Bartaman Patrika
অমৃতকথা
 

প্রকৃতিরাজ্যের বিভিন্ন নিয়ম-শৃঙ্খলা

প্রকৃতিরাজ্যের বিভিন্ন বিভাগে শক্তির যে সব বিচিত্র পরিণাম, বিচিত্র ক্রিয়া-প্রতিক্রিয়া, বিচিত্র গতিবিধি ও কার্য্যোৎপাদন আমরা সাধারণতঃ দেখতে পাই, তার মধ্যে প্রায়শঃ আমরা নিয়ম-শৃঙ্খলার পরিচয় পাই। সব ক্ষেত্রেই শক্তির যেন সুনির্দ্দিষ্ট কর্মপদ্ধতি আছে। বিজ্ঞান এরূপ অনেক নিয়ম আবিষ্কার করেছে ও করছে। এগুলিকে আমরা প্রাকৃতিক নিয়ম বলি এবং প্রায়শঃ অখণ্ডনীয় ব’লে গণ্য করি। কিন্তু সূক্ষ্মতর অনুসন্ধানে দেখতে পাই যে, সব ক্ষেত্রেই যে শক্তি এই সব নিয়মের বন্ধন মেনে চলে তা নয়। আমাদের আবিষ্কৃত নিয়মশৃঙ্খলাকে উল্লঙ্ঘন করেও শক্তি অনেক ক্ষেত্রেই ক্রিয়া করে এবং আপনার স্বাতন্ত্র্যের পরিচয় দেয়। শক্তিকে আমরা সর্ব্বতোভাবে নিয়মাধীন বলতে পারি না। শক্তির কার্য্য দেখেই নিয়ম আবিষ্কার করি, কিন্তু বিশেষ বিশেষ ক্ষেত্রে সাধারণ নিয়মের ব্যতিক্রম ক’রেও শক্তি কার্য্য করে। শক্তির ক্রিয়ার মধ্যে স্থূল জগতে আমরা এক জাতীয় নিয়ম দেখি, সূক্ষ্ম জগতে অন্যপ্রকার; জড় জগতে একপ্রকার, জীবজগতে কখনও কখনও তার বিপরীত। সুতরাং শক্তি যে শুধু নিজের সত্তায় সত্তাবতী, তা নয়; কার্য্যজগতে আপনাকে বিচিত্রভাবে অভিব্যক্ত করার পদ্ধতি সম্বন্ধে তার নিজস্ব স্বাতন্ত্র্যও আছে—এ সিদ্ধান্ত অনিবার্য্য হ’য়ে পড়ে।
এই পরিদৃশ্যমান জগতে আমরা যে এত বিভিন্ন স্তরের, বিভিন্ন প্রকারের শক্তিপরিণাম দেখি, এত অভিনব সৃষ্টি ও আকস্মিক ধ্বংস দেখি, এত নিয়মের বাঁধন ও তার সাথে এত নিয়মের ব্যভিচার দেখি, এর মধ্যেও আমাদের বৈজ্ঞানিক দৃষ্টি একথা অস্বীকার করতে পারে না যে, দেশ কাল দ্বারা অপরিচ্ছিন্ন, অসংখ্য সৌরমণ্ডল নক্ষত্রমণ্ডল বিশিষ্ট, অশেষ জটিলতা-সমাকীর্ণ এই বিশ্বপ্রপঞ্চ একটা রহস্যময় ঐক্যসূত্রে গ্রথিত। এর একটা আভ্যন্তরীণ যোগসূত্র আছে, এর সর্ব্বাবয়বে একটা অদ্ভুত সামঞ্জস্য আছে। একটা প্রাণশক্তি যেন এই বিশাল ব্রহ্মাণ্ডকে বিধৃত ক’রে রয়েছে। এটা যেন কারো একটা বিরাট দেহ; একথাটা শুধু কবিকল্পনা মনে হয় না।
এই বিরাট বিশ্বের একটা ক্ষুদ্র অংশ আমাদের পৃথিবী। এই পৃথিবীর ক্রম-বিকাশের ইতিহাসও সাক্ষ্য দিচ্ছে যে, কি আকস্মিকভাবে সূর্য্যের একটা টুকরো খ’সে এসে একটা নির্দ্দিষ্ট কক্ষে সূর্য্যকেই প্রদক্ষিণ করতে আরম্ভ করল, কি অদ্ভুতভাবে একটা প্রচণ্ড তাপবিশিষ্ট অগ্নিগোলকের অবস্থা থেকে শক্তিপরিণামের ভিতর দিয়ে সূর্য্যের এই টুকরাটি আকাশে, বাতাসে, জলে, স্থলে, পর্ব্বতে অরণ্যে, অগ্নি, বিদ্যুদাদিতে বিভক্ত হ’য়ে এ সকলের সুন্দর সমাবেশে কালক্রমে জীববহসতির যোগ্যতা লাভ করলে, কি রহস্যময় প্রণালীতে এই জড় পিণ্ডের মধ্যে প্রাণের অভ্যুদয় হ’ল, প্রাণের মধ্যে আবার মনের বিকাশ হ’ল, মনের মধ্যে বুদ্ধির উদয় হ’ল, এবং ক্রমে এই পৃথিবী মনুষ্য সভ্যতার লীলাভূমি হ’ল। এই বিবর্ত্তনের মধ্যে কতবার কত প্রকার ভাঙ্গাগড়া হয়েছে, কত সৃষ্টি-প্রলয় ঘটেছে। বৈজ্ঞানিকদৃষ্টিতে এসবই তো শক্তিরই খেলা। প্রাণ, মন, বুদ্ধি, সবই তো এক শক্তিরই বিচিত্র রূপ। সূর্য শক্তিময়, নক্ষত্রাদি ও শক্তিময়, পৃথিবীও শক্তিময়ী। কত সৃষ্টি ও ধ্বংসের সমাবেশে কী অদ্ভুত সংগঠন!
বিজ্ঞান আমাদের সামনে যে সব তথ্য উপস্থাপিত করেছে, তা থেকে আমরা অক্লেশেই এই সিদ্ধান্তে উপনীত হতে পারি যে, এই বিশ্বপ্রপঞ্চ অশেষ বৈচিত্র্যসমাকুল ও প্রতিনিয়ত পরিবর্ত্তনশীল হ’লেও এবং প্রত্যেক ক্ষেত্রে সর্ব্বদা সৃষ্টি-স্থিতি-প্রলয়ের তাণ্ডবলীলা চললেও, এর সমস্ত অতীত, বর্তমান ভবিষ্যতের মধ্যে একটা একত্ব আছে, একটা যোগযুক্ত সংঘবদ্ধ ভাব আছে। সুতরাং নিশ্চয়ই এর একটা প্রাণকেন্দ্র অবশ্যই অনন্ত শক্তির আধার, স্বসত্তায় সত্তাবান, স্বয়ং প্রকাশ, স্বয়ং ক্রিয় ও স্বতন্ত্র। সেই প্রাণকেন্দ্র থেকেই চিরকাল অসংখ্য প্রকার শক্তি বিকীর্ণ হচ্ছে, অসংখ্য প্রকার রূপান্তরের সৃষ্টি হচ্ছে, সেই প্রাণকেন্দ্রই স্বীয় অসীম শক্তিতে বিশ্বের সকল অংশকে, সকল অঙ্গপ্রত্যঙ্গকে বিধৃত ক’রে, সংঘবদ্ধ ক’রে, যোগযুক্ত ক’রে ধ’রে রেখেছে, সেই প্রাণকেন্দ্রই বিশ্বের সকল ব্যষ্টি ও সমষ্টিসত্তার অফুরন্ত উৎস, আশ্রয় ও নিয়ামক।
মহানামব্রত ব্রহ্মচারীর ‘চণ্ডী চিন্তা’ থেকে
10th  September, 2019
অমৃতকথা 

ভগবান সর্বময়। সংসারীর পক্ষে তাঁর জীবমূর্তিকে সেবা ও দানই পরম সাধন। কাঠ, পাথর—এসবও জীব (সুপ্ত চৈতন্য)।
পশু, পাখি, কীট, পতঙ্গকেও সেবা করবেন। বৃক্ষলতাকে জল দেবেন। এই কাজগুলো ভক্তিভরে করবেন—যেমন ঠাকুরকে স্নান করান—এই ভাব নিয়ে।   বিশদ

ঈশ্বরের অন্বেষণ 

একটি চোর চুরি করতে ঢুকে অন্ধকার ঘরে কিছু দেখতে না পেয়ে ছুঁয়ে ছুঁয়ে হাতড়াতে লাগলো। হয়ো টেবিল-চেয়ারে হাত ঠেকলো, অমনি “নাঃ এটা নয়, এটাও নয়” এই কথা ব’লে ব’লে একটির পর একটি জিনিস বাতিল ক’রে দিতে লাগলো।   বিশদ

26th  February, 2020
  জীবাত্মা ও পরমাত্মার সম্বন্ধ

 প্রশ্ন: জীবাত্মা ও পরমাত্মার সম্বন্ধ কেমন? উত্তর: একটি লাঠিকে জলের উপরিভাগে আড়াআড়িভাবে রাখলে মনে হয় জলরাশি দু’টি অংশে ভাগ হয়ে গেছে। তেমনি অখণ্ড আত্মাও মায়া উপাধির জন্য দু’টি ব’লে মনে হয়। বাস্তবিকপক্ষে আত্মা এক অখণ্ড। বিশদ

25th  February, 2020
বেদান্তের শিক্ষা

এ প্রশ্ন বার বার করা হয় যে, বেদান্তের শিক্ষা, যদিও তা মহান, প্রতিদিনকার জীবনযাপনে ব্যবহারের উপযোগী কিনা। অনেকের ধারণা আছে যে, বেদান্তও একটা দর্শনশাস্ত্র ব’লে ইউরোপ ও আমেরিকার যেকোন দর্শনশাস্ত্রের মতো তা কল্পনাধর্মী—এটি কতকগুলি সিদ্ধান্ত তুলে ধরে যা কখনও কার্যে পরিণত করা যায় না। 
বিশদ

23rd  February, 2020
মনুষ্যজন্ম 

সদ্‌গুরু বা সৎশাস্ত্রের সর্বপ্রাথমিক ইঙ্গিতই হইতেছে যে নর বা নারীরূপে মনুষ্যজন্ম লাভ করা সু-দুর্লভ। মনুষ্যেতর প্রাণীরূপে জন্মের চাইতে মনুষ্যজন্ম লাভ করা নিশ্চয়ই তাহার অধিকারের কথাই স্মরণ করাইয়া দেয়। 
বিশদ

20th  February, 2020
 অন্তরায়

 সকল জ্ঞানৈষণা যখন আমরা পার হয়ে গিয়েছি, তখনই আমরা পাব জ্ঞান। বিচার হয়েছিল সহায়, বিচারই এখন অন্তরায়। সকল কর্ম্মৈষণা যখন পার হয়ে গিয়েছি, তখনই আমরা পাব শক্তি। চেষ্টা হয়েছিল সহায়, চেষ্টাই এখন অন্তরায়। বিশদ

19th  February, 2020
অমৃতকথা 

স্বাভাবিক ভাবেই প্রশ্ন ওঠে ‘চরিত্র’ শব্দটি বহুবার উচ্চারিত হলো, কিন্তু ‘চরিত্র’ শব্দটির অর্থ কি? কাকে বলে চরিত্র?  বিশদ

18th  February, 2020
জীবন্মুক্তি

“জীবন্মুক্তি” শব্দটির সহজ অর্থ জীবদ্দশায় মুক্ত হওয়া বা বাঁচিয়া থাকিতে থাকিতে মোহমুক্ত হওয়া। কিন্তু এই প্রসঙ্গে ইহা অতিশয়োক্তি হইবে না যে উপরোক্ত “জীবন্মুক্তি” শব্দটির অর্থ বা তাৎপর্য্য গ্রহণে অসমর্থ মানবমন সর্বাগ্রেই প্রশ্ন করিয়া বসিবে, “ইহা আদৌ সম্ভব কি না?” 
বিশদ

17th  February, 2020
ধর্ম অপরিহার্য অঙ্গ 

মনুষ্য-সমাজে ধর্ম অপরিহার্য অঙ্গ কি না?
আমরা মানুষ হইয়া জন্মাই এবং সুখে শান্তিতে নীরোগ স্বাস্থ্যসম্পন্ন হইয়া দীর্ঘদিন বাঁচিয়া থাকিতে চাই। দৈনন্দিন বাঁচিয়া থাকিবার উপকরণও বহু। 
বিশদ

16th  February, 2020
 জগৎবৃত্তি

উপনিষদ্‌ বলেন—“যতো বাচো নিবর্তন্তে অপ্রাপ্য মনসা সহ।” এখানেও দেখি, ভগবান ও জগতের সঙ্গে সহাবস্থান হচ্ছে না। জগৎকে জানতে হলে মনে জগৎবৃত্তি থাকা চাই। কিন্তু যে মুহূর্তে জগৎবৃত্তির উদয় হবে, ভগবদ্‌বৃত্তির লয় হবে।
বিশদ

15th  February, 2020
আচার্যের পরিবর্তে বিশ্বাচার্য কেন স্বামী বিবেকানন্দকে বলা হয়? 

শ্রুতি শাস্ত্রের আদেশ—“আচার্যবান্‌ পুরুষো বেদ” শিরোধার্য করিয়া মনুষ্যকুল যদি দৈনন্দিন জীবন-যাত্রাপথে ন্যায় ও অন্যায়ের বিবেকসম্পন্ন হইয়া ভোগ-সর্বস্বতা হইতে ত্যাগের রাস্তা অবলম্বন করিতে পারে তাহা হইলে তাহা ধর্মের প্রারম্ভ বলিতেই হইবে। 
বিশদ

14th  February, 2020
সাধন-ভজন

ঠাকুর বলিলেন—“দেখ, সাধন-ভজনের যে কার কতদূর দৌড়, তা আমার জানা আছে। আমি যে সামান্য জপ-ধ্যানটুকু দিয়েছি, তা-ই অনেকে করে না, অথচ মুখে সাধন-ভজনের বড় বড় বুলি। এই ধর না কেন, আমি নিয়ম ক’রে দিয়েছি আশ্রম মঠে প্রত্যেককেই সকাল-সন্ধ্যা স্তোত্র-কীর্ত্তনে যোগদান করতে হবে, কেন না আমি জানি বর্ত্তমান যুগে দুর্বল অধিকারীর পক্ষে প্রার্থনার মত এত বড় সহজ সাধনপন্থা আর কিছুই নেই। বিশদ

13th  February, 2020
অমৃতকথা 

আমরা এ পর্যন্ত যা বলে এসেছি তাতে অনেকে মনে করতে পারেন যে, ধর্মজীবন-প্রস্তুতির সহায়করূপে জ্ঞানচর্চা, কলাবিদ্যা, কার্যকলাপ প্রভৃতির অনুশীলন বুঝি আধ্যাত্মিকতার অপরিহার্য অঙ্গ।  বিশদ

12th  February, 2020
 কর্মযোগ

বর্ধমান হইতে পদব্রজে রওনা হইয়া, দীর্ঘকাল পথ চলার পর গুরু ভগবান শিষ্যদ্বয়কে লইয়া ভারতের উত্তর-পশ্চিম গিরিপথে হিমালয়ে প্রবেশ করিলেন। যুগ-যুগান্তকাল হইতে হিমালয় দেবতাদের বাসভূমি। মুনি ঋষির তপস্যাস্থল, প্রকৃতির নানাবিধ মনোহর সৌন্দর্যের অফুরন্ত ভাণ্ডার হিমালয় তীর্থরাজ।
বিশদ

11th  February, 2020
শিক্ষা 

ভারতবাসী হিসাবে আমরা তাঁর কাছে জাতীয় শিক্ষাদর্শের ঋণে জড়িয়ে আছি। জাতীয় শিক্ষার সংগ্রামে ও পরিকল্পনা রচনায় যাঁরা সে যুগে অগ্রদূত ছিলেন তাঁদের অন্যতম ছিলেন নিবেদিতা। প্রকৃত শিক্ষা ব্যতিরেকে যে প্রকৃত ভারতীয় হওয়া সম্ভব নয়, তা তিনি মনেপ্রাণে বিশ্বাস করতেন।  
বিশদ

08th  February, 2020
অমৃতকথা 

যোগীরাজ শ্যামাচরণ লাহিড়ী ভারতের অধ্যাত্ম জগতের ধ্রুবতারা। তাঁর কথা বাদ দিয়ে যোগসাধনার আলোচনা প্রায় অসম্ভব। তিনি এমনই এক অধ্যাত্মচেতনার ধারক, বাহক ও সঞ্চারক যাতে প্রচারের কোন অবকাশ নেই; বাক্যচাতুর্য্য, পাণ্ডিত্য ও কচাকচির কোন স্থান নেই; অন্ধ বিশ্বাস, ভাবালুতা ও কল্পনার কোন সুযোগ নেই; যা দিনের আলোর মতোই স্পষ্ট, প্রত্যক্ষ ও নিজবোধগম্য।  বিশদ

07th  February, 2020
একনজরে
 রূপাঞ্জনা দত্ত, লন্ডন, ২৬ ফেব্রুয়ারি: সুয়েলা ব্রাভেরমান। ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের ক্যাবিনেটে রদবদলের পর চলতি মাসের শুরুতে ব্রিটেনের প্রথম ভারতীয় বংশোদ্ভূত মহিলা হিসেবে অ্যাটর্নি জেনারেলের পদে নিযুক্ত হন এই এমপি। অবশেষে অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে শপথ নিলেন তিনি। ...

বিএনএ, আসানসোল: বেসরকারি গ্যাস কোম্পানির নিরাপত্তারক্ষী ছাঁটাই নিয়ে ক্রমশ জটিলতা বাড়ছে আসানসোলে। কোম্পানি থেকে ২৯জনকে ছাঁটাইয়ের প্রতিবাদে মঙ্গলবার থেকে অনশন শুরু করেছেন ছাঁটাই হওয়া নিরাপত্তারক্ষীরা।   ...

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: কলকাতা কর্পোরেশনের ভোটে ওয়ার্ড ভিত্তিক সমস্যা তুলে ধরতে নাগরিকদের কাছে বিশেষ সমীক্ষক টিম পাঠাচ্ছে বিজেপি। মহানগরের ১৪৪টি ওয়ার্ডের নিত্যদিনের সমস্যার চিত্র তুলে ধরতে চাইছে গেরুয়া শিবির। ভোটের প্রচারে স্থানীয় স্তরে এই ইস্যুগুলিকে সামনে রেখে শাসক তৃণমূলকে বিঁধতে ...

 দুবাই, ২৬ ফেব্রুয়ারি: নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে ওয়েলিংটন টেস্টে ব্যর্থতার জেরে স্টিভ স্মিথের কাছে মসনদ খোয়ালেন বিরাট কোহলি। আইসিসি’র টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ে দু’নম্বরে নেমে গেলেন ভারত অধিনায়ক। তাঁর জায়গায় শীর্ষস্থানে অস্ট্রেলিয়ার তারকা ব্যাটসম্যান স্মিথ। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

বিদ্যার্থীদের ক্ষেত্রে আজকের দিনটা শুভ। কর্মক্ষেত্রে আজ শুভ। শরীর-স্বাস্থ্যের ব্যাপারে সতর্ক হওয়া প্রয়োজন। লটারি, শেয়ার ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮০২- ফরাসি লেখক ভিক্টর হুগোর জন্ম
১৯০৮- লেখিকা লীলা মজুমদারের জন্ম
১৯৩১- স্বাধীনতা সংগ্রামী চন্দ্রশেখর আজাদের মৃত্যু
১৯৩৬- চিত্র পরিচালক মনমোহন দেশাইয়ের জন্ম
২০১২- কিংবদন্তি ফুটবলার শৈলেন মান্নার মৃত্যু





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৮৯ টাকা ৭২.৫৯ টাকা
পাউন্ড ৯১.৫৯ টাকা ৯৪.৮৮ টাকা
ইউরো ৭৬.৪৯ টাকা ৭৯.৪১ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪৩,১৬০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৪০,৯৫০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪১,৫৬০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৭,৪০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৭,৫০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

১৪ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, বৃহস্পতিবার, (ফাল্গুন শুক্লপক্ষ) চতুর্থী অহোরাত্র। রেবতী ৪৭/৪০ রাত্রি ১/৮। সূ উ ৬/৪/১৪, অ ৫/৩৫/২, অমৃতযোগ রাত্রি ১/৫ গতে ৩/৩৫ বারবেলা ২/৪২ গতে অস্তাবধি। কালরাত্রি ১১/৪৯ গতে ১/৩৫ মধ্যে। 
১৪ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, বৃহস্পতিবার, চতুর্থী, রেবতী ৪২/২৩/২২ রাত্রি ১১/৪/৩৪। সূ উ ৬/৭/১৩, অ ৫/৩৪/৯। অমৃতযোগ দিবা ১/০ গতে ৩/২৮ মধ্যে। কালবেলা ২/৪২/২৫ গতে ৪/৮/১৭ মধ্যে। কালরাত্রি ১১/৫০/৪১ গতে ১/২৪/৪৯ মধ্যে। 
২ রজব 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
১৪৩ পয়েন্ট পড়ল সেনসেক্স 

04:08:26 PM

জলপাইগুড়িতে ২১০ কেজি গাঁজা সহ ধৃত ৩ 

03:39:45 PM

পুরভোট অবাধ ও শান্তিপূর্ণ করতে হবে, রাজ্য নির্বাচন কমিশনারকে নির্দেশ রাজ্যপাল 
পুরভোটের দিনক্ষণ চূড়ান্ত না হলেও প্রশাসনিক তৎপরতা তুঙ্গে। এরমধ্যেই রাজ্য ...বিশদ

01:25:00 PM

লেকটাউনে নির্মীয়মাণ বিল্ডিং থেকে পড়ে মৃত শ্রমিক 

01:10:00 PM

মালদহে কার্তুজ উদ্ধার 
মালদহের হবিবপুর ব্লকের আইহো বাজারের একটি দোকান থেকে ১০ রাউন্ড ...বিশদ

01:05:54 PM

ইংলিশবাজারে দুর্ঘটনায় মৃত ১, জখম ১০ 
মালদহের ইংলিশবাজারে ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কে দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকের পিছনে ...বিশদ

12:58:00 PM