Bartaman Patrika
সম্পাদকীয়
 

স্বাগত নিরাপত্তা-তৎপর রেল

ভারতের পরিবহণ ব্যবস্থার প্রাণ হল রেল। স্বল্প দৈর্ঘ্য থেকে দূরপাল্লা—সমস্ত ক্ষেত্রেই খুব কম খরচে যাতায়াতের জন্য ভারতীয় রেলের বিকল্প নেই। রেলের মাধ্যমে রোজ প্রায় সওয়া ২ কোটি মানুষ যাতায়াত করে। পণ্য পরিবহণেও অনবদ্য ভূমিকা পালন করে রেল। এখন রেলপথে রোজ ৩০ লক্ষাধিক টন পণ্য পরিবাহিত হয়। দেশের অর্থনীতিরও বিরাট স্তম্ভ এটা। পণ্য এবং যাত্রী পরিবহণ থেকে রেল দেশকে বিপুল অঙ্কের রাজস্ব জোগান দেয়। কর্মসংস্থানের ক্ষেত্র হিসাবেও রেল বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ। গত দেড়শো বছরে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির অচিন্ত্যনীয় উন্নতির প্রভাব পরিবহণে শিল্পেও পড়েছে। তবু, গণপরিবহণ ক্ষেত্রে রেলকে পিছনে ফেলে দেওয়ার মতো কিছুই আমাদের নজরে পড়ে না। বিশেষত ভারতের মতো দেশে, যেখানে নাগরিকদের একটা বড় অংশের এখনও দু’বেলা পেট ভরার ব্যবস্থা করা যায়নি, সেখানে পণ্য পরিবহণ এবং যাতায়াতের জন্য রেলই রেল পরিবহণের বিকল্প রয়ে গিয়েছে। ভারতীয় রেল পৃথিবীর অন্যতম বৃহৎ রেল পরিবহণের একটি। রেল পরিবহণই হল এই উপমহাদেশে ব্রিটিশ শাসনের সবচেয়ে বড় অবদান। স্বাধীনতা-পরবর্তী ভারত যে ঐক্যবদ্ধ আছে তার জন্য ৬৭,৩৬৮ কিমি বিশিষ্ট রেল ব্যবস্থাকে বিরাট কৃতিত্ব দেওয়া যায়।
ব্রিটিশরা ভারতীয় রেল ব্যবস্থাটাকে আমাদের হাতে ছেড়ে গিয়েছে সাত দশকের বেশি হল। এই সুদীর্ঘ সময়ে রেল ব্যবস্থায় যে উন্নতি প্রত্যাশিত ছিল তার ধারেকাছেও আমরা পৌঁছাতে পারিনি। সবচেয়ে লজ্জা লাগে আমাদের প্রতিবেশী রাষ্ট্র চীনের রেল পরিবহণের সামগ্রিক অগ্রগতির সঙ্গে তুলনা টানলে। রাশিয়া, ইউরোপ, চীন, জাপান প্রভৃতির সঙ্গে আমাদের ফারাকটা প্রকট হয় পরিষেবার মান, নিয়মানুবর্তিতা আর নিরাপত্তার প্রশ্নে। ভারতীয় রেলে নিরাপত্তার দৈন্য রীতিমতো উদ্বেগজনক। কখনও ট্রেন লাইনচ্যুত হচ্ছে তো কখনও দুটি ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটছে। ট্রেনে অগ্নিকাণ্ড, অগ্নিসংযোগ, বিস্ফোরণ-নাশকতার বিপদও ঘটেছে বহুবার। আর আছে ডাকাতি, রাহাজানি, ছিনতাই, চুরি, গুন্ডামি, যাত্রীকে মাদক খাইয়ে হাতসাফাই, সংরক্ষিত কামরায় সাধারণ যাত্রী এমনকী বিনা টিকিটের যাত্রীদের দৌরাত্ম্য প্রভৃতি। প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে সারা দেশে মাঝে মধ্যেই বহু ট্রেন বেশ বিলম্বে চলে। শীতে কুয়াশার কোপে পড়ে ভয়ানক বিলম্বিত হয় উত্তর ভারতের ট্রেন। যেসব ট্রেন খুব দেরিতে চলে অপরাধ সংঘটনের জন্য দুষ্কৃতীরা সেই গাড়িগুলিকেই বেছে নেয়। সত্যি কথা বলতে কী মূলত নিরাপত্তার অভাব বোধ থেকে বহু মানুষই ট্রেনে দীর্ঘযাত্রায় ভয় পান। যাঁদের আর্থিক সংগতি আছে তাঁদের একাংশ রেলভ্রমণ এড়িয়েই চলেন—বিমানে কিংবা সড়ক পথে যাতায়াত করেন। ভারতীয় রেলের গর্বে এই আঘাত বেশ বড়।
দেরিতে হলেও এটা উপলব্ধি করেছে নরেন্দ্র মোদির সরকার। দূরপাল্লার ট্রেনে যাত্রীদের নিরাপত্তা বাড়াতে বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণের পরিকল্পনা করেছে রেল। ঠিক হয়েছে—রেলের আন্তঃজোনাল অঞ্চলগুলিতে স্পেশাল স্কোয়াড তৈরি করা হবে। যার ফলে এবার থেকে ট্রেনের সাধারণ যাত্রীদের সঙ্গেই মিশে থাকবেন সাদা পোশাকের রেল পুলিসকর্মীরা, যাতে চটজলদি কোনও ব্যবস্থা নেওয়া সম্ভব হয়। আরপিএফ সূত্রের খবর, গত ৯ জানুয়ারি রাতে মালদহ ডিভিশনের কিউল-জামালপুর সেকশনের মাঝে একটি দূরপাল্লার ট্রেনে ভয়াবহ ডাকাতি হয়। নিউ দিল্লি-ভাগলপুর এক্সপ্রেসের ওই ঘটনা থেকে শিক্ষা নিয়েই রেল মন্ত্রক এইভাবে নড়েচড়ে বসেছে। তাদের আরও সিদ্ধান্ত, আরপিএফের নজরদারি ব্যবস্থাটিকেও দ্বিগুণ করা হবে। পাশাপাশি জেগে থাকবে ট্রেনে ট্রেনে যাত্রী সেজে নিরাপত্তারক্ষীদের শ্যেনদৃষ্টি। রেল কর্তৃপক্ষের এই উদ্যোগ প্রশংসনীয়। তবে, পরিকল্পনাটি যেন অবিলম্বে বাস্তবায়িত হয় এবং দীর্ঘমেয়াদেও চালু থাকে। কারণ, এদেশের অনেক কিছুর শুভারম্ভ হয় বটে কিন্তু কোনও কারণ ছাড়াই এবং মাঝপথে অনেক ফলদায়ক পরিকল্পনা পরিত্যক্ত হয়। সংরক্ষিত কামরায় অবাঞ্ছিত লোকজনের দৌরাত্ম্য কঠোর হাতে দমন করতে পারা না-পারা উপরেই কিন্তু এই পরিকল্পনার ভবিষ্যৎ নির্ভর করছে। কারণ, ওই অবাঞ্ছিত লোকজনের মধ্যেই গাঢাকা দিয়ে থাকে দুষ্কৃতীরা। যাত্রী নিরাপত্তা বৃদ্ধির জন্য নিরন্তর ভাবনাচিন্তা করতে হবে কর্তৃপক্ষকে।
পথের শেষ কোথায়!

 গ্রিক উপকথায় প্যান্ডোরার গল্পটা আমরা সবাই কমবেশি জানি। উপকথা অনুযায়ী পৃথিবীর প্রথম নারী প্যান্ডোরা। প্যান্ডোরার সৃষ্টির পিছনে গ্রিক বিভিন্ন দেবতার ভূমিকা ছিল। কেউ মাটি দিয়ে গড়েছিলেন তার অনিন্দ্যসুন্দর অবয়ব, কেউ বানিয়ে দিয়েছিলেন তার আকর্ষণীয় পোশাক, কেউ-বা দারুণ অলংকার।
বিশদ

11th  January, 2019
ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজে সাধারণ ডিগ্রি: সৃষ্টি হতে পারে নয়া সঙ্কট

বেসরকারি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজগুলিতে প্রতি বছরই একই চিত্র দেখা যাচ্ছে। এবার সেগুলিতে আসন সংখ্যা গতবারের তুলেনায় অনেক কম ছিল। তার সত্ত্বেও কিন্তু সব আসন ভরেনি। চলতি শিক্ষাবর্ষে ভর্তি হয়ে রেজিস্ট্রেশন করিয়েছেন, এমন ছাত্রছাত্রীর সংখ্যা ৩০ হাজার ১৭৪ জন। যেখানে মোট আসন সংখ্যা ৩৮ হাজার ৪৪৫টি।
বিশদ

10th  January, 2019
কর্মনাশা রাজনীতি

 শ্রমিক কর্মচারীদের ন্যূনতম দৈনিক মজুরি বাড়াতে হবে। রুখতে হবে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দামবৃদ্ধি। সঙ্গে দাবি আরও দশটি। মোট ১২ দফা গুরুত্বপূর্ণ দাবিতে দুদিনের দেশব্যাপী সাধারণ ধর্মঘটের ডাক দিয়েছিল সিটুসহ মোট দশটি বাম-অবাম সর্বভারতীয় শ্রমিক সংগঠন। ধর্মঘটীদের মধ্যে রয়েছে কংগ্রেসের শ্রমিক সংগঠনও।
বিশদ

09th  January, 2019
কলকাতা এখনও সাহসী বিবেকী

শনিবার রাত। রাস্তায় শাটল গাড়ির ভিতর আক্রান্ত হলেন এক যুবতী। শ্লীলতাহানিসহ শারীরিক নিগ্রহের শিকার হলেন তিনি। এমনকী চলন্ত গাড়ি থেকে ধাক্কা মেরে তাঁকে ফেলেও দেওয়া হল ব্যস্ত রাস্তার মাঝে। এই ঘটনায় তাঁর পা ভেঙে গিয়েছে। ওই যুবতীর এই বিপন্নতা দেখে আতঙ্কিত হয়ে ওঠেন ওই গাড়ির সওয়ার আর-এক মহিলা।
বিশদ

08th  January, 2019
চীনের চোখরাঙানি

 ঢাক ঢাক গুড়গুড় অনেকদিন ধরেই শোনা যাচ্ছিল। অবশেষে শীতঘুমের খোলস ছেড়ে বেরিয়েই পড়ল চীনের রূপ। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ পরবর্তী ও ঠান্ডাযুদ্ধ-উত্তর সোভিয়েতের পতনের পর থেকে এই গ্রহে একচেটিয়া ‘দাদাগিরি’ চালানোর জন্য বহু দেশই আমেরিকার উপর তিতিবিরক্ত, এটা ঠিকই।
বিশদ

07th  January, 2019
অযোধ্যা রাজনীতি

 ছয় দশকের বেশি সময়ের বিতর্ক। রাম জন্মভূমির অধিকার নিয়ে। যা নিয়ে আসমুদ্রহিমাচল আবর্তিত জাতীয় রাজনীতি। আর শুক্রবার বিষয়টি উঠতেই ৩০ সেকেন্ডের মধ্যে সুপ্রিম কোর্ট জানিয়ে দিল, ১০ জানুয়ারি শুনানি হবে। শুনবে যথোপযুক্ত বেঞ্চ।
বিশদ

06th  January, 2019
আগ্রাসী রাহুল ও রাজনীতি

 লোকসভার ভোট যত এগিয়ে আসছে রাহুল গান্ধীর রাজনৈতিক তৎপরতা ততই লক্ষণীয় হয়ে উঠছে। তরুণ কংগ্রেস সভাপতি মরিয়া হয়ে উঠেছেন নিজেকে মোদি-বিরোধিতার প্রধান মুখ প্রমাণ করার জন্য। সম্প্রতি অনুষ্ঠিত পাঁচ রাজ্যের ভোটের ফলাফল রাহুল গান্ধীকে সবচেয়ে উজ্জীবিত করেছে।
বিশদ

05th  January, 2019
সংঘাত ফসল বিমা নিয়ে

 ভারত একটি যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোর দেশ। দেশে একটি কেন্দ্রীয় সরকার এবং রাজ্যস্তরে রাজ্য সরকার আছে। একইসঙ্গে দুই সরকার চললেও উভয়ের এক্তিয়ার ও দায়িত্বের বিষয়টি সুস্পষ্টভাবে চিহ্নিত করা রয়েছে দেশের সংবিধানে। কেন্দ্রীয় সরকার মূলত প্রতিরক্ষা, বিদেশ, মুদ্রা এবং রেলের মতো গোটাকতক বিষয়ে একক সিদ্ধান্তে ও উদ্যোগে কাজ করতে পারে। অন্যদিকে, রাজ্য সরকারগুলির জন্যও বেশ কিছু ক্ষেত্র নির্দিষ্ট।
বিশদ

04th  January, 2019
পিএফেও আধার

 নতুন বছরে নতুন ফরমান। এবার ফরমান এল পিএফের ক্ষেত্রে। গ্রাহকের সংখ্যাটাও নেহাত কম নয়। নয়া এই ফরমানে বিপাকে পড়বেন রাজ্যের প্রায় ১৫ লক্ষ পিএফ গ্রাহক। পিএফ সংক্রান্ত টাকা গ্রাহককে দেওয়ার ক্ষেত্রে আধার সংযোগ বাধ্যতামূলক করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে এমপ্লয়িজ প্রভিডেন্ট ফান্ড অর্গানাইজেশন (ইপিএফও)।
বিশদ

03rd  January, 2019
আর্থিক স্বাবলম্বী হওয়াই লক্ষ্য হোক

ভোট এলেই ভারতের আম জনতা টের পান যে তাঁরাও এদেশের একটা টুকরো বা সম্মানীয় নাগরিক। যে ভারতীয় জনজাতির জন্য এই দেশের সংবিধান রচনা করা হয়েছিল, সেই সাংবিধানিক অধিকার যে নেতা-মন্ত্রীদের মতো আমাদেরও আছে—তা আমরা বুঝতে পারি কেবলমাত্র পরিযায়ী পাখির মতো আসা ভোটের মরশুমে।
বিশদ

02nd  January, 2019
নতুন বছরে নতুন প্রত্যাশা

আজ ইংরেজি নববর্ষ। সারা বিশ্বজুড়ে পালিত হচ্ছে দিনটি। সকালের নতুন সূর্য নিয়ে এসেছে নতুন প্রত্যাশা। বিগত বছরটি মিশে গেল মহাকালের গর্ভে। বিগত বছরের দিকে তাকালে দেখি কান্নাহাসির দোলায় আমাদের দুলিয়ে দিয়ে গেল বছরটি। গত বছরে আমরা হারিয়েছি বেশ কিছু গুণী মানুষকে।
বিশদ

01st  January, 2019
একনজরে
সংবাদদাতা, মালদহ: সঙ্গীতের তিনটি বিভাগে সর্বভারতীয় প্রতিযোগীদের পেছনে ফেলে সেরার খেতাব ছিনিয়ে নিল মালদহের কিশোরী রাফা ইয়াসমিন। ৯ জানুয়ারি কলকাতায় এই মেধা অনুসন্ধান সঙ্গীত প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছিল সর্বভারতীয় সঙ্গীত ও সংস্কৃতি পরিষদ।  ...

 ইসলামাবাদ, ১১ জানুয়ারি (পিটিআই): প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট আসিফ আলি জারদারি, সিন্ধ প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী মুরাদ আলি শাহ সহ পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি)-এর একাধিক নেতার বিদেশ ভ্রমণের উপর নিষেধাজ্ঞা বহাল রাখল পাক সরকার। ...

 সিডনি, ১১ জানুয়ারি: এশিয়ার প্রথম অধিনায়ক হিসেবে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে টেস্ট সিরিজ জয়ের মুকুট সদ্য তাঁর মাথায় উঠেছে। তবু অজিদের বিরুদ্ধে ওয়ান ডে সিরিজে খেলতে নামার আগে মন ভালো নেই বিরাট কোহলির। চোখে মুখে ধরা পড়েছে বিষণ্ণতার ছাপ। খানিক অপ্রস্তুতও বটে। ...

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: জামিন অযোগ্য ‘গ্রেপ্তারি পরোয়ানা’ জারি হয়েছিল আগে। হুগলির পুরশুড়ায় এক বেআইনি অর্থলগ্নি সংস্থার সেই কর্তা শেখ সারাফাত আলিকে অবশেষে গ্রেপ্তার করল পুলিস। শুক্রবার ধৃতকে ব্যাঙ্কশালের সেবির বিশেষ আদালতে তোলা হয়। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

বিতর্ক বিবাদ এড়িয়ে চলা প্রয়োজন। প্রেম পরিণয়ে মানসিক স্থিরতা নষ্ট। নানা উপায়ে অর্থ উপার্জনের সুযোগ। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

জাতীয় যুব দিবস
১৮৬৩: স্বামী বিবেকানন্দের জন্ম
১৯৩৪: মাস্টারদা সূর্য সেনের ফাঁসি
১৯৫০: কলকাতায় চালু হল চিত্তরঞ্জন ক্যানসার হাসপাতাল  



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৯.৬০ টাকা ৭১.২৯ টাকা
পাউন্ড ৮৮.২২ টাকা ৯১.৪৩ টাকা
ইউরো ৭৯.৬৯ টাকা ৮২.৭০ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩২,৬৬৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩০,৯৯০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩১,৪৫৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৯,৩০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৯,৪০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

আজ স্বামী বিবেকানন্দের ১৫৭তম আবির্ভাব দিবস
২৭ পৌষ ১৪২৫, ১২ জানুয়ারি ২০১৯, শনিবার, ষষ্ঠী ৩৯/১৫ রাত্রি ১০/৫। নক্ষত্র- পূর্বভাদ্রপদ ৫/৫০ দিবা ৮/৪৩, সূ উ ৬/২২/৫৮, অ ৫/৬/৩০, অমৃতযোগ দিবা ঘ ৭/৬ মধ্যে পুনঃ ৭/৪৯ গতে ৯/৫৭ মধ্যে পুনঃ ১২/৬ গতে ২/৫৮ মধ্যে পুনঃ ৩/৪০ গতে অস্তাবধি। রাত্রি ১/৪ গতে ২/৫০। বারবেলা ঘ ৭/৪৩ মধ্যে পুনঃ ১/৪ গতে ২/২৪ মধ্যে পুনঃ ৩/৪৪ গতে অস্তাবধি, কালরাত্রি ঘ ৬/৪৫ মধ্যে পুনঃ ৪/৪৩ গতে উদয়াবধি।
আজ স্বামী বিবেকানন্দের ১৫৭তম আবির্ভাব দিবস
২৭ পৌষ ১৪২৫, ১২ জানুয়ারি ২০১৯, শনিবার, ষষ্ঠী রাত্রি ৫/৫১/২৯। উত্তরভাদ্রপদনক্ষত্র অহোরাত্র। সূ উ ৬/২৪/১, অ ৫/৪/৪২, অমৃতযোগ দিবা ঘ ৭/৬/৪৪ মধ্যে ও ঘ ৭/৪৯/২৮ থেকে ঘ ৯/৫৭/৩৮ মধ্যে ও ১২/৫/৪৮ থেকে ২/৫৬/৪২ মধ্যে ও ৩/৩৯/২৫ থেকে ৫/৪/৫২ মধ্যে এবং রাত্রি ১/৪/২২ থেকে ঘ ২/৫০/৫৫ মধ্যে। বারবেলা ১/৪/৩৩ থেকে ২/২৪/৩৯ মধ্যে, কালবেলা ৭/৪৪/৭ মধ্যে ও ঘ ৩/৪৪/৪৫ থেকে ৫/৪/৫২ মধ্যে, কালরাত্রি ৬/৪৪/৪৬ মধ্যে ও ঘ ৪/৪৪/১৬ থেকে ৬/২৪/১০ মধ্যে।
 
এই মুহূর্তে
আজকের রাশিফল 
মেষ: বিতর্ক বিবাদ এড়িয়ে চলা প্রয়োজন। বৃষ: দাম্পত্য জীবনে তৃতীয় ব্যক্তির আগমনে ...বিশদ

07:11:04 PM

ইতিহাসে আজকের দিনে 
জাতীয় যুব দিবস১৮৬৩: স্বামী বিবেকানন্দের জন্ম১৯৩৪: 'মাস্টারদা' সূর্য সেনের ফাঁসি১৯৫০: ...বিশদ

07:03:20 PM

ভর সন্ধ্যায় শ্যুটআউট পার্কসার্কাসে
ভর সন্ধ্যায় পার্কসার্কাস স্টেশন সংলগ্ন এলাকায় গুলি করে খুন করা ...বিশদ

09:59:38 PM

কলকাতায় চিতা বাঘের চামড়া সহ ধৃত ২

শনিবার বিকালে উত্তর কলকাতার একটি বাড়ি থেকে চিতা বাঘের চামড়া ...বিশদ

06:20:00 PM

আইলিগ: নেরোকাকে ১-০ গোলে হারাল মোহন বাগান 

04:09:04 PM

পথ দুর্ঘটনায় জখম উঃদিনাজপুরের জেলাশাসক
পথ দুর্ঘটনায় জখম হলেন উঃদিনাজপুরের জেলাশাসক অরবিন্দ কুমার মিনা। তবে ...বিশদ

04:05:22 PM