Bartaman Patrika
সম্পাদকীয়
 

সমানে চলছে টালবাহানা

প্রতিশ্রুতি দেওয়া এবং তা পালন না করা। মোদি সরকারের জমানায় এমন প্রবণতা বারবারই দেখা যাচ্ছে। কথা দিয়ে কথার খেলাপ করাটাই কেন্দ্রের এই সরকারের অন্যতম বৈশিষ্ট্য। তা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির দেওয়া প্রতিশ্রুতিই হোক অথবা শ্রমমন্ত্রী সন্তোষকুমার গঙ্গওয়ারের দেওয়া আশ্বাস। প্রতিটি ভারতবাসীর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ১৫ লক্ষ টাকা দেওয়ার প্রুতিশ্রুতি বা বেকারদের কর্মসংস্থানের প্রশ্নে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া কথা কোনওটাই কার্যকর হয়নি। প্রায় প্রতি ক্ষেত্রেই কথার খেলাপ হয়েছে। অথচ আচ্ছে দিন অর্থাৎ ভালোর দিন আনার স্বপ্ন জাগানো খুড়োর কলটি ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে কোটি কোটি ভারতবাসীর সামনে। বলা হয়েছে, সবকা সাথ, সবকা বিকাশ, সবকা বিশ্বাসের কথা। কিন্তু বিশ্বাসভঙ্গ হয়েছে বার বার। ভারতবাসীর স্বপ্নপূরণ করতে ব্যর্থ হয়েছে কেন্দ্রের এই সরকার। আর এই ব্যর্থতাকে আড়াল করতে কখনও সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের সাফল্যকে তুলে ধরা হয়েছে, কখনওবা দেশপ্রেম, জাতীয় ভাবাবেগ ইত্যাদি বিষয়কে সামনে এনেছে তারা। কখনও নেওয়া হয়েছে বিভাজনের রাজনীতিও। যাতে মানুষ ব্যতিব্যস্ত হয়ে থাকে। নোটবন্দি, আধার বিতর্ক, এনআরসি—এমন একের পর এক বিষয়কে আনা হয়েছে যাতে বিতর্ক চলতেই থাকে। আর মূল সমস্যাগুলি আড়ালেই থেকে যায়। মানুষের জীবনধারণের জন্য ন্যূনতম প্রয়োজন মেটাতেও যেন এই সরকার অপারগ। গরিব মধ্যবিত্ত সাধারণ মানুষের সম্মান নিয়ে বেঁচে থাকার অধিকারটুকু দিতেও তাদের এত কার্পণ্য! তার প্রমাণও বারবার পাওয়া গেছে সরকারের নানা কাজকর্মে। এই সরকার ধনী শ্রেণীর স্বার্থরক্ষায় যতটা বেশি তৎপর, ঠিক ততটাই উদাসীন গরিব মধ্যবিত্ত বিশেষত অবসরপ্রাপ্ত প্রবীণদের স্বার্থরক্ষার ব্যাপারে।
যে দেশে প্রধানমন্ত্রী তাঁর দেওয়া প্রতিশ্রুতি পালন করেন না সেখানে যে শ্রমমন্ত্রী তাঁর দেওয়া আশ্বাসপূরণ করবেন না তাতে অবাক হওয়ার কিছুই নেই। হায়দরাবাদে অছি পরিষদের বৈঠকে পেনশন বৃদ্ধি নিয়ে যে আশ্বাস তিনি দিয়েছিলেন তার থেকে ১৮০ ডিগ্রি সরকার ঘুরে গিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। কর্মচারী প্রভিডেন্ট ফান্ডের (ইপিএফ) ন্যূনতম মাসিক পেনশন দু’হাজার টাকা হলে সেই অতিরিক্ত আর্থিক দায়ভার বহন করা সম্ভব নয় বলে অছি পরিষদের বৈঠকে লিখিতভাবেই জানিয়ে দিয়েছে ইফিএফও। এখন ইপিএফের ন্যূনতম পেনশনের পরিমাণ মাত্র এক হাজার টাকা। ন্যূনতম মাসিক পেনশন দু’হাজার টাকা হলে পরবর্তী দু’বছরে পেনশন তহবিলে খরচ বৃদ্ধির পরিমাণ হবে প্রায় ৫০০ কোটি টাকা। সারা দেশে ইপিএফ পেনশন প্রাপককের সংখ্যা এখন প্রায় ৬৫ লক্ষ। ইপিএফের এই পেনশন বৃদ্ধির দাবিটি কিন্তু দীর্ঘদিনের। এই দাবি মেনে নেওয়ার প্রশ্নে কেন্দ্রের তরফের টালবাহানার শেষ নেই। যে কোনও সুস্থ মস্তিষ্কের মানুষই বোঝেন এখনকার দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির বাজারে এই ন্যূনতম এক হাজার টাকার পেনশনে কিছুই হয় না। ওই টাকায় জীবনধারণ করাটা একেবারেই অসম্ভব ব্যাপার। সর্বোপরি অবসরপ্রাপ্ত প্রবীণ মানুষগুলির হাতে ওইটুকু টাকা তুলে দেওয়াটাও যথেষ্ট অসম্মানজনক। সেই অসম্মানজনক কাজটি সরকার করে যাচ্ছে বছরের পর বছর। এর উপর আবার ব্যাঙ্কে জমা থাকা তাঁদের ফিক্সড ডিপোজিটের টাকার সুদের হারও ক্রমশই কমছে। তাই বাস্তবিক অর্থেই তাঁদের শোচনীয় অবস্থা। ইপিএফের পেনশনের টাকার অঙ্ক বৃদ্ধি পাবে—এই আশায় দিন কাটাচ্ছিলেন ওই প্রবীণরা। কিন্তু ন্যূনতম মাসিক পেনশন দু’হাজার টাকা হলে তার দায় বহন করা সম্ভব নয় বলে ইফিএফের বক্তব্যে প্রবীণ মানুষগুলির দুশ্চিন্তা আরও বেড়ে গেল। দায় সারতে ওই অবসরপ্রাপ্তদের পেনশনের পরিমাণ বাড়ানো হলে যে বিপুল আর্থিক দায়ভার তৈরি হবে, তার ফলে ঘাটতির পরিমাণ বৃদ্ধি পাবে, যা দীর্ঘমেয়াদে পেনশন তহবিলের উপর প্রভাব ফেলবে ইত্যাদি যুক্তিও খাড়া করা হয়েছে ইফিএফও-র তরফে। যুক্তি যাই থাক, অবসরপ্রাপ্ত প্রবীণ মানুষগুলি যে অত্যন্ত কষ্টে দিন কাটাচ্ছেন তা সরকারের বোঝা উচিত। কেন্দ্রের অর্থমন্ত্রকের সঙ্গে কথা বলেই এই বিষয়টির ইতিবাচক মীমাংসার প্রয়োজন।
আর্থিক মন্দার বিষয়টিকে সরকার যতই আড়াল করার চেষ্টা করুক না কেন অস্বীকার করার উপায় নেই যে এখন দেশের আর্থিক পরিস্থিতি আদৌ সুবিধাজনক নয়। এর মধ্যেই কিন্তু কোটি কোটি টাকা খরচ করেই এদেশে স্ট্যাচু মন্দির ইত্যাদি কত কিছুই না তৈরি হচ্ছে। ওই টাকা ব্যয়ের ক্ষেত্রে কিন্তু সরকারের অর্থের অভাব বা ঘাটতি ইত্যাদি প্রসঙ্গ ওঠে না। যত সমস্যা দেখা দেয় শ্রমিক স্বার্থ, গরিব মধ্যবিত্তের স্বার্থরক্ষার সময়। সরকারি নীতির কারণেই এই দেশে বড়লোক আরও বড়লোক হয় আর গরিব হয় আরও গরিব। কেন্দ্রের সরকারের মনে রাখা উচিত ইফিএফের পেনশন কিন্তু তাদের দয়ার দান নয়, তা অবসরপ্রাপ্ত কর্মচারিদের হকেরই পাওনা। আচ্ছে দিনের স্বপ্ন যারা দেখায় সেই মোদি সরকারের উচিত অবসরপ্রাপ্তরা যাতে অন্তত সম্মান বজায় রেখে বাকি জীবনটা কাটাতে পারেন সেই ব্যবস্থাটুকু করে দেওয়া।
12th  March, 2020
লড়ছেন মমতা

 আমরা মানুষকে নিয়ে লড়াই করি। মানুষের স্বার্থে লড়াই করি। এই কথাটা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে প্রায়ই বলতে শোনা যায়। করোনা মোকাবিলায় তিনি একেবারে সামনের দাঁড়িয়ে এই লড়াইয়ে নেতৃত্ব দিয়ে চলেছেন। বিশদ

  হুমকি বনাম সৌভ্রাতৃত্ব

 আতঙ্কের আবহে হুমকি! করোনার থাবায় যখন গোটা বিশ্ব থরহরিকম্প, তখনই ভারতের প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে হোয়াইট হাউস থেকে নজিরবিহীন ভাষায় ভেসে এল এক হুমকিবার্তা। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প হুঁশিয়ারি দিলেন, এই মারণ রোগ মোকাবিলায় ভারত হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন সরবরাহ না করলে তার ফল ভুগতে হবে নরেন্দ্র মোদির দেশকে।
বিশদ

09th  April, 2020
মমতা মডেল

 করোনা পরিস্থিতির দ্রুত অবনতি হচ্ছে। ভারতসহ সারা পৃথিবীতেই। এটা কোনও নতুন খবর নয়। এই মুহূর্তে নতুন খবরটি হল, কোভিড-১৯ চীনে নতুন করে ছড়াচ্ছে! সোমবার পর্যন্ত সে-দেশে নতুন করে ৩৯ জন আক্রান্ত হয়েছেন। বিশদ

08th  April, 2020
উৎসবের সময় আসেনি

 একদিকে ইতালি আর স্পেন থেকে আসছে স্বস্তির খবর। অন্যদিকে, আমেরিকা এবং ভারতের ছবিটা বেশ আতঙ্কেরই। ইতালি আর স্পেনের কয়েকদিনের খবরে দেখা যাচ্ছে, সেই দুটি দেশে মৃত্যুর হার ক্রমেই কমছে। সেখানে গ্রাফটা একটু নিম্নমুখী হয়েছে।
বিশদ

07th  April, 2020
মন্দার পূর্বাভাস বাড়াচ্ছে দুশ্চিন্তা

 করোনা ভাইরাসের প্রভাবে অর্থনৈতিক কার্যকলাপ স্তব্ধ হয়ে যাওয়ায় বিশ্ব মন্দা যে অবশ্যম্ভাবী, তা আগেই জানিয়েছিল আন্তর্জাতিক অর্থ ভাণ্ডার (আইএমএফ)। রাষ্ট্রসঙ্ঘও একই কথা বলছে। ২০০৯ সালের পরে আবার। এবার আর্থিক মন্দার সবচেয়ে বেশি প্রভাব পড়তে পারে উন্নয়নশীল দেশগুলিতে।
বিশদ

06th  April, 2020
করোনায় কি অপরাধও বাড়বে?

 বিশ্বজুড়ে করোনা ভাইরাস–সংক্রান্ত আর্থিক প্রতারণা বাড়ছে বলে সতর্ক করে দিয়েছে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিমিনাল পুলিশ অর্গানাইজেশন বা ইন্টারপোল। এই স্বাস্থ্য সঙ্কটে অনলাইনে কোনও চিকিৎসা সরঞ্জাম কেনাকাটার সময় ক্রেতাকে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছে আন্তর্জাতিক পুলিশ সংস্থা। বিশদ

05th  April, 2020
ধর্মের কাহিনী, শুনছে কে?

চোরায় না শুনে ধর্মের কাহিনী। বাঙালিকে ঠেকায় কে! ঘরবন্দি বঙ্গজ আঁতেলদের পাচনপ্রক্রিয়া কাজ করছে না চায়ের দোকানে তর্কের তুফান না তুললে। সে কারণে লকডাউনে ‘ঘোষিত’ সময়সীমা যত শেষের দিকে এগচ্ছে, ততই মানুষও যেন শেষের দিনের সর্বনাশের প্রহর গুনতে লেগেছে।
বিশদ

04th  April, 2020
করোনার বিরুদ্ধে আগামী
দু’সপ্তাহের লড়াই আরও কঠিন 

আগামী দু’টি সপ্তাহ খুব গুরুত্বপূর্ণ। আগামী দু’সপ্তাহেই ঠিক হয়ে যাবে, আমরা আমেরিকা হব কি না। এই দু’সপ্তাহেই ঠিক হয়ে যাবে, আমরা ইতালির সর্বনাশা রাস্তাকেই বেছে নিলাম কি না। এই দু’সপ্তাহেই প্রমাণ হয়ে যাবে, আমেরিকা, ইতালি, স্পেন থেকে আমরা সত্যিই কোনও শিক্ষা নিয়েছি কি না!   বিশদ

03rd  April, 2020
সাধু সাবধান 

করোনা দানবের তাণ্ডব চলছে বিশ্বজুড়ে। লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। মৃত্যু-মিছিল চলছে। এসময়ে এতটুকু গাফিলতি, নজরদারির অভাব বিপদ বাড়াতে পারে। যার জ্বলন্ত প্রমাণ রাজধানী দিল্লির ধর্মীয় সম্মেলনের ঘটনা।   বিশদ

02nd  April, 2020
ভুল পথ, ঠিক পথ

 রবিবার, ২৯ মার্চ দিনটি মহামারীর ইতিহাসে উল্লেখযোগ্য হিসাবে চিহ্নিত হয়ে রইল। কোভিড-১৯ সংক্রমণ ওই একদিনে (২৪ ঘণ্টায়) অতিরিক্ত ১ লক্ষ হল। সারা পৃথিবীতে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা সেদিন ছাপিয়ে গেল ৮ লক্ষ। অথচ তার আগের দিনও সংখ্যাটি ৬ লক্ষের কিছু বেশি ছিল। বিশদ

01st  April, 2020
উন্নত দেশ পারেনি, আমরা পারব

 আমরা কিছুটা সাবধান হয়েছি। এখন অনেক কিছুই অনেকে মেনে চলছি। কিন্তু আমাদের এখনও অনেকটাই সাবধান হতে হবে। সবাই আমরা যথার্থ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছি না। সকলকেই মনে রাখতে হবে, পৃথিবীজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে মৃত্যুর এক হানাদার।
বিশদ

31st  March, 2020
ভয়ের পরেই আসবে জয়

 করোনা ভাইরাসের প্রকোপে বিশ্বজুড়ে শুরু হয়েছে হাহাকার। শত চেষ্টা করেও তা আটকাতে পারছেন না কেউ। চীনের উহান থেকে শুরু হওয়া এই মৃত্যু মিছিল ইতালি, স্পেন ও ইরানকে বিধ্বস্ত করে এখন আমেরিকায় পৌঁছে গিয়েছে। বিশদ

30th  March, 2020
  সচেতন না হলে বিপদ বাড়বে

 সচেতনতার অভাব কীভাবে ঘরে বাইরে বিপদ ডেকে আনে তা চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিল নদীয়ার তেহট্টের ঘটনা। চিকিৎসকের পরামর্শ অগ্রাহ্য করার মাশুল গুনতে হচ্ছে ওই পরিবারটিকে। বিশদ

29th  March, 2020
দাঁতে দাঁত চেপে লড়াই চলুক

 এমন দৃশ্য কি সচরাচর দেখা যায়? স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী রাস্তায় নেমে আধলা ইট তুলে নিজেই সুরক্ষাবৃত্ত এঁকে দিচ্ছেন। সব্জি বিক্রেতাদের বোঝাচ্ছেন, দূরত্ব বজায় রেখে চলাটাই মূল সতর্কতা। বিশদ

28th  March, 2020
ভয়ঙ্কর সময়ের সামনে দাঁড়িয়ে

 অনেক বাধা আর প্রতিকূলতাকে দূরে সরিয়ে আবার আমরা পাঠকের মুখোমুখি। গত একশো বছরের ইতিহাসে মানবজাতির সামনে এমন অভূতপূর্ব সঙ্কট এসেছে বলে মনে পড়ে না। তিন মাস বয়সের এক মারণ ভাইরাসের সঙ্গে সারা পৃথিবীর সবচেয়ে উন্নত আধুনিক নাগরিক সমাজের অদৃশ্য লড়াই চলছে। বিশদ

27th  March, 2020
এ লড়াই শুধুই জয়ের জন্য

আমরা আজ যে যুগে বাস করছি, সেটাকে তথ্য ও সংবাদের যুগ বললে অত্যুক্তি হবে না। তথ্য ও খবর কোনও শ্রেণী বিশেষেরও কুক্ষিগত নয়। অন্তত সাধারণ তথ্য ও খবর এখন রীতিমতো সর্বজনীন। তাই আমাদের জানতে দেরি হয়নি গত ডিসেম্বরে সুদূর চীন দেশের হুবেই প্রদেশের উহান শিল্প-শহরে কী ভয়ানক কাণ্ড ঘটেছিল।
বিশদ

25th  March, 2020
একনজরে
  অর্ক দে, কলকাতা: লকডাউনের মধ্যেই কাজ এগল দ্রুত। টালা ব্রিজ ভাঙার কাজ প্রায় শেষের পথে। এই সেতুকে ঘিরে উত্তর কলকাতা বা উত্তর শহরতলির মানুষের ৭৫ বছরের সেই ‘আবেগ’ চলে গেল স্মৃতির অতলে। টালা ব্রিজ বা হেমন্ত সেতু এখন শুধুই ...

  নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: এবছর দেশজুড়ে সোনার চাহিদা ৩০ শতাংশ কমবে বলে মনে করছে স্বর্ণশিল্প মহল। তাদের বক্তব্য, এদেশের সোনার মূল চাহিদা তৈরি হয় বিয়েকে ...

 সৌম্যজিৎ সাহা, কলকাতা: রাজ্যের কয়েকশো সংস্কৃত টোল অধিগ্রহণ প্রক্রিয়ায় অবশেষে জট কাটল। শুধু তাই নয়, ভারতীয় শিক্ষার প্রাচীন ঐতিহ্য বহনকারী এই টোলগুলিতে এক দশকের বেশি ...

  ওয়াশিংটন, ৯ এপ্রিল (পিটিআই): শেষ প্রতিদ্বন্দ্বী সেনেটর বার্নি স্যান্ডার্স সরে দাঁড়ানোয় আমেরিকার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্র্যাটিক পার্টির তরফে সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে দৌড়ে রইলেন দেশের প্রাক্তন ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বিডেন। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কর্মলাভের যোগ রয়েছে। ব্যবসায়ী যুক্ত হওয়া যেতে পারে। কর্মক্ষেত্রে সাফল্য আসবে। বুদ্ধিমত্তার জন্য প্রশংসা দুযবে। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮৯৭: স্বাধীনতা সংগ্রামী ও পশ্চিমবঙ্গের তৃতীয় মুখ্যমন্ত্রী প্রফুল্লচন্দ্র সেনের জন্ম
১৯০১: কবি ও সাহিত্যিক অমিয় চক্রবর্তীর জন্ম
১৯৩১ - বিশিষ্ট লেখক নিমাই ভট্টাচার্যের জন্ম
১৯৬৪: বিশিষ্ট শেফ সঞ্জিব কাপুরের জন্ম
১৯৭৩: ব্রাজিলের ফুটবলার রবার্তো কার্লোসের জন্ম
১৯৮৬: অভিনেত্রী আয়েষা টাকিয়ার জন্ম
১৯৯৫: চতুর্থ প্রধানমন্ত্রী মোরারজি দেশাইয়ের মৃত্যু
২০১৫: অস্ট্রেলীয় ক্রিকেট অধিনায়ক রিচি বেনোর মৃত্যু





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৫.৫৪ টাকা ৭৭.২৬ টাকা
পাউন্ড ৯২.৯৫ টাকা ৯৬.২৭ টাকা
ইউরো ৮১.৪৭ টাকা ৮৪.৫২ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪১,৮৮০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৯,৭৩০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪০,৩৩০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৮,৮০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৮,৯০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
22nd  March, 2020

দিন পঞ্জিকা

দৃকসিদ্ধ: ২৭ চৈত্র ১৪২৬, ১০ এপ্রিল ২০২০, শুক্রবার, (চৈত্র কৃষ্ণপক্ষ) তৃতীয়া ৪০/১৯ রাত্রি ৯/৩২। বিশাখা ৪১/১৫ রাত্রি ৯/৫৫। সূ উ ৫/২৪/৪০, অ ৫/৫১/২১, অমৃতযোগ দিবা ৭/৫ মধ্যে পুনঃ ৭/৫৫ গতে ১০/২৪ মধ্যে পুনঃ ১২/৫৩ গতে ২/৩২ মধ্যে পুনঃ ৪/১২ গতে অস্তাবধি। রাত্রি ৭/২৩ গতে ৮/৫৬ মধ্যে পুনঃ ৩/৬ গতে ৩/৫২ মধ্যে। বারবেলা ৮/৩১ গতে ১১/৩৮ মধ্যে। কালরাত্রি ৮/৪৪ গতে ১০/১০ মধ্যে।
২৭ চৈত্র ১৪২৬, ১০ এপ্রিল ২০২০, শুক্রবার, তৃতীয়া ৫১/১২/২৪ রাত্রি ১/৫৪/৫৪। বিশাখা ৫১/৫৩/২৭ রাত্রি ২/১১/১৯। সূ উ ৫/২৫/৫৬, অ ৫/৫২/৭। অমৃতযোগ দিবা ৭/৫ মধ্যে ও ৭/৫৫ গতে ১০/২৪ মধ্যে ও ১২/৫৩ গতে২/৩২ মধ্যে ও ৪/১১ গতে ৫/৫২ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/২৩ গতে ৮/৫৬ মধ্যে ও ৩/৭ গতে ৩/৫৩ মধ্যে। বারবেলা ৮/৩২/২৯ গতে ১০/৫/৪৫ মধ্যে, কালবেলা ১০/৫/৪৫ গতে ১১/৩৯/১ মধ্যে।
১৬ শাবান

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
করোনা: সুইজারল্যান্ডে নতুন করে আক্রান্ত হলেন ৭৬৬ জন 

09-04-2020 - 10:37:15 PM

করোনা: নেদারল্যান্ডসে নতুন করে আক্রান্ত হলেন ১২১৩ জন 

09-04-2020 - 10:19:06 PM

করোনা: তুরষ্কে নতুন করে আক্রান্ত হলেন ৪০৫৬ জন

09-04-2020 - 10:07:11 PM

করোনা: একদিনে আমেরিকায় আক্রান্ত হলেন ৫ হাজারেরও বেশি
আজ আমেরিকায় একদিনে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫ হাজারেরও বেশি মানুষ। ...বিশদ

09-04-2020 - 09:12:00 PM

করোনা: জার্মানিতে নতুন করে আক্রান্ত হলেন ৯৬১ জন 

09-04-2020 - 09:10:18 PM

করোনা: তামিলনাড়ুতে আক্রান্ত আরও ৯৬ 
তামিলনাডুতে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন আরও ৯৬ জন। ...বিশদ

09-04-2020 - 09:06:39 PM