Bartaman Patrika
সম্পাদকীয়
 

বৃদ্ধিযোগের ভালো-মন্দ

পশ্চিমবঙ্গে হঠাৎ বৃদ্ধিযোগ। সরকারের রাজকোষের সঙ্গে প্রত্যক্ষ ও নানা ভাবে যুক্ত মানুষের পাওনাগণ্ডা অনেকখানি বাড়িয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য। যেমন গত ২৫ জুলাই প্রাথমিক শিক্ষকদের বেতন একলাফে অনেকটাই বাড়ানোর সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা হয়েছে। ২৯ জুলাই শিশু শিক্ষা কেন্দ্র (এসএসকে) এবং মাধ্যমিক শিক্ষা কেন্দ্রের (এমএসকে) শিক্ষকদেরও প্রাপ্য বাড়িয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা হয়েছে। সম্প্রতি বাড়ানো হয়েছে ত্রিস্তর পঞ্চায়েতের সদস্য এবং ভোটে নির্বাচিত নানা ধরনের পদাধিকারীদেরও। তার আগে বেড়েছে বিধায়ক এবং রাজ্যের মন্ত্রীদের ভাতাও। ৩০ জুলাই ঘোষিত হল পুর কাউন্সিলারসহ সংশ্লিষ্ট সমস্ত পদাধিকারীর ভাতাবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত। বেতন এবং ভাতাবৃদ্ধির প্রতিটি সিদ্ধান্তই স্বাগত। কারণ, দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি অর্থনীতির ধর্ম। সরকারি কর্মী থেকে জনপ্রতিনিধি সকলেই এই অর্থনীতির অংশ। একই বাজারে সকলকেই বাজার করতে হয়। অতএব দ্রব্যমূল্যবৃদ্ধির সঙ্গে সংগতিপূর্ণ বর্ধিত বেতন এবং ভাতাই সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের প্রাপ্য। সরকার স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে এই পাওনাগণ্ডা বাড়িয়েছে এমন নয়। প্রতিটি ক্ষেত্র নিজ নিজ দাবিতে সরব ছিল। স্কুলশিক্ষক এবং এসএসকে, এমএসকের শিক্ষকরা বেতনবৃদ্ধির দাবিতে একাধিকবার আন্দোলনও করেছেন। জনপ্রতিনিধিরা আন্দোলনের পথে যাননি ঠিকই কিন্তু ‘সামান্য’ মাসিক ভাতা নিয়ে তাঁদের একাংশের মনে ক্ষোভ অবশ্যই ছিল। অতএব প্রতিটি ক্ষেত্রে পাওনাগণ্ডা বাড়িয়ে দেওয়ার এই সিদ্ধান্ত সুবিবেচনাপ্রসূত বলেই প্রশংসিত হবে, ধরে নেওয়া যায়।
তবে, এর দুটি প্রভাব সম্পর্কেও হুঁশিয়ার থাকতে হবে। সমাজের একটি অংশের আয়বৃদ্ধির প্রভাব বা‌জারে পড়বে। তার দরুণ জিনিসপত্রের দাম কিছুটা বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকবে। আর একটি সম্ভাবনা হল সরকারের বাকি সমস্ত ক্ষেত্রও একইসঙ্গে বেতনসহ অন্যান্য প্রাপ্য বৃদ্ধির ব্যাপারে প্রত্যাশী হয়ে উঠবে। যেমন হাইস্কুল, কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়, সরকারি এবং সরকার অধিগৃহীত সংস্থাগুলির কর্মীরা। আমরা জানি, সরকারি কর্মীরা মহার্ঘভাতা বৃদ্ধির দাবিতে দীর্ঘদিন যাবৎ সোচ্চার। ইতিমধ্যেই ডিএ মামলায় স্যাটের রায় কর্মীদের পক্ষে গিয়েছে। তাঁদের কেন্দ্রীয় হারে ডিএ দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে স্যাট। নবান্নের উপর আরও রয়েছে ষষ্ঠ বেতন কমিশনের সুপারিশ কার্যকর করার চাপ। দাবিপূরণের দরজা একবার খুলে গেলে তা বন্ধ করে দেওয়া কঠিন। আশঙ্কা হয়, এরপর প্রত্যাশা বাড়বে সামাজিক কল্যাণ ক্ষেত্রে সরকার যত রকম ভাতা দিয়ে থাকে (যেমন বিধবাভাতা, বার্ধক্যভাতা, ছাত্রবৃত্তি প্রভৃতি) সেগুলিও বৃদ্ধির জন্য।
সম্প্রতি যতটা বর্ধিত আর্থিক দায় সরকার স্বীকার করে নিয়েছে তার পরিমাণ বিপুল। এরপর ডিএ, ষষ্ঠ বেতন কমিশনের সুপারিশ গ্রহণ মিলিয়ে আরও এক বিশাল ব্যয়ভার অপেক্ষা করছে। সরকার এই পুরোটাই মেটাতে পারলে তার চেয়ে সুখের কিছু হয় না। কারণ, তাতে নাগরিকদের একটি বৃহৎ অংশের জীবনযাত্রার মানে ইতিবাচক পরিবর্তন সূচিত হবে। যার সুফল বাজারেও পড়বে। কিন্তু প্রশ্ন হল, যে সরকারের কাঁধে ঋণের সুদ বাবদ অবিলম্বে ৫৬ হাজার কোটি টাকা মেটানোর দায় রয়েছে, সেই সরকার এটা কতটা পেরে উঠবে? রাজ্য সরকারের আয়ের ক্ষেত্র সীমিত। কেন্দ্রীয় রাজস্বের প্রাপ্য অংশও রাজ্য কখনও পুরো পায় না। যেমন চতুর্দশ অর্থ কমিশনের নিয়মানুসারে মোট কেন্দ্রীয় রাজস্বের (জিটিআর) ৪২ শতাংশ রাজ্যগুলির প্রাপ্য। এটি রাজ্যগুলির সাংবিধানিক অধিকারও বটে। তারপরেও গত পাঁচ বছরে রাজ্যগুলির প্রাপ্য ৩৬ শতাংশও স্পর্শ করেনি। তাই রাজ্যের দায়ভারকে অংশত কেন্দ্রেরও স্বীকার করে নেওয়া উচিত। তা না-হলে রাজ্যের উপর চাপবৃদ্ধিতে অশান্তিই বাড়বে, বাস্তবে কিছুই করার থাকবে না রাজ্যের। অন্যদিকে, রাজ্যকেও চেষ্টা করতে হবে সংকীর্ণ রাজনীতির ঊর্ধ্বে ওঠার এবং অনাবশ্যক কিছু খরচে লাগাম টানার। আয়বৃদ্ধির নতুন নতুন ক্ষেত্র খুঁজে বের করাও জরুরি। বেতন ভাতা বাবদ যাঁরা বাড়তি অর্থ পেতে চলেছেন, তাঁদেরকেও মনে রাখতে হবে, বাংলার কর্মসংস্কৃতির বিন্দুমাত্র সুনাম নেই। জনপ্রতিনিধিদের একাংশ সম্পর্কেও মানুষের শ্রদ্ধা নষ্ট হয়ে গিয়েছে। অতএব সরকার যখন সাধারণ মানুষের কাছ থেকে সংগৃহীত অর্থে তাঁদের জন্য বাড়তি বিপুল ব্যয়ভার স্বীকার করছে, তখন কর্মসংস্কৃতি এবং স্বচ্ছতা ফেরানোর বিষয়ে তাঁরা যেন আন্তরিকতার পরিচয়টি রাখেন।
01st  August, 2019
করোনা যুদ্ধে মানবিক সংযোজন

 ভারতে করোনা সংক্রমণের ছবিটা এক দিক থেকে খারাপ, আবার অন্যদিক থেকে মন্দের ভালো। কারণ, সংক্রমণের ঘটনা অব্যাহত। রোজ বাড়ছে। বৃদ্ধির হারটাও ক্রমবর্ধমান। তার ফলে আক্রান্তের সংখ্যা বুধবার ২৪ লক্ষ অতিক্রম করেছে। বিশদ

যোদ্ধা রাজ্যের ন্যায্য দাবি

মঙ্গলবার বিশ্বের মধ্যে প্রথম করোনা ভ্যাকসিন মানবদেহে প্রয়োগের সরকারি ছাড়পত্র দিল রাশিয়া। হাজারো বিতর্কের অবকাশ থাকলেও এটাই ছিল ওইদিনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ খবর। কারণ, সারা পৃথিবী আট মাস যাবৎ এই জিয়নকাঠির প্রতীক্ষায় রয়েছে।
বিশদ

13th  August, 2020
বাংলায় উন্নয়নের নয়া নজির

 বাম জমানা তখন মাঝপথে। দৈনিক এবং সাময়িক কাগজ খুললেই চোখে পড়ত অসম্পূর্ণ সরকারি প্রকল্পের খবর। ভূরি ভূরি। বেশিরভাগই সচিত্র প্রতিবেদন। কোথাও ব্রিজের শিলান্যাস হয়ে পড়ে আছে দশ বছর। বিশদ

12th  August, 2020
এই ভাষা বিতর্ক অনাবশ্যক

 পণ্ডিতদের ভাষা সংস্কৃতকে কবির তুলনা করেছিলেন কুয়োর জলের সঙ্গে। অন্যদিকে, ভাষাকে বলেছিলেন ‘বহতা জলধারা’। সত্যিই তো—ভাষা হল মানুষের ভাব প্রকাশের একটি হাতিয়ার। যে-মানুষ যে-ভাষায় স্বচ্ছন্দ তিনি সেই ভাষাতেই কথা বলবেন, লিখবেন, পড়বেন। বিশদ

11th  August, 2020
কৃষিকে ধরে অর্থনীতি রক্ষার চেষ্টা 

 রবিবার দুপুরের খবর, ভারতে করোনা আক্রান্তের মোট সংখ্যা ২১ লক্ষ ৫৬ হাজার ৭৫৬। শনিবারের পর নতুন যোগ হয়েছে ৬৮ হাজার ১৪৫। শুক্রবারের পর শনিবার ২৪ ঘণ্টায় যোগ হয়েছিল ৬১ হাজার ৫৩৭। বিশদ

10th  August, 2020
রিজার্ভ ব্যাঙ্কের
ভালো পদক্ষেপ

আধুনিক অর্থনীতির বড় আবিষ্কার হল টাকা। বিনিময় প্রথার সীমবদ্ধতা মানুষকে টাকার শরণ নিতে উদ্বুব্ধ করেছিল। প্রথমে টাকা ছিল ধাতব মুদ্রায় তৈরি। সোনা, রুপো এবং কোনও কোনও ক্ষেত্রে সঙ্কর ধাতুর।
বিশদ

09th  August, 2020
মূল্যবৃদ্ধি ঠেকাবে কে?

 আর কোনও রাখঢাক গুড়গুড় নেই। করোনাকালে সাধারণ মানুষকে আর্থিক সুবিধা দেওয়ার নামে কেন্দ্রীয় সরকার ও রিজার্ভ ব্যাঙ্ক গুচ্ছ গুচ্ছ ঘোষণা করলেও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যসামগ্রীর দাম যে ক্রমশ ধরাছোঁয়ার বাইরে চলে যাচ্ছে তা প্রকারান্তরে মেনে নিল দেশের শীর্ষ ব্যাঙ্ক। বিশদ

08th  August, 2020
সুশাসন ফিরবে তো?

 পার হল ২৯ বছর! অযোধ্যায় মন্দির-রাজনীতির দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করার মাহেন্দ্রক্ষণে উপস্থিত থাকতে সরযূ নদীর তীরে তিনি গেলেন প্রায় তিন দশক পর। বহু প্রতীক্ষিত রাম মন্দিরের শিলান্যাস হল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির হাত ধরে। বিশদ

07th  August, 2020
লকডাউনের বিকল্প ভাবনা জরুরি

কয়েকটি পকেট বাদ দিলে গত জুনে ভারতজুড়ে ভালো বৃষ্টি হয়েছে। বৃষ্টিপাতের পরিমাণ স্বাভাবিকের চেয়ে ১৫ শতাংশ বেশি। বর্ষার কৃপা সারা দেশই মোটামুটি একইরকম পেয়েছে। আবহাওয়া বিশারদরা মনে করছেন, ২০১৩ সালের পর এই প্রথম একটি পছন্দের জুন মাস পেয়েছি আমরা।
বিশদ

06th  August, 2020
রাস্তা যখন সঙ্কটমুক্তির হাতিয়ার

 সারা দেশে বেকারত্বের হার বাড়তে বাড়তে গত মার্চে ৮.৭৫ শতাংশে পৌঁছেছিল। তাতেই প্রমাদ গুনতে শুরু করেছিল শ্রমের বাজার এবং অর্থনৈতিক মহল। উঠতে শুরু করেছিল সমালোচনার ঝড়। সরকার সংবেদনশীল হলে সাধারণত নড়েচড়ে বসে। বিশদ

05th  August, 2020
বেচারাম সরকার

 কোমরের জোর কমে গেলে সোজা হয়ে দাঁড়াতে পারে না মানুষ। সামনের দিকে ঝুঁকে পড়ে। কেন্দ্রীয় সরকারের অবস্থা অনেকটা সেরকম। এক চরম নিয়মহীনতা দেশটাকে ক্রমশ সঙ্কটের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। দল ও সরকারের নীতি মেনে আগেই নামী-দামি কিছু রাষ্ট্রয়ত্ত সংস্থা বেচে দেওয়ার পরিকল্পনা করেছিল মোদি সরকার।
বিশদ

04th  August, 2020
এবার করোনা টেস্ট জালিয়াতি  

চিকিৎসা ক্ষেত্রে ভারতের সর্বোচ্চ সংস্থা হল ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিক্যাল রিসার্চ (আইসিএমআর)। ব্রিটিশ আমল থেকে এই সংস্থা চিকিৎসা সংক্রান্ত গবেষণার ব্যাপারে দেশকে নেতৃত্ব দিয়ে চলেছে। তবে, করোনার বিপর্যয় আসার আগে সংস্থাটি সম্পর্কে সাধারণ মানুষের বিশেষ কিছু জানা ছিল না। 
বিশদ

03rd  August, 2020
যুদ্ধটা শুধু রোগের বিরুদ্ধে 

সবার উপরে মানুষ সত্য। তাঁর এত বড় উপলব্ধির কথা কবি চণ্ডীদাস আমাদের সকলের সঙ্গে ভাগ করে নিয়েছিলেন প্রায় ছ’শো বছর আগে। পৃথিবী তারপর বহু বহু দূর এগিয়ে গিয়েছে।   বিশদ

02nd  August, 2020
বলে কয়ে বঞ্চনা! 

আশঙ্কাই সত্যি হল। কেন্দ্র জানিয়ে দিল, রাজ্যগুলিকে জিএসটি-র বকেয়া মেটানো সম্ভব নয়। সিঁদুরে মেঘ আগেই দেখেছিলেন দূরদর্শী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, রাজ্যের ন্যায্য পাওনা বকেয়া হয়েছে ৫৩ হাজার কোটি টাকা।  বিশদ

01st  August, 2020
কেন্দ্রীকরণের বিপজ্জনক প্রবণতা 

দেশে একটা সংবিধান আছে, নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে সংসদ আছে, অথচ ভারতীয় গণতন্ত্রের এই শক্তিশালী দুই স্তম্ভকে কার্যত বুড়ো আঙুল দেখিয়ে জাতীয় শিক্ষানীতি ঘোষণা করে দিল মোদি সরকার।   বিশদ

31st  July, 2020
ডিজিটাল ইন্ডিয়া: মস্ত মশকরা 

আমাদের মৌলিক অধিকারগুলোর মধ্যে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হল শিক্ষার অধিকার। ২০০২ সালে ভারতীয় সংবিধানের ৮৬তম সংশোধনের মাধ্যমে ‘অনুচ্ছেদ ২১-এ’ যোগ করা হয়। তাতে ৬-১৪ বছর বয়সি সমস্ত ছেলেমেয়ের জন্য নিখরচায় এবং বাধ্যতামূলক স্কুলশিক্ষার অধিকার স্বীকার করা হয়।  বিশদ

30th  July, 2020
একনজরে
 করোনার জেরে বন্ধ স্কুল-কলেজ। এই পরিস্থিতিতে বাড়িতে বসেই অনলাইনে পড়াশোনা করছেন পড়ুয়ারা। ...

আগামী বছরের ১৫ আগস্ট ভারতের স্বাধীনতার প্ল্যাটিনাম জয়ন্তী। ৭৪ পেরিয়ে ৭৫ বছরে পা দেবে স্বাধীনতা। বর্তমান প্রজন্মের কাছে এই বিশেষ দিনটি স্মরণীয় করে তুলতে ফেলে ...

করোনার ধাক্কা কাটিয়ে টেনিসে ফিরছেন ভেনাস ও সেরেনা উইলিয়ামস। বৃহস্পতিবার কেন্টাকিতে অনুষ্ঠেয় ডব্লুটিএ টুর্নামেন্টে আমেরিকার এই দুই তারকা বোন মুখোমুখি হবেন। তবে একটাই আপশোস, করোনা ...

কৃষি মাণ্ডিতে ভিড় না হওয়ায় ধান কেনা বন্ধ করল দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা খাদ্যদপ্তর। বোরো ধান না কেনায় কৃষকরা ধান বিক্রি করতে কেউ যাননি। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

ব্যয় বৃদ্ধি পাবে। কর্মক্ষেত্রে কোনও বিরূপ অবস্থার সৃষ্টি হতে পারে। বিদ্যার্থীদের শুভ ফল লাভ হবে। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯৪৭- পাকিস্তানের স্বাধীনতা দিবস
১৯৪৮- শেষ ইনিংসে শূন্য রানে আউট হলনে ডন ব্র্যাডম্যান
১৯৫৬- জার্মা নাট্যকার বের্টোল্ট ব্রেখটের মৃত্যু
২০১১- অভিনেতা শাম্মি কাপুরের মৃত্যু



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৪.০১ টাকা ৭৫.৭২ টাকা
পাউন্ড ৯৬.০৬ টাকা ৯৯.৪৬ টাকা
ইউরো ৮৬.৮১ টাকা ৮৯.৯৯ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৫৩,৩৬০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৫০,৬৩০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৫১,৩৯০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৬৬,৯৩০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৬৭,০৩০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২৯ শ্রাবণ, ১৪২৭, শুক্রবার, ১৪ আগস্ট ২০২০, দশমী ২১/৫৪ দিবা ২/২। রোহিণীনক্ষত্র ০/১৪ প্রাতঃ ৫/২২। সূর্যোদয় ৫/১৬/৪৮, সূর্যাস্ত ৬/৫/৪৪। অমৃতযোগ দিবা ৬/৫৮ মধ্যে পুনঃ ৭/৫০ গতে ১০/২৪ মধ্যে পুনঃ ১২/৫৮ গতে ২/৪১ মধ্যে পুনঃ ৪/২৪ গতে অস্তাবধি। রাত্রি ৭/৩৬ গতে ৯/৬ মধ্যে পুনঃ ৩/৩ গতে ৩/৪৭ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ রাত্রি ১০/৩৫ গতে ১১/১৯ মধ্যে পুনঃ ৩/৪৭ গতে উদয়াবধি। বারবেলা ৮/২৯ গতে ১১/৪১ মধ্যে। কালরাত্রি ৮/৫৪ গতে ১০/১৮ মধ্যে।
২৯ শ্রাবণ, ১৪২৭, শুক্রবার, ১৪ আগস্ট ২০২০, দশমী দিবা ১০/৪৬। মৃগশিরানক্ষত্র শেষরাত্রি ৪/৪৩। সূর্যোদয় ৫/১৬, সূর্যাস্ত ৬/৯। অমৃতযোগ দিবা ৭/১ মধ্যে ও ৭/৫১ গতে ১০/২১ মধ্যে ও ১২/৫২ গতে ২/৩২ মধ্যে ও ৪/১২ গতে ৬/৭ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/২৪ গতে ৮/৫৩ মধ্যে ও ৩/৩ গতে ৩/৪৯ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ রাত্রি ১০/২৮ গতে ১১/১৪ মধ্যে ও ৩/৪১ গতে ৫/১৬ মধ্যে। বারবেলা ৮/২৯ গতে ১১/৪২ মধ্যে। কালরাত্রি ৮/৫৫ গতে ১০/১৯ মধ্যে।
২৩ জেলহজ্জ।

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
২৪ ঘণ্টায় বাংলায় করোনা আক্রান্ত ২,৯৯৭
গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ২,৯৯৭ জনের শরীরে মিলল করোনা ভাইরাসের ...বিশদ

13-08-2020 - 09:45:41 PM

মুম্বইয়ে বাড়ির একাংশ ভেঙে মৃত ১, জখম ৪
মুম্বইয়ে হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ল একটি বাড়ির একাংশ। ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে ...বিশদ

13-08-2020 - 07:38:59 PM

প্রধানমন্ত্রী হিসাবে নয়া রেকর্ড মোদির
অকংগ্রেসি প্রধানমন্ত্রীদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি দিন মসনদে থাকার রেকর্ড গড়লেন ...বিশদ

13-08-2020 - 07:34:00 PM

তামিলনাড়ুতে একদিনে করোনা আক্রান্ত ৫,৮৩৫ 
তামিলনাড়ুতে গত ২৪ ঘণ্টায় ৫,৮৩৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। মৃত্যু ...বিশদ

13-08-2020 - 06:51:17 PM

মেডিক্যাল কলেজে ট্রলি থেকে করোনা রোগীর মৃতদেহ আছড়ে পড়ল রাস্তায়
হাসপাতালে ট্রলি করে নিয়ে যাওয়ার সময় রাস্তায় আছড়ে পড়ল ...বিশদ

13-08-2020 - 05:57:00 PM

করোনা: কোন কোন দেশ বেশি আক্রান্ত? 
করোনায় আক্রান্তের বিচারে তালিকায় শীর্ষে রয়েছে আমেরিকা। এদেশে করোনায় আক্রান্ত ...বিশদ

13-08-2020 - 03:45:28 PM