Bartaman Patrika
রাজ্য
 

বুলবুলের ক্ষতিপূরণ ও কৃষকবন্ধু প্রকল্পের টাকা পেতে পদ্ধতি সরল করছে রাজ্য

বিশ্বজিৎ মাইতি, বারাসত, বিএনএ: বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্ত সমস্ত চাষিকে ক্ষতিপূরণ দিতে নতুন সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার। পৈতৃক সম্পত্তির রেকর্ড না থাকলেও ব্লক ভূমি ও ভূমি সংস্কার আধিকারিকদের দেওয়া সার্টিফিকেটের ভিত্তিতে চাষিদের ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে। পুরনো দিনের পড়চা থাকা জমির মালিকদেরও একইভাবে ক্ষতিপূরণের টাকা দেওয়া হবে। শুধু বুলবুলের ক্ষতিপূরণ নয়, এই পদ্ধতিতে কৃষকবন্ধু প্রকল্প থেকে বঞ্চিত কৃষকদেরও সুবিধা পাইয়ে দেওয়ার বিষয়ে ভাবনাচিন্তা করছে রাজ্য সরকার। নতুন এই সিদ্ধান্তে রাজ্যের কয়েক লক্ষ চাষি উপকৃত হবেন।
কৃষিমন্ত্রী আশিস বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, আইনগত দিক ঠিক রেখে কোনও কৃষক যাতে সুবিধা থেকে বঞ্চিত না হয়, তা নিশ্চিত করার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। পৈতৃক জমির রেকর্ড না থাকার কারণে অনেক চাষি ক্ষতিপূরণের টাকা পাচ্ছিলেন না। সে কারণে প্রধানের কাছ থেকে নেওয়া উত্তরাধিকার শংসাপত্র, জমির খতিয়ান ও রেকর্ড দেখে ভূমি ও ভূমি সংস্কার আধিকারিকরা সার্টিফিকেট দেবেন। ওই সার্টিফিকেট দেখিয়ে চাষিরা ক্ষতিপূরণের টাকা পাবেন। কৃষকবন্ধু প্রকল্পের ক্ষেত্রেও একইভাবে কৃষকদের সুবিধা দেওয়ার বিষয়টি ভাবনাচিন্তা করা হচ্ছে।
কৃষিদপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, বুলবুল ঝড়ে কৃষকদের ক্ষতিপূরণের টাকা দেওয়ার প্রক্রিয়া জেলায় জেলায় শুরু হয়েছে। কিন্তু আইন মেনে এসডিআরএফ (স্টেট ডিজাস্টার রেসপন্স ফান্ড) প্রকল্পের টাকা চাষিদের দিতে গিয়ে বহু ক্ষেত্রে সমস্যা তৈরি হচ্ছে। কারণ, যেসব চাষির নামে জমির রেকর্ড রয়েছে তাঁরাই কেবলমাত্র এই টাকা পেতে পারেন। বাস্তবে দেখা যাচ্ছে, বহু ক্ষতিগ্রস্ত চাষির নামে রেকর্ড নেই। তাঁদের বাবা কিংবা মায়ের নামে জমির রেকর্ড রয়েছে। কিন্তু বাবা ও মা মারা যাওয়ায় উত্তরাধিকার সূত্রে তাঁরাই এখন জমির মালিক। এছাড়া পুরাতন আমলের মাঠ পড়চা থাকা বহু কৃষকের কম্পিউটারাইজড রেকর্ড এখনও নেই।
এই দুই ধরনের কৃষকদের আইন মোতাবেক ক্ষতিপূরণের টাকা দেওয়া যাচ্ছে না। এই ধরনের কৃষকদের কৃষকবন্ধু প্রকল্পের সুবিধাও দেওয়া যায় না। বহু কৃষক নতুন রেকর্ডের জন্য বিএলআরও অফিসে আবেদন করে রেখেছেন। প্রতিটি বিএলআরও অফিসে নতুন রেকর্ডের জন্য আবেদনপত্রের পাহাড় জমেছে। শেষপর্যন্ত কৃষকরা কবে নতুন রেকর্ড পাবেন তার কোনও ঠিক নেই। এই পরিস্থিতিতে বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্ত চাষি ও কৃষক বন্ধু প্রকল্পে সুবিধা না পাওয়া কৃষকদের মধ্যে বঞ্চনার ক্ষোভ তৈরি হয়েছে। বিভিন্ন জেলা থেকে এই সমস্যার বিষয়ে রাজ্য কৃষিদপ্তরে চিঠিও পাঠানো হয়।
বুধবার ভাঙড় ১ পঞ্চায়েত সমিতির অফিসে কৃষিমন্ত্রী আশিস বন্দ্যোপাধ্যায়, জয়েন্ট ডিরেক্টর (এগ্রিকালচার এক্সটেনশন) গৌতম ভৌমিক, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার কৃষি আধিকারিক ও প্রশাসনিক আধিকারিকদের নিয়ে উচ্চপর্যায়ের বৈঠক হয়। ওই বৈঠকে এই দুটি সমস্যার বিষয়েও আলোচনা হয়। তাতে স্থির হয়, যে সমস্ত চাষি উত্তরাধিকার সম্পত্তির মালিক, কিন্তু নিজের নামে রেকর্ড নেই, তাঁদেরও ক্ষতিপূরণের টাকা দিতে হবে। এছাড়া মাঠ পড়চা রয়েছে, কিন্তু কম্পিউটারাইজড রেকর্ড নেই তাঁদেরও সমস্ত সুবিধা দেওয়া হবে। এই দুই ধরনের চাষিদের প্রথমে গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধানের থেকে উত্তরাধিকার সংক্রান্ত শংসাপত্র নিতে হবে। এরপর জমির খতিয়ান, রেকর্ড সহ জমির সমস্ত কাগজপত্র ও ওয়ারিশন সার্টিফিকেট সহ আবেদনপত্র জমা দিতে হবে বিএলআরও অফিসে। সমস্ত কিছু খতিয়ে দেখে বিএলআরও তাঁদের সার্টিফিকেট দেবেন। ওই সার্টিফিকেটর ভিত্তিতে তাঁদের ক্ষতিপূরণের টাকা দেওয়া হবে। ক্ষতিপূরণ দেওয়ার প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হলে, একইভাবে তাঁদের কৃষকবন্ধু প্রকল্পের সুবিধাও দেওয়া হবে। উত্তর ২৪ পরগনা জেলা পরিষদের সভাধিপতি বীণা মণ্ডল বলেন, আইনি জটিলতার কারণে রেকর্ড না থাকা অনেক কৃষককে বুলবুলের ক্ষতিপূরণ ও কৃষকবন্ধু প্রকল্পের সুবিধা দেওয়া যাচ্ছিল না। রাজ্য সরকার নতুন সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এর ফলে সমস্ত কৃষককে বুলবুলের ক্ষতিপূরণের টাকা ও কৃষকবন্ধু প্রকল্পে সুবিধা দেওয়া যাবে।

  সরকার এবার কঠোর হবে, হুঁশিয়ারি পার্থর, গুরুত্ব দিচ্ছেন না পার্শ্বশিক্ষকরা

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: আন্দোলনরত পার্শ্বশিক্ষকদের চরম হুঁশিয়ারি দিয়ে রাখলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার সাংবাদিক বৈঠক করে তিনি স্পষ্ট জানিয়ে দেন, অনেক হয়েছে। এবার সরকারকে কঠোর হতে হবে। ছাত্রছাত্রীদের ভবিষ্যৎ নিয়ে খেলতে দেব না। বিশদ

দ্বৈরথ চরমে, বিধানসভা ভবন পরিদর্শনে গিয়ে বিড়ম্বনায় ধনকার

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের পর রাজ্য বিধানসভা। ফের রাজ্যপাল জগদীপ ধনকারকে বিড়ম্বনার মুখে পড়তে হল সরকারিভাবে অভ্যর্থনা না পাওয়ার ইস্যুকে কেন্দ্র করে। বৃহস্পতিবার তাঁর বিধানসভা ভবন পরিদর্শন কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে রাজ্যের সঙ্গে সংঘাতের সম্ভাবনা আগেই তৈরি হয়েছিল। বিশদ

 অর্থনীতির অন্ধকার যুগ চলছে,
কেন্দ্রকে তীব্র আক্রমণ মমতার

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: গোটা দেশের অর্থনীতিতে অন্ধকারের যুগ চলছে। মোদি সরকারের নোটবন্দির ফল মানুষ এখন হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছে। বাড়িতে টাকা রাখলে নোটবন্দি, আর ব্যাঙ্কে টাকা রাখলে লুটবন্দি। মানুষ কোথায় যাবে? দেশের অর্থনীতিতে অন্ধকারতম সময় চলছে।
বিশদ

মধ্যশিক্ষা পর্ষদ থেকে
উধাও ২৬ লক্ষ টাকা!

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: মধ্যশিক্ষা পর্ষদের বিপুল পরিমাণ টাকার হিসেব মিলছে না। সূত্রের খবর, কয়েক বছর ধরে মোট প্রায় ২৬ লক্ষ টাকা উধাও হয়েছে পর্ষদের। বৃহস্পতিবার বিষয়টি সামনে আসায় বিধাননগর (পূর্ব) থানায় পর্ষদের তরফে খবর দেওয়া হয়। আসে বিশাল পুলিসবাহিনী। যদিও, লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়েছে অনেক রাতে।
বিশদ

ত্রুটি থাকলে ফেরত পাঠান, ধরে রেখেছেন কেন, পাল্টা পার্থ
গণপিটুনি বিল: পেশ করার জন্য পাঠানো ও
পাশ হওয়া দু’টি বিল ভিন্ন, বললেন রাজ্যপাল

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: বিধানসভায় পাশ হওয়া গণপিটুনি বিলের ভবিষ্যৎ যে কার্যত বিশ বাঁও জলে, বৃহস্পতিবার তেমনই ইঙ্গিত মিলল স্বয়ং রাজ্যপাল জগদীপ ধনকারের কথায়। বিধানসভা ভবন পরিদর্শন করতে এসে বিড়ম্বনায় পড়া ধনকার এদিন বলেন, গণপিটুনি সংক্রান্ত বিষয়ে বিধানসভায় পেশের জন্য তাঁর সই করা এবং পরে পাশ হওয়া বিল দু’টি ভিন্ন। বিশদ

শাসকদল-রাজ্যপালের বিরোধ বেনজির পর্যায়ে
এরাজ্যে মহারাষ্ট্র মডেলে সমান্তরাল
প্রশাসন চালানো যাবে না: মুখ্যমন্ত্রী

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: গোটা দেশেই সমান্তরাল প্রশাসন চালানো হচ্ছে। এরাজ্যে মহারাষ্ট্র মডেলে সমান্তরাল প্রশাসন চালাতে চাইলে তা সহজ হবে না। আমরা ছেড়ে কথা বলব না। লড়াই করতে হলে করব। বিশদ

  পশ্চিমবঙ্গের জন্য বিশেষ আর্থিক সহায়তা আদায়ে উদ্যোগী অধীর, আনছেন প্রাইভেট মেম্বার বিল

 নিজস্ব প্রতিনিধি, নয়াদিল্লি, ৫ ডিসেম্বর: তৃণমূলের সঙ্গে সম্পর্ক আদায় কাঁচকলায় হলেও রাজ্যের উন্নয়নের প্রশ্নে এবার পশ্চিমবঙ্গের জন্য কেন্দ্রের কাছ থেকে বিশেষ আর্থিক সহায়তা আদায়ে উদ্যোগী হলেন লোকসভার কংগ্রেসের দলনেতা অধীররঞ্জন চৌধুরী। বিশদ

 চিটফান্ডের সুবিধাপ্রাপকরাই চান ডাকঘরে স্বল্প সঞ্চয় বন্ধ করতে, ধর্মতলায় বললেন সুজন-মান্নান

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: মানুষ স্বল্প সঞ্চয় প্রকল্পে আগ্রহী হলে চিটফান্ডগুলির লোক ঠকানো চলবে না। তাই চিটফান্ড থেকে যারা নানাভাবে সুবিধা পেয়েছে, তারা কেউ চায় না স্বল্প সঞ্চয় প্রকল্পগুলি উজ্জীবিত হোক। বিশদ

কারিগরি শিক্ষা দপ্তরের নজরে একাধিক স্বশাসিত সংস্থা, অর্ডার নিয়ে প্রশ্ন কর্মী-আধিকারিকদের

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: কারিগরি শিক্ষা, প্রশিক্ষণ এবং দক্ষতা উন্নয়ন দপ্তর তার অধীন যাবতীয় সংস্থাগুলির উপর নজরদারি বাড়াচ্ছে। ৪ ডিসেম্বরের তারিখ দেওয়া, ৫ ডিসেম্বর প্রকাশিত একটি অর্ডারে সংস্থাগুলির যাবতীয় কাজকর্মকে মন্ত্রীর আওতায় নিয়ে আসা হয়েছে। বিশদ

শিক্ষা দিয়েছে হায়দরাবাদ
মহিলাদের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে
নয়া বাহিনী গড়ছে লালবাজার

 সুজিত ভৌমিক, কলকাতা: হায়দরাবাদে মহিলা চিকিৎসককে গণধর্ষণ ও নৃশংসভাবে খুনের পর এবার কলকাতা শহরে কর্মরত মহিলাদের সুরক্ষা দিতে নয়া বাহিনী গড়ছে কলকাতা পুলিস। এরজন্য ৭৫টি গাড়ি কেনা হচ্ছে। রাতের শহরে নানা প্রয়োজনে যে সব অঞ্চলে মহিলাদের যাতায়াত বেশি, সেখানেই টহল দেবে এই বাহিনী।
বিশদ

  ফসলের গোড়া পোড়ানো রুখতে এবার উপগ্রহ চিত্রের মাধ্যমে নজরদারি চাইছে রাজ্য

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: ফসলের গোড়া বা নাড়া পোড়ানো রুখতে এবার উপগ্রহ চিত্রের মাধ্যমে সর্বক্ষণ নজরদারি করতে চাইছে রাজ্য। মূলত কোথায় কোথায় ফসল পোড়ানো হচ্ছে, সেটা জানতেই এই পরিকল্পনা। রাজ্য দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের পক্ষ থেকে এবিষয়ে ইতিমধ্যে পরিকল্পনা শুরু করে দেওয়া হয়েছে। বিশদ

 শিক্ষামন্ত্রীকে পদত্যাগপত্র ইমেল করলেন বৈশাখী

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: অধ্যাপক পদ ছাড়তে চেয়ে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে চিঠি দিলেন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার তাঁকে ইমেল মারফত ইস্তফাপত্র পাঠিয়েছেন তিনি। মিল্লি আল আমিন কলেজের রাষ্ট্র বিজ্ঞানের এই অধ্যাপিকা আগেও একবার অব্যাহতি চেয়ে মন্ত্রীকে চিঠি দিয়েছিলেন। বিশদ

রাজ্যে গণতন্ত্র নেই, বন্ধ বিধানসভার
গেটের সামনে দাঁড়িয়ে ক্ষোভ রাজ্যপালের
 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: ফের রাজ্য-রাজ্যপাল সংঘাত। আজ বিধানসভার সামনে দাঁড়িয়েই রাজ্যে গণতন্ত্র নেই বলে কটাক্ষ করলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকার। আজ সকাল ১০টা ৫০ মিনিটে বিধানসভায় আসেন রাজ্যপাল। কিন্তু ঢুকতে গিয়েই দেখেন গেট বন্ধ। সমস্যার সূত্রপাত সেখান থেকেই।   বিশদ

05th  December, 2019
লঙ্কা ১০ টাকায় কিনে বিক্রি ১৪০ টাকায়
পেঁয়াজ ১৪০ টাকা,
আগুন সব্জিবাজারে

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: কয়েকদিন আগে কলকাতার খুচরো বাজারে কেজিতে একশো টাকা ছোঁয়ার পর পেঁয়াজের দাম সামান্য কমায় সাধারণ ক্রেতারা কিছুটা স্বস্তি পেয়েছিলেন। কিন্তু বুধবারই খুচরো বাজারে পেঁয়াজের দাম অস্বাভাবিক বেড়ে একশো টাকা ছাড়িয়েও অনেকটা চড়া হল। কলকাতার অধিকাংশ বাজারে এদিন ১২০ থেকে ১৪০ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে। খুব ভালো মানের পেঁয়াজের দাম দেড়শো টাকার আশপাশে ছিল বলে জানা গিয়েছে।
বিশদ

05th  December, 2019

Pages: 12345

একনজরে
 সংবাদদাতা, উলুবেড়িয়া: বাড়িতে নিয়ে গিয়ে ভাইঝির উপর যৌন নির্যাতনের অভিযোগ উঠল খুড়তুতো জেঠার বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার দুপুরে শ্যামপুর থানার খাড়ুবেড়িয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের মরশাল গ্রামে। ...

সংবাদদাতা, কাঁথি: খেজুরি-১ বিডিওর উদ্যোগে বিবাহিতা এক নাবালিকাকে উদ্ধার করা হল। পাশাপাশি নাবালিকার পরিবারের লোকজন পুলিস¬-প্রশাসনের কাছে মুচলেকা দিয়ে জানিয়েছেন, মেয়ে ১৮বছর হলেই তাকে স্বামীর বাড়িতে পাঠানো হবে। ততদিন পর্যন্ত বাপেরবাড়ির হেফাজতেই থেকে পড়াশোনা করবে সে।  ...

 ইসলামাবাদ, ৫ ডিসেম্বর (পিটিআই): পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট আসিফ আলি জারদারির স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য মেডিক্যাল বোর্ড গঠনের নির্দেশ দিল পাকিস্তানের আদালত। বৃহস্পতিবার সংবাদমাধ্যমের এক রিপোর্টে এমনটাই জানা গিয়েছে। ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে পাঁচটা। স্থান সল্টলেক স্টেডিয়াম। যুবভারতীর বাঁ দিকে পাশাপাশি দু’টি প্র্যাকটিস গ্রাউন্ড। এটিকে’র প্র্যাকটিসের জন্য প্রথম মাঠটির ফ্লাড লাইট জ্বলে ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

অতিরিক্ত পরিশ্রমে শারীরিক ক্লান্তি। প্রিয়জনের বিপদগামিতায় অশান্তি ও মানহানির আশঙ্কা। সাংসারিক ক্ষেত্রে মতানৈক্য এড়িয়ে চলা ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮২৩: জার্মান দার্শনিক ম্যাক্সমুলারের জন্ম
১৮৫৩: ঐতিহাসিক ও শিক্ষাবিদ হরপ্রসাদ শাস্ত্রীর জন্ম
১৯৫৬: দলিত আন্দোলনের নেতা ভীমরাওজি রামাজি আম্বেদকরের মৃত্যু
১৯৮৫: ক্রিকেটার আর পি সিংয়ের জন্ম
১৯৯২: অযোধ্যার বিতর্কিত সৌধ ধ্বংস
২০১৬ - তামিলনাড়ুর প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী জয়ললিতার মৃত্যু



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৯.৯২ টাকা ৭৩.০৯ টাকা
পাউন্ড ৯১.৬২ টাকা ৯৬.০৫ টাকা
ইউরো ৭৭.৪২ টাকা ৮১.১৯ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,৭২৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,৭৪০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৭,২৯০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৪,২০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৪,৩০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ৬ ডিসেম্বর ২০১৯, শুক্রবার, দশমী অহোরাত্র। উত্তরভাদ্রপদ ৪২/৬ রাত্রি ১০/৫৭। সূ উ ৬/৬/৫৩, অ ৪/৪৭/৫৩, অমৃতযোগ দিবা ৬/৪৮ মধ্যে পুনঃ ৭/৩২ গতে ৯/৪০ মধ্যে পুনঃ ১১/৪৮ গতে ২/৩৯ মধ্যে পুনঃ ৩/২৩ গতে অস্তাবধি। রাত্রি ৫/৪১ গতে ৯/১৪ মধ্যে পুনঃ ১১/৫৪ গতে ৩/২৭ মধ্যে পুনঃ ৪/২০ গতে উদয়াবধি, বারবেলা ৮/৪৭ গতে ১১/২৭ মধ্যে, কালরাত্রি ৮/৭ গতে ৯/৪৭ মধ্যে।
১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ৬ ডিসেম্বর ২০১৯, শুক্রবার, দশমী ৫৮/২৮/৪৯ শেষরাত্রি ৫/৩১/৫০। উত্তরভাদ্রপদ ৪১/৪৫/৪১ রাত্রি ১০/৫০/৩৪, সূ উ ৬/৮/১৮, অ ৪/৪৮/২৩, অমৃতযোগ দিবা ৭/২ মধ্যে ও ৭/৪৪ গতে ৯/৫০ মধ্যে ও ১১/৫৭ গতে ২/৫১ মধ্যে ও ৩/২৭ গতে ৪/৪৮ মধ্যে এবং রাত্রি ৫/৪৫ গতে ৯/২১ মধ্যে ও ১২/৩ গতে ৩/৩৮ মধ্যে ও ৪/৩২ গতে ৬/৯ মধ্যে, কালবেলা ১০/৮/২০ গতে ১১/২৮/২১ মধ্যে, কালরাত্রি ৮/৮/২২ গতে ৯/৪৮/২১ মধ্যে।
৮ রবিয়স সানি

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে সিরিজের প্রথম টি-২০ জিতল ভারত

10:31:05 PM

 প্রথম টি২০: ভারত ১৭৭/২ (১৬ ওভার)

10:13:22 PM

প্রথম টি২০: ভারত ৮৯/১ (১০ ওভার) 

09:34:38 PM

প্রথম টি২০: ভারতকে ২০৮ রানের টার্গেট দিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ 

08:34:59 PM

প্রথম টি২০: ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১৪৪/৩ (১৫ ওভার) 

08:09:22 PM

প্রথম টি২০: ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১০১/২ (১০ ওভার) 

07:47:55 PM