Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

প্রতিবেশীর চোখে ভারতের নির্বাচন
গৌরীশঙ্কর নাগ

দক্ষিণ এশিয়ায় ভারত-পাকিস্তান মিলিয়ে যে আটটি দেশ রয়েছে—তাদের সবগুলোই কমবেশি উত্তর-ঔপনিবেশিক ও দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর তৃতীয় গণতান্ত্রিক ঢেউ, তথা জাতীয়তাবাদী চেতনা ও অভিঘাতের ফসল। সে সময় ইতিহাসের দিকে মুখ ফেরালে আমরা দেখব যুদ্ধোত্তর আগ্নেয় পরিস্থিতি; ছাত্র, যুব ও শ্রমিকদের আবেগসর্বস্ব মিছিলে সেদিন বিশৃঙ্খলা হয়তো ছিল, কিন্তু ‘দেশভক্তির প্রেরণা আর সাম্রাজ্যবাদী শাসকদের প্রতি ঘৃণাই যে তাহাদিগকে কঠিন প্রতিজ্ঞায় শামিল করিয়াছিল সে কথা কে অস্বীকার করিবে?’ (অমলেন্দু সেনগুপ্ত: উত্তাল চল্লিশ)
অথচ এই উদ্দাম উচ্ছ্বাস ফুরিয়ে যেতেই আমরা দেখেছি সামাজিক বিভাজনের কঠিন রূপ। আবার যেখানে অপরিপক্ব রাজনৈতিক ব্যবস্থা গণতান্ত্রিক চাহিদার ‘ওভারলোড’ নিতে পারেনি। যেমন পাকিস্তান, সেখানে পুনঃপুন সেনা অভ্যুত্থানের ঘটনা ঘটেছে। তবে এটাই সামগ্রিক চালচিত্রের সবটা নয়। দক্ষিণ এশিয়ায় রাজনৈতিক ব্যবস্থার আপেক্ষিক দুর্বলতার জন্য দায়ী নেতৃত্বের দুর্বলতা এবং বিরূপ আন্তর্জাতিক পরিস্থিতিতে বাহ্যিক শক্তির সাঁড়াশি চাপ, যা প্রায়শই শৈশব অবস্থায় গণতান্ত্রিক পুনর্গঠনকে ব্যাহত করেছে। রাজনীতিকে পরিচালিত করেছে সংঘাতের খাতে, টিকিয়ে রাখতে চেয়েছে পারস্পরিক যুযুধান জাতীয়তাবাদী ও ধর্মীয় ফ্রন্টগুলো যাতে রাষ্ট্রের দাপট তার বর্শামুখকে ভোঁতা না করে দেয়। তাই প্রথম থেকেই আমরা যতটা না জাতীয় লক্ষ্যের কথা ভেবেছি, তার থেকেও দেশ-ভাগ-উত্তর পরিস্থিতিতে পাকিস্তান-বিরোধিতা আমাদের রাজনীতির প্রধান আশ্রয় হয়ে উঠেছে। ফলে স্বাধীন দেশে যখন আমাদের সামনে নতুন দৃষ্টিভঙ্গি ও তদনুরূপ পরিবর্তনের একটা সুবর্ণ সুযোগ এল—তখনও সংকীর্ণ জাতীয়তাবাদী ঐতিহ্যের ওপরে ভর করে আমরা নির্বাচনী বৈতরণী পার হতে চেয়েছি, যথার্থ inclusive policy আমরা প্রণয়ন করতে পারিনি।
ভেবে আশ্চর্য হতে হয় যে, স্বাধীনতার সাত দশক পরেও, নতুন করে জাতীয়তাবাদকে উস্কে দেবার অপচেষ্টা আমরা লক্ষ করছি। এর মধ্যে দুটি বিষয় প্রণিধানযোগ্য—(১) এটা রাজনীতিগতভাবে একটি স্বতন্ত্র সাংস্কৃতিক পরিচিতি তৈরি করার চেষ্টা। এই নির্মাণের প্রক্রিয়া আরও জোরদার হয়েছে কেন্দ্রে হিন্দুত্ববাদী রাজনৈতিক শক্তির কার্যকলাপে। দ্বিতীয়ত, সাম্প্রতিককালে উরিতে পাক-জঙ্গিহামলা বা কাশ্মীরের অবন্তীপুরায় ভারতের আধাসেনা কনভয়ে অভূতপূর্ব জয়েশ হামলার অভিঘাতে আমরা চমকে উঠে লক্ষ করলাম ভারত উত্তর-আধুনিক রাষ্ট্র নয়, সে এখনও পুরনো ধারায় বর্তমান, জাতীয় সুরক্ষার প্রশ্নে প্রতিক্রিয়াশীল, এবং এমনকী পাল্টা আক্রমণেও পিছপা নয়। বস্তুত এই জাতীয়তাবাদী আস্ফালন কি ভারতের নয়া অর্থনৈতিক কূটনীতির সঙ্গে সাযুজ্যপূর্ণ? হয়তো এই বিপরীতধর্মী টানাপোড়েনের অস্বস্তি আম জনতার কাছে ধরা পড়ে না, কিন্তু ভারত-পাক দ্বৈরথের মোকাবিলায় মানুষের যে স্বাভাবিক প্রতিক্রিয়া—তা দেখে মনে হয় যে তারা সন্ত্রাস নয়, শান্তি চায়। মানুষের এই যে চেতনা ও আগ্রহ তা কিন্তু সংকীর্ণভাবে কোনও ভূখণ্ডকেন্দ্রিক নয়, বরং এটাকে একটা বৃহত্তর আঞ্চলিক প্রেক্ষাপটে রেখে দেখা উচিত, যে রূপান্তরটা ইতিমধ্যেই আমরা ইউরোপীয় ইউনিয়নের মধ্যে মূর্ত হয়ে উঠতে দেখেছি। ২০১৪ সালে মোদির শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে সার্কের গোষ্ঠীভুক্ত রাষ্ট্রপ্রধানদের আহ্বানের মধ্য দিয়ে এমন একটা সৌহার্দপূর্ণ আঞ্চলিক বাতাবরণ নির্মাণের একটা রাজনৈতিক সুযোগ তৈরি হয়েছিল। কিন্তু যখন বিমুদ্রাকরণ নিয়ে সাধারণ মানুষের সীমাহীন ক্ষোভ, অন্যদিকে রাফাল বিমানের দাম বিতর্কে যখন ‘চৌকিদার’-এর দেওয়ালে পিঠ ঠেকে যাওয়ার অবস্থা, তখনই পুলওয়ামার ঘটনায় আশ্চর্যজনকভাবে ‘অক্সিজেন’ পেয়ে মোদি শিবির যেন খানিকটা চাঙ্গা। তবে ঘুরে দাঁড়াতে না দাঁড়াতেই পাক উজির-এ-আজম ইমরান খানের মন্তব্যে বিজেপি শিবিরে অস্বস্তি বেড়েছে। ইমরান আশা করেছেন, বিজেপির (বস্তুত মোদি-শাহ জোটের) বিজয়ে ভারত-পাক আলোচনার দরজা খুলে যাবে। এতেই অস্বস্তির সূত্রপাত। কারণ এতদিন বিজেপির পোস্টারবয় এই দুই ব্যক্তির নিশানা ছিল পাকিস্তান। তবে কি পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে ধরে নিতে হবে ইমরানের ‘রিভার্স সুইং’ দুই পুরনো প্রতিপক্ষের গোপন বোঝাপড়ার ইঙ্গিতবাহী?
বস্তুত আশ্চর্যজনক হলেও পাকিস্তানের তরফে ভারতের নির্বাচনকে সর্বদাই দেখা হয়েছে তাদের জাতীয় স্বার্থের নিরিখে, বিশেষত কাশ্মীরকে কেন্দ্র করে ঘুঁটি সাজানোর ‘গেম প্ল্যান’ হিসেবে। প্রসঙ্গত স্মরণীয়, ১৯৬২ সালের সীমান্ত-সংঘাতের পর থেকে কাশ্মীরের ৩৮,০০০ বর্গকিমি চীনের দখলে রয়েছে। তদুপরি ১৯৬৩ সালে চীনের সঙ্গে সীমান্ত-বোঝাপড়ার মাধ্যমে পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীরের ৫,১৮০ বর্গ কিমি চীনকে ছেড়ে দেয়। এখন ভারতের হাতে থাকা অবশিষ্টাংশও পাকিস্তান কব্জা করতে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। তাই ভারতের লোকসভা নির্বাচন পাকিস্তানের কাছে মুসলিমপক্ষীয় বা মুসলিম-বিরোধী এমন অক্ষ গঠনের তাৎপর্যের নিরিখে নয়; পাকিস্তান এ ব্যাপারে অবহিত যে, ভারতে মুসলিম জনসংখ্যা ১৭.২২ কোটি (২০১১ সেনসাস অনুযায়ী)। সেক্ষেত্রে পাক হামলায় মুসলিম জনগোষ্ঠীর নিরাপত্তাও ক্ষুণ্ণ হতে পারে।
অন্যদিকে, ভারতের নির্বাচনকে চীন গুরুত্ব দিলেও তাদের কাছে বিষয়টা কমিউনিস্ট-ভাবাদর্শের প্রোপাগান্ডাকে জোরদার করার দিক থেকে নয়, কারণ ভারতের কমিউনিস্ট দলগুলি বরাবরই চীনপন্থী। তাই আলাদা করে তাদের সমর্থন লাভের বিষয়টি বাহুল্যমাত্র। তাছাড়া ইতিমধ্যেই পুরনো ভুলের মাশুল দিতে যখন তাদের হিমশিম অবস্থা, তখন চীন এতটা অপরিপক্ব নয় যে, সে বিপন্ন কমিউনিস্ট দলগুলিকে নির্বাচনের বাজি ধরবে। অতএব চীনের কাছেও ভারতের লোকসভা নির্বাচন, তাদের জাতীয় স্বার্থ—ডোকালাম ইস্যু, অরুণাচল-সমস্যার মতো সীমান্তভিত্তিক ইস্যুগুলির মীমাংসার প্রধান উপায়।
তবে, শুধু চীন বা পাকিস্তানই নয়, এই নির্বাচনের অন্যতম প্রধান চ্যালেঞ্জ হল কীভাবে তা সংঘটিত হচ্ছে। নির্বাচনের পবিত্রতা ও কমিশনের নিরপেক্ষতাকে টি এন সেশন যে উচ্চতায় নিয়ে গিয়েছিলেন—তা কি আমরা বজায় রাখতে পারব? ইতিমধ্যেই আমরা উত্তরবঙ্গ, ত্রিপুরা ও অন্যত্র হিংসা লক্ষ করেছি। গণতন্ত্র যদি ‘Soft Power’ হয়, তবে এই হিংসার দরুন ভারতের ইমেজ সাফার করবে। যথার্থ গণতন্ত্র যেমন বিরোধীপক্ষকে সম্মান করে, তেমনি দক্ষিণ এশিয়ায় সেই সংস্কৃতি কবে গড়ে উঠতে আমরা দেখব?
 লেখক সিধো কানহো বীরসা বিশ্ববিদ্যালয়ে রাষ্ট্র- বিজ্ঞানের অধ্যাপক (মতামত লেখকের ব্যক্তিগত)
20th  April, 2019
একটু সময় দিন,
পাশে দাঁড়ান
হিমাংশু সিংহ

বামফ্রন্ট সরকার ১৯৭৭ সালে ক্ষমতায় আসার পরের বছরই ভয়াবহ বন্যার মুখোমুখি হয়েছিল বাংলা। ভেসে গিয়েছিল একের পর এক জেলা, দক্ষিণবঙ্গের বড় বড় শহর। কলকাতাও রেহাই পায়নি সেই বিপর্যয়ের হাত থেকে।
বিশদ

বিশ্বাসযোগ্যতা ও বলিষ্ঠ
পদক্ষেপের এক বছর
রাজনাথ সিং

যে কোনও দেশের ইতিহাসে পাহাড়প্রমাণ পরিবর্তন দেখার সুযোগ খুব কমই আসে। ২০১৪ সালে ভারতের রাজনৈতিক ইতিহাসে এরকমই একটি বিরাট পরিবর্তন এসেছিল। দেশের মানুষ দুর্বল এবং দুর্নীতিগ্রস্ত প্রশাসনের হাত থেকে রেহাই পেতে চেয়েছিলেন।
বিশদ

30th  May, 2020
বন্দি যখন শিশুমন
তন্ময় মল্লিক

 ‘উফ, আর পারা যাচ্ছে না। কবে যে মুক্তি পাব?’ ‘কতদিন বাজার যাইনি। এইভাবে দমবন্ধ অবস্থায় থাকা যায়?’ ‘দিনরাত গাধার খাটুনি খাটছি। তার উপর তোদের জ্বালাতন। এবার ঠাস ঠাস করে চড়িয়ে দেব।’ লকডাউনের গৃহবন্দি জীবনে এমন সংলাপ আজ প্রায় ঘরে ঘরে।
বিশদ

30th  May, 2020
বাংলার দুর্ভাগ্য
সমৃদ্ধ দত্ত

এত বড় একটা সাইক্লোনে একটি রাজ্যের বৃহৎ অংশ একপ্রকার বিধ্বস্ত হয়ে গেল, অথচ গোটা দেশের কোনও দোলাচল নেই? প্রথমদিন ট্যুইটারে সমবেদনা জানিয়েই সকলে যে যার স্বাভাবিক জীবনে ফিরে গেল? কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে ঝাঁপিয়ে পড়ে এই ধ্বংসস্তূপ থেকে রাজ্যটাকে পুনরায় মাথা তুলে দাঁড়ানোর কোনও দৃপ্ত সহায়তা প্রতিজ্ঞাও তো দেখতে পাওয়া যাচ্ছে না।
বিশদ

29th  May, 2020
ভাবুন, সুন্দরবন নেই আর উম-পুন
বয়ে গিয়েছে কলকাতার উপর দিয়ে!
হারাধন চৌধুরী

ভাঙা যায়নি অনুন্নয়নের ট্র্যাডিশন। সামান্য উন্নয়নেও তীব্র বৈষম্য। ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যা। চাকরিপ্রার্থীর সংখ্যাও ক্রমবর্ধমান। পরিণামে কোটি কোটি মানুষ কাজের খোঁজে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যাচ্ছেন শত শত মাইল দূরে—চরম অনিশ্চয়তা আর বিপদকে সঙ্গী করে। অন্যদিকে, সঙ্কীর্ণ রাজনীতির বোড়ে হয়ে উঠেছেন দেশবাসীর প্রায় সকলে।
বিশদ

28th  May, 2020
‘আত্মসম্মান’ খ্যাত এক ভাঁড়ের রসিকতা
সন্দীপন বিশ্বাস 

অন্য দেশের রাজাদের মতো হবুরও আছে বিদূষক। অনেক বিদূষক তাঁর। তাঁদের তিনি ছড়িয়ে রেখেছেন বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যে। তাঁরা সেই সব রাজ্যের প্রপালক। তাঁদের কাজ হল মহারাজ হবুর মুৎসুদ্দি করা। আর নানা ধরনের মন্তব্য করে অঙ্গরাজ্যের জনগণকে আনন্দ বিতরণ করা।  বিশদ

27th  May, 2020
মানবিকতার উপর
বিশ্বাসটা যেন রাখতে পারি
শান্তনু দত্তগুপ্ত

একটা ঝড়... যা পথে বসিয়েছিল সরযূ মণ্ডলকে। জানতেও পারেননি, কোথায় উড়ে গিয়ে পড়েছিল তাঁর ছাদটা। কিন্তু সে দুঃখ ছাপিয়ে গিয়েছিল এক অন্য আতঙ্ক... নির্জলা মরতে হবে না তো? জলেই তার বসত, অথচ সে জল মুখে দেওয়া যায় না... তেষ্টা মেটে না।   বিশদ

26th  May, 2020
ব্যয় করো, ঋণ করো, টাকার জোগান বাড়াও 

পি চিদম্বরম: প্রধানমন্ত্রী গত ১২ মে ২০ লক্ষ কোটি টাকার যে স্টিমুলাস প্যাকেজ ঘোষণা করেছিলেন, গত সপ্তাহে আমি সেটার বিশ্লেষণ করেছিলাম। বিগত সপ্তাহে অর্থমন্ত্রী পাঁচ দফায় বিস্তারিতভাবে যে ঘোষণা করেছিলেন বিশেষজ্ঞ এবং অর্থনীতিবিদরা পরে সেসব কাটাছেঁড়া করেছেন।   বিশদ

25th  May, 2020
মহামারীর সঙ্গে মহাপ্রলয়,
তবু বাংলা জিতবেই
হিমাংশু সিংহ

ইতিহাসের অন্যতম কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে বাংলা। আমাদের বঙ্গভূমি। দেশভাগ, মন্বন্তর, বন্যা, মহামারী কিছুই আমাদের জীবনীশক্তিকে নিঃশেষ করতে পারেনি। ভেঙে গিয়েও আবার ঠিক ঘুরে দাঁড়িয়েছি আমরা। নতুন ভোরের স্বপ্নে শুরু হয়েছে ফের পথ চলা।
বিশদ

24th  May, 2020
আত্মকেন্দ্রিক হোন,
কিন্তু স্বার্থপর নয়
তন্ময় মল্লিক

 করোনাকে নিয়েই আমাদের বাঁচতে হবে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা হু এমনটাই জানিয়ে দিয়েছে। হু-এর এই ঘোষণার পিছনে যথেষ্ট যুক্তি আছে। চীন, জাপান, আমেরিকা, জার্মানি, ইতালি, ইজরায়েল যাই দাবি করুক না কেন, বাস্তবটা হল, করোনা ভ্যাকসিন নাগালের ধারেকাছে নেই।
বিশদ

23rd  May, 2020
করোনা প্যাকেজের অশ্বডিম্ব!
মৃণালকান্তি দাস

 প্রায় সাড়ে ৮ হাজার কোটির বিলাসবহুল বিমানের খবরটাই গিলে খেয়ে নিয়েছে করোনা সঙ্কট! খবরটা কী? এতদিন বোয়িং ৭৪৭ বিমানে বিদেশ সফরে যেতেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। খুব শীঘ্রই এর জায়গা নিতে আসছে বোয়িং ৭৭৭।
বিশদ

22nd  May, 2020
সুযোগের সদ্ব্যবহারে
কতটা প্রস্তুত ভারত
হারাধন চৌধুরী

 জলে কুমির ডাঙায় বাঘের এমন জলজ্যান্ত দৃষ্টান্ত স্মরণকালের মধ্যে আমরা দেখিনি। শুধু বাংলা বা ভারত নয়, সারা পৃথিবীর জন্যই এ এক অনন্য অভিজ্ঞতা। রোগ সংক্রমণের হাত থেকে বাঁচতে সবাই ঘরের নিরাপদ কোণ বেছে নিলাম।
বিশদ

21st  May, 2020
একনজরে
সংবাদদাতা, আলিপুরদুয়ার: আলিপুরদুয়ারে করোনা সংক্রমণ ঝড়ের গতিতে এগোচ্ছে কি না, তা নিয়ে জোর চর্চা শুরু হয়েছে। জেলা স্বাস্থ্য দপ্তরের একটি সূত্র জানিয়েছে, এবার মাদারিহাট ব্লকের পাঁচ জনের ফালাকাটা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ট্রুন্যাট মেশিনে করা সোয়াব টেস্টের রিপোর্ট পজিটিভ বলে সন্দেহ ...

  নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: কলকাতা পুলিসের চতুর্থ ব্যাটেলিয়ানে বিক্ষোভের ঘটনায় পাঁচজনকে সাসপেন্ড করা হল। সরকারি সম্পত্তি ভাঙচুরের অভিযোগে নির্দিষ্ট ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে। ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: আগামী ৮ জুন থেকে রাজ্য সরকারি অফিসে ৭০ শতাংশ কর্মী নিয়ে কাজ শুরু করা হবে বলে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করছেন। ...

রাষ্ট্রসঙ্ঘ, ৩০ মে: রাষ্ট্রসঙ্ঘের শান্তিরক্ষা বাহিনীতে ভারতের অবদান বিশ্বের যেকোনও দেশের তুলনায় বেশি। আর সেই অবদান এবং বলিদানের কারণেই ভারত অনেক শান্তিরক্ষককে হারিয়েছে। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

স্বাস্থ্য বেশ ভালোই থাকবে। আর্থিক দিকটিও ভালো। সঞ্চয় খুব ভালো না হলেও উপার্জন ভালো হবে। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস
১৬১১: মুঘল সম্রাজ্ঞী নুরজাহানের জন্ম
১৮৫৮ - ওয়েস্টমিনিস্টার জুড়ে প্রথম ধ্বনিত হয়েছিল বিগ বেনের শব্দ
১৯২৬-ক্রিকেটার প্রবীর সেনের জন্ম
১৯২৮-ক্রিকেটার পঙ্কজ রায়ের জন্ম
১৯৩০- মার্কিন অভিনেতা ক্লিন্ট ইস্টউডের জন্ম
১৯৯৪: তবলা বাদক সামতা প্রসাদের মৃত্যু



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৪.৭৯ টাকা ৭৬.৫১ টাকা
পাউন্ড ৯১.৭৩ টাকা ৯৫.০৩ টাকা
ইউরো ৮২.৪৬ টাকা ৮৫.৫০ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪১,৮৮০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৯,৭৩০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪০,৩৩০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৮,৮০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৮,৯০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
22nd  March, 2020

দিন পঞ্জিকা

১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ৩১ মে ২০২০, রবিবার, নবমী ৩১/৪৪ অপরাহ্ন ৫/৩৭। উত্তরফল্গুনী নক্ষত্র ৫৫/১৩ রাত্রি ৩/১। সূর্যোদয় ৪/৫৫/৪৫, সূর্যাস্ত ৬/১২/৩০। অমৃতযোগ দিবা ৬/৪১ গতে ৯/২১ মধ্যে পুনঃ ১২/০ গতে ২/৩৯ মধ্যে। রাত্রি ৭/৩৮ মধ্যে পুনঃ ১০/২৯ গতে ১২/৩৮ মধ্যে। বারবেলা ৯/৫৫ গতে ১/১৩ মধ্যে। কালরাত্রি ১২/৫৪ গতে ২/১৫ মধ্যে।
১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ৩১ মে ২০২০, রবিবার, নবমী দিবা ২/৪০। উত্তরফল্গুনী নক্ষত্র রাত্রি ১২/৪০। সূর্যোদয় ৪/৫৬, সূর্যাস্ত ৬/১৪। অমৃতযোগ দিবা ৬/৪২ গতে ৯/২২ মধ্যে ও ১২/৪ গতে ২/৪৬ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/৪৪ মধ্যে ও ১০/৩৪ গতে ১২/৪০ মধ্যে। বারবেলা ৯/৫৫ গতে ১/১৫ মধ্যে। কালরাত্রি ১২/৫৫ গতে ২/১৬ মধ্যে।
৭ শওয়াল

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
৩০ জুন পর্যন্ত বন্ধ রাজ্যের কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলি 

30-05-2020 - 10:53:49 PM

মহারাষ্ট্রে করোনা পজিটিভ আরও ২,৯৪০ জন, মৃত ৯৯, রাজ্যে মোট আক্রান্ত ৬৫,১৬৮ 

30-05-2020 - 08:40:00 PM

গুজরাতে আজ করোনা পজিটিভ আরও ৪১২ জন, রাজ্যে মোট আক্রান্ত ১৬,৩৫৬

30-05-2020 - 08:24:47 PM

শর্ত সাপেক্ষে সিনেমা, সিরিয়ালের শ্যুটিংয়ে ছাড় দিল রাজ্য 
কেন্দ্র কন্টেইনমেন্ট জোনে ৩০ জুন পর্যন্ত লকডাউন বাড়িয়ে বাকি অংশে ...বিশদ

30-05-2020 - 08:06:44 PM

বিসিসিআই খেলরত্ন ও অর্জুনের জন্য কার কার নাম মনোনিত করল
খেলরত্নের জন্য রহিত শর্মার নাম এবং শিখর ধাওয়ান, ইশান্ত শর্মা ...বিশদ

30-05-2020 - 07:26:27 PM

৩০ জুন পর্যন্ত বাড়ল লকডাউন 
পঞ্চম দফার লকডাউনের ঘোষণা করে দিল কেন্দ্রীয় সরকার। শনিবার এই ...বিশদ

30-05-2020 - 07:01:00 PM