Bartaman Patrika
সম্পাদকীয়
 

করোনা: মানুষই জিতবে 

গত ৮ মার্চ সকালের খবর, সারা বিশ্বের ৯৫টি দেশে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ঘটে গিয়েছে। বেসরকারি মতে, সংখ্যাটি আরও বেশি—১০৬। নর-নারী-শিশু মিলিয়ে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা লক্ষাধিক। সংক্রমণ থামার লক্ষণ নেই। মৃত্যুও অব্যাহত। ইরানসহ মধ্যপ্রাচ্য নাজেহাল। ইতালি, ফ্রান্সসহ ইউরোপ এবং আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রও রীতিমতো আতঙ্কিত। লাতিন আমেরিকা এবং সিঙ্গাপুরসহ দূর প্রাচ্যের দেশগুলিও প্রমাদ গুনছে। আমরা জানি, করোনা সংক্রমণ এবং তাতে মৃত্যুর খবর প্রথম চীন দেশ থেকে পাওয়া গিয়েছে। তারপর তা ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্বময়। ব্যাপারটি বিশ্বত্রাসের রূপ নিয়েছে। শুধুমাত্র চীন দেশেই আক্রান্ত হাজারে হাজারে এবং মৃতের সংখ্যা হাজার তিনেকের বেশি। সে-দেশের নাগরিকদের উপর কমিউনিস্ট প্রশাসনের নিয়ন্ত্রণ অত্যন্ত কঠোর। ইচ্ছে করলেই তাদের যে-কোনও সিদ্ধান্ত, তা আপাত অপ্রিয় হলেও, তারা কার্যকর করতে দ্বিধা করে না। বিজ্ঞান, প্রযুক্তি এবং অর্থবলের প্রশ্নেও এশীয় দেশগুলির মধ্যে চীন অগ্রণী। তবু সেখানেই এমন বিপর্যয়! আমাদের হতাশ করে।
অভিযোগ উঠেছে, গোড়ার দিকে বিপদটিকে যথাযথ গুরুত্ব দিয়ে মোকাবিলার কথা ভাবেনি চীন। তাই বিপর্যয়টি দ্রুত তাদের নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাচ্ছিল। সংবিৎ ফিরতেই তারা সাঁড়াশি আক্রমণের কায়দায় করোনা মোকাবিলায় নেমেছে। এখনও তেমনই তৎপর তারা। তার ফলে সংক্রমণ এবং মৃত্যুর হার উল্লেখযোগ্য হারে কমেছে। চীনে করোনা সংক্রমণে গত সপ্তাহেও যেখানে প্রতি ২৪ ঘণ্টায় গড়ে মৃতের সংখ্যা ১০০ ছাড়িয়ে গিয়েছিল, সংখ্যাটি গত রবিবার থেকে ৩০-এর নীচে নেমে এসেছে। এটি একটি সুখবর। শুধু চীনের জন্য নয়, সারা পৃথিবীর জন্যও। কারণ যুক্তরাষ্ট্র, চীন, ভারত প্রভৃতি দেশ নিজেকে যতই শক্তিশালী মনে করুক না কেন, পাণ্ডববর্জিত হয়ে চলা কারও পক্ষেই সম্ভব নয়। বিস্ময়কর উন্নত এই যোগাযোগ ব্যবস্থার যুগে আমরা সকলেই এক ভুবনগ্রাম এবং বিশ্ব বাণিজ্য ও বিশ্ব অর্থনীতির অবিচ্ছেদ্য অংশ। প্রত্যেকের সীমাবদ্ধতা স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে। ছোট বড় প্রতিটি দেশ আজ পরস্পরের উপর বিশেষভাবে নির্ভরশীল। চীন ও ভারতের মধ্যে নানাভাবে ক্ষমতার দ্বন্দ্ব রয়েছে বলে চীনের কোনও বিপর্যয়ে ভারতের খুশি হওয়ার বিন্দুমাত্র সুযোগ নেই। তেমনি ভারতের আর্থিক মন্দার খবরে ম্রিয়মাণ হতে হয় চীনের বাজারকেও। ভারতের আর্থিক মন্দা বৃদ্ধির আশঙ্কায় বিশ্ব অর্থনীতির বৃদ্ধির অনুমিত হার কমিয়ে দেখাতে হয়েছে বিশ্বব্যাঙ্ককে। অতএব করোনার বিপদটিকে এক বা একাধিক দেশ বিশেষের বলে এড়িয়ে যাওয়ার সুযোগ নেই। পৃথিবীর সব দেশকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে এই বিপদের মোকাবিলা করতে হবে। ভারতের মতো বিরাট দেশকেও অনুরূপ নীতি নিয়ে লড়াই করতে হবে। কোন রাজ্যে বা শহরে কতটা সংক্রমণ ঘটল, তার বিচার করার প্রয়োজন নেই। বরং চেষ্টা করতে হবে, সংক্রমণ যতটা ঘটে গিয়েছে সেখানেই পূর্ণচ্ছেদ টেনে দিতে। এই বিপদে মৃত্যুর মুখ যেন দেখতে না-হয় ভারতকে। তবেই সার্থক হবে ভারতের লড়াই। আর এই সাফল্যের জন্য সব রাজ্যের এবং সব মানুষের সমান সহযোগিতা প্রয়োজন।
আতঙ্ক নয়, দেশকে ঠিকমতো সচেতন করাই হল প্রথম পদক্ষেপ। তারপর দরকার আধুনিক চিকিৎসা পরিষেবার পর্যাপ্ত পরিকাঠামো গড়ে তোলা। মনে রাখতে হবে, এই পর্যন্ত ভারতে করোনা সংক্রমণের ফলে অসুস্থ মানুষের সংখ্যা ৫০ ছাড়িয়ে গিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক সন্দেহভাজন রোগীদের রক্তের নমুনা পরীক্ষার জন্য শতাধিক কেন্দ্র চিহ্নিত করে যথার্থ পদক্ষেপই করেছে। তার ভিতরে বাংলার বেলেঘাটায় কেন্দ্রীয় গবেষণাগার নাইসেড এবং বিভিন্ন প্রান্তের ছ’টি মেডিকেল কলেজকে রাখা হয়েছে। সরকারের সহযোগী হয়েছে কয়েকটি বেসরকারি চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানও। এই লড়াইতে বিদেশি দূতাবাসগুলিকেও যুক্ত করা হয়েছে। যেমন রবিবার কলকাতায় অবস্থিত ব্রিটিশ কাউন্সিল ভবনে কয়েকটি দূতাবাসের কর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের অফিসাররা। সব মিলিয়ে করোনার বিরুদ্ধে ভারতের লড়াই এখনও পর্যন্ত আশাপ্রদ। তার ভিতরে ভরসা জোগাচ্ছে বিশেষ করে বাংলার নেতৃত্ব। আসুন, এই বিরাট লড়াইতে আমরা সবাই কাঁধে কাঁধ মেলাই এবং ভরসা রাখি যে জিতবই। বিস্মৃত হব না যে একের পর এক জয়ের ভিতর দিয়েই মানুষের ইতিহাস সমৃদ্ধ হয়েছে। সবার বাসযোগ্য সুন্দর এক পৃথিবী নির্মাণই মানুষের অঙ্গীকার। 
11th  March, 2020
শাসকের মনীষী বন্দনা

একে কি বলা যায় বোধোদয়? নাকি রাজনৈতিক অভিসন্ধি? যাই হোক, বাংলার মানুষ আবেগপ্রবণ হলেও বুদ্ধি বিবেচনায় তাদের ঘাটতি নেই। শিক্ষায় হোক, সংস্কৃতিতে বা স্বাধীনতা আন্দোলনেও বাংলার কৃতী সন্তানরা অনেক দৃষ্টান্ত রেখেছেন। বাংলার মনীষীরা ভারতবর্ষকে নানা ক্ষেত্রে পথও দেখিয়েছেন। তাঁরা শুধু বাংলার গর্ব নন, দেশেরও গর্ব। তাঁদের ভোটের রাজনীতির আঙিনায় টেনে এনে বাঙালি ভাবাবেগকে উসকে দেওয়ার প্রবণতা আদৌ বাঞ্ছনীয় নয়। অথচ দেখা যায়, ভোট এলেই রাজনীতির কলাকুশলীরা প্রায়ই দেশবরেণ্য মনীষীদের প্রসঙ্গ টেনে মানুষের মন জয়ের চেষ্টা করেন। বিশদ

স্বাগত উন্নয়নের রাজনীতি

কোভিড সংক্রমণের সংখ্যা ভারতে ৮০ লক্ষ ছাড়িয়ে গিয়েছে। মৃতের সংখ্যাও লক্ষাধিক হয়েছে কিছুদিন আ঩গেই। কিন্তু এর মাঝে লুকিয়ে রয়েছে সবচেয়ে স্বস্তির খবরটি—ভারতে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৭৩ লক্ষের বেশি নারী পুরুষ শিশু। বিশদ

30th  October, 2020
উন্নতশির বাংলার অর্থনীতি

কোভিড সংক্রমণ ভারতীয় অর্থনীতিকে খাদের কিনারে দাঁড় করিয়ে দিয়েছে। লকডাউনের ফলে মাইনাস ২৩.৯ শতাংশের পতন প্রত্যক্ষ করেছে। এই রেকর্ড সঙ্কোচন থেকে অর্থনীতিকে উদ্ধার করা কতটা কঠিন তা অর্থনীতির পণ্ডিতরা জানেন। যে সরকার তার যে-কোনও রকম ব্যর্থতা অস্বীকার করতে কুণ্ঠিত, এমনকী লজ্জিত নয়, সেই সরকারের অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামনও অবশেষে অর্থনীতির হাড়ির হাল মেনে নিয়েছেন। বিশদ

29th  October, 2020
শারদ শুভেচ্ছা 

জাতীয় সড়ক ধরে এগলে হালকা হাওয়ায় দুলতে থাকা কাশফুল চোখে পড়ছে। গ্রাম বাংলার আনাচে-কানাচে শিউলি ফুলের গন্ধ জানান দিচ্ছে দেবীপক্ষ শুরু হয়ে গেছে। সেই পুজো মণ্ডপ, সেই আলোর বাহার, সেই একচালা থেকে নানা বিহঙ্গে মায়ের রূপ।   বিশদ

23rd  October, 2020
কেবলই স্তুতি! 

 নানা দেশের স্বাস্থ্য পরিষেবার বেহাল দশাকে সামনে এনে দিয়েছে করোনা মহামারী। ভারতের স্বাস্থ্য পরিষেবার চিত্রটিও করুণ। করোনা সংক্রামিত সঙ্কটাপন্ন প্রতিটি রোগীর জন্য হাসপাতালে চিকিৎসার সুযোগ নেই। এই সুযোগ করে দিতে কেন্দ্রের সরকার ব্যর্থ হয়েছে। কারণ উপযুক্ত পরিকাঠামোর অভাব। নেই প্রয়োজনীয় সংখ্যক চিকিৎসক। বিশদ

22nd  October, 2020
দূর থেকে দুর্গা দর্শন 

করোনা বদলে দিয়েছে জীবনের অনেক কিছুই। বদলে দিয়েছে বহু মানুষের পেশা। করমর্দন আলিঙ্গনের দিনও শেষ। বদলে হাতজোড় করে নমস্কার। জীবনমরণের সমস্যা যেখানে, সেখানে ইচ্ছায় হোক বা অনিচ্ছায় সতর্কীকরণের বিধিনিষেধ মানতেই হবে সকলকে। দেবীপক্ষের শুরুও হয়ে গেছে। মণ্ডপে মণ্ডপে দেবী আরাধনার জন্য প্রস্তুতিপর্ব তুঙ্গে। বিশদ

21st  October, 2020
এবার কি রাষ্ট্রপতি শাসনের জুজু! 

 শাসক এবং বিরোধীদল, সকলেরই এখন পাখির চোখ বাংলার ভোট। তাই উৎসবের আবহে ভোটের জন্য জমি তৈরির কাজও শুরু করে দিয়েছে রাজনৈতিক দলগুলি। শাসকদল তৃণমূল চাইছে ভোট ব্যাঙ্ক অক্ষত রেখে ফের ক্ষমতায় ফিরতে। আর বিরোধীরা, বিশেষত বিজেপি স্বপ্ন দেখছে বাংলা জয়ের। বিশদ

20th  October, 2020
‘সবকা’ নয়, ধনীদের বিকাশ 

ব্যক্তিগত অর্থ সম্পদে তাঁর নাকি বিন্দুমাত্র আসক্তি নেই। তিনি দেশবাসীর ‘সেবক’ হিসেবে নিজেকে প্রচারের আলোয় আনতে ভালোবাসেন। সেই তাঁর সরকারের ‘কল্যাণেই’ বিশ্ব ক্ষুধা সূচকের নিরিখে বাংলাদেশের চেয়েও নীচে নেমে গেল ভারত। ‘সবকা বিকাশ’ এমনই হল যে ধনী আরও ধনী হল। গরিব হল আরও গরিব। ‘আচ্ছে দিনের’ স্বপ্ন দেখানো প্রধানমন্ত্রী মোদির জমানায় ক্ষুধা সূচকে ১০৭টি দেশের মধ্যে ৯৪তম স্থানে ভারত।   বিশদ

19th  October, 2020
কোভিড নিয়ে রাজনীতি নয় 

তৃণমূল সরকারকে বেকায়দায় ফেলার মতো কোনও জুতসই ইস্যু বোধহয় এখন খুঁজে পাচ্ছে না বিরোধীরা। বিশেষত বিজেপি। সেভাবে তুলতে পারছে না অনুন্নয়নের অভিযোগ। রাজ্যে আইনশৃঙ্খলার অবনতির অভিযোগে যে সরব হবে সে উপায়ও প্রায় নেই। কারণ এই অভিযোগ করলেই এসে পড়বে বিজেপি শাসিত রাজ্য উত্তরপ্রদেশের প্রসঙ্গ।  
বিশদ

18th  October, 2020
সুরক্ষাবিধি মেনে পুজো 

পুজোর বাদ্যি বেজে গেল। ভার্চুয়ালি পুজোর উদ্বোধন পর্ব শুরু। করোনা সংক্রমণ বাঁচিয়ে সতর্কতার সঙ্গে পুজো করার পরামর্শ দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সব ধর্ম সব মত একাকার হয়ে সম্প্রীতির বাতাবরণ তৈরি হয় বাঙালির এই সবচেয়ে বড় উৎসব দুর্গাপুজোয়। 
বিশদ

17th  October, 2020
অপরাধীদের স্বর্গরাজ্য! 

কুর্সি দখলের লড়াইয়ে যে কোনও ভোটারের ভোটই সমান মূল্যবান। সেক্ষেত্রে ধনী-দরিদ্র বা উচ্চবর্ণ-দলিত বিচার করাটা মূর্খামি। দক্ষ রাজনীতিবিদরা ভোটের আগে তাই কাউকেই চটাতে চান না। সে পথেই এখন হাঁটতে চাইছে গেরুয়া শিবির।  
বিশদ

16th  October, 2020
বাংলা পথ দেখাল 

দেশে অভাবী মানুষের সংখ্যা নেহাত কম নয়। খুব বেশি আগের ঘটনা নয়। দিল্লিতে অনাহারে অপুষ্টিতে মা ও শিশুসন্তানের মৃত্যুর ঘটনায় দেশবাসী চমকে উঠেছিল সেদিন। যা দেশের লজ্জা, শাসকের ব্যর্থতা। প্রতিটি দেশবাসীকে খাদ্যের সংস্থান করে দেওয়ার দায়িত্ব সরকারের।  
বিশদ

15th  October, 2020
প্যাঁচের প্যাকেজ 

দেশের অর্থনীতির হাল বেহাল হলেও ভবি ভোলবার নয়। এবার উৎসব মরশুমে অর্থনীতি চাঙ্গা করার যে দাওয়াই দিল মোদি সরকার তাতে অর্থনীতির পুনরুজ্জীবন আদৌ ঘটবে কি না সন্দেহ। প্যাকেজের নামে শর্তাবলি চাপানো ফেস্টিভ্যাল অফারে দেশের অধিকাংশ মানুষের, বিশেষত গরিব মানুষের কোনও লাভ হল না।  
বিশদ

14th  October, 2020
ড্যামেজ কন্ট্রোলের কৌশল 

একদিকে দলিত মহিলা নির্যাতন, অন্যদিকে কৃষি আইন—এই জোড়া ফলায় বিদ্ধ কেন্দ্রের শাসক শিবির। বিহার ভোটের আগে তাদের একেবারে বেসামাল অবস্থা। তবে ‘হ্যাঁ’ কে ‘না’ এবং ‘না’ কে ‘হ্যাঁ’ করতে পটু দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বিলক্ষণ জানেন, দলিত বঞ্চনার ইস্যু এবং দেশজুড়ে কৃষক আন্দোলনের প্রভাব পড়তে পারে আসন্ন বিহার ভোটে।  
বিশদ

13th  October, 2020
ভুল পথে ভারতীয় রেল 

ভারতীয় রেলের আয়ের ৭০ শতাংশই আসে পণ্য পরিবহণ মাশুল থেকে। তাই মালগাড়ি চলাচলের বিষয়টিতেই অগ্রাধিকার কাম্য ছিল। উল্টে এটাই এদেশে সবচেয়ে অবহেলিত। ভারতীয় রেলের যে নেটওয়ার্ক ক্যাপাসিটি তার মাত্র ৩৩ শতাংশ এই ক্ষেত্র ব্যবহার করতে পারে।
বিশদ

12th  October, 2020
মূল্যবৃদ্ধি: দুশ্চিন্তা বাড়াচ্ছে 

দুবেলা দু’মুঠো অন্ন জোগাতে না পেরে মাত্র চার হাজার টাকার বিনিময়ে কন্যাসন্তানকে বিক্রি করে দিতে বাধ্য হলেন বাবা-মা। এই ঘটনাটি কোনও গল্পকথা নয়, বাস্তব সত্য। ঘরে ঘরে এমন ঘটনা না ঘটলেও অপরিকল্পিত লকডাউন আর করোনা ক্লিস্ট অর্থনীতির ধাক্কায় বিপর্যয় নেমে এসেছে বহু পরিবারে।  
বিশদ

11th  October, 2020
একনজরে
দেশের সবক’টি শোরুমে সোনার দাম একটাই রাখা হবে, ঘোষণা করল মালাবার গোল্ড অ্যান্ড ডায়মন্ডস। তাদের বক্তব্য, বিভিন্ন রাজ্যে সোনার দাম বিভিন্ন রকম নেওয়া হয়। অথচ স্বর্ণ ব্যবসায়ীরা ব্যাঙ্কের থেকে একটি নির্দিষ্ট ও স্বচ্ছ দামে সোনা কেনেন। ...

শুক্রবার ভোরে পাঁচ দুষ্কৃতীকে গ্রেপ্তার করল সোনারপুর থানার পুলিস। সুভাষগ্রাম রেলগেটের কাছ থেকে তাদের ধরা হয়। তদন্তে পুলিস জানতে পেরেছে, দুষ্কৃতীরা এলাকায় চুরি করার উদ্দেশ্যে জড়ো হয়েছিল। ...

ঘোষিত হল সপ্তম আইএসএলের প্রথম এগারো রাউন্ডের ক্রীড়াসূচি। ২০ নভেম্বর উদ্বোধনী ম্যাচে গতবারের চ্যাম্পিয়ন এটিকে মোহন বাগান মুখোমুখি হবে কেরল ব্লাস্টার্সের। দ্বিতীয় ম্যাচে নর্থ-ইস্ট ইউনাইটেড মাঠে নামবে মুম্বই সিটি এফসি’র বিরুদ্ধে। ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, বাঁকুড়া: জঙ্গলঘেরা গ্রাম। হাতির তাণ্ডব এখানে লেগেই থাকত। তা থেকে মুক্তির জন্য গজলক্ষ্মীর পুজো শুরু করেছিলেন বেলিয়াতোড় থানার রামকানালি গ্রামের বাসিন্দারা। গত ২৫০ বছর ধরে সেই রীতিই চলে আসছে।  ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

বিদ্যার্থীদের ক্ষেত্রে ভাবনাচিন্তা করে বিষয় নির্বাচন করলে ভালো হবে। প্রেম-প্রণয়ে বাধাবিঘ্ন থাকবে। কারও সঙ্গে মতবিরোধ ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

বিশ্ব মিতব্যয়িতা দিবস
১৭৯৫ - ইংরেজি সাহিত্যের রোম্যান্টিক কবি জন কিটসের জন্ম
১৮৭৫- লৌহমানব সর্দার বল্লভভাই প্যাটেলের জন্ম
১৮৮৩: ধর্মীয় গুরু স্বামী দয়ানন্দ সরস্বতীর জন্ম
১৯৬৬- পানামা খাল অতিক্রম করেন বিশিষ্ট সাঁতারু মিহির সেন
১৯৭৫- সংগীতশিল্পী শচীন দেব বর্মনের মৃত্যু
১৯৮৪- আততায়ীর গুলিতে খুন হলেন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী
২০০০- নতুন রাজ্য হল ছত্তিশগড়
২০০৮- দাবায় বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হলেন বিশ্বনাথন আনন্দ  



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৩.২৪ টাকা ৭৪.৯৫ টাকা
পাউন্ড ৯৪.৭০ টাকা ৯৮.০৩ টাকা
ইউরো ৮৫.৫৪ টাকা ৮৮.৬৭ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
30th  October, 2020
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৫১, ৪৯০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৪৮, ৮৫০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪৯, ৫৮০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৬০, ৪০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৬০, ৫০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
30th  October, 2020

দিন পঞ্জিকা

১৪ কার্তিক, ১৪২৭, শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০, পূর্ণিমা ৩৬/২৭ রাত্রি ৮/১৯। অশ্বিনী নক্ষত্র ৩০/৩৪ সন্ধ্যা ৫/৫৮। সূর্যোদয় ৫/৪৪/২০, সূর্যাস্ত ৪/৫৬/১৮। অমৃতযোগ দিবা ৬/২৮ মধ্যে পুনঃ ৭/১৩ গতে ৯/২৮ মধ্যে পুনঃ ১১/৪৩ গতে ২/৪২ মধ্যে পুনঃ ৩/২৭ গতে অস্তাবধি। রাত্রি ১২/৩৭ গতে ২/১৯ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ রাত্রি ২/১৯ গতে ৩/১০ মধ্যে। বারবেলা ৭/৮ মধ্যে পুনঃ ১২/৪৪ গতে ২/৮ মধ্যে পুনঃ ৩/৩২ গতে অস্তাবধি। কালরাত্রি ৬/৩৩ মধ্যে পুনঃ ৪/৯ গতে উদয়াবধি।
প্রাচীন পঞ্জিকা: ১৪ কার্তিক, ১৪২৭, শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০, পূর্ণিমা রাত্রি ৭/২৮। অশ্বিনী নক্ষত্র রাত্রি ৬/১৬। সূর্যোদয় ৫/৪৫, সূর্যাস্ত ৪/৫৭। অমৃতযোগ দিবা ৬/৩৫ মধ্যে ও ৭/১৯ গতে ৯/৩১ মধ্যে ও ১১/৪৩ গতে ২/৩৮ মধ্যে ও ৩/২২ গতে ৪/৫৭ মধ্যে এবং রাত্রি ১২/৩৯ গতে ২/২৩ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ রাত্রি ২/২৩ গতে ৩/১৫ মধ্যে। কালবেলা ৭/৯ মধ্যে ও ১২/৪৫ গতে ২/৯ মধ্যে ও ৩/৩৩ গতে ৪/৫৭ মধ্যে। কালরাত্রি ৬/৩৩ মধ্যে ও ৪/৯ গতে ৫/৪৬ মধ্যে।
১৩ রবিয়ল আউয়ল।

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
গড়িয়ায় কাঠের গুদামে বিধ্বংসী আগুন

04:02:20 PM

পাহাড়ে শান্তি বজায়ে বিনয় অনিতদের বৈঠকে ডাকলেন মুখ্যমন্ত্রী        
পাহাড়ে ক্রমশ সুর চড়াচ্ছে বিনয় তামাং পন্থী মোর্চা। বিমল গুরুংয়ের ...বিশদ

03:33:42 PM

ত্রিকোণ প্রেমের জেরে ক্যানিংয়ে আত্মঘাতী কিশোর
ত্রিকোণ প্রেমের জের। আত্মঘাতী ক্যানিংয়ের বছর ১৬-র এক কিশোর। নাম ...বিশদ

03:19:45 PM

 শারীরিক দূরত্ববিধি শিকেয়। লক গেট বেঁকে গিয়ে বিপত্তি। সেই চিন্তাকেও দূরে সরিয়ে প্রায় জনশূন্য দুর্গাপুর ব্যারেজে মাছ ধরার হিড়িক পড়ে গেল

03:17:00 PM

আইপিএল: টসে জিতে দিল্লিকে প্রথমে ব্যাট করতে পাঠাল মুম্বই 

03:09:56 PM

প্রয়াত বিশ্বকাপজয়ী ফুটবলার
প্রয়াত বিশ্বকাপজয়ী ইংল্যান্ড ফুটবল দলের অন্যতম সদস্য নবি স্টাইলস। বয়স ...বিশদ

02:12:55 PM