Bartaman Patrika
অমৃতকথা
 

শ্রীরামকৃষ্ণ আধ্যাত্মিক গগনে উজ্জ্বলতম তারকা

 অনিঃশেষ সেই আনন্দ, অদম্য সেই শক্তি। সে এক অনন্ত সুখের আকর। ধারণার উচ্চতায়, সুপ্রাচীন জ্ঞানের প্রকাশে, অন্তর্দৃষ্টির গভীরতায়, ধ্যানতন্ময় প্রশান্তিতে, ভক্তির উচ্ছ্বাস ও উদ্দীপনায়, সাধকজীবনের কঠোরতায়, বাণীর মনোহারিত্বে তাঁর জীবনকে সমৃদ্ধ অধ্যাত্মজীবনের বিস্ময়কর উদাহরণ। প্রসারিত দৃষ্টিসম্পন্ন, করুণার বারিধি, এক অতুলীয় বিশ্বতোমুখ প্রতিভার অধিকারী শ্রীরামকৃষ্ণ আধ্যাত্মিক গগনে উজ্জ্বলতম তারকার মতোই দেদীপ্যমান। স্বামীজী বলেছেন, ঠাকুরের নিজের জীবন উপনিষদের এক জীবন্ত ভাষ্য; বলা যায়, উপনিষদের আত্মা যেন মানুষের রূপ ধরে ভারতবর্ষের বিচিত্র ভাবধারার অন্তর্লীন ঐক্যকে তুলে ধরেছে ঠাকুরের মধ্যে। পাশ্চাত্য প্রত্যক্ষবাদে বিশ্বাসী কোনো অজ্ঞেয়বাদী বুদ্ধিজীবীই মরমী সাধকদের আধ্যাত্মিক অভিজ্ঞতাসমূহে বিশ্বাস রাখতে ইচ্ছুক নন। ঈশ্বরদর্শনের নিশ্চিত অভিজ্ঞতা যে যোগী সাধকের নির্ভর, তিনিই পারেন অজ্ঞেয়বাদীর সংশয় ছিন্ন করে তাঁকে ইতিবাচক উত্তর দিতে। শ্রীরামকৃষ্ণ ঈশ্বরকে সামনাসামনি দেখেছিলেন এবং বিবেকানন্দের মনে বিশ্বাস উৎপন্ন করার ক্ষমতা তাঁরই ছিল। খণ্ডকে অখণ্ডকে বলে ভুল করার ফলে অখণ্ড যার আয়ত্তের বাইরেই থাকে, সেই অহংতাড়িত মন ও যুক্তিতর্কের প্রতিস্পর্ধা অগ্রাহ্য করে সত্য সবসময় অবিচল হয়ে অবস্থান করে। যখন আমরা শ্রীরামকৃষ্ণের মধ্যে অতুলনীয় এবং অভূতপূর্ব এক আধ্যাত্মিক প্রকাশ লক্ষ করি, আমরা বিস্মিত হয়ে যাই তার প্রচণ্ড প্রাণশক্তিতে, তার অশেষ ক্ষমতায়, গভীর আনন্দময় করুণাঘন অভিব্যক্তিতে। এক অবিশ্বাসী পৃথিবীর চোখের সামনে তিনি খোলাখুলি উজাড় করে দিয়েছিলেন আধ্যাত্মিক সত্যের রত্নরাজী। যে সহজাত আধ্যাত্মিক ঐশ্বর্য তিনি প্রকাশ করতেন, তা ছিল বিস্ময়করভাবে বহুলাঙ্গ দ্যুতিময়। যেমন অবিশ্বাসীদের কাছে, তেমনি বিশ্বাসীদের কাছেও তিনি ছিলেন এক কঠিন সমস্যা। তাঁর আধ্যাত্মিক গভীরতায় বৈশিষ্ট্য ছিল এক বিরল প্রাণশক্তি যা আর পাঁচজনের মধ্যে ছড়িয়ে দেবার দুর্দমনীয় আবেগে উদ্দীপ্ত হতেন তিনি। কেবল আত্মার শক্তিতে নির্ভর করেই তিনি চলতেন। যে পরম সত্য তাঁর সত্তার অন্তরশায়ী, তার সঙ্গে নিরবচ্ছিন্ন যোগ থাকায় ঈশ্বরের প্রকৃত অস্তিত্ব ও তাঁর নিকট-সান্নিধ্য সম্পর্কে ছবির মতো বুঝিয়ে দিতে পারতেন মানুষকে। অখণ্ডতা সঙ্গতি পরাদৃষ্টি প্রভৃতি আধ্যাত্মিক জীবনের উচ্চতর সত্যগুলির প্রমাণভিত্তিক যথার্থতার প্রতিপাদনই ছিল সেইযুগের সবচেয়ে বড়ো প্রয়োজন। আত্মবোধের নিশ্চিন্ততায় নিমগ্ন শ্রীরামকৃষ্ণকে শুষ্ক বিচার বিশ্বাসহীনতার মরুভূমিতে মনে হতো একটি সবুজ মরূদ্যান। শ্রীঅরবিন্দ বলেছেন, পাঁচশো বছরে আর একজন রামকৃষ্ণের ভার পৃথিবী ধারণ করতে পারবেন না।
সাধক শ্রীরামকৃষ্ণের আর একটি অসাধারণ বৈশিষ্ট্য হল যে বিজ্ঞানীর মতো মনের গড়ন ছিল বলে তিনি কোনোকিছুই প্রমাণ ছাড়া মেনে নিতে পারতেন না। বিজ্ঞানের পথ ধরেই তাঁর সাধনা এগিয়েছিল। কোনো কিছু মেনে নেবার আগে গভীর পর্যবেক্ষণ, পরীক্ষা, গবেষণা এবং পুঙ্খানুপুঙ্খ বিচারের পর, তবে তিনি কোনো কিছু মেনে নিতে প্রস্তুত ছিলেন। ঠিক সেই কারণেই সংশয়ান্বিত পৃথিবীকে অধ্যাত্মজীবনের বাস্তবতা সম্পর্কে এত স্পষ্ট ও প্রত্যক্ষ পরিচয় দিতে সমর্থ হয়েছিলেন তিনি। মহৎ সত্যগুলিকে আবিষ্কার করার পর পরীক্ষিত সত্যের প্রদর্শনের ক্ষেত্রে তাঁর সত্তা প্রকৃতই একটি বীক্ষণাগারে পরিবর্তিত হয়েছিল। উপনিষদের বাণীর সত্যতার অভ্রান্ত প্রমাণ, রামকৃষ্ণের জীবনালোকে সমস্ত শাস্ত্রবচনই এক নতুন অর্থে প্রভাবিত হলো, নতুন জীবন পেল তাঁরা। তাই স্বামী বিবেকানন্দ বলেছেন—
‘শ্রীরামকৃষ্ণের জীবনের আশ্চর্য সন্ধানী আলোয় সমগ্র হিন্দু ধর্মের যথার্থ পরিপ্রেক্ষিতে আমাদের সামনে উদ্ভাসিত হয়ে ওঠে। শাস্ত্রসমূহে যে জ্ঞান তাত্ত্বিক স্তরে সীমাবদ্ধ ছিল, তার ব্যবহারিক রূপ দেখা গেল তাঁর জীবনে। ঋষি ও অবতারগণ যে বিষয়ে শিক্ষা দিতে চেয়েছিলেন, তাঁর জীবন দিয়ে তিনি তাই করলেন। শ্রীরামকৃষ্ণকে না জেনে বেদ, বেদান্ত, ভাগবত এবং অন্যান্য পুরাণসমূহের প্রকৃত অর্থ উপলব্ধি করা কারো পক্ষে কখনোই সম্ভব নয়।’
উপলব্ধিই ধর্মের মূল কথা। যে হৃদয় সত্যকে জানার জন্যে তৃষিত হয়ে আছে, কোনো বিশেষ ধর্মমত কি তাকে তৃপ্তি দিতে পারে? একমাত্র উপলব্ধিজাত দৃঢ় বিশ্বাসই সত্যসন্ধানের প্রক্রিয়ায় টাটকা বাতাসের ছোঁয়া এনে দিতে পারে। পরাদৃষ্টির অধিকারী হওয়া এবং ঈশ্বরের নানা রূপের মধ্যে অখণ্ড সত্তার উপলব্ধিই হলো আধ্যাত্মিক জীবনের লক্ষ্য। স্বামী
তথাগতানন্দের ‘আভাসিত আলো’ থেকে
30th  July, 2019
সুর 

আপন হ’তে বাহির হয়ে বাহিরে দাঁড়া
বুকের মাঝে বিশ্ব-লোকের পাবি সাড়া।
তাই বাউল-কবির গানটি শুধু কণ্ঠে নিয়ে বেরিয়ে পড়লেম। ঝরঝরে হাল্‌কা মনে বাইরের সকল রূপই ঝলকে ওঠে। তার বেঁধে নিলেন মনের বেহালাখানাতে উঁচু নিখাদে—একটু বাতাসেই ঝংকার লেগে সে বেজে ওঠে নানান্‌ সু঩রে।  
বিশদ

অমৃতকথা 

ধর্মের সহিত সংস্কৃতির সম্পর্ক অচ্ছেদ্য। ভারতীয় সংস্কৃতিরও বিস্ময়কর বিকাশ ঘটেছে ধর্মকে ভিত্তি করে। ধর্মচিন্তার অফুরন্ত সঞ্জীবনী সুধা থেকে প্রাণশক্তি সংগ্রহ করে যুগে যুগে নানা বিচিত্র রূপে ভারতীয় সংস্কৃতির প্রোজ্বল আত্মপ্রকাশ ঘটেছে।  বিশদ

18th  September, 2020
 মন

 ভগবানই হচ্ছেন সবচেয়ে আপনজন। তাঁর চেয়ে আপন আর কেউ নেই। যারা ভগবানকে ভালবাসে, তারাই ঠিক ঠিক মানুষকে ভালবাসে। বিশদ

16th  September, 2020
কর্মের রহস্য

 মানুষ শরীর বাক্য ও মন দ্বারা যাহা কিছু করে তাহাই কর্ম। জীবমাত্রই সকল অবস্থায় সর্বদা কোন-না-কোন কর্ম করে। ‘‘কর্মহীন হইলে শরীরযাত্রাও নির্বাহিত হয় না।’’ শারীরিক ও মানসিক ক্রিয়াই জীবনের লক্ষণ। বিশদ

15th  September, 2020
শ্রীরামকৃষ্ণের শক্তি সাধনার নবমাত্রা

 সাধারণের সামর্থ্য সীমার গন্ডি পেরিয়ে যাঁরা অসাধারণ বলয়ে প্রবেশাধিকার লাভ করেন এবং যাঁদের শক্তি সামর্থ্যের নূতন দিক-সীমা স্থাপন করে নিজেদের চিহ্নিত করে স্বমহিমায় সুদীর্ঘকাল মানব সমাজে ভাস্বর হয়ে থাকেন, এমন মহাপুরুষ ভারতীয় আধ্যাত্মিক সাধন সাম্রাজ্যে একাধিক। বিশদ

10th  September, 2020
ভূত-চতুর্দ্দশী

নরকাসুর নামে একজন অসুর রাজধানী দ্বারকার ওপর আক্রমণ করেছিল। কৃষ্ণ দ্বারকায় ছিলেন না, তখন তাঁর স্ত্রী সত্যভামা সেই অসুরের বিরুদ্ধে সংগ্রাম করেন ও অসুরকে বধ করেন। যেদিন অসুরকে বধ করা হয় সেটা ছিল কৃষ্ণা চতুর্দ্দশী তিথি। বিশদ

09th  September, 2020
বহুত্বের মধ্যে একত্বই প্রকৃতির নিয়ম

বহুত্বের মধ্যে একত্বই প্রকৃতির নিয়ম, হিন্দুগণ ইহা উপলব্ধি করিয়াছেন। অন্যান্য ধর্ম কতগুলি নির্দিষ্ট মতবাদ বিধিবদ্ধ করিয়া সমগ্র সমাজকে বলপূর্বক সেগুলি মানাইবার চেষ্টা করে। সমাজের সম্মুখে তাহারা একমাপের জামা রাখিয়া দেয়; জ্যাক, জন, হেনরি প্রভৃতি সকলেই ঐ একমাপের জামা পরিতে হইবে। বিশদ

08th  September, 2020
‘নারায়ণ’

ভীষ্ম বলেছিলেন—কোন মানব আচারহীন, ভক্তিবিহীন, লোকের কাছে অতি নিন্দনীয় হ’লেও তাতে তার কোন ক্ষতি নাই। ‘নারায়ণ’ এই শব্দমাত্র উচ্চারণ দ্বারা পাপ হ’তে বিশেষ রূপে মুক্তি লাভ ক’রে অমৃত প্রাপ্ত হন। বিশদ

07th  September, 2020
সত্যকাম 

 জবালার পুত্র সত্যকাম হারিদ্রুমত গৌতমের নিকট নিয়ে ব্রহ্মচর্য্যবাস প্রার্থনা কর্‌লে, গৌতম সত্যবাদী সেই সত্যকামকে উপনীত করে ক্ষীণ ও দুর্ব্বল চারিশত গো দিয়ে তাদের অনুগমন করতে বল্‌লেন। বিশদ

05th  September, 2020
“নারায়ণ” শব্দের আর
কোন অর্থ আছে?

“নারায়ণ” শব্দের আর কোন অর্থ আছে? আছে বৈকি।
সারূপ্যমুক্তিবচনো নারেতি চ বিদর্বুধাঃ।
যো দেবোহপ্যয়নং তস্য স চ নারায়ণঃ স্মৃতঃ।।  বিশদ

04th  September, 2020
প্রলাপ না সত্য 

একটি গল্প আছে যে, পঞ্চাশ বৎসর পূর্বে ভূকৈলাসের রাজারা আবাদের নিমিত্ত মাটি খনন করিতে-করিতে, মাটির নীচে সমাধিস্থ একজন মহাপুরুষকে পান। মহাপুরুষকে ভূকৈলাসে আনিয়া, সমাধিভঙ্গের নানাবিধ চেষ্টা হয়, কিন্তু কিছুদিন কোনোরূপে সমাধিভঙ্গ হইল না।  বিশদ

03rd  September, 2020
গুরুকৃপা

 “আমি শতাধিক বৎসর পাহাড়-পর্বত পরিভ্রমণ করে বড়ো রকমের একটা ধন কামাই করেছি। তোরা তো ব’সে ব’সে খাবি।” ঈশ্বরতুল্য ব্রহ্মবেত্তা পরম গুরু লোকনাথ বাবার কঠোর কর্ম-যোগলব্ধ ফল ভক্তদের অক্ষয় পৈতৃক সম্পত্তি। ভক্তমাত্রেরই ইহাতে সমান অধিকার বা হিস্যা রহিয়াছে! অটল বিশ্বাস, অচলা ভক্তি ও পূর্ণ নির্ভর যাঁহার সম্বল, তিনিই এ সম্পত্তির (গুরুকৃপার) চির উত্তরাধিকারী।
বিশদ

02nd  September, 2020
প্লাবন

 ভগবানের কথা অনুসারে জলপ্লাবন হইল এবং মনু নিজ পরিবার এবং সর্বপ্রকার জন্তুর এক এক জোড়া এবং সর্বপ্রকার উদ্ভিদের বীজ জলপ্লাবন হইতে রক্ষা করিলেন এবং প্লাবনের অবসানে তিনি ঐ নৌকা হইতে অবতরণ করিয়া জগতে প্রজা উৎপন্ন করিতে লাগিলেন—আর আমরা মনুর বংশধর বলিয়া ‘মানব’ নামে অভিহিত। বিশদ

01st  September, 2020
 শক্তি

শরীরের ভিতর এই যে শক্তির বিকাশ দেখা যাইতেছে, ইহা কি? আমরা সকলেই ইহা সহজে বুঝিতে পারি, ঐ শক্তি যাহা হউক, উহা জড়-পরমাণুগুলি লইয়া তাহা হইতে আকৃতি-বিশেষ—মনুষ্য-দেহ গঠন করিতেছে। অন্য কেহ আসিয়া তোমার আমার জন্য শরীর গঠন করে না।
বিশদ

31st  August, 2020
 নারায়ণ

 নারায়ণোনামনরোনরাণাং/ প্রসিদ্ধচৌরঃকথিতঃপৃথিব্যাম্‌।/ অনেকজন্মার্জ্জিতপাপসঞ্চয়ং/ হরত্যশেষংশ্রুতমাত্র এব।।
‘পরমাত্মা নারায়ণ’ এই নাম প্রসিদ্ধ চোর ব’লে পৃথিবীতে কথিত আছে। মানবগণের বহু জন্মার্জ্জিত পুঞ্জীভূত পাপরাশি শ্রবণ মাত্রেই হরণ করেন। ‘নারায়ণ’ নাম যেমন কর্ণে যাবে অমনি সঙ্গে সঙ্গে অনেক জন্মকৃত সমুদয় পাপ নষ্ট হ’য়ে যাবে?
বিশদ

30th  August, 2020
একনজরে
উত্তরপ্রদেশে ফের নাবালিকাকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠল এক যুবকের বিরুদ্ধে। গত শনিবার ঘটনাটি ঘটে বান্দা জেলায়। কিন্তু শুক্রবার ওই কিশোরীর মা স্থানীয় থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।   ...

সংবাদদাতা, পুরাতন মালদহ: পঞ্চায়েত অফিসের কাছেই, একটি দোকানের সামনের অংশে এক ব্যক্তির ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়াল হবিবপুর ব্লকের কেন্দপুকুর আকতৈল গ্রাম পঞ্চায়েতে। শুক্রবার সকালে এলাকার বাসিন্দারা দেহটি দেখতে পান। তাঁদের দাবি, ওই ব্যক্তিকে খুন করে সেখানে ঝুলিয়ে ...

সংবাদদাতা, রামপুরহাট: রামপুরহাটে তৃণমূল বিধায়কের নার্সিংহোমে হামলা ও ভাঙচুরের অভিযোগে তিনজনকে গ্রেপ্তার করল পুলিস। শুক্রবার ধৃতদের রামপুরহাট আদালতে তোলা হয়।  ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: করোনা পরিস্থিতির জন্য এমবিবিএস, বিডিএস, আয়ুষ, নার্সিং সহ বিভিন্ন চিকিৎসা পাঠ্যক্রমের বহু ছাত্রছাত্রীর পরবর্তী বছরে প্রোমোশন হয়নি। মার্কশিটও পাননি। ফলে বৃত্তিও আটকে গিয়েছে।   ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কথাবার্তা ও আচরণে সংযমের অভাবে বিপত্তির আশঙ্কা। কোনও হঠকারী বা দুঃসাহসিক কাজ না করাই ভালো। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯১৯- অভিনেতা জহর রায়ের জন্ম
১৯২১- সাহিত্যিক বিমল করের জন্ম
১৯২৪- গায়িকা সুচিত্রা মিত্রের জন্ম
১৯৬৫- মহাকাশচারী সুনীতা উইলিয়ামসের জন্ম  



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭২.৮৯ টাকা ৭৪.৬০ টাকা
পাউন্ড ৯৩.৫৫ টাকা ৯৬.৯১ টাকা
ইউরো ৮৫.১০ টাকা ৮৮.২১ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৫২,২৮০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৪৯,৬০০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৫০,৩৪০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৬৬,২৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৬৬,৩৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৩ আশ্বিন ১৪২৭, শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, দ্বিতীয়া ৯/১৬ দিবা ৯/১১। চিত্রা নক্ষত্র ৪৯/৪১ রাত্রি ১/২১। সূর্যোদয় ৫/২৮/২, সূর্যাস্ত ৫/৩২/৫৪। অমৃতযোগ দিবা ৬/১৫ মধ্যে পুনঃ ৭/৪ গতে ৯/২৯ মধ্যে পুনঃ ১১/৫৫ গতে ৩/৯ মধ্যে পুনঃ ৩/৫৮ গতে অস্তাবধি। রাত্রি ১২/৪২ গতে ২/১৭ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ রাত্রি ২/১৭ গতে ৩/৫ মধ্যে। বারবেলা ৬/৫৮ মধ্যে পুনঃ ১/১ গতে ২/৩১ মধ্যে পুনঃ ৪/২ গতে অস্তাবধি। কালরাত্রি ৭/৩ মধ্যে পুনঃ ৩/৫৮ গতে উদয়াবধি।  
২ আশ্বিন ১৪২৭, শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, দ্বিতীয়া দিবা ১২/২৯। হস্তানক্ষত্র দিবা ৭/৫৬। সূর্যোদয় ৫/২৭, সূর্যাস্ত ৫/৩৫। অমৃতযোগ দিবা ৬/২০ মধ্যে ও ৭/৭ গতে ৯/২৯ মধ্যে ও ১১/৪৮ গতে ২/৫৫ মধ্যে ও ৩/৪২ গতে ৫/৩৫ মধ্যে এবং রাত্রি ১২/৩৮ গতে ২/১৭ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ রাত্রি ২/১৭ গতে ৩/৬ মধ্যে। কালবেলা ৬/৫৮ মধ্যে ও ১/২ গতে ২/৩৩ মধ্যে ও ৪/৪ গতে ৫/৩৫ মধ্যে। কালরাত্রি ৭/৪ মধ্যে ও ৩/৫৮ গতে ৫/২৮ মধ্যে।  
মোসলেম: ১ শফর। 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
রাজ্যে করোনায় আক্রান্ত আরও ৩,১৯২ জন 
রাজ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৩,১৯২ জনের শরীরে মিলল করোনা ...বিশদ

18-09-2020 - 08:42:07 PM

ফের গুগল প্লে স্টোরে মিলবে পেটিএম অ্যাপ 
ফের গুগল প্লে স্টোরে মিলবে দেশের অন্যতম জনপ্রিয় ই-ওয়ালেট অ্যাপ ...বিশদ

18-09-2020 - 07:40:01 PM

পঞ্চায়েত অফিসের কাছেই
দোকানে মিলল ঝুলন্ত দেহ 

সংবাদদাতা, পুরাতন মালদহ: পঞ্চায়েত অফিসের কাছেই, একটি দোকানের সামনের অংশে ...বিশদ

18-09-2020 - 05:50:00 PM

মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণের জেরে মৃত্যু শর্বরী দত্তর
মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণের জেরে মৃত্যু হয়েছে শর্বরী দত্তর। ময়নাতদন্তের প্রাথমিক রিপোর্টে ...বিশদ

18-09-2020 - 05:41:00 PM

বনগাঁয় ধৃত ৩ বাইক চোর 
বাইক চুরির চক্রের সঙ্গে জড়িত তিনজনকে গ্রেপ্তার করল পুলিস। ধৃতদের ...বিশদ

18-09-2020 - 04:41:27 PM

হাবড়ায় জোড়া খুনের ঘটনায় ধৃত অভিযুক্ত 
হাবড়ায় প্রৌঢ় দম্পতি খুনের ঘটনার ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে কিনারা করল ...বিশদ

18-09-2020 - 04:16:42 PM