Bartaman Patrika
সম্পাদকীয়
 

করোনা: মানুষই জিতবে 

গত ৮ মার্চ সকালের খবর, সারা বিশ্বের ৯৫টি দেশে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ঘটে গিয়েছে। বেসরকারি মতে, সংখ্যাটি আরও বেশি—১০৬। নর-নারী-শিশু মিলিয়ে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা লক্ষাধিক। সংক্রমণ থামার লক্ষণ নেই। মৃত্যুও অব্যাহত। ইরানসহ মধ্যপ্রাচ্য নাজেহাল। ইতালি, ফ্রান্সসহ ইউরোপ এবং আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রও রীতিমতো আতঙ্কিত। লাতিন আমেরিকা এবং সিঙ্গাপুরসহ দূর প্রাচ্যের দেশগুলিও প্রমাদ গুনছে। আমরা জানি, করোনা সংক্রমণ এবং তাতে মৃত্যুর খবর প্রথম চীন দেশ থেকে পাওয়া গিয়েছে। তারপর তা ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্বময়। ব্যাপারটি বিশ্বত্রাসের রূপ নিয়েছে। শুধুমাত্র চীন দেশেই আক্রান্ত হাজারে হাজারে এবং মৃতের সংখ্যা হাজার তিনেকের বেশি। সে-দেশের নাগরিকদের উপর কমিউনিস্ট প্রশাসনের নিয়ন্ত্রণ অত্যন্ত কঠোর। ইচ্ছে করলেই তাদের যে-কোনও সিদ্ধান্ত, তা আপাত অপ্রিয় হলেও, তারা কার্যকর করতে দ্বিধা করে না। বিজ্ঞান, প্রযুক্তি এবং অর্থবলের প্রশ্নেও এশীয় দেশগুলির মধ্যে চীন অগ্রণী। তবু সেখানেই এমন বিপর্যয়! আমাদের হতাশ করে।
অভিযোগ উঠেছে, গোড়ার দিকে বিপদটিকে যথাযথ গুরুত্ব দিয়ে মোকাবিলার কথা ভাবেনি চীন। তাই বিপর্যয়টি দ্রুত তাদের নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাচ্ছিল। সংবিৎ ফিরতেই তারা সাঁড়াশি আক্রমণের কায়দায় করোনা মোকাবিলায় নেমেছে। এখনও তেমনই তৎপর তারা। তার ফলে সংক্রমণ এবং মৃত্যুর হার উল্লেখযোগ্য হারে কমেছে। চীনে করোনা সংক্রমণে গত সপ্তাহেও যেখানে প্রতি ২৪ ঘণ্টায় গড়ে মৃতের সংখ্যা ১০০ ছাড়িয়ে গিয়েছিল, সংখ্যাটি গত রবিবার থেকে ৩০-এর নীচে নেমে এসেছে। এটি একটি সুখবর। শুধু চীনের জন্য নয়, সারা পৃথিবীর জন্যও। কারণ যুক্তরাষ্ট্র, চীন, ভারত প্রভৃতি দেশ নিজেকে যতই শক্তিশালী মনে করুক না কেন, পাণ্ডববর্জিত হয়ে চলা কারও পক্ষেই সম্ভব নয়। বিস্ময়কর উন্নত এই যোগাযোগ ব্যবস্থার যুগে আমরা সকলেই এক ভুবনগ্রাম এবং বিশ্ব বাণিজ্য ও বিশ্ব অর্থনীতির অবিচ্ছেদ্য অংশ। প্রত্যেকের সীমাবদ্ধতা স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে। ছোট বড় প্রতিটি দেশ আজ পরস্পরের উপর বিশেষভাবে নির্ভরশীল। চীন ও ভারতের মধ্যে নানাভাবে ক্ষমতার দ্বন্দ্ব রয়েছে বলে চীনের কোনও বিপর্যয়ে ভারতের খুশি হওয়ার বিন্দুমাত্র সুযোগ নেই। তেমনি ভারতের আর্থিক মন্দার খবরে ম্রিয়মাণ হতে হয় চীনের বাজারকেও। ভারতের আর্থিক মন্দা বৃদ্ধির আশঙ্কায় বিশ্ব অর্থনীতির বৃদ্ধির অনুমিত হার কমিয়ে দেখাতে হয়েছে বিশ্বব্যাঙ্ককে। অতএব করোনার বিপদটিকে এক বা একাধিক দেশ বিশেষের বলে এড়িয়ে যাওয়ার সুযোগ নেই। পৃথিবীর সব দেশকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে এই বিপদের মোকাবিলা করতে হবে। ভারতের মতো বিরাট দেশকেও অনুরূপ নীতি নিয়ে লড়াই করতে হবে। কোন রাজ্যে বা শহরে কতটা সংক্রমণ ঘটল, তার বিচার করার প্রয়োজন নেই। বরং চেষ্টা করতে হবে, সংক্রমণ যতটা ঘটে গিয়েছে সেখানেই পূর্ণচ্ছেদ টেনে দিতে। এই বিপদে মৃত্যুর মুখ যেন দেখতে না-হয় ভারতকে। তবেই সার্থক হবে ভারতের লড়াই। আর এই সাফল্যের জন্য সব রাজ্যের এবং সব মানুষের সমান সহযোগিতা প্রয়োজন।
আতঙ্ক নয়, দেশকে ঠিকমতো সচেতন করাই হল প্রথম পদক্ষেপ। তারপর দরকার আধুনিক চিকিৎসা পরিষেবার পর্যাপ্ত পরিকাঠামো গড়ে তোলা। মনে রাখতে হবে, এই পর্যন্ত ভারতে করোনা সংক্রমণের ফলে অসুস্থ মানুষের সংখ্যা ৫০ ছাড়িয়ে গিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক সন্দেহভাজন রোগীদের রক্তের নমুনা পরীক্ষার জন্য শতাধিক কেন্দ্র চিহ্নিত করে যথার্থ পদক্ষেপই করেছে। তার ভিতরে বাংলার বেলেঘাটায় কেন্দ্রীয় গবেষণাগার নাইসেড এবং বিভিন্ন প্রান্তের ছ’টি মেডিকেল কলেজকে রাখা হয়েছে। সরকারের সহযোগী হয়েছে কয়েকটি বেসরকারি চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানও। এই লড়াইতে বিদেশি দূতাবাসগুলিকেও যুক্ত করা হয়েছে। যেমন রবিবার কলকাতায় অবস্থিত ব্রিটিশ কাউন্সিল ভবনে কয়েকটি দূতাবাসের কর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের অফিসাররা। সব মিলিয়ে করোনার বিরুদ্ধে ভারতের লড়াই এখনও পর্যন্ত আশাপ্রদ। তার ভিতরে ভরসা জোগাচ্ছে বিশেষ করে বাংলার নেতৃত্ব। আসুন, এই বিরাট লড়াইতে আমরা সবাই কাঁধে কাঁধ মেলাই এবং ভরসা রাখি যে জিতবই। বিস্মৃত হব না যে একের পর এক জয়ের ভিতর দিয়েই মানুষের ইতিহাস সমৃদ্ধ হয়েছে। সবার বাসযোগ্য সুন্দর এক পৃথিবী নির্মাণই মানুষের অঙ্গীকার। 
11th  March, 2020
খামখেয়ালি ট্রেন

 মানুষ শোকে কাতর হয়। কিন্তু শোক যখন বিরাট বিপুল—জানা হয়ে গিয়েছে যে উপর্যুপরি শোকটাই ভবিতব্য—মানুষ সেই শোকে পাথর হয়ে যায়। ঠিক এই নিয়মেই খবরের কাগজের ভিতরের পাতায় স্বাভাবিক জায়গা খুঁজে নিয়েছে ‘আমরিকায় ভাইরাসের বলি লক্ষ, বিশ্বজুড়ে আক্রান্তের সংখ্যা ৫৭ লক্ষ ছাড়াল’-র মতো বিরটা খবরটি।
বিশদ

বিপদ পিছু ছাড়েনি,
সতর্কতা জরুরি

দু’মাস পেরিয়ে গিয়েছে, অথচ করোনা নিয়ে আতঙ্ক কেটে যাওয়ার কোনও লক্ষণ নেই! বরং এই মারণ ভাইরাসের থাবায় আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। কী দেশে, কী রাজ্যে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আরও বেশ কিছুদিন এই ভাইরাসের লালচোখ দেখতে হবে। বিশদ

28th  May, 2020
সমন্বয়ের এতটা অভাব! 

জয় যেখানে চূড়ান্ত লক্ষ্য, সেটা একটা গেম, বা খেলা। সেই হিসেবে যুদ্ধ হল সবচেয়ে বড় খেলা। যুদ্ধে জরুরি সৈন্যসহ লোকবল এবং কৌশল। জয়-পরাজয় নির্ধারিত হয় সেরা কৌশলের দ্বারা। কৌশল নির্ধারণ করতে হয় প্রতিপক্ষ কে এবং কেমন তার শক্তি ও কৌশল ইত্যাদি দেখে।   বিশদ

27th  May, 2020
বিপদকালেও চীনের আগ্রাসন! 

ভারত বরাবরই শান্তি ও সৌভ্রাতৃত্বের আদর্শে বিশ্বাসী। কিন্তু তার প্রতিবেশী এমন দু’টি রাষ্ট্র রয়েছে, যারা সে পথে হাঁটে না। চীন ও পাকিস্তান। কখনও সীমান্ত দিয়ে সেনা ঢুকিয়ে দখলদারির চেষ্টা, কখনও বা জঙ্গিহানায় মদত জুগিয়ে ভারত সরকারকে ব্যতিব্যস্ত করে রাখতে চায় তারা।   বিশদ

26th  May, 2020
আর একটু ধৈর্য 

প্রবাদ যে কতটা সত্য বহন করে, তা পশ্চিমবঙ্গকে হাড়ে হাড়ে টের পাইয়ে দিল ২০২০। এ বছরটা শুরুই হয়েছে যেন বিপর্যয়কে সঙ্গী করে। অর্থনৈতিক মন্দার মধ্যে পড়েছে দেশ। সাড়ে তিন বছরেও ‘কারেকশন’ হয়নি।  বিশদ

25th  May, 2020
এবার কেন্দ্রের পালা

প্রাকৃতিক বিপর্যয় পশ্চিমবঙ্গের ফি বছরের সঙ্গী। কোনও বছর বন্যা, তো পরের বছর বিধ্বংসী ঝড়। কোনও বছর খরা, তো পরের বছর পাহাড়ে ধস। এছাড়া নদীতে ব্যাপক ভাঙন, সুন্দরবন অঞ্চলে মাইলের পর মাইল নদীবাঁধ ভেঙে যাওয়া, লোনাজল ঢুকে গিয়ে কৃষিজমি নষ্ট হয়ে যাওয়ার মতো সমস্যাগুলি আছেই।
বিশদ

24th  May, 2020
দুর্যোগ শেষে অগ্রিম, লক্ষ কোটি
ক্ষতির হিসেব মিলবে তো?

 মারণ ঝড়ের ধ্বংসলীলায় বিধ্বস্ত রাজ্যের লক্ষ লক্ষ মানুষ। মাথার উপর ছাদটুকুও নেই, শেষ সম্বলটুকু হারিয়ে নিঃস্ব অনেকেই। আকাশে আলো ফুটলেও নির্মম কঠিন এই পরিস্থিতিতে তাঁদের জীবনে কে দেবেন আলোর সন্ধান? বিশদ

23rd  May, 2020
 সবাই মিলে বিপর্যয়ের মোকাবিলা করতে হবে

পশ্চিমবঙ্গ নামের সুপ্রাচীন জনপদটি সুজলা সুফলা। সে আমাদের জন্য আশীর্বাদ। এর পিছনে রয়েছে এখানকার প্রকৃতির বৈশিষ্ট্য। নদীমাতৃক এই সভ্যতা বিপুল পরিমাণে ঋণী বঙ্গোপসাগরের কাছে। বঙ্গের নামাঙ্কিত এই উপসাগর আবার ভয়ঙ্কর খেয়ালি।
বিশদ

22nd  May, 2020
জোড়া বিপর্যয় মোকাবিলার কঠিন চ্যালেঞ্জ

 বিপদ একা আসে না। বিপদের পিছু পিছু আসে অন্য বিপদ। একে করোনা সঙ্কট, তারমধ্যেই ধেয়ে এল এক ভয়ঙ্কর প্রাকৃতিক দুর্যোগ উম-পুন। সুপার সাইক্লোন। এমন জোড়া ধাক্কাই সামলাতে হচ্ছে বাংলাকে। বিশদ

21st  May, 2020
অর্থনীতির প্রাণভোমরা

গত পাঁচ দশক ধরে কৃষিক্ষেত্রকে বাদ দিলে, ভারতীয় অর্থনীতির প্রধান শক্তির নাম এমএসএমই—অর্থাৎ ছোট, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প। ভারতের শিল্পক্ষেত্রে এমএসএমই দু’ভাবে তার ভূমিকা পালন করে থাকে। (এক) বৃহৎ শিল্পের সহায়ক বা সহযোগী হিসেবে।
বিশদ

20th  May, 2020
বেসরকারিকরণ কি ত্রাণের
প্যাকেজ হতে পারে?

 বিপদের দিনে বোঝা যায় কে বন্ধু আর কে শত্রু। প্রকাশ্যে আসে দেশের সরকারের ভূমিকা। করোনার বিপদ মোদি সরকারের কাছে কিছুটা যেন সাপে বর হয়েই দাঁড়িয়েছে। তাদের সাম্প্রতিক কিছু কাজকর্মে সেটাই ক্রমশ স্পষ্ট হচ্ছে। বিশদ

19th  May, 2020
মানবিক মমতা

 ২০ মে, ২০১১। পাল্টে গেল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারি পরিচয়। ছিলেন পশ্চিমবঙ্গের অবিসংবাদিত বিরোধী নেত্রী। হয়ে গেলেন মুখ্যমন্ত্রী। বাংলার মুখ্যমন্ত্রীর কুর্সিতে তিনিই প্রথম মহিলা।
বিশদ

18th  May, 2020
এখনও সময় আছে

ভারত বিপুল জনসংখ্যার এক গরিব দেশ। বিকেন্দ্রীকরণের নীতি ছাড়াই দেশের সামান্য কয়েকটি পকেটে কিছু বড় শিল্প তৈরি হয়েছে। হাতে গোনা কয়েকটি মহানগরকে কেন্দ্র করে ঘটেছে বাণিজ্য ও অর্থনীতির সীমিত বিকাশ।
বিশদ

17th  May, 2020
ঋণনির্ভর প্যাকেজে সুরাহা হবে?

 আচ্ছে দিনের স্বপ্ন দেখিয়ে ক্ষমতায় এসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তা যে কত বড় ভাঁওতা ছিল এতদিনে দেশবাসী হাড়ে হাড়ে টের পেয়েছে। করোনা সঙ্কটের দিনেও স্লোগান-সর্বস্ব সেই ভাঁওতাবাজি অব্যাহত। সঙ্গে যোগ হয়েছে পরিহাস। বিশদ

16th  May, 2020
গ্রামীণ অর্থনীতির জন্য

স্বাধীনতালাভের পর সাত দশক পেরিয়ে গিয়েছে। এখনও ভারতের প্রায় ৭০ শতাংশ মানুষ বাস করেন গ্রামাঞ্চলে। ৭৩৯টি জেলার প্রায় সাড়ে ৬ লক্ষ গ্রামে তাঁদের থাকার ব্যবস্থা। ভারতের অন্যতম প্রধান একটি রাজ্য হল পশ্চিমবঙ্গ। আয়তনের নিরিখে ত্রয়োদশ বৃহৎ।
বিশদ

15th  May, 2020
  ধোঁয়াশা রইল

 বছর ছয়েক আগে ‘মেক ইন ইন্ডিয়া’র কথা বলেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। লক্ষ্যে পৌঁছনোর জন্য দেশের প্রতিটি মানুষ যাতে স্বনির্ভর হতে পারে, সে পথেই এগনোর দরকার ছিল। যা এতদিনেও হয়নি। বিশদ

14th  May, 2020
একনজরে
  নিজস্ব প্রতিনিধি, দক্ষিণ ২৪ পরগনা: সরকারি হিসেবে সুন্দরবনের ৩ হাজার ৯৯১ কিলোমিটার জঙ্গল কমবেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তার মধ্যে প্রায় ৪৫ শতাংশ বাদাবন ধ্বংস করে ...

অলকাভ নিয়োগী, বর্ধমান: করোনা ভাইরাসের সংক্রমণে যখন গোটা রাজ্য আতঙ্কিত, তখন ‘মড়ার উপর খাড়ার ঘা’য়ের মতো ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি করে দিয়ে গিয়েছে সুপার সাইক্লোন উম-পুন। ...

ওয়াশিংটন, ২৮ মে: ‘তথ্য যাচাই’ (ফ্যাক্ট চেক) নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে ট্যুইটারের লড়াই অন্য মাত্রা পেল। বুধবার ট্রাম্প জানান, কৃতকর্মের জন্য শাস্তি পেতে ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: করোনা সংক্রমণ এবং মৃত্যুর নিরিখে দেশের মধ্যে শীর্ষে থাকা মহারাষ্ট্র সহ পাঁচ রাজ্য থেকে ২০ হাজারের বেশি পরিযায়ী শ্রমিকদের নিয়ে বৃহস্পতিবার ফিরল ১৬টি স্পেশাল ট্রেন। এর মধ্যে ন’টি ট্রেনে চেপে ১০ হাজারের বেশি পরিযায়ী শ্রমিক ফিরলেন মহারাষ্ট্র ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

বিদ্যায় সাফল্যও হতাশা দুই বর্তমান। নতুন প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠবে। কর্মপ্রার্থীদের শুভ যোগ আছে। কর্মক্ষেত্রের ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮৬৫—প্রবাসী, মডার্ন রিভিউয়ের প্রতিষ্ঠাতা ও সম্পাদক রামানন্দ চট্টোপাধ্যায়ের জন্ম।
১৯৫৩—প্রথম এভারেস্ট শৃঙ্গ জয় করলেন তেনজিং নোরগে এবং এডমন্ড হিলারি
১৯৫৪—অভিনেতা পঙ্কজ কাপুরের জন্ম।
১৯৭২—অভিনেতা পৃথ্বীরাজ কাপুরের মৃত্যু।
১৯৭৭—ভাষাবিদ সুনীতি চট্টোপাধ্যায়ের মৃত্যু।
১৯৮৭—ভারতের পঞ্চম প্রধানমন্ত্রী চৌধুরি চরণ সিংয়ের মৃত্যু।



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৫.০১ টাকা ৭৬.৭৩ টাকা
পাউন্ড ৯১.৩২ টাকা ৯৪.৫৭ টাকা
ইউরো ৮১.৯৯ টাকা ৮৫.০৬ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪১,৮৮০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৯,৭৩০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪০,৩৩০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৮,৮০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৮,৯০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
22nd  March, 2020

দিন পঞ্জিকা

১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ২৯ মে ২০২০, শুক্রবার, সপ্তমী ৪২/২৯ রাত্রি ৯/৫৬। অশ্লেষানক্ষত্র ৫/৫ দিবা ৬/৫৮। সূর্যোদয় ৪/৫৬/৬, সূর্যাস্ত ৬/১১/৫৫। অমৃতযোগ দিবা ১২/০ গতে ২/৩৯ মধ্যে। রাত্রি ৮/২১ মধ্যে পুনঃ ১২/৩৮ গতে ২/৪৭ মধ্যে পুনঃ ৩/৩০ গতে উদয়াবধি। বারবেলা ৮/১৫ গতে ১১/৩৪ মধ্যে। কালরাত্রি ৮/৫২ গতে ১০/১৩ মধ্যে।
১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ২৯ মে ২০২০, শুক্রবার, সপ্তমী রাত্রি ৭/৩। মঘানক্ষত্র রাত্রি ৩/৩৬। সূর্যোদয় ৪/৫৬, সূর্যাস্ত ৬/১৪। অমৃতযোগ দিবা ১২/৪ গতে ২/৪৫ মধ্যে এবং রাত্রি ৮/২৭ মধ্যে ও ১২/৪০ গতে ২/৪৮ মধ্যে ও ৩/৩০ গতে ৪/৫৬ মধ্যে। বারবেলা ৮/১৫ গতে ১১/৩৫ মধ্যে। কালরাত্রি ৮/৫৪ গতে ১০/১৪ মধ্যে।
৫ শওয়াল

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
ছত্তিশগড়ের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী অজিত যোগী প্রয়াত 
দীর্ঘ অসুস্থতার পর প্রয়াত হলেন ছত্তিশগড়ের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী অজিত যোগী। ...বিশদ

03:54:20 PM

১২ জুন পর্যন্ত পুলিস হেফাজতে ধৃত জঙ্গি 
বুদ্ধগয়া বিস্ফোরণ কাণ্ডে জড়িত সন্দেহে ধৃত জঙ্গি আব্দুল করিমকে ১২ ...বিশদ

03:48:50 PM

হিমাচলে করোনা আক্রান্ত আরও ৯
হিমাচল প্রদেশে করোনায় আক্রান্ত হলেন আরও ৯ জন। এই নিয়ে ...বিশদ

01:43:58 PM

করোনা: কোন রাজ্যে কত আক্রান্ত? 
ভারতে এখনও পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১ লক্ষ ...বিশদ

01:07:45 PM

লকডাউন নিয়ে আলোচনায় প্রধানমন্ত্রী ও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী 
লকডাউন নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীদের মতামত শোনার পর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে ...বিশদ

12:40:28 PM

শ্রমিক স্পেশাল: নতুন বিজ্ঞপ্তি জারি রেলমন্ত্রকের
শ্রমিক স্পেশাল নিয়ে নতুন বিজ্ঞপ্তি জারি করল রেল। বিজ্ঞপ্তিতে বলা ...বিশদ

11:43:49 AM