Bartaman Patrika
রাজ্য
 

দ্বিতীয় হুগলি সেতুতে দাঁড়িয়ে
 সেলফিতে নিষেধাজ্ঞা 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: এক ক্লিকে কলকাতা। পরের ক্লিকে হাওড়া। মাঝখানে গঙ্গা-গোধূলির আদিখেত্যা। মোবাইলে হোক কিংবা ডিজিটাল ক্যামেরা। সেলফি হোক অথবা ফটোশ্যুট। অনুভূতির অতল ছোঁয়ার এমন জায়গা খুব কমই রয়েছে। ফটোগ্রাফির ভাষায় যাকে বলে ‘ইমোশন অব দ্য ল্যান্ড’।
বিদ্যাসাগর সেতুতে সেই ‘ল্যান্ড’-ই খুঁজে পেয়েছিলেন প্রেমিক-প্রেমিকা, পর্যটক থেকে শুরু করে ফটোগ্রাফাররা। গাড়ি-বাইক থামিয়ে তাঁদের সেলফি তোলার হিড়িক। আকাশ-গঙ্গার সঙ্গে দুই প্রাচীন শহরকে লেন্সে সংযুক্ত করার আপ্রাণ চেষ্টা। স্মার্টফোনে কিংবা ক্যামেরায় ক্লিকের পর ক্লিক। সবই চলত মানা না মানার ঔদ্ধত্যে। আঠাশ বছরের ইতিহাসে কঠোর শাসন তেমন ছিল না। খুব বড়জোড় হলে ছবি তোলার ছবি চোখে পড়লে একটু ধমক দিয়ে সরে পড়তেন নিরাপত্তারক্ষীরা! ফলে সেতুর বেশ কয়েকটি স্থানই হয়ে উঠেছিল ‘সেলফি জোন’। এবং তা অবশ্যই অলিখিত। এবার ভিভিআইপিদের নিরাপত্তার খাতিরে ‘ইমোশন অব দ্য ল্যান্ড’-এ ঝুলছে নিষেধাজ্ঞার কড়া বুলি। লাল প্ল্যাকার্ডে সাদা অক্ষরে সাফ নির্দেশ, ‘এখানে কোনও ফটোগ্রাফি নয়’। কোথাও আবার জ্বলজ্বল করছে ‘নো স্টপিং’, ‘নো স্ট্যান্ডিং’-এর বোর্ড।
হাওড়া ব্রিজে এমন নিষেধাজ্ঞার একটা ঐতিহাসিক ভিত্তি ছিল। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ চলছে। সালটা ১৯৪৩। জাপানের বোমারু বিমানের টার্গেট তখন কলকাতা। প্রায়দিনই বোমা পড়ছে। তাদের প্রযুক্তি-কৌশলে অভিনব সৃষ্টি বোমার আঘাতে ধ্বংস হয়ে যাক, তা চাননি ব্রিটিশরা। ফলে ওই বছরই হাওড়া ব্রিজ (রবীন্দ্র সেতু)-এর দুই প্রান্তে ঝুলিয়ে দেওয়া হয় ছবি তোলার নিষেধাজ্ঞা বোর্ড। এবং নির্দেশ মানাতে কঠোর পদক্ষেপও গ্রহণ করে ব্রিটিশ সরকার। ইতিহাসের উঠোনে এমন তথ্যও উঁকি মারছে, বোমারু বিমানের লক্ষ্য আড়াল করতে হাওড়া ব্রিজের উপর রাতে আলো জ্বালানো বন্ধ রেখেছিলেন ব্রিটিশরা। সেই থেকেই হাওড়া ব্রিজের উপর দাঁড়িয়ে সাধারণের ছবি তোলায় নিষেধাজ্ঞা বলবৎ ছিল। বিশেষ অনুমতি নিয়ে ছবি তুলতে হতো। ২০১৮ সালে সেই নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার ভাবনাচিন্তা করেছিল কলকাতা বন্দর কর্তৃপক্ষ।
কিন্তু দ্বিতীয় হুগলি সেতুতে ছবি তোলার ক্ষেত্রে নতুন করে কেন এত কড়াকড়ি? হুগলি রিভার ব্রিজ কমিশনের তরফে কস্তুরী সেনগুপ্ত অবশ্য বলেছেন, ‘নিষেধাজ্ঞা সংক্রান্ত কোনও বোর্ডই আমাদের নয়।’ সূত্রের খবর, ভিভিআইপিদের নিরাপত্তার কারণেই এমন বোর্ড ঝুলিয়েছে পুলিস। হুগলি ব্রিজের পরই নবান্ন। রাজ্যের মন্ত্রী-আমলারা প্রতিনিয়ত যাতায়াত করেন এই সেতুর উপর দিয়ে। কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরাও নবান্নে আসেন একই রুটে। তাঁদের নিরাপত্তা আঁটসাঁট করতেই ছবি তোলায় মানা।
হাওড়া ব্রিজের উপর চাপ কমাতে গড়ে তোলা হয় দ্বিতীয় হুগলি সেতু। ১৯৭২ সালে নির্মাণ প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী। তারও সাত বছর পর শুরু হয় নির্মাণকাজ। ১৯৯২ সালের ১০ অক্টোবর। যানবাহন চলাচলে খুলে দেওয়া হয় পূর্ব ভারতের এই বৃহত্তম সেতু। ‘থ্রি লেন’ বিশিষ্ট এই সেতুর দু’দিকেই রয়েছে ১.২ মিটার চওড়া ফুটপাত। সেখানে দাঁড়িয়ে গঙ্গাবক্ষের ‘সিনিক বিউটি’ উপভোগ করতেন বাইক কিংবা গাড়ির আরোহীরা। রোমান্টিক মুহূর্তের সেলফিও তুলতেন অনেকেই। সেতুতে দাঁড়িয়ে সূর্যোদয় অথবা সূর্যাস্তের ছবি তোলাও নেশা ছিল দেশ-বিদেশের পর্যটকদের। ছবি তোলার এই আবেগ-অনুভূতি বাধাপ্রাপ্ত হওয়ায় স্বভাবতই খুশি নন সেলফি-প্রেমিক কিংবা পর্যটকরা। বৃহস্পতিবার সেতুতে ওঠার মুখে এমনই এক বাইক আরোহী বলছিলেন, ‘বিদ্যাসাগর সেতুতে দাঁড়িয়ে গঙ্গাবঙ্গে গোধূলি লগ্নের দৃশ্য দেখার লোভ সামলানো খুব কঠিন। এত বেশি কড়াকাড়ি না হলেই ভালো হত।’
 দ্বিতীয় হুগলি সেতুতে ছবি তোলা নিষেধের বোর্ড। -নিজস্ব চিত্র 

31st  July, 2020
প্রাথমিকে পড়াতে ডিপ্লোমায় ভর্তি শুরু ১০ই
যোগ্যতামান উচ্চ মাধ্যমিক  আবেদন গ্রহণ ৩১ আগস্ট পর্যন্ত 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: ডিপ্লোমা ইন এলিমেন্টারি এডুকেশন বা ডিএলএড কোর্সের ৪৫,৭০০ আসনে ১০ আগস্ট থেকে অনলাইন ভর্তি শুরু করছে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ। শুক্রবার সাংবাদিক বৈঠক করে একথা জানিয়েছেন পর্ষদের সভাপতি মানিক ভট্টাচার্য। উচ্চ মাধ্যমিকে ন্যূনতম ৫০ শতাংশ নম্বর থাকলেই আবেদন করা যাবে। প্রাথমিক এবং উচ্চ প্রাথমিকে শিক্ষকতার চাকরির জন্য ডিএলএডের শংসাপত্র আবশ্যিক। গতবার এই কোর্সের জন্য রাজ্যে প্রায় পাঁচ লক্ষ আবেদন জমা পড়েছিল। এবার সেই সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশা করা হচ্ছে। রাজ্যজুড়ে সরকারি এবং বেসরকারি মিলিয়ে ৬৪৯টি ডিএলএড কলেজ রয়েছে। তার মধ্যে সরকারি কলেজগুলিতে আসন সংখ্যা ৩ হাজার ৭০০। বাংলা মাধ্যমের আসন সব মিলিয়ে ৪৫ হাজার ২০০। এবারই প্রথম সাঁওতালি মাধ্যমের জন্য ৫০টি আসন সংরক্ষিত করা হয়েছে। এছাড়াও হিন্দি, নেপালি এবং উর্দুতে যথাক্রমে ৩০০, ১০০ এবং ৫০টি আসন সংরক্ষিত। আবেদনকারীদের অবশ্যই রাজ্যের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে। 
বিশদ

কোভিড রোগীদের বয়কট ঠেকাতে
‘ডিসচার্জ নীতি’তে সংশোধন রাজ্যের 

সঞ্জয় গঙ্গোপাধ্যায়, কলকাতা: কোভিড রোগীদের ‘ডিসচার্জ নীতি’ আমূল বদলে ফেলল রাজ্য। সংশোধিত নীতির মূল কথা, রোগীর ‘ডিসচার্জ সার্টিফিকেট’-এ সুস্থ হয়ে ওঠার সম্পূর্ণ তথ্য লিখতে হবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে। ‘ডিসচার্জ নীতি’ সংশোধনের উদ্দেশ্য মূলত দু’টি।
বিশদ

জোট করেই লড়াই হবে, সোনিয়ার
দূতের সামনে ঘোষণা প্রদেশ কংগ্রেসের 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: সোমেন মিত্র প্রয়াত হলেও তাঁর দেখানো পথে বামেদের সঙ্গে সখ্য গড়েই আগামী বিধানসভা নির্বাচনে লড়তে চায় প্রদেশ কংগ্রেস।   বিশদ

ঝাড়গ্রাম ও কালিম্পঙে আক্রান্ত এত
কম কীভাবে, রহস্যভেদে স্বাস্থ্যদপ্তর 

বিশ্বজিৎ দাস, কলকাতা: করোনা সংক্রমণের বাড়বাড়ন্তের মধ্যেও রাজ্যে ব্যতিক্রম দু’টি জেলা। ঝাড়গ্রাম এবং কালিম্পং। আক্রান্তের সংখ্যা আশ্চর্যজনকভাবে ১০০’রও গণ্ডি পেরয়নি এই দুই জেলায়। ৩০ জুলাইয়ের সর্বশেষ রিপোর্ট পর্যন্ত ঝাড়গ্রামে মোট আক্রান্ত মাত্র ২৮। কালিম্পং-এ ৮৫। ঝাড়গ্রামে সক্রিয় আক্রান্ত শূন্য। কালিম্পং-এ মাত্র ১৩। রহস্যটা কী? বিশদ

অর্থনীতির ব্যর্থতা ঢাকতে কেন্দ্রের অজুহাত
লকডাউন, জিএসটি শেয়ার বন্ধে ক্ষুব্ধ রাজ্য 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: আর্থিক অবস্থা বেহাল, এই অজুহাতকে সামনে রেখে এবার বাংলা সহ বিভিন্ন রাজ্যের কোষাগারকে ‘পঙ্গু’ করার চেষ্টা শুরু করল কেন্দ্রীয় সরকার। গুডস অ্যান্ড সার্ভিসেস ট্যাক্স (জিএসটি) বাবদ রাজ্যের প্রাপ্য অর্থ এখন দেওয়া সম্ভব নয় বলে কেন্দ্র জানিয়েছে। আর তাতেই চরম আর্থিক সঙ্কটের মুখোমুখি হতে চলেছে রাজ্যগুলি।   বিশদ

31st  July, 2020
বিভিন্ন হাসপাতাল ঘুরে রোগীদের
অভিযোগ শুনল ডাক্তারদের দল 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আহ্বানে সাড়া দিয়ে সরকারি ডাক্তারদের সঙ্গে মিলেমিশে করোনা হাসপাতালগুলিতে পরিদর্শনে শামিল হলেন নামকরা বেসরকারি ডাক্তাররাও। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা নাগাদ স্বাস্থ্যভবন থেকে এমনই তিনটি উচ্চপর্যায়ের পরিদর্শক দল বিভিন্ন হাসপাতালে যায়। 
বিশদ

31st  July, 2020
পোর্টালের মাধ্যমে সঙ্কটজনকদের উপর
ধারাবাহিক নজরদারি চালাবে স্বাস্থ্যদপ্তর 

সঞ্জয় গঙ্গোপাধ্যায়, কলকাতা: করোনা মোকাবিলায় কাজ করছে টাস্ক ফোর্স, বিশেষজ্ঞ কমিটি। কন্ট্রোল রুম, হেল্পলাইন, একাধিক কুইক রেসপন্স টিম গঠন করা হয়েছে। কিন্তু সঙ্কটজনক রোগীদের ক্ষেত্রে নজরদারির কিছু সমস্যা থেকেই যাচ্ছে। তার পরিপ্রেক্ষিতেই একটি ক্রিটিক্যাল পেশেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম চালু করতে চলেছে নবান্ন।
বিশদ

31st  July, 2020
তিন বছরের প্রি-স্কুল শিক্ষার পরিকাঠামো ও
টাকা কোথায়, প্রশ্ন সিলেবাস এক্সপার্ট কমিটির 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: জাতীয় শিক্ষানীতি কবে থেকে কার্যকর হবে, তা এখনও স্পষ্ট নয়। কিন্তু, তা কার্যকর করতে গেলে স্কুলশিক্ষায় যে পরিকাঠামোগত বিপুল উন্নয়ন এবং প্রচুর নতুন নিয়োগ প্রয়োজন, তা একরকম নিশ্চিত।  বিশদ

31st  July, 2020
সরকারি সময়সীমা থাকলেও
ফলপ্রকাশে ধীরে চলো নীতি 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: আজ, শুক্রবার সুপ্রিম কোর্টে মামলার গতি-প্রকৃতি কী দাঁড়ায়, তা দেখেই স্নাতকস্তরের ফল প্রকাশে এগতে চাইছে রাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়গুলি। রাজ্য সরকারের দেওয়া অ্যাডভাইসরি অনুযায়ী আজ শেষ হচ্ছে ফলপ্রকাশের চূড়ান্ত সময়সীমা।   বিশদ

31st  July, 2020
৪০ বছরের ঊর্ধ্বে কেউ থাকবেন
না তৃণমূলের যুব শাখায়, নির্দেশ  

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: বিধানসভা ভোটের আগে দলের সংগঠনে ব্যাপক রদবদল করেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রদবদল করা হয়েছে যুব সংগঠনে। দলের একাধিক জেলা সভাপতি পরিবর্তন করা হয়েছে।   বিশদ

31st  July, 2020
সোমেন মিত্রর পর প্রদেশ
সভাপতি কে, শুরু জল্পনা 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: নয়-নয় করে প্রায় ৫৫ বছরের রাজনৈতিক জীবন। প্রদেশ কংগ্রেসের সদ্য প্রয়াত সভাপতি সোমেনবাবুর সাংগঠনিক দক্ষতার কথা কেবল নিজের দল নয়, বিরোধী শিবিরের বহু নেতাও একবাক্যে স্বীকার করেছেন বিভিন্ন সময়ে।
বিশদ

31st  July, 2020
সংগঠনের মরচে সাফ করতে
হবে দ্রুত, বঙ্গ বিজেপিকে বার্তা কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের 

নিজস্ব প্রতিনিধি,কলকাতা: সংগঠনের বিভিন্ন স্তরে মরচে ধরেছে। দ্রুত তা সাফ করে ঝকঝকে বানাতে হবে সংগঠনকে। দিল্লিতে বাংলার নেতাদের সঙ্গে বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের বৈঠকে এই বক্তব্য উঠে এসেছে।   বিশদ

31st  July, 2020
অনলাইনকেই ভবিষ্যৎ ধরে নিজেদের
তৈরি করছে উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলি 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: শুধু অনলাইনের মাধ্যমে ক্লাস বা ভর্তি নয়, করোনার জেরে নিজেদেরও পাল্টাচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয় এবং কলেজগুলি। দেশে অন্যতম প্রাচীন কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় অনলাইনে পিএইচডি গবেষণাপত্র জমা দেওয়ার মঞ্জুরি দিয়েছে। মৌখিকও হবে অনলাইনে। একই পথে হাঁটতে চলেছে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ও। বিশদ

30th  July, 2020
মাস্ক, স্যানিটাইজারে নিয়ন্ত্রণ তোলার
কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তে দাম বৃদ্ধির শঙ্কা 

বিশ্বজিৎ দাস, কলকাতা: বেআইনি মজুত, কালোবাজারি ও দামের মূল্যবৃদ্ধি রুখতে কেন্দ্রীয় সরকার অপরিহার্য পণ্যের তালিকায় নিয়ে এসেছিল মাস্ক ও স্যানিটাইজারকে। সেটা ছিল ১৩ মার্চ। বলা ছিল, ৩০ জুন পর্যন্ত কার্যকর থাকবে এই নির্দেশিকা। এবার সেই সময়সীমা পেরতেই অপরিহার্য পণ্যের তালিকা থেকে মাস্ক ও স্যানিটাইজারকে সরিয়ে দিয়েছে কেন্দ্র।  বিশদ

30th  July, 2020

Pages: 12345

একনজরে
সংবাদদাতা, ঘাটাল: ভাইয়ের গায়ে অ্যাসিড ছুঁড়ে মারার অভিযোগ উঠল দাদার বিরুদ্ধে। শুক্রবার ভোরে ঘাটাল থানার পান্না গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। আক্রান্ত যুবকের নাম অনুপ পাল।   ...

ওয়াশিংটন: ক্ষমতা দেখাতে পুরো বিশ্বকে নিজেদের নাগালের মধ্যে আনতে উঠেপড়ে লেগেছে চীন। এবার তাদের আগ্রাসনের বিরুদ্ধে জবাব দেওয়ার সময় এসেছে। বৃহস্পতিবার মার্কিন কংগ্রেসে এই ভাষাতেই চীনের বিরুদ্ধে ফুঁসে উঠলেন মার্কিন বিদেশ সচিব মাইক পম্পেও।   ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: রাজ্যের সংশোধনাগারগুলিতে যা জায়গা রয়েছে, তার তুলনায় বন্দির সংখ্যা ২৩ শতাংশ বেশি। দু’হাজারেরও বেশি বিচারাধীন বন্দিকে আগাম জামিন ও আসামিদের প্যারোলে ছাড়ার পরেও এই অবস্থা।   ...

সংবাদদাতা, নকশালবাড়ি: শুক্রবার বাগডোগরা থানার রানিডাঙা এসএসবি ক্যাম্পের মুখোমুখি একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের এটিএম কাউন্টারে সিসি ক্যামেরা, এসির বৈদ্যুতিক কেবল ছেঁড়া এবং রিসিভ স্লিপ তছনছ অবস্থায় থাকায় লুটের আতঙ্ক ছড়ায়। যদিও পুলিসের দাবি, সেখানে লুটপাটের কোনও ঘটনা ঘটেনি।   ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

বিতর্ক-বিবাদ এড়িয়ে চলা প্রয়োজন। প্রেম-পরিণয়ে মানসিক স্থিরতা নষ্ট। নানা উপায়ে অর্থোপার্জনের সুযোগ।প্রতিকার: অন্ধ ব্যক্তিকে সাদা ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৭৭৪- অক্সিজেনের আবিষ্কার করেন যোশেফ প্রিস্টলি
১৮৪৬ - বাংলার নবজাগরণের উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিত্ব দ্বারকানাথ ঠাকুরের মৃত্যু
১৯২০ – স্বাধীনতা সংগ্রামী বালগঙ্গাধর তিলকের মৃত্যু
১৯২০- অসহযোগ আন্দোলন শুরু করলেন মহাত্মা গান্ধী
১৯২৪ -ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ক্রিকেটার ফ্রাঙ্ক ওরেলের জন্ম
১৯৩২- অভিনেত্রী মীনাকুমারীর জন্ম
১৯৫৬- ক্রিকেটার অরুণলালের জন্ম।
১৯৯৯- সাহিত্যিক নীরদ সি চৌধুরির মৃত্যু 



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৩.৯৪ টাকা ৭৫.৬৫ টাকা
পাউন্ড ৯৬.৫৩ টাকা ৯৯.৯০ টাকা
ইউরো ৮৭.৪০ টাকা ৯০.৫৫ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৫৪,৬৪০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৫১,৮৪০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৫২,৬২০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৬৪,৩০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৬৪,৪০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

১৬ শ্রাবণ ১৪২৭, শনিবার, ১ আগস্ট ২০২০, ত্রয়োদশী ৪১/৪৮ রাত্রি ৯/৫৫। মূলানক্ষত্র ৪/২ দিবা ৬/৪৮। সূর্যোদয় ৫/১১/৪৮, সূর্যাস্ত ৬/১৩/৫৮। অমৃতযোগ দিবা ৯/৩২ গতে ১/১ মধ্যে। রাত্রি ৮/২৬ গতে ১০/৩৭ মধ্যে পুনঃ ১২/৫ গতে ১/৩২ মধ্যে পুনঃ ২/১৬ গতে ৩/৪৪ মধ্যে। বারবেলা ৬/৫০ মধ্যে পুনঃ ১/২০ গতে ২/৫৮ মধ্যে পুনঃ ৪/৩৬ গতে অস্তাবধি। কালরাত্রি ৭/৩৬ মধ্যে পুনঃ ৩/৫০ গতে উদয়াবধি। 
১৬ শ্রাবণ ১৪২৭, শনিবার, ১ আগস্ট ২০২০, ত্রয়োদশী রাত্রি ৯/৪৮। মূলানক্ষত্র দিবা ৭/৫৩। সূর্যোদয় ৫/১১, সূর্যাস্ত ৬/১৭। অমৃতযোগ দিবা ৯/৩০ গতে ১/২ মধ্যে এবং রাত্রি ৮/২৯ গতে ১০/৩৮ মধ্যে ও ১২/৪ গতে ১/৩০ মধ্যে ও ২/১৩ গতে ৩/৩৯ ম঩ধ্যে। কালবেলা ৬/৪৯ মধ্যে ও ১/২২গতে ৩/০ মধ্যে ও ৪/৩৯ গতে ৬/১৭ মধ্যে। কালরাত্রি ৭/৩৯ মধ্যে ও ৩/৪৯ গতে ৫/১১ মধ্যে।  
১০ জেলহজ্জ 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
করোনা: রাজ্যে আক্রান্ত আরও ২৫৮৯ জন  
রাজ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ২৫৮৯ জনের শরীরে মিলল করোনা ...বিশদ

08:42:26 PM

মহারাষ্ট্রে করোনা পজিটিভ আরও ৯,৬০১ জন, মৃত ৩২২ 

08:41:24 PM

কর্ণাটকে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা পজিটিভ ৫,১৭২ জন, মৃত ৯৮ 

07:56:50 PM

করোনা: কেরলে নতুন করে আক্রান্ত আরও ১১২৯, মোট আক্রান্ত ১০৮৬২ 

07:50:00 PM

করোনা: গত ২৪ ঘণ্টায় তামিলনাড়ুতে আক্রান্ত ৫৮৭৯, মৃত্যু ৯৯ জনের 

06:43:13 PM

হায়দরাবাদে ব্যাপক বৃষ্টি জলমগ্ন একাধিক এলাকা 

06:35:00 PM