Bartaman Patrika
সম্পাদকীয়
 

বাজি: সতর্ক হওয়ার সময়

আমাদের দেশে শারদোৎসবের ঢাকে কাঠি পড়ার আগেই বেআইনি বাজি কারখানা নিয়ে উদ্বেগ আশঙ্কা দেখা দিচ্ছে। ফের একবার পাঞ্জাবের বাটালায় বাজি তৈরির কারখানায় বিস্ফোরণে প্রায় ২৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। জখমও হয়েছেন বহু মানুষ। যাঁদের অনেকের অবস্থা আশঙ্কাজনক। হয়তো মৃত্যু না হলেও কাউকে হয়তো বাকি জীবনটা পঙ্গু হয়ে থাকতে হতে পারে। প্রাথমিক তদন্তের পর পুলিস দাবি করেছে, ওই বাজি কারখানাটি অবৈধ। শুধু এই কারখানাটিই নয়, গুরুদাসপুর জেলায় এরকম আরও অন্তত ২০টি বেআইনি বাজি কারখানার হদিশ মিলেছে। একটি বিস্ফোরণের পর প্রতিবারই পুলিসের এই ‘জ্ঞানচক্ষু’র উন্মীলন দেখে দেখে আমরা অভ্যস্থ হয়ে গিয়েছি। যে বেআইনি বাজি কারখানাটির হদিশ বিস্ফোরণের আগের মুহূর্ত পর্যন্ত পুলিস বা প্রশাসনের কেউ জানত না। সেটা পুলিস আধিকারিকরা বলার পরে আমরা জানতে পারি। যেমন এক্ষেত্রেও বাটালার এক উচ্চপদস্থ পুলিস কর্তা বলেছেন, কারখানায় বেআইনিভাবে বাজি তৈরি হচ্ছিল, আমাদের কাছে আগাম খবর ছিল না। তাহলে অনেক আগেই কারখানাটি বন্ধ করে দেওয়া হতো। এখন বাটালা শহরের সব কারখানার লাইন্সেস খতিয়ে দেখা হবে। এই বক্তব্যের উল্টোদিকে দেখা যাচ্ছে যে, হাসপাতালে জখমদের পরিজনরা বিক্ষোভ দেখান। তাঁদের দাবি ছিল, বারবার বলা সত্ত্বেও প্রশাসন এইসব অবৈধ কারখানাগুলির বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ নেয়নি। প্রশাসনের উদাসীনতার জেরে এত মানুষের প্রাণ গেল। এক বিক্ষোভকারীর দাবি, এখন আর সরকার তদন্ত করে কী করবে? আরও দাবি, কারখানাগুলি যাঁরা চলতে দিয়েছিলেন, সেই সব সরকারি আধিকারিকের বিরুদ্ধে খুনের মামলা দায়ের করতে হবে। দু’বছর আগে ওই একই কারখানাতে বিস্ফোরণ হয়েছিল। এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়। তারপরে এই ঘটনা ঘটায় সরকারের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে।
সংবাদ সূত্রে জানা গিয়েছে, বুধবার ভোর ৪টে নাগাদ বাজি কারখানায় বিস্ফোরণ হয়। ঘটনাস্থল থেকে ২৩টি দেহ উদ্ধার করা হয়েছে। বিস্ফোরণের তীব্রতার জেরে কারখানার ছাদ ভেঙে পড়ে। এমনকী বিস্ফোরণের কম্পনে পাশের কয়েকটি বা‌঩ড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ভেঙে পড়ে জানালার কাচ। আতঙ্কিত মানুষ রাস্তায় নেমে আসেন। ক্ষতিগ্রস্ত হয় একাধিক গাড়ি। বিস্ফোরণের তীব্রতা এতটাই বেশি ছিল যে, কয়েক কিলোমিটার দূর থেকে শব্দ শোনা গিয়েছিল। পাঞ্জাবের ঘটনাটিকে কেবলমাত্র বিচ্ছিন্ন একটি ঘটনা হিসেবে দেখা ঠিক নয়। ভারতের বহু জায়গাতেই বেআইনিভাবে বাজি প্রস্তুত হয়। ভারতীয় সংস্কৃতির সঙ্গে বিশেষত দেওয়ালির পরবে বাজির আলোকে রাঙা হয়ে ওঠে আকাশ। এছাড়াও এখনকার যে কোনও পুজোর নিরঞ্জনপর্ব, বিয়েশাদি, জন্মদিন, খেলায় জেতার মুহূর্তে বাজি ফাটানোটা যেন রীতি হয়ে দাঁড়িয়েছে। আর বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই আলোর তুলনায় শব্দবাজির কদর যেন বেশি। কিন্তু, আমরা কেউ একবারের জন্যও ভাবি না, বাজি তৈরি, মজুত ও ফাটানোর মধ্যে আছে বিপজ্জনক ঝুঁকি। শুধু তাই নয়, বাজির ধোঁয়ার ফলে যে দূষণ হয়, তা মারাত্মক ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে পরিবেশে। সে কারণেই বিধিনিষেধ মেনে বাজি তৈরি না করে বহু প্রস্তুতকারকই বেআইনি পদ্ধতি অবলম্বন করেন। বেশ কয়েকটি সমীক্ষায় এও দেখা গিয়েছে যে, এই বাজি তৈরির সঙ্গে যুক্ত করা হয় শিশু শ্রমিকদেরও। যা আরও একধাপ বেআইনি অপরাধমূলক কাজ।
সব মিলিয়ে প্রতিবার এই উৎসব মরশুম এলেই বাজি কারখানায় বিস্ফোরণ যেন বাৎসরিক দুর্ঘটনাপঞ্জিতে এসে গিয়েছে। কিছুদিন আগেই কলকাতা লাগোয়া চম্পাহাটিতে একইভাবে বাজি কারখানায় বিস্ফোরণ হয়েছিল। সেখানে কেউ মারা না গেলেও দু’জন জখম হয়েছিলেন। এর আগেও চম্পাহাটিতে দুর্ঘটনায় কয়েকজনের মৃত্যু হয়। এছাড়া অন্যান্য জেলাতেও বাজি কারখানার বিস্ফোরণে বা অগ্নিকাণ্ডের জেরে প্রায়শই হতাহতের ঘটনা ঘটে। অথচ, এসবই দিনের পর দিন পুলিস-প্রশাসনের চোখের সামনে, নাকের ডগায় বহাল তবিয়তে চলে আসছে। এবারের উৎসবের মরশুমে এমন দুঃখজনক ঘটনা যাতে কোনওভাবেই না ঘটে সেজন্য সতর্ক থাকতেই হবে। আমাদের পশ্চিমবঙ্গেও বেআইনি বাজি কারখানা বন্ধের উদ্যোগ নিতে হবে। একথা ঠিক খুব গভীরভাবে তলিয়ে দেখলে দেখা যাবে—এর সঙ্গে আর্থ-সামাজিক বিষয়টি ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে রয়েছে। ফলে, পুলিস জানলেও অনেকসময় তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারে না, বা নেয় না। কিন্তু, সংখ্যাগরিষ্ঠের আনন্দের নামে এভাবে মৃত্যু-মিছিলের দায়ও কি পুলিস এড়াতে পারে? রাতের আকাশে আলোর রোশনাই জ্বেলে সাময়িক মোহিত হয়ে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য দূষণ নামক চিরকালের অন্ধকার ডেকে আনার কি শেষ হবে না!
07th  September, 2019
অগ্নিকাণ্ড: বছরভর সতর্কতা জরুরি 

১৯৯৭ সালের স্মৃতি ফিরে এল । সেদিনের সেই ভয়াবহ ঘটনা এখনও অনেকের মন থেকে মুছে যায়নি। চলছিল ‘বর্ডার’ ছবি। আর তার মাঝেই উপহার সিনেমা হলে লাগল আগুন। সর্বশেষ হিসেব অনুযায়ী, সেদিনের ঘটনায় মৃত্যু হয়েছিল ৫৯ জনের। আহতের সংখ্যা নয় নয় করে একশো।  
বিশদ

পৃথিবীকে রক্ষা করবে কারা?

খরা, বন্যা এবং ঘূর্ণিঝড়! এই ত্র্যহস্পর্শেই জলবায়ু বদলজনিত বিপদের আশঙ্কায় বিশ্বে পঞ্চম স্থানে উঠে এসেছে ভারত। একটি জার্মান পরিবেশ গবেষণা সংস্থার প্রকাশিত সমীক্ষা রিপোর্টে একথা জানিয়েছেন পরিবেশবিদরা।   বিশদ

09th  December, 2019
এনআরসি নয়, সমস্যা অর্থনীতি

 নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরুদ্ধে আন্দোলনে যদি একজন মাত্র মানুষ দাঁড়িয়ে থাকে, তাঁর নাম মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী সোজাসাপ্টা কথা বলতে ভালোবাসেন। এবং তাঁর উদ্দেশ্যটাও সব সময় পরিষ্কার হয়। এবারও তার অন্যথা হচ্ছে না। বিশদ

08th  December, 2019
মুখ ঢাকো লজ্জায়

মধ্যযুগীয় নারকীয় বর্বরতাও মুখ ঢাকবে লজ্জায়। তেমনই লজ্জায় মাথা হেঁট করা উচিত উন্নাওয়ের পুলিস-প্রশাসনেরও। এ কোন দেশে বাস করছি আমরা? মহিলাদের নিরাপত্তা দেওয়া তো দূরঅস্ত, ধর্ষণের মতো ঘৃণ্যতম অপরাধের মূল সাক্ষী ‘নির্যাতিতা’কে সুরক্ষা না দিতে পারার ব্যর্থতা কি কিছু দিয়েই ঢাকা দেওয়া যাবে? 
বিশদ

07th  December, 2019
রান্নাঘরে আগুন, অসহায় সরকার 

দেশজুড়ে রীতিমতো যেন প্রতিযোগিতা শুরু হয়ে গিয়েছে। দাম বৃদ্ধির প্রতিযোগিতা। এই প্রতিযোগিতায় পেট্রল, ডিজেল সহ অনেককে পিছনে ফেলে বিদ্যুৎগতিতে এগিয়ে চলেছে পেঁয়াজ। তার গতি এতটাই তীব্র যে, ধারেকাছে কেউ ঘেঁষতে পারছে না। চিতাবাঘের গতিও তার কাছে হার মেনেছে। 
বিশদ

06th  December, 2019
আর রেল দুর্ঘটনা চায় না দেশ

রেল। এই ছোট্ট একটি শব্দের গুরুত্ব ভারতের মতো সুবিশাল দেশে বিরাট। দেশজুড়ে ৬০ হাজার কিমি রেল ট্র্যাকে রোজ নানা ধরনের ১১ হাজারের বেশি ট্রেন দিন-রাত ছুটে বেড়াচ্ছে। তার মধ্যে দীর্ঘতম রেলরুট হল অসমের ডিব্রুগড় থেকে সুদূর দক্ষিণে কন্যাকুমারী—৪,২৮৬ কিমি!
বিশদ

05th  December, 2019
গোদের উপর বিষফোঁড়া 

এখন বাজার করতে যাওয়া আর গিলোটিনে মাথা দেওয়া একই ব্যাপার। বাজার মানেই তপ্ত কড়াই। পিঁয়াজ কিনলে আলু কেনার পয়সা থাকে না। আলু কিনলে ফুলকুপি কেনার পয়সা থাকে না। ফুলকপি কিনলে ধনেপাতা কেনার পয়সা থাকে না। এই নিত্য ছেঁকা খাওয়ার অবস্থার মধ্যেই এল দুঃসংবাদ। আরও এক ছেঁকা। 
বিশদ

03rd  December, 2019
ধ্যান-জপের অপরিহার্য্যতা 

জপ-ধ্যানাদি সম্বন্ধে একটা সন্দেহ কাহারও কাহারও মনে থাকিতে পারে। আচার্য্যদেব ফোন সময়ে বলিয়াছেন—সকলে জপ করে কাঠের মালায়, তিনি জপ করেন জাতিগঠনের মালায়—কোন দুর্ব্বল মুহুর্তে ইহার ব্যাখ্যা কেহ কেহ নিজের সুবিধা মতো করিয়া নিতে পারে। মনে হইতে পারে, আচার্য্যদেব জাতিগঠনের কাজকে জপ-ধ্যানের চাইতে উচ্চ স্থান দিয়াছেন। 
বিশদ

02nd  December, 2019
বন্ধ হোক পেঁয়াজের দাদাগিরি

চলতি সপ্তাহেই সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছে পেঁয়াজ। কালোবাজারি রুখতে সরকারের এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ রয়েছে। নজরদারির জন্য রয়েছে টাস্ক ফোর্স। কিন্তু, সেসবকে কলা দেখিয়ে খুচরো বাজারে চলছে ‘পেঁয়াজের দাদাগিরি’। পরিস্থিতি এমনই যে, আপেলের মতো দামি ফলকে হারিয়ে মহার্ঘ তকমা ছিনিয়ে নিয়েছে সে। 
বিশদ

02nd  December, 2019
আর্থিক সঙ্কট, মোদির চ্যালেঞ্জ 

রাজনীতির ময়দানে একের পর এক ধাক্কা সামাল দেওয়ার ফুরসত নেই, তারই মধ্যে নরেন্দ্র মোদির কাছে আরও বড় চ্যালেঞ্জ নিয়ে এল দেশের অর্থনীতি। কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন ‘সমস্যা কিছু রয়েছে ঠিকই, তবে আর্থিক মন্দা নয়।  বিশদ

01st  December, 2019
আগুনখেলায় হাতও পুড়ল, মুখও বাঁচল না

 কথায় আছে—অতি দর্পে হতা লঙ্কা। এটা শুধু কথার কথা নয়, দেশে-কালে, ইতিহাসে বারবার তা প্রমাণিত সত্য। ঔদ্ধত্য আকাশ ছুঁয়ে ফেললেই তার পতন অনিবার্য। যেমনটা দেখা যাচ্ছে সাম্প্রতিক আমাদের দেশের রাজনীতিতে। সেই কারণেই লোকসভা ভোটে দু’কূল ছাপানো ফলাফলের পর থেকে বিজেপি নিজেকে সর্বশক্তিমান ভাবতে শুরু করেছিল। বিশদ

30th  November, 2019
সরকারের ভুল সিদ্ধান্তের মাশুল গুনতে হয় জনগণকেই 

এতদিন যা ছিল মানুষের মনে, বৃহস্পতিবার সেটাই এল সরকারের মুখে। সংসদে দাঁড়িয়ে কেন্দ্রীয় শ্রমমন্ত্রী সন্তোষকুমার গঙ্গওয়ার স্বীকার করে নিয়েছেন, নোট বাতিলের পর দেশে বেকারের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে।  বিশদ

29th  November, 2019
গড়পড়তা

গত শনিবার সাত সকালে দ্বিতীয়বার মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন দেবেন্দ্র ফড়নবিশ। পিছন পিছন শপথ নিলেন উপমুখ্যমন্ত্রী অজিত পাওয়ার। তাঁদের শপথ বাক্য পাঠ করালেন রাজ্যপাল ভগৎ সিং কোশিয়ারি। বলা হল, ৩০ নভেম্বরের মধ্যে সংখ্যাগরিষ্ঠতার প্রমাণ দেবেন ফড়নবিশ।
বিশদ

28th  November, 2019
ক্ষোভ প্রশমনের দাওয়াই 

অবসরপ্রাপ্ত বহু মানুষ স্বস্তিতে নেই। সন্তানের বেকারত্ব, নিজের রোগব্যাধি, নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্যবৃদ্ধিসহ নানা সমস্যায় জেরবার তাঁরা। কর্মজীবনে তিলে তিলে সঞ্চয় করা অর্থের সুদের টাকায় অনেকের পক্ষে সংসার চালানোটা এখন মুশকিল হয়ে দাঁড়াচ্ছে।  বিশদ

27th  November, 2019
আপাতত জল্পনার স্বর্গরাজ্য 

মাঝরাতেই শিবির বদল শারদ পাওয়ারের ভাইপোর। রাতের অন্ধকারে মহারাষ্ট্রের রাজনীতিতে নাটকীয় পরিবর্তনের অন্যতম প্রধান চরিত্র হয়ে উঠলেন এনসিপি নেতা অজিত পাওয়ার। কোন অজিত পাওয়ার? ফড়নবিশ যাঁকে দুর্নীতির দায়ে জেলে পাঠিয়েছিলেন। অতঃপর সেই অজিতের হাত ধরেই মহারাষ্ট্রে ফের সরকারে বিজেপি। 
বিশদ

25th  November, 2019
ঐতিহাসিক ‘গোলাপি’ টেস্ট

 অবশ্যই ঐতিহাসিক। দিনরাতের টেস্ট ম্যাচের পরিধিতে ঢুকে পড়ল ভারত। সৌজন্যে, সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পরই তিনি বুঝিয়ে দিয়েছিলেন, বদল আসতে চলেছে তাঁর হাত ধরে। ভারতের ক্রিকেটে।
বিশদ

24th  November, 2019
একনজরে
নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: আজ, ১০ ডিসেম্বর থেকে নিজেদের মার্জিনাল কস্ট অব ফান্ডস বেসড লেন্ডিং রেট বা এমসিএলআর কমাল স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া (এসবিআই)। এক প্রেস বিবৃতিতে তারা একথা জানিয়ে বলেছে, আগে তাদের বার্ষিক এমসিএলআর ছিল আট শতাংশ। ...

সংবাদদাতা, রামপুরহাট: অজ্ঞাতপরিচয় এক সাধুর মৃত্যু হল রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। রবিবার রাতে তারাপীঠের শ্মশান থেকে অসুস্থ ওই সাধুকে উদ্ধার করে রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসে তারাপীঠ থানার পুলিস। সেখানে চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।   ...

অমিত চৌধুরী, হরিপাল: হরিপাল থানার কৈকালা গ্রাম পঞ্চায়েতের বলদবাঁধ গ্রামে প্রতিবছর শীতের সময় ভিড় করে পরিযায়ী পাখি। বিদেশি পাখির আগমনকে ঘিরে একসময় এলাকায় পিকনিকের আসর বসলেও স্থানীয় মানুষ উদ্যোগ নিয়ে পাখিদের নিশ্চিন্তে অস্থায়ী ঠিকানায় বাস করতে বন্ধ করে দিয়েছেন পিকনিক। ...

ওয়েলিংটন, ৯ ডিসেম্বর (এএফপি): ছবির মতো সুন্দর হোয়াইট আইল্যান্ড। ভ্রমণের আনন্দে মশগুল পর্যটকের দল। ভরদুপুরে হঠাৎ করে জেগে উঠল আগ্নেয়গিরি। সোমবার নিউজিল্যান্ডের এই ঘটনায় মৃত্যু হল অন্তত পাঁচজনের। জখম ১৮ জন। সরকারি সূত্রে খবর, আটকে পড়েছেন বহু পর্যটক। তাঁদের উদ্ধারের ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
aries

কর্মপ্রার্থীদের ক্ষেত্রে শুভ। সরকারি ক্ষেত্রে কর্মলাভের সম্ভাবনা। প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় সাফল্য আসবে। প্রেম-ভালোবাসায় মানসিক অস্থিরতা থাকবে। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

বিশ্ব মানবাধিকার দিবস,
১৮৭০- ঐতিহাসিক যদুনাথ সরকারের জন্ম,
১৮৮৮- শহিদ প্রফুল্ল চাকীর জন্ম,
২০০১- অভিনেতা অশোককুমারের মৃত্যু  





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৪৪ টাকা ৭২.১৪ টাকা
পাউন্ড ৯২.০৭ টাকা ৯৫.৩৭ টাকা
ইউরো ৭৭.৩৪ টাকা ৮০.২৯ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,২৮৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,৩২৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৬,৮৭০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৩,৫০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৩,৬০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, ত্রয়োদশী ১১/২৬ দিবা ১০/৪৪। কৃত্তিকা ৫৯/২৯ শেষ রাত্রি ৫/৫৭। সূ উ ৬/৯/৩১, অ ৪/৪৮/৪৩, অমৃতযোগ দিবা ৬/৫২ মধ্যে পুনঃ ৭/৩৫ গতে ১১/৮ মধ্যে। রাত্রি ৭/২৯ গতে ৮/২২ মধ্যে পুনঃ ৯/১৬ গতে ১১/৫৬ মধ্যে পুনঃ ১/৪৩ গতে ৩/৩০ মধ্যে পুনঃ ৫/১৭ গতে উদয়াবধি, বারবেলা ৭/২৮ গতে ৮/৪৮ মধ্যে পুনঃ ১২/৪৮ গতে ২/৮ মধ্যে, কালরাত্রি ৬/২৮ গতে ৮/৮ মধ্যে। 
২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, ত্রয়োদশী ১০/২/৪৮ দিবা ১০/১২/৫। কৃত্তিকা ৬০/০/০ অহোরাত্র, সূ উ ৬/১০/৫৮, অ ৪/৪৯/১৩, অমৃতযোগ দিবা ৭/৩ মধ্যে ও ৭/৪৫ গতে ১১/৬ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/৩৫ গতে ৮/২৯ মধ্যে ও ৯/২৩ গতে ১২/৪ মধ্যে ও ১/৫২ গতে ৩/৩৯ মধ্যে ও ৫/২৭ গতে ৬/১২ মধ্যে, কালবেলা ১২/৪৯/৫৩ গতে ২/৯/৩৯ মধ্যে, কালরাত্রি ৬/২৯/২৬ গতে ৮/৯/৩৯ মধ্যে।
 
মোসলেম: ১২ রবিয়স সানি 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
বিধাননগরে বিল্ডিং প্ল্যান অনুমোদন হবে অনলাইনে 
বিল্ডিং প্ল্যান অনুমোদনের কাজে গতি বাড়াতে ও প্রক্রিয়া আরও স্বচ্ছ ...বিশদ

08:55:00 AM

যাদবপুরে রোল শিট ৩ জানুয়ারি 
পড়ুয়াদের দাবি মেনে নির্বাচনের স্টুডেন্টস রোল শিট ৩ জানুয়ারিই দেবে ...বিশদ

08:50:00 AM

সুন্দরবনে ১৬টি সেতুর কাজ চলছে: মন্ত্রী 
সুন্দরবনে তিনটি সেতু তৈরি হয়ে গিয়েছে। আরও ১৬টি সেতুর নির্মাণকাজ ...বিশদ

08:45:00 AM

মানব উন্নয়ন সূচকে এক ধাপ এগিয়ে ১২৯তম স্থান দখল করল ভারত 
মানবসম্পদ উন্নয়নে আরও এক ধাপ উঠে এল ভারত। চলতি বছরে ...বিশদ

08:40:00 AM

বিদেশ যাওয়ার অনুমতি রবার্ট ওয়াধেরাকে 
বিদেশ যাওয়ার অনুমতি পেলেন কংগ্রেস নেত্রী সোনিয়া গান্ধীর জামাই রবার্ট ...বিশদ

08:39:49 AM

সিটুর আবেদনে সাড়া দিল না কোর্ট 
১১ ডিসেম্বর ধর্মতলায় ভিক্টোরিয়া হাউসের সামনে সমাবেশ করার অনুমতি পেল ...বিশদ

08:35:00 AM