Bartaman Patrika
সম্পাদকীয়
 

করোনা: মানুষই জিতবে 

গত ৮ মার্চ সকালের খবর, সারা বিশ্বের ৯৫টি দেশে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ঘটে গিয়েছে। বেসরকারি মতে, সংখ্যাটি আরও বেশি—১০৬। নর-নারী-শিশু মিলিয়ে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা লক্ষাধিক। সংক্রমণ থামার লক্ষণ নেই। মৃত্যুও অব্যাহত। ইরানসহ মধ্যপ্রাচ্য নাজেহাল। ইতালি, ফ্রান্সসহ ইউরোপ এবং আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রও রীতিমতো আতঙ্কিত। লাতিন আমেরিকা এবং সিঙ্গাপুরসহ দূর প্রাচ্যের দেশগুলিও প্রমাদ গুনছে। আমরা জানি, করোনা সংক্রমণ এবং তাতে মৃত্যুর খবর প্রথম চীন দেশ থেকে পাওয়া গিয়েছে। তারপর তা ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্বময়। ব্যাপারটি বিশ্বত্রাসের রূপ নিয়েছে। শুধুমাত্র চীন দেশেই আক্রান্ত হাজারে হাজারে এবং মৃতের সংখ্যা হাজার তিনেকের বেশি। সে-দেশের নাগরিকদের উপর কমিউনিস্ট প্রশাসনের নিয়ন্ত্রণ অত্যন্ত কঠোর। ইচ্ছে করলেই তাদের যে-কোনও সিদ্ধান্ত, তা আপাত অপ্রিয় হলেও, তারা কার্যকর করতে দ্বিধা করে না। বিজ্ঞান, প্রযুক্তি এবং অর্থবলের প্রশ্নেও এশীয় দেশগুলির মধ্যে চীন অগ্রণী। তবু সেখানেই এমন বিপর্যয়! আমাদের হতাশ করে।
অভিযোগ উঠেছে, গোড়ার দিকে বিপদটিকে যথাযথ গুরুত্ব দিয়ে মোকাবিলার কথা ভাবেনি চীন। তাই বিপর্যয়টি দ্রুত তাদের নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাচ্ছিল। সংবিৎ ফিরতেই তারা সাঁড়াশি আক্রমণের কায়দায় করোনা মোকাবিলায় নেমেছে। এখনও তেমনই তৎপর তারা। তার ফলে সংক্রমণ এবং মৃত্যুর হার উল্লেখযোগ্য হারে কমেছে। চীনে করোনা সংক্রমণে গত সপ্তাহেও যেখানে প্রতি ২৪ ঘণ্টায় গড়ে মৃতের সংখ্যা ১০০ ছাড়িয়ে গিয়েছিল, সংখ্যাটি গত রবিবার থেকে ৩০-এর নীচে নেমে এসেছে। এটি একটি সুখবর। শুধু চীনের জন্য নয়, সারা পৃথিবীর জন্যও। কারণ যুক্তরাষ্ট্র, চীন, ভারত প্রভৃতি দেশ নিজেকে যতই শক্তিশালী মনে করুক না কেন, পাণ্ডববর্জিত হয়ে চলা কারও পক্ষেই সম্ভব নয়। বিস্ময়কর উন্নত এই যোগাযোগ ব্যবস্থার যুগে আমরা সকলেই এক ভুবনগ্রাম এবং বিশ্ব বাণিজ্য ও বিশ্ব অর্থনীতির অবিচ্ছেদ্য অংশ। প্রত্যেকের সীমাবদ্ধতা স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে। ছোট বড় প্রতিটি দেশ আজ পরস্পরের উপর বিশেষভাবে নির্ভরশীল। চীন ও ভারতের মধ্যে নানাভাবে ক্ষমতার দ্বন্দ্ব রয়েছে বলে চীনের কোনও বিপর্যয়ে ভারতের খুশি হওয়ার বিন্দুমাত্র সুযোগ নেই। তেমনি ভারতের আর্থিক মন্দার খবরে ম্রিয়মাণ হতে হয় চীনের বাজারকেও। ভারতের আর্থিক মন্দা বৃদ্ধির আশঙ্কায় বিশ্ব অর্থনীতির বৃদ্ধির অনুমিত হার কমিয়ে দেখাতে হয়েছে বিশ্বব্যাঙ্ককে। অতএব করোনার বিপদটিকে এক বা একাধিক দেশ বিশেষের বলে এড়িয়ে যাওয়ার সুযোগ নেই। পৃথিবীর সব দেশকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে এই বিপদের মোকাবিলা করতে হবে। ভারতের মতো বিরাট দেশকেও অনুরূপ নীতি নিয়ে লড়াই করতে হবে। কোন রাজ্যে বা শহরে কতটা সংক্রমণ ঘটল, তার বিচার করার প্রয়োজন নেই। বরং চেষ্টা করতে হবে, সংক্রমণ যতটা ঘটে গিয়েছে সেখানেই পূর্ণচ্ছেদ টেনে দিতে। এই বিপদে মৃত্যুর মুখ যেন দেখতে না-হয় ভারতকে। তবেই সার্থক হবে ভারতের লড়াই। আর এই সাফল্যের জন্য সব রাজ্যের এবং সব মানুষের সমান সহযোগিতা প্রয়োজন।
আতঙ্ক নয়, দেশকে ঠিকমতো সচেতন করাই হল প্রথম পদক্ষেপ। তারপর দরকার আধুনিক চিকিৎসা পরিষেবার পর্যাপ্ত পরিকাঠামো গড়ে তোলা। মনে রাখতে হবে, এই পর্যন্ত ভারতে করোনা সংক্রমণের ফলে অসুস্থ মানুষের সংখ্যা ৫০ ছাড়িয়ে গিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক সন্দেহভাজন রোগীদের রক্তের নমুনা পরীক্ষার জন্য শতাধিক কেন্দ্র চিহ্নিত করে যথার্থ পদক্ষেপই করেছে। তার ভিতরে বাংলার বেলেঘাটায় কেন্দ্রীয় গবেষণাগার নাইসেড এবং বিভিন্ন প্রান্তের ছ’টি মেডিকেল কলেজকে রাখা হয়েছে। সরকারের সহযোগী হয়েছে কয়েকটি বেসরকারি চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানও। এই লড়াইতে বিদেশি দূতাবাসগুলিকেও যুক্ত করা হয়েছে। যেমন রবিবার কলকাতায় অবস্থিত ব্রিটিশ কাউন্সিল ভবনে কয়েকটি দূতাবাসের কর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের অফিসাররা। সব মিলিয়ে করোনার বিরুদ্ধে ভারতের লড়াই এখনও পর্যন্ত আশাপ্রদ। তার ভিতরে ভরসা জোগাচ্ছে বিশেষ করে বাংলার নেতৃত্ব। আসুন, এই বিরাট লড়াইতে আমরা সবাই কাঁধে কাঁধ মেলাই এবং ভরসা রাখি যে জিতবই। বিস্মৃত হব না যে একের পর এক জয়ের ভিতর দিয়েই মানুষের ইতিহাস সমৃদ্ধ হয়েছে। সবার বাসযোগ্য সুন্দর এক পৃথিবী নির্মাণই মানুষের অঙ্গীকার। 
11th  March, 2020
কোভিড যুদ্ধে বিরাট পদক্ষেপ 

পশ্চিমবঙ্গে কোভিড পরিস্থিতির উন্নতি লক্ষণীয়। সংক্রমণ এবং কোভিডে মৃত্যুর হার, দু’টিই কমছে। দুর্গাপুজো এবং ছটপুজোর মতো বড় জনসমাগমের পর্ব পেরিয়েও কোভিডের এই ‘সংযত’ আচরণকে সরকার একটি উল্লেখযোগ্য সাফল্য হিসেবেই দেখছে। স্বভাবতই স্বস্তিও বোধ করছে। এখন প্রতীক্ষা ভ্যাকসিনের। 
বিশদ

অর্থনীতি: স্বস্তি এখনও দূরে

গত সেপ্টেম্বর থেকে সারা ভারতে আর্থিক লেনদেনের পরিমাণ বৃদ্ধির প্রবণতা লক্ষণীয়। সেই ধারার প্রতিফলন দেখা গিয়েছে জিএসটি আদায়ে। অক্টোবর ও নভেম্বরের জিএসটি আদায়ের মোট পরিমাণ ১ লক্ষ কোটি টাকা ছাড়িয়ে গিয়েছে। বিশদ

04th  December, 2020
বাংলার আশাব্যঞ্জক অবস্থান

নাড়ি টিপে রোগ নির্ণয়। একটা সময় ছিল যখন অভিজ্ঞ চিকিৎসকরা নাকি রোগীর নাড়ি ধরে বলে দিতে পারতেন তার কী রোগ হয়েছে। এভাবেই তাঁরা রোগীর শারীরিক ও মানসিক পরিস্থিতি বোঝার চেষ্টা করতেন। কারণ তখন এখনকার মতো নানারকম মেডিকেল টেস্ট করানোর সুযোগ সবার ছিল না। বিশদ

03rd  December, 2020
যে মর্যাদা নেতাজির অবশ্যপ্রাপ্য

নেতাজি সংক্রান্ত গোপন ফাইলপত্র প্রকাশ্যে আনবে ভারত সরকার। ১৪ অক্টোবর, ২০১৫ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এই ঘোষণা করে ভারতের রাজনীতিতে আলোড়ন ফেলে দিয়েছিলেন। ২০১৬ সালের ২৩ জানুয়ারি একশোটি গোপন ফাইল প্রকাশ করে বাহবা কুড়িয়েছিলেন তিনি। বিশদ

02nd  December, 2020
মন জয়ের চেষ্টা!

একটি শিশু যখন আধো আধো কথা বলতে শুরু করে তখন মিষ্টিই শোনায়। কিন্তু বড়বেলায় সেই আধো আধো কথা থেকে গেলে তা হয় হাস্যকর। কখনও মনে হয় বয়স কম দেখানোর অপচেষ্টা। বাংলাকে বঞ্চিত রেখে প্রধানমন্ত্রীর ভাঙা বাংলায় ভাষণ বা কবিতা পাঠের বঙ্গপ্রেম অনেকটা সেরকমই! বিশদ

01st  December, 2020
কৃষকদের সঙ্গে কথা বলুন মোদি

দু’মাসের বেশি হয়ে গেল মোদি সরকার বিতর্কিত কৃষি বিলগুলি পাশ করিয়ে নতুন আইনে পরিণত করেছে। সংসদে বিল উত্থাপনের শুরু থেকেই বিরোধিতা করেছিল সমস্ত বামপন্থী দল, অকালি দল, কংগ্রেস, তৃণমূল প্রভৃতি। বিজেপি-বিরোধী বেশিরভাগ দলই এই বিল তথা আইনের বিপক্ষে ছিল। বিশদ

30th  November, 2020
মন্দের ভালো

আমাদের দেশে বহু মানুষের কাছে এখনও শিক্ষার আলো পৌঁছয়নি। পণ্ডিতদের কাছে অর্থনীতিতে মন্দা, জিডিপি বৃদ্ধির হার ঋণাত্মক হওয়া ইত্যাদি বিষয় গুরুত্ব পেলেও আম জনতা এই বিষয়গুলি নিয়ে বিশেষ মাথা ঘামায় না। শিক্ষিত সমাজ বিষয়গুলির গুরুত্ব বুঝলেও দেশের সাধারণ মানুষ বিশেষত গরিব মানুষ অত শত বোঝে না। বিশদ

29th  November, 2020
স্বাস্থ্য বিপ্লব

দারিদ্র হল একটা দুষ্টচক্রের নিয়ন্তা। অশিক্ষা। তার থেকে অপুষ্টি। সেখান থেকে দুর্বল সমাজ। এই সমস্ত মন্দের কারণ হল দারিদ্র। অর্থাৎ একটা খারাপ থেকে আর একটা খারাপের মধ্য দিয়ে সমাজটাকে নিরন্তর টেনে-হিঁচড়ে নিয়ে যায় দারিদ্র। দরিদ্র সমাজের আয়ের বেশিরভাগটা খাদ্যের পিছনে খরচ হয়ে যায়। বিশদ

28th  November, 2020
বোর্ডের পরীক্ষা: উচিত সিদ্ধান্ত

লড়াই এখনও অব্যাহত। যে চ্যালেঞ্জ করোনা ভাইরাস ছুঁড়ে দিয়েছে তার মোকাবিলা সমানতালে চলছে। ভারতে আটমাস পেরিয়ে গিয়েছে। তবু বিশেষজ্ঞরা, সরকার, সাধারণ মানুষ কেউই নিশ্চিত নয় এই সংগ্রাম কবে শেষ হবে। এ এমন এক যুদ্ধ যাতে জয়লাভের বিকল্প নেই। অতএব অনেক ভেবেচিন্তেই পদক্ষেপ করতে হচ্ছে। বিশদ

27th  November, 2020
কবে ভ্যাকসিন: ধোঁয়াশা রইল

একেই বলে চর্বিতচর্বণ। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি জানেনই না দেশে কবে থেকে করোনা ভ্যাকসিন দেওয়ার কাজ শুরু হবে বা তার ক’টি ডোজ। অথবা তার দাম কী! আর যদি জানেনও তাহলেও তিনি এব্যাপারে ভারতবাসীকে দিশা দেখাতে ব্যর্থ হলেন। বিশদ

26th  November, 2020
ভ্যাকসিন: ভীষণ স্বস্তির কথা

ইউনিক আইডেনটিফিকেশন আধার ইন্ডিয়া-র তরফে পশ্চিমবঙ্গের জন্য ২০২০ সালের মে মাসে প্রজেক্টেড পপুলেশন ছিল ৯ কোটি ৯৬ লক্ষের কিছু বেশি। সেই হিসেবে ভারতের চতুর্থ বৃহৎ জনসংখ্যার রাজ্য হল পশ্চিমবঙ্গ। অর্থাৎ ১০ কোটি জনসংখ্যার চাপ নিয়ে ২০২১ সালে প্রবেশ করতে চলেছে আমাদের রাজ্য। ভারত একটি গরিব দেশ। বিশদ

25th  November, 2020
এত দেরিতে বোধোদয়!

পরিযায়ী শব্দটার সঙ্গে আমরা অল্প বিস্তর পরিচিত। আমাদের মাতামাতি মূলত পরিযায়ী পাখিদের ঘিরে। শীতের সময়ে দূরদূরান্ত থেকে ঝাঁকে ঝাঁকে উড়ে আসা পরিযায়ী পাখি দেখার আকর্ষণ কম নয়। আর মানুষের ক্ষেত্রে? বিশদ

24th  November, 2020
জঙ্গিদের লক্ষ্য যদি ভ্যাকসিন 

করোনা মহামারী শতাব্দীর সবচেয়ে বড় বিপদ হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে। তবে সভ্য সমাজের এই চিন্তার উল্টো দিকে হেঁটে চলেছে জঙ্গি গোষ্ঠীগুলি। তারা এটাকে বরং এক দুর্লভ মওকা হিসেবে বেছে নিয়েছে। জঙ্গি গোষ্ঠীগুলি জানে, এই পরিস্থিতিতে গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রগুলি মানুষকে বাঁচাতে নানাভাবে ব্যস্ত রয়েছে। বিশদ

23rd  November, 2020
মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা

করোনাকালে বহু মানুষেরই আয় কমেছে, অথচ বেড়েছে জিনিসপত্রের দাম। দু’মাস এক জায়গায় দাঁড়িয়ে থাকার পর ফের বাড়ল পেট্রল-ডিজেলের দাম। তাই আশঙ্কাও বাড়ল। এমনিতেই গরিব-মধ্যবিত্তের এখন নুন আনতে পান্তা ফুরানোর অবস্থা। মূল্যবৃদ্ধির আঁচে দগ্ধ আম জনতা। প্রায় সব খাদ্যপণ্যের দাম ঊর্ধ্বমুখী। বিশদ

22nd  November, 2020
জীববৈচিত্র রক্ষার দায়িত্ব মানুষের

জীববৈচিত্রের জন্য ভারত একটি উল্লেখযোগ্য দেশ। গোরু, মহিষ, ছাগল, কুকুর, বিড়াল, হাঁস, মুরগির মতো অল্প কিছু প্রাণী গৃহপালিত। কিন্তু এর বাইরে জলে, জঙ্গলে আছে আরও কয়েকশো প্রাণী। কিছু নিরীহ, কিছু হিংস্র। মানুষের সংস্রবের বাইরে, প্রাকৃতিক পরিবেশে যেসব প্রাণী রয়েছে ভারতে তাদের সংরক্ষণ করা হয় মূলত তিনভাবে। বিশদ

21st  November, 2020
শাঁখের করাত! 

শুধু আবেগ নয়, প্রশ্নটা অধিকারের। তথ্য জানার অধিকার। নেতাজি অন্তর্ধান রহস্যের প্রকৃত সত্যটা কী তা জানার অধিকার দেশবাসী, বিশেষ করে বাংলার মানুষের আছে। এ প্রসঙ্গে কেন্দ্রের হাতে কী তথ্য আছে তা জানতে আগ্রহী বঙ্গবাসী। নেতাজির বিষয়ে যাবতীয় তথ্য এবার অন্তত কেন্দ্র সামনে আনুক। 
বিশদ

20th  November, 2020
একনজরে
নিউ ইয়র্ক: টাইম ম্যাগাজিনের ‘কিড অব দ্য ইয়ার’ শিরোপায় ভূষিত হল ভারতীয় বংশোদ্ভূত আমেরিকান কিশোরী। একাধিক বিষয়ে তার গবেষণা ও চমকপ্রদ আবিষ্কারের জন্য প্রচ্ছদে জায়গা ...

প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে এক ট্রেনযাত্রীকে রক্ষা করলেন আরপিএফ কর্মী। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় হাওড়া স্টেশনের পুরনো কমপ্লেক্সের ৪ নম্বর প্ল্যাটফর্ম থেকে ছেড়ে যাচ্ছিল বর্ধমান (মেইন) লোকাল। ...

কেন্দ্রীয় সরকারের ‘বেটি বাঁচাও বেটি পড়াও’ প্রকল্পে ১০ কোটি টাকা দান করছে স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া। কর্পোরেট সংস্থার সামাজিক দায়বদ্ধতা খাতে বা সিএসআর বাবদ ওই টাকা দিচ্ছে তারা। ...

উম-পুন ক্ষতিপূরণ প্রদানে দুর্নীতির অভিযোগ ক্যাগকে খতিয়ে দেখতে বলেছে কলকাতা হাইকোর্ট। ১ ডিসেম্বরের সেই নির্দেশ সম্পর্কে শুক্রবার প্রধান বিচারপতি থোট্টাথিল বি রাধাকৃষ্ণাণের ডিভিশন বেঞ্চে রাজ্যের তরফে প্রশ্ন তোলা হল। যদিও তাতে সাড়া দিল না আদালত।  ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

শরীর ভালো যাবে না। সাংসারিক কলহ বৃদ্ধি। প্রেমে সফলতা। শত্রুর সঙ্গে সন্তোষজনক সমঝোতা। সন্তানের সাফল্যে ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯০১: মার্কিন চলচ্চিত্র প্রযোজক, নির্দেশক ও কাহিনীকার ওয়াল্ট ডিজনির জন্ম
১৯২৪: গীতিকার গৌরীপ্রসন্ন মজুমদার জন্ম
১৯৩৫: কলকাতায় মেট্রো সিনেমা হল প্রতিষ্ঠা হয়
১৯৫০: বিপ্লবী, দার্শনিক ও আধ্যাত্মসাধক ঋষি অরবিন্দের প্রয়াণ
১৯৫১: শিল্পী ও লেখক অবনীন্দ্রনাথ ঠাকুরের মৃত্যু
১৯৯৯: মিস ওয়ার্ল্ড হলেন যুক্তামুখী  



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৩.০৪ টাকা ৭৪.৭৫ টাকা
পাউন্ড ৯৭.৬৫ টাকা ১০১.১০ টাকা
ইউরো ৮৮.১২ টাকা ৯১.৩৪ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৫০,০৬০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৪৭,৫০০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪৮,২১০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৬৩,৮০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৬৩,৯০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

১৯ অগ্রহায়ণ, ১৪২৭, শনিবার, ৫ ডিসেম্বর ২০২০, পঞ্চমী ৩৫/১০ রাত্রি ৮/১১। পুষ্যা নক্ষত্র ২০/৫২ দিবা ২/২৮। সূর্যোদয় ৬/৬/৪৩, সূর্যাস্ত ৪/৪৭/৪৯। অমৃতযোগ দিবা ৬/৪৮ মধ্যে পুনঃ ৭/৩২ গতে ৯/৪০ মধ্যে পুনঃ ১১/৪৮ গতে ২/৩৯ মধ্যে পুনঃ ৩/২৩ গতে অস্তাবধি। রাত্রি ১২/৪৭ গতে ২/৩৪ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ রাত্রি ২/৩৪ গতে ৩/২৭ মধ্যে। বারবেলা ৭/২৭ মধ্যে পুনঃ ১২/৪৭ গতে ২/৮ মধ্যে পুনঃ ৩/২৮ গতে অস্তাবধি। কালরাত্রি ৬/২৮ মধ্যে পুনঃ ৪/২৬ গতে উদয়াবধি।  
১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, শনিবার ৫ ডিসেম্বর ২০২০, পঞ্চমী সন্ধ্যা ৫/১৯। পুষ্যানক্ষত্র দিবা ১২/৪৪। সূর্যোদয় ৬/৮, সূর্যাস্ত ৪/৪৮। অমৃতযোগ দিবা ৭/১ মধ্যে ও ৭/৪৩ গতে ৯/৫০ মধ্যে ও ১১/৫৭ গতে ২/৫২ মধ্যে ও ৩/২৭ গতে ৪/৪৮ মধ্যে এবং রাত্রি ১২/৫৬ গতে ২/৪৩ মধ্যে রাত্রি ২/৪৩ গতে ৩/৩৭ মধ্যে। কালবেলা ৭/২৮ মধ্যে ও ১২/৪৮ গতে ২/৮ মধ্যে ও ৩/২৮ গতে ৪/৪৮ মধ্যে। কালরাত্রি ৬/২৮ মধ্যে ও ৪/২৮ গতে ৬/৯ মধ্যে।  
১৯ রবিউল সানি। 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
তৃণমূল বিধায়ক খুনের মামলায় চার্জশিট পেশ করতে রানাঘাট আদালতে এল সিআইডি
কৃষ্ণগঞ্জের তৃণমূল বিধায়ক সত্যজিৎ বিশ্বাস খুনের মামলায় চূড়ান্ত চার্জশিট পেশ ...বিশদ

01:17:55 PM

তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষে উত্তপ্ত আসানসোলের বারাবনি 
তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষের জেরে অগ্নিগর্ভ আসানসোলের বারাবনি থানার জামগ্রাম। তৃণমূলের অভিযোগ ...বিশদ

01:00:44 PM

মালদহে বিজেপির মিছিল, অবরুদ্ধ সড়ক
 

পুরাতন মালদহে বিজেপির মিছিলে অবরুদ্ধ রাজ্য এবং জাতীয় সড়ক। মিছিল ...বিশদ

12:58:00 PM

জম্মু ও কাশ্মীরের বালাকোট সীমান্তে পাক সেনার গোলাগুলি 

12:30:06 PM

আদ্রা ডিভিশনে প্যাসেঞ্জার ট্রেন চালু না হলে মালগাড়ি আটকে দেওয়ার হুমকি 
অবিলম্বে আদ্রা ডিভিশনে প্যাসেঞ্জার ট্রেন চালু না হলে সব মালগাড়ি ...বিশদ

12:28:38 PM

কসবায় গৃহবধূর রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার, চাঞ্চল্য 
কসবায় গৃহবধূর রক্তাক্ত দেহ উদ্ধারকে ঘিরে চাঞ্চল্য। মৃতার নাম খুশবু ...বিশদ

12:18:07 PM