Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

২১ জুলাই সমাবেশ: মমতা কী বার্তা দেন জানতে উৎসুক বাংলা
শুভা দত্ত

আজ ২১ জুলাই। তৃণমূলের শহিদ দিবস। ১৯৯৩ সালের একুশে জুলাই কলকাতার রাজপথে যে ১৩ জন যুবকর্মী বাম-পুলিসের গুলিতে প্রাণ হারিয়েছিলেন আজ তাঁদের প্রতি শ্রদ্ধা-তর্পণের দিন। ওই মর্মান্তিক ঘটনার পর থেকে প্রতিবছর মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই দিনটিতে বড়সড় সমাবেশের আয়োজন করে তাঁর প্রয়াত সহযোদ্ধাদের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। সেইসঙ্গে তাঁর পরবর্তী কর্মসূচি বা ভবিষ্যৎ কর্মপন্থা সম্পর্কেও সমাবেশে উপস্থিত দলীয় কর্মী-সমর্থক জনতাকে প্রয়োজন মতো অবহিত করেন। বলা বাহুল্য, ক্ষমতায় আসার পর থেকে প্রতি বছর এই ২১ জুলাই সমাবেশের বহর আড়ম্বর যেমন বেড়েছে, তেমনি তাতে মানুষের যোগদানের পরিমাণও বেড়েছে। বলতে কী গত বছর অবধি ২১ জুলাইয়ের এই সমাবেশ নিয়ে তৃণমূলীদের মধ্যে একটা আলাদা আবেগ বেশ ভালোমতোই লক্ষ করা গেছে। দলের আর পাঁচটা সমাবেশের চেয়ে এই ২১ জুলাই সমাবেশটাকে তৃণমূলনেত্রী মমতা তো বটেই, তাঁর দলের নেতা-মন্ত্রী থেকে নিচুতলার সাধারণ কর্মীরাও যে অনেক বেশি গুরুত্ব দিয়ে থাকেন তা জনপ্লাবনে ভেসে যাওয়া কলকাতা মহানগরীর ২১ জুলাইগুলি প্রতি বছরই প্রমাণ করে গিয়েছে। এবারও তার ব্যতিক্রম হবে না বলেই মনে করছেন রাজ্য রাজনীতির পর্যবেক্ষকেরা। বরং, তাঁদের কারও কারও মতে, লোকসভা ভোট পরবর্তী রাজ্য রাজনীতির নয়া প্রেক্ষাপট এবারের একুশে জুলাইয়ের গুরুত্ব ও তাৎপর্য বহুলাংশে বাড়িয়ে দিয়েছে। শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা-তর্পণের পাশাপাশি এবার এই সমাবেশ থেকে একুশের আসন্ন মহাযুদ্ধজয়ের লক্ষ্যে শপথ গর্জনও শোনা যেতে পারে।
রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের এই ভাবনা যে খুব অমূলক নয় তা বলাই বাহুল্য। লোকসভা ভোটে ১৮ আসনের ধাক্কা খাওয়ার পর তৃণমূলের এটাই প্রথম বড় সমাবেশ। শুধু তাই নয়, আগেই বলেছি, এই সমাবেশের সঙ্গে শহিদ স্মৃতির একটা বিশেষ আবেগ জড়িত। সিপিএম নেতৃত্বাধীন বাম সরকারের অন্যায়-অবিচারের বিরুদ্ধে লড়াই করতে গিয়েই দলের ১৩ জন কর্মী-সমর্থক প্রাণ হারিয়েছিলেন—এই সত্যটি ঘুরেফিরে ফিরে আসে এই সমাবেশের আবহে। ফলে, সমবেত কর্মী সমর্থকদের লড়াই মানসিকতায় সংকল্পের একটা বাড়তি মাত্রাও যোগ হয়। তার উপর দলনেত্রী মমতার উপস্থিতি এবং বক্তব্যে সেই সংকল্পের জোর যে আরও বেড়ে যায় তাতেই বা আশ্চর্য কী? এই দিক থেকে দেখলে এবারের ২১ জুলাইয়ের সমাবেশের গুরুত্ব ও তাৎপর্য বিগত বছরগুলির তুলনায় যে অনেকটাই বেশি—তা বলার অপেক্ষা রাখে না। এবং সেই কথা মাথায় রেখে তৃণমূলও প্রচার সভা-সমিতি নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েছে—সে তো দেখাই যাচ্ছে। কিন্তু, এই সমস্ত উদ্যোগ আয়োজনের মাঝে এটাও সত্য—সমাবেশ নিয়ে আয়োজক ও সমর্থক মহলে সংশয়ের কিছু কাঁটাও ইতস্তত বিক্ষিপ্তভাবে খোঁচা দিয়ে চলেছে। এবারের সভায় ভিড়ের বহর বজায় থাকবে তো? গতবারের রেকর্ড ভেঙে শহিদ সমাবেশ উপচে পড়বে তো? আসলে প্রশ্ন একটাই—বয়ানটাই যা দুরকম। এরই পাশাপাশি আরও একটি বিষয়ে তৃণমূলের নেতা-কর্মী সমর্থকদের মধ্যে এখন কৌতূহল চরমে—আর তা হল—এবার কী বার্তা দেবেন দলনেত্রী? তবে, এই কৌতূহল কেবল তৃণমূল শিবিরেই সীমাবদ্ধ নেই, ছড়িয়ে পড়েছে আসমুদ্রহিমাচল। বলতে কী, আজ ২১ জুলাই সমাবেশে মমতা কী বার্তা দেন জানতে উৎসুক গোটা বাংলাই।
কারণ, লোকসভা ভোট পরবর্তী পশ্চিমবঙ্গের রাজনৈতিক লড়াইয়ের ময়দানে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রভাব প্রতিপত্তি অক্ষুণ্ণ অটুট থাকলেও পরিস্থিতির বিচারে অনেকেই বলছেন, এখন আর তৃণমূল একচ্ছত্র এক নয়, বিজেপির গেরুয়া বাহিনীও সমান তালে তাল ঠুকছে। বিগত ভোটের ১৮ আসন এ রাজ্যে বিজেপির জোরালো প্রতিষ্ঠার প্রাথমিক কাজটি সেরে দিয়েছিল। অতঃপর কেন্দ্রে নরেন্দ্র মোদি সরকারের প্রবলভাবে ফিরে আসার সুবাদে রাজ্য বিজেপির জোশ আরও বেড়েছে। ২০২১ সালে বিধানসভা জয়ের স্বপ্নও দেখতে শুরু করেছে পদ্ম শিবির। সেই সুবাদে বহুদিনই শুরু হয়ে গেছে রাজনৈতিক ও পেশি ক্ষমতা প্রদর্শনের প্রক্রিয়া। ভোটের আগে-পরের সংঘাত সংঘর্ষে একসময় যেমন তৃণমূল-সিপিএমের নাম উঠে আসত, এখন উঠে আসছে তৃণমূল-বিজেপির নাম। খুন, পাল্টা খুন, মারদাঙ্গা, বাড়িঘর জ্বালানো, মিছিল, পাল্টা মিছিল, হুমকি শাসানির পাল্টা—সবই চলছে অকাতরে! সকলেই জানেন, পরিস্থিতি চরমে পৌঁছেছিল নৈহাটি ভাটপাড়া শিল্পাঞ্চলে। সেখানে এখনও তুষের আগুনের মতো জ্বলছে রাজনৈতিক সন্ত্রাসের আগুন। এখনও পুরোপুরি স্বাভাবিক হতে পারেনি সাধারণ জনজীবন, সবসময়ই একটা ভয় আতঙ্ক তাড়া করে বেড়াচ্ছে স্থানীয় সাধারণ জনতাকে।
শুধু তাই নয়, মুকুল রায়ের উদ্যোগে তৃণমূল ভাঙিয়ে রাজ্যের শাসকদলের নেতানেত্রী কাউন্সিলার চেয়ারম্যান অভিনেতা অভিনেত্রীদের বিজেপি শিবিরে শামিল করার যে প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে তাতেও খানিকটা অস্বস্তি দেখা দিয়েছে শাসক শিবিরে। আবার তার মধ্যেই যখন বিজেপিতে যোগ দেওয়ার কদিন বাদেই ঘরে ফিরছেন কাউন্সিলার বা অন্যরা তখন নিঃসন্দেহে অস্বস্তি অনেকটা উবে গিয়ে তৃণমূলের মনোবল পাচ্ছে বাড়তি অক্সিজেন। দলবদলুদের এই আসা-যাওয়া নিয়েও দুপক্ষের তরজা, দাবি, পাল্টা দাবি অবশ্য অব্যাহত। পরিস্থিতি দেখে আমার এক সুরসিক বন্ধুর মন্তব্য, আরে বাবা, কোনদিকে থাকলে ভবিষ্যতে ‘ফায়দা’ বেশি সেই হিসেব যারা গুলিয়ে ফেলছে তারাই অমন খাবি খাচ্ছে, গেরুয়া না সবুজ, ঘাসফুল না পদ্মফুল—ভুগছে দোটানায়! হয়তো তাই। কারণ, রাজনৈতিক আদর্শের টানে দলবদল চলছে—এমনটা বোধহয় কেউই বিশ্বাস করেন না!
কিন্তু সে যাই হোক, সবমিলিয়ে রাজ্য রাজনীতির পরিসরে উত্তেজনা যে বেশ টানটান তা স্বীকার করছেন সকলেই। তৃণমূল-বিজেপির শক্তিক্ষমতার দ্বন্দ্বটা এখনও সমানে সমানে বলা না গেলেও যে প্রায় তুল্যমূল্য এবং বিগত ভোটে পদ্ম শিবিরের ভোটপ্রাপ্তি যে শাসককে যথেষ্ট চিন্তায় ফেলেছে তা রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের অনেকেই বলছেন। নির্বাচন বিশেষজ্ঞ প্রশান্ত কিশোরের নিযুক্তি এবং তৃণমূলের পরবর্তী ভোট প্রস্তুতিতে তাঁর সক্রিয় ভূমিকাকে পর্যবেক্ষকেরা তাঁদের বক্তব্যের যুক্তি হিসেবে খাড়া করছেন। যতদূর খবর সমবেত মানুষজনের মনের খবর নিতে আজ সমাবেশেও সক্রিয় থাকছেন প্রশান্ত কিশোর এবং তাঁর টিম। তবে, প্রশান্ত কিশোর কেবল বিজেপি ঠেকাতে এসেছেন—এমন ভাবনা কি একেবারে একমাত্রিক হয়ে যায় না! এমনকী হতে পারে না যে ভবিষ্যতের জন্য দলীয় ভিত অধিকতর মজবুত করতে এবং বাংলার জনমন দখলে রাখতে কী করা উচিত, কী করা উচিত নয়, কী বলা উচিত, কী বলা উচিত নয় সেসব ভালো করে বুঝে নিতেই টিচার প্রশান্তর শরণাপন্ন হয়েছে তৃণমূল! সংগঠনশক্তি অটুট এবং ক্রমবর্ধমান রাখতে পারলে বিজেপি কেন ভবিষ্যতে কোনও রাজনৈতিক আক্রমণই দলীয় আত্মপ্রত্যয়ে চট করে চিড় ধরাতে পারবে না, কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে সংশয়ও তৈরি করতে পারবে না। সেই লক্ষ্যেই প্রশান্ত কিশোরের আইপ্যাক নিয়োগ—হতে পারে না?
অবশ্যই হতে পারে। এবং সেদিক থেকে আজকের সমাবেশ প্রশান্ত কিশোরেরও পরীক্ষা বটে। কিন্তু, আজ বাংলার মানুষের যাবতীয় কৌতূহল কেন্দ্রীভূত হয়ে আছে মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূলনেত্রী মমতার বার্তার ওপর। রাজ্যের বর্তমান পরিস্থিতির মোকাবিলায় তিনি কোন পথ দেখান, দলবদলু বা যাঁরা দল-বদল নিয়ে উভয় সঙ্কটে ভুগছেন বা যাঁরা দলে বসে বসেই অলক্ষ্যে সিঁদ কাটছেন তাঁদের ক্ষেত্রে দলীয় শৃঙ্খলা রক্ষার কী দাওয়াই দেন, সিপিএম, কংগ্রেসের সঙ্গে রাজনৈতিক সম্পর্ক বিষয়েই বা কী বলেন এবং সর্বোপরি এবারের সমাবেশের মূল স্লোগান—মেশিন ফেলে ব্যালট ভোটে ফেরার জন্যই বা তিনি কতটা সোচ্চার হোন—সব কিছু নিয়েই আজ মানুষের জিজ্ঞাসা কৌতূহল তুঙ্গে। কারণটা খুবই সহজ—দুয়ারে কড়া নাড়ছে বিজেপি।
আসন্ন পূজার মরশুমে মা দুর্গার সঙ্গে ভক্ত শ্রীরামচন্দ্রও এবার নাকি সমান খাতির যত্ন পুজো ভক্তি পাবেন—শোনা যাচ্ছে এমনই। তারপর কলকাতা সমেত রাজ্যের পুরসভাগুলোর ভোট
এবং পরিশেষে ২০২১ বিধানসভা। কানাঘুষোয় এমনও শোনা যাচ্ছে, বিধানসভা ভোট এগিয়ে
আনাও হতে পারে।
অতএব ঘর গুছনোর সময় আর খুব বেশি বাকি নেই। বিজেপির ১৮ সিটের ক্ষত মুছে জবরদস্ত লড়াইয়ের ব্যবস্থা করতে তাই এখন থেকেই কোমর কষে নামতে হবে—এমন ইঙ্গিত নেতাকর্মী সমর্থক মহলে ইতিমধ্যেই দিয়েছেন মমতা। সেই ইঙ্গিতের সূত্র ধরে কি আরও কোনও নির্দিষ্ট এবং স্পষ্ট বার্তা শহিদ দিবসের মঞ্চ থেকে আজ দেবেন তিনি? উত্তরবঙ্গ এবং উত্তর ২৪ পরগনায় দলের সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স এবং খামতি দূর করতে কোনও নতুন নিদান? পে-কমিশন? এনআরসি? কেন্দ্রের বঞ্চনার বিরুদ্ধে তোপ? তৃণমূলের সাধারণ মহল তো বটেই, রাজ্যের আমজনতাও আজ নিশ্চিতভাবেই তাঁদের এমন যাবতীয় জিজ্ঞাসার উত্তর খুঁজতে শহিদ দিবসের ওই মঞ্চের দিকে চেয়ে থাকবেন। এখন দেখার, মমতার বার্তায় দিনের শেষে কার জিজ্ঞাসা কতটা উত্তর পায়, বিশেষ করে বিজেপির অগ্রগতি ঠেকাতে সিপিএম কংগ্রেসের মতো বিরোধীদের সঙ্গে তৃণমূলের রাজনৈতিক সমীকরণে কোনও নূতন পথের আভাস মেলে কি না!
21st  July, 2019
বিপুল অভ্যর্থনা পেয়ে বিশ্বজয়ী বিবেকানন্দ
কলকাতায় বলেন, এ ঠাকুরেরই ‌জয়জয়কার
হারাধন চৌধুরী

ঠাকুর শ্রীরামকৃষ্ণ বলেছিলেন, ‘‘নরেন শিক্ষে দেবে।’’ ঠাকুরের কথা ফলিয়ে দেওয়ার জন্য তাঁর মানসপুত্রটি বেছে নিয়েছিলেন পাশ্চাত্যের মাটি। কারণ, যে-কোনও জিনিস পাশ্চাত্যের মানুষ গ্রহণ করার পরেই যে ভারতের মানুষ তা গ্রহণে অভ্যস্ত! স্বামী বিবেকানন্দের সামনে সেই সুযোগ এনে দিয়েছিল শিকাগো বিশ্ব ধর্ম মহাসভা।
বিশদ

ট্রাম্পের ভারত সফর এবং প্রাপ্তিযোগের অঙ্ক 

শান্তনু দত্তগুপ্ত: সফর মাত্র দু’ঘণ্টার। আর তাতে আয়োজন পাহাড়প্রমাণ। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলে কথা! তাই এতটুকু ফাঁক রাখতে নারাজ গুজরাতের মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রূপানি (বা বেসরকারিভাবে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি)।  বিশদ

18th  February, 2020
টুকরে টুকরে গ্যাং-ই জিতল
পি চিদম্বরম

 গত ১১ ফেব্রুয়ারি লোকসভার কার্যবিবরণীতে নথিভুক্ত নিম্নলিখিত প্রশ্নোত্তরগুলি আনন্দের কারণ হতে পারত যদি না বিষয়টি বিজেপি নেতাদের (এই পঙ্‌ক্তিতে আছেন প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবং অন্য মন্ত্রীরাও) দুঃখের ধারাবিবরণীতে পরিণত হতো: বিশদ

17th  February, 2020
স্বর্গলোকে মহাত্মা ও
গুরুদেবের সাক্ষাৎকার
সন্দীপন বিশ্বাস

 অনেকদিন পর আবার দেখা হল মহাত্মা এবং গুরুদেবের। মর্ত্যে দু’জনের প্রথম সাক্ষাৎ ঘটেছিল শান্তিনিকেতনে ১৯১৫ সালে আজকের দিনে অর্থাৎ ১৭ ফেব্রুয়ারি। তারপর বেশ কয়েকবার তাঁদের দেখা হয়েছিল। কবিগুরু সবরমতী আশ্রমে গিয়েছিলেন ১৯২০ সালে। বিশদ

17th  February, 2020
এবার হ্যাটট্রিকের দোরগোড়ায় অগ্নিকন্যা
হিমাংশু সিংহ

তবে কি দিল্লিতে হেরে বোধোদয় হল অমিত শাহদের? নাকি ভোট জেতার নামে ঘৃণা ছড়ানো ঠিক হয়নি বলাটা আরও বড় কোনও নাটকের মহড়ারই অংশ? বোঝা কঠিন, তুখোড় রাজনীতিকরা কোন উদ্দেশ্যে কখন কোন খেলাটা খেলেন! আর সেই তালে অসহায় জনগণকে তুর্কি নাচন নাচানো চলে অবলীলায়। 
বিশদ

16th  February, 2020
শাহিনবাগে যেসব কথা জানানো হয়নি

 ‘যত্র নার্যস্তু পূজ্যন্তে রমন্তে তত্র দেবতাঃ’, যেখানে মহিলারা পূজিতা হন সেখানেই ভগবান অবস্থান করেন। ভারতবর্ষের মানুষ হাজার বছর ধরে এই শ্লোক আবৃত্তি করে এসেছে। গত একমাসের বেশি সময় ধরে দিল্লির শাহিনবাগে শিশু থেকে বৃদ্ধা বিভিন্ন বয়সের মহিলাদের কষ্ট দেওয়া হয়েছে। বিশদ

15th  February, 2020
মাফলার ম্যানের দিল্লি জয়
মৃণালকান্তি দাস 

ঠেকে শিখেছেন তিনি। ‌‌‌‌পদস্থ আমলা থেকে রাজনীতিক এবং প্রশাসক হিসেবে পরিণত হয়েছেন। বুঝেছেন, এ দেশের আমআদমি বাড়ির কাছে ভালো স্কুল, কলেজ, হাসপাতাল চান। বাড়ির মেয়েদের নিরাপত্তা নিয়েই তাঁদের উদ্বেগ। 
বিশদ

14th  February, 2020
রাজনীতির কাছে মানুষের চাহিদাটাই
বদলে দিল দিল্লির এই ভোট-সংস্কৃতি
হারাধন চৌধুরী

 প্রতিমা গড়ে পুজো করা আর ভগবানকে লাভ করা এক নয়। প্রতিমা সাজিয়ে পুজো যে-কেউ করতে পারে। কিন্তু, ভগবান লাভ? মানুষ চিরদিন মনে করে এসেছে, সে শুধু সাচ্চা সাধকের পক্ষেই সম্ভব। কিন্তু, ঠাকুর শ্রীরামকৃষ্ণ এসে একেবারে অন্যকথা বললেন।
বিশদ

13th  February, 2020
সেনাবাহিনীও যখন রাজনীতির অস্ত্র
শান্তনু দত্তগুপ্ত

লঞ্চপ্যাড মাত্র ৫০ মিটার দূরে... অন্ধকারের মধ্যেই তাঁর চোখ দু’টো খুঁজে চলেছে... নজরে এসেও গেল দুই জঙ্গি... ছায়ার মতো সেঁটে আছে লঞ্চপ্যাডের অন্ধকারে। নাইট ভিশন গ্লাস চোখে লাগিয়ে নিশ্চিত হলেন মেজর মাইক ট্যাঙ্গো। আগেভাগে নিশ্চিত হয়ে নেওয়ার কারণ আরও ছিল তাঁর কাছে।
বিশদ

11th  February, 2020
রাজস্ব-শৃঙ্খলা অক্ষুণ্ণ রেখেই জনমুখী বাজেট
দেবনারায়ণ সরকার

২০২১-এর বিধানসভা নির্বাচনের আগে এটাই অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্রের শেষ পূর্ণাঙ্গ বাজেট। এই বাজেট নিঃসন্দেহে জনমুখী, তবে রাজস্ব-শৃঙ্খলা (ফিসকাল ডিসিপ্লিন) যথেষ্ট বজায় রেখে জনমুখী বাজেট পেশ করলেন অমিতবাবু। প্রথমে রাজস্ব-শৃঙ্খলার প্রসঙ্গে আসা যাক। বিশদ

11th  February, 2020
মানুষ কী চায়, বুঝিয়ে দেবে দিল্লির ভোটের ফল
সন্দীপন বিশ্বাস

বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় তাঁর ‘বাহুবল ও বাক্যবল’ নিবন্ধে দুই প্রকার বলের প্রভূত ব্যাখ্যা করেছেন। যদিও তিনি বলেছেন, বাহুবল পশুর বল এবং বাক্যবল মানুষের বল, তা সত্ত্বেও মনুষ্য সমাজে বাহুবলের প্রয়োগ অনবরত দেখা যায়। মানুষের বল সমাজ গঠনে কখনও কখনও নিশ্চয়ই কাজে লাগে। কিন্তু দেখা যায় বেশিরভাগ ক্ষেত্রে মানুষ আপন স্বার্থে এই বাহুবলকে ব্যবহার করে। 
বিশদ

10th  February, 2020
সরকার দিশেহারা এবং ভীত
পি চিদম্বরম

অর্থমন্ত্রী বাধ্য হয়েছেন সরকারি ব্যয় নামক একমাত্র ‘ইঞ্জিন’-এর উপর আস্থা রাখতে। কিন্তু এই ইঞ্জিনটাও যে জ্বালানি সঙ্কটে ভুগছে এবং নড়বড়ে রাজকোষের ভূতের ছায়াটিও পড়ছে সরকারের উপর! তীব্র বেকারত্ব এবং ব্যাপক হারে ছোট ও মাঝারি শিল্প-ব্যবসা চৌপাট হয়ে যাওয়ার মতো দুটি ভয়ঙ্কর ইস্যুও অস্বীকার করেছেন অর্থমন্ত্রী। সাম্প্রতিককালে ভারতের অর্থনীতিকে সবচেয়ে কঠিন যে চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে হয়েছে সেটা হল—স্বঘোষিত শক্তিমান এবং নির্ণায়ক (ডিসিসিভ) সরকার—যে সরকার নিজেকে দিশেহারা এবং ভীত বলেই প্রতিপন্ন করেছে।
বিশদ

10th  February, 2020
একনজরে
 ন্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জে যেসব সংস্থার শেয়ার গতকাল লেনদেন হয়েছে শুধু সেগুলির বাজার বন্ধকালীন দরই নীচে দেওয়া হল। ...

থানে, ১৮ ফেব্রুয়ারি (পিটিআই): মহারাষ্ট্রের কল্যাণ ডোম্বিভালি পুরসভার এক বরিষ্ঠ আধিকারিকের বিরুদ্ধে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ উঠেছিল। আর তার ভিত্তিতে সোমবার দুর্নীতি দমন শাখার পক্ষ থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। বালাসাহেব যাদব পেশায় পুরসভার এক্সিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়র। ...

 করাচি, ১৮ ফেব্রুয়ারি (পিটিআই): পাকিস্তানের করাচিতে রহস্যময় বিষাক্ত গ্যাসে মৃত্যু হল কমপক্ষে ১৪ জনের। গুরুতর অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন বহু মানুষ। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছে করাচির প্রশাসন। ...

সৌম্যজিৎ সাহা, কলকাতা: শিক্ষাকর্মী নিয়োগ করতে চলেছে রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়। তার মধ্যে দীর্ঘ এক দশকেরও বেশি সময় পর ক্লারিকাল পদ এবং প্রায় সাত বছর পর গ্রুপ ডি পদে নিয়োগ হবে। তার লিখিত পরীক্ষার জন্য এই প্রথম একটি বাইরের এজেন্সিকে দায়িত্ব দিল ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

মানসিক অস্থিরতার জন্য পঠন-পাঠনে আগ্রহ কমবে। কর্মপ্রার্থীদের যোগাযোগ থেকে উপকৃত হবেন। ব্যবসায় যুক্ত হলে শুভ। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৪৭৩: জ্যোতির্বিজ্ঞানী কোপারনিকাসের জন্ম
১৬৩০: মারাঠারাজ ছত্রপতি শিবাজির জন্ম
১৮৬১: দক্ষিণেশ্বরে কালীমন্দিরের প্রতিষ্ঠাতা রানি রাসমণির মৃত্যু
১৮৯১: দৈনিক হিসেবে প্রকাশিত হল অমৃতবাজার পত্রিকা
১৯১৫ : ভারতীয় রাজনীতিবিদ গোপালকৃষ্ণ গোখলের মৃত্যু
১৯৭৮: রবীন্দ্রসংগীত শিল্পী পঙ্কজকুমার মল্লিকের মৃত্যু
১৯৮৬: কম্পিউটার রিজার্ভেশন ব্যবস্থা চালু করল রেল





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৫৯ টাকা ৭২.২৯ টাকা
পাউন্ড ৯১.২৪ টাকা ৯৪.৫৬ টাকা
ইউরো ৭৫.৯২ টাকা ৭৮.৮৭ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪১,৬৪৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৯,৫১০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪০,১০০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৬,৮০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৬,৯০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৬ ফাল্গুন ১৪২৬, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, বুধবার, (মাঘ কৃষ্ণপক্ষ) একাদশী ২২/১১ দিবা ৩/৩। পূর্বাষাঢ়া অহোরাত্র। সূ উ ৬/১০/১৮, অ ৫/৩১/৪, অমৃতযোগ দিবা ৭/৪০ মধ্যে পুনঃ ৯/৫৭ গতে ১১/২৮ মধ্যে পুনঃ ৩/১৫ গতে ৪/৪৬ মধ্যে। রাত্রি ৬/২২ গতে ৮/৫৪ মধ্যে পুনঃ ১/৫৭ গতে উদায়াবধী। বারবেলা ৯/০ গতে ১০/২৫ মধ্যে পুনঃ ১১/৫০ গতে ১/১৫ মধ্যে। কালরাত্রি ৩/০ গতে ৪/৩৫ মধ্যে।
৬ ফাল্গুন ১৪২৬, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, বুধবার, একাদশী ২৭/৪২/৫৮ সন্ধ্যা ৫/১৮/৩৯। মূলা ৬/২৭/৫৬ দিবা ৮/৪৮/৩৮। সূ উ ৬/১৩/২৮, অ ৫/২৯/৫৬। অমৃতযোগ দিবা ৭/৩১ মধ্যে ও ৯/৫১ গতে ১১/২৪ মধ্যে ও ৩/১৮ গতে ৪/৫১ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/২৭ গতে ৮/৫৫ মধ্যে ও ১/৫১ গতে ৬/১৩ মধ্যে। কালবেলা ৯/২/৩৫ গতে ১০/২৭/৮ মধ্যে। কালরাত্রি ৩/২/৩৫ গতে ৪/৩৮/২ মধ্যে।
২৪ জমাদিয়স সানি

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
দেশজুড়ে স্বচ্ছ ভারত অভিযানের দ্বিতীয় ভাগ শুরু করার অনুমোদন দিল কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা 

04:10:17 PM

নিউটাউনে শিশুকন্যাকে নির্যাতনের অভিযোগ
বছর তিনেকের এক শিশুকন্যাকে নির্যাতনের অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হল এক ...বিশদ

04:01:00 PM

নিউটাউনে বধূকে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগ স্বামী ও শাশুড়ির বিরুদ্ধে
নিউটাউনে বধূকে আত্নহত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগ উঠল স্বামী ও শাশুড়ির ...বিশদ

03:45:00 PM

মাধ্যমিক: চাঁচলে প্রশ্ন ফাঁস করতে গিয়ে হাতেনাতে ধরা পড়ল পরীক্ষার্থী 
মোবাইলের মাধ্যমে ছবি তুলে প্রশ্ন ফাঁস করতে গিয়ে ধরা পড়ল ...বিশদ

03:14:30 PM

মালদহে টিকটকের মাধ্যমে মাধ্যমিকের প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ 
হোয়াটসঅ্যাপের পর এবার টিকটকের মাধ্যমে মাধ্যমিকের প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ উঠল। ...বিশদ

03:10:22 PM

মাধ্যমিকের দ্বিতীয় দিনও প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ 
মধ্যশিক্ষা পর্ষদের কড়া ব্যবস্থা। প্রশাসনিক নজরদারি সত্ত্বেও ফের মাধ্যমিকের প্রশ্ন ...বিশদ

01:49:16 PM