Bartaman Patrika
সম্পাদকীয়
 

বাজি: সতর্ক হওয়ার সময়

আমাদের দেশে শারদোৎসবের ঢাকে কাঠি পড়ার আগেই বেআইনি বাজি কারখানা নিয়ে উদ্বেগ আশঙ্কা দেখা দিচ্ছে। ফের একবার পাঞ্জাবের বাটালায় বাজি তৈরির কারখানায় বিস্ফোরণে প্রায় ২৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। জখমও হয়েছেন বহু মানুষ। যাঁদের অনেকের অবস্থা আশঙ্কাজনক। হয়তো মৃত্যু না হলেও কাউকে হয়তো বাকি জীবনটা পঙ্গু হয়ে থাকতে হতে পারে। প্রাথমিক তদন্তের পর পুলিস দাবি করেছে, ওই বাজি কারখানাটি অবৈধ। শুধু এই কারখানাটিই নয়, গুরুদাসপুর জেলায় এরকম আরও অন্তত ২০টি বেআইনি বাজি কারখানার হদিশ মিলেছে। একটি বিস্ফোরণের পর প্রতিবারই পুলিসের এই ‘জ্ঞানচক্ষু’র উন্মীলন দেখে দেখে আমরা অভ্যস্থ হয়ে গিয়েছি। যে বেআইনি বাজি কারখানাটির হদিশ বিস্ফোরণের আগের মুহূর্ত পর্যন্ত পুলিস বা প্রশাসনের কেউ জানত না। সেটা পুলিস আধিকারিকরা বলার পরে আমরা জানতে পারি। যেমন এক্ষেত্রেও বাটালার এক উচ্চপদস্থ পুলিস কর্তা বলেছেন, কারখানায় বেআইনিভাবে বাজি তৈরি হচ্ছিল, আমাদের কাছে আগাম খবর ছিল না। তাহলে অনেক আগেই কারখানাটি বন্ধ করে দেওয়া হতো। এখন বাটালা শহরের সব কারখানার লাইন্সেস খতিয়ে দেখা হবে। এই বক্তব্যের উল্টোদিকে দেখা যাচ্ছে যে, হাসপাতালে জখমদের পরিজনরা বিক্ষোভ দেখান। তাঁদের দাবি ছিল, বারবার বলা সত্ত্বেও প্রশাসন এইসব অবৈধ কারখানাগুলির বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ নেয়নি। প্রশাসনের উদাসীনতার জেরে এত মানুষের প্রাণ গেল। এক বিক্ষোভকারীর দাবি, এখন আর সরকার তদন্ত করে কী করবে? আরও দাবি, কারখানাগুলি যাঁরা চলতে দিয়েছিলেন, সেই সব সরকারি আধিকারিকের বিরুদ্ধে খুনের মামলা দায়ের করতে হবে। দু’বছর আগে ওই একই কারখানাতে বিস্ফোরণ হয়েছিল। এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়। তারপরে এই ঘটনা ঘটায় সরকারের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে।
সংবাদ সূত্রে জানা গিয়েছে, বুধবার ভোর ৪টে নাগাদ বাজি কারখানায় বিস্ফোরণ হয়। ঘটনাস্থল থেকে ২৩টি দেহ উদ্ধার করা হয়েছে। বিস্ফোরণের তীব্রতার জেরে কারখানার ছাদ ভেঙে পড়ে। এমনকী বিস্ফোরণের কম্পনে পাশের কয়েকটি বা‌঩ড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ভেঙে পড়ে জানালার কাচ। আতঙ্কিত মানুষ রাস্তায় নেমে আসেন। ক্ষতিগ্রস্ত হয় একাধিক গাড়ি। বিস্ফোরণের তীব্রতা এতটাই বেশি ছিল যে, কয়েক কিলোমিটার দূর থেকে শব্দ শোনা গিয়েছিল। পাঞ্জাবের ঘটনাটিকে কেবলমাত্র বিচ্ছিন্ন একটি ঘটনা হিসেবে দেখা ঠিক নয়। ভারতের বহু জায়গাতেই বেআইনিভাবে বাজি প্রস্তুত হয়। ভারতীয় সংস্কৃতির সঙ্গে বিশেষত দেওয়ালির পরবে বাজির আলোকে রাঙা হয়ে ওঠে আকাশ। এছাড়াও এখনকার যে কোনও পুজোর নিরঞ্জনপর্ব, বিয়েশাদি, জন্মদিন, খেলায় জেতার মুহূর্তে বাজি ফাটানোটা যেন রীতি হয়ে দাঁড়িয়েছে। আর বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই আলোর তুলনায় শব্দবাজির কদর যেন বেশি। কিন্তু, আমরা কেউ একবারের জন্যও ভাবি না, বাজি তৈরি, মজুত ও ফাটানোর মধ্যে আছে বিপজ্জনক ঝুঁকি। শুধু তাই নয়, বাজির ধোঁয়ার ফলে যে দূষণ হয়, তা মারাত্মক ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে পরিবেশে। সে কারণেই বিধিনিষেধ মেনে বাজি তৈরি না করে বহু প্রস্তুতকারকই বেআইনি পদ্ধতি অবলম্বন করেন। বেশ কয়েকটি সমীক্ষায় এও দেখা গিয়েছে যে, এই বাজি তৈরির সঙ্গে যুক্ত করা হয় শিশু শ্রমিকদেরও। যা আরও একধাপ বেআইনি অপরাধমূলক কাজ।
সব মিলিয়ে প্রতিবার এই উৎসব মরশুম এলেই বাজি কারখানায় বিস্ফোরণ যেন বাৎসরিক দুর্ঘটনাপঞ্জিতে এসে গিয়েছে। কিছুদিন আগেই কলকাতা লাগোয়া চম্পাহাটিতে একইভাবে বাজি কারখানায় বিস্ফোরণ হয়েছিল। সেখানে কেউ মারা না গেলেও দু’জন জখম হয়েছিলেন। এর আগেও চম্পাহাটিতে দুর্ঘটনায় কয়েকজনের মৃত্যু হয়। এছাড়া অন্যান্য জেলাতেও বাজি কারখানার বিস্ফোরণে বা অগ্নিকাণ্ডের জেরে প্রায়শই হতাহতের ঘটনা ঘটে। অথচ, এসবই দিনের পর দিন পুলিস-প্রশাসনের চোখের সামনে, নাকের ডগায় বহাল তবিয়তে চলে আসছে। এবারের উৎসবের মরশুমে এমন দুঃখজনক ঘটনা যাতে কোনওভাবেই না ঘটে সেজন্য সতর্ক থাকতেই হবে। আমাদের পশ্চিমবঙ্গেও বেআইনি বাজি কারখানা বন্ধের উদ্যোগ নিতে হবে। একথা ঠিক খুব গভীরভাবে তলিয়ে দেখলে দেখা যাবে—এর সঙ্গে আর্থ-সামাজিক বিষয়টি ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে রয়েছে। ফলে, পুলিস জানলেও অনেকসময় তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারে না, বা নেয় না। কিন্তু, সংখ্যাগরিষ্ঠের আনন্দের নামে এভাবে মৃত্যু-মিছিলের দায়ও কি পুলিস এড়াতে পারে? রাতের আকাশে আলোর রোশনাই জ্বেলে সাময়িক মোহিত হয়ে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য দূষণ নামক চিরকালের অন্ধকার ডেকে আনার কি শেষ হবে না!
07th  September, 2019
বুলবুল-পরবর্তী বাংলার প্রত্যাশা  

এক দশক আগের ‘আ‌ইলা’র স্মৃতি উসকে দিয়ে শনিবার দক্ষিণবঙ্গের একাংশে আছড়ে পড়ল ‘বুলবুল’। প্রাণহানির নিরিখে বুলবুলের দাপট আইলার চেয়ে কমই ছিল বলে মনে করা হচ্ছে। কিন্তু, এখনও পর্যন্ত অন্য ক্ষয়ক্ষতির যে খতিয়ান সরকারের হাতে এসেছে তাতে এই বিপর্যয়কে কোনোভাবেই ন্যূন মনে করার সুযোগ নেই।  
বিশদ

বৈচিত্র্যের মধ্যে ঐক্যের দেশ

সময় লাগল অনেকটাই। তবে অবশেষে স্বস্তি এল। দীর্ঘদিনের জটও কাটল। নতুন করে সবকিছু শুরু হওয়ার অপেক্ষায় অযোধ্যা। আর বহু প্রতীক্ষিত এই সুদিন দেশের ইতিহাসে স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে। এভাবেই অযোধ্যা মামলার রায় ঘোষণার পর জাতির উদ্দেশে ভাষণে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।
বিশদ

11th  November, 2019
নিরাপত্তার নামে 

গোয়েন্দারা বারবার সতর্ক করেছিলেন। শোনেননি ইন্দিরা গান্ধী। অমৃতসরের স্বর্ণমন্দিরে অপারেশন ব্লু স্টারের পর ইন্টেলিজেন্স ব্যুরো জানিয়েছিল, শিখ সম্প্রদায় আপনার শত্রু হয়ে গিয়েছে। আপনার নিরাপত্তা বলয় থেকে শিখদের সরিয়ে দিন। মানতে চাননি ইন্দিরা। বিয়ন্ত সিং এবং সতবন্ত সিং বহুদিনের সঙ্গী... তাঁদের সরাবেন না প্রধানমন্ত্রী। 
বিশদ

10th  November, 2019
পেঁয়াজের দামে নাভিশ্বাস

 প্রায় শেষ পুজোর মরশুম। গণেশ পুজো দিয়ে শুরু হয়ে জগদ্ধাত্রীতে এসেছে থেমেছে উৎসবের লগ্ন। এই সময় আমবাঙালির হাত প্রায়-শূন্য হয়ে পড়ে ফিবছরই। এবারও তার ব্যতিক্রম নয়। কিন্তু, তার উপর আছড়ে পড়েছে মূল্যবৃদ্ধির ভয়াবহ ‘বুলবুল’। বাজারে বেরলে নিমেষে উড়ে যাচ্ছে নোট। বিশদ

09th  November, 2019
গুজরাতি: বৈষম্যমূলক ও অবাঞ্ছিত 

গোটা এশিয়া মহাদেশে সাহিত্যে প্রথম নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন যিনি তিনি একজন বাঙালি কবি। বলা বাহুল্য তাঁর নাম রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। তারপর শতবর্ষ পেরিয়ে গিয়েছে। তবু ভারতের অন্যকোনও ভাষার সাহিত্যিকরা সেই গর্ব স্পর্শ করতে পারেননি। রবীন্দ্রনাথেরই লেখা দুটি গান ভারত এবং বাংলাদেশের জাতীয়সঙ্গীত। এও এক অনন্য নজির।  
বিশদ

08th  November, 2019
অগ্রগতির আসল চাবিকাঠি

 সম্প্রতি কেন্দ্রীয় সরকার প্রকাশ করেছে স্বাস্থ্যবিষয়ক জাতীয় সমীক্ষা রিপোর্ট। ‘ন্যাশনাল হেলথ প্রোফাইল, ২০১৯’ নামের এই বিশাল রিপোর্টে দেশের শিশুদের যে স্বাস্থ্যচিত্র ধরা পড়েছে তাকে কোনোভাবেই আশাব্যঞ্জক বলা যাবে না। বিশদ

07th  November, 2019
নিরাপদ অবস্থান 

দেশের উন্নতি করতে হলে সাধারণ মানুষের, বিশেষত গরিব মানুষের জীবনযাত্রায় উন্নতি ঘটাতেই হবে। তাঁদের জীবনকে সুরক্ষিত রাখতে হবে। ভাবতে হবে তাঁদের স্বার্থরক্ষার কথা। কেন্দ্রের মোদি সরকারের বিরুদ্ধে বারবার অভিযোগ উঠেছে যে তারা ধনীদের স্বার্থরক্ষা করে, সিদ্ধান্ত নেয় বড়লোক শ্রেণীর স্বার্থে। তারা চাষি, খেতমজুর অর্থাৎ গরিব মানুষের কথা বিশেষ ভাবে না। 
বিশদ

06th  November, 2019
পাকিস্তানের স্বভাব যায় না ম’লে 

বাংলায় একটা প্রবাদ আছে, স্বভাব যায় না ম’লে। যার যা স্বভাব সেটা সে পালন করে যাবেই। সে ভালোই হোক আর মন্দই হোক। মন্দ হলে সে কাজের সমালোচনা বা নিন্দা হবেই। কিন্তু অসম্মান আর বেইজ্জতই যাদের ভূষণ তারা এসব অসম্মানকে থোড়াই কেয়ার করে।  বিশদ

05th  November, 2019
পেগাসাস থেকে সাবধান! 

ফের ফোনে আড়ি পাতার অভিযোগ! ভারতের সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মীদের উপর গোয়েন্দাগিরি করার জন্য হোয়াটসঅ্যাপকে কাজে লাগানো হয়েছিল এ বছরের গোড়ায়। নজরদারি চালাবার জন্য ‘পেগাসাস’ নামে একটি স্পাইওয়্যার ব্যবহার করা হয়েছিল, যা তৈরি করেছিল এনএসও গ্রুপ নামের এক ইজরায়েলি সংস্থা। 
বিশদ

04th  November, 2019
বিষবাষ্প 

দীপাবলির উৎসবেই ফিরল দিল্লির চেনা ছবি। মেরেকেটে মাসখানেক হল হরিয়ানা-পাঞ্জাবে ফসলের গোড়া পোড়ানো শুরু হয়েছে। এ ছবিও খুব চেনা... আতঙ্কের, উদ্বেগের। ধোঁয়াশায় ঢাকা আকাশ, দূষণের চাদর রাজপথে নেমে আসায় দৃশ্যমানতা কমে এসেছে। 
বিশদ

03rd  November, 2019
প্রোমোটারের থাবা থেকে মুক্তি  

দেশ স্বাধীন হয়েছে সাত দশক পেরিয়ে গিয়েছে। কিন্তু, এখনও দারিদ্র্য দূর করা যায়নি। দারিদ্রসীমার নীচে রয়ে গিয়েছে অন্তত ২০ কোটি ভারতবাসী। সরকারের পর সরকারের বদলায়, পরিকল্পনার পর পরিকল্পনা শেষ হয়, তবু চরম দারিদ্র্য দূর হওয়ার, এমনকী কমারও কোনও লক্ষণ স্পষ্ট হয় না। 
বিশদ

02nd  November, 2019
ছয় মামলার রায়ে কর্মজীবনের ইতি

 সুপ্রিম কোর্টের ৪৬তম প্রধান বিচারপতি হিসাবে শপথ নিয়েছিলেন তিনি। গত জানুয়ারি মাসে সুপ্রিম কোর্টের চার বিচারপতি তৎকালীন মুখ্য বিচারপতি দীপক মিশ্রর বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষণা করেন। সেই দলে ছিলেন তিনিও।
বিশদ

01st  November, 2019
মেট্রো: কতটা যোগ্য কলকাতা

 কলকাতা মেট্রো রেল ভারতের গর্ব। ১৯৮৪ সালে ভারতের প্রথম ভূগর্ভ রেল ছুটেছিল কলকাতার বুকে। খুব সামান্য অংশে। এসপ্লানেড থেকে নেতাজি ভবন (ভবানীপুর)। সেদিন যাত্রাপথের দৈর্ঘ্য ছিল সাড়ে তিন কিমিরও কম। পরবর্তী তিন দশকে সেই যাত্রাপথ আপ এবং ডাউন দু’দিকেই বেড়েছে।
বিশদ

31st  October, 2019
পিজির নয়া উদ্যোগ 

রাজ্যে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে হলে জ্ঞান-বিজ্ঞানের বিকাশ ঘটানোটা জরুরি। শিক্ষার মতো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ের সঙ্গেই ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে আছে মানুষের স্বাস্থ্য সচেতনতা। মানুষের অমূল্য জীবন যার সঙ্গে যুক্ত সেই চিকিৎসা পরিষেবার মতো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টির মানোন্নয়ন প্রয়োজন। 
বিশদ

30th  October, 2019
বাজি: উৎসে আঘাত হানা জরুরি

সচেতনতামূলক প্রচারের অভাব ছিল না। আইন ভাঙলে ছিল ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারিও। কিন্তু তলে তলে কোনায় কোনায় যে কত নিষিদ্ধ শব্দবাজি মজুত হয়ে ছিল, তার কোনও হিসেবই ছিল না। ফলে গত কয়েক বছরের মতো এবারও পরিণতি যা হওয়ার, তাইই হয়েছে।
বিশদ

29th  October, 2019
অতি দম্ভের ফল ভুগছে বিজেপি 

বেশি ঔদ্ধত্য দেখিও না—বিজেপিকে নিশানা করে সতর্কবার্তা দিয়েছে শরিকদল শিবসেনা। দলের মুখপত্র ‘সামনা’য় মহারাষ্ট্রের ফল থেকে বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্বের শিক্ষা নেওয়া উচিত বলেও বিজেপির কড়া সমালোচনা করেছে শিবসেনা। 
বিশদ

28th  October, 2019
একনজরে
সংবাদদাতা, লালবাগ: জিয়াগঞ্জের বিলকান্দিতে স্ত্রীকে ভোজালি দিয়ে কুপিয়ে খুনের ঘটনায় অভিযুক্ত স্বামী তেনু মণ্ডলকে গ্রেপ্তার করল পুলিস। রবিবার গভীর রাতে জিয়াগঞ্জ সিটি স্টেশন সংলগ্ন এলাকা থেকে অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করে পুলিস।  ...

নয়াদিল্লি, ১১ নভেম্বর (পিটিআই): উৎসবের মরশুম আর নয়া মডেল। এই দুইয়ের জেরে নিম্নগতি থেকে সামান্য হলেও মাথা তুলল গাড়ি শিল্প। অক্টোবরে যাত্রীবাহী গাড়ি বিক্রি বাড়ল ০.২৮ শতাংশ। অর্থাৎ গাড়ি বিক্রি হয়েছে ২ লক্ষ ৮৫ হাজার ২৭ ইউনিট। যেখানে গত বছরের ...

লাহোর, ১১ নভেম্বর (পিটিআই): বিদেশে চিকিৎসার জন্য অনুমতি পেতে দেরি হওয়ায় শারীরিক অবস্থার অবনতি হচ্ছে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের (৬৯)। তাঁর দল পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজ (পিএমএল-এন)-এর তরফে এমনটাই জানানো হয়েছে। পরিবারের অনুরোধে শুক্রবারই চিকিৎসার জন্য লন্ডনে যেতে রাজি হয়েছেন শরিফ।  ...

সংবাদদাতা, তারকেশ্বর: আলু বীজের দাম নিয়ন্ত্রণ সহ চাষিদের একাধিক সমস্যা নিয়ে হুগলি জেলা কৃষিদপ্তর বৈঠক করেন। কৃষি আধিকারিকদের উপস্থিতিতে আলু বীজ ব্যবসায়ীদের সঙ্গে তারকেশ্বর ব্যবসায়ী সমিতিতে সোমবার বিকেলে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।  ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

উচ্চতর বিদ্যায় সাফল্য আসবে। প্রেম-ভালোবাসায় আগ্রহ বাড়বে। পুরনো বন্ধুর সঙ্গে সাক্ষাতে আনন্দলাভ হবে। সম্ভাব্য ক্ষেত্রে ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮৪০: ফরাসি ভাস্কর অগ্যুস্ত রদ্যঁর জন্ম
১৮৯৩: পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের সীমান্তরেখা ডুরান্ড লাইন চুক্তি স্বাক্ষরিত
১৮৯৬: পক্ষীবিদ সালিম আলির জন্ম
১৯৪৬: পণ্ডিত মদনমোহন মালব্যের মৃত্যু  





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৯.৭০ টাকা ৭২.৮৫ টাকা
পাউন্ড ৮৯.০৬ টাকা ৯৩.৩৬ টাকা
ইউরো ৭৬.৭৩ টাকা ৮০.৪৫ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,৬৫০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,৬৭০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৭,২২০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৪,৫০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৪,৬০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২৫ কার্তিক ১৪২৬, ১২ নভেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, পূর্ণিমা ৩৩/৪ রাত্রি ৭/৪। ভরণী ৩৭/৩১ রাত্রি ৮/৫১। সূ উ ৫/৫০/৫২, অ ৪/৫০/৩৮, অমৃতযোগ দিবা ৬/৩৪ মধ্যে পুনঃ ৭/১৮ গতে ১০/৫৮ মধ্যে। রাত্রি ৭/২৭ গতে ৮/১৯ মধ্যে পুনঃ ৯/১১ গতে ১১/৪৭ মধ্যে পুনঃ ১/৩১ গতে ৩/১৪ মধ্যে পুনঃ ৪/৫৮ গতে উদয়াবধি, বারবেলা ৭/১৩ গতে ৮/৩৫ মধ্যে পুনঃ ১২/৪৩ গতে ২/৬ মধ্যে, কালরাত্রি ৬/২৮ গতে ৮/৬ মধ্যে। 
২৫ কার্তিক ১৪২৬, ১২ নভেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, পূর্ণিমা ৩২/৪৫/৪৭ রাত্রি ৬/৫৮/২০। ভরণী ৩৯/৩০/৩৪ রাত্রি ৯/৪০/১৫, সূ উ ৫/৫২/১, অ ৪/৫১/১৮, অমৃতযোগ দিবা ৬/৪৬ মধ্যে ও ৭/২৯ গতে ১১/৩ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/২৬ গতে ৮/১৯ মধ্যে ও ৯/১২ গতে ১১/৪১ মধ্যে ও ১/৩৮ গতে ৩/২৪ মধ্যে ও ৫/১০ গতে ৫/৫৩ মধ্যে, বারবেলা ৭/১৪/২৬ গতে ৮/৩৬/৫০ মধ্যে, কালবেলা ১২/৪৪/৪ গতে ২/৬/২৯ মধ্যে, কালরাত্রি ৬/২৮/৫৩ গতে ৮/৬/২৯ মধ্যে। 
মোসলেম: ১৪ রবিয়ল আউয়ল 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
মহারাষ্ট্রে জারি হল রাষ্ট্রপতি শাসন 
অবশেষে রাষ্ট্রপতি শাসনই জারি হল মহারাষ্ট্রে। রাজ্যপালের সুপারিশে সই করে ...বিশদ

05:40:00 PM

  টাস্ক ফোর্স নিয়ে বৈঠকে কী সিদ্ধান্ত হল?
বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্থ এলকায় গিয়ে কালকের মধ্যে নবান্নে রিপোর্ট জমা দিতে ...বিশদ

05:07:23 PM

 আজব কাণ্ড! পেঁপের পেটেই মিলল পেঁপে
পেঁপের পেটেই পেঁপে মিলল। শুনলে অবাক লাগলেও বাস্তবে এটাই ...বিশদ

04:43:28 PM

মদনমোহন মন্দিরে পুজো দিতে এলেন সংসদ সদস্য নিশীথ প্রামানিক 
চল্লিশটি ঢাক বাজিয়ে রাজ বেশে কোচবিহারের মদনমোহন মন্দিরে এসে পুজো ...বিশদ

04:03:00 PM

জলপাইগুড়িতে আর্থিক জালিয়াতির অভিযোগ, আটক ১ 

04:00:00 PM

মহারাষ্ট্র: সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ শিবসেনা
 

মহারাষ্ট্রে সরকার গঠনে নতুন মোড়। অতিরিক্ত সময় চেয়ে এবার সুপ্রিম ...বিশদ

03:46:22 PM