Bartaman Patrika
সম্পাদকীয়
 

রেশন এবং ই-পস

ইপিওস বা ইলেকট্রনিক পয়েন্ট অব সেলস। সংক্ষেপে বলা হয় ই-পস। ছোট্ট যন্ত্র। সরকারি বাসে যে যন্ত্রে টিকিট কাটা হয় বা বিভিন্ন বিক্রয় কেন্দ্রে যে যন্ত্রে ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ড সোয়াইপ করা হয়, কতকটা সেরকম। অথচ এটি নিয়েই বিগত কয়েক বছর ধরে কেন্দ্র-রাজ্যের মধ্যে চূড়ান্ত টানাপোড়েন চলছে।
কেন? আসলে গণবণ্টন ব্যবস্থায় রেশনে যে পরিমাণ খাদ্যসামগ্রী একজন গ্রাহকের পাওয়ার কথা, অভিযোগ, তা তিনি পান না। রেশনের কম দামের চাল-গম বাইরে বাজারমূল্যে পাচার করে মুনাফা লোটেন একশ্রেণীর অসাধু রেশন ডিলার। এ ধরনের দুর্নীতির ঘটনা হাতেনাতে ধরাও পড়েছে বহুবার। কিন্তু বাস্তবে কাজের কাজ কিছুই হয়নি।
অভিযোগ শুধু রাজ্যের মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল না। এই খবর পৌঁছে গিয়েছিল কেন্দ্রের কাছেও। তাই তারা মাথা খাটিয়ে এমন একটি ব্যবস্থা দেশব্যাপী চালু করতে উদ্যোগী হয়েছে, যাতে রাজ্যের রেশন ডিলারদের কার্যত মাথায় হাত পড়েছে। বিগত কয়েক মাসের অভিজ্ঞতায় দেখা গিয়েছে, নানা অজুহাতে তাঁরা কোনওভাবেই এটি চালু করতে চাইছেন না। অবশেষে কেন্দ্র মোক্ষম চাল দিয়েছে, এই যন্ত্র চালু না করলে খাদ্যসামগ্রীর ভর্তুকি বন্ধ করে দেওয়া হবে। আর এতেই টনক নড়েছে রাজ্যের। তড়িঘড়ি খাদ্য দপ্তর এই যন্ত্র চালু করার জন্য বিজ্ঞপ্তি জারি করে দিয়েছে। রেশন ডিলারদের প্রথমে বুঝিয়ে সুজিয়ে এই ব্যবস্থা চালু করার জন্য বলা হবে। কিন্তু তাতেও কাজ না হলে কন্ট্রোল অর্ডার অনুযায়ী তাঁদের বিরুদ্ধে যে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে, সেকথাও ফুড কমিশনার মনোজ আগরওয়ালের জারি করা নির্দেশিকায় স্পষ্ট করে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। তাতে এও বলা হয়েছে, কত সংখ্যক দোকানে ওই ই-পস যন্ত্র চালু হল, তার রিপোর্ট প্রতি সপ্তাহে দপ্তরে পাঠাতে হবে। এমনকী সংশোধিত এবং বিধিবদ্ধ এলাকায় আলাদা করে নজরদারির জন্য নোডাল অফিসার নিয়োগের কথাও বলা হয়েছে।
উল্লেখ্য, রাজ্যে মোট রেশন দোকানের সংখ্যা ২০ হাজারের মতো। কিন্তু তার মধ্যে পাইলট প্রজেক্ট হিসেবে মাত্র ৩৬৬টি দোকানে ওই যন্ত্র চালু হয়েছে। প্রশ্ন হল, কী এমন রয়েছে এই যন্ত্রে, যার জন্য ডিলাররা তা বসাতে খুব একটা আগ্রহ দেখাচ্ছেন না। প্রথমত, রাজ্যজুড়ে যে ডিজিটাল রেশন কার্ড চালু হয়েছে, সেগুলি রেশন দোকানে থাকা ওই যন্ত্রে সোয়াইপ করতে হবে। সঙ্গে সঙ্গে গ্রাহকের নাম এবং তিনি ওই কার্ডের জন্য কত পরিমাণ চাল ও আটা পেতে পারেন, সেই তথ্য যন্ত্রে ফুটে উঠেবে। তার ফলে সমস্ত তথ্য রাজ্য এবং কেন্দ্র, উভয়েরই মূল সার্ভারে চলে যাবে। এরপর তাঁকে যা যা দেওয়া হল, তার রসিদও ওই যন্ত্র থেকে বেরিয়ে আসবে। একইসঙ্গে একজন দোকানদার কোনও গ্রাহককে ঠিক কী পরিমাণ খাদ্যসামগ্রী দিলেন, তার তথ্য মাউসের এক ক্লিকেই খাদ্য দপ্তরের অফিসাররা জানতে পারবেন। এক্ষেত্রে কোথাও বরাদ্দের চেয়ে কম খাদ্যসামগ্রী দিলে সংশ্লিষ্ট ডিলারকে চিহ্নিত করা এবং তাঁর বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়াও অনেক সহজ হবে। ব্যবস্থাটিকে আরও শক্তপোক্ত করার জন্য কেন্দ্র এর সঙ্গে আধার সংযুক্তিকরণেরও প্রস্তাব দিয়েছে। অর্থাৎ, যাঁর কার্ড, তিনি ছাড়া অন্য কেউ দোকান থেকে রেশনের খাদ্যসামগ্রী তুলতে গেলেই ধরা পড়ে যাবেন।
দেরিতে হলেও রাজ্য যে এই ব্যবস্থা চালু করার জন্য কড়া পদক্ষেপ নিয়েছে, তা সাধুবাদযোগ্য। রেশন ডিলাররা এখনও কমিশন বৃদ্ধির দাবি তুলে ওই ব্যবস্থা চালু করার ব্যাপারে গড়িমসি চালিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু লক্ষ লক্ষ গ্রাহকের স্বার্থে এটি কার্যকর করা এই মুহূর্তে খুবই জরুরি।
30th  July, 2019
গণটিকাকরণের পথে বাংলা 

করোনা ভাইরাস বা কোভিড-১৯ অসুখের কথা ভারতবাসী শুনেছে গত বছরের শেষের দিকে। কিন্তু ভারতে প্রথম করোনা রোগীর খবর মেলে তার কিছুদিন পরে। জানুয়ারির একেবারে শেষদিকে। তিনি চীন থেকে ফিরেছিলেন। কলকাতা তথা পশ্চিমবঙ্গের মাটিতে প্রথম করোনা রোগীর সন্ধানের ছ’মাস সবে পেরল। 
বিশদ

সঞ্চয়ের সুরক্ষা চিন্তা 

গত জুলাই মাসের শেষ দিকে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের ফিনান্সিয়াল স্টেবিলিটি রিপোর্টে (এফএসআর) একাধিক উদ্বেগের কথা বেরিয়ে এসেছিল। আমরা জানি, রিজার্ভ ব্যাঙ্কই হল ভারতের কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্ক। এই সংস্থাই ব্যাঙ্ক-সহ সমগ্র আর্থিক ক্ষেত্রকে গাইড এবং প্রয়োজনে সতর্ক করে।   বিশদ

18th  September, 2020
এই মন্দা কাটাতেই হবে 

শাক দিয়ে মাছ ঢাকা যায় না। মোদি সরকার বার বার সেই চেষ্টাই করে চলেছে আর ব্যর্থও হচ্ছে। আসল সত্যটি অর্থাৎ ভারতের অর্থনীতির বেহাল দশা ক্রমশ প্রকট হচ্ছে। স্বাধীনতার পর এমন দুর্দিন সম্ভবত দেখতে হয়নি ভারতবাসীকে।  বিশদ

17th  September, 2020
সাধারণ মানুষ কার কাছে যাবেন

বার্ধক্য। শব্দটা কারও কাছে অভিপ্রেত নয়। কিন্তু স্বাভাবিক পরমায়ুতে বার্ধক্য অনিবার্য। ষাটোর্ধ্ব নারী-পুরুষকে ভারতে সরকারিভাবে ‘সিনিয়র সিটিজেন’ বা প্রবীণ নাগরিক হিসেবে গণ্য করা হয়। সেই হিসেবে, ভারতে প্রবীণ মানুষের সংখ্যা ক্রমবর্ধমান। এখনও মোট জনসংখ্যার ৯ শতাংশ মানুষ প্রবীণ নাগরিক।
বিশদ

16th  September, 2020
শিল্প মানচিত্র বদলের অপেক্ষা

 জিডিপি বৃদ্ধির হার কমেছে। এটাকে করোনা বা লকডাউনের প্রভাব বলা যাবে না। জিডিপি বৃদ্ধির হারে ধাক্কা লেগেছে তারও বেশ আগে। বস্তুত এটা নোট বাতিল এবং ত্রুটিপূর্ণ জিএসটি চালু হওয়ার পরিণাম। বিশদ

15th  September, 2020
কাজের কাজ

 বিশেষজ্ঞরা অনেক দিন ধরেই সতর্ক করে আসছিলেন যে অর্থনীতির হাল ধরার প্রশ্নে গ্রামীণ ভারতেরও কিন্তু একটা সীমাবদ্ধতা রয়েছে। লকডাউনের কয়েকটি মাস ভারতীয় অর্থনীতির মুখ রক্ষা করে গিয়েছে গ্রামীণ ভারত একাই। বিশদ

14th  September, 2020
অসহায়ের পাশে আদালত

 বিপর্যয় মানবজীবনের এক চরম সত্য। যে-কোনও বিপর্যয় কাটিয়ে ওঠার উপায় হল সাহসের সঙ্গে লড়াই করে যাওয়া। ব্যক্তিগত বিপর্যয়ের ক্ষেত্রে সাথী বন্ধু সহযোগী জুটতেও পারে, নাও পারে। তখন একেবারে একাই লড়ে যেতে হয়।
বিশদ

13th  September, 2020
হত দরিদ্রের ভরসা

 পেনশন। শব্দটি ইংরেজি। তবে, বহুল ব্যবহারের মাধ্যমে অনেক দিন আগেই ভারতীয় হয়ে উঠেছে। শব্দটির মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যে অনুভূতিটি লুকিয়ে রয়েছে তা হল—‘ভরসা’। জীবমাত্রেই একটি আয়ু নিয়ে জন্মায়। ভারতবাসীর গড় আয়ুর শেষের একটি দশক হল বার্ধক্য। বিশদ

12th  September, 2020
ভারতকে গর্বিত করল বাংলা

 কন্যাশ্রী। শব্দটির সঙ্গে আজ সবাই পরিচিত। শুধু পশ্চিমবঙ্গবাসী বা ভারতবাসী নয়, বহির্ভারতেরও অনেকের চেনা এই শব্দটি। সৌজন্যে পশ্চিমবঙ্গ। আরও স্পষ্ট করে বলা যায়, বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সৌজন্যেই কন্যাশ্রী একটি লড়াই-সংগ্রামের প্রতীক, নারীশিক্ষার প্রতীক, উন্নয়নের প্রতীক হয়ে উঠেছে। বিশদ

11th  September, 2020
পুলিসকে প্রাপ্য মর্যাদা

 ‘পুলিস তুমি যতই মারো/ মাইনে তোমার একশো বারো।’ এই ছড়া কোন বাঙালি শোনেনি? আসলে এটি গত শতকের সত্তরের দশকের একটি স্লোগান—যা ক্রমে জনপ্রিয় প্রবাদে পরিণত হয়েছে। এই ছড়ার আড়ালে রয়ে গিয়েছে পুলিস সম্পর্কে এই সমাজের মনোভাব-সমগ্র। বিশদ

10th  September, 2020
এবার জাল নোটের চক্কর

৮ নভেম্বর, ২০১৬। স্বাধীন ভারতের ইতিহাসে একটি স্মরণীয় দিন। আরও স্পষ্ট করে বলা যায়—একটি ভয়ানক দিন, একটি কালো দিন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আকস্মিক ঘোষণা অনুসারে ওইদিন মধ্যরাত্রি থেকে দেশে প্রচলিত ৫০০ টাকা এবং ১০০০ টাকার সমস্ত নোট অচল হয়ে যায়। স্মরণকালের মধ্যে দেশবাসীকে এত বড় ধাক্কা সইতে হয়নি। বিশদ

09th  September, 2020
জালিয়াতির মরশুম 

শুভ‌জিৎ কর্মকার। মুর্শিদাবাদ মুক্তিনগরের যুবক। সোমবার খবরের কাগজে তাঁর নাম ছাপা হয়েছে। কাগজে নাম ছাপা হলে সাধারণভাবে সকলের ভালো লাগে। আনন্দ, এমনকী গর্বও হয়। এক্ষেত্রে শুভজিতের অবশ্য তেমন কোনও অবকাশ নেই। কারণ, তাঁকে নিয়ে আনন্দ বা গর্ব করার মতো কোনও খবর ছাপা হয়নি। খবরটি পড়ে দেখা যাচ্ছে, শুভজিৎ প্রতারণার শিকার।
বিশদ

08th  September, 2020
ব্যবসাতেও এগিয়ে বাংলা 

 বাণিজ্যে বসতে লক্ষ্মী। অতি প্রাচীন এক ভারতীয় প্রবচন। এই কথার সারার্থ হল—অর্থ, সম্পদ প্রভৃতি লাভের সেরা উপায়টির নাম বাণিজ্য। তবে, বাণিজ্যের ধারণাটি আজ আর নদী ও সমুদ্রে বাণিজ্য তরী ভাসিয়ে দেশ-বিদেশে পাড়ি জমানোর মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই। যুগের সঙ্গে বাণিজ্যের সংজ্ঞাও বদলে গিয়েছে। সংজ্ঞাটির পরিধি বিস্তৃত হয়েছে। বিশদ

07th  September, 2020
উন্নয়নের রাজনীতি 

 পশ্চিমবঙ্গে বাম জমানা টানা ৩৪ বছর স্থায়ী হয়েছিল। জ্যোতি বসু এবং বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য মিলে ক্ষমতা দখল করেছিলেন উপর্যুপরি সাতবার। বামেদের অষ্টমবার সরকার গঠন রুখে দিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সে ২০১১ সালের কথা। বিশদ

06th  September, 2020
সবার সাধ্যের মধ্যে থাক দাম 

 স্মরণকালের ভিতরে সবচেয়ে বড় বিপর্যয়ের কারণ করোনা সংক্রমণ। প্রথম দফার লকডাউন থেকে ধরলেও করনো বিপর্যয়ের পাঁচ মাস পেরিয়ে গিয়েছে। কিন্তু সংক্রমণ ব্যাপক আকার নেওয়ার ভীতিটা ভারতবাসীকে গ্রাস করেছিল তারও মাস খানেক আগে। সেই হিসেবে গত ছ’মাস যাবৎ গোটা দেশ ভালো নেই। বিশদ

05th  September, 2020
জিএসটি ক্ষতিপূরণ: ন্যায্য দাবি 

ভারতে আগে পণ্য ও পরিষেবার উপর মূলত ‘ওরিজিন-বেসড ট্যাক্স’ নেওয়া হতো। অপ্রত্যক্ষ কর আদায়ের সেই ব্যবস্থাটি অনেকাংশে পাল্টে গেল ২০১৭ সালে। জিএসটি চালু হওয়ার পর। এক ধাক্কায়। জিএসটি হচ্ছে মূলত ‘ডেস্টিনেশন-বেসড ট্যাক্স’।   বিশদ

04th  September, 2020
একনজরে
নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: করোনা পরিস্থিতির জন্য এমবিবিএস, বিডিএস, আয়ুষ, নার্সিং সহ বিভিন্ন চিকিৎসা পাঠ্যক্রমের বহু ছাত্রছাত্রীর পরবর্তী বছরে প্রোমোশন হয়নি। মার্কশিটও পাননি। ফলে বৃত্তিও আটকে গিয়েছে।   ...

সংবাদদাতা, পুরাতন মালদহ: পঞ্চায়েত অফিসের কাছেই, একটি দোকানের সামনের অংশে এক ব্যক্তির ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়াল হবিবপুর ব্লকের কেন্দপুকুর আকতৈল গ্রাম পঞ্চায়েতে। শুক্রবার সকালে এলাকার বাসিন্দারা দেহটি দেখতে পান। তাঁদের দাবি, ওই ব্যক্তিকে খুন করে সেখানে ঝুলিয়ে ...

নয়াদিল্লি: শ্রীলঙ্কার লাসিথ মালিঙ্গা ব্যক্তিগত কারণে নিজেকে আইপিএল থেকে সরিয়ে নিয়েছেন। যার অভাব অনুভূত হবে বলে ইতিমধ্যেই মন্তব্য করেছেন মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের অধিনায়ক রোহিত শর্মা। বিশেষজ্ঞদেরও ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: মেডিক্যাল পরীক্ষা এবং পুলিস ভেরিফিকেশন না হওয়ায় বহু শিক্ষকের চাকরি পাকা হয়নি। অথচ চাকরি পাওয়ার পর কেটে গিয়েছে দু’বছর। নিয়ম অনুযায়ী, দু’বছর পর চাকরি পাকা হবে। কিন্তু তার জন্য পুলিস ও মেডিক্যাল রিপোর্ট ইতিবাচক হতে হবে।  ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কথাবার্তা ও আচরণে সংযমের অভাবে বিপত্তির আশঙ্কা। কোনও হঠকারী বা দুঃসাহসিক কাজ না করাই ভালো। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯১৯- অভিনেতা জহর রায়ের জন্ম
১৯২১- সাহিত্যিক বিমল করের জন্ম
১৯২৪- গায়িকা সুচিত্রা মিত্রের জন্ম
১৯৬৫- মহাকাশচারী সুনীতা উইলিয়ামসের জন্ম  



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭২.৮৯ টাকা ৭৪.৬০ টাকা
পাউন্ড ৯৩.৫৫ টাকা ৯৬.৯১ টাকা
ইউরো ৮৫.১০ টাকা ৮৮.২১ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৫২,২৮০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৪৯,৬০০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৫০,৩৪০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৬৬,২৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৬৬,৩৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৩ আশ্বিন ১৪২৭, শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, দ্বিতীয়া ৯/১৬ দিবা ৯/১১। চিত্রা নক্ষত্র ৪৯/৪১ রাত্রি ১/২১। সূর্যোদয় ৫/২৮/২, সূর্যাস্ত ৫/৩২/৫৪। অমৃতযোগ দিবা ৬/১৫ মধ্যে পুনঃ ৭/৪ গতে ৯/২৯ মধ্যে পুনঃ ১১/৫৫ গতে ৩/৯ মধ্যে পুনঃ ৩/৫৮ গতে অস্তাবধি। রাত্রি ১২/৪২ গতে ২/১৭ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ রাত্রি ২/১৭ গতে ৩/৫ মধ্যে। বারবেলা ৬/৫৮ মধ্যে পুনঃ ১/১ গতে ২/৩১ মধ্যে পুনঃ ৪/২ গতে অস্তাবধি। কালরাত্রি ৭/৩ মধ্যে পুনঃ ৩/৫৮ গতে উদয়াবধি।  
২ আশ্বিন ১৪২৭, শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, দ্বিতীয়া দিবা ১২/২৯। হস্তানক্ষত্র দিবা ৭/৫৬। সূর্যোদয় ৫/২৭, সূর্যাস্ত ৫/৩৫। অমৃতযোগ দিবা ৬/২০ মধ্যে ও ৭/৭ গতে ৯/২৯ মধ্যে ও ১১/৪৮ গতে ২/৫৫ মধ্যে ও ৩/৪২ গতে ৫/৩৫ মধ্যে এবং রাত্রি ১২/৩৮ গতে ২/১৭ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ রাত্রি ২/১৭ গতে ৩/৬ মধ্যে। কালবেলা ৬/৫৮ মধ্যে ও ১/২ গতে ২/৩৩ মধ্যে ও ৪/৪ গতে ৫/৩৫ মধ্যে। কালরাত্রি ৭/৪ মধ্যে ও ৩/৫৮ গতে ৫/২৮ মধ্যে।  
মোসলেম: ১ শফর। 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
রাজ্যে করোনায় আক্রান্ত আরও ৩,১৯২ জন 
রাজ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৩,১৯২ জনের শরীরে মিলল করোনা ...বিশদ

18-09-2020 - 08:42:07 PM

ফের গুগল প্লে স্টোরে মিলবে পেটিএম অ্যাপ 
ফের গুগল প্লে স্টোরে মিলবে দেশের অন্যতম জনপ্রিয় ই-ওয়ালেট অ্যাপ ...বিশদ

18-09-2020 - 07:40:01 PM

পঞ্চায়েত অফিসের কাছেই
দোকানে মিলল ঝুলন্ত দেহ 

সংবাদদাতা, পুরাতন মালদহ: পঞ্চায়েত অফিসের কাছেই, একটি দোকানের সামনের অংশে ...বিশদ

18-09-2020 - 05:50:00 PM

মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণের জেরে মৃত্যু শর্বরী দত্তর
মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণের জেরে মৃত্যু হয়েছে শর্বরী দত্তর। ময়নাতদন্তের প্রাথমিক রিপোর্টে ...বিশদ

18-09-2020 - 05:41:00 PM

বনগাঁয় ধৃত ৩ বাইক চোর 
বাইক চুরির চক্রের সঙ্গে জড়িত তিনজনকে গ্রেপ্তার করল পুলিস। ধৃতদের ...বিশদ

18-09-2020 - 04:41:27 PM

হাবড়ায় জোড়া খুনের ঘটনায় ধৃত অভিযুক্ত 
হাবড়ায় প্রৌঢ় দম্পতি খুনের ঘটনার ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে কিনারা করল ...বিশদ

18-09-2020 - 04:16:42 PM