Bartaman Patrika
রাজ্য
 
 

 

অপর্যাপ্ত ক্লাসরুম, প্রাথমিকে পঞ্চম
শ্রেণী এখনই আসা নিয়ে সংশয়

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: আগামী শিক্ষাবর্ষে প্রাথমিকে পঞ্চম শ্রেণীর আসা বড়সড় প্রশ্নচিহ্নের মুখে। সরকারের এই পরিকল্পনা কার্যকর করতে স্কুলগুলিতে যে অতিরিক্ত ক্লাসরুমের বন্দোবস্ত করতে হবে, তার সংখ্যা এখনও প্রায় ৬৫ হাজার। সরকারের কর্তাব্যক্তিরাই বলছেন, আগে থেকে নিশ্চিত মন্তব্য করে দেওয়া ঠিক হবে না। তবে, বাস্তব চিত্র বলছে, এটা রূপায়ণ করা আপাতত বেশ কঠিন। কারণ কোনওভাবেই অতিরিক্ত ক্লাসরুম তৈরির কাজ এত কম সময়ে শেষ হবে না। আর কিছু ক্লাসরুমের কাজ শেষ করে তা ধাপে ধাপে চালু করে দেওয়ার ইচ্ছেও সরকারের নেই।
পঞ্চম শ্রেণীকে মাধ্যমিকে নিয়ে আসার পরিকল্পনা বেশ কয়েক বছরের। এত বিপুল সংখ্যক প্রাথমিক স্কুলে একটি বাড়তি ক্লাস নিয়ে আসার প্রক্রিয়াটা সহজ নয়। এর জন্য বাড়তি পরিকাঠামো প্রয়োজন। ক্লাসরুম তো বটেই, সমান অনুপাতে অন্যান্য পরিকাঠামো বৃদ্ধিরও প্রয়োজনীয়তা ছিল। এই লক্ষ্যে বাজেটে প্রাথমিক শিক্ষায় বাড়তি অর্থও বরাদ্দ করে সরকার। বহু স্কুলকে অতিরিক্ত ক্লাসরুম (এসিআর) তৈরির অর্থ দেওয়া হয়। অন্যান্য পরিকাঠামো উন্নয়নের জন্যও বিভিন্ন সময় ধাপে ধাপে টাকা দেওয়া হয়েছে। তারপর পঞ্চম শ্রেণীকে প্রাথমিকে আনার জন্য সরকার গত বছর একটি উচ্চ পর্যায়ের কমিটি গঠন করে দিয়েছিল। তারা রাজ্যের বিভিন্ন স্কুলের হাল-হকিকৎ খতিয়ে দেখে। এখন দেখা যাচ্ছে, সিংহভাগ কাজই বাকি রয়ে গিয়েছে।
শিক্ষামন্ত্রী ঘনিষ্ঠমহলে জানিয়েছেন, প্রায় ২০০ স্কুলে এখনও প্রাথমিকেই পঞ্চম শ্রেণী রয়েছে। কিন্তু বাকিগুলিতে চালুর ক্ষেত্রে এখনও চূড়ান্ত ঘোষণার সময় আসেনি। বহু স্কুল এসিআর গ্রান্টের টাকা অন্য প্রকল্পেও ব্যয় করে দিয়েছে বলে ঊষ্মাপ্রকাশ করেন তিনি। শিক্ষা দপ্তরের কর্তারা বলছেন, পঞ্চম শ্রেণী প্রাথমিকে আনার অনেক ইতিবাচক দিক রয়েছে। কিন্তু সেটা ধাপে ধাপে চালু করে কোনও লাভ হবে না। তৃণমূল শিক্ষা সেলের নেতা জয়দেব গিরি বলেন, শিক্ষাবিদ রুশোও বলেছেন, যে কোনও প্রতিষ্ঠানে ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে বয়সের বিভাজন পাঁচ বছরের কম হওয়া উচিত। জাতীয় শিক্ষানীতিতেও তাই বলা রয়েছে। বিএড পাঠ্যক্রমেও এটা পড়ানো হচ্ছে। কিন্তু সেই বিএড ডিগ্রি নিয়ে আসা প্রার্থীরা শিক্ষক হয়ে দেখছেন, বাস্তব ছবিটা অন্য। একটি উচ্চ মাধ্যমিক স্কুলে পঞ্চম এবং একাদশ-দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্রদের মধ্যে বয়সের ফারাকটা অনেকটাই বেশি হয়ে যায়। এর ফলে, একই প্রতিষ্ঠানে থাকার জন্য বয়ঃসন্ধিকালের যাবতীয় নেতিবাচক দিকগুলি উঁচু ক্লাসের পড়ুয়াদের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে ছোট ছেলেমেয়েদের মধ্যেও। এটা একটি গুরুত্বপূর্ণ দিক। আবার এটাও ঠিক, পঞ্চম শ্রেণী হাইস্কুলে পড়ানোর জন্য ১৫,০০০ বাড়তি শিক্ষককে নিয়োগ করতে হচ্ছে। এঁদের বেতন কাঠামো প্রাথমিক শিক্ষকদের থেকে অনেকটাই বেশি। এর জন্য বাড়তি ৫০ কোটি টাকা খরচ করতে হচ্ছে রাজ্য সরকারকে, দাবি জয়দেববাবুর।
যদিও প্রথমে ব্যাপারটা ধাপে ধাপে করারই পরিকল্পনা ছিল। প্রাথমিকভাবে ঠিক হয়েছিল, ১৫০০ বা তার বেশি সংখ্যক ছাত্রছাত্রী রয়েছে, এমন স্কুলগুলিকে এর আওতায় আনা হবে। একটি বড় হাইস্কুলের ফিডার প্রাথমিক স্কুলগুলিতে এই বাড়তি ছাত্রছাত্রী ভাগ করে দেওয়া হবে। তার জন্য পরিকাঠামো গড়ে তোলা হবে সেগুলিতে। এর পরের ধাপে আসবে ১০০০ বা তার বেশি সংখ্যক ছাত্রছাত্রী থাকা স্কুলগুলি। তারপর আসবে ১০০০-এর কম পড়ুয়ার স্কুলগুলি। এভাবে পাঁচ বছরে গোটা ব্যাপারটি রেগুলারাইজড (নিয়মিত) হয়ে যাবে বলে আশা করেছিলেন আধিকারিকরা। যদিও সরকার বা শাসক-ঘনিষ্ঠ শিক্ষকদের একাংশ চাইছিল, ২০২০ সালের মধ্যেই গোটা প্রক্রিয়া শেষ করা হোক।

08th  November, 2019
সব বিশ্ববিদ্যালয়ে রাজ্যপালের
ক্ষমতা খর্ব করল রাজ্য সরকার
নিয়ন্ত্রণের চাবিকাঠি শিক্ষাদপ্তরের হাতে 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: রাজ্যপালের বিশ্ববিদ্যালয় সংক্রান্ত ক্ষমতা খর্ব করল রাজ্য সরকার। এ নিয়ে মঙ্গলবার বিধি পাশ হল বিধানসভায়। সেই অনুযায়ী, শিক্ষা দপ্তরকে জানিয়েই উপাচার্যদের যাবতীয় কাজ করতে হবে।
বিশদ

পাইকারিতে দাম কমলেও খুচরো বাজারে পেঁয়াজ চড়ে দেড়শোতেই 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: জোগান বৃদ্ধির জেরে পাইকারি বাজারে পেঁয়াজের দাম প্রতিদিন কমছে। কয়েকদিনের মধ্যে দাম আরও কমবে বলে আশা করছে ব্যবসায়ী মহলও। কিন্তু খুচরো বাজারে এর প্রতিফলন মঙ্গলবার পর্যন্ত সেভাবে পড়েনি। কলকাতা ও আশপাশের অধিকাংশ বাজারে ১৪০-১৫০ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে।  
বিশদ

মমতার বাণিজ্য সম্মেলন
আজ, সেজে উঠেছে দীঘা

দেবাঞ্জন দাস, দীঘা: ব্যবসা-বাণিজ্য আর শিল্পস্থাপনের ক্ষেত্রে সমন্বয়, সংযোগ আর বিকেন্দ্রীকরণের লক্ষ্যকে সামনে রেখে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্যোগে আজ, বুধবার থেকে সৈকতনগরী দীঘায় শুরু হচ্ছে ‘বেঙ্গল বিজনেস কনক্লেভ’ (বিবিসি)। একইসঙ্গে বিজনেস কনক্লেভের মাধ্যমে দীঘা, তাজপুর, মন্দারমণি আর শঙ্করপুরের মতো সমুদ্রতটকে পর্যটন গন্তব্য হিসেবে দেশ-বিদেশের প্রতিনিধিদের সামনে তুলে ধরাটাও লক্ষ্য টিম মমতার। 
বিশদ

বিধানসভায় ধনকার-বিরোধী বিক্ষোভ তৃণমূল বিধায়কদের, পাল্টা চিঠি অধ্যক্ষকে
রাজ্য-রাজ্যপাল সংঘাত সপ্তমে, তফসিলি কমিশন আইন তৈরি নিয়ে জটিলতা চরমে 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: রাজ্যে তফসিলি জাতি ও উপজাতিদের উন্নয়নের লক্ষ্যে নতুন একটি কমিশন গঠন করতে প্রয়োজনীয় আইন তৈরি করার পথে জটিলতা চরম আকার নিল। আর এই ইস্যুতে রাজ্য সরকার বনাম রাজ্যপাল জগদীপ ধনকারের সংঘাত সপ্তমে উঠল। 
বিশদ

বাম আমলে পেয়েছিলেন মাত্র ৮ কোটি টাকা
অসংগঠিত ক্ষেত্রের শ্রমিকরা গত আট বছরে অনুদান পেয়েছেন ১৫৮০ কোটি 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: অসংগঠিত ক্ষেত্রের শ্রমিকদের জন্য বাম আমলের ১১ বছরে, অর্থাৎ ২০০০ সাল থেকে ২০১১ পর্যন্ত, অনুদান দেওয়া হয়েছিল মাত্র ৮ কোটি টাকা। সেখানে গত আট বছরে মমতা সরকারের আমলে অনুদান দেওয়া হয়েছে ১৫৮০ কোটি টাকা। 
বিশদ

অ্যাকাডেমিক ক্যালেন্ডারে উল্লেখ
পড়ুয়াদের স্কুলে মোবাইল নিয়ে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা বোর্ডের, নিয়ন্ত্রণ শিক্ষকদের উপরও 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: স্কুলে আর পড়ুয়ারা মোবাইল নিয়ে ঢুকতে পারবে না। এবার লিখিতভাবে তা জানিয়ে দিল মধ্যশিক্ষা পর্ষদ। আগামী বছরের অ্যাকাডেমিক ক্যালেন্ডারে তা বলা হয়েছে। এতদিন এ নিয়ে সেভাবে লিখিত কিছু ছিল না। স্কুলগুলি তাদের মতো করে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল। কিন্তু এবার বোর্ড তা সরকারিভাবে জানিয়ে দিল। 
বিশদ

আসন বাড়লেও বিধানসভা অধিবেশনে নিষ্প্রভ বিজেপি
অস্তিত্বের সঙ্কটেও বিরোধী ভূমিকায় কংগ্রেস-বাম

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: কোনও বিল পাশ না করেই মঙ্গলবার শেষ হল বিধানসভার অধিবেশন। প্রথা মেনে ধন্যবাদজ্ঞাপন হল না। অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, আগামী বছরে পরবর্তী অধিবেশন। আপাতত অনির্দিষ্টকালের জন্য মুলতুবি। এই অধিবেশনে দেখা গেল, রাজ্যে শাসকের প্রধান প্রতিপক্ষ হলেও বিধানসভায় নিষ্প্রভ বিজেপি।  
বিশদ

গ্রামে পঞ্চায়েতের মাধ্যমে বিপুল উন্নতির কথা তুলে ধরলেন সুব্রত, আরও নজরদারি দাবি 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: পঞ্চায়েতের কিছু কাজে আরও গতি ও নজরদারি আনার কথা বিধানসভায় তুললেন শাসক তৃণমূল কংগ্রেসের কয়েকজন বিধায়কও। রাস্তাঘাট তৈরি, আবাস যোজনায় বাড়ি নির্মাণ, শৌচাগার তৈরি, একশো দিনের প্রকল্পে আরও কাজের প্রসঙ্গ তুললেন তাঁরা।  
বিশদ

প্রতিহিংসার শাস্তিতে সভ্যতা থাকে না, মন্তব্য রাজ্য মানবাধিকার কমিশন চেয়ারম্যানের 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: নিরপেক্ষ বিচারের দাবি রাখেন কোনও ঘটনায় অভিযুক্ত ব্যক্তিও। দোষী প্রমাণিত না হওয়া পর্যন্ত আইনের চোখে তিনি দোষী নন। প্রতিহিংসার জন্য, আবেগ নির্ভর হয়ে কাউকে শাস্তি দেওয়া হলে সেখানে সভ্যতা থাকে না। 
বিশদ

বাংলায় এনআরসি চালু করা নিয়ে অমিত
শাহকে চ্যালেঞ্জ তৃণমূলের, পাশে কংগ্রেসও

সন্দীপ স্বর্ণকার, নয়াদিল্লি, ১০ ডিসেম্বর: গতকাল মধ্যরাতে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাশ আটকাতে না পারলেও কেন্দ্রের বিরুদ্ধে আক্রমণ বজায় রাখল বিরোধীরা। রাহুল গান্ধী গতকাল রাতে লোকসভায় ভোটাভুটিতে বিল বিরোধী ভোট দেওয়ার পাশাপাশি আজ ট্যুইট করে তোপ দেগেছেন।  
বিশদ

বিধির বাঁধনে হস্তক্ষেপ স্বাধিকারে, সরব শিক্ষক-রাজনৈতিক মহল 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: বিশ্ববিদ্যালয় সংক্রান্ত রাজ্যপালের ক্ষমতা খর্ব করা নিয়ে যে বিধি পেশ হল, তা নিয়ে সরব হয়েছে শিক্ষক থেকে রাজনৈতিক মহল। শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সাফাই, কার কী দায়িত্ব সেটাই স্রেফ বলা হয়েছে। কিন্তু তা মানতে নারাজ শিক্ষকমহল। এই বিধির মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাধিকারে হস্তক্ষেপ হচ্ছে বলে দাবি তাদের।
বিশদ

পর্ষদ এলাকায় প্রতি মাসে বিদ্যুৎ বিল চালু করার দাবি কংগ্রেসের 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: পর্ষদ এলাকায় তিন মাসের বদলে প্রতি মাসের ভিত্তিতে বিদ্যুতের বিল চালুর দাবি তুলল কংগ্রেস। মঙ্গলবার বিধানসভা অধিবেশনের শেষ দিন কংগ্রেস নেতা নেপাল মাহাত ও অসিত মিত্র যৌথভাবে এই বিষয়ে মুলতুবি প্রস্তাব এনেছিলেন।  
বিশদ

জিএসটি’র বকেয়া নিয়ে রাজ্যপালকে পাল্টা দিলেন অমিত মিত্র 

নিজস্ব প্রতিনিধি, দীঘা: জিএসটি বাবদ রাজ্যের প্রাপ্য ২২০০ কোটি টাকা গত তিনমাস ধরে মেটায়নি কেন্দ্র সরকার। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নিউ দীঘার কনভেনশন সেন্টারে এক সাংবাদিক সম্মেলনে এই অভিযোগ করলেন রাজ্যের শিল্প-অর্থমন্ত্রী ডঃ অমিত মিত্র। 
বিশদ

ধনকারের বিরুদ্ধে সরব তৃণমূল ওয়াক আউট রাজ্যসভা থেকে 

নয়াদিল্লি, ১০ ডিসেম্বর (পিটিআই): এবার এসসি-এসটি কমিশন বিল আটকে রাখা নিয়ে নিয়ে সংসদে সোচ্চার হল তৃণমূল কংগ্রেস। লোকসভায় প্রসঙ্গটি তোলেন এমপি সৌগত রায়। আর রাজ্যপাল জগদীপ ধনকার সম্পর্কে প্রশ্ন তুলতে না দেওয়ায় রাজ্যসভা থেকে ওয়াক আউট করল তৃণমূল কংগ্রেস। 
বিশদ

Pages: 12345

একনজরে
নয়াদিল্লি, ১০ ডিসেম্বর (পিটিআই): নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের বিরুদ্ধে সংসদের বাইরে আরও সরব কংগ্রেস। দলের দুই অন্যতম প্রধান মুখ রাহুল এবং প্রিয়াঙ্কা গান্ধী সোশ্যাল সাইটে এই বিলের বিরুদ্ধে সুর চড়ালেন। তাঁদের দু’জনের মতে, গণতন্ত্র ধ্বংস করার ষড়যন্ত্র করছে কেন্দ্র।   ...

গুয়াংঝৌ, ১০ ডিসেম্বর: বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপ ব্যাডমিন্টনে সোনা জেতার পর ফর্ম হারিয়েছেন পিভি সিন্ধু। বছরের শেষ টুর্নামেন্ট ওয়ার্ল্ড ট্যুর ফাইনালে খেতাব ধরে রাখাই লক্ষ্য গোপীচাঁদের এই ছাত্রীর। ওয়ার্ল্ড ট্যুর ফাইনালে বিশ্বের প্রথম আটজন খেলার সুযোগ পেয়েছেন। সিন্ধুর এখন র‌্যাঙ্কিং ১৫।  ...

মঙ্গল ঘোষ, গাজোল, সংবাদদাতা: দেশলাইয়ের বিভিন্ন মার্কা ও কাঠি দিয়ে নানা শিল্পকর্ম করে সাড়া ফেলে দিয়েছেন ইংলিশবাজার শহরের বাসিন্দা সুবীর কুমার সাহা। কখনও আর্ট পেপারে ...

মাদ্রিদ ১০ ডিসেম্বর (পিটিআই): গ্রিন হাউস গ্যাসের নির্গমণের মাত্রা কমিয়ে এনে আন্তর্জাতিক মঞ্চে উচ্চ প্রশংসিত হল ভারত। মঙ্গলবার মাদ্রিদে জলবায়ু সংক্রান্ত শীর্ষ সম্মেলন সিওপি-২৫’-এ ‘ক্লাইমেক্স চেঞ্জ পারফরমেন্স ইনডেক্স (সিসিপিআই) প্রকাশিত হয়। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
aries

মানসিক অস্থিরতার জন্য পঠন-পাঠনে আগ্রহ কমবে। কর্মপ্রার্থীদের যোগাযোগ থেকে উপকৃত হবেন। ব্যবসায় যুক্ত হলে শুভ। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯২২: অভিনেতা দিলীপকুমারের জন্ম
১৯২৪: সাহিত্যিক সমরেশ বসুর জন্ম
১৯৩৫: প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের জন্ম
১৯৪২: সঙ্গীত পরিচালক আনন্দ শংকরের জন্ম
১৯৬১: অভিনেতা তুলসী চক্রবর্তীর মৃত্যু
১৯৬৯: ভারতীয় দাবাড়ু বিশ্বনাথন আনন্দের জন্ম
২০০৪: সঙ্গীতশিল্পী এম এস শুভলক্ষ্মীর মৃত্যু
২০১২: সেতারশিল্পী রবিশঙ্করের মৃত্যু  





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৯.৪২ টাকা ৭২.৫৪ টাকা
পাউন্ড ৯১.১৯ টাকা ৯৫.৫৯ টাকা
ইউরো ৭৬.৭৫ টাকা ৮০.৪৪ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,২৩৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,২৭৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৬,৮২০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৩,৫০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৩,৬০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, বুধবার, চতুর্দশী ১২/৩ দিবা ১০/৫৯। রোহিণী অহোরাত্র। সূ উ ৬/১০/১৮, অ ৪/৪৯/০, অমৃতযোগ দিবা ৬/৫২ মধ্যে পুনঃ ৭/৩৫ গতে ৮/১৮ মধ্যে পুনঃ ১০/২৫ গতে ১২/৩৩ মধ্যে। রাত্রি ৫/৪২ গতে ৬/৩৫ মধ্যে পুনঃ ৮/২২ গতে ৩/৩০ মধ্যে, বারবেলা ৮/৫০ গতে ১০/১০ মধ্যে পুনঃ ১১/৩০ গতে ১২/৫০ মধ্যে, কালরাত্রি ২/৪৯ গতে ৪/৩০ মধ্যে।
২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, বুধবার, চতুর্দশী ১১/৩৯/৪১ দিবা ১০/৫১/২৭। কৃত্তিকা ০/৪১/৪৪ প্রাতঃ ৬/২৮/১৭, সূ উ ৬/১১/৩৫, অ ৪/১/১৭, অমৃতযোগ দিবা ৭/২ মধ্যে ও ৭/৪৪ গতে ৮/৩২ মধ্যে ও ১০/৩৩ গতে ১২/৪০ মধ্যে এবং রাত্রি ৫/৪৮ গতে ৬/৪১ মধ্যে ও ৮/২৯ গতে ৩/৩৯ মধ্যে, কালবেলা ৮/৫১/২ গতে ১০/১০/৪৫ মধ্যে, কালরাত্রি ২/৫১/২ গতে ৪/৩১/১৯ মধ্যে।
১৩ রবিয়স সানি

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
কনিষ্ঠ প্রধানমন্ত্রীকে পরামর্শ সবচেয়ে প্রবীণ প্রধানমন্ত্রীর
‘বুড়োদের থেকে পরামর্শ নেওয়া ভালো।’ মঙ্গলবার, বিশ্বের সর্বকনিষ্ঠ প্রধানমন্ত্রীকে এই ...বিশদ

09:40:00 AM

 মুম্বই মেলে অত্যাধুনিক রেক
যাত্রীদের সফর আরও সুরক্ষিত এবং অধিক স্বাচ্ছন্দ্যযুক্ত করতে হাওড়া-মুম্বই সিএসএমটি-হাওড়া ...বিশদ

09:30:00 AM

শীতের আমেজ উধাও !
শীতে জাঁকিয়ে ঠান্ডা পড়ার সম্ভাবনা আরও কমল। আরব সাগরের গভীর ...বিশদ

09:13:54 AM

পরীক্ষায় খারাপ ফল, ৬ পড়ুয়ার মুখে কালি  
বয়স কতোই বা হবে। এরমধ্যেই অধরা সাফল্যের শাস্তি পেয়ে গেল ...বিশদ

09:00:00 AM

শিলিগুড়িতে ট্রেনের ধাক্কায় ২টি হাতির মৃত্যু 
বুধবার ভোর ৫টা নাগাদ শিলিগুড়ি মহকুমার খড়িবাড়ি ব্লকের দূতগেট সংলগ্ন ...বিশদ

08:57:28 AM

 জলের আয়রন দূর করার নয়া প্রযুক্তি
জলের আয়রন দূর করতে এক ধরনের আয়রন রিম্যুভাল ফিল্টার বানিয়েছে ...বিশদ

08:50:00 AM