Bartaman Patrika
অমৃতকথা
 

ধন 

ভূগর্ভে রক্ষিত ধনরত্নাদি পাইতে হইলে প্রথমে যেমন যে ব্যক্তি উহার সন্ধান জানেন তাঁহার উপদেশপ্রাপ্তির এবং পরে ভূমিখননের, ধনের উপর স্থাপিত প্রস্তরাদির অপসারণের এবং ধনাদি স্বয়ং গ্রহণের প্রয়োজন হয়, কেবল শব্দ করিলে অর্থাৎ ‘ধন, তুমি এস’ বলিয়া ডাকিলে ধনলাভ হয় না, সেইরূপ মায়ানির্মুক্ত নিজের শুদ্ধ স্বরূপ অবগত হইতে হইলে ব্রহ্মজ্ঞ পুরুষের নিকট উপদেশপ্রাপ্তির পর মনন-ধ্যানাদির প্রয়োজন হয়। কেবল তর্কবিচারের দ্বারা আত্মানুভূতি হয় না।
রোগ হইতে আরোগ্য-লাভের জন্য যেমন নিজেকে ঔষধসেবনাদি করিতে হয়, সেই প্রকার ভববন্ধন হইতে মুক্তিলাভের জন্য উপযুক্ত সাধনসমূহ অবলম্বন করা বিচারশীল ব্যক্তিগণের কর্তব্য।
আজ তুমি যে প্রশ্ন করিয়াছ, তাহা অতি উত্তম। এইরূপ প্রশ্ন শাস্ত্রজ্ঞ ব্যক্তিগণের দ্বারা সমর্থিত, অতি সংক্ষিপ্ত অথচ গভীর ভাবপূর্ণ এবং মুমুক্ষু ব্যক্তিগণের জ্ঞাতব্য। হে প্রিয় শিষ্য, তোমাকে যাহা বলিতেছি, তাহা মনোযোগ-সহকারে শ্রবণ কর। ইহা শ্রবণের ফলে তুমি অচিরে সংসারবন্ধন হইতে মুক্তিলাভ করিবে। অনিত্য বস্তুসমূহে তীব্র বৈরাগ্য মোক্ষলাভের প্রধান কারণ বলিয়া কথিত হয়। ইহার পর মোক্ষলাভের অন্যান্য সহায়ক—শম, দম, তিতিক্ষা ও শ্রুতিবিহিত কর্মসমূহের নিঃশেষে ত্যাগ।
(সাধনচতুষ্টয়সম্পন্ন সাধকের সাধনক্রম এইরূপ) —প্রথমে গুরুমুখে আত্মার স্বরূপ এবং মহাকাব্য-শ্রবণ, তাহার পর শ্রুতিবাক্যের মনন, পরে সুদীর্ঘকাল ধরিয়া সর্বক্ষণ অব্যবহিতভাবে আত্মস্বরূপের ধ্যান। এই সকলের অনুষ্ঠানের ফলে বিচারশীল সাধক বিকল্পরহিত আত্মস্বরূপ উপলব্ধি করিয়া এই জীবনেই নির্বাণসুখ লাভ করেন।
আত্মা ও অনাত্মার মধ্যে যে পার্থক্য বিচার তোমার জন্য প্রয়োজন তাহা এখন তোমাকে বলিতেছি। উহা ভালভাবে শুনিয়া নিজের মনে বেশ করিয়া বুঝিয়া লও।মজ্জা, অস্থি, চর্বি, মাংস, রক্ত, চামড়া ও ত্বক্‌—এই সাতটি ধাতুর দ্বারা গঠিত এবং পা, ঊরু, বুক, হাত, পিঠ ও মাথা—এই সকল অঙ্গ ও উপাঙ্গসংযুক্ত এই শরীর।
‘আমি ও আমার’ এই প্রকার মোহের আশ্রয়রূপে প্রসিদ্ধ, এই দেহকে পণ্ডিতগণ স্থূলশরীর বলিয়া থাকেন। (এই স্থূলশরীরে) আকাশ, বায়ু, অগ্নি, জল ও মৃত্তিকা এই পাঁচ সূক্ষ্মভূত আছে।
[পঞ্চীকরণের নিয়মানুসারে] এই সূক্ষ্মভূতসমূহ পরস্পরের সহিত মিলিত হইয়া স্থূলশরীর—উৎপত্তির হেতু পাঁচটি স্থূলভূতরূপে পরিণত হয়। পঞ্চসূক্ষ্মভূতের গুণসমূহ ভোক্তা জীবের সুখ-উৎপাদনের জন্য শব্দ, স্পর্শ, রূপ, রস ও গন্ধ এই পাঁচটি বিষয়ের রূপগ্রহণ করে।
যে-সকল মূঢ়ব্যক্তি তীব্র আসক্তির বশে বিষয়ভোগে প্রমত্ত থাকে, তাহারা স্বস্ব কর্মফলের দ্বারা চালিত হইয়া কখনও বা পশু, তির্যক প্রভৃতি জীবযোনিতে জন্মগ্রহণ করে; আবার কখন স্বর্গাদি লোকের সুখভোগ করে। (এইভাবে তাহারা জন্মমৃত্যুরূপ সংসার দুঃখ ভোগ করিতে থাকে)।
শঙ্করাচার্যের ‘বিবেকচূড়ামণি’ থেকে 
03rd  September, 2019
 মৃত্যু

মৃত্যুকে মানুষ ভয় করে কেন? মৃত্যুর পরে কি অবস্থা হবে, সে তা জানে না। জীবনে যে নিশ্চিত নিরাপত্তা গড়ে উঠেছে, তাকে ছেড়ে সে মৃত্যু-পরবর্তী অনিশ্চিত অবস্থায় যেতে রাজি নয়। আস্তিকেরা যখন মরতে ভয় পায় তখন তার মধ্যে একটা যুক্তি থাকতে পারে—মৃত্যুর পর স্বর্গে না নরকে যাবে, এই ভেবে আস্তিকেরা ভয় পেতে পারে।
বিশদ

সুখ বা আনন্দ কি?

সুখ বা আনন্দ কি, এটি বোঝার জন্যেই ঠাকুর রূপোর গড়গড়ায় তামাক খেয়েছিলেন, পেঁয়াজ মুখে দিয়ে এদিক-ওদিক করেছিলেন। ঘটনা দুটির মধ্যে গভীর তাৎপর্য রয়েছে। ঠাকুর আমাদের এর মাধ্যমে সচেতন করতে চেয়েছেন, আমরাও যেন সুখ কি তা নিয়ে বিচার করি।
বিশদ

04th  June, 2020
ভবিষ্যতের জন্যে দুশ্চিন্তা

 ভবিষ্যতের আশংকায় আমরা যে দুঃখ পাই, তার মূল কারণ নিরাপত্তার চাহিদা থেকে ভয় (fear of insecurity)। আমাদের মানসিক নির্ভরতাই এর জন্যে দায়ী। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ওপর নির্ভরশীল হওয়া, স্ত্রী-পুত্র-আত্মীয়দের ওপর নির্ভর করা, কোনো মতবাদকে জোর করে আঁকড়ে ধরে থাকার পেছনে আছে এই মানসিক নির্ভরতা, এবং মানুষ আশা করে যে, এভাবে ভরসা করে সে চিরদিন নিরাপদ থাকবে।
বিশদ

03rd  June, 2020
ভক্ত-ভগবান

অন্ধকার হলো সত্যিকারের নিরাকার ব্রহ্ম। আর অন্ধকার থেকে যে আলো সৃষ্টি হলো উনি ভক্ত-ভগবান রূপে সকলের মাঝে লীলা করছেন। স্ব-প্রকাশ জ্যোতি হলেন ব্রহ্ম, যাঁর মধ্যে সকল রূপগুণ প্রকাশমান। জ্ঞান ছাড়া কিছুই প্রকাশ হতে পারে না। এই জ্ঞানই হলো সকল রূপের প্রকাশক। বিশদ

02nd  June, 2020
আত্মকেন্দ্রিক

জীবনে কৃতিময় অহং বিলুপ্তিই বিজ্ঞানী মৃত্যু। অনন্ত জন্ম-মৃত্যুর শৃঙ্খল হইতে নিজেকে মুক্ত করিতে প্রথমেই প্রয়োজন বিজ্ঞানী মৃত্যুর। দেহত্যাগ তো আর মৃত্যু নয়, উহা দেহান্তর মাত্র। বিশদ

01st  June, 2020
ব্যাধি

ব্যাধির আক্রমণে নত হইয়া পড়িও না, ব্যাধি দেহধারী-মাত্রেরই হয়। যে উন্নত লক্ষ্য তোমার জীবনের পথগতি নিয়মিত করিতেছে, সেই লক্ষ্যে পৌঁছিতে হইলে দেহের ধর্ম্মকে অস্বীকার করিয়া আত্মার শক্তিতে শক্তিমান্‌ হইতে হইবে।
বিশদ

31st  May, 2020
একাগ্রতার শক্তি

 একাগ্রতাই—যুদ্ধ এবং ব্যবসা বাণিজ্য; সংক্ষেপে মানুষের যে কোন ব্যবহারিক কাজে—সকল শক্তির মূল রহস্য। সুনির্দিষ্ট চিন্তা করার ক্ষমতা তোমার নিজস্ব, তাকে দর্শন করা, আয়ত্তে আনা ও ঈশ্বরের মুখোমুখি হওয়ার ক্ষমতাও তোমার নিজের ‘হাতে’।
বিশদ

30th  May, 2020
 আত্মা-অনাত্মা

  যথার্থ জ্ঞানের দ্বারা জীবের অবিদ্যারূপ উপাধির বিনাশ হয়, অন্য কোন উপায়ে ইহার নাশ হয় না। ব্রহ্মের সহিত আত্মার একাত্বানুভবই জ্ঞান, শ্রুতি ইহা বলেন। আত্মা কি, অনাত্মাই বা কি, এই বিচার যথাযথ ভাবে করিতে পারিলে আত্মজ্ঞানের উৎপত্তি হয়। অতএব জীব ও ব্রহ্মের স্বরূপ বিচারের দ্বারা নির্ণয় করা কর্তব্য। বিশদ

29th  May, 2020
 আসক্তি

যে-সকল মূঢ়ব্যক্তি তীব্র আসক্তির বশে বিষয়ভোগে প্রমত্ত থাকে, তাহারা স্ব স্ব কর্মফলের দ্বারা চালিত হইয়া কখনও বা পশু, তির্যক প্রভৃতি জীবযোনিতে জন্মগ্রহণ করে; আবার কখন স্বর্গাদি লোকের সুখভোগ করে। (এইভাবে তাহারা জন্মমৃত্যুরূপ সংসার দুঃখ ভোগ করিতে থাকে)। বিশদ

28th  May, 2020
অমৃতকথা 

কর্ম সম্বন্ধে সাধারণ লোকের স্পষ্ট ধারণা না থাকিলেও ইহা অধিকাংশ লোকেই বিশ্বাস করে যে এই সংসার প্রপঞ্চের এবং ব্যাপক দুঃখ জঞ্জালের মূল একমাত্র কর্ম। এই বিশ্বাস যে অমূলক তাহা নহে। তবে ইহা স্পষ্টরূপে বোধগম্য হওয়া উচিত।  বিশদ

27th  May, 2020
অমৃতকথা 

আহা, দেশে গরিব-দুঃখীর জন্য কেউ ভাবে না রে! যারা জাতির মেরুদণ্ড, যাদের পরিশ্রমে অন্ন জন্মাচ্ছে, যে মেথর-মুদ্দাফরাশ একদিন কাজ বন্ধ করলে শহরে হাহাকার রব ওঠে— হায়! তাদের সহানুভূতি করে, তাদের সুখে-দুঃখে সান্ত্বনা দেয়, দেশে এমন কেউ নেই রে!   বিশদ

26th  May, 2020
অমৃতকথা 

বাংলার বিশেষ সম্পৎ শক্তির উপাসনা। গৌড়ীয়া-বিদ্যা তন্ত্রের আর এক নাম। বর্ত্তমানে তন্ত্রবিষয়ে গবেষণা বা আলোচনা নাই বলিলেই হয়। আত্মভোলা বাঙালী জাতি নিজ সম্পদ্‌ সম্বন্ধে যদিও একেবারে উদাসীন, তাহা সত্ত্বেও তন্ত্রের সাধনার ধারা একেবারে মৃত নহে।   বিশদ

25th  May, 2020
ব্রহ্মতত্ত্ব

  বেদ ও উপনিষদের মর্মবাণীর মধ্যে ভারতের শাশ্বত সনাতন ধর্মের ভাবটি বিদ্যমান। এই উপনিষদ-ভিত্তিক ‘ব্রহ্মতত্ত্ব’ বা ‘আত্মতত্ত্ব’ই হল বেদের সার। এই ‘আত্মতত্ত্বে’র আলোচনামূলক গ্রন্থই ‘বেদান্ত’।
বিশদ

24th  May, 2020
প্রণবের উপাসনা

প্রণবই ব্রহ্ম, পুনশ্চ প্রণবই ব্রহ্ম লাভের উপায়। বেদান্তশাস্ত্রে প্রণবই উপায় ও উপেয়রূপে বর্ণিত। কঠোপনিষৎ শুনাইলেন—প্রণবই পরব্রহ্মোপাসনার শ্রেষ্ঠ আলম্বন বা প্রতীক—ইহা জানিলে ব্রহ্মলোকে মহীয়ান্‌ হওয়া যায়। বেদসমূহ অবিরুদ্ধ ভাবে যে অভীষ্ট বস্তুর প্রতিপাদন করেন, সকল তপস্যা যাঁহার প্রাপ্তির উপায়স্বরূপ এবং যাঁহার জন্য মানুষ ব্রহ্মচর্য্য অবলম্বন করে, তাঁহা হইল ‘ও” বা প্রণব।
বিশদ

23rd  May, 2020
প্রণবশক্তি

 আলোকতরঙ্গ ও নাদতরঙ্গ উভয়েরই আছে প্রচণ্ড, অভাবনীয় গতি—ইহা আধুনিক বিজ্ঞানসম্মত। যেখানে গতি, সেখানেই শক্তি। সমস্ত জ্যোতিঃ, সমস্ত নাদের যেমন এক মৌলিক উৎস আছে, সমস্ত শক্তিরও তেমনি এক মহাকারণ আছেন, তিনিই প্রণব।
বিশদ

22nd  May, 2020
প্রণবের মাত্রা

 কোন কোন উপনিষদে প্রণবের ত্রিমাত্রার কথা, এবং কোন কোন উপনিষদে প্রণবের চারি মাত্রার উল্লেখ দেখা যায়। অ+উ+ম—ত্রিমাত্রা হইল এই; এতদতিরিক্ত আর এক চতুর্থ মাত্রা প্রণবে আছে। বিশদ

21st  May, 2020
একনজরে
অলকাভ নিয়োগী, বর্ধমান: করোনা সংক্রমণ রুখতে দেশজুড়ে আচমকা লকডাউন শুরু হওয়ায় বিভিন্ন রা঩জ্যে হাজার হাজার পরিযায়ী শ্রমিক এবং সাধারণ মানুষ আটকে পড়েছিলেন। এখন প্রতিদিন সেই ...

  নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: করোনার দাপটে বিভিন্ন দেশ থেকে ফেরা পেশাদার ব্যক্তিদের জীবিকার সংস্থান করে দিতে উদ্যোগ নিল কেন্দ্রীয় সরকার। এঁদের জন্য তথ্যভাণ্ডার তৈরি করে নিয়োগকারী সংস্থা, রাজ্য সরকার এবং বণিকসভাগুলিকে পাঠানোর পরিকল্পনা করা হয়েছে। ...

  নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: মাসখানেক হল চালু হয়েছে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ কোভিড হাসপাতাল। চালু হয়েছে করোনা রোগীদের সুপার স্পেশালিটি ব্লক বা এসএসবি বাড়ি। কিন্তু, এরই মধ্যে কোভিডে মৃত ব্যক্তির মোবাইল উধাও হয়ে গিয়েছে বলে অভিযোগ জমা পড়েছে মেডিক্যালের সিকিউরিটি অফিসারের ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: লকডাউনে দেশের সর্বত্র গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পগুলি আটকে রয়েছে। ব্যতিক্রম নয় প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রও। প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের কর্তাদের চিন্তা বাড়িয়েছে দেশীয় প্রযুক্তিতে প্রথম তৈরি হতে চলা ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

সঠিক বন্ধু নির্বাচন আবশ্যক, কর্মরতদের ক্ষেত্রে শুভ। বদলির কোনও সম্ভাবনা এই মুহূর্তে নেই। শেয়ার বা ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯৩২: শ্রীশ্রীরামকৃষ্ণ কথামৃতের রচনাকার মহেন্দ্রনাথ গুপ্তের (শ্রীম) মৃত্যু
১৯৩৬: অভিনেত্রী নূতনের জন্ম
১৯৫৯: শিল্পপতি অনিল আম্বানির জন্ম
১৯৭৪: অভিনেতা অহীন্দ্র চৌধুরির মৃত্যু
১৯৭৫ - মার্কিন অভিনেত্রী অ্যাঞ্জেলিনা জোলির জন্ম
১৯৮৫: জার্মান ফুটবলার লুকাস পোডোলোস্কির জন্ম

04th  June, 2020


ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৪.৭৪ টাকা ৭৬.৪৫ টাকা
পাউন্ড ৯৩.১৩ টাকা ৯৬.৪৪ টাকা
ইউরো ৮৩.২২ টাকা ৮৬.৩১ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪১,৮৮০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৯,৭৩০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪০,৩৩০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৮,৮০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৮,৯০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
22nd  March, 2020

দিন পঞ্জিকা

দৃকসিদ্ধ: ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ৫ জুন ২০২০, শুক্রবার, পূর্ণিমা ৪৯/২৮ রাত্রি ১২/৪২। অনুরাধা নক্ষত্র ২৯/৩১ অপঃ ৪/৪৪। সূর্যোদয় ৪/৫৫/১২, সূর্যাস্ত ৬/১৪/৩২। অমৃতযোগ দিবা ১২/১ গতে ২/১৪ মধ্যে। রাত্রি ৮/২২ মধ্যে পুনক্ষ ১২/৩৮ গতে ২/৪৭ মধ্যে পুনঃ ৩/২৯ গতে উদয়াবধি। বারবেলা ৮/১৫ গতে ১১/৩৫ মধ্যে। কালরাত্রি ৮/৫৫ গতে ১০/১৫ মধ্যে।
২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ৫ জুন ২০২০, শুক্রবার, পূর্ণিমা ১/১। অনুরাধা নক্ষত্র অপরাহ্ন ৫/১২। সূর্যোদয় ৪/৫৬, সূর্যাস্ত ৬/১৬। অমৃতযোগ দিবা ১২/৬ গতে ২/৪৭ মধ্যে এবং রাত্রি ৮/২৯ মধ্যে ও ১২/৪২ গতে ২/৪৮ মধ্যে ও ৩/৩০ গতে ৪/৫৬ মধ্যে। বারবেলা ৮/১৬ গতে ১১/৩৬ মধ্যে কালরাত্রি ৮/৫৬ গতে ১০/১৬ মধ্যে।
১২ শওয়াল

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
রাজ্যে করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২৯৪ 
রাজ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ২৭২ জনের শরীরে মিলল করোনা ...বিশদ

07:03:39 PM

করোনা: ইরানে একদিনে আক্রান্ত ২৮৮৬ জন
 

ইরানে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন আরও ২৮৮৬ জন। মৃত্যু ...বিশদ

05:40:15 PM

উত্তরপাড়ায় রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ক থেকে লুট ১৮ লক্ষ টাকা 
উত্তরপাড়ায় একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ক থেকে লুট হল ১৮ লক্ষ টাকা। ...বিশদ

04:29:00 PM

দুর্যোগ নিয়েও রাজনীতি করা হচ্ছে: মমতা 

04:20:00 PM

উমপুনে সুন্দরবনের ম্যানগ্রোভ নষ্ট হয়েছে: মমতা 

04:15:00 PM

পরিযায়ী শ্রমিকদের ট্রেন-বাসের ভাড়া দিয়েছি: মমতা

04:13:00 PM