Bartaman Patrika
সম্পাদকীয়
 

ভাবমূর্তি স্বচ্ছ করতেই হবে

ভাবমূর্তি স্বচ্ছ করতে হবে। জয় করতে হবে মানুষের মন। বাড়াতে হবে জনসংযোগ। ২০২১-এর নির্বাচনকে পাখির চোখ করে শক্ত জমি তৈরির প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল এবং বিরোধী বিজেপিও। যে যার মতো করে শুরু করেছে ‘দিদিকে বলো’ বা ‘দাদাকে জানানোর জন্য চা চক্র কর্মসূচিও। তবে, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কোনও রাখঢাক না-করে স্পষ্ট বক্তব্য নিঃসন্দেহে জনমানসে রেখাপাত করতে শুরু করেছে। তাঁর ব্যক্তিগত সততার ইমেজটি জনসংযোগ তৈরির প্রতিযোগিতার দৌড়ে শাসক দলকে বেশ কিছুটা এগিয়ে রেখেছে। শাসক দল হওয়ার সুবাদে অবশ্যই তা তৃণমূল দলের প্লাস পয়েন্ট। জনসংযোগ বৃদ্ধির জন্য চেষ্টার কোনও ত্রুটি রাখছে না বিজেপিও। তবে, উভয় দলের সামনে এখন যে সমস্যাটি বড় আকার নিচ্ছে তা হল—দলীয় কর্মী-সমর্থকদের একাংশের মধ্যে, এমনকী কোনও কোনও নেতারও লুটেপুটে খাওয়ার নীতি যা জনমানসে বিরূপ প্রতিক্রিয়া তৈরি করছে। দুর্নীতিগ্রস্তরা যেভাবে আর্থিক দিক থেকে ফুলেফেঁপে ঢোল হচ্ছে, তা দৃষ্টিকটু। শুদ্ধকরণের কোনও দাওয়াই যেন ঠিকমতো কাজ করছে না। দ্ব্যর্থহীন ভাষায় বার বার তৃণমূল নেত্রী সংশ্লিষ্ট দুর্নীতিগ্রস্ত নেতা-কর্মীদের সতর্ক করলেও কাজের কাজ কতটা হচ্ছে তা বলা শক্ত। তবে, একটা আশা তো জাগছেই। পুলিসমন্ত্রী হয়েও এবার তাঁকে দুর্নীতিপরায়ণ, জুলুমবাজ, ঘুষ নেওয়ার ঘটনায় অপরাধী পুলিসকর্মীদের একাংশের বিরুদ্ধে মুখ খুলতে হল। সোমবার বর্ধমানের প্রশাসনিক পর্যালোচনা বৈঠকে তিনি বলেছেন, পুলিসের একটা অংশ সিভিক ভলান্টিয়ারদের দিয়ে টাকা তোলাচ্ছে, বলা হচ্ছে, ‘কলকাতায় টাকা পাঠাতে হবে’। আমি জানতে চাই, কলকাতায় কে টাকা চাইছে? কাকে টাকা পাঠাতে হয় কলকাতায়? এর বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নিতেই হবে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই অকপট বিস্ফোরক মন্তব্যটি নিঃসন্দেহে ভুক্তভোগীদের খুশি করবে। তিনি যেন মানুষের মনের কথাটিই বলেছেন, সত্যের অপলাপ করেননি। এর আগেও তিনি মানুষের স্বার্থে রাজ্য সরকারের নানা জনমুখী প্রকল্প থেকে টাকা কেটে নেওয়ার অনিয়মের অভিযোগ তুলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। কাটমানি খাওয়ার বিরুদ্ধে হুঙ্কার ছেড়েছেন। জনপ্রতিনিধিদেরও একহাত নিতে ছাড়েননি।
তিনি শুধু নবান্নে বসে নির্দেশ জারি করে রাজ্য প্রশাসনের কাজকর্ম চালান না। বার বার জেলায় গিয়ে প্রশাসনিক বৈঠক করার সুবাদে সরাসরি তিনি সেখানকার হাল হকিকৎ জানতে পারেন বা সমস্যা দুর্নীতির বিষয়টিও তাঁর নজরে আসে। দুর্নীতি অনিয়ম রোধের জন্য তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্তও নেন। একথা ঠিক, সরকারি স্তরে বা পুলিসের কাজে কোনও দুর্নীতি ঘটলে অবশ্যই তার দায়ভার সরকারের উপর বর্তায়। বলা যায়, তাঁরাই তো সরকারের মুখ। এটা বুঝতে পেরেই এবার তিনি কথাচ্ছলে পুলিসের আইসিদের উদ্দেশে বলেছেন, ‘‘আপনারা সরকারের মুখ। ভালো করলে যেমন কৃতিত্ব পান তেমনি খারাপ কাজ করলে প্রশ্ন ওঠে সরকার আর আমার দলের বিরুদ্ধে। এসব চলবে না। কড়া ব্যবস্থা নিতে হবে।’’ আমলাতান্ত্রিক প্রতিবন্ধকতার বিরুদ্ধেও সরব হয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর স্পষ্ট বার্তা, সরকারি জনমুখী প্রকল্পগুলি গরিব ও প্রান্তিক মানুষের জন্য। এটা নিয়ে যেন কোনও জালিয়াতি না-হয়।
মুখ্যমন্ত্রী একাধিক বার দুর্নীতিগ্রস্তদের বিরুদ্ধে কড়া হুঁশিয়ারি দিলেও বহু ক্ষেত্রে দেখা গিয়েছে, দলীয় কর্মী নেতাদের একাংশকে যেন কোনোভাবেই সবক শেখানো যাচ্ছে না। তাই, দুর্নীতিগ্রস্ত যারা (তা সে সরকারি কর্মী অফিসার দলীয় নেতা কর্মী বা পুলিস যে-ই হোক না কেন) তাদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়াটা জরুরি। বাম জমানা থেকেই দুর্নীতির যে মানসিকতা বা ট্রাডিশন চলছে তার থেকে কিছুতেই মুক্ত হতে পারছে না আমাদের রাজ্য। শুধু এই সমস্যাটা শাসক দল তৃণমূলের অন্দরেরই নয়, বিরোধী দলগুলির মধ্যেও একই ধরনের সমস্যা আছে। এই কারণেই হয়তো বিজেপির নাম ভাঙিয়ে ব্যাঙের ছাতার মতো গজিয়ে ওঠা ভুয়ো ট্রেড ইউনিয়নগুলি টাকা তুলতে সক্ষম হচ্ছে। ওইসব সংগঠনের স্বঘোষিত নেতারা রাজ্যের বিভিন্ন জেলা থেকেও টাকা তুলছে বলে অভিযোগ, যা বিজেপির ভাবমূর্তির পক্ষেও ভালো নয়। খবরে প্রকাশ, গেরুয়া শিবিরও এসব রোধে কড়া পদক্ষেপ করতে চলেছে। তাই এই মুহূর্তে রাজ্যের একাধিক রাজনৈতিক দলের কাছে ভাবমূর্তি রক্ষা করাটাই বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়াচ্ছে। শাসক দল বা বিরোধী যেই হোক, তাদের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করতে হলে দলীয় স্বার্থেই দোষীদের বিরুদ্ধে কড়া শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে। মনে রাখতে হবে, একবার মানুষের বিশ্বাস ভঙ্গ হলে পুরনো আস্থা ফিরে পাওয়াটা অনেক বেশি কষ্টসাধ্য ও সময়সাপেক্ষ ব্যাপার। সেক্ষেত্রে শুধু ‘দিদিকে বলো’ বা ‘দাদার চা চক্র’ কর্মসূচিতে মানুষের অভিযোগ শুনলেই হবে না, আন্তরিকতার সঙ্গে সেসবের প্রতিকারও করতে হবে। মুখ্যমন্ত্রী ইতিমধ্যেই সেই কাজটি শুরু করেছেন। এবার দেখা যাক, রাজনৈতিক দলগুলি সত্যিই দলের দুর্নীতিগ্রস্তদের সবক শেখাতে পারে কি না।
28th  August, 2019
লক্ষ্য কর্মসংস্থান

 পুরনো ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট বাতিলের সিদ্ধান্তটি সঠিক ছিল বলে কেন্দ্রের সরকার যতই দাবি করুক না কেন তার বড় ধাক্কা যে দেশের কর্মসংস্থানের উপর পড়েছে তা বলার অপেক্ষা রাখে না। কাজের বাজারের ছবিটাই এখন বিবর্ণ, কাজ হারানো মানুষের সংখ্যা বেড়েছে। নোটবন্দির জেরে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে দেশের ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প। বিশদ

বুলবুল-পরবর্তী বাংলার প্রত্যাশা  

এক দশক আগের ‘আ‌ইলা’র স্মৃতি উসকে দিয়ে শনিবার দক্ষিণবঙ্গের একাংশে আছড়ে পড়ল ‘বুলবুল’। প্রাণহানির নিরিখে বুলবুলের দাপট আইলার চেয়ে কমই ছিল বলে মনে করা হচ্ছে। কিন্তু, এখনও পর্যন্ত অন্য ক্ষয়ক্ষতির যে খতিয়ান সরকারের হাতে এসেছে তাতে এই বিপর্যয়কে কোনোভাবেই ন্যূন মনে করার সুযোগ নেই।  
বিশদ

12th  November, 2019
বৈচিত্র্যের মধ্যে ঐক্যের দেশ

সময় লাগল অনেকটাই। তবে অবশেষে স্বস্তি এল। দীর্ঘদিনের জটও কাটল। নতুন করে সবকিছু শুরু হওয়ার অপেক্ষায় অযোধ্যা। আর বহু প্রতীক্ষিত এই সুদিন দেশের ইতিহাসে স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে। এভাবেই অযোধ্যা মামলার রায় ঘোষণার পর জাতির উদ্দেশে ভাষণে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।
বিশদ

11th  November, 2019
নিরাপত্তার নামে 

গোয়েন্দারা বারবার সতর্ক করেছিলেন। শোনেননি ইন্দিরা গান্ধী। অমৃতসরের স্বর্ণমন্দিরে অপারেশন ব্লু স্টারের পর ইন্টেলিজেন্স ব্যুরো জানিয়েছিল, শিখ সম্প্রদায় আপনার শত্রু হয়ে গিয়েছে। আপনার নিরাপত্তা বলয় থেকে শিখদের সরিয়ে দিন। মানতে চাননি ইন্দিরা। বিয়ন্ত সিং এবং সতবন্ত সিং বহুদিনের সঙ্গী... তাঁদের সরাবেন না প্রধানমন্ত্রী। 
বিশদ

10th  November, 2019
পেঁয়াজের দামে নাভিশ্বাস

 প্রায় শেষ পুজোর মরশুম। গণেশ পুজো দিয়ে শুরু হয়ে জগদ্ধাত্রীতে এসেছে থেমেছে উৎসবের লগ্ন। এই সময় আমবাঙালির হাত প্রায়-শূন্য হয়ে পড়ে ফিবছরই। এবারও তার ব্যতিক্রম নয়। কিন্তু, তার উপর আছড়ে পড়েছে মূল্যবৃদ্ধির ভয়াবহ ‘বুলবুল’। বাজারে বেরলে নিমেষে উড়ে যাচ্ছে নোট। বিশদ

09th  November, 2019
গুজরাতি: বৈষম্যমূলক ও অবাঞ্ছিত 

গোটা এশিয়া মহাদেশে সাহিত্যে প্রথম নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন যিনি তিনি একজন বাঙালি কবি। বলা বাহুল্য তাঁর নাম রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। তারপর শতবর্ষ পেরিয়ে গিয়েছে। তবু ভারতের অন্যকোনও ভাষার সাহিত্যিকরা সেই গর্ব স্পর্শ করতে পারেননি। রবীন্দ্রনাথেরই লেখা দুটি গান ভারত এবং বাংলাদেশের জাতীয়সঙ্গীত। এও এক অনন্য নজির।  
বিশদ

08th  November, 2019
অগ্রগতির আসল চাবিকাঠি

 সম্প্রতি কেন্দ্রীয় সরকার প্রকাশ করেছে স্বাস্থ্যবিষয়ক জাতীয় সমীক্ষা রিপোর্ট। ‘ন্যাশনাল হেলথ প্রোফাইল, ২০১৯’ নামের এই বিশাল রিপোর্টে দেশের শিশুদের যে স্বাস্থ্যচিত্র ধরা পড়েছে তাকে কোনোভাবেই আশাব্যঞ্জক বলা যাবে না। বিশদ

07th  November, 2019
নিরাপদ অবস্থান 

দেশের উন্নতি করতে হলে সাধারণ মানুষের, বিশেষত গরিব মানুষের জীবনযাত্রায় উন্নতি ঘটাতেই হবে। তাঁদের জীবনকে সুরক্ষিত রাখতে হবে। ভাবতে হবে তাঁদের স্বার্থরক্ষার কথা। কেন্দ্রের মোদি সরকারের বিরুদ্ধে বারবার অভিযোগ উঠেছে যে তারা ধনীদের স্বার্থরক্ষা করে, সিদ্ধান্ত নেয় বড়লোক শ্রেণীর স্বার্থে। তারা চাষি, খেতমজুর অর্থাৎ গরিব মানুষের কথা বিশেষ ভাবে না। 
বিশদ

06th  November, 2019
পাকিস্তানের স্বভাব যায় না ম’লে 

বাংলায় একটা প্রবাদ আছে, স্বভাব যায় না ম’লে। যার যা স্বভাব সেটা সে পালন করে যাবেই। সে ভালোই হোক আর মন্দই হোক। মন্দ হলে সে কাজের সমালোচনা বা নিন্দা হবেই। কিন্তু অসম্মান আর বেইজ্জতই যাদের ভূষণ তারা এসব অসম্মানকে থোড়াই কেয়ার করে।  বিশদ

05th  November, 2019
পেগাসাস থেকে সাবধান! 

ফের ফোনে আড়ি পাতার অভিযোগ! ভারতের সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মীদের উপর গোয়েন্দাগিরি করার জন্য হোয়াটসঅ্যাপকে কাজে লাগানো হয়েছিল এ বছরের গোড়ায়। নজরদারি চালাবার জন্য ‘পেগাসাস’ নামে একটি স্পাইওয়্যার ব্যবহার করা হয়েছিল, যা তৈরি করেছিল এনএসও গ্রুপ নামের এক ইজরায়েলি সংস্থা। 
বিশদ

04th  November, 2019
বিষবাষ্প 

দীপাবলির উৎসবেই ফিরল দিল্লির চেনা ছবি। মেরেকেটে মাসখানেক হল হরিয়ানা-পাঞ্জাবে ফসলের গোড়া পোড়ানো শুরু হয়েছে। এ ছবিও খুব চেনা... আতঙ্কের, উদ্বেগের। ধোঁয়াশায় ঢাকা আকাশ, দূষণের চাদর রাজপথে নেমে আসায় দৃশ্যমানতা কমে এসেছে। 
বিশদ

03rd  November, 2019
প্রোমোটারের থাবা থেকে মুক্তি  

দেশ স্বাধীন হয়েছে সাত দশক পেরিয়ে গিয়েছে। কিন্তু, এখনও দারিদ্র্য দূর করা যায়নি। দারিদ্রসীমার নীচে রয়ে গিয়েছে অন্তত ২০ কোটি ভারতবাসী। সরকারের পর সরকারের বদলায়, পরিকল্পনার পর পরিকল্পনা শেষ হয়, তবু চরম দারিদ্র্য দূর হওয়ার, এমনকী কমারও কোনও লক্ষণ স্পষ্ট হয় না। 
বিশদ

02nd  November, 2019
ছয় মামলার রায়ে কর্মজীবনের ইতি

 সুপ্রিম কোর্টের ৪৬তম প্রধান বিচারপতি হিসাবে শপথ নিয়েছিলেন তিনি। গত জানুয়ারি মাসে সুপ্রিম কোর্টের চার বিচারপতি তৎকালীন মুখ্য বিচারপতি দীপক মিশ্রর বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষণা করেন। সেই দলে ছিলেন তিনিও।
বিশদ

01st  November, 2019
মেট্রো: কতটা যোগ্য কলকাতা

 কলকাতা মেট্রো রেল ভারতের গর্ব। ১৯৮৪ সালে ভারতের প্রথম ভূগর্ভ রেল ছুটেছিল কলকাতার বুকে। খুব সামান্য অংশে। এসপ্লানেড থেকে নেতাজি ভবন (ভবানীপুর)। সেদিন যাত্রাপথের দৈর্ঘ্য ছিল সাড়ে তিন কিমিরও কম। পরবর্তী তিন দশকে সেই যাত্রাপথ আপ এবং ডাউন দু’দিকেই বেড়েছে।
বিশদ

31st  October, 2019
পিজির নয়া উদ্যোগ 

রাজ্যে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে হলে জ্ঞান-বিজ্ঞানের বিকাশ ঘটানোটা জরুরি। শিক্ষার মতো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ের সঙ্গেই ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে আছে মানুষের স্বাস্থ্য সচেতনতা। মানুষের অমূল্য জীবন যার সঙ্গে যুক্ত সেই চিকিৎসা পরিষেবার মতো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টির মানোন্নয়ন প্রয়োজন। 
বিশদ

30th  October, 2019
বাজি: উৎসে আঘাত হানা জরুরি

সচেতনতামূলক প্রচারের অভাব ছিল না। আইন ভাঙলে ছিল ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারিও। কিন্তু তলে তলে কোনায় কোনায় যে কত নিষিদ্ধ শব্দবাজি মজুত হয়ে ছিল, তার কোনও হিসেবই ছিল না। ফলে গত কয়েক বছরের মতো এবারও পরিণতি যা হওয়ার, তাইই হয়েছে।
বিশদ

29th  October, 2019
একনজরে
অলকাভ নিয়োগী, বর্ধমান, বিএনএ: মুখে ‘শিল্প আমাদের ভবিষ্যৎ’ স্লোগান দিলেও বামফ্রন্ট সরকারের আমলেই বন্ধ হয়েছিল ‘বর্ধমান ডেয়ারি’। টানা ১০ বছর বন্ধ থাকার পর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্যোগে ওই বর্ধমান ডেয়ারি থেকে মাদার ডেয়ারিতে রূপান্তরিত হয়ে চালু হয়েছে।  ...

 নয়াদিল্লি, ১২ নভেম্বর (পিটিআই): কংগ্রেস নেতা শশী থারুরের বিরুদ্ধে জামিনযোগ্য গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করল দিল্লি আদালত। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে আপত্তিকর মন্তব্য করায় তাঁর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়। ...

সংবাদদাতা, কাটোয়া: দাঁইহাট রাস উৎসব উপলক্ষে মঙ্গল ও বুধবার নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করতে ৭০০ পুলিস কর্মী মোতায়েন করা হল। গোটা শহরজুড়ে পর্যাপ্ত সিসি ক্যামেরায় মুড়ে ফেলা হয়েছে। শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ রাস্তাগুলিতে মঙ্গলবার থেকেই নো-এন্ট্রি চালু করা হয়েছে।  ...

সংবাদদাতা, গঙ্গারামপুর: বোল্লাকালীর অন্যতম ভোগ চিনির বাতাসা তৈরিতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন মিষ্টি বিক্রেতারা। শুক্রবারই মায়ের পুজো। তাই নাওয়াখাওয়া ভুলে কয়েক কুইন্টাল চিনি জাল দিয়ে তৈরি হচ্ছে কদমা, বাতাসা। দূরদূরান্ত থেকেন বোল্লাকালীর পুজো দিতে আসেন ভক্তেরা।   ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কর্মপ্রার্থীদের কোনও চুক্তিবদ্ধ কাজে যুক্ত হবার যোগ আছে। ব্যবসা শুরু করা যেতে পারে। বিবাহের যোগাযোগ ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮৪০: ফরাসি ভাস্কর অগ্যুস্ত রদ্যঁর জন্ম
১৮৯৩: পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের সীমান্তরেখা ডুরান্ড লাইন চুক্তি স্বাক্ষরিত
১৮৯৬: পক্ষীবিদ সালিম আলির জন্ম
১৯৪৬: পণ্ডিত মদনমোহন মালব্যের মৃত্যু  

12th  November, 2019




ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৯.৭০ টাকা ৭২.৮৫ টাকা
পাউন্ড ৮৯.০৬ টাকা ৯৩.৩৬ টাকা
ইউরো ৭৬.৭৩ টাকা ৮০.৪৫ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
12th  November, 2019
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,৫৩০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,৫৫৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৭,১০৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৪,৪০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৪,৫০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২৬ কার্তিক ১৪২৬, ১৩ নভেম্বর ২০১৯, বুধবার, প্রতিপদ ৩৪/৩৬ রাত্রি ৭/৪২। কৃত্তিকা ৪০/২৩ রাত্রি ১০/১। সূ উ ৫/৫১/২৯, অ ৪/৫০/১৫, অমৃতযোগ দিবা ৬/৩৫ মধ্যে পুনঃ ৭/১৯ গতে ৮/৩ মধ্যে পুনঃ ১০/১৫ গতে ১২/২৭ মধ্যে। রাত্রি ৫/৪২ গতে ৬/৩৪ মধ্যে পুনঃ ৮/১৯ গতে ৩/১৫ মধ্যে, বারবেলা ৮/৩৫ গতে ৯/৫৮ মধ্যে পুনঃ ১১/২১ গতে ১২/৪৩ মধ্যে, কালরাত্রি ২/৩৬ গতে ৪/১৪ মধ্যে।
 ২৬ কার্তিক ১৪২৬, ১৩ নভেম্বর ২০১৯, বুধবার, প্রতিপদ ৩৪/২৪/৩৯ রাত্রি ৭/৩৮/৩৩। কৃত্তিকা ৪২/২৪/১১ রাত্রি ১০/৫০/২১, সূ উ ৫/৫২/৪১, অ ৪/৫০/৫২, অমৃতযোগ দিবা ৬/৪৭ মধ্যে ও ৭/৩০ গতে ৮/১২ মধ্যে ও ১০/২১ গতে ১২/২৯ মধ্যে এবং রাত্রি ৫/৪০ গতে ৬/৩৩ মধ্যে ও ৮/১৯ গতে ৩/২৪ মধ্যে, বারবেলা ১১/২১/৪৪ গতে ১২/৪৪/০ মধ্যে, কালবেলা ৮/৩৭/১৩ গতে ৯/৫৯/২৯ মধ্যে, কালরাত্রি ২/৩৭/১২ গতে ৪/১৪/৫৬ মধ্যে।
১৫ রবিয়ল আউয়ল

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
মহারাষ্ট্রে রাষ্ট্রপতি শাসন জারিকে নিন্দনীয় আখ্যা কংগ্রেসের
মহারাষ্ট্রে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করাকে নিন্দনীয় বলে আখ্যা দিল কংগ্রেস। ...বিশদ

12-11-2019 - 07:59:24 PM

মহারাষ্ট্রে জারি হল রাষ্ট্রপতি শাসন 
অবশেষে রাষ্ট্রপতি শাসনই জারি হল মহারাষ্ট্রে। রাজ্যপালের সুপারিশে সই করে ...বিশদ

12-11-2019 - 05:40:00 PM

  টাস্ক ফোর্স নিয়ে বৈঠকে কী সিদ্ধান্ত হল?
বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্থ এলকায় গিয়ে কালকের মধ্যে নবান্নে রিপোর্ট জমা দিতে ...বিশদ

12-11-2019 - 05:07:23 PM

 আজব কাণ্ড! পেঁপের পেটেই মিলল পেঁপে
পেঁপের পেটেই পেঁপে মিলল। শুনলে অবাক লাগলেও বাস্তবে এটাই ...বিশদ

12-11-2019 - 04:43:28 PM

মদনমোহন মন্দিরে পুজো দিতে এলেন সংসদ সদস্য নিশীথ প্রামানিক 
চল্লিশটি ঢাক বাজিয়ে রাজ বেশে কোচবিহারের মদনমোহন মন্দিরে এসে পুজো ...বিশদ

12-11-2019 - 04:03:00 PM

জলপাইগুড়িতে আর্থিক জালিয়াতির অভিযোগ, আটক ১ 

12-11-2019 - 04:00:00 PM