Bartaman Patrika
অমৃতকথা
 

 শ্রীম

 অটল সংকল্প ও স্থির সিদ্ধান্তের মানুষ ছিলেন শ্রীম। তাঁর চরিত্রে ছিল কঠোর নিয়মানুবর্তিতা। যে মহৎ আদর্শকে তিনি অপরিহার্য, মূল্যবোধ এবং আলোকসন্ধানী বলে অবলম্বন করতেন, কখনো তাদের জলাঞ্জলি দিতে কোনো আপোষ রফা করেননি। পরবর্তী ঘটনাদিতে তাঁর চরিত্রের আর একটি দিক উজ্জ্বল হয়ে উঠেছে। সুবোধ, পরে যিনি হন স্বামী সুবোধানন্দ, শ্রীম-র ছাত্র ছিলেন। একবার শ্রীরামকৃষ্ণ তাঁকে বলেন সে যেন মাসে মাসে শ্রীম-র কাছে যায়। তখন সুবোধ তাঁকে জানান যে একজন গৃহীর কাছে তাঁর কিছু শেখার আশা নেই। ঠাকুরকে তিনি যা বলেছিলেন, একবার সেটা খোলাখুলি শ্রীমকে জানিয়ে দেন। ছেলেটির সরলতার প্রশংসা করে শ্রীম বলেন, ‘আমি নগণ্য ব্যক্তি। নেহাৎ সমুদ্রের ধারে বসে আছি, তাই দু-এক কলসি জল তুলে রাখি। কেউ এলে তাই দিয়েই অভ্যর্থনা করি তাকে। আমার আর বলার আছে টা কি?’ যে লোক কেবল মুখে নয়, সত্যি সত্যি মন থেকে এমন কথা বলতে পারেন, তাঁর মধ্যে মহত্বের উপাদান কিছু না কিছু তো থাকবেই। শ্রীম যথেষ্ট বিনয়ী ছিলেন, সমগ্র কথামৃতে ইচ্ছে করে লুকিয়ে রেখেছেন নিজেকে। এমনকি ঠাকুর তাঁকে যে সব তীব্র ভর্তসনাকরতেন, তার কোনোটাই দেননি। শ্রীম ও তাঁর কীর্তি সম্বন্ধে ক্রিস্টোফার ইশারউড বলেছিলেন, আমাদের এবং ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কথা ভেবে যে কাজ শ্রীম করে গেছেন, তাঁর গুরুত্ব অস্বীকার করা যায় না। এরকম কাজের দায়িত্ব কাঁধে পড়লে গর্বান্ধতম লেখকের দর্পও একেবারে চূর্ণ হয়ে যেতো। তিলমাত্র অহংকার ছিল না শ্রীম-র জীবনে।
জীবনের গোড়ার দিকে শ্রীম-র মনে স্বতঃস্ফূর্তভাবেই সাধুসঙ্গের ইচ্ছে হতো। বলা যায়, এটাই ছিল তাঁর নেশা। চরিত্রের এই স্বাভাবিক প্রবণতাই পরবর্তীকালে তাঁকে ঠাকুরের কাছে টেনে আনে। প্রথম দিকের দেখাসাক্ষাৎ যথা সময়ে অন্তরঙ্গ শিষ্যত্বে পরিণত হয়। শ্রীরামকৃষ্ণ এবং শ্রীম-র ঐতিহাসিক সাক্ষাৎকার নিয়তির বিধান। তাঁদের ঘনিষ্ঠতা বহুবাঞ্ছিত ও প্রেরণাদায়ক হওয়া সত্ত্বেও শ্রীম-র মনের প্রাথমিক অবসাদ কাটিয়ে দিয়ে তাঁকে শান্তি দিতে পারেননি শ্রীরামকৃষ্ণ। জীবনটাকে শেষ করে দেওয়ার চিন্তা তখনও তাঁর মাথায় ঘুরছিল। তাঁর মনের খবর পেয়ে বিষাদের লেশটুকুও মুছে দিলেন ঠাকুর তাঁর দিব্য আশ্বাস দিয়ে। তাঁর কথা শান্ত প্রলেপের মতো হৃদয়জ্বালা জুড়িয়ে দিল, তাঁর মধ্যে জেগে উঠল নতুন এক জীবন-জোয়ার। ঠাকুরের স্নেহমাখা যে কটি কথা তাঁর নতুন দৃষ্টি খুলে আশার আলো দেখিয়েছিল, সেগুলি লক্ষবার আবৃত্তি করার অপেক্ষা রাখে, ‘ঈশ্বর না করুন, কেন এই জীবন ছেড়ে যাবে? গুরুকে পেয়ে নিজেকে ধন্য ভাবছ না তুমি? যা জল্পনা বা স্বপ্নেরও অতীত, গুরুর কৃপায় তা সহজেই মেলে।’ শেষ বয়সে আবেগপূর্ণ কন্ঠে শ্রীম বলতেন, ‘দেখো, কোথায় জীবনটাকে শেষ করে দেবার ইচ্ছে আর কোথায় ভগবানকে খুঁজে পাওয়া! তাই তো বলি, দুঃখকষ্টই মানুষের বন্ধু। ঈশ্বর পরম মঙ্গলময়।’ এই সংসার ‘ধোঁকার টাটি’, কঠিন ঠাঁই প্রত্যেকের কাছে। একমাত্র সিদ্ধ পুরুষরাই আমাদের শান্তিসদনের পথ দেখাতে পারেন। ঠিকই বলেছিলেন শ্রীম, ‘গুরু না থাকলে, আত্মহত্যার যুক্তিটা চমৎকার।’
অবতাররা যা বলেন তা ঈশ্বরীয় ক্ষমতাই প্রকাশ। তাঁদের অকপট সারল্য এবং অন্তঃশুদ্ধতায় মানুষ মুগ্ধ হয়। প্রত্যেকের উত্তর হয় স্পষ্ট, সহজ, সোজাসুজি এবং বোধগম্য। ঠাকুরের সহজাত পবিত্রতা ও গভীর আধ্যাত্মিক জ্ঞান তাঁর কথার ভিতর দিয়ে শ্রীম-র মনে দাগ কেটেছিল।
স্বামী তথাগতানন্দের ‘আভাসিত আলো’ থেকে
05th  August, 2019
শরীরের সঙ্গে মনের কি সম্বন্ধ

ধর্মের গভীর অনুশীলনে ইহা যেমন মনের সহায়ক, আবার মুমুক্ষুকে সহজেই অতীন্দ্রিয় রাজ্যে পৌঁছে দিতে সাহায্য করে। পূর্বাধ্যায়ে আলোচিত সত্যের ন্যায় এতেও কিছুটা সত্যের আভাস পাওয়া যায়। কিন্তু প্রাণায়াম-সাধনার অতি প্রয়োজনীয় শর্তগুলি অসতকতাবশতঃ উপেক্ষা করা হয়ে থাকে।
বিশদ

কলিতে গোপাল জাগ্রত

কলৌ জাগর্ত্তি গোপালঃ। কলিতে গোপাল জাগ্রত। কোন্‌ সুদূর দ্বাপর যুগে এসেছিলেন ভগবান্‌ নন্দদুলাল ব্রজের গোপাল রূপে। স্থূল দেহে ধূলার ব্রজে লীলা ক’রে গেলেন সেই হারিয়ে যাওয়া শত শত বৎসর আগে। অথচ শাস্ত্র বলছেন—এই কলিতে তিনি বিশেষ ভাবে জাগ্রত। অর্থাৎ কলির জীবের কাছে তিনি বিশেষ ভাবে জাগ্রত। 
বিশদ

21st  January, 2020
ধর্মজীবন

আমরা এ পর্যন্ত যা বলে এসেছি তাতে অনেকে মনে করতে পারেন যে, ধর্মজীবন-প্রস্তুতির সহায়করূপে জ্ঞানচর্চা, কলাবিদ্যা, কার্যকলাপ প্রভৃতির অনুশীলন বুঝি আধ্যাত্মিকতার অপরিহার্য অঙ্গ। এটি অবশ্য একটি অপসিদ্ধান্ত। অনেকেই মনে করেন—বিশেষতঃ যাঁরা ইংলণ্ডের প্রোটেস্টাণ্ট সংস্কৃতিতে পুষ্ট—যে মস্তিষ্ক, হৃদয় ও বাহুর সমন্বিত বিকাশই হচ্ছে আধ্যাত্মিকতা। 
বিশদ

20th  January, 2020
কর্ম

ভারতবর্ষ শাশ্বত সনাতন ধর্মের দেশ। তার অমূল্য সম্পদ আধ্যাত্মিকতা। ভারতের এই অধ্যাত্ম-সম্পদ বিশ্বের দরবারে বহন করে নিয়ে গিয়েছিলেন স্বামীজী, এবং অভেদানন্দজী তা দ্বারে দ্বারে পৌঁছে দিয়েছিলেন।
বিশদ

19th  January, 2020
নীতিবোধের প্রয়োজনীয়তা 

ধর্মপথে ও ধর্মজীবনে নীতিবোধের প্রয়োজনীয়তা কেউ অস্বীকার করে না। বেশিরভাগ মানুষ তর্ক তোলে ধর্মজীবনে সূক্ষ্মানুভূতিলাভের আরও সহজ পথ বর্তমান, যা ধর্মসাধনের পক্ষে অত্যাবশ্যক শর্ত বলে আগেই আমরা উল্লেখ করেছি। অন্ততঃ এরূপ তিনটি পৃথক্‌ উপায়ের উল্লেখ এখানে করা যেতে পারে। 
বিশদ

18th  January, 2020
স্বামীজী 

আলমোড়ায় অবস্থানকালে আর একদিন স্বামীজী হিন্দু সভ্যতার চিরন্তন উপকূলে—আধুনিক চিন্তাতরঙ্গরাজির বহুদূর ব্যাপী প্লাবনের প্রথম ফলস্বরূপ রঙ্গদেশে যে-সকল উদার হৃদয় মহাপুরুষের আবির্ভাব হইয়াছিল, তাঁহাদিগের কথা বলিয়াছিলেন। রাজা রামমোহন রায়ের কথা আমরা ইতিপূর্বেই নৈনিতালে তাঁহার মুখে শুনিয়াছিলাম। 
বিশদ

17th  January, 2020
প্রার্থনা 

মানুষের জীবন নিত্য অভাব ও অভিযোগ ও প্রয়োজনে পরিপূর্ণ, সুতরাং তার কামনা থাকেই, কেবল দেহে প্রাণে নয়, কিন্তু মনে এবং আধ্যাত্মিক সত্তাতেও। যখন সে জানে যে জগৎ চলছে কোন উচ্চশক্তির নিয়ন্ত্রণে, তখন সে ঐ উচ্চশক্তির কাছে তার অভাব পূরণের জন্য প্রার্থনা জানায়, যাতে তার জীবনের বন্ধুর পথে ও কঠিন সংগ্রামে ভগবৎ সাহায্য ও আশ্রয় লাভ করতে পারে। 
বিশদ

16th  January, 2020
আত্মদর্শন

উদ্ধব, আমি সর্বজীবের অধীশ্বর। নিখিল জগৎ আমাতে অধিষ্ঠিত। তুমি সংযমী হইয়া সমাচিত-চিত্ত হও, পরমাত্মায় আত্মদর্শন কর—‘‘আত্মন্যাত্মানমীক্ষস্ব’’। তুমি আত্মস্থ হও, আত্মানুভবে সন্তুষ্ট থাক। আগন্তুক কোন বিঘ্ন-বিপদ্‌ তোমাকে বিহত করিতে পারিবে না— ‘‘আত্মানুভবতুষ্টাত্মা নান্তরায়ৈর্বিহন্যসে।।’’ 
বিশদ

15th  January, 2020
 ব্রহ্মসত্তা

যাহা স্পন্দশীল, তাহা ক্রিয়াশীল, ব্রহ্মে তাহাই উত্থিত। ঐ ক্রিয়াশীল অবস্থাই কলন করেন অর্থাৎ ধারণ করেন সর্ব্ববিধ সৃষ্টিকে। “কল নাশনে কল ধারণে”। ক্রিয়াশীলা শক্তির গুণ-কার্য্যানুযায়ী নাম শাস্ত্রে রহিয়াছে তাই “কালী”, এবং যাহা ক্রিয়াশূন্য অথচ ক্রিয়াময়-সর্ব্ব অবস্থাকে আপন হৃদয়ে দিয়া স্বয়ং আছেন নির্ব্বিকার ভাবে অবস্থিত; স্পন্দশূন্য ঐ শবরূপে তিনিই হইতেছেন “শিব”—আমাদের আলোচনার চরম ও পরম বিষয়-সেই নিরাকার নির্ব্বিকার সর্ব্বব্যাপী পরম ব্রহ্ম।
বিশদ

14th  January, 2020
মিলারেপা 

শিষ্যদের মধ্যে শীর্ষস্থানীয়রা নিবেদন করলেন, ‘প্রভু আমরা আপনার অন্তিম আদেশ ও নির্দেশের প্রয়াসী। এই মরদেহ পরিত্যাগ করে আপনি কোন্‌ লোকে অবস্থান করবেন সে কথা জানবার জন্যে আমাদের কৌতূহল হয়েছে। প্রার্থনার কালে আপনাকে আমরা কোন্‌ লোকে স্মরণ করবো? আপনার শেষ আদেশ বা অনুজ্ঞা যদি কিছু থাকে তাও আমরা জানতে চাই।’ 
বিশদ

13th  January, 2020
প্রত্যক্ষানুভূতিই ধর্ম্ম 

ভক্তের পক্ষে এই সকল শুল্ক বিষয় জানার প্রয়োজন, কেবল নিজ ইচ্ছাশক্তিকে দৃঢ় করা মাত্র। এতদ্ব্যতীত উহাদের আর কোন উপযোগিতা নাই। কারণ তিনি এমন এক পথে বিচরণ করিতেছেন, যাহা শীঘ্রই তাঁহাকে যুক্তির কুহেলিকাময় ও অশান্তিপ্রদ রাজ্যের সীমা ছাড়াইয়া প্রত্যক্ষানুভূতির রাজ্যে লইয়া যাইবে; তিনি শীঘ্রই ঈশ্বরকৃপায় এমন এক অবস্থায় উপনীত হন, যেখানে পাণ্ডিত্যাভিমানিগণের প্রিয় অক্ষম যুক্তি অনেক পশ্চাতে পড়িয়া থাকে, আর বুদ্ধির সাহায্যে অন্ধকারে বৃথান্বেষণের স্থানে প্রত্যক্ষানুভূতির উজ্জ্বল দিবালোকের প্রকাশ হয়।  
বিশদ

12th  January, 2020
দস্যুর সাধুত্বে উত্তরণ 

ভগবান শ্রীহরিচাঁদ মানব জন্ম গ্রহণ করে নিজে আত্মসমর্পণ করে জীবকে আত্মসমর্পণ শিক্ষা দিলেন। নিজে হরিনামে আত্মসমর্পণ করে নামে প্রেমে মাতোয়ারা হয়ে দিন যাপন করতে লাগলেন, পুত্র কন্যা ঘর সংসার সব কিছু বিস্মৃত হয়ে সর্বদা নাম সুধা পানে মত্ত হলেন। ভক্তগণ চাঁদের চতুর্দিকে তারকা মণ্ডলীর ন্যায় তাঁকে ঘিরে নাম সুধা পান করতে লাগলেন। 
বিশদ

11th  January, 2020
 মিলা

 কোন কোন ভাগ্যবান মিলার মুখের পানে চেয়ে থাকতে থাকতে প্রত্যক্ষ করে জ্যোতিসমুদ্রে জ্যোতির্ময়ের আবির্ভাব—আকাশজোড়া মেঘের মত সুবিশাল, আদিত্যের মত বর্ণ—স্নিগ্ধ নয়নাভিরাম পরমানন্দের রূপ। বিশদ

10th  January, 2020
ব্রজবিরহ

ব্রজবাসী সব শ্রীকৃষ্ণবিরহ কাতর। শ্রীকৃষ্ণ ব্রজবিরহে মম্মাহত, ব্রজজনের কাতরতার কথা ভাবিয়া অধিকতর ব্যথাহত। যাহাতে এই বিরহ-বেদনা বিন্দুমাত্র ঘুচিতে পারে এমত কোন সুষ্ঠু উপায় পরিদৃষ্ট হইতেছে না। যদুনাথের এখন মথুরা ছাড়া সম্ভব নয়। ব্রজজনের ব্রজের বাতাবরণ ছাড়া সম্ভব নয়। 
বিশদ

09th  January, 2020
চতুষ্টয়

বর, অভয়, অসি ও মুণ্ড মায়ের চারিহাতে। উহাদের রহস্য আর কিছুই নহে—ইহারা উপায় চতুষ্টয়-সাম, দান, ভেদ ও দণ্ডের প্রতীক। বর শোভিত একটি বাহু সামের, অভয় শোভিত অপরটি দানের, অসি শোভিত বাহুটি ভেদনীতির ও মুণ্ডধৃত অন্য বাহুটি দণ্ডদানেরই চিহ্ন স্বরূপ। উক্ত উপায় চতুষ্টয় জননী তাঁহার বিশ্বরাষ্ট্র প্রতিপালন করেন ও শাসন করেন প্রিয় বচনে। ইহাই সামনীতি। 
বিশদ

08th  January, 2020
মননক্রিয়া

মানবধর্মের সংজ্ঞা নির্দেশ করে যোগবাশিষ্ঠতে বলা হয়েছে: ‘তরুলতাও জীবনধারণ করে, পশুপক্ষীও জীবনধারণ করে, কিন্তু সে-ই প্রকৃতরূপে জীবিত যে মননের দ্বারা জীবিত থাকে।’ অন্যান্য জীবজন্তু ও গাছপালা থেকে মানুষের এইখানেই তফাত। মনের জীবন মননক্রিয়া এবং সেই জীবনেই মনুষ্যত্ব। 
বিশদ

07th  January, 2020
একনজরে
 বিএনএ, বারাকপুর: বারাকপুর শিল্পাঞ্চলে আরও একটি জুট মিল বন্ধ হয়ে গেল। মঙ্গলবার সকালে টিটাগড়ের এম্পায়ার জুট মিল কর্তৃপক্ষ সাসপেনশন অব ওয়ার্কের নোটিস ঝুলিয়ে দেয়। এতে কাজ হারালেন প্রায় দুই হাজার শ্রমিক। মিল বন্ধের প্রতিবাদে এদিন বিক্ষোভ দেখান শ্রমিকরা। ...

 সংবাদদাতা, উলুবেড়িয়া: ‘দলের লোকেরা দাদাকে মেরেছে, শিবু ফোন করে দাদাকে ডেকে নিয়ে গিয়ে পরিকল্পনা করে খুন করেছে।’ মঙ্গলবার সকালে এই দাবি করলেন বাগনানের বাইনানের তৃণমূলের ...

 রাষ্ট্রসঙ্ঘ, ২১ জানুয়ারি (পিটিআই): শুধু ভারত নয়, বেকারত্ব বাড়ছে গোটা বিশ্বেই। এদেশে বেকারত্বের হার বৃদ্ধির অভিযোগকে মান্যতা দেয়নি কেন্দ্রীয় সরকার। কিন্তু বিশ্বে বেকারদের সংখ্যা যে ...

 নয়াদিল্লি, ২১ জানুয়ারি (পিটিআই): শিরোমণি অকালি দল সরে গেলেও দিল্লি বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির সঙ্গে জোট বেঁধেছে জেডিইউ। সোমবারই সেই ঘোষণা হয়েছে। সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন, এনআরসি ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কর্মরতদের সহকর্মীদের সঙ্গে সম্পর্ক ভালো থাকবে। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা ও ব্যবহারে সংযত থাকা দরকার। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৬৬৬: মুঘল সম্রাট শাহজাহানের মৃত্যু
১৯০০ - টেলিপ্রিন্টার ও মাইক্রোফেনের উদ্ভাবক ডেভিট এ্যাডওয়ার্ড হিউজ।
১৯০১: রানি ভিক্টোরিয়ার মৃত্যু
১৯২৭ - প্রথমবারের মতো বেতারে ফুটবল খেলার ধারাবিবরণী প্রচার।
১৯৭২: অভিনেত্রী নম্রতা শিরোদকরের জন্ম





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৩৬ টাকা ৭২.০৬ টাকা
পাউন্ড ৯০.৯৮ টাকা ৯৪.২৫ টাকা
ইউরো ৭৭.৫৪ টাকা ৮০.৪৯ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪০,৫৩০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৮,৪৫৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৯,০৩০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৬,৬৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৬,৭৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৭ মাঘ ১৪২৬, ২২ জানুয়ারি ২০২০, বুধবার, ত্রয়োদশী ৪৮/৩৬ রাত্রি ১/৪৯। মূলা ৪৪/৫৩ রাত্রি ১২/২০। সূ উ ৬/২২/৩৮, অ ৫/১৩/২৬, অমৃতযোগ দিবা ৭/৪৯ মধ্যে পুনঃ ১০/০ গতে ১১/২৬ মধ্যে পুনঃ ৩/২ গতে ৪/২৮ মধ্যে। রাত্রি ৬/৫ গতে ৮/৪৩ মধ্যে পুনঃ ২/০ গতে উদয়াবধি। বারবেলা ৯/৫ গতে ১০/২৬ মধ্যে পুনঃ ১১/৪৭ গতে ১/৯ মধ্যে। কালরাত্রি ৩/৬ গতে ৪/৪৪ মধ্যে।
৭ মাঘ ১৪২৬, ২২ জানুয়ারি ২০২০, বুধবার, ত্রয়োদশী ৮৯/২৭/৪৪ রাত্রী ২/১৩/৯। মূলা ৪৬/৪২/৪৪ রাত্রি ১/৭/৯। সূ উ ৬/২৬/৩, অ ৫/১১/৩৯, অমৃতযোগ দিবা ৭/৪৭ মধ্যে ও ১০/০ গতে ৪/৩৯ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/১৫ গতে ৮/৫০ মধ্যে ও ২/০ গতে ৬/২৬ মধ্যে। কালবেলা ৯/৭/২৭ গতে ১০/২৮/৯ মধ্যে, কালরাত্রি ৩/৭/২৭ গতে ৪/৪৬/৪৫ মধ্যে।
 ২৬ জমাদিয়ল আউয়ল

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
  হাসপাতালে কবি শঙ্খ ঘোষ
বিশিষ্ট কবি শঙ্খ ঘোষ অসুস্থ। মঙ্গলবার দুপুরে তাঁকে মুকুন্দপুরে ইএম ...বিশদ

21-01-2020 - 06:39:05 PM

  হাসপাতালে পিকে ব্যানার্জি
হাসপাতালে ভর্তি হলেন কিংবদন্তী ফুটবলার প্রদীপ কুমার ব্যানার্জি। আজ ...বিশদ

21-01-2020 - 05:01:50 PM


এনআরসি-র প্রতিবাদে পথে নামল এনআরএস মেডিক্যাল হাসপাতালের পড়ুয়ারা ...বিশদ

21-01-2020 - 05:00:00 PM

ইস্ট বেঙ্গল কোচের পদত্যাগ
টানা তিনটি ম্যাচে হারের পর পদত্যাগ করলেন ইস্ট বেঙ্গল কোচ ...বিশদ

21-01-2020 - 04:35:48 PM

সোশ্যাল মিডিয়ায় বিভ্রান্তিকর খবর ছড়ানোর অভিযোগে অপর্ণা সেনকে আইনি নোটিস  
সোশ্যাল মিডিয়ায় সিএএ সংক্রান্ত বিভ্রান্তিকর খবর ছড়ানোর অভিযোগে অভিনেত্রী তথা ...বিশদ

21-01-2020 - 04:20:42 PM

২০৫ পয়েন্ট পড়ল সেনসেক্স 

21-01-2020 - 04:04:33 PM