Bartaman Patrika
অমৃতকথা
 

দেবীমানবী

তিনি(ঠাকুর) বলতেন, ‘ওরে, ওর নাম সারদা, ও সরস্বতী।’(ঠাকুর গোলাপ-মাকেও বলেছিলেন, ‘ও সারদা, সরস্বতী—জ্ঞান দিতে এসেছে।’)
সকলেই কি আর চিনতে পারে, মা? ঘাটে একখানা হীরা পড়ে ছিল। সব্বাই পাথর মনে করে তাতে পা ঘষে স্নান করে উঠে যেত। একদিন এক জহুরি সেই ঘাটে এসে দেখে চিনলে যে, সেখানে এক প্রকাণ্ড মহামূল্য হীরা। ঠাকুর সাক্ষাৎ ভগবান। আমি আর কে, আমিও ভগবতী।
বাস্তবিকই তিনি(ঠাকুর) ভগবান, জীবের দুঃখে দেহধারণ করে এসেছিলেন—রাজা যেমন ছদ্মবেশে নগরভ্রমণে যান। একটু জানাজানি হলেই সরে পড়েন। ভগবান নরলীলা করতে ভালবাসেন কিনা। শ্রীকৃষ্ণ গোয়ালার ছেলে ছিলেন। রাম দশরথের বেটা। ভগবানকে কে বাঁধতে পেরেছে বল না। তিনি নিজে ধরা দিয়েছিলেন বলে তো যশোদা তাঁকে বাঁধতে পেরেছিল, গোপগোপীরা তাঁকে পেয়েছিল।
সাধুপুরুষেরা সব আসেন মানুষকে পথ দেখাতে, এক এক জনে এক এক রকমের বোল বলেন। পথ অনেক, সেজন্যে তাঁদের সকলের কথাই সত্য। যেমন একটা গাছে সাদা, কালো, লাল নানা রকমের পাখী এসে বসে হরেক রকমের বোল বলছে। শুনতে ভিন্ন ভিন্ন হলেও সকলগুলিকেই আমরা পাখীর বোল বলি—একটাই পাখীর বোল আর অন্যগুলো পাখীর বোল নয়, এরূপ বলি না। আমাদের ঠাকুরের ওরূপ সঙ্কীর্ণ ভেদবুদ্ধি ছিল না। অবতারপুরুষকে সকলে কি ধরতে পারে? দুই-একজনে চিনতে পারে মাত্র। তাঁরা জীব-উদ্ধারের জন্যে কত যাতনাই না সহ্য করেন! ঠাকুরের গলা দিয়ে রক্ত বের হত, তবুও কথার বিরাম নেই, কিসে জীবের মঙ্গল হয়। বিশেষ বিশেষ লোক তাঁর সঙ্গে এসেছেন। সর্বপ্রধান যাঁরা তাঁরাই ভগবানের কার্যের জন্যে সঙ্গে সঙ্গে আসেন। সব তাঁর কাছ থেকে এসেছে, তাঁর কাছে চলে যাবে। কেউ তাঁর বাহু হতে, কেউ পা হতে, কেউ লোম হতে হয়েছে—সব তাঁর অঙ্গ, অংশ।
(শিবুদাদাকে) দেখ দেখি, আমি আবার কে রে? আমি মানুষ, তোর খুড়ী। (তবে)লোকে বলে, ‘কালী’। মায়া বৈকি! মায়া না হলে আমার এ দশা কেন? আমি বৈকুণ্ঠে নারায়ণের পাশে লক্ষ্মী হয়ে থাকতুম। (নিজের স্বরূপ মনে) কি সব সময় থাকে? তাহলে কি এইসব কাজকর্ম করা চলে? তবে কাজকর্মের ভিতর যখনই ইচ্ছা হয় সামান্য চিন্তাতে দপ করে উদ্দীপনা হয়ে মহামায়ার খেলা সব বুঝতে পারা যায়। তখন ভাবি, এ কি করছি। আবার এইসব বাড়ীঘর ছেলেপিলে মনে আসে ও ভুলে যাই।
তিনি (ঠাকুর) আমার পূর্ণব্রহ্ম সনাতন। হাঁ, তিনি পূর্ণব্রহ্ম সনাতন— স্বামিভাবেও, এমনিভাবেও। (আবার বলছেন: ঠাকুরকে) সন্তানের মতো দেখি। এই যে এখানে এসেছ, একটা কিছু ভাব নিয়ে এসেছ, হয়তো জগন্মাতা ভেবে এসেছ। ঠাকুর ও আমাকে অভেদভাবে দেখবে, আর যখন যেভাবে দর্শন পাবে, সেইভাবেই ধ্যানস্তুতি করবে, ধ্যান হয়ে গেলেই পূজো শেষ হল। এইখানেই (হৃদয়ে) আরম্ভ ও এইখানে (মস্তকে) শেষ করবে। ঠাকুরের মাঝেই গুরু ইস্ট সব পাবে। উনিই সব। ঠাকুর বলতেন, ‘মলয়ের হাওয়া লাগলে যেসব গাছের স্যার আছে তারা চন্দন হয়।’ মলয় বয়ে গেছে, এইবার সব চন্দন হবে। কেবল বাঁশ, কলা ছাড়া। বাঁশ, শিমুল, তালগাছ—চন্দনের কাছে থাকলে কি হবে? সারাবান বৃক্ষ হওয়া চাই।
অভয়া দাশগুপ্তের সংকলিত ‘শ্রীশ্রীসারদাদেবী: আত্মকথা’ থেকে
10th  August, 2019
 বেদ

 পদ্ম পুরাণে রয়েছে যে, দ্বাপরের শেষে নানা অপসিদ্ধান্তের জন্য বেদের সারার্থ আচ্ছন্ন-প্রায় হয়ে গেলে, দেবতারা শ্রীনারায়ণের শরণাপন্ন হন। বেদমূর্তি শ্রীনারায়ণ তখন ব্যাসরূপে পৃথিবীতে অবতীর্ণ হয়ে চতুর্বেদ বিভাগ করেন। বিশদ

 সত্য

 সত্য যেন সত্যেরই মতো ভাস্বর থাকে, এটিই ছিল এই আচার্যের ইচ্ছা। কোন রকম নতি বা আপসের বালাই নেই; কোন পুরোহিত, কোন ক্ষমতাপন্ন লোক, কোন রাজার তোষামোদ করবারও আবশ্যক নেই। বিশদ

08th  August, 2020
 সাহিত্য

 আমি কী বোঝাব তোমাদের কাকে বলে সাহিত্য, কাকে বলে চিত্রকলা। বিশ্লেষণ ক’রে কি এর মর্মে গিয়ে পৌঁছতে পারি। কোন্‌ আদি উৎস থেকে এর স্রোতের ধারা বাহির হয়েছে এক মুহূর্তে তা বোঝা যায়, যখন সেই স্রোতে মন আপনার গা ভাসিয়ে দেয়। বিশদ

07th  August, 2020
 অহং

 মানুষের ‘আমি’-বোধটি জড়িয়ে আছে পাঁচটি সত্তা বা কোশকে নিয়ে। সাধক চেষ্টা করেন তার ‘অহং’কে ঐ কোশগুলি থেকে আলাদা করতে। এভাবে সব কোশ থেকে মুক্ত হলেই ‘আমি’-বোধের প্রকৃত স্বরূপ প্রকাশিত হয়, সাধক আত্মজ্ঞান লাভ করেন। এই যে বিশেষ সাধন, এর কথা বিভিন্ন উপনিষদে বলা হয়েছে, রয়েছে পঞ্চদশী, বিবেকচূড়ামণি, দৃগদৃশ্যবিবেক ইত্যাদি বইয়ে। পাতঞ্জল-যোগসূত্রেও এর কথা আছে।
বিশদ

06th  August, 2020
 ধ্যান

ধ্যানে ‘আমি’-বোধকে অনেকক্ষণ ধরে রাখতে পারলে সাধক মনোময় কোশ ত্যাগ করে বিজ্ঞানময় কোশে উঠে যান। একটি কোশ থেকে অন্য কোশে ওঠার সময় সাধক কতকগুলি বাধার সম্মুখীন হন।
বিশদ

05th  August, 2020
 মা

 আমার মাকে আমি সহস্ররূপে সহস্র ভাবে সহস্রনয়নে, সহস্রবার দেখিতে চাই। শুধু একটী রূপের ভাতি লইয়া নয়ন-সম্মুখে দাঁড়াইলেই মাতৃ-দর্শন-পিয়াসী সন্তানের পিপাসা মিটিবে না। তাঁর জীবনে শুধু একটী ভাবের লীলা-বৈচিত্র্য দেখিলেই আমি তুষ্ট হইব না, বহু যুগ পরে পরে একটীবার করিয়া মা আবির্ভূতা হইলেই আমার আশা মিটিবে না।
বিশদ

04th  August, 2020
আমি 

মানুষের ‘আমি’-বোধটি জড়িয়ে আছে পাঁচটি সত্তা বা কোশকে নিয়ে। সাধক চেষ্টা করেন তার ‘অহং’কে ঐ কোশগুলি থেকে আলাদা করতে। এভাবে সব কোশ থেকে মুক্ত হলেই ‘আমি’-বোধের প্রকৃত স্বরূপ প্রকাশিত হয়, সাধক আত্মজ্ঞান লাভ করেন।
বিশদ

03rd  August, 2020
অমৃতকথা 

বিদ্যার অহঙ্কার, জ্ঞানের অহঙ্কার আর অর্থের অহঙ্কার—এইগুলো যাদের কথায় ও কাজে প্রকাশ পায়, তাদের কখনো আত্মজ্ঞান লাভ হয় না। তাদের যদি কেউ বলে,—“চলুন না, অমুক জায়গায় একজন সৎ-সাধু এসেছেন, তাঁকে দর্শন ক’রে আসি”, তবে তার উত্তরে তারা একটি ওজর খুঁজে বার করবে যাতে সেখানে যেতে না হয়।  বিশদ

02nd  August, 2020
অমৃতকথা 

ধর্মের যথার্থ সংস্কৃত শব্দ ‘দর্শন’। এই ‘দর্শন’ শব্দটির দুটি অর্থ আছে। এর অর্থ দর্শন বা অনুভূতি—যে পথে অনুভূতি লাভ করা যায়, সাধনা এর আর একটি অর্থ। ধর্ম বলতে এদের উভয়কেই বুঝতে হবে।  বিশদ

01st  August, 2020
অমৃতকথা 

মানুষের আসল অভাবটা হচ্ছে ভগবানকে-না-পাওয়ার অভাব—সেই বিরাট অভাবটাই মূল অভাব। কিন্তু ঠাকুর খুব ফাঁকি দিতে জানেন, তাই ছোট ছোট নানান্‌ অভাব দিয়ে সেই বিরাট অভাবকে ভুলিয়ে রাখেন।  বিশদ

31st  July, 2020
অমৃতকথা 

মনই মানুষকে জ্ঞানী বা অজ্ঞানী করে, বদ্ধ বা মুক্ত করে। কেউ পবিত্র হয় তার মনের জন্য, দুষ্ট হয় মনের জন্য, পাপী হয় মনের জন্য আর কাউকে ধার্মিক করে সেই মনই। তাই যার মন সর্বদা ঈশ্বরে যুক্ত তার আর অন্য সাধনের দরকার নেই।  বিশদ

30th  July, 2020
অমৃতকথা 

সংসারে বাস ক’রে যারা মোক্ষলাভের জন্য সাধনা করে তারা সুরক্ষিত কেল্লার ভেতর থেকে যুদ্ধ করা সৈনিকদের মতো। আর যারা ঈশ্বরলাভের জন্য সংসারত্যাগ করেছে তারা যেন খোলা মাঠে দাঁড়িয়ে যুদ্ধ করা সৈনিক।   বিশদ

29th  July, 2020
ভয় করো না 

যাকে খুঁজতে গিয়ে বাক্য মন সহ ফিরে আসে, মনের সঙ্গে ফিরে আসে অর্থাৎ বাক্য যাকে ধরতে পারে না, মন যাকে ধরতে পারে না, সেই আনন্দস্বরূপ ব্রহ্মকে, সেই পরমপুরুষকে যে জেনেছে সে কেন কিছু থেকেই ভয় পায় না।   বিশদ

28th  July, 2020
 ঈশ্বরের ধ্যান

কিছু ব্রাহ্ম যুবক আমাকে (স্বামী অভেদানন্দ) একবার বলে যে, তারা জনকের উদাহরণ সামনে রেখে নির্লিপ্তভাবে সংসারে বাস করছে। সে কথা শুনে তাদের আমি বলি যে ওরকম কথা মুখে বলা সোজা, কিন্তু সত্যসত্যই জনকের মতো হওয়া অতো সহজ নয়। বিশদ

27th  July, 2020
 সংসার

একজন জিজ্ঞাসুকে ভগবান শ্রীরামকৃষ্ণ বললেন,—“দ্যাখো, জীবনের বেশীরভাগ সময়টা সংসারে কাটিয়ে এখন ঈশ্বরের অন্বেষণ করছো। তার বদলে আগে ঈশ্বরকে জেনে তারপর যদি সংসারে প্রবেশ করতে তবে আজ কতো শান্তি ও আনন্দ পেতে?”
বিশদ

26th  July, 2020
কর্ম, জ্ঞান, ভক্তির

ঋষিরা বলছেন, কর্ম, জ্ঞান, ভক্তির মধ্যে কর্মকাণ্ড কী বিশাল—‘ভূরিকর্মাণি’। এতে স্থান, কাল, পাত্র, দ্রব্য, মন্ত্র, যজমান সব শুদ্ধি চাই! এর কোনওটিই কলিজীবের পক্ষে করা সম্ভব নয়।
বিশদ

25th  July, 2020
একনজরে
এক দশকের ‘টার্গেট’। ২০২০ থেকে ২০৩০। রাজ্যের প্রতিটি পুর শহরের চালচিত্র বদলে ফেলতে দশম-বার্ষিকী পরিকল্পনা নিল রাজ্য সরকার। উম-পুনের ক্ষত মেরামত ও কোভিডের মোকাবিলা থাকছে অগ্রাধিকারের তালিকায়। ...

 কয়লার গুণগত মান বজায় রাখতে আন্তর্জাতিক স্তরের উপদেষ্টা সংস্থা নিয়োগ করতে চলেছে কোল ইন্ডিয়া লিমিটেড। ...

 আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার লক্ষ্যে আবার অনুশীলনে ফিরতে চলেছেন বাংলাদেশের তারকা ক্রিকেটার শাকিব আল হাসান। আগামী ২৯ অক্টোবর শেষ হতে চলেছে এই অলরাউন্ডারের নির্বাসন। ...

 দাম্পত্য অশান্তির জেরে বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করলেন স্ত্রী। ঘটনাটি ঘটেছে বিষ্ণুপুর থানার বগাখালি এলাকায়। মৃতার নাম রেণুকা সর্দার (৫৩)। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

ছোটখাট আঘাত লাগার সম্ভাবনা। নিকট আত্মীয় থেকে মানসিক কষ্ট পাওয়ার সম্ভাবনা। বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রছাত্রীরা বেশি ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

নাগাসাকি দিবস
বিশ্ব আদিবাসী দিবস

১৭৭৬: ইতালির রসায়নবিদ আমাদিও অ্যাভোগাদ্রোর জন্ম
১৯৩১: ব্রাজিলের ফুটবলার তথা কোচ মারিও জাগালোর জন্ম
১৯৪৫: দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে জাপানের নাগাসাকি শহরে আমেরিকার ফেলা পরমাণু ৩৯ হাজার মানুষের মৃত্যু
১৯৭০ – বিপ্লবী ত্রৈলোক্যনাথ চক্রবর্তীর মৃত্যু
১৯৭৪: ওয়াটার গেট কেলেঙ্কারির কারণে মার্কিন প্রেসিডেন্ট রিচার্ড নিকসনের পদত্যাগ
২০০৮: গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিকে পুরুষদের ৪০০ মিটার ফ্রিস্টাইল সাঁতার প্রতিযোগিতা শুরু হয়।



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৩.১৬ টাকা ৭৬.৮৮ টাকা
পাউন্ড ৯৫.৮৩ টাকা ১০০.৯৯ টাকা
ইউরো ৮৬.৪৮ টাকা ৯১.১৫ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
08th  August, 2020
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৫৬,৯৬০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৫৪,০৪০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৫৪,৮৫০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৭৫,০৩০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৭৫,১৩০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
08th  August, 2020

দিন পঞ্জিকা

২৪ শ্রাবণ ১৪২৭, রবিবার, ৯ আগস্ট ২০২০, যষ্ঠী অহোরাত্র। রেবতীনক্ষত্র ৩৪/৩৮ রাত্রি ৭/৬। সূর্যোদয় ৫/১৪/৫৮, সূর্যাস্ত ৬/৯/১২। অমৃতযোগ প্রাতঃ ৬/৬ গতে ৯/৩২ মধ্যে। রাত্রি ৭/৩৮ গতে ৯/৬ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ ৬/৬ মধ্যে পুনঃ ১২/৫৮ গতে ১/৫০ মধ্যে। রাত্রি ৬/৫৪ গতে ৭/৩৮ মধ্যে পুনঃ ১২/৪ গতে ৩/২ মধ্যে। অমৃতযোগ প্রাতঃ ৬/৬ গতে ৯/৩২ মধ্যে। রাত্রি ৭/৩৮ গতে ৯/৬ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ প্রাতঃ ৬/৬ মধ্যে পুনঃ ১২/৫৮ গতে ১/৫০ মধ্যে। রাত্রি ৬/৫৪ গতে ৭/৩৮ মধ্যে পুনঃ ১২/৪ গতে ৩/২ মধ্যে। বারবেলা ১০/৫ গতে ১/১৯ মধ্যে। কালরাত্রি ১/৫ গতে ২/২৮ মধ্যে।
২৪ শ্রাবণ ১৪২৭, রবিবার, ৯ আগস্ট ২০২০, যষ্ঠী শেষরাত্রি ৪/৩৩। রেবতীনক্ষত্র সন্ধ্যা ৬/২৪। সূর্যোদয় ৫/১৪, সূর্যাস্ত ৬/১২। অমৃতযোগ দিবা ৬/১০ গতে ৯/৩২ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/২৮ গতে ৮/৫৯ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ দিবা ৬/১০ মধ্যে ও ১২/৫৪ গতে ১/৪৪ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/৪২ গতে ৭/২৮ মধ্যে ও ১১/১ গতে ৩/৩ মধ্যে। বারবেলা ১০/৬ গতে ১/২০ মধ্যে। কালরাত্রি ১/৬ গতে ২/২৯ মধ্যে।
 ১৮ জেলহজ্জ

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
রাজ্যে করোনায় মৃত্যু ২ হাজার ছাড়াল
রাজ্যে করোনায় মৃত্যু ২ হাজার ছাড়াল। এ পর্যন্ত মোট ২০০৫ ...বিশদ

08-08-2020 - 09:06:41 PM

কাজিরাঙ্গায় শিকারির গুলিতে মৃত গণ্ডার 
অসমের কাজিরাঙ্গা অভয়ারণ্যে আজ সকালে একটি মৃত গণ্ডার উদ্ধার করা ...বিশদ

08-08-2020 - 04:35:00 PM

গুজরাতে রাসায়নিক কারখানায় ভয়াবহ আগুন 
 গুজরাতের একটি রাসায়নিক কারখানায় ভয়াবহ আগুন লাগল। আজ শনিবার ঘটনাটি ...বিশদ

08-08-2020 - 03:59:00 PM

কেরলে দুর্ঘটনাগ্রস্ত বিমানের ২৩ জন যাত্রী হাসপাতাল থেকে মুক্ত 
কেরলে দুর্ঘটনাগ্রস্ত বিমানের ২৩ জন যাত্রীকে সুস্থ অবস্থায় হাসপাতাল থেকে ...বিশদ

08-08-2020 - 03:45:00 PM

কেরলের বিমান দুর্ঘটনায় নিহত ও আহতদের আর্থিক সাহায্য ঘোষণা কেন্দ্রের
কেরলের কোঝিকোড়ে বিমান দুর্ঘটনায় নিহত ও আহতদের আর্থিক সাহায্য ঘোষণা ...বিশদ

08-08-2020 - 02:09:37 PM

করোনা: কোন কোন দেশ বেশি আক্রান্ত? 
করোনায় আক্রান্তের বিচারে তালিকায় শীর্ষে রয়েছে আমেরিকা। এদেশে করোনায় আক্রান্ত ...বিশদ

08-08-2020 - 01:33:00 PM