Bartaman Patrika
সম্পাদকীয়
 

ব্যালট বনাম প্রযুক্তি

ভারতের মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুনীল অরোরা স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন, ব্যালটে ফিরে যাওয়ার কোনও প্রশ্নই নেই। কলকাতায় একটি অনুষ্ঠানে এসে তিনি এই কথা জানিয়েছেন। এই প্রসঙ্গে সুপ্রিম কোর্টের রায় উল্লেখ করার পাশাপাশি মুখ্য নির্বাচন কমিশনার বুঝিয়ে দিয়েছেন, ভারত আর অতীতের দিকে ফিরে তাকাতে চায় না। বক্তব্যের সারাংশটা জলের মতো পরিষ্কার—মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সহ দেশের বিরোধী দলনেতা বা নেত্রীরা যতই ইভিএম পরিত্যাগ করে ব্যালটের পক্ষে সওয়াল করুন না কেন, নির্বাচন কমিশন তাতে কান দিতে নারাজ। ইভিএমই ভারতের নির্বাচনী বর্তমান এবং ভবিষ্যৎ।
গত ২১ জুলাই মহাসমাবেশে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আহ্বানই ছিল, ইভিএম নয় ব্যালট চাই। কারণ হিসেবে তিনি দাবি করেছিলেন, প্রযুক্তিতে গলদ থাকতে পারে। এমনও হতে পারে, অন্য বোতাম টিপলেও ভোট গিয়ে একটিই দলের ঝুলিতে পড়বে। তাই ইভিএম আর নয়, ফিরতে হবে ব্যালটে। ইভিএমে এই কারচুপির অভিযোগ অবশ্য তিনি একা নন, তেলুগু দেশম পার্টির প্রধান চন্দ্রবাবু নাইডু, মহারাষ্ট্র নবনির্মাণ সেনা সুপ্রিমো রাজ থ্যাকারে কিংবা ন্যাশনাল কনফারেন্সের নেতা ফারুক আবদুল্লাও এই একই দাবি তুলে এসেছেন। আগে কংগ্রেস তথা তাদের সদ্য পদত্যাগী সভাপতি রাহুল গান্ধীও অবশ্য দাবি তুলেছিলেন, ইভিএমে কারচুপি করে বিজেপি নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় সরকার। বছরখানেক আগে বিজেপির গড়েই বিজেপিকে হারানোর পর অবশ্য রাহুল গান্ধী সেই অভিযোগ আর খুব একটা তোলেননি। এমনকী নির্বাচন কমিশন যখন খোলাখুলি সব রাজনৈতিক দল এবং মানুষকে ইভিএমে কারচুপি ধরিয়ে দেওয়ার জন্য চ্যালেঞ্জ ছুঁড়েছিল, তখনও কেউ এসে ইভিএমের গলদ প্রমাণ করতে পারেনি। বিরোধীরা যে অভিযোগ তুলবে, তা যদি প্রমাণ না করা যায়, তাহলে নির্বাচন কমিশনের মতো একটি স্বশাসিত সংস্থা যে কখনই এমন একটা গুরুতর সিদ্ধান্ত নেবে না, তা দিনের আলোর মতো পরিষ্কার। তার উপর ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন গোটা দেশে চালু করা এবং তার পাশাপাশি নবতম সংযোজন সর্বত্র ভিভিপ্যাট—এতে কেন্দ্রীয় সরকার যে পরিমাণ অর্থ খরচ করেছে, তার থেকে যদি আচমকা একটা অভিযোগের ভিত্তিতে ‘আদিম’ যুগে ফিরে যায়, তাহলে জনগণ কেনই বা মেনে নেবে! গোটা প্রক্রিয়াটাই তো হয়েছে বা হচ্ছে সাধারণ ভারতীয়ের কষ্টার্জিত করের টাকায়। এছাড়া ওয়াকিবহাল মহল আরও একটা প্রশ্ন তুলছে। কারচুপি যদি কোনও একটি মেশিনে করা হয়, তাহলে সেখানে সব ভোটই তো একটি দলের ঝুলিতে যাবে। মেশিন তো আর এমন বুঝবে না যে, তিনটি ভোট বিরোধী পক্ষ আর সাতটি শাসককে দিতে হবে! পাশাপাশি লক্ষ লক্ষ ইভিএমে কারচুপি করতে গেলে অন্তত কয়েক হাজার লোককে তো নিয়োগ করতেই হবে! সেক্ষেত্রে কি কারচুপির গোপনীয়তা বজায় থাকবে?
এমন বহু প্রশ্নের উত্তর নেই বলেই নির্বাচন কমিশন বুক ঠুকে বলতে পারছে, ব্যালটে ফিরব না। বিরোধীরা অবশ্য যুক্তি দেখাচ্ছে, প্রথম বিশ্বের বহু দেশ, অর্থাৎ আমেরিকা বা ইউরোপে অনেকেই প্রযুক্তি ছেড়ে ব্যালটে ফিরেছে। প্রথম কারণ যদি বিপুল পরিমাণ অর্থ ব্যয় হয়, তাহলে দ্বিতীয়টি অবশ্যই মেশিনে ভরসা রাখতে না পারা। তাহলে ভারতে কেন হবে না। প্রথম যুক্তিটি সত্যিই ভেবে দেখার মতো। ১৩০ কোটি নাগরিকের এবং প্রায় ১০০ কোটি ভোটারের দেশে ব্যালটের ক্ষেত্রে যে পরিমাণ অর্থ খরচ হবে, তা ইভিএম এবং প্রযুক্তির তুলনায় কম। কিন্তু ব্যালট ফিরলে যে দুর্নীতি হবে না, সে গ্যারান্টি কে দিচ্ছে? গত ২০১৮ সালের পঞ্চায়েত ভোটেও রায়গঞ্জের সোনাডাঙিতে পুকুর থেকে ব্যালট বাক্স উদ্ধারের ভিডিও ভাইরাল হয়েছিল। কিংবা বাম জমানায় ব্যালট লুটের ইতিহাস আজও স্মৃতি থেকে ফিকে হয়ে যায়নি। তুমুল ছাপ্পা, বুথ ক্যাপচারে ভোট-দুষ্কৃতীরা কিন্তু ব্যালটেই হাত পাকিয়েছিল।
আসল কথাটা হল, যে রাজনৈতিক দলই হোক, মানুষের জন্য কাজ করলে ইভিএমে কারচুপি বা ব্যালট-ছাপ্পার প্রয়োজন হবে না। সে ক্ষেত্রে কিন্তু পদ্ধতিটাই গৌণ হয়ে যাবে। মানুষ বেছে নেবে তাঁর আস্থাভাজন দল বা প্রতিনিধিকেই। সেটাই গণতন্ত্র।
11th  August, 2019
গুলি চালিয়ে প্রতিবাদের অধিকার হরণ গণতন্ত্র নয় 

ফের তিন বছরের জন্য বিজেপির রাজ্য সভাপতি হলেন দিলীপ ঘোষ। এবং তা যাবতীয় জল্পনা উড়িয়ে। বেশ কয়েকদিন ধরেই বিজেপির একাংশ থেকে শোনা যাচ্ছিল, দিলীপ ঘোষের উপর নাকি আর আস্থা রাখতে পারছে না কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। ফলে তাঁর জায়গায় রাজ্য সভাপতি হিসেবে অন্য কাউকে দায়িত্বে আনা হবে। আদৌ তা হল না।  
বিশদ

জাগ্রত বিবেক 

বেশ কিছুকাল আগের একটি সিনেমায় দেখা সংলাপের কিছু কথা ঘুরেফিরে মনে আসছে। যেখানে একটি চরিত্র বলছে যে, আজকাল ট্যাক্সি চালক যাত্রীর টাকার ব্যাগ ফেরত দিলে, খবর লেখা হয়। কিন্তু, সেটাই তো তাঁর কর্তব্য। অর্থাৎ, আমাদের সমাজটা আজ সিঁড়ি বেয়ে নীচে নামতে নামতে একবারে অতলে তলিয়ে যাচ্ছে।  
বিশদ

18th  January, 2020
ফের সামনে এল নোটবন্দির ব্যর্থতা 

২০১৬ সালের ৮ নভেম্বর দিনটি ভারতবাসীর কাছে স্মরণীয় হয়ে থাকবে। ওই দিন রাতে সমস্ত টিভি চ্যানেলে ভেসে উঠল দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মুখ। দেশবাসীর উদ্দেশে তিনি ভাষণ দেবেন। আচমকা জাতির উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী ভাষণ দেবেন শুনে অনেকেই চমকে উঠেছিলেন।  
বিশদ

17th  January, 2020
নথির ঝঞ্ঝাট ক্রমবর্ধমান 

মোদি সরকার তার সাফল্যের অনেক ফিরিস্তি দিয়েছে। এখনও দিচ্ছে। দিয়েই চলেছে। কিন্তু তার সবটা যে সত্যি নয়, তা দেশবাসীর চেয়ে ভালো কেউ জানে না। ভারতবাসীর নিখাদ উপলব্ধিটি হল—দেশের সার্বিক অগ্রগতি অনেকদিন আগেই থমকে গিয়েছিল। এখন চলছে অবনতির বা পিছনে হাঁটার অধ্যায়। 
বিশদ

16th  January, 2020
উদ্বেগজনক রিপোর্ট 

বেকারত্বের জ্বালা সহ্য করতে না-পেরে আত্মহননের পথ বেছে নিয়েছেন দেশের হাজার হাজার কর্মহীন মানুষ। এই উদ্বেগজনক তথ্যই উঠে এসেছে সম্প্রতি প্রকাশিত ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ডস ব্যুরোর (এনসিআরবি) রিপোর্টে। আবার, ঋণের ভারে জর্জরিত একের পর এক কৃষকের আত্মহত্যা যেন দেশে এখন আর কোনও নতুন বিষয়ই নয়।  
বিশদ

15th  January, 2020
ধর্মস্থানে রাজনীতি!

 সিএএ আন্দোলনের জেরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি অসম সফর বাতিল করলেও তিনি পশ্চিমবঙ্গ সফরে এসেছিলেন। সর্বত্র তুমুল বিক্ষোভের মধ্যেও তিনি তাঁর কর্মসূচি সম্পন্ন করে ফিরে গিয়েছেন। কিন্তু তিনি পিছনে রেখে গিয়েছেন অসংখ্য বিতর্ক এবং প্রশ্ন।
বিশদ

14th  January, 2020
মিথ্যেতেই বিশ্বাস জন্মাচ্ছে

হিটলারের জার্মানিতে প্রচারমন্ত্রী ছিলেন জোসেফ গোয়েবলস। তাঁর একটা বিখ্যাত উক্তি হল—মিথ্যে কথাও এত বড় করে বলা এবং এত বার বলা জরুরি যে মানুষ একদিন তা বিশ্বাস করতে শুরু করবে। সেই সময়ে এই উক্তির বাস্তবায়ন করেছিল জার্মান রেডিও। আজকের স্মার্টফোন এবং হোয়াটসঅ্যাপ অক্ষরে অক্ষরে সেই কাজটাই করে চলেছে।  
বিশদ

13th  January, 2020
মৌলিক অধিকারের নবদিগন্ত 

ইন্টারনেট পরিষেবা অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে রাখা যায় না। ইন্টারনেট ব্যবহারও মৌলিক অধিকারের থেকে আলাদা নয়। ভারতের ইতিহাসে প্রথমবার সুপ্রিম কোর্ট এভাবে ইন্টারনেট ব্যবহারের স্বাধীনতার পক্ষে সওয়াল করল। দেশের শীর্ষ আদালত বুঝিয়ে দিল, সরকারি সিদ্ধান্তের নামে নাগরিকদের অধিকার থেকে বঞ্চিত করা যায় না। 
বিশদ

12th  January, 2020
নির্বুদ্ধিতার পরিণাম 

নির্বুদ্ধিতার পরিণাম। নৈহাটির বিস্ফোরণকাণ্ডকে ঠিক এই ভাষাতেই ব্যাখ্যা করা যায়। কারণ বাজি হোক বা বোমা—এ ধরনের বিস্ফোরক নিষ্ক্রিয় করার বিশেষজ্ঞদের কাছ থেকে এরকম ছেলেমানুষি কাজ কি সাধারণ মানুষ আশা করেন?  
বিশদ

11th  January, 2020
আরও একটি নিষ্ফলা ধর্মঘট
দেশের প্রাপ্তি কেবল দুর্ভোগ

 আরও একটা নিষ্ফলা বন্‌ধ বা সাধারণ ধর্মঘট দেখল পশ্চিমবঙ্গ সহ গোটা দেশ। নিষ্ফলা কারণ, কংগ্রেস এবং বামেদের দাবিমতো বন্‌ধ সর্বাত্মক সফল বলে মেনে নিলেও ধর্মঘট ডাকার উদ্দেশ্য কিন্তু সফল হবে না। কারণ একটা সাধারণ ধর্মঘট বা বন্‌ধ সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনকে খারিজ করে দিতে পারবে না।
বিশদ

10th  January, 2020
অসমের শিক্ষা 

সামসুল হক। বয়স সাঁইত্রিশ। পেশায় শিক্ষক। অসমে আঁচলপাড়া গ্রামের স্কুলে। তিনি এনআরসির একজন অফিসার। কিন্তু পরিতাপের বিষয় হল—তাঁর বোন আবিদা সিদ্দিকের নামটি নেই এনআরসি তালিকায়। স্বভাবতই পরিবারটির ঘুম ছুটে গিয়েছে। আবিদার নাম তোলার জন্য সমস্তরকম চেষ্টা করে চলেছে পরিবারটি।  
বিশদ

09th  January, 2020
এই বন্‌ধ কার স্বার্থে 

এনআরসি, সিএএ, এনপিআর প্রভৃতি ইস্যুতে প্রতিবাদ আন্দোলনে এখন উত্তাল এই দেশ। গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে এই ইস্যুতে আন্দোলনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আপত্তি নেই। তাই ইতিমধ্যেই মোদি সরকারকে হুঁশিয়ারি দিয়ে পথে নেমে ঝড় তুলেছে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল। 
বিশদ

08th  January, 2020
গৃহস্থের খরচ আরও বাড়ছে 

ফের দুঃসংবাদ। এমনিতেই আলুর দর চলছিল কেজিপ্রতি ৩০ টাকার আশপাশে, পেঁয়াজ ১০০ টাকার আশপাশে। নিত্যপ্রয়োজনীয় এই দুটি জিনিস কিনতে গিয়ে মধ্যবিত্ত নাকানি চোবানি খাচ্ছিলেন। সম্প্রতি এই দুটি জিনিসেরই বাজারদর পড়তির দিকে। কিন্তু সুখ সইল না। 
বিশদ

07th  January, 2020
হারানো জমি উদ্ধারে ট্রাম্প 

ইরানের রেভল্যুশনারি গার্ডের কুদস ফোর্সের কমান্ডার জেনারেল কাসেম সোলেমানিকে খতম করে নিজের হারানো জমি কতটা উদ্ধার করতে পারবেন ট্রাম্প? আমেরিকার রাজনৈতিক মহলে এই চর্চাই এখন শীর্ষে।
বিশদ

06th  January, 2020
শিশুর বাসযোগ্য

 দ্বিতীয়বার একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ক্ষমতা দখল। তারপর প্রথম স্বাধীনতা দিবসের ভাষণে নরেন্দ্র মোদির লক্ষ্য কী ছিল? দুই সন্তান নীতি। ফলাও করে সেই ঘোষণা লালকেল্লা থেকে করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী। ১৩০ কোটি মানুষের দেশ ভারত।
বিশদ

05th  January, 2020
মহতী পদক্ষেপ

 গত লোকসভা নির্বাচনেও দেশে চাকরির সঙ্কট একটি গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু ছিল। সাধারণত নির্বাচনে অসংগঠিত ক্ষেত্রের শ্রমিক দেশের মধ্যে সর্ববৃহৎ অংশ হিসেবে প্রত্যক্ষভাবে ভোটভাগ্যও নির্ধারণ করে। বিশদ

04th  January, 2020
একনজরে
দিব্যেন্দু বিশ্বাস, নয়াদিল্লি, ১৮ জানুয়ারি: বিরোধিতা সত্ত্বেও কেন কেন্দ্রের ডাকা এনপিআর বৈঠকে হাজির হয়েছেন রাজ্যের সরকারি প্রতিনিধি? এবার সিপিএমের কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকেই এই প্রশ্নের মুখে পড়তে হল দলের কেরল শিবিরকে।  ...

সংবাদদাতা, রামপুরহাট: মাড়গ্রাম থানার বিষ্ণুপুর গ্রামে বিয়ের আট মাসের মাথায় এক যুবকের অস্বাভাবিক মৃত্যু ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়ায়। পুলিস জানিয়েছে, পেশায় দিনমজুর মৃত যুবকের নাম রাজীব মণ্ডল(২৫)। মাস আটেক আগে মুর্শিদাবাদের প্রথমকান্দি গ্রামে তাঁর বিয়ে হয়।  ...

সংবাদদাতা, দিনহাটা: কমল গুহর ৯২ তম জন্মদিন উপলক্ষে শনিবার থেকে দিনহাটায় দু’দিনব্যাপী স্বাস্থ্যমেলা শুরু হল। দিনহাটা সংহতি ময়দানে দুঃস্থ মহিলা ও শিশুকল্যাণ সমিতির উদ্যোগে এবং ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের সহযোগিতায় স্বাস্থ্যমেলা শেষ হবে আজ, রবিবার।  ...

ইসলামাবাদ, ১৮ জানুয়ারি (পিটিআই): মৃত্যুদণ্ডের সাজাপ্রাপ্ত প্রাক্তন রাষ্ট্রপ্রধান পারভেজ মোশারফের আবেদন ফিরিয়ে দিল পাকিস্তানের সুপ্রিম কোর্ট। আদালতের তরফে বলা হয়েছে, আগে মোশারফকে আত্মসমর্পণ করতে হবে, তারপর আদালত তাঁর কোনও আবেদন শুনবে। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
aries

বেশি বন্ধু-বান্ধব রাখা ঠিক হবে না। প্রেম-ভালোবাসায় সাফল্য আসবে। বিবাহযোগ আছে। কর্ম পরিবেশ পরিবর্তন হতে ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯৪৭: সঙ্গীতশিল্পী কে এল সায়গলের মৃত্যু
১৯৭২: ক্রিকেটার বিনোদ কাম্বলির জন্ম
১৯৯৬: রাজনীতিক ও অভিনেতা এন টি রামারাওয়ের মৃত্যু
২০০৩: কবি হরিবংশ রাই বচ্চনের মৃত্যু
২০১৮ – বিশিষ্ট বাঙালি সাংবাদিক ও কার্টুনিস্ট চন্ডী লাহিড়ীর মৃত্যু

18th  January, 2020




ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.১৭ টাকা ৭১.৮৭ টাকা
পাউন্ড ৯১.২২ টাকা ৯৪.৫১ টাকা
ইউরো ৭৭.৬১ টাকা ৮০.৫৭ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
18th  January, 2020
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪০,৫৮০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৮,৫০০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৯,০৮০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৬,৮০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৬,৯০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৪ মাঘ ১৪২৬, ১৯ জানুয়ারি ২০২০, রবিবার, দশমী ৫১/১১ রাত্রি ২/৫২। বিশাখা ৪৩/১৫ রাত্রি ১১/৪১। সূ উ ৬/২৩/১, অ ৫/১১/১৭, অমৃতযোগ দিবা ৭/৬ গতে ৯/৫৮ মধ্যে। রাত্রি ৬/৫৫ গতে ৮/৪১ মধ্যে। বারবেলা ১০/৩৬ গতে ১/৮ মধ্যে। কালরাত্রি ১/২৭ গতে ৩/৬ মধ্যে। 
৪ মাঘ ১৪২৬, ১৯ জানুয়ারি ২০২০, রবিবার, নবমী ১/২৯/১৮ প্রাতঃ ৭/১/৩৬ পরে দশমী ৫৭/৪/৫ শেষরাত্রি ৫/১৫/৩১। বিশাখা ৪৯/৫১/৯ রাত্রি ২/২২/২১। সূ উ ৬/২৫/৫৩, অ ৫/১০/৩, অমৃতযোগ দিবা ৭/৩ গতে ১০/০ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/৪ গতে ৮/৪৮ মধ্যে। কালবেলা ১১/৪৭/৫৮ গতে ১/৮/৩০ মধ্যে, কালরাত্রি ১/২৭/২৭ গতে ৩/৬/৫৫ মধ্যে। 
মোসলেম: ২৩ জমাদিয়ল আউয়ল 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
ভারত অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ৭ উইকেটে জিতল

09:12:25 PM

ভারত ২৩৫/২ (৪২ ওভার) , টার্গেট ২৮৭ 

08:40:48 PM

ভারত ১৩৮/১ (২৭ ওভার) , টার্গেট ২৮৭ 

07:39:39 PM

কলকাতা ডার্বিতে ইস্টবেঙ্গলকে ২-১ গোলে হারাল মোহন বাগান 

07:36:41 PM

বড় ম্যাচের বিরতিতে মোগন বাগান ১ ইস্টবেঙ্গল ০ 

06:02:43 PM

ভারতকে ২৮৭ রানের টার্গেট দিল অস্ট্রেলিয়া 

05:21:19 PM