Bartaman Patrika
অমৃতকথা
 

  কর্মের রহস্য

মানুষ শরীর বাক্য ও মন দ্বারা যাহা কিছু করে তাহাই কর্ম। জীবমাত্রই সকল অবস্থায় সর্বদা কোন-না-কোন কর্ম করে। ‘‘কর্মহীন হইলে শরীরযাত্রাও নির্বাহিত হয় না।’’ শারীরিক ও মানসিক ক্রিয়াই জীবনের লক্ষণ। ‘‘কর্ম না করিয়া কেহ ক্ষণকালও থাকিতে পারে না।’’ যখন মানুষ গভীর নিদ্রায় নিদ্রিত থাকে, তখনও তাহার ভুক্তদ্রব্য-পরিপাক, রক্তসঞ্চালন এবং নিঃশ্বাস-প্রশ্বাস প্রভৃতি দৈহিক ক্রিয়া চলিতে থাকে। ‘‘নিঃশেষে সকল কর্ম ত্যাগ করা কোন জীবের পক্ষেও সম্ভব নয়।’’ জীবনধারণ করিতে হইলে বিরুদ্ধ শক্তির সঙ্গে সর্বদা সংগ্রাম প্রাণিগণের পক্ষে অপরিহার্য। জীব-জগতে জীবনের সঙ্গে মৃত্যুর অবিরত সংগ্রাম চলিতেছে। এই সংগ্রামের অর্থই কর্ম।
জীবমাত্রেরই শারীরিক ও মানসিক কার্যাবলীর উদ্দেশ্য বিশ্লেষণ করিলে জানা যায় যে, কোন জীবই কেবলমাত্র জীবনরক্ষার জন্যই সকল কর্ম করে না। অধিকন্তু সে কর্মসহায়ে জ্ঞাত বা অজ্ঞাতসারে চেষ্টা করে তাহার সীমাবদ্ধ অপূর্ণ জীবনের গণ্ডি অতিক্রম করিয়া এক অসীম ও পরিপূর্ণ জীবন লাভ করিতে—সকল অজ্ঞান অভাব ও দুঃখ হইতে মুক্ত হইয়া সকল চাওয়া ও সকল পাওয়ার অবসান ঘটাইতে, —শরীর মন ইন্দ্রিয় ও প্রকৃতির দাসত্ব ত্যাগ করিয়া সম্পূর্ণ স্বাধীন হইতে—সকল বন্ধন দূরে সরাইয়া মুক্তিলাভ করিতে। অতি ক্ষুদ্র পরমাণু-পরিমিত জীব হইতে মানুষ পর্যন্ত সকল জীবই মুক্তিলাভের জন্য সর্বদা কর্ম করিতেছে। মুক্তির অব্যক্ত প্রেরণায় সাধু সৎ কার্য করেন এবং অসাধু অসৎ কার্য করে। সর্ববন্ধনবিমুক্তিই সকল জীবের সকল কর্মের একমাত্র লক্ষ্য।
কর্মযোগ মানুষকে কর্মদ্বারা এই লক্ষ্যে উপনীত হইবার পথ দেখায়। কর্মযোগ শিক্ষা দেয়—কর্ম ব্যতীত যখন কাহারও জীবন ধারণের উপায় নাই, তখন এরূপ ভাবে সকলেরই কর্ম করা কর্তব্য যাহাতে সকল বন্ধন হইতে মুক্তিলাভ করা যায়। আত্মজ্ঞান লাভের অনুকূল কর্ম ভিন্ন সকল কর্মই সংস্কার উৎপাদন করিয়া বন্ধনের হেতু হয়। কর্মযোগের রহস্য জানা থাকিলে এই বন্ধন ঘটিতে পারে না। এই কর্ম-কৌশল শিক্ষা প্রদানই কর্মযোগের আদর্শ। ‘‘কর্মের কৌশলই যোগ।’’
কর্মের এই কৌশল জানিতে হইলে সর্বাগ্রে কার্য-কারণ-সম্বন্ধের রহস্য বুঝা আবশ্যক। বিজ্ঞান ও দর্শন শাস্ত্রসমূহ সমস্বরে ঘোষণা করে যে, চেতন-অচেতন এবং স্থূল-সূক্ষ্ম-কারণ জগতের সব-কিছু কার্য-কারণের অচ্ছেদ্য নীতিদ্বারা নিয়ন্ত্রিত। শারীরিক ও মানসিক নির্বিশেষে বিশ্বপ্রকৃতির সকল ক্রিয়া এই অলংঘনীয় নীতি অনুসারে পরিচালিত। এই জগতে কারণ ভিন্ন কোন কার্য হয় না। এক কারণ—সঞ্জাত কার্য আবার অপর কার্যের কারণ হইয়া থাকে। এই কার্য-কারণ-শৃংখল অন্তহীন। এই শিকল হইতে একটি কড়াও অনাবশ্যক বোধে পৃথক করিবার উপায় নাই। শারীরিক ও মানসিক ক্রিয়া এবং ইহার প্রতিক্রিয়া উভয়কেই কর্ম বলা হয়। কোন কর্মবিশেষ সমকালে কার্য ও কারণ উভয়ই এবং উহা হইতে বহু কার্য-কারণের উদ্ভব হইতে পারে। শরীর ও মনের দৃশ্য-অদৃশ্য এবং স্থূল-সূক্ষ্ম সকল ক্রিয়াই প্রতিক্রিয়া মূলক কর্মের বা কার্য-কারণ-নিয়মের অধীন। এই নিয়ম কেহ অতিক্রম করিতে পারে না।
স্বামী সুন্দরানন্দের ‘যোগচতুষ্টয়’ থেকে
11th  September, 2019
 প্রার্থনা

অতীতের পাপের জন্য অকপটে অনুতপ্ত হও এবং ব্যাকুল অন্তরে সর্ব্বমঙ্গলনিলয় শ্রীভগবানের চরণে প্রার্থনা কর মার্জ্জনা, প্রার্থনা কর সবলতা, প্রার্থনা কর নিষ্পাপ সূর্য্যকরপ্রদীপ্ত পুণ্যময় জীবন। অন্ধকার তোমার পাপের জন্ম দিয়াছে, জীবনকে জ্ঞানের আলোকে ঝলসিত করিয়া পাপকে পরাভূত কর।
বিশদ

 সৎকর্ম

 দোষ-গুণ সকলেরই আছে। তা না হলে জন্ম হবে কেন? সৎ কি অসৎ কর্ম— যাই কর, তার ফলভোগ করতে হবে। তবে অসৎকর্মের চেয়ে সৎকর্ম করাই ভাল; সৎকর্ম ভগবানের দিকে নিয়ে যায়।
বিশদ

07th  April, 2020
যুবকগণের প্রতি

 ওরে, ভগবদ্দর্শন না হ’লে কাম একবারে যায় না; তা (ভগবানের দর্শন) হ’লেও শরীর যতদিন থাকে ততদিন একটু আধটু থাকে, তবে মাথা তুলতে পারে না। তুই কি মনে করিস আমারই একেবারে গেছে? এক সময়ে মনে হয়েছিল যে কামটাকে জয় করেছি।
বিশদ

06th  April, 2020
মহাপুরুষদের আচরণের বিভিন্নতা

 শ্রীশ্রীবাবামণি বলিলেন,—এই দুইজন মহাপুরুষের মধ্যে যদি তুলনা শুরু করে, নিশ্চয় তোমার প্রবৃত্তি হবে প্রথমোক্ত মহাপুরুষকে ছোট এবং শেষোক্ত মহাপুরুষকে বড় বল্‌঩তে। যুক্তি দেখাবে—উনি হচ্ছেন, নাসিকা-কুঞ্চনকারী ছুৎমার্গ, আর ইনি হচ্ছেন, সর্ব্বজীবে সমদর্শী প্রেমিক। বিশদ

05th  April, 2020
ভগবান

 ভগবান সর্বময়। সংসারীর পক্ষে তাঁর জীবমূর্তিকে সেবা ও দানই পরম সাধন। কাঠ, পাথর—এসবও জীব (সুপ্ত চৈতন্য)। পশু, পাখি, কীট, পতঙ্গকেও সেবা করবেন। বৃক্ষলতাকে জল দেবেন। এই কাজগুলো ভক্তিভরে করবেন—যেমন ঠাকুরকে স্নান করান—এই ভাব নিয়ে। বিশদ

04th  April, 2020
অমৃতকথা 

স্বাভাবিক অবস্থায় মানুষ যতদিন সাধক অর্থাৎ সে এগিয়ে চলেছে পরমপুরুষের দিকে, মিলেমিশে এক হয়ে যায়নি, ততদিন তার মধ্যে ছোট-বড় ত্রুটি তো থাকবেই। সেই ত্রুটিগুলোর কোনটাকে আমরা বলি পাপ, কোনটাকে পাতক, কোনটাকে প্রত্যবায়।   বিশদ

03rd  April, 2020
অমৃতকথা 

‘ধৃ’ ধাতুর উত্তর ‘মন্‌’ প্রত্যয় করে ‘ধর্ম’ শব্দের উৎপত্তি। ধর্ম মানে যা ধারণ করে থাকে বা যাকে ধারণ করে রাখা হয়। যেমন অগ্নি— অগ্নির ধর্ম দহন করা। প্রতিটি সত্তার ‘ধর্ম’ আছে আর তার দ্বারাই তার অস্তিত্ত্ব সূচিত হয়, অস্তিত্ত্ব নির্ধারিত হয়।   বিশদ

02nd  April, 2020
  ঠাকুর

ঠাকুরই ছদ্মবেশে শান্তির পথ দেখাবার জন্য, মূর্খের সাজে এসেছিলেন। পাণ্ডিত্যের গর্ব্ব চূর্ণ করিবার জন্যই তাঁর আবির্ভাব। হও সরল, মন মুখ এক করে তাঁর চিন্তা কর। এই শরীরেই প্রভুর দর্শন লাভ ক’রে ধন্য হতে হবে তোমাদের। তাঁর নামে অসীম শক্তি অনুভব কর্‌বে।
বিশদ

01st  April, 2020
 ঘুম

শুরুতেই মনে রাখা দরকার যে আমাদের জীবনের এক তৃতীয়াংশেরও বেশী ঘুমের মধ্যে কেটে যায়—কাজেই, যে সময়টা ঘুমে অতিবাহিত করি তার সম্বন্ধে বিশেষভাবে আমাদের দৃষ্টি দেওয়া উচিত।
বিশদ

31st  March, 2020
ভগবান

তোমার জীবনের অর্ঘ্য ভগবানের পায়ে অর্পণ কর। ইহা তোমার জীবনের প্রথম এবং প্রধান কর্ত্তব্য। তার পরে ইহা নির্ম্মাল্য হইয়া জগতের প্রতিজনের সংস্পর্শে আসুক। অকপটে যে জীবন ভগবানে উৎসর্গীকৃত হইয়াছে, সে জীবনের সংস্পর্শে যে যখনি আসুক, নির্ম্মাল্যের পবিত্রতাকে সম্মান করিয়া চলিতে সে বাধ্য হইবে।
বিশদ

30th  March, 2020
 ভগবান

একমাত্র ভগবানে বিশ্বাস করিলেই যে সব গোল মিটিয়া যায়। সাধুদের তোমার প্রতি কৃপা আছেই জানিবে। আর ভগবান্‌ অন্তর্য্যামী, তিনি সকলই দেখিতেছেন। সরল অকপটভাবে তাঁহার কাছে সমস্ত আব্‌দার আবেদন করিবে।
বিশদ

29th  March, 2020
 মানুষের বৃত্তি

মানুষের যে স্বাভাবিক বৃত্তি, স্থিতি, ভাব তৈরী হয় সেটি তৈরী হওয়ার পিছনে কিছু কারণ থাকে, তার মধ্যে আহারও একটি কারণ। কথিত আছে যে, ‘‘যেমন অন্ন খাবে, তেমন মন হবে।’’
বিশদ

28th  March, 2020
 বাসনা

বর্ষাকালে বায়ুর দ্বারা চালিত হইয়া মেঘ যেমন শত অনর্থের সৃষ্টি করে, সেই প্রকাপে মহাশক্তিশালী অহংকার মূলসহিত কর্তিত হইলেও মনের দ্বারা যদি ক্ষণকালের জন্যও স্মৃত হয় তো পুনরায় বাঁচিয়া উঠিয়া শত শত চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করে।
বিশদ

27th  March, 2020
 ভাল দিন-খারাপ দিন

 প্রশ্ন: ভাল দিন আর খারাপ দিন কোন্‌টি?
উত্তর:‘যদচ্যুতকথালাপরসপীযূষবর্জিতম্‌।
তদ্দিনং দুর্দিনং মন্যে মেঘাচ্ছন্নৎ ন দুর্দিনম্‌।।’ —(শ্রীমদ্‌ভাগবতম্‌) বিশদ

25th  March, 2020
আলো 

মানুষের সূক্ষ্মদেহের হৃদয়ে সার্চ্চ লাইটের মত আলো আছে। ওই আলোতে সাধারণতঃ নীচের তিনটি পদ্ম আলোকিত থাকে। মূলাধার হতে যখন ওই আলো সংহরণ করা যায়, তখন তন্দ্রাবস্থা আসে; যখন স্বাধিষ্ঠানে আনা যায়, তখন স্বপ্নাবস্থা হয়; যখন মণিপুরে আসে সুষুপ্তি অবস্থা।  
বিশদ

23rd  March, 2020
গীতা

 গীতায় অষ্টাদশ অধ্যায়ে পাওয়া যায় যে সর্বভূতে হৃদয় প্রদেশে ঈশ্বর বিরাজ করেন এবং সেখান হইতে মায়ারজ্জুর দ্বারা সর্বভূতকে সঞ্চালন করেন। এই স্থলে ‘হৃদয়’ শব্দের কি তাৎপর্য এবং সেখানে ঈশ্বরের অবস্থান কি প্রকার জানিতে ইচ্ছা হয়। সাধকের সাধনপথে হৃদয়ের জ্ঞান কতটা আবশ্যক তাহা আমার জিজ্ঞাস্য।
বিশদ

22nd  March, 2020
একনজরে
 রিও ডি জেনেইরো, ৭ এপ্রিল: বিশ্ব ফুটবলে এক দশকের বেশি সময় ধরে দাপট দেখিয়ে চলেছেন লায়োনেল মেসি ও ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। তবে অনেকের মতে, এই দুই ...

  ফতেপুর (উত্তরপ্রদেশ), ৭ এপ্রিল (পিটিআই): দুই কিশোর-কিশোরীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়াল উত্তরপ্রদেশের ফতেপুরের মালাওয়াইনে। পুলিশ আত্মহত্যা বললেও এই মৃত্যু নিয়ে রহস্য তৈরি হয়েছে। কারণ, কিশোরের পরিবারের দাবি, দু’জনকে খুন করে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে। ...

 জীবানন্দ বসু, কলকাতা: করোনা কেন্দ্রিক লকডাউনের জেরে গত কয়েকদিনে তাঁদের স্বাভাবিক জীবনযাপন অনেকটাই দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে। পর্যাপ্ত খাদ্য-রসদের অভাবই যে তার অন্যতম কারণ, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। ...

সংবাদদাতা, তপন: রাষ্ট্রপতি পুরস্কারপ্রাপ্ত শিক্ষক অমল রায় করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দশ হাজার টাকা দান করলেন। সোমবার তপনের বিডিও সি তামাংয়ের হাতে চেকটি তুলে দিয়েছেন অমলবাবু।  ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

ব্যবসায় বাড়তি বিনিয়োগ প্রত্যাশিত সাফল্য নাও দিতে পারে। কর্মক্ষেত্রে পদোন্নতি শ্বাসকষ্ট ও বক্ষপীড়ায় শারীরিক ক্লেশ। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৭৫৭: বাংলার নবাব আলীবর্দী খাঁ মারা যান।
১৭৫৯: ব্রিটিশ বাহিনী ভারতের মাদ্রাজ দখল করে।
১৮৫৭: বারাকপুরে সিপাহি বিদ্রোহের নায়ক মঙ্গল পাণ্ডের ফাঁসি
১৮৯৪: সাহিত্যিক বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের মৃত্যু
১৯০২: কলকাতায় মূক ও বধির বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয়।
১৯২৯: দিল্লির সেন্ট্রাল অ্যাসেম্বলিতে বোমা ছুঁড়ে ধরা পড়লেন ভগৎ সিং ও বটুকেশ্বর দত্ত
১৯৫০: ভারত পাক চুক্তি স্বাক্ষর করলেন লিয়াকত-নেহরু
১৯৫০: বিপ্লবী হেমচন্দ্র কানুনগোর মৃত্যু
১৯৭৩: স্পেনের চিত্রশিল্পী পাবলো পিকাসোর মৃত্যু
১৯৭৬: ফুটবলার গোষ্ঠপালের মৃত্যু





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৫.০৯ টাকা ৭৬.৮১ টাকা
পাউন্ড ৯১.৫৭ টাকা ৯৪.৮৬ টাকা
ইউরো ৮০.৬৮ টাকা ৮৩.৭২ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪১,৮৮০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৯,৭৩০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪০,৩৩০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৮,৮০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৮,৯০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
22nd  March, 2020

দিন পঞ্জিকা

২৪ চৈত্র ১৪২৬, ৭ এপ্রিল ২০২০, মঙ্গলবার, (চৈত্র শুক্লপক্ষ) চতুর্দশী ১৬/২৬ দিবা ১২/২। উত্তরফাল্গুনী ৯/৩০ দিবা ৯/১৫। সূ উ ৫/২৭/২৬, অ ৫/৫০/১৬, অমৃতযোগ দিবা ৭/৫৭ গতে ১০/২৫ মধ্যে পুনঃ ১২/৫৩ গতে ২/৩২ মধ্যে পুনঃ ৩/২১ গতে ৫/০ মধ্যে। রাত্রি ৬/৩৬ মধ্যে পুনঃ ৮/৫৬ গতে ১১/১৫ মধ্যে পুনঃ ১/৩৫ গতে ৩/৮ মধ্যে। বারবেলা ৭/০ গতে ৮/৩৩ মধ্যে পুনঃ ১/১২ গতে ২/৪৪ মধ্যে। কালরাত্রি ৭/১৭ গতে ৮/৪৪ মধ্যে।
২৪ চৈত্র ১৪২৬, ৭ এপ্রিল ২০২০, মঙ্গলবার, চতুর্দশী ১৩/৫৮/১৪ দিবা ১১/৪/৯। উত্তরফাল্গুনী ৭/১০/১০ দিবা ৮/২০/৫৫। সূ উ ৫/২৮/৫১, অ ৫/৫০/৫৪। অমৃতযোগ দিবা ৭/৫৪ গতে ১০/২৩ মধ্যে ও ১২/৫৩ গতে ২/৩২ মধ্যে ও ৩/২২ গতে ৫/১ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/৩৭ মধ্যে ও ৮/৫৬ গতে ১১/১৫ মধ্যে ও ১/৩৩ গতে ৩/৬ মধ্যে। বারবেলা ৭/১/৩৬ গতে ৮/৩৪/২২ মধ্যে, কালবেলা ১/১২/৩৮ গতে ২/৪৫/২৩ মধ্যে।
১৩ শাবান

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
করোনা পরিস্থিতি নিয়ে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকারের সঙ্গে আড়াই ঘণ্টার বৈঠক মুখ্যসচিবের 

09:27:00 PM

করোনা: বিশ্বে সুস্থ হয়ে গিয়েছেন ৩ লক্ষেরও বেশি রোগী
বিশ্বে করোনা যেমন কেড়ে নিচ্ছে বহু প্রাণ, তেমনি সুস্থও হয়ে ...বিশদ

08:59:28 PM

রামপুরহাটে ঝাড়খণ্ড সীমান্ত সংলগ্ন সুরচিয়া জঙ্গলে আগুন, অকুস্থলে দমকলের ২টি ইঞ্জিন

08:04:00 PM

আজ হুগলি, নদীয়া, বীরভূমে ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনা 

07:56:00 PM

এবার বিনামূল্যেই হবে করোনা পরীক্ষা, জানাল সুপ্রিম কোর্ট
অনুমোদিত সরকারি বা বেসরকারি ল্যাবে করোনা পরীক্ষা বিনামূল্যে করা হবে। ...বিশদ

07:22:52 PM

আজ ঝাড়গ্রাম, পঃ মেদিনীপুরে ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনা 

07:09:00 PM