Bartaman Patrika
বিদেশ
 

অপারেশন পেপারক্লিপ 
মৃণালকান্তি দাস

১৯৪৫ সালের মার্চ মাস।
দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে জার্মানির তখন টালমাটাল অবস্থা। নাৎসি জার্মানির রন্ধ্রে রন্ধ্রে ঢুকে পড়ছে রাশিয়ার লালফৌজ আর আমেরিকান সেনারা। বিশ্বযুদ্ধের কুখ্যাত খলনায়করা তখন তাদের অপকর্মের প্রমাণ লোপাটে ব্যস্ত। ৩০ এপ্রিল রেড আর্মি বার্লিনের খুব কাছাকাছি চলে এসেছে। জার্মানির মিলিটারি রিসার্চ অ্যাসোসিয়েশনের প্রধান ওয়ার্নার ওসেনবার্গ রেডিওতে শুনতে পেলেন হিটলারের আত্মহত্যার সংবাদ। দ্রুত তিনি সামরিক গবেষণার গুরুত্বপূর্ণ কাগজগুলো টয়লেটে ফ্ল্যাশ করে দিয়ে গা ঢাকা দিলেন। কাগজগুলো বেশিরভাগ চলে গেল ভূগর্ভস্থ নর্দমায়। কিন্তু সম্ভবত জল শেষ হয়ে যাওয়ায়, ফ্ল্যাশ হওয়া থেকে বেঁচে যাওয়া কিছু কাগজ উদ্ধার হওয়ার পর চলে গেল ব্রিটিশ গোয়েন্দা সংস্থা এমআই-৬ এর কাছে। হাতবদল হয়ে সেই কাগজ আবার পৌঁছে গেল আমেরিকান গোয়েন্দাদের কাছে। তখন এই কাগজে থাকা তথ্যগুলোই যে হন্যে হয়ে খুঁজছে মার্কিন গোয়েন্দারা। আর সেসব কাগজ থেকেই শুরু হয়েছিল গোপন এক অভিযান। যার নাম ‘অপারেশন পেপারক্লিপ’। কী লেখা ছিল সেই কাগজে? কী ছিল সেই অভিযানে?
দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে হিটলারের অধীনে নাৎসি জার্মানির উত্থানের পিছনে অনেক বড় ভূমিকা ছিল বিজ্ঞানীদের। তাই যুদ্ধকালীন জার্মানিতে থাকা বিখ্যাত সব বিজ্ঞানী আর গবেষণা প্রতিষ্ঠানকে এক ছাতার নীচে আনতেই গঠন করা হয় মিলিটারি রিসার্চ অ্যাসোসিয়েশন। এর প্রধান করা হয় ওয়ার্নার ওসেনবার্গকে। ওসেনবার্গ সেইসময় হ্যানোভার টেকনিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ছিলেন। নাৎসিবাদের ভক্ত হিসাবে তাঁর বেশ খ্যাতি ছিল। তার কাঁধে দায়িত্ব ছিল সামরিক অস্ত্র তৈরিতে সহায়তা করতে সক্ষম এমন বিজ্ঞানী, প্রযুক্তিবিদ আর প্রকৌশলীদের এই সংগঠনে নিয়োগ করা। তিনি তাঁর কাজে সফল ছিলেন বটে। এখানে তিনি কম করে হলেও প্রায় ৫,০০০ বিখ্যাত বিজ্ঞানী, প্রযুক্তিবিদ আর প্রকৌশলী নিয়োগ করেন। নিয়োগপ্রাপ্তদের নামের তালিকার একটি কপিই টয়লেটে ফ্ল্যাশ হওয়া থেকে বেঁচে গিয়েছিল সেদিন। পরবর্তীতে এই তালিকা মার্কিন গোয়েন্দাদের হাতে গিয়ে পড়ে। এই তালিকার ঐতিহাসিক নাম ‘ওসেনবার্গ লিস্ট’। আর এই লিস্ট ধরে জার্মানিতে থাকা মার্কিন সেনাবাহিনীর গোয়েন্দারা শুরু করেন বিজ্ঞানীদের খুঁজে বের করার কাজ।
খ্যাতিমান সেই বিজ্ঞানীদের যুদ্ধবন্দি হিসেবে আমেরিকায় নিয়ে যাওয়ার গোপন মিশন শুরু করেন তাঁরা। তাদের লক্ষ্যের কেন্দ্রবিন্দুতে ছিল রকেট, ক্ষেপণাস্ত্র, রাডার সহ সামরিক যন্ত্রপাতিতে দক্ষ বিজ্ঞানীরা। পারমাণবিক বিশেষজ্ঞ থেকে শুরু করে সামরিক ডাক্তার, জৈব প্রযুক্তিবিদ থেকে শুরু করে সব ক্ষেত্রের সেরাদের ধরে ধরে আমেরিকায় নিয়ে যাওয়ার গোপন এই পরিকল্পনাই করা হয়েছিল ‘অপারেশন পেপারক্লিপ’-এর অধীনে।
মার্কিন গোয়েন্দারা অপারেশন পেপারক্লিপের কাজ শুরু করেন অনেক আগেই। প্রেসিডেন্ট রুজভেল্টের সেক্রেটারি হেনরি ওয়ালেস নিয়মিত খবরাখবর রাখতেন জার্মানির দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়ের সামরিক গবেষণাগুলোর উপরে। বিশ্বযুদ্ধ যখন শেষের দিকে তখন এই ওয়ালেস আঁচ করতে পেরেছিলেন আমেরিকা আর সোভিয়েত ইউনিয়নের মধ্যে সম্ভাব্য এক স্নায়ুযুদ্ধের কথা। আর কঠিন এই যুদ্ধে জিতে শক্তিশালী হয়ে উঠতে গেলে বিজ্ঞানীদের যে অগ্রগণ্য ভূমিকা পালন করতে হবে, তা ভালোই বুঝতেন দক্ষ অর্থনীতিবিদ আর পরবর্তীতে আমেরিকার ভাইস প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়া হেনরি ওয়ালেস।
তাই যুদ্ধের হাওয়া যখন মিত্রশক্তির দিকে বইছে, তখন প্রায় ১,৮০০ জার্মান বিজ্ঞানীর তালিকা করা হয়। তারা সবাই যুদ্ধকালীন রকেট, ক্ষেপণাস্ত্র, পারমাণবিক বোমা, সামরিক ওষুধপত্র, রাসায়নিক আর জৈব অস্ত্র নিয়ে কাজ করছিলেন। এই ক্ষেত্রগুলোতে নাৎসি জার্মানির বিজ্ঞানীরা অভূতপুর্ব সাফল্য পেয়েছে — এমন খবরও ছিল গোয়েন্দাদের কাছে। আর তাই এদের সকলকে যুদ্ধ পরবর্তী সময়ে আমেরিকায় নিয়ে যাওয়ার জন্য ওয়ালেসের খসড়া তালিকাটি পৌঁছে দেওয়া হয় আমেরিকান সেনা, নৌ আর বিমান বাহিনীর সমন্বয়ে গঠিত বিশেষ একদল গোয়েন্দার কাছে। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের শেষে গঠিত এই গোয়েন্দা দলের কেতাবি নাম ‘United States Joint Intelligence Objectives Agency (JIOA)’। এই দলটিই মূলত ওসেনবার্গ লিস্টের সঙ্গে ওয়ালেসের খসড়াটির সমন্বয় করে চূড়ান্ত তালিকা তৈরির কাজ শুরু করে। এই তালিকাটি ১৯৪৫ সালের মে মাস নাগাদ জার্মানিতে থাকা মার্কিন গোয়েন্দাদের কাছে পৌঁছে দেওয়ার দায়িত্বও ছিল দলটির। এই গোপন অপারেশনের নাম দেওয়া হয় ‘অপারেশন ওভারকাস্ট’। পরবর্তীতে মার্কিন সামরিক বাহিনী এর নামকরণ করে ‘অপারেশন পেপারক্লিপ’।
দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধকালীন জার্মান বিজ্ঞানীরা যে দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র, বিশেষত রকেট নির্মাণে সাফল্য অর্জন করেছিলেন, তা কারও অজানা ছিল না। নাৎসি বিজ্ঞানীদের নির্মিত ২,০০০ পাউন্ড ওজনের গোলাবারুদ বহনে সক্ষম V-2 rocket মিত্র বাহিনীর জন্য ছিল সাক্ষাৎ মৃত্যু। আর তাই এই গোপন অপারেশনের অন্যতম লক্ষ্য ছিল, এই রকেট নির্মাতা বিজ্ঞানীদের খুঁজে বের করা। আর এই তালিকায় থাকা ইঞ্জিনিয়ার আর বিজ্ঞানী, যাঁদের আমেরিকায় নিয়ে যাওয়া সম্ভব হবে, তাঁদের কাগজপত্রগুলোকে ‘পেপারক্লিপ’ দিয়ে আলাদা করে রাখতেন গোয়েন্দারা। আর তাই ১৯৪৫-এর নভেম্বরে আমেরিকার সামরিকদপ্তর থেকে এই মিশনের নাম রাখা হয় ‘অপারেশন পেপারক্লিপ’।
১৯৪৫ সালের আগস্ট মাসের শুরুর দিকে আর্মি অর্ডিন্যান্সের গবেষণা ও উন্নয়ন বিভাগের রকেট শাখার প্রধান কর্নেল টফটয় জার্মান রকেট বিজ্ঞানীদের প্রাথমিকভাবে এক বছরের একটি চুক্তির প্রস্তাব দেন। টফটয় ওই বিজ্ঞানীদের পরিবারের দেখভালের দায়িত্ব নেওয়ার আশ্বাস দিলে মোট ১২৭ জন বিজ্ঞানী তাঁর প্রস্তাবটি মেনে নেন। ১৯৪৫ সালের সেপ্টেম্বর মাসে ৭ জন বিজ্ঞানীর প্রথম দল জার্মানি থেকে আমেরিকায় পৌঁছান। পরবর্তীতে তাঁদের টেক্সাসে নিয়ে আসা হয় ‘War Department Special Employee’ হিসেবে। এর প্রায় এক দশক পর এই জার্মান বিজ্ঞানীরা যুদ্ধের সময় কোথায় কী কাজে লিপ্ত ছিলেন, সেই বিষয়ে খোজ খবর নেওয়া শুরু হয়। তাঁদের মধ্যে আর্থার রুডলফ দাস শ্রমিক ক্যাম্প, হিউবার্টাস স্ট্রাগহোল্ড মানব পরীক্ষা নিরীক্ষার কাজে নিয়োজিত ছিলেন বলে জানা যায়। তিনি বিশেষ ভূমিকা রেখেছিলেন মহাকাশ বিজ্ঞানের উন্নতিতেও।
ওসেনবার্গ লিস্টের এক নম্বরে ছিলেন রকেট সাইন্টিস্ট ওয়ার্নার ভন ব্রাউন। যুদ্ধ শুরুর আগে প্রতিভাবান এই বিজ্ঞানীর আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দু ছিল মহাকাশে মনুষ্যবাহী রকেট পাঠানো। কিন্তু অভিজাত এই জার্মান বিজ্ঞানী শুরু থেকেই ছিলেন হিটলারের নাৎসি বাহিনীর সমর্থক। হিটলার তাকে মিলিটারি স্পেস রিসার্চের প্রধান হিসেবে নিয়োগ করার পর তার হাতেই তৈরি হয় ইংল্যান্ডে আঘাত হানা সেই কুখ্যাত V-2 rocket। অপারেশন পেপারক্লিপের মাধ্যমে আমেরিকায় নিয়ে যাওয়া হয় বিজ্ঞানী ব্রাউন আর দলের সব ইঞ্জিনিয়ারকে। ১০৪ জন রকেট সায়েন্টিস্টের পুরো দলকে মার্কিন সেনাবাহিনী নিয়োজিত করে মহাকাশ গবেষণার কাজে। মার্কিন সরকার এবং সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে তাঁদের নিশ্চিত করা হয় কড়া নিরাপত্তা। মহাকাশে মার্কিনীদের পাঠানো প্রথম কৃত্রিম উপগ্রহ ‘এক্সপ্লোরার-১’ উৎক্ষেপণ থেকে শুরু করে অ্যাপোলো মিশনে অনেক বড় ভূমিকা রাখেন এই দলের সদস্যরা। অ্যাপোলো-১১ মিশনের সহকারী পরিচালকের দায়িত্বও পালন করেছিলেন ওয়ার্নার ভন ব্রাউন।
‘অপারেশন পেপারক্লিপ’-এর তালিকায় ছিলেন অটো অ্যামব্রোস-এর মতো খ্যাতনামা রসায়নবিদরাও। অটো অ্যামব্রোস ছিলেন ‘সারিন’, ‘ট্যাবুন’ সহ বেশ কয়েকটি নার্ভ গ্যাসের উদ্ভাবক। যুদ্ধের ট্যাঙ্ক সহ যুদ্ধযানের টায়ার নির্মাণে অ্যামব্রোস গবেষণাগারে তৈরি করেন কৃত্রিম রাবার। ১৯৪৪ সালে হিটলার তাঁকে এক ভোজসভায় ডেকে ১০ লক্ষ রাইখমার্ক দিয়ে পুরস্কৃত করেন। কিন্তু, পেপারক্লিপের খপ্পরে পড়ে আমেরিকায় পাড়ি জমানো এই বিজ্ঞানী পরবর্তীতে কাজ করেন মার্কিন সামরিক বাহিনীর জন্য। ভন ব্রাউন আর অটো অ্যামব্রোসের মতো আরও প্রায় ১,৬০০ জার্মান বিজ্ঞানী এই অপারেশনের মাধ্যমে আমেরিকায় যেতে বাধ্য হয়েছিলেন। তাঁদের সবাই আমেরিকায় সামরিক বাহিনীর গবেষণা ক্ষেত্রে সাফল্যের স্বীকৃতি রেখেছেন। তাই অপারেশন পেপারক্লিপ যে মার্কিন শিবিরে অনেকগুণ সফল ছিল তা বলাই বাহুল্য। যা পরবর্তীতে আমেরিকাকে বিশ্বের শক্তিশালী দেশ হিসেবে তুলে এনেছে।
আমেরিকার এই তৎপরতার খবর পেয়ে সোভিয়েত ইউনিয়ন হাত গুটিয়ে বসে থাকবে এমন ভাবা মুর্খামি। সোভিয়েত গোয়েন্দা আর সামরিক বাহিনীও শুরু করে অপারেশন ওসোভিয়াখিম। যার মাধ্যমে যুদ্ধকালীন ২,০০০ জার্মান বিজ্ঞানীকে যুদ্ধবন্দি হিসেবে নিয়ে যাওয়া হয় সোভিয়েত ইউনিয়নে। সোভিয়েত ইউনিয়ন আর আমেরিকার এই অপারেশনে জার্মান বিজ্ঞানীরাও নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিলেন যে, তাঁদের জন্মভূমি ছেড়ে পাড়ি জমাতে হবে এই দুই দেশের যেকোনও একটিতে। ওই সময়ে যে সব বিজ্ঞানী ও গবেষকরা সোভিয়েত ইউনিয়নে গিয়েছিলেন, তাঁরাও অনেক বেশি অবাক হয়েছিলেন। কারণ, তাদের সেখানে ভালো ভালো চাকরির প্রস্তাব দেওয়া হয়। এমনকী তাদের স্ত্রী ও পরিবার নিয়ে সোভিয়েত ইউনিয়নে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়। যার ফলে সেখানে একটি ছোটখাটো জার্মান কলোনি গড়ে ওঠে। শুধুমাত্র কাজের ক্ষেত্র ছাড়া জার্মান বিজ্ঞানীদের রাশিয়ান লোকদের থেকে আলাদা করেই রাখা হতো এবং রাশিয়ার লোকদের সঙ্গে মেলামেশা করার অনুমতি তাদের ছিল না। ১৯৫২ সালের দিকে যখন রাশিয়ায় তাদের নিজেদের বিজ্ঞানীর সংখ্যা বাড়তে থাকে, তখন গুরুত্বপূর্ণ গবেষণার কাজগুলোতে জার্মান বিজ্ঞানীদের কদর কমতে থাকে। বিশেষ করে শিক্ষকতায়। এমনকী এক বছরের মাথায় জার্মান বিজ্ঞানীদের পূর্ব জার্মানিতে ফেরত পাঠানো হয়। হয়তো সোভিয়েত ইউনিয়ন চায়নি তাদের বৈজ্ঞানিক উন্নয়নের কৃতিত্ব এমন কারও ঝুলিতে যাক যে কি না রাশিয়ান নয়।
এখনও পর্যন্ত এই মিশনের বেশিরভাগই গোপন করে রেখেছে মার্কিন সামরিক বাহিনী আর গোয়েন্দা সংস্থাগুলো। যতটুকু জানা যায়, তা ‘Operation Paperclip: The Secret Intelligence Program That Brought Nazi Scientists to America’ নামে ২০১৪ সালে লেখা একটি বই থেকে। লেখক মার্কিন সাংবাদিক অ্যানি জ্যাকবসেন। 
13th  August, 2019
  ব্রেক্সিট নিয়ে ভোটের আগে শনিবার পার্লামেন্টের অধিবেশনে যোগ দিলেন ব্রিটিশ এমপিরা

 লন্ডন, ১৯ অক্টোবর (পিটিআই): ব্রেক্সিট নিয়ে সিদ্ধান্ত নিতে গত ৩৭ বছরে এই প্রথম শনিবারে পার্লামেন্টে অধিবেশনে অংশ নিলেন এমপিরা। ইউরোপীয় ইউনিয়নের ২৭টি দেশের সঙ্গে ব্রিটেনের বিচ্ছেদ নিয়ে হাউস অব কমন্সে ভোটাভুটির আগে এই বৈঠক ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।
বিশদ

  সাইবেরিয়ায় সোনার খনিতে দুর্ঘটনায় মৃত ১৩

 মস্কো, ১৯ অক্টোবর (এএফপি): সাইবেরিয়ার ক্রাসনোইয়ারস্ক অঞ্চলে এক খনি দুর্ঘটনায় কমপক্ষে ১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। রাশিয়ার জরুরি মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে, শনিবার ভোরে এই দুর্ঘটনা ঘটে।
বিশদ

 না শুধরালে ফেব্রুয়ারিতেই পাকিস্তান কালো তালিকায়

 প্যারিস, ১৮ অক্টোবর (পিটিআই): ভারতকে বিপদে ফেলতে সন্ত্রাসবাদের গর্ত খুঁড়েছিল। কিন্তু সেই গর্তই যে নিজেদের কবর হয়ে দাঁড়িয়েছে, তা হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছে পাকিস্তান। কারণ সন্ত্রাসে মদত দেওয়ার জন্য ফেব্রুয়ারিতে কালো তালিকাভুক্ত হওয়ার মুখে ইমরান খানের দেশ।
বিশদ

19th  October, 2019
  আফগানিস্তানে মসজিদে বিস্ফোরণ, হত ৬২

 জালালাবাদ, ১৮ অক্টোবর (এএফপি): আফগানিস্তানের এক মসজিদে শুক্রবারের নামাজ চলাকালীন বিস্ফোরণে প্রাণ হারালেন কমপক্ষে ৬২ জন। আহত হয়েছেন আরও অন্তত ৪০ জন। এদিন ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব নানগারহার প্রদেশের হাসকা মিনা জেলায়। বিশদ

19th  October, 2019
পেহলু খান মামলায় অভিযুক্তদের মুক্তির বিরুদ্ধে হাইকোর্টের দ্বারস্থ রাজস্থান সরকার

 জয়পুর, ১৮ অক্টোবর (পিটিআই): গোরক্ষকদের তাণ্ডবে মৃত্যু হয়েছিল ব্যবসায়ী পেহলু খানের। গত আগস্ট মাসে সেই মামলায় ৬ অভিযুক্তকে মুক্তি দিয়েছে নিম্ন আদালত। এই রায়ের বিরুদ্ধে এবার হাইকোর্টের দ্বারস্থ হল রাজস্থান সরকার। বিশদ

19th  October, 2019
  সিরিয়া ইস্যুতে বিরোধীদের সঙ্গে বাদানুবাদে জড়ালেন ট্রাম্প

 ওয়াশিংটন, ১৭ অক্টোবর (পিটিআই): সিরিয়া থেকে মার্কিন বাহিনী প্রত্যাহার নিয়ে নজিরবিহীন বাদানুবাদে জড়ালেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং হাউস স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি। দু’জনের কাজিয়ায় অসংসদীয় শব্দের প্রয়োগ মার্কিন রাজনীতিকে আরও নিম্ন পর্যায়ে নিয়ে গেল বলে বিশেষজ্ঞদের মত। বিশদ

18th  October, 2019
  কাশ্মীরে হামলা চালাতে আফগান জঙ্গিদের নিয়োগ করছে পাক সেনা

 শ্রীনগর, ১৭ অক্টোবর: কাশ্মীরে ফের নাশকতা চালাতে এবার আফগান জঙ্গিদের নিয়োগ করছে পাকিস্তান। গোয়েন্দা সূত্রে খবর, গত কয়েকদিন ধরে অ-কাশ্মীরি ও অ-উর্দুভাষী জঙ্গিদের আনাগোনা বেড়ে গিয়েছে উপত্যকায়। কাশ্মীরে ফিঁদায়ে হামলা চালানোর জন্যই ওই জঙ্গিদের নিয়োগ করা হচ্ছে। বিশদ

18th  October, 2019
  পাকিস্তানের আকাশপথে স্পাইসজেটের উড়ান আটকাল পাক বায়ুসেনা, সূত্রের দাবি

 নয়াদিল্লি, ১৭ অক্টোবর: ভারতীয় বণিজ্যিক উড়ানের জন্য আকাশপথ অনেক দিন আগেই বন্ধ করেছে পাকিস্তান। বিপুল লোকসান সত্ত্বেও নিজেদের সিদ্ধান্তে অনড় ইমরান খানের সরকার। এই পরিস্থিতির মধ্যে গত মাসে প্রযুক্তিগত গোলযোগের কারণে ১২০ জন যাত্রী নিয়ে স্পাইসজেটের একটি উড়ান পাকিস্তানে ঢুকে পড়ে। বিশদ

18th  October, 2019
  জল বন্ধ করা নিয়ে মন্তব্য পাকিস্তানের

 ইসলামাবাদ, ১৭ অক্টোবর (পিটিআই): ভারত যদি নদীর জল দেওয়া বন্ধ করে দেয়, তাহলে বিষয়টিকে ‘আগ্রাসী আচরণ’ হিসেবে গণ্য করবে পাকিস্তান। বৃহস্পতিবার এমনই মন্তব্য করলেন পাক বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র মহম্মদ ফয়জল। বিশদ

18th  October, 2019
জঙ্গিদের অস্ত্র ও প্রশিক্ষণ দিচ্ছে ‘কুকি’ বিদ্রোহীরা

 ঢাকা, ১৭ অক্টোবর: বাংলাদেশের জঙ্গিদের অস্ত্র ও প্রশিক্ষণ দিচ্ছে ‘কুকি’ বিদ্রোহীরা। এমনই দাবি গোয়েন্দাদের। বাংলাদেশের আল কায়েদাপন্থী জঙ্গি সংগঠন আনসার আল ইসলামের দুই সদস্য মিজোরাম থেকে গ্রেপ্তার হওয়ার পর ‘কুকি’ বিদ্রোহীদের তথ্য পাওয়া গিয়েছে। বিশদ

18th  October, 2019
  ৩১১ বেআইনি অভিবাসীকে ভারতে ফেরত পাঠাল মেক্সিকো

 মেক্সিকো সিটি, ১৭ অক্টোবর: আমেরিকার চাপের কাছে নতি স্বীকার করে মেক্সিকোর বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ৩১১ জন ভারতীয় অভিবাসীকে দেশে ফেরত পাঠাল মেক্সিকো সরকার। মেক্সিকোর অভিবাসন কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, তাঁরা সকলেই বেআইনিভাবে মেক্সিকোয় ঢুকে ঘাঁটি গেড়েছিল। বিশদ

18th  October, 2019
সৌদি আরবে তীর্থযাত্রীবাহী বাসে দুর্ঘটনা, মৃত ৩৫ বিদেশি পুণ্যার্থী

 রিয়াধ, ১৭ অক্টোবর (পিটিআই): পুণ্যতীর্থ মদিনা থেকে মক্কায় যাওয়ার পথে বাস দুর্ঘটনায় মারা গেলেন ৩৫ জন তীর্থযাত্রী। সৌদি আরবের সরকারি সংবাদমাধ্যম সূত্রে বৃহস্পতিবার জানানো হয়েছে, বুধবার সন্ধ্যায় ওই দুর্ঘটনা ঘটে। তীর্থযাত্রীবাহী ওই বাসটি আরও কোনও বড় গাড়িতে ধাক্কা মারে। বিশদ

18th  October, 2019
  দারিদ্রের হার অর্ধেকে নামিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছে ভারত: বিশ্বব্যাঙ্ক

 ওয়াশিংটন, ১৬ অক্টোবর (পিটিআই): দারিদ্রের হার কমাতে সক্ষম হয়েছে ভারত। নব্বই দশকের পর ভারতে দারিদ্রের হার অর্ধেক কমেছে বলে জানিয়েছে বিশ্বব্যাঙ্ক। গতকাল একটি রিপোর্ট প্রকাশ করে বিশ্বব্যাঙ্কের তরফে বলা হয়েছে, ১৯৯০ সালের পর থেকে দারিদ্রের হার প্রায় অর্ধেকে নামিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছে ভারত।
বিশদ

17th  October, 2019
  এফএটিএফের ধূসর তালিকায় ২০২০ সালের
ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত থাকতে চলেছে পাকিস্তান: রিপোর্ট

 ইসলামাবাদ, ১৬ অক্টোবর (পিটিআই): আগামী বছরের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত পাকিস্তানকে ধূসর তালিকায় থাকতে হতে পারে। এই তালিকা থেকে বেরিয়ে আসতে গেলে সম্পূর্ণভাবে জঙ্গিদের অর্থ সাহায্য বন্ধ করা সহ একগুচ্ছ শর্ত পাকিস্তানকে পালন করতে হবে বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক নজরদারি সংস্থা ফিনান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্স (এফএটিএফ)।
বিশদ

17th  October, 2019

Pages: 12345

একনজরে
 নয়াদিল্লি, ১৯ অক্টোবর (পিটিআই): নাগাদের জন্য আলাদা পতাকা এবং সংবিধানের দাবি খারিজ করে দিল কেন্দ্রীয় সরকার। একই সঙ্গে দশকের পর দশক ধরে চলা শান্তি প্রক্রিয়াতেও সরকার ইতি টানতে চাইছে। ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: বাংলাদেশের বিরুদ্ধে আসন্ন টি-২০ সিরিজে বিশ্রাম দেওয়া হতে পারে ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে। গত বছরের অক্টোবর থেকে ৫৬টির মধ্যে দেশের জার্সিতে ৪৮টি ...

 ওয়াশিংটন, ১৯ অক্টোবর (পিটিআই): ভারতের অর্থনীতির পূর্বভাস নিয়ে অশনি সঙ্কেত দিলেও কর্পোরেট সংস্থাকে কর ছাড়ের প্রশংসা আগেই করেছিল বিশ্বব্যাঙ্ক। এবার একই সুর শোনা গেল আন্তর্জাতিক অর্থভাণ্ডারের (আইএমএফ) কথায়। ...

 প্রসেনজিৎ কোলে, কলকাতা: রেল মন্ত্রক প্রতিটি জোনকেই ভাড়া ছাড়া অন্যান্য খাতে আয় বৃদ্ধির রাস্তা খুঁজতে নির্দেশ দিয়েছিল। সেই পথে চলে বিজ্ঞাপন সহ বিভিন্ন খাতে ইতিমধ্যেই আয় বাড়িয়েছে একাধিক জোন। ভাড়া ছাড়া অন্য খাতে আয় বৃদ্ধিতে এবার অব্যবহৃত জমিতে পুকুর কেটে ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কর্মরতদের সহকর্মীদের সঙ্গে সম্পর্ক ভালো থাকবে। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা ও ব্যবহারে সংযত থাকা দরকার। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

 বিশ্ব পরিসংখ্যান দিবস
১৮৭১: কবি ও গীতিকার অতুলপ্রসাদ সেনের জন্ম
১৯৭৮: ক্রিকেটার বীরেন্দ্র সেওয়াগের জন্ম





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৩৪ টাকা ৭২.০৪ টাকা
পাউন্ড ৮৯.৮৬ টাকা ৯৩.১৫ টাকা
ইউরো ৭৭.৭৩ টাকা ৮০.৬৮ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
19th  October, 2019
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,৯২৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,৯৩০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৭,৪৮৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৫,৬৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৫,৭৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২ কার্তিক ১৪২৬, ২০ অক্টোবর ২০১৯, রবিবার, ষষ্ঠী ৪/৩৯ দিবা ৭/৩০। আর্দ্রা ৩০/৩৪ সন্ধ্যা ৫/৫২। সূ উ ৫/৩৮/৩৫, অ ৫/৪/৩৯, অমৃতযোগ দিবা ৬/২৫ গতে ৮/৪২ মধ্যে পুনঃ ১১/৪৪ গতে ২/৪৫ মধ্যে। রাত্রি ৭/৩৫ গতে ৯/১৬ মধ্যে পুনঃ ১১/৪৭ গতে ১/২৮ মধ্যে পুনঃ ২/১৮ গতে উদয়াবধি, বারবেলা ৯/৫৬ গতে ১২/৪৭ মধ্যে, কালরাত্রি ১২/৫৬ গতে ২/৩০ মধ্যে।
২ কার্তিক ১৪২৬, ২০ অক্টোবর ২০১৯, রবিবার, সপ্তমী ৫৩/৪/১৩ রাত্রি ২/৫২/৫২। আর্দ্রা ২৪/৪১/৫৯ দিবা ৩/৩১/৫৯, সূ উ ৫/৩৯/১১, অ ৫/৫/৫১, অমৃতযোগ দিবা ৬/৩২ গতে ৮/৪৫ মধ্যে ও ১১/৪২ গতে ২/৪০ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/২৮ গতে ৯/১১ মধ্যে ও ১১/৪৬ গতে ১/২৯ মধ্যে ও ২/২১ গতে ৫/৪০ মধ্যে, বারবেলা ৯/৫৬/৪১ গতে ১১/২২/৩১ মধ্যে, কালবেলা ১১/২২/৩১ গতে ১২/৪৮/২১ মধ্যে, কালরাত্রি ১২/৫৬/৪১ গতে ২/৩০/৫১ মধ্যে।
২০ শফর

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
শ্রীরামপুরে লকেটের গাড়ি আটকানোর অভিযোগ কংগ্রেসের বিরুদ্ধে 
সংকল্প যাত্রায় অংশগ্রহণের পথে শ্রীরামপুরের বটতলায় লকেট চট্টোপাধ্যায়ের গাড়ি আটকানোর ...বিশদ

04:32:00 PM

রাঁচি টেস্ট: কম লাইটের জন্য খেলা বন্ধ, দঃ আফ্রিকা ৯/২ (প্রথম ইনিংস) 

04:19:41 PM

কাটোয়ায় বউদিকে কুপিয়ে খুনের চেষ্টা দেওরের
বউদিকে কুপিয়ে খুনের চেষ্টার অভিযোগ পিসতুতো দেওরের বিরুদ্ধে। প্রেমের সম্পর্কের ...বিশদ

04:03:00 PM

রাঁচি টেস্ট: দ্বিতীয় দিনে ৯ উইকেট হারিয়ে ৪৯৭ রানে ডিক্লেয়ার দিল ভারত  

03:38:00 PM

বাঁকুড়ায় তৃণমূল কার্যালয় ভাঙার অভিযোগ বিজেপির বিরুদ্ধে 
বাঁকুড়ার পাত্রসায়র এলাকার নারায়ণপুরে তৃণমূল কংগ্রেসের পার্টি অফিস ভাঙার অভিযোগ ...বিশদ

02:09:00 PM

বোলপুরে কালী মন্দির সংষ্কারের সময় উদ্ধার নরমুণ্ড
বোলপুরের যদুপুর গ্রামে প্রায় ২০০ বছরের পুরানো কালী মন্দিরের সংষ্কার ...বিশদ

02:02:34 PM