীরে গিয়ে প্রাণ দিলেন।
অথচ, আজ যখন শ্যামাপ্রসাদের আত্মবলিদান সার্থক হয়েছে তখন বাংলার মানুষ রাজনৈতিক বিভেদ ভুলতে পারলেন না। ৩৭০ ধারা বিলোপের পথে হাতে হাত ধরে বাধা দিচ্ছে তৃণমৃল কংগ্রেস আর ভারতের মার্কসবাদী কমিউনিস্ট পার্টি। সংসদের উচ্চ কক্ষে রাজ্যের তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতিনিধি এর বিরোধিতা করেছেন। সংসদে বাংলা থেকে বামেদের কোনও প্রতিনিধি নেই। তাই তাঁরা বাইরে প্রতিবাদ করেছেন। গত সোমবার মহাজাতি সদনে সিপিএম দলের রাজ্য সম্পাদক সংবিধানের ৩৭০ ধারা ও ৩৫এ ধারা সংরক্ষণের জন্য লড়াই চালিয়ে যাওয়ার কথা বলেছেন। দলীয় মুখপত্র প্রথম পাতায় ‘সংবিধানে ছুরিকাঘাত’ বলে অভিহিত করেছে ৩৭০ ধারা বিলোপকে। পাকিস্তানও বিব্রত। ইসলামাদে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনারকে ডেকে পাঠিয়ে সতর্ক করা হয়েছে। ৩৭০ ধারা খারিজের এই ‘বেআইনি’ এবং একতরফা সিদ্ধান্তের মোকাবিলা করবে বলে জানিয়েছে পাকিস্তান।
কিন্তু সারা ভারতের মহল্লায় মহল্লায় আজ উৎসবের চেহারা। শত শত মানুষ প্রাণ খুলে স্লোগান দিচ্ছেন—‘‘যাহা হুয়ে বলিদান মুখার্জি, ওহ কাশ্মীর হমারা হ্যায়।’’ সত্যিই জিতে গেলেন শ্যামাপ্রসাদ।
 সাহা ইনস্টিটিউট অফ নিউক্লিয়ার ফিজিক্স-এ কর্মরত 
07th  August, 2019
রাজনৈতিক জুটি, অন্য সমীকরণ
সমৃদ্ধ দত্ত

গান্ধীজিকে রক্ষা করতে না পারা সরকারের ব্যর্থতা। আর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক সেই দায় এড়াতে পারে না। পুলিস এবং আর্মিও ব্যর্থ। অসংখ্য চিঠি আছড়ে পড়ছে গভর্নর জেনারেল মাউন্টব্যাটেনের অফিসে। প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহরুর দপ্তরে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর অফিসে।
বিশদ

মহারাষ্ট্র ও হরিয়ানার ভোট: বিধ্বস্ত বিরোধী
বনাম দোর্দণ্ডপ্রতাপ মোদি-অমিত শাহ জুটি
বিশ্বনাথ চক্রবতী

 ২০১৯-এর লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির বিপুল জয়ের পর চার মাসের মধ্যে মহারাষ্ট্র ও হরিয়ানার বিধানসভা নির্বাচনের সম্মুখীন মোদি-অমিত শাহ জুটি। এই দুই রাজ্যে পাঁচ বছর শাসন করবার পরও মোদিই বিজেপির প্রধান ভরসার স্থল। বিশদ

17th  October, 2019
আফ্রিকায় ‘আবিম্যানিয়া’
মৃণালকান্তি দাস

 ইথিওপিয়ার মানুষ আজ মনে করেন, আবি আহমেদ আলি আর কেউ নন, স্বয়ং ভগবানের দূত! তাদের রক্ষাকর্তা! বিশদ

17th  October, 2019
সোনিয়ার দলে অন্ধকার যুগ, মহারাষ্ট্র-হরিয়ানায় অ্যাডভান্টেজ মোদি বাহিনীই
শান্তনু দত্তগুপ্ত

যতদূর মনে পড়ে সময়টা ১৯৯৬। সর্বভারতীয় একটি ইংরেজি দৈনিকে মোহিত সেনের নিবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে। বিষয়বস্তু তোলপাড় ফেলে দেওয়ার মতো। তাঁর বিশ্লেষণ, সোনিয়া গান্ধীর সক্রিয় রাজনীতিতে এসে কংগ্রেসের হাল ধরা উচিত। এই প্রসঙ্গে তিনি কংগ্রেসের প্রথম মহিলা প্রেসিডেন্টের কথা উল্লেখ করেছেন। অ্যানি বেসান্ত। বিশদ

15th  October, 2019
শেখ হাসিনার দিল্লি সফর: ভারত-বাংলাদেশ দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের সোনালি অধ্যায়
গৌরীশংকর নাগ 

দুঁদে কূটনীতিক মুচকুন্দ দুবের মতে, সামঞ্জস্যের প্রত্যাশা না করেও যদি এক্ষেত্রে ভারতকে তার স্বার্থ সামান্য বিসর্জন দিতেও হয় তাও ভেবে দেখা যেতে পারে। কারণ বাংলাদেশের সমৃদ্ধি ও অভ্যন্তরীণ স্থিরতা ভারতের সুরক্ষা তথা শক্তিকেই সুনিশ্চিত করবে। সুতরাং ভারতের উচিত অর্থনৈতিক বিষয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে যথাসম্ভব তালমিল রেখে কাজ করা।
বিশদ

14th  October, 2019
বদলে যাচ্ছে পুজো
শুভময় মৈত্র

পুজো এখন এক লক্ষ কোটি টাকা কিংবা তার থেকেও বেশি অঙ্কের ব্যবসা। এমনটা সব ধর্মেই হয়। মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ যে বিভিন্ন সময় উৎসব করেন তারও একটা বাজার আছে। রোজার সময় সন্ধেবেলা জিভে জল আনা খাবারের গন্ধ বিনা পয়সায় শোঁকা যেতেই পারে, কিন্তু কিনে খেতে গেলে পয়সা লাগবেই। ফলে ব্যবসা সেখানে অবধারিত। 
বিশদ

12th  October, 2019
সাচ্চা ক্যাপিটালিস্ট হওয়ার পাঠ শেখাচ্ছে সত্তর বছরের গণচীন
মৃণালকান্তি দাস

এখন সাধারণ পোশাক পরা মাও বা টায়ারের চপ্পল পায়ে হো চি মিনরা আর সমাজতান্ত্রিক নেতৃত্বে নেই। এখন স্যুট টাই পরা বিলাসী সাহেবরা নেতৃত্বে। কমিউনিস্ট নাম ধারণ করে আছে শুধু রাষ্ট্রীয় কাঠামোতে দলীয় একনায়কতন্ত্র অব্যাহত রাখার গরজে। ব্রিটিশরা যেমন বলে থাকেন আওয়ার কিং ইজ ডেড, লং লিভ আওয়ার কিং। ঠিক তেমনই। আগে ধনতন্ত্র পরে সমাজতন্ত্র। তার জন্য জানলা খুললে কিছু মাছি-মশা আসবে। কথাটা বলেছিলেন দেং নিজেই। অবশ্য এই মাছি-মশা নিয়ে তাঁদের কোনও ভ্রুক্ষেপ নেই। কী করে সাচ্চা ক্যাপিটালিস্ট হতে হয় সেটাও শেখাচ্ছে চীন! 
বিশদ

11th  October, 2019
এক কাপ চায়ে 
অতনু বিশ্বাস

এক কাপ চা, কত গল্প বলে সকাল, বিকেল, সন্ধে বেলা...।
এ গানের লিরিকের মতোই চা নিয়ে এবং চায়ের টেবিলে গল্পেরও কোনও শেষ নেই। এক কাপ চায়ে আমেজ আছে নিশ্চয়ই। দার্শনিক কিংবা কবি এক কাপ চায়ে খুঁজে পেতে পারে জীবনের জয়ধ্বনি, অবরুদ্ধ আবেগ, অনাবিল অনুভূতি, মুক্তির আনন্দ কিংবা উল্লাস। এমনকী গণতন্ত্রও।  
বিশদ

10th  October, 2019
জল সঙ্কট নিরসনে: শারদীয়া দুর্গোৎসবের বার্তা
জয়ন্ত কুশারী
 

শারদীয়া দুর্গোৎসব বাঙালির প্রধান উৎসব। বাঙালি দুর্গোৎসবকে কলিযুগের অশ্বমেধযজ্ঞ বলে মনে করেন। দেবীপুরাণের পুজো প্রকরণেও এ প্রসঙ্গে বলা হয়েছে—অশ্বমেধমবাপ্নোতি ভক্তিনা সুরসত্তমঃ, মহানবম্যাং পূজেয়ং সর্বকামপ্রদায়িকা।
বিশদ

05th  October, 2019
‘দিদিকে বলো’ কোনও ম্যাজিক নয়
তন্ময় মল্লিক
 

প্রশান্ত কিশোরের ‘দিদিকে বলো’ দাওয়াই তৃণমূল কংগ্রেসকে কতটা বেনিফিট দেবে, তা জানা যাবে ২০২১ সালে। কিন্তু বঙ্গ রাজনীতিতে ‘পিকে’ যে আলোড়ন ফেলে দিয়েছেন, তাতে কোনও সন্দেহ নেই। বিধায়কদের দলীয় কর্মীর বাড়িতে নিশিযাপন, মানুষের মুখোমুখি হওয়ার টোটকায় অনেক বিধায়ক মাটিতে আছাড় খাচ্ছেন। কৃতকর্মের জবাবদিহি করতে না পারলেই অভিমান সীমা অতিক্রম করছে।  
বিশদ

05th  October, 2019
বাঙালির গল্প সম্প্রীতির গল্প
সুব্রত চট্টোপাধ্যায়

এই লেখায় হিন্দু-মুসলমান—শব্দ দুটি ব্যবহারের কোনও দরকারই পড়ল না। শব্দ দুটির মধ্যে বাঙালি-সত্তার ভাঙনের একটা গন্ধ। তাই ‘বাঙালি’ শব্দটি দিয়েই দিব্যি কাজ চলে যায়। উৎসব সমাসন্ন। তাই আবেগে ভেসে গিয়ে কথাটি বলছি এমন নয়, যা সত্যি তা-ই বলছি।  
বিশদ

04th  October, 2019
বাঙালির দ্বিচারিতা
সমৃদ্ধ দত্ত

মহাত্মা গান্ধীর সবথেকে বড় শক্তি হল, যারা তাঁকে মন থেকে অপছন্দ করে কিংবা তাঁর সামাজিক, রাজনৈতিক অবস্থানকে আদর্শগতভাবে গ্রহণযোগ্য মনে করে না, তারা নিজেরা কিন্তু আন্দোলনে নেমে অজান্তে সেই গান্ধীকেই অনুসরণ করে।  
বিশদ

04th  October, 2019
একনজরে
সংবাদদাতা, কালনা: বুধবার রাতে কালনার কোম্পানিডাঙায় বালি তোলাকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের সংঘর্ষে চারজন জখম হয়েছে। তাদের কালনা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এই ঘটনায় এলাকায় চাপা উত্তেজনা রয়েছে। উভয়পক্ষের তরফে কালনা থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। পুলিস জানিয়েছে, তদন্ত ...

সংবাদদাতা, রামপুরহাট: অতিবৃষ্টি ও বন্যা পরবর্তী পরিস্থিতিতে চাষে ক্ষতি সামাল দিতে রাজ্যের ক্ষতিগ্রস্ত ব্লকগুলিতে বিকল্প চাষের জন্য বীজ বিলি করার সিদ্ধান্ত নিল কৃষি দপ্তর।  ...

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: ইউটিটি জাতীয় র‌্যাঙ্কিং টেবল টেনিস প্রতিযোগিতা আজ শুরু বৃহস্পতিবার হাওড়ার ডুমুরজোলা স্টেডিয়ামে। প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করবেন ক্রীড়ামন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস প্রমুখ। ...

 রিয়াধ, ১৭ অক্টোবর (পিটিআই): পুণ্যতীর্থ মদিনা থেকে মক্কায় যাওয়ার পথে বাস দুর্ঘটনায় মারা গেলেন ৩৫ জন তীর্থযাত্রী। সৌদি আরবের সরকারি সংবাদমাধ্যম সূত্রে বৃহস্পতিবার জানানো হয়েছে, বুধবার সন্ধ্যায় ওই দুর্ঘটনা ঘটে। তীর্থযাত্রীবাহী ওই বাসটি আরও কোনও বড় গাড়িতে ধাক্কা মারে। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

উচ্চতর ও গবেষণামূলক বিদ্যার ক্ষেত্রে সাফল্য আসবে, ব্যবসায় যুক্ত হলে শুভ যোগাযোগ ঘটবে। ভ্রমণ যোগ ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮৭১: কম্পিউটারের জনক চার্লস ব্যাবেজের মৃত্যু
১৯১৮: চিত্রশিল্পী পরিতোষ সেনের জন্ম
১৯৩১: গ্রামাফোনের আবিষ্কারক টমাস আলভা এডিসনের মৃত্যু
১৯৪০: টলিউড অভিনেতা পরাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের জন্ম
১৯৫০: অভিনেতা ওমপুরীর জন্ম





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৬১ টাকা ৭২.৩১ টাকা
পাউন্ড ৮৯.৯৯ টাকা ৯৩.২৪ টাকা
ইউরো ৭৭.৬৭ টাকা ৮০.৬৬ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,৮৪৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,৮৫৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৭,৪১০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৫,২৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৫,৩৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৩১ আশ্বিন ১৪২৬, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, শুক্রবার, চতুর্থী ৪/৩৮ দিবা ৭/২৯। রোহিণী ২৮/৪১ অপঃ ৪/৫৯। সূ উ ৫/৩৭/৪৪, অ ৫/৬/১৬, অমৃতযোগ দিবা ৬/২৪ মধ্যে পুনঃ ৭/১০ গতে ৯/২৭ মধ্যে পুনঃ ১১/৪৫ গতে ২/৪৭ মধ্যে পুনঃ ৩/৩৩ গতে অস্তাবধি। রাত্রি ৫/৫৭ গতে ৯/১৬ মধ্যে পুনঃ ১১/৪৭ গতে ৩/৭ মধ্যে পুনঃ ৩/৫৮ গতে উদয়াবধি, বারবেলা ৮/৩০ গতে ১১/২১ মধ্যে, কালরাত্রি ৮/১৩ গতে ৯/৪৭ মধ্যে।
৩০ আশ্বিন ১৪২৬, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, শুক্রবার, পঞ্চমী ৫৮/২৯/৫১ শেষরাত্রি ৫/২/১০। রোহিণী ২৫/৩৩/৪৮ দিবা ৩/৫১/৪৫, সূ উ ৫/৩৮/১৪, অ ৫/৭/৩৪, অমৃতযোগ দিবা ৬/৩১ মধ্যে ও ৭/১৫ গতে ৯/২৯ মধ্যে ও ১১/৪২ গতে ২/৪১ মধ্যে ও ২/২৫ গতে ৫/৮ মধ্যে এবং রাত্রি ৫/৪৬ গতে ৯/১১ মধ্যে ও ১১/৪৬ গতে ৩/১২ মধ্যে ও ৪/৩ গতে ৫/৩৯ মধ্যে, বারবেলা ৮/৩০/৩৪ গতে ৯/৫৬/৪৪ মধ্যে, কালবেলা ৯/৫৬/৪৪ গতে ১১/২২/৫৪ মধ্যে, কালরাত্রি ৮/১৫/১৪ গতে ৯/৪৯/৪ মধ্যে।
 ১৮ শফর

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
মাইক্রোসফটের নাম করে মার্কিন নাগরিকদের প্রতারণা, শহরে ধৃত ৭ 
বহুজাতিক তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থা মাইক্রোসফটের নাম করে মার্কিন নাগরিকদের প্রতারণার অভিযোগে ...বিশদ

12:25:16 PM

গোঘাটে চলন্ত গাড়িতে আগুন 
চলন্ত এসইউভি গাড়িতে আগুন লাগার ঘটনায় চাঞ্চল্য গোঘাটের মদিনা এলাকায়। ...বিশদ

11:55:10 AM

পূর্ব মেদিনীপুরে দেওয়াল চাপা পড়ে মৃত বধূ 
মাটির দেওয়াল চাপা পড়ে মৃত্যু হল এক গৃহবধূর। আশঙ্কাজনক অবস্থায় ...বিশদ

11:44:00 AM

হাওড়া স্টেশনের সাবওয়ে থেকে চুরি যাওয়া প্রচুর মোবাইল ফোন উদ্ধার, ধৃত ১ 

11:22:19 AM

দেশের পরবর্তী প্রধান বিচারপতি পদে এসএ বোবদের নাম প্রস্তাব করলেন বিদায়ী প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ

11:08:00 AM

আজ শুভমুক্তি
লাল কাপ্তান: নবদীপ সিং পরিচালিত ছবিটি মুক্তি পাচ্ছে আইনক্স, পিভিআর, ...বিশদ

11:00:00 AM