Bartaman Patrika
সম্পাদকীয়
 

বাজি: সতর্ক হওয়ার সময়

আমাদের দেশে শারদোৎসবের ঢাকে কাঠি পড়ার আগেই বেআইনি বাজি কারখানা নিয়ে উদ্বেগ আশঙ্কা দেখা দিচ্ছে। ফের একবার পাঞ্জাবের বাটালায় বাজি তৈরির কারখানায় বিস্ফোরণে প্রায় ২৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। জখমও হয়েছেন বহু মানুষ। যাঁদের অনেকের অবস্থা আশঙ্কাজনক। হয়তো মৃত্যু না হলেও কাউকে হয়তো বাকি জীবনটা পঙ্গু হয়ে থাকতে হতে পারে। প্রাথমিক তদন্তের পর পুলিস দাবি করেছে, ওই বাজি কারখানাটি অবৈধ। শুধু এই কারখানাটিই নয়, গুরুদাসপুর জেলায় এরকম আরও অন্তত ২০টি বেআইনি বাজি কারখানার হদিশ মিলেছে। একটি বিস্ফোরণের পর প্রতিবারই পুলিসের এই ‘জ্ঞানচক্ষু’র উন্মীলন দেখে দেখে আমরা অভ্যস্থ হয়ে গিয়েছি। যে বেআইনি বাজি কারখানাটির হদিশ বিস্ফোরণের আগের মুহূর্ত পর্যন্ত পুলিস বা প্রশাসনের কেউ জানত না। সেটা পুলিস আধিকারিকরা বলার পরে আমরা জানতে পারি। যেমন এক্ষেত্রেও বাটালার এক উচ্চপদস্থ পুলিস কর্তা বলেছেন, কারখানায় বেআইনিভাবে বাজি তৈরি হচ্ছিল, আমাদের কাছে আগাম খবর ছিল না। তাহলে অনেক আগেই কারখানাটি বন্ধ করে দেওয়া হতো। এখন বাটালা শহরের সব কারখানার লাইন্সেস খতিয়ে দেখা হবে। এই বক্তব্যের উল্টোদিকে দেখা যাচ্ছে যে, হাসপাতালে জখমদের পরিজনরা বিক্ষোভ দেখান। তাঁদের দাবি ছিল, বারবার বলা সত্ত্বেও প্রশাসন এইসব অবৈধ কারখানাগুলির বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ নেয়নি। প্রশাসনের উদাসীনতার জেরে এত মানুষের প্রাণ গেল। এক বিক্ষোভকারীর দাবি, এখন আর সরকার তদন্ত করে কী করবে? আরও দাবি, কারখানাগুলি যাঁরা চলতে দিয়েছিলেন, সেই সব সরকারি আধিকারিকের বিরুদ্ধে খুনের মামলা দায়ের করতে হবে। দু’বছর আগে ওই একই কারখানাতে বিস্ফোরণ হয়েছিল। এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়। তারপরে এই ঘটনা ঘটায় সরকারের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে।
সংবাদ সূত্রে জানা গিয়েছে, বুধবার ভোর ৪টে নাগাদ বাজি কারখানায় বিস্ফোরণ হয়। ঘটনাস্থল থেকে ২৩টি দেহ উদ্ধার করা হয়েছে। বিস্ফোরণের তীব্রতার জেরে কারখানার ছাদ ভেঙে পড়ে। এমনকী বিস্ফোরণের কম্পনে পাশের কয়েকটি বা‌঩ড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ভেঙে পড়ে জানালার কাচ। আতঙ্কিত মানুষ রাস্তায় নেমে আসেন। ক্ষতিগ্রস্ত হয় একাধিক গাড়ি। বিস্ফোরণের তীব্রতা এতটাই বেশি ছিল যে, কয়েক কিলোমিটার দূর থেকে শব্দ শোনা গিয়েছিল। পাঞ্জাবের ঘটনাটিকে কেবলমাত্র বিচ্ছিন্ন একটি ঘটনা হিসেবে দেখা ঠিক নয়। ভারতের বহু জায়গাতেই বেআইনিভাবে বাজি প্রস্তুত হয়। ভারতীয় সংস্কৃতির সঙ্গে বিশেষত দেওয়ালির পরবে বাজির আলোকে রাঙা হয়ে ওঠে আকাশ। এছাড়াও এখনকার যে কোনও পুজোর নিরঞ্জনপর্ব, বিয়েশাদি, জন্মদিন, খেলায় জেতার মুহূর্তে বাজি ফাটানোটা যেন রীতি হয়ে দাঁড়িয়েছে। আর বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই আলোর তুলনায় শব্দবাজির কদর যেন বেশি। কিন্তু, আমরা কেউ একবারের জন্যও ভাবি না, বাজি তৈরি, মজুত ও ফাটানোর মধ্যে আছে বিপজ্জনক ঝুঁকি। শুধু তাই নয়, বাজির ধোঁয়ার ফলে যে দূষণ হয়, তা মারাত্মক ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে পরিবেশে। সে কারণেই বিধিনিষেধ মেনে বাজি তৈরি না করে বহু প্রস্তুতকারকই বেআইনি পদ্ধতি অবলম্বন করেন। বেশ কয়েকটি সমীক্ষায় এও দেখা গিয়েছে যে, এই বাজি তৈরির সঙ্গে যুক্ত করা হয় শিশু শ্রমিকদেরও। যা আরও একধাপ বেআইনি অপরাধমূলক কাজ।
সব মিলিয়ে প্রতিবার এই উৎসব মরশুম এলেই বাজি কারখানায় বিস্ফোরণ যেন বাৎসরিক দুর্ঘটনাপঞ্জিতে এসে গিয়েছে। কিছুদিন আগেই কলকাতা লাগোয়া চম্পাহাটিতে একইভাবে বাজি কারখানায় বিস্ফোরণ হয়েছিল। সেখানে কেউ মারা না গেলেও দু’জন জখম হয়েছিলেন। এর আগেও চম্পাহাটিতে দুর্ঘটনায় কয়েকজনের মৃত্যু হয়। এছাড়া অন্যান্য জেলাতেও বাজি কারখানার বিস্ফোরণে বা অগ্নিকাণ্ডের জেরে প্রায়শই হতাহতের ঘটনা ঘটে। অথচ, এসবই দিনের পর দিন পুলিস-প্রশাসনের চোখের সামনে, নাকের ডগায় বহাল তবিয়তে চলে আসছে। এবারের উৎসবের মরশুমে এমন দুঃখজনক ঘটনা যাতে কোনওভাবেই না ঘটে সেজন্য সতর্ক থাকতেই হবে। আমাদের পশ্চিমবঙ্গেও বেআইনি বাজি কারখানা বন্ধের উদ্যোগ নিতে হবে। একথা ঠিক খুব গভীরভাবে তলিয়ে দেখলে দেখা যাবে—এর সঙ্গে আর্থ-সামাজিক বিষয়টি ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে রয়েছে। ফলে, পুলিস জানলেও অনেকসময় তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারে না, বা নেয় না। কিন্তু, সংখ্যাগরিষ্ঠের আনন্দের নামে এভাবে মৃত্যু-মিছিলের দায়ও কি পুলিস এড়াতে পারে? রাতের আকাশে আলোর রোশনাই জ্বেলে সাময়িক মোহিত হয়ে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য দূষণ নামক চিরকালের অন্ধকার ডেকে আনার কি শেষ হবে না!
07th  September, 2019
যেতে হবে সমস্যার শিকড়ে 

অবশেষে গ্রেপ্তার করা হল পোলবার দুর্ঘটনার পুলকার মালিককে। একাধিক ধারায় তাঁর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। পাশাপাশি আদালতের অনুমতি মতো চারদিনের জন্য ওই ব্যক্তিকে নিজেদের হেফাজতেও নিয়েছে পুলিস। অর্থাৎ আইনের দিক থেকে দেখতে গেলে তদন্ত প্রক্রিয়া অনেক দূর এগিয়ে গিয়েছে।
বিশদ

মমতার অধিকার দাবি 

দিল্লির রাজনীতি-বেনিয়াদের কাছে পশ্চিমবঙ্গ চিরকালই ব্রাত্য। শিক্ষার অগ্রগতিতে বঙ্গ পথপ্রদর্শক হলেও পাশ্চাত্য শিক্ষায় ‘সভ্য’ হয়ে ওঠা হিন্দিবলয়ের অধিকাংশ সংখ্যাগুরু চিরকালই বাঙালিকে পিছনে ঠেলে রাখার চেষ্টা করে গিয়েছে। সে স্বাধীনতার আগেও, পরে তো বটেই।  
বিশদ

22nd  February, 2020
ডোনাল্ড ট্রাম্পের চোখে ভারত খারাপ হলেও নরেন্দ্র মোদি ভালো

ভালো আচরণই তো করে না ভারত। এই কথাটি যদি প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তানের কোনও শীর্ষনেতা বলতেন, তাহলে তেমন গুরুত্ব থাকত না। কিন্তু, কথাটি বলেছেন স্বয়ং ডোনাল্ড ট্রাম্প। আমেরিকার প্রেসিডেন্ট। বিশ্বজুড়ে ‘দাদাগিরি’তে যিনি ইতিমধ্যেই যথেষ্ট খ্যাতি অর্জন করেছেন।
বিশদ

21st  February, 2020
বাসযোগ্য পৃথিবীর সাধনা

মানুষ নিজেকে এই গ্রহের সর্বশ্রেষ্ঠ জীব বলে আত্মশ্লাঘা অনুভব করে। আর এই অহঙ্কার থেকেই মানুষের মধ্যে ধারণা তৈরি হয়ে গিয়েছে যে, পৃথিবীর যাবতীয় সম্পদের উপরে শুধু তারই অধিকার। মাটি জল পাহাড় মরুভূমি বনজঙ্গল সবই মানুষের অধীন। স্বভাবতই মানুষের অধীন এই সমস্ত অঞ্চলে যত প্রাণী আছে, তারাও।
বিশদ

20th  February, 2020
প্রতিরক্ষার উচ্চপদে নারীশক্তি

 প্রায় এক দশকের লড়াইয়ের পর জয় হল নারীশক্তির। সেনা বাহিনীতে মহিলা অফিসারদের স্থায়ীভাবে নিয়োগের ব্যবস্থা কার্যকর করার প্রশ্নে দেশের শীর্ষ আদালতের ঐতিহাসিক রায়ে দীর্ঘদিনের বঞ্চনার যেমন অবসান ঘটল তেমনি প্রতিষ্ঠিত হল মহিলাদের সমানাধিকার। বিশদ

19th  February, 2020
রাজ্যের উপর এত গোঁসা কেন? 

ব্যাপারটা বোঝা গিয়েছিল আগেই। কিন্তু তখনও ধারণাটা প্রতিষ্ঠিত হয়নি। পরপর কয়েকটি রিপোর্ট পাওয়ার পর রোগ ধরা পড়ল। অবশ্য এ রোগ সে রোগ নয়। এই রোগটা হল, মোদিজি এবং অমিত শাহজি কেন্দ্রে যতই চুটিয়ে ব্যাটিং করুন কেন, রাজ্যস্তরের খেলায় তাঁরা বলে বলে বোল্ড আউট হচ্ছেন।   বিশদ

18th  February, 2020
নতুন করে ভাবতে হবে বিজেপিকে 

মাত্র ন’মাস আগে লোকসভা ভোটে দিল্লির ৬৫ থেকে ৭০টি বিধানসভা আসনে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছিল বিজেপি। যেখান থেকে কেন্দ্রীয় সরকার পরিচালিত হয় এবং গত ১২ বছর ধরে যেখানে পুরসভা বিজেপির দখলে।
বিশদ

17th  February, 2020
লাভ-লোকসানের রাজনীতি 

পুলওয়ামা হামলার প্রথম বর্ষপূর্তিতে রাহুল গান্ধী একটি প্রশ্ন তুলেছেন—ওই নাশকতায় কার লাভ হয়েছিল? উত্তর দিতে পারলে কোনও পুরস্কার নেই। আট থেকে আশি সকলেই বুঝবেন, কংগ্রেসের প্রাক্তন সভাপতির নিশানায় এক এবং একমাত্র প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। 
বিশদ

16th  February, 2020
সভ্য ভারতে বহাল অসভ্য প্রথা

ভারত পৃথিবীর অন্যতম প্রাচীন এক সভ্য দেশ। ভারত শুধু প্রাচীন সভ্য দেশই নয়, দেশটি স্বাধীন ও সার্বভৌম। পৃথিবীর বৃহত্তম গণতন্ত্রও ভারত। স্বামী বিবেকানন্দ, রবীন্দ্রনাথ, মহাত্মা গান্ধীর ভারত অস্পৃশ্যতাকে অপরাধ মনে করে এবং সাম্যের নীতিতে আস্থা রাখে।
বিশদ

15th  February, 2020
ঘুঘুর বাসা ভাঙলে লাভ সরকারের 

লাগে টাকা দেবে গৌরী সেন। এক শ্রেণীর সরকারি অফিসার ও কর্মীর এমন বদ্ধমূল ধারণার কারণেই অনেকসময় সরকারি কাজে দুর্নীতির জন্ম হয়। এই ভাবনা আগেও ছিল, এখনও আছে। ভবিষ্যতেও এর পরিবর্তন হওয়া কঠিন।  
বিশদ

14th  February, 2020
মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা

একে বলে মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা। একদিকে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি আকাশছোঁয়া, তার উপর একলাফে গ্যাসের দাম বাড়ল ১৪৯ টাকা। মানুষ বাজার করবে কী করে, রাঁধবেই কী দিয়ে! এমনিতেই বাজারে গেলে মাছ ছাড়াই ১০০ টাকার সব্জি কিনলে থলি থেকে তা খুঁজে বের করতে হয়।
বিশদ

13th  February, 2020
জয়ের হ্যাটট্রিক 

জয়ের হ্যাটট্রিক করল অরবিন্দ কেজরিওয়ালের নেতৃত্বে আম আদমি পার্টি (আপ)। দিল্লি বিধানসভা নির্বাচনের ফল প্রমাণ করে দিল এনআরসি, সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনকে গ্রহণযোগ্য মনে করছে না সাধারণ মানুষ।  বিশদ

12th  February, 2020
অর্থনীতিতে আঘাত আসছে বাইরে এবং ভিতর থেকে

 ভারতের অর্থনীতি অন্য প্রতিবেশী দেশগুলির তুলনায় অনেক বেশি শক্তিশালী ছিল। কিন্তু দিনে দিনে সেই অর্থনীতি ভেঙে পড়ছে। অর্থাৎ অর্থনীতিতে ভারত ক্রমেই দুর্বল হয়ে পড়ছে। গত কয়েক বছরে কেন্দ্রের মোদি সরকারের ভ্রান্তনীতির কবলে পড়ে আজ দেশের অর্থনীতির এই দুরবস্থা।
বিশদ

11th  February, 2020
ভাইরাসের ধাক্কা গোটা দুনিয়ায় 

সম্প্রতি বিশ্বজুড়ে আতঙ্কের কেন্দ্রে একটিই নাম, করোনা ভাইরাস। তার উৎপত্তি চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, ৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বিশ্বের ২৪টি দেশে ২০ হাজার ৬৩০ জন মানুষ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত। কোনও ওষুধ এখনও এই ভাইরাসের বিরুদ্ধে কার্যকর প্রমাণিত হয়নি। 
বিশদ

10th  February, 2020
সামাজিক সুরক্ষার দায় কে নেবে?

 স্থায়ী আমানতে সুদের হার কমাল স্টেট ব্যাঙ্ক। কমানো হল এমসিএলআরও। অর্থাৎ আরও কম সুদের হারে ঋণ পাওয়ার রাস্তা প্রশস্ত হল। একের সঙ্গে অন্যটি ওতপ্রোতভাবে জড়িত হলেও প্রভাব এর দুরকম। একদিকে স্বল্প সঞ্চয়ে উৎসাহ হারাবে সাধারণ মানুষ, অন্যদিকে বিনিয়োগের সম্ভাবনা কিছুটা হলেও বাড়বে। বিশদ

09th  February, 2020
জল অপচয় বন্ধ হোক 

দাও ফিরে সে অরণ্য, লও এ নগর। আদিম সভ্যতা থেকে এ পর্যন্ত মানুষ যেভাবে পৃথিবীর জল, বায়ু, ভূমি, বনকে দূষিত ও ধ্বংস করেছে, তা অন্য কোনও পশুসমাজ করেনি। এমনকী মানুষের মধ্যে আজও যাঁরা বনবাসী, তাঁদের মধ্যেও প্রকৃতির ভারসাম্য রক্ষা করার যে ‘পাণ্ডিত্য’ আছে, আমাদের অনেকের মধ্যে তার কণামাত্রও নেই।
বিশদ

08th  February, 2020
একনজরে
 ওয়াশিংটন, ২২ ফেব্রুয়ারি (পিটিআই): নিজের ভূখণ্ডে থাকা জঙ্গি ও চরমপন্থীদের বিরুদ্ধে অভিযানে নামলেই একমাত্র ভারতের সঙ্গে আলোচনায় বসতে পারবে পাকিস্তান। ডোনাল্ড ট্রাম্পের ভারত সফরের আগে সন্ত্রাস ইস্যুতে এভাবেই ইসলামাবাদের উপর চাপ বাড়াল আমেরিকা। ...

সংবাদদাতা, নবদ্বীপ: শনিবার নবদ্বীপ স্টেট জেনারেল হাসপাতালে বসে মাধ্যমিক পরীক্ষা দিল নবদ্বীপ এপিসি ব্লাইন্ড স্কুলের ছাত্রী স্মৃতি নন্দী। ব্লাইন্ড স্কুলের হোস্টেল সুপার সুরেন্দ্রকুমার চক্রবর্তী বলেন, বুধবার রাতে স্মৃতি অসুস্থ হয়ে নবদ্বীপ স্টেট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হয়। ...

 অভিমন্যু মাহাত, বারাকপুর, বিএনএ: ‘আমি অনুতপ্ত। ওভারটেক করতে গিয়েই দুর্ঘটনা। আমি এই দুর্ঘটনা ভুলে যেতে চাই। আচ্ছা, ঋষভ এখন কেমন আছে?’ কল্যাণী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ...

ওয়েলিংটন, ২২ ফেব্রুয়ারি: অন্তিম সেশনে ইশান্ত-সামি-অশ্বিনরা যেভাবে লড়াইয়ে ফেরার ইঙ্গিত দিলেন, তা ভারতের পক্ষে খুবই ইতিবাচক। বাইশ গজে দারুণ জমে যাওয়া কেন উইলিয়ামসন ও রস ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

বিদ্যার্থীদের মানসিক স্থিরতা রাখা দরকার। প্রেম-প্রণয়ে বাধাবিঘ্ন থাকবে। তবে নতুন বন্ধু লাভ হবে। সাবধানে পদক্ষেপ ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

আন্তর্জাতিক ভাষা দিবস
১৮৪৮: কার্ল মার্ক্স প্রকাশ করেন কমিউনিস্ট ম্যানিফেস্টো
১৮৭৮ - মিরা আলফাসা ভারতের পণ্ডিচেরি অরবিন্দ আশ্রমের শ্রীমার জন্ম
১৮৯৪: ডাঃ শান্তিস্বরূপ ভাটনগরের জন্ম
১৯৩৭: অভিনেত্রী সাবিত্রী চট্টোপাধ্যায়ের জন্ম
১৯৫২: পূর্ব পাকিস্তানে (বর্তমান বাংলাদেশ) ভাষা আন্দোলনে প্রাণ দিলেন চারজন
১৯৬১: নোবেলজয়ী ভারতীয় বংশোদ্ভূত আমেরিকান বাঙালি অর্থনীতিবিদ অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের জন্ম
১৯৭০ - অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটার মাইকেল স্লেটারের জন্ম
১৯৯১: অভিনেত্রী নূতনের মৃত্যু
১৯৯৩ - বিশিষ্ট শিশু সাহিত্যিক ও কবি অখিল নিয়োগীর (যিনি স্বপনবুড়ো ছদ্মনামে পরিচিত) মৃত্যু
২০১৩: হায়দরাবাদে জোড়া বোমা বিস্ফোরণে ১৭জনের মৃত্যু

১৭৩২: মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম রাষ্ট্রপতি জর্জ ওয়াশিংটনের জন্ম
১৯০৬: অভিনেতা পাহাড়ি সান্যালের জন্ম
১৯৪৪: মহাত্মা গান্ধীর স্ত্রী কস্তুরবা গান্ধীর মৃত্যু
১৯৫৮: স্বাধীনতা সংগ্রামী আবুল কালাম আজাদের মৃত্যু
২০১৫: বাংলাদেশে নৌকাডুবি, মৃত ৭০

21st  February, 2020




ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৯৪ টাকা ৭২.৬৫ টাকা
পাউন্ড ৯০.৯৮ টাকা ৯৪.৩০ টাকা
ইউরো ৭৬.০৫ টাকা ৭৯.০১ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
21st  February, 2020
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪৩,১৬০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৪০,৯৫০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪১,৫৬০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৮,৫০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৮,৬০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

১০ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০, রবিবার, (মাঘ কৃষ্ণপক্ষ) অমাবস্যা ৩৭/১৭ রাত্রি ৯/২। ধনিষ্ঠা ১৮/৫৮ দিবা ১/৪৩। সূ উ ৬/৭/২৩, অ ৫/৩৩/৫, অমৃতযোগ দিবা ৬/৫৩ গতে ৯/৫৬ মধ্যে। রাত্রি ৭/১৩ গতে ৮/৫৪ মধ্যে। বারবেলা ১০/২৫ গতে ১/১৫ মধ্যে। কালরাত্রি ১/২৫ গতে ২/৫৮ মধ্যে। 
১০ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০, রবিবার, অমাবস্যা ৩৪/৪২/৪০ রাত্রি ৮/৩/৩৭। ধনিষ্ঠা ১৭/৩৭/৪৩ দিবা ১/১৩/৩৮। সূ উ ৬/১০/৩৩, অ ৫/৩১/৫৮। অমৃতযোগ দিবা ৬/৪০ গতে ৯/৪৮ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/১৭ গতে ৮/৫৪ মধ্যে। কালবেলা ১১/৫১/১৬ গতে ১/১৬/২৬ মধ্যে। কালরাত্রি ১/২৬/৫ গতে ৩/০/৫৪ মধ্যে। 
২৮ জমাদিয়স সানি

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
ময়নাগুড়ির বালাসন এলাকায় চিতা বাঘের আতঙ্ক, ঘটনাস্থলে বনদপ্তরের কর্মীরা 

22-02-2020 - 02:10:59 PM

কোচবিহারে পথ দুর্ঘটনায় জখম ১০ 
কোচবিহারের বানেশ্বর শিব মন্দিরে শিবের মাথায় জল ঢেলে বাড়ি ফেরার ...বিশদ

22-02-2020 - 01:48:00 PM

জয়নগরে স্কুলের গেটে ট্রাকের ধাক্কায় জখম প্রহরী 

22-02-2020 - 01:02:00 PM

বারুইপুরে আত্মঘাতী কিশোরী 
বারুইপুরে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মঘাতী কিশোরী। গতকাল সন্ধ্যায় ঘটনাটি ঘটে ...বিশদ

22-02-2020 - 01:01:00 PM

কৃষ্ণা বসুর মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের 

22-02-2020 - 12:57:00 PM

উলুবেড়িয়ায় ৬ নম্বর জাতীয় সড়কে উল্টাল গ্যাস ট্যাঙ্কার, ব্যাহত যান চলাচল 

22-02-2020 - 12:39:00 PM