Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

সাবধান! গ্রাফিতি নিয়ে ব্যাঙ্কসি এবার ভারতেও
মৃণালকান্তি দাস

কোনও রাজা নয়। রাজার মূর্তিও নয়। দুই নেতার টানাটানিতে দ্বিখণ্ডিত ভারত! এটাই ছিল মুম্বইয়ের রাজপথের পাশে কোনও এক দেওয়ালে আঁকা গ্রাফিতি। দড়ি টানাটানি করছেন যাঁরা, তাঁদের একজন ‘নাগরিক’ পোশাকে সজ্জিত কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। অন্যজনের পরনে সামরিক উর্দি। তিনি, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। কে এঁকেছেন, জানা নেই। নাই বা থাকুক, এই ভোট মরশুমে নজর কাড়তে সময় নেয়নি সেই গ্রাফিতি। তবে নিশ্চিত, শিল্পীমনে প্রভাব ফেলেছিল ‘ব্যাঙ্কসি’র চিত্রকর্ম। ব্যাঙ্কসি! সে আবার কে? হলিউডের বিখ্যাত অভিনেতা ব্রাড পিট একসময় যাঁর কাজ দেখে মুগ্ধ হয়ে বলেছিলেন, ‘তিনি এত সব করেও নিজেকে সকলের চোখের আড়ালে লুকিয়ে রেখেছেন। এ যুগে সবাই যখন বিখ্যাত হতে চান, তখন ব্যাঙ্কসি নিজের পরিচয় প্রকাশ করেননি এখনও। এ এক অসাধারণ ব্যাপার।’ বিশ্বখ্যাত ম্যাগাজিন নিউ ইয়র্কার-এ প্রকাশিত এক প্রবন্ধে লরেন কলিন্স লিখছেন, তাঁর পরিচয় না জানা গেলেও, দুনিয়ার অনেক দেশের দেওয়াল দখল করে ফেলেছে তাঁর গ্রাফিতি। জার্মানি থেকে প্যালেস্তাইন, ব্রিটেন থেকে আমেরিকা—ব্যাঙ্কসির গ্রাফিতি সমাজ-রাজনীতির অনেক প্রশ্নকে জনগণের সামনে হাজির করেছে। এই ব্রিটিশ গ্রাফিতি আঁকিয়ের সৃষ্টি আজ গোটা দুনিয়াকে ভাবতে বাধ্য করেছে।
যেমন ভাবিয়েছে ভোটের ভারতকে। মুম্বইয়ের বাসিন্দাদের। কিন্তু দেয়ালচিত্রে প্রধানমন্ত্রীর পরনে কেন সামরিক পোশাক? এই প্রশ্ন উঠতেই পারে। কে না জানে, এবারের ভোটের শেষবেলায় এসে প্রধানমন্ত্রীর ভোট-প্রচার পুরোপুরি নিরাপত্তানির্ভর হয়ে উঠেছিল। কাশ্মীরের পুলওয়ামায় সেনা হত্যার পর যেদিন বালাকোটে সার্জিকাল স্ট্রাইক হল, প্রচারের অভিমুখ উন্নয়ন ও বিকাশের রাস্তা ছেড়ে সেই দিন থেকেই ধাবিত দেশের নিরাপত্তার দিকে। সার্জিকাল স্ট্রাইকের পর থেকে সরাসরি ভোট চাওয়া শুরু হয়েছিল দেশের সেনাবাহিনীর নামে। উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ তো দেশের সেনাবাহিনীকে ‘মোদির সেনা’ বলে হুঙ্কার করতেও ছাড়েননি। শিল্পী হয়তো এই কারণেই মোদিকে সেনা-পোশাকে মুড়েছেন। শিল্পীর হয়তো মনে হয়েছে, মোদির মোকাবিলায় সর্বভারতীয় স্তরে যদি কোনও দল থাকে, তা রাহুল গান্ধীর কংগ্রেস। তাই মোদির বিরুদ্ধে রাহুলকে দাঁড় করিয়েছেন। কিন্তু সেই গ্রাফিতিতে দুই নেতার দড়ি-টানাটানিতে ভারত কেন দুভাগে ভাগ? হয়তো শিল্পীমন বলতে চেয়েছে, এই দুই নেতার হাতে পড়ে দেশ ও জনজীবন দুর্বিষহ হয়ে উঠছে! শিল্পীমন যাই বলুক না কেন, ওই শিল্প আপনাকে ভাবাতে বাধ্য। হয়তো তাই এই গ্রাফিতি দেখেই এএফপির চিত্রসাংবাদিক ইন্দ্রনীল মুখোপাধ্যায়ের ক্যামেরা ঝলসে উঠেছিল। যে গ্রাফিতি অর্থ আদৌ স্পষ্ট নয়। আপনি ভাবতে পারেন আপনার মতো করেই। ভাবতে পারেন অন্য ভাবেও। আর প্রশ্ন তুলতে পারেন, তাহলে কি ভোটের ভারতে সকলের নজর এড়িয়ে মুম্বই ঢুঁ মেরেছিলেন ‘ব্যাঙ্কসি’ নিজেই?
ইতিহাস বলে, নব্বইয়ের দশকে ব্রিস্টলের কুখ্যাত বার্টন হিল এলাকার দেওয়ালগুলি ভরে যাচ্ছিল অদ্ভুত সব গ্রাফিতি দিয়ে। যেমন রঙের ব্যবহার, তেমনই অভিনব বিষয়। অন্যসব গ্রাফিতি থেকে একে সহজেই আলাদা করা যেত। গ্রাফিতিতে স্প্রের বদলে স্টেনসিলের ব্যবহার হয়তো সেই প্রথম। কেউ জানতো না, এই গ্রাফিতিগুলি কার আঁকা। তবে একটি ছদ্মনাম ব্রিস্টলের কালোজগতে সবাই জানতেন। রবিন ব্যাঙ্ক’স। নামটি দ্ব্যর্থক। ইংরেজি শব্দ রবিং যার অর্থ দাঁড়ায় ডাকাতি। আর ব্যাঙ্ক বলতে আমাদের চিরপরিচিত লেনদেনের ব্যাঙ্ককেই বোঝায়। এই রবিন ব্যাঙ্ক’স নামটিই পরে বদলাতে বদলাতে ব্যাঙ্কসিতে পরিণত হয়। ব্যাঙ্কসির আসল পরিচয় এখনও কেউ জানেন না। তবে কিছু সাক্ষাৎকার ও সোশ্যাল মিডিয়ায় তার ব্যাপারে কিছু তথ্য জানা যায়। যাঁর শুরুটা হয়েছিলেন ডেব্রিড ক্রুর গ্রাফিতি শিল্পীদের অংশ হিসেবে। সেই নব্বইয়ের দশকে। ব্যাঙ্কসি তখন কিশোর। সেই বয়সেই জীবনের অনেক অন্ধকার পর্ব দেখা হয়ে গিয়েছে। জন্মস্থান বার্টন হিল এলাকায় মারামারি, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড লেগেই থাকত। এরই মধ্যে তিনি তাঁর কাজ করতে থাকেন এবং একপর্যায়ে তাঁর দেখা হয় ব্রিস্টলের বিখ্যাত আলোকচিত্রী ও চিত্রপ্রদর্শনী উদ্যোক্তা স্টিভ ল্যাজারিডসের সঙ্গে। তিনি ব্যাঙ্কসির কাজের ব্যবসায়িক দিকটি প্রথম দেখতে পান। তাঁর কাজ বিক্রি করতে শুরু করেন। পরে লন্ডনেও কাজ শুরু করেন এবং অচিরেই গোটা ব্রিটেনে তাঁর কাজের তুলনা হতে থাকে জ্যঁ মিশেল বাস্কিয়াৎ এবং কিথ হ্যারিংয়ের মতো তারকা শিল্পীদের সঙ্গে। ব্যাঙ্কসির প্রথম উল্লেখযোগ্য কাজ হল, ১৯৯৭ সালে আঁকা একটি বড় পরিসরের দেওয়াল অঙ্কন। নাম ‘দ্য মাইল্ড মাইল্ড ওয়েস্ট’। এঁকেছিলেন ব্রিস্টলের স্টোক্স ক্রাফটে। এই ছবির উদ্দেশ্য ছিল এক আইনজীবীর বিজ্ঞাপন ঢেকে দেওয়া। বিষয় ছিল, একটি টেডি বিয়ার তিনজন পুলিসের দিকে মোলোটভ ককটেল ছুঁড়ে মারছে। ব্যাঙ্কসির কাজে এরকম প্রতিষ্ঠান বিরোধিতা সবসময়ই লক্ষ্য করা গিয়েছে। তাঁর কাজে আবেগ ও বাস্তবতা উঠে আসে। বরাবর তাঁর কাজে উস্কানি দেন উচ্চ মধ্যবিত্ত, বিত্তশালী সমাজকে। কিন্তু কী অদ্ভুত! তাদের কাছেই তিনি উচ্চমূল্যে নিজের শিল্প বিক্রি করেন।
তিনি এখনও পর্দার আড়ালেই। তাঁর দেওয়াল চিত্র এখন ইংল্যান্ডের বাইরে ভিয়েনা, স্পেন, আমেরিকা এবং ফ্রান্সের দেওয়ালে আলোড়ন তুললেও তাঁর গোপনীয়তা রক্ষা করে ‘পেস্ট কন্ট্রোল’ নামে এক সংগঠন। যারা তাঁর কাজের সত্যতাও নিশ্চিত করে। ব্যাঙ্কসির ব্যাপারে যা জানা যায়, তার সবই তাঁরই দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে। এর সত্যতা নিশ্চিত করার আপাতত কোনও উপায় নেই। বাঙ্কসি পিৎজা খেতে পছন্দ করেন, তবে পিৎজার স্বাদ বাড়াতে এর উপরে যে বিভিন্ন উপাদানের স্তর দেওয়া হয়, সেটা তিনি পছন্দ করেন কি না, তা নিশ্চিত করে বলা যায়নি। তাঁর একটা সোনার দাঁত আছে। তাঁর একটা দাঁত রুপোর। আর আছে কানে একটা রুপোর মাকড়ি। তিনি একজন নৈরাজ্যবাদী, নাকি পরিবেশবাদী। যিনি এসইউভি গাড়ি নিজেই চালিয়ে ঘুরে বেড়ান এ প্রান্ত থেকে ও প্রান্ত। কেউ নিশ্চিত নন, তিনি ১৯৭৮ বা ১৯৭৪ সালে ইংল্যান্ডের ব্রিস্টলে জন্মেছিলেন নাকি ইয়টে। তিনি একজন কসাইয়ের সন্তান বা হয়তো একজন গাড়িচালক কিংবা হাসপাতাল কর্মীর সন্তান। তিনি মোটাসোটা নাকি কঙ্কালসার। কেউ বলবেন, ব্যাঙ্কসি কাজ-পাগল, আত্মমগ্ন। কেউ আবার বলবেন, কিছুদিন ধরে তিনি লন্ডনে বাস করছেন। আর তা না হলে শোরেডিচ, তারপর হোক্সটন। সবই ধারণা! তবে কয়েকজন তাঁর সরাসরি সাক্ষাৎকারও নিয়েছেন। শেষ ২০০৩ সালে গার্ডিয়ান পত্রিকার সাইমন হ্যাটেনস্টোন তাঁর সাক্ষাৎকার নেন। সাইমনের বর্ণনায়, ব্যাঙ্কসি দেখতে ২৮ বছরের এক শ্বেতাঙ্গ, পরনে রঙচটা জিন্স আর টি-শার্ট। তিনি নাকি দেখতে ইংল্যান্ডের বিখ্যাত গানের দল ‘দ্য স্ট্রিটস’-এর মাইক স্কিনারের মতো। ২০০১ সালে স্প্রে রঙে ব্রিটেনজুড়ে তাঁর স্বাক্ষর দেখা যায়। নিজেকে তিনি ‘উপদ্রবকারী’ হিসেবে ভাবতেই পছন্দ করেন।
দেওয়ালে আঁকা ছবিগুলো যেহেতু ক্ষণস্থায়ী, তাই মাঝে মাঝে তিনি নিজের ছবিগুলো দিয়ে তার সঙ্গে কিছু লেখা জুড়ে বই আকারে প্রকাশ করেন। তাঁর প্রথম তিনটি বই হচ্ছে এক্সিসটেনসিয়ালিজম, ব্যাংগিং ইওর হেড অ্যাগেইনস্ট আ ব্রিক ওয়াল ও কাট ইট আউট। তাঁর ওয়াল অ্যান্ড পিস বইটি প্রকাশ করেছে র‌্যানডম হাউজ এবং বইটি আড়াই লাখের বেশি কপি বিক্রি হয়েছে। মোনালিসার মুখে হলুদ রঙের একটি স্মাইলি, ক্রাইম সিন টেপ দিয়ে ঘিরে থাকা চারণভূমির ছবি তিনি ছদ্মবেশ নিয়ে টানিয়ে দিয়েছিলেন লুভ্যর ও টেট মিউজিয়ামে। সেবার নাকি ট্রেঞ্চকোট আর মুখে দাড়ি লাগিয়ে সবার চোখ ফাঁকি দিয়েছিলেন ব্যাঙ্কসি। সেই ব্যাঙ্কসি এবার ভোটের ভারতে? মুম্বইয়ের দেওয়ালে?
তাহলে কি ব্যাঙ্কসিও জানেন, এই দেশের দুর্দশার কথা। কোটি কোটি কৃষক, শ্রমিক, দলিত ও আদিবাসীদের দমিয়ে রাখা কণ্ঠস্বর? জানেন, অত্যাধুনিক দুনিয়ায় এদেশে গোমাতা, গোমূত্র দিয়ে আজও চলে ব্রেইন ওয়াশ? জানেন, দেশের জন্য প্রাণ দেওয়া সেনাদের বিজয় নিয়ে চলে রাজনীতির উল্লম্ফন? জানেন, ছাতি ফুলিয়ে বিশ্রী ভঙ্গিতে এদেশের রাজনীতিবিদরা ভোটপ্রচারে চেঁচিয়ে বলেন ‘হামারা সেনা’, ‘ঘুস কর মারেঙ্গে’? ব্যাঙ্কসি জানেন, এ দেশের কোটি কোটি বেকার তাকিয়ে রয়েছে একটা কাজের আশায়? আর বাকিরা, কাজ হারানোর ভয়ে বিনিদ্র রাত কাটান, ঘরের কোণে দলা পাকিয়ে। হয়তো সব খোঁজ রাখেন। তাই তো এই ভোটের মরশুমে মুম্বইয়ের দেওয়াল ঝলসে ওঠে দড়ি টানাটানির লড়াই। এই প্রথম।
হয়তো আগামী দিনে গোটা দেশের দেওয়ালগুলির দখল নিয়ে ব্যাঙ্কসিও হয়ে উঠবেন ভারতীয় রাজনীতিবিদদের চক্ষুশূল। ব্যাঙ্কসির এই গ্রাফিতি যে সবহারার সব পাওয়ার...! কিন্তু, ব্যাঙ্কসিকে ধরবে কে? নিউ ইয়র্কার-এর লেখক লরেন কলিনসকে ব্যাঙ্কসি বলেছিলেন, ‘নিজেকে অজ্ঞাত রাখার কিছু সমস্যা আছে। একবার আমার প্রিয় এক পাবে একটা চিত্রকর্ম দিয়েছিলাম। সেটা তারা তাদের বারের উপরে ঝুলিয়ে রেখেছিল। প্রচুর মানুষ সেই চিত্রকর্মটা নিয়ে পাবের লোকজনের কাছে প্রশ্ন করত। তাই আমি দু’বছর সেদিকে যাইনি। আসলে পত্রিকায় আপনার কাজ প্রকাশিত হওয়া একটা নির্বোধের মতো ব্যাপার, যদি আপনি অন্তত নির্দিষ্ট মাত্রা পর্যন্ত অজ্ঞাত থাকতে চান। আপনি কে সেটা অন্যরা জানে না, এটা আমার কাছে ভালো লাগে। আমার খোঁজে আমার ডিলারের বাবার দোকানেও পৌঁছে গিয়েছিল ডেইলি মেলের সাংবাদিকরা। লস অ্যাঞ্জেলেসে একবার আমি রাস্তায় আঁকছিলাম, সেই সময় এক গৃহহীন তরুণ কাছে এসে বলল, আপনি কি বাঙ্কসি? পরদিনই আমি লস অ্যাঞ্জেলেস ছেড়ে চলে আসি।’
সত্যিই তো, এ যুগে সবাই যখন প্রতি মুহূর্তে বিখ্যাত হতে চান, তখন ব্যাঙ্কসির মতো নিজের পরিচয় গোপন রাখা... কঠোর অনুশীলন বটে!
23rd  May, 2019
ব্যয় করো, ঋণ করো, টাকার জোগান বাড়াও 

পি চিদম্বরম: প্রধানমন্ত্রী গত ১২ মে ২০ লক্ষ কোটি টাকার যে স্টিমুলাস প্যাকেজ ঘোষণা করেছিলেন, গত সপ্তাহে আমি সেটার বিশ্লেষণ করেছিলাম। বিগত সপ্তাহে অর্থমন্ত্রী পাঁচ দফায় বিস্তারিতভাবে যে ঘোষণা করেছিলেন বিশেষজ্ঞ এবং অর্থনীতিবিদরা পরে সেসব কাটাছেঁড়া করেছেন।   বিশদ

মহামারীর সঙ্গে মহাপ্রলয়,
তবু বাংলা জিতবেই
হিমাংশু সিংহ

ইতিহাসের অন্যতম কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে বাংলা। আমাদের বঙ্গভূমি। দেশভাগ, মন্বন্তর, বন্যা, মহামারী কিছুই আমাদের জীবনীশক্তিকে নিঃশেষ করতে পারেনি। ভেঙে গিয়েও আবার ঠিক ঘুরে দাঁড়িয়েছি আমরা। নতুন ভোরের স্বপ্নে শুরু হয়েছে ফের পথ চলা।
বিশদ

24th  May, 2020
আত্মকেন্দ্রিক হোন,
কিন্তু স্বার্থপর নয়
তন্ময় মল্লিক

 করোনাকে নিয়েই আমাদের বাঁচতে হবে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা হু এমনটাই জানিয়ে দিয়েছে। হু-এর এই ঘোষণার পিছনে যথেষ্ট যুক্তি আছে। চীন, জাপান, আমেরিকা, জার্মানি, ইতালি, ইজরায়েল যাই দাবি করুক না কেন, বাস্তবটা হল, করোনা ভ্যাকসিন নাগালের ধারেকাছে নেই।
বিশদ

23rd  May, 2020
করোনা প্যাকেজের অশ্বডিম্ব!
মৃণালকান্তি দাস

 প্রায় সাড়ে ৮ হাজার কোটির বিলাসবহুল বিমানের খবরটাই গিলে খেয়ে নিয়েছে করোনা সঙ্কট! খবরটা কী? এতদিন বোয়িং ৭৪৭ বিমানে বিদেশ সফরে যেতেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। খুব শীঘ্রই এর জায়গা নিতে আসছে বোয়িং ৭৭৭।
বিশদ

22nd  May, 2020
সুযোগের সদ্ব্যবহারে
কতটা প্রস্তুত ভারত
হারাধন চৌধুরী

 জলে কুমির ডাঙায় বাঘের এমন জলজ্যান্ত দৃষ্টান্ত স্মরণকালের মধ্যে আমরা দেখিনি। শুধু বাংলা বা ভারত নয়, সারা পৃথিবীর জন্যই এ এক অনন্য অভিজ্ঞতা। রোগ সংক্রমণের হাত থেকে বাঁচতে সবাই ঘরের নিরাপদ কোণ বেছে নিলাম।
বিশদ

21st  May, 2020
আত্মনির্ভরতার স্টিকার
মারা ‘খুড়োর কল’
সন্দীপন বিশ্বাস

সুকুমার রায়ের ‘খুড়োর কল’ কবিতার সঙ্গে বাঙালির দীর্ঘদিনের পরিচয়। চণ্ডীদাসের খুড়োর সেই আজব কল ছিল একটা ভাঁওতা। ভালো ভালো খাবারের লোভ দেখিয়ে মানুষকে তা ছুটিয়ে মারত। মরীচিকার মতো অবাস্তব এবং বিরাট একটা ধাপ্পা ছিল ওই খুড়োর কল।
বিশদ

20th  May, 2020
গালভরা প্যাকেজ,
দেশ বাঁচবে তো?
শান্তনু দত্তগুপ্ত

 ঊষা জগদালে। মহারাষ্ট্রের বিদ জেলায় বাড়ি তাঁর। রোজ সকালে যখন পরিবারকে ঘরের চার দেওয়ালের মধ্যে ছেড়ে দরজার বাইরে পা রাখেন, তখনও ঠিকঠাক জানেন না, কোন বিদ্যুতের খুঁটিতে তাঁকে উঠতে হবে। তবে জানেন, কাজের চৌহদ্দির মধ্যে কোথাও সমস্যা হলে তাঁরই ডাক পড়বে।
বিশদ

19th  May, 2020
২০ লক্ষ কোটি টাকার রহস্য কাহিনী
পি চিদম্বরম

চলতি অর্থবর্ষে ৩০ লক্ষ ৪২ হাজার ২৩০ কোটি টাকা খরচ করার পরিকল্পনা নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকার ২০২০-২১-এর বাজেট পেশ করেছিল। ৭ লক্ষ ৯৬ হাজার ৩৩৭ কোটি টাকা ঋণ নিয়ে রাজস্বের দিকের ঘাটতি মেটাবে সরকার।
বিশদ

18th  May, 2020
ছুটি শব্দটাই আজ অর্থহীন, মনের অসুখ ডেকে আনছে লকডাউন, প্রবীণদের সঙ্কট আরও তীব্র
হিমাংশু সিংহ

যে বাঙালি ছুটি পাগল, সেও দু’মাস ঘরে থেকে আজ যে-কোনও মূল্যে কাজে যোগ দিতে মরিয়া। লকডাউন যে কাজের সঙ্গে ছুটির রসায়নটাকেও এভাবে রাতারাতি বদলে দেবে, কারও কল্পনাতেও ছিল না। রবিবারের আলাদা কোনও গুরুত্ব নেই। লোকে বার ভুলে সবদিনকেই আজ শুধু লকডাউন বলে চিহ্নিত করছে। চার দেওয়ালের শৃঙ্খল আর ভালো লাগছে না কারও।
বিশদ

17th  May, 2020
এমনটা তো হওয়ার ছিল না
তন্ময় মল্লিক

 একটু বেশি রোজগারের আশায় ঘর ছেড়েছিলেন মালদহের রাজেশ মাহাত। গিয়েছিলেন ওড়িশায়। কিন্তু, ঘর তৈরির কাজে হাত দেওয়ার আগেই লকডাউন। রাজেশের মাথায় আকাশ ভেঙে পড়েছিল। বুঝেছিলেন, সেখানে থাকলে না খেয়ে মরতে হবে।
বিশদ

16th  May, 2020
জানা অজানার রাষ্ট্র
সমৃদ্ধ দত্ত

রাষ্ট্র ঘোষণা করেছে, প্রত্যেক দেশবাসীকে আরোগ্য সেতু অ্যাপ মোবাইলে ডাউনলোড করতে হবে। আরোগ্য সেতু অ্যাপ না থাকলে ট্রেনে যাত্রা করতে দেওয়া হবে না। বিমানে উঠতে দেওয়া হবে না। অ্যাপ ডাউনলোড করা যায় কোন ফোনে? স্মার্ট ফোনে।
বিশদ

15th  May, 2020
পরিযায়ী শ্রমিক সমস্যার স্থায়ী সমাধানে চাই
দেশজুড়ে নানা ধরনের শিল্পের বিকেন্দ্রীকরণ
হারাধন চৌধুরী

 প্রধানমন্ত্রী ঠিকই বলেছেন, আগামী দিনে পৃথিবী চিহ্নিত হবে ‘করোনা-পূর্ব’ এবং ‘করোনা-পরবর্তী’ হিসেবে। দেশের প্রেক্ষাপটে তিনি যেটা বলেননি তা হল ‘করোনা-মধ্যবর্তী ভারত’। দেশবাসীর মনে সবচেয়ে বড় যে ক্ষতটা রয়ে যাবে, সেটাই চিহ্নিত হবে ওই নামে।
বিশদ

14th  May, 2020
একনজরে
নয়াদিল্লি, ২৪ মে (পিটিআই): সরকারের ঘোষণা করা পদক্ষেপের সুবিধা নিয়ে দেশে বিনিয়োগ করুন। এবং ভারতকে ‘আত্মনির্ভর’ করে তুলুন। দেশের শিল্পপতিদের প্রতি এমনই আর্জি জানালেন অর্থমন্ত্রকের রাষ্ট্রমন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর।   ...

সংবাদদাতা, ইটাহার: ২০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে রায়গঞ্জ শহরে বাস-বে বানাচ্ছে রায়গঞ্জ পুরসভা। জানা গিয়েছে, রায়গঞ্জের মোহনবাটি বাজার এলাকায় নেতাজি সুভাষ রোডের পাশে বাজারে ঢোকার মুখে ওই নতুন বাস-বে বা লেন তৈরির পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে।   ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: আগামী মাস থেকেই বিধানসভার বিভিন্ন স্থায়ী কমিটির বৈঠক ধাপে ধাপে শুরু করার কথা চিন্তা করছেন অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে করোনা আবহে সরকারি বিধিনিষেধ তাঁকে ভাবনায় ফেলেছে।  ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, বারাসত: উম-পুনের দানবীয় তাণ্ডবে বসিরহাট মহকুমায় নদীবাঁধ ভেঙে নোনা জলে প্লাবিত হয়েছে কয়েক হাজার একর চাষযোগ্য জমি। ওইসব জমিতে ফের কবে চাষ শুরু করা যাবে, তা নিয়ে দুশ্চিন্তায় রাতের ঘুম উবেছে বিভিন্ন ব্লকের ভুক্তভোগী কৃষকদের।   ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

প্রণয়ে দ্বিধাদ্বন্দ্ব থাকবে। কারও কথায় মর্মাহত হতে হবে। ব্যবসায় শুরু করা যেতে পারে। কর্মে সুনাম ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

 বিশ্ব থাইরয়েড দিবস
১৮৮৬: বিপ্লবী রাসবিহারী বসুর জন্ম
১৮৯৯: বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলামের জন্ম
১৯০৬ - বিখ্যাত ভাস্কর রামকিঙ্কর বেইজের জন্ম
১৯২৪ - শিক্ষাবিদ, কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি ও কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় এর ভাইস-চ্যান্সেলর আশুতোষ মুখোপাধ্যায়ের মৃত্যু
১৯৭২: পরিচালক করণ জোহরের জন্ম
২০০৫: অভিনেতা সুনীল দত্তের মৃত্যু
২০০৯: পশ্চিমবঙ্গের কয়েকটি জেলায় আইলা আঘাত করল
২০১৮ - শান্তি নিকেতনে বাংলাদেশ ভবনের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও নরেন্দ্র মোদী



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৪.৮৯ টাকা ৭৪.৮৯ টাকা
পাউন্ড ৯০.৮৮ টাকা ৯০.৮৮ টাকা
ইউরো ৯০.৮৮ টাকা ৮৪.৩৫ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
23rd  May, 2020
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪১,৮৮০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৯,৭৩০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪০,৩৩০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৮,৮০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৮,৯০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
22nd  March, 2020

দিন পঞ্জিকা

১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ২৫ মে ২০২০, সোমবার, তৃতীয়া ৫০/৫৪ রাত্রি ১/১৯। মৃগশিরানক্ষত্র ৩/২ প্রাতঃ ৬/১০। সূর্যোদয় ৪/৫৬/৫৮, সূর্যাস্ত ৬/১০/৮। অমৃতযোগ দিবা ৮/২৮ গতে ১০/১৪ মধ্যে। রাত্রি ৯/২ গতে ১১/৫৫ মধ্যে পুনঃ ১/২১ গতে ২/৪৭ মধ্যে। বারবেলা ৬/৩৬ গতে ৮/১৫ মধ্যে পুনঃ ২/৫২ গতে ৪/৩২ মধ্যে । কালরাত্রি ১০/১২ গতে ১১/৩৩ মধ্যে।  
১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ২৫ মে ২০২০, সোমবার, তৃতীয়া রাত্রি ১২/০। মৃগশিরানক্ষত্র প্রাতঃ৫/৩৩। সূর্যোদয় ৪/৫৬, সূর্যাস্ত ৬/১২। অমৃতযোগ দিবা ৮/৩০গতে ১০/১৬ মধ্যে এবং রাত্রি ৯/৮ গতে ১১/৫৮ মধ্যে ও ১/২২ গতে ২/৫০ মধ্যে। কালবেলা ৬/৩৬ গতে ৮/১৫ মধ্যে ও ২/৫৩ গতে ৪/৩৩ মধ্যে। কালরাত্রি ১০/১৪ গতে ১১/৩৪ মধ্যে।  
১ শওয়াল 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
পথ দুর্ঘটনায় জখম তপনের বিডিওর মৃত্যু, শোকপ্রকাশ মুখ্যমন্ত্রীর 
মৃত্যু হল পথ দুর্ঘটনায় গুরুতর জখম দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার তপনের ...বিশদ

12:14:00 PM

জম্মু ও কাশ্মীরের কুলগামে সেনার গুলিতে হত ২ জঙ্গি 

12:08:23 PM

পথ দুর্ঘটনায় জখম তপনের বিডিওর মৃত্যু, শোকপ্রকাশ মুখ্যমন্ত্রীর 
মৃত্যু হল পথ দুর্ঘটনায় গুরুতর জখম দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার তপনের ...বিশদ

12:07:24 PM

অন্ধ্রপ্রদেশে করোনায় আক্রান্ত ৪৪ জন, রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২,৬৭১ 

12:00:19 PM

ওড়িশায় করোনা পজিটিভ ১০৩ জন, রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ১,৪৩৮ 

11:47:55 AM

২৭ মে থেকে দমদমে অটো 
নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: আগামী ২৭ মে থেকে দমদমে অটো চলাচল ...বিশদ

11:37:47 AM