Bartaman Patrika
রাজ্য
 

নিয়মনিষ্ঠা মেনেই হোক দুর্গাপুজো, নিজেদের যোগ্যতাও যাচাই হোক, চান পুরোহিতরা

বীরেশ্বর বেরা, কলকাতা: দুর্গাপুজোর প্যান্ডেল থেকে শুরু করে আলো, সাউন্ড, এমনকী ঢাকিদের পর্যন্ত যাচাই করে নেন উদ্যোক্তারা। কিন্তু যে পুরোহিত ছাড়া পুজো সম্ভব নয়, তাঁদের যোগ্যতা, শিক্ষা ও পুজোর পদ্ধতি যাচাই করেন না কেউ। পুজোয় বসার আগে তা অবশ্যই করা উচিত। আদতে ইছাপুরের বাসিন্দা, দেরাদুনের প্রবাসী বাঙালি, কেন্দ্রীয় সরকারি স্কুলের প্রাক্তন শিক্ষক আশিসকুমার বন্দ্যোপাধ্যায় অন্তত এমনটাই মনে করেন। পুজোর বাহ্যিক আড়ম্বরের কারণে উৎসবে নানা রং লেগেছে—এ কথা সত্যি। কিন্তু মূল লক্ষ্য যে পুজো, সেক্ষেত্রে নিষ্ঠা, নিয়মকানুনে খামতি দেখা যাচ্ছে। যতদিন যাচ্ছে, তা আরও প্রকট হচ্ছে। আশিসবাবু সহ একাধিক পুরোহিতের সাফ কথা, সঠিক সময় ধরে সঠিক মন্ত্রোচ্চারণে পুজো করতে হবে। পুজোর যে পদ্ধতি নির্ধারিত হয়ে আছে, সেভাবে করতে না পারলে এর আসল উদ্দেশ্যই মাটি হবে। তাই তাঁদের দাবি, দুর্গাপুজোর পুরোহিত যেন পুজো করার বিষয়ে যথাযথ শিক্ষিত হন। সেই বিষয়ে যত্নশীল হওয়া উচিত পুজোর উদ্যোক্তাদেরও।
দুর্গাপুজোকে কেন্দ্র করে আবর্তিত হয় শারদোৎসব। সেই পুজোর মূল ঋত্বিক পুরোহিতরা। দিনে দিনে পুজোর বাজেট বেড়েছে হু হু করে। থিমের চল আসার পর পুজো প্যান্ডেল কখনও কখনও হয়ে উঠেছে আস্ত আর্ট গ্যালারি। ধর্ম-ভক্তির বেড়া ডিঙিয়ে পুজোর উত্তরণ ঘটেছে উৎসবে। তাতে কোনও আপত্তি নেই পুরোহিতদের। তবে উৎসবের জৌলুস বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে পুজোর সঠিক পদ্ধতির সঙ্গে কেন আপস করা হবে, সেই বিষয়ে প্রশ্ন তুলছেন তাঁরা। বছরের পর বছর ধরে শারদোৎসবের আগে এই সময়টায় টানা কয়েকদিন কর্মশালা করে দুর্গাপুজোর সঠিক পদ্ধতি ও কৃৎকৌশলের প্রশিক্ষণ দেয় সর্বভারতীয় প্রাচ্য বিদ্যা অ্যাকাডেমি। এই প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ জয়ন্ত কুশারীর পরিচালনায় এই কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে গিয়ে বেশ কয়েকজন পুরোহিতের সঙ্গে কথা বলে এ বিষয়ে তাঁদের মতামত জানা গেল।
নিজে পুজো না করলেও পুজোর আচার-বিচার-পদ্ধতিতে খুব আগ্রহ বোধ করেন হাওড়ার কদমতলার বাসিন্দা, পেশায় সেলস ট্যাক্সের পদস্থ কর্মী রুমা দেবনাথ। তাঁর বাড়িতে বাসন্তী পুজো হয়। তিনি বলেন, পুজো করতে গেলে নিষ্ঠা খুব জরুরি। আসলে আমরা বেশিরভাগই সংস্কৃত মন্ত্রগুলির অর্থ বুঝি না, কোনও কাজ কেন করা হয়, সেটা মানুষ যত বেশি জানবেন, ততই পুজোয় নিষ্ঠা, নিয়মকানুন মেনে চলার প্রবণতা বাড়বে। কিন্তু এখন এসবে মানুষের আগ্রহ কম। তাই গুরুত্ব হারিয়েছে। কিন্তু এমনটা হওয়া উচিত নয়। পুজো করতে হলে তার নিয়মকানুন, আচার-বিচার মেনেই করা ভালো।
এবারই প্রথম বাড়ির পুজো করবেন তরুণ সম্ব্রত কুশারী। ডাক্তারির ছাত্র সম্ব্রত বলেন, পড়াশোনার ক্ষেত্রে যেমন নিয়মকানুন জরুরি, তেমনই পুজোর ক্ষেত্রেও। আমরা রসায়নের পরীক্ষাগারে না জেনে যদি একটি পদার্থের সঙ্গে যে কোনও পদার্থ মিশিয়ে ফেলি, তাহলে কাঙ্খিত ফলাফল তো আসবেই না, উল্টে নানা বিপত্তি হতে পারে। ঠিক তেমন পুজোর নিয়মকানুন না জেনে পুজো করলে তার কোনও অর্থ থাকে না। হাওড়ার শিবপুরের সমরকুমার চক্রবর্তী, মধ্যমগ্রামের ত্রিদিব ভট্টাচার্যরা কেউ ২৫ বছর, কেউ ৩০ বছর ধরে দুর্গাপুজো করে আসছেন। তাঁরা বলেন, পুজো কমিটিগুলির উচিত পুরোহিতদের যোগ্যতা খতিয়ে দেখে নেওয়া। পরিপাটি করে পুজো হচ্ছে, কিন্তু অদক্ষ পুরোহিত—এরকম ঘটনা দিন দিন বেড়েই চলেছে। পুজোতে যত আড়ম্বর যোগ হচ্ছে, ততই গুরুত্ব হারাচ্ছে পুজোর মূল বিষয়টি। এটা একেবারেই কাঙ্খিত নয়।
কথা হচ্ছিল এই প্রতিষ্ঠানের প্রধান জয়ন্তবাবুর সঙ্গে। তিনি বলেন, কলকাতার কথা ধরলে, বারোয়ারি পুজোগুলিতে নিয়মকানুন, নিষ্ঠা একটু কম। তবে বাড়ির পুজোগুলিতে সব কিছু মেনে চলা হয়। বারোয়ারি পুজোতেও নিষ্ঠা মানার একটা চেষ্টা থাকে। আসলে অনেক পুরোহিত সঠিকভাবে জানেন না দুর্গাপুজোর পদ্ধতি। এটা রপ্ত করতে হয়। কেউ এসব তো শিখে আসে না। ফলে প্রশিক্ষণের প্রয়োজন রয়েছে। পাশাপাশি পুজোর উদ্যোক্তাদের অনুরোধ করব, আপনারা পুজোর দিকেও খেয়াল রাখুন। তাঁর কর্মশালায় গিয়ে দেখা গেল, জনা পঞ্চাশেক নবীন-প্রবীণ মানুষ জড়ো হয়ে শিখে নিচ্ছেন মহাস্নান বা হোমের পদ্ধতি, কীভাবে কলাবউ সাজাতে হবে, কীভাবে সন্ধিপুজো করতে হবে ইত্যাদি নানা কৃৎকৌশল। তাঁরা অনেকেই বলছেন, পুজোর মন্ত্রের মধ্যে যে অর্থ, যে ভাব রয়েছে, তা বোধগম্য না হলে পুজো বিফলে যাবে। পুজোয় বিশ্বাসী সবার এ বিষয়ে সচেতন হওয়া উচিত।

12th  September, 2019
আক্রান্ত বেড়ে ৬৯, আগে মৃত আরও
দু’জন করোনারই শিকার, জানাল রাজ্য

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: মঙ্গলবার পর্যন্ত রাজ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হল ৬৯। এদিন সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই তথ্য জানিয়ে বলেন, এর মধ্যে ৯টি পরিবার থেকেই ৬০ জন সদস্য রয়েছেন। বিশদ

কোথায় ভাঙছে লকডাউন,
ড্রোন উড়িয়ে খুঁজবে রাজ্য পুলিস

 শুভ্র চট্টোপাধ্যায়, কলকাতা: কোথায় কোথায় লকডাউন ভাঙা হচ্ছে, তা দেখতে ড্রোন ওড়ানোর পরিকল্পনা নিল পুলিস। তাতে যে চিত্র ধরা পড়বে, তার ভিত্তিতে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে রাজ্য পুলিস সূত্রে ইঙ্গিত মিলেছে। তাই হাতে থাকা ড্রোনগুলির অবস্থা কী, তা নিয়ে খোঁজখবর শুরু হয়েছে। একই সঙ্গে বিভিন্ন জেলা থেকে ড্রোন চেয়ে সদর দপ্তরে অনুরোধ আসছে বলেও জানা যাচ্ছে।
বিশদ

খোলা বাজারে চাল সরবরাহ বজায় নিশ্চিত
করতে রাইস মিলগুলি চালু রাখার উদ্যোগ

  নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: রাজ্য সরকারের ভাঁড়ারে এখন যে পরিমাণ চাল আছে, তাতে আগামী কয়েক মাস রেশনে সরবরাহ করতে কোনও সমস্যা হবে না। কিন্তু, খোলা বাজারে সরবরাহ বজায় রাখতে লকডাউন পরিস্থিতিতে রাইস মিলগুলি চালু রাখতে সক্রিয় হয়েছে রাজ্য সরকার। বিশদ

গত আট মাসে রেকর্ড ফোন
‘করোনা’ নিয়ে ফোনের
বন্যা ‘দিদিকে বলো’তে

 অর্ক দে, কলকাতা: নানা রকমের সরকারি ভাতা না পাওয়া থেকে শুরু করে প্রকল্পে ঘর না মেলার অভিযোগ, কাটমানি কিংবা এলাকায় শাসকদলের একাংশের তোলাবাজি, গত সাত-আট মাসের সেইসব চেনা ফোন উঠাও। ‘দিদিকে বলো’র ফোন এখন শুধুই ‘করোনা’ময়।
বিশদ

হোম কোয়ারেন্টাইনে কলকাতা
পুরসভার মুখ্য স্বাস্থ্য উপদেষ্টা

  নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: বাড়ির চেম্বারে এক্স-রে রিপোর্ট নিয়ে এসেছিলেন রোগী। স্বাভাবিকভাবে সেই রোগীর এক্স-রে রিপোর্ট দেখেছিলেন কলকাতা পুরসভার মুখ্য স্বাস্থ্য বিভাগের উপদেষ্টা ডাঃ তপন মুখোপাধ্যায়। এরপর সেই রোগী অ্যাপোলো হাসপাতালে বুকে সংক্রমণের সমস্যা নিয়ে ভর্তি হন। বিশদ

 মুখ্যমন্ত্রীর তৈরি কমিটিতে নতুন আরও ৪ বিশেষজ্ঞ

  নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: অর্থনীতির দিশা দিতে সোমবারই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিশেষজ্ঞ কমিটি তৈরির ঘোষণা করেন। সেই কমিটিতে নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ ডঃ অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায় এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রাক্তন আঞ্চলিক অধিকর্তা ডঃ স্বরূপ সরকারকে রাখার কথা ঘোষণা করেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বিশদ

ঘরে খাবার নেই, তবলিগের খোঁচায় প্রাণ ওষ্ঠাগত
বিজেপি শাসিত রাজ্যে বাংলার পরিযায়ী শ্রমিকদের

 জীবানন্দ বসু, কলকাতা: করোনা কেন্দ্রিক লকডাউনের জেরে গত কয়েকদিনে তাঁদের স্বাভাবিক জীবনযাপন অনেকটাই দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে। পর্যাপ্ত খাদ্য-রসদের অভাবই যে তার অন্যতম কারণ, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। বিশদ

 মমতার করোনা তহবিলের জন্য মন্ত্রী,
বিধায়কদেরও ৩০% প্রাপ্য কাটা হোক
ধনকারের আর্জিতে সায় বিরোধীদের

  নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: করোনা সংক্রমণ রুখতে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা পরিকাঠামো তৈরি ও লকডাউন জনিত আর্থিক দুরবস্থার হাল থেকে দেশবাসীকে রক্ষা করতে তামাম এমপি এবং কেন্দ্রীয় মন্ত্রীদের বেতন-ভাতায় ৩০ শতাংশ কোপ পড়েছে। বিশদ

আঞ্চলিক ভাষার পরীক্ষা বাতিল করে হিন্দির
আধিপত্যই চাইছে দিল্লি, মত শিক্ষামহলের

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: হিন্দি যে ভারতের রাষ্ট ভাষা নয়, তা সাম্প্রতিককালে ওঠা বিভিন্ন বিতর্কে মানুষ জেনে গিয়েছে। কিন্তু বাংলা সহ আঞ্চলিক ভাষাগুলিকে দুয়োরানি করে রাখার প্রবণতা যে দিল্লির এখনও আছে, তা আরও একবার প্রমাণিত হয়েছে সিবিএসই-র সিদ্ধান্তে।
বিশদ

‘দুঃস্থ’ আইনজীবীদের সঙ্কটে পড়ার আশঙ্কা
ই-ফাইলিং চালু হলেও কলকাতা হাইকোর্টে ইন্টারনেটে মামলার শুনানি নামমাত্র

 পল্লব চট্টোপাধ্যায়, কলকাতা: সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশিকা মেনে কলকাতা হাইকোর্টে ইন্টারনেট ব্যবহার করে মামলা দায়ের করার প্রচেষ্টা বছর আটেক আগে অঙ্কুরেই ধামাচাপা পড়েছিল সংখ্যাগুরু আইনজীবীদের বিরোধিতায়। অথচ, বর্তমান অবস্থায় ইন্টারনেট ভিত্তিক মামলা দায়ের করা থেকে শুরু করে শুনানির প্রচলন হয়েছে রাজ্যের শীর্ষ আদালতে। বিশদ

নেট পরিষেবা দুর্বল
অনলাইনে ছেড়ে ই-মেল, হোয়াটসঅ্যাপে
পাঠ দিচ্ছে অনেক কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: লকডাউনের ফলে স্কুল থেকে উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান—সকলেরই চিন্তা ছিল, সিলেবাস শেষ হবে কী করে! তাই অনলাইন ক্লাস নেওয়ার প্রস্তুতি নেয় অনেক কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়। শুরু হয় সেই পদ্ধতিতে পাঠদানও।
বিশদ

 মমতার পাশে বাম নেতৃত্ব, সব জেলায় স্মারকলিপি দিয়ে পরিস্থিতি জানবে কংগ্রেস

  নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: নোভেল করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় রাজ্য সরকারের সঙ্গে একযোগে কাজ করবে বামেরা। বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসুর নেতৃত্বে এক প্রতিনিধিদল মঙ্গলবার নবান্নে গিয়ে রাজ্যের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠক করে। বিশদ

করোনার জেরে শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া
পিছিয়ে যাওয়ায় চিন্তিত চাকরিপ্রার্থীরা

  নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: হাজারো উৎকণ্ঠার জন্ম দিয়েছে কোভিভ-১৯। তার সঙ্গে নতুন করে যুক্ত হয়েছে, শিক্ষকতার চাকরিপ্রার্থীদের উদ্বেগ। শিক্ষামন্ত্রী জানিয়েছিলেন, পুরসভা ভোটের পরই নেওয়া হবে টেট। সেই ঘোষণায় আশায় বুক বেঁধেছিলেন চাকরিপ্রার্থীরা। বিশদ

 বিক্রি হয়নি, ঘরে মজুত বাজি দিয়েই আনন্দ, দাবি ব্যবসায়ী সমিতিগুলির

 রাহুল চক্রবর্তী, কলকাতা: সেল, চকলেট বোমা, তুবড়ি, রংমশালে রবিবারের ন’টা তখন কালীপুজোর রাত! মাঝ চৈত্রে যেন অকাল দীপাবলি। করোনা নিয়ে আতঙ্কের মধ্যেই কয়েক মিনিট বাজি ফাটিয়ে আনন্দ উপভোগের চেষ্টা আম বাঙালি। বিশদ

Pages: 12345

একনজরে
 সঞ্জয় গঙ্গোপাধ্যায়, কলকাতা: করোনা মোকাবিলার পাশাপাশি ডেঙ্গু দমনেরও প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে রাজ্য সরকার। করোনার প্রকোপের মধ্যে ডেঙ্গু যাতে নতুন করে মাথাব্যথার কারণ না হয়, সে ব্যাপারে সোমবারই প্রশাসনকে সতর্ক করে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ...

 কিয়েভ (ইউক্রেন), ৭ এপ্রিল (এপি): করোনা আতঙ্কের মধ্যে চেরনোবিল পরমাণু কেন্দ্র থেকে তেজস্ক্রিয়তা ছড়িয়ে পড়া নিয়ে ইউক্রেনে আতঙ্ক তৈরি হয়েছে। পরমাণু কেন্দ্র লাগোয়া জঙ্গলে দাবানল লেগে যাওয়ার এই বিপত্তি তৈরি হয়েছে। ...

সংবাদদাতা, তপন: রাষ্ট্রপতি পুরস্কারপ্রাপ্ত শিক্ষক অমল রায় করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দশ হাজার টাকা দান করলেন। সোমবার তপনের বিডিও সি তামাংয়ের হাতে চেকটি তুলে দিয়েছেন অমলবাবু।  ...

  ফতেপুর (উত্তরপ্রদেশ), ৭ এপ্রিল (পিটিআই): দুই কিশোর-কিশোরীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়াল উত্তরপ্রদেশের ফতেপুরের মালাওয়াইনে। পুলিশ আত্মহত্যা বললেও এই মৃত্যু নিয়ে রহস্য তৈরি হয়েছে। কারণ, কিশোরের পরিবারের দাবি, দু’জনকে খুন করে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

ব্যবসায় বাড়তি বিনিয়োগ প্রত্যাশিত সাফল্য নাও দিতে পারে। কর্মক্ষেত্রে পদোন্নতি শ্বাসকষ্ট ও বক্ষপীড়ায় শারীরিক ক্লেশ। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৭৫৭: বাংলার নবাব আলীবর্দী খাঁ মারা যান।
১৭৫৯: ব্রিটিশ বাহিনী ভারতের মাদ্রাজ দখল করে।
১৮৫৭: বারাকপুরে সিপাহি বিদ্রোহের নায়ক মঙ্গল পাণ্ডের ফাঁসি
১৮৯৪: সাহিত্যিক বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের মৃত্যু
১৯০২: কলকাতায় মূক ও বধির বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয়।
১৯২৯: দিল্লির সেন্ট্রাল অ্যাসেম্বলিতে বোমা ছুঁড়ে ধরা পড়লেন ভগৎ সিং ও বটুকেশ্বর দত্ত
১৯৫০: ভারত পাক চুক্তি স্বাক্ষর করলেন লিয়াকত-নেহরু
১৯৫০: বিপ্লবী হেমচন্দ্র কানুনগোর মৃত্যু
১৯৭৩: স্পেনের চিত্রশিল্পী পাবলো পিকাসোর মৃত্যু
১৯৭৬: ফুটবলার গোষ্ঠপালের মৃত্যু





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৫.০৯ টাকা ৭৬.৮১ টাকা
পাউন্ড ৯১.৫৭ টাকা ৯৪.৮৬ টাকা
ইউরো ৮০.৬৮ টাকা ৮৩.৭২ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪১,৮৮০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৯,৭৩০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪০,৩৩০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৮,৮০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৮,৯০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
22nd  March, 2020

দিন পঞ্জিকা

২৪ চৈত্র ১৪২৬, ৭ এপ্রিল ২০২০, মঙ্গলবার, (চৈত্র শুক্লপক্ষ) চতুর্দশী ১৬/২৬ দিবা ১২/২। উত্তরফাল্গুনী ৯/৩০ দিবা ৯/১৫। সূ উ ৫/২৭/২৬, অ ৫/৫০/১৬, অমৃতযোগ দিবা ৭/৫৭ গতে ১০/২৫ মধ্যে পুনঃ ১২/৫৩ গতে ২/৩২ মধ্যে পুনঃ ৩/২১ গতে ৫/০ মধ্যে। রাত্রি ৬/৩৬ মধ্যে পুনঃ ৮/৫৬ গতে ১১/১৫ মধ্যে পুনঃ ১/৩৫ গতে ৩/৮ মধ্যে। বারবেলা ৭/০ গতে ৮/৩৩ মধ্যে পুনঃ ১/১২ গতে ২/৪৪ মধ্যে। কালরাত্রি ৭/১৭ গতে ৮/৪৪ মধ্যে।
২৪ চৈত্র ১৪২৬, ৭ এপ্রিল ২০২০, মঙ্গলবার, চতুর্দশী ১৩/৫৮/১৪ দিবা ১১/৪/৯। উত্তরফাল্গুনী ৭/১০/১০ দিবা ৮/২০/৫৫। সূ উ ৫/২৮/৫১, অ ৫/৫০/৫৪। অমৃতযোগ দিবা ৭/৫৪ গতে ১০/২৩ মধ্যে ও ১২/৫৩ গতে ২/৩২ মধ্যে ও ৩/২২ গতে ৫/১ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/৩৭ মধ্যে ও ৮/৫৬ গতে ১১/১৫ মধ্যে ও ১/৩৩ গতে ৩/৬ মধ্যে। বারবেলা ৭/১/৩৬ গতে ৮/৩৪/২২ মধ্যে, কালবেলা ১/১২/৩৮ গতে ২/৪৫/২৩ মধ্যে।
১৩ শাবান

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
করোনা পরিস্থিতি নিয়ে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকারের সঙ্গে আড়াই ঘণ্টার বৈঠক মুখ্যসচিবের 

09:27:00 PM

করোনা: বিশ্বে সুস্থ হয়ে গিয়েছেন ৩ লক্ষেরও বেশি রোগী
বিশ্বে করোনা যেমন কেড়ে নিচ্ছে বহু প্রাণ, তেমনি সুস্থও হয়ে ...বিশদ

08:59:28 PM

রামপুরহাটে ঝাড়খণ্ড সীমান্ত সংলগ্ন সুরচিয়া জঙ্গলে আগুন, অকুস্থলে দমকলের ২টি ইঞ্জিন

08:04:00 PM

আজ হুগলি, নদীয়া, বীরভূমে ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনা 

07:56:00 PM

এবার বিনামূল্যেই হবে করোনা পরীক্ষা, জানাল সুপ্রিম কোর্ট
অনুমোদিত সরকারি বা বেসরকারি ল্যাবে করোনা পরীক্ষা বিনামূল্যে করা হবে। ...বিশদ

07:22:52 PM

আজ ঝাড়গ্রাম, পঃ মেদিনীপুরে ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনা 

07:09:00 PM