Bartaman Patrika
কলকাতা
 

দিল্লির সঙ্গে পাল্লা দিয়ে কলকাতাতেও
বাড়ছে দূষণ, ভুগছে শিশু সহ বড়রাও

'নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: দূষণের অপবাদে দিল্লি এখন খবরের শিরোনামে। কিন্তু কলকাতাও তেমন পিছিয়ে নেই। শীতের দোরগোড়ায় শহরে এমন এক-একটি দিন আসছে, যেখানে দূষণ ছাপিয়ে যাচ্ছে অন্যান্য শহরকে। দেশি বিদেশি নানা গবেষণা বুঝিয়ে দিচ্ছে, মারণরোগ টেনে আনতে দূষণে পিছিয়ে নেই কলকাতা তথা রাজ্য। আর তা থেকে যে হরেক সমস্যা শরীরে দানা বাঁধছে, তাতেও কোনও সন্দেহ নেই। চিকিৎসকরাও তা নিয়ে যথেষ্ট শঙ্কিত। দূষণ এড়িয়ে ভালো থাকাও যে একপ্রকার কষ্টকল্পনা, তাও মানছেন তাঁরা।
শ্বাসজনিত সমস্যায় এখন সবচেয়ে বেশি ভুগছে শিশুরা। বিশিষ্ট শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ ডাঃ অপূর্ব ঘোষের কথায়, বাচ্চাদের ক্ষেত্রে দূষণের প্রভাব স্লো পয়জন বা ধীরে ধীরে বিষক্রিয়ার মতো। রাতারাতি তা সমস্যা তৈরি করে না। কিন্তু দীর্ঘমেয়াদি সমস্যা সৃষ্টি করে। শিশুদের শ্বাসকষ্টজনিত রোগ অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে গিয়েছে। পাশাপাশি ভিটামিন ডি-এর সমস্যাও বেড়েছে পাল্লা দিয়ে। ফলে রিকেট বা হাড়ের সমস্যায় ভুগছে বেশিরভাগ শিশু। পরীক্ষা করলে দেখা যাচ্ছে, অধিকাংশ শিশুরই শরীরে ভিটামিন ডি-এর ঘাটতি আছে। প্রশ্ন হল, দূষণের সঙ্গে ভিটামিন ডি-এর সম্পর্ক কী? অপূর্ববাবুর বক্তব্য, ভিটামিন ডি পাওয়া যায় সূর্যালোক থেকে। কিন্তু দূষণের বাড়াবাড়িতে যথেষ্ট সূর্যালোক থেকে বঞ্চিত হচ্ছে শিশুরা। সূর্যের আলোর অভাবে সমস্যা বাড়ছে শিশুদের পাশাপাশি বড়দেরও। অনেকেই দূষণ আটকাতে মাস্ক ব্যবহার করেন। কিন্তু তা মানসিক শান্তি ছাড়া বড় কোনও সমাধান করে বলে মানেন না অপূর্ববাবু। তাঁর কথায়, এতে ক্ষুদ্র দূষণকণা এড়ানো যায় না। তাই সেই অর্থে দূষণ থেকে বাঁচার উপায় নেই। আসলে আমাদের দেশে দূষণ নিয়ে কিছু সদর্থক উদ্যোগ নেওয়া কঠিন, এমনটাই মনে করছেন অপূর্ববাবু। তাঁর কথায়, প্রতিটি স্তরে যেভাবে রাজনীতি জড়িয়ে যাচ্ছে, তাতে দূষণের সঙ্গে মোকাবিলা করা কতটা সম্ভব, তা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে। সম্প্রতি রবীন্দ্র সরোবরের দূষণ নিয়ে যেভাবে রাজনীতি হয়েছে, তা একজন নাগরিক হিসেবে অত্যন্ত বেদনাদায়ক, উপলব্ধি অপূর্ববাবুর। তাঁর কথায়, কেন্দ্র ও রাজ্য যতক্ষণ না রাজনীতি দূরে রেখে দূষণ নিয়ে পদক্ষেপ করবে, ততক্ষণ সাধারণ মানুষের নিস্তার নেই।
বিশিষ্ট পালমোনোলজিস্ট ডাঃ সুস্মিতা রায়চৌধুরীর কথায়, কলকাতা থেকে যাঁরা বাইরে বেড়াতে যান, তাঁরা ফিরে এসে বুঝতে পারেন, চোখ জ্বালা করছে। হাত-পা চটচট করছে, অস্বস্তি হচ্ছে। এসবই দূষণের লক্ষণ। কলকাতা শহরেই ব্রিজের উপর দাঁড়ালে বোঝা যায়, দূষণের মাত্রা কী ভয়ঙ্কর। চারদিকের বাতাসে যেন কালচে বা বাদামি ভাব। আসলে এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স নিয়ে আগে কোনও আলোচনা বা মাতামাতি ছিল না। এখন দূষণের প্রকোপে মানুষ তা নিয়ে চিন্তাভাবনা করছে। ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা থেকে দেখছি, আউটডোরে শ্বাসকষ্টজনিত অসুখের সমস্যা অত্যধিক বেড়ে গিয়েছে। বিশেষত সারাবছর ধরে কাশি ও কালো কফে নাজেহাল হচ্ছেন মানুষ। ব্রঙ্কাইটিসের সমস্যা বাড়ছে। তাহলে উপায়? সুস্মিতাদেবীর কথায়, আমরা যদি ব্যক্তিগতভাবে কিছুটা সচেতন হই, তাহলে খানিকটা সমস্যা এড়ানো যায়। বাড়িতে অহেতুক কোনও জ্বালানির ঝামেলা না বাড়ানোই ভালো। মশা মারার ধূপ খুব প্রয়োজন না হলে জ্বালাবেন না। শীতকালে উষ্ণতা বাড়াতে অনেক জায়গায় টায়ার পোড়ানো হয়। এই মারাত্মক কাজটি বন্ধ করুন বা এড়িয়ে চলুন। কাঠকয়লা বা সমগোত্রীয় জ্বালানি একেবারে বর্জন করুন। রাস্তাঘাটে কোনও দোকানে তার ব্যবহার হলে, সেই এলাকা পরিত্যাগ করুন।
হোমিওপ্যাথির জাতীয় প্রতিষ্ঠান সল্টলেকের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব হোমিওপ্যাথির অধিকর্তা ডাঃ সুভাষ সিং বলেন, এখানে দূষণ তো মানুষের তৈরি বিপর্যয়। আমরা যত গাছ কাটছি, তত গাছ লাগাচ্ছি কি? জলে যে দূষণ হচ্ছে, তাকে আটকাতে আমরা কী কী ব্যবস্থা নিচ্ছি? যাঁরা সিওপিডি, হাঁপানি বা ফুসফুসের সমস্যায় ভোগেন, দূষণের বাড়াবাড়িতে তাঁরা আরও কাবু হয়ে পড়ছেন। আর যাঁদের সেই সমস্যা নেই, তাঁরাও সেই সব রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন। হোমিওপ্যাথিতে শ্বাস সংক্রান্ত অসুখ আটকাতে টিউবারকিউলিনাম নামে একটি ওষুধ দারুণ কাজ দেয় আদর্শ পরিস্থিতিতে। কিন্তু আদর্শ পরিস্থিতি আর আমরা পাচ্ছি কই? মানুষ ও ওষুধ, এই দু’য়ের মধ্যে পাঁচিল তুলে দিয়েছে দূষণ। এমনকী দূষণের কারণে শিশুদেরও এমন সমস্যা দেখতে পাচ্ছি, যা এই বয়েসে হওয়ার কথাই নয়। শহরাঞ্চল থেকে এমন বহু মানুষ আমাদের কাছে আসেন, যাঁদের সমস্যাগুলি এমন, যা সাধারণত জুটমিলের কর্মী, অ্যাসবেস্টস কারখানা বা খনি এলাকার কর্মীদের হয়ে থাকে। অর্থাৎ পরিস্থিতি যে কতটা ভয়ঙ্কর, তা এর থেকেই বোঝা যায়।

08th  November, 2019
যানজট, ভিড় বাসস্টপ, অফিস
খুলতেই প্রায় ‘আনলক’ শহর

  নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: লকডাউনের জেরে কার্যত নিস্তব্ধ হয়ে যাওয়া কলকাতা যেন প্রাণ ফিরে পেল। সোমবার সরকারি-বেসরকারি অধিকাংশ অফিস খুলে যেতেই সকাল থেকে রাজপথে চোখে পড়ল সেই পুরনো ব্যস্ততা। 
বিশদ

রাস্তায় আবর্জনার স্তূপ, বাড়ছে
মশা, তাড়া করছে ডেঙ্গুর ভয়
বালি, বেলুড়, লিলুয়া

  নিজস্ব প্রতিনিধি, হাওড়া: বালি, বেলুড় সহ হাওড়ার উত্তরভাগে বিভিন্ন রাস্তায় জঞ্জাল জমে রয়েছে। করোনা আতঙ্ক এবং ঘূর্ণিঝড়ের জন্য বেশ কিছুদিন ধরেই সকালের দিকের সাফাই কর্মীরা অনিয়মিত হয়ে গিয়েছেন। ফলে অনেকেই গৃহস্থালির বর্জ্য প্লাস্টিকে ভরে রাস্তার এক পাশে রেখে দিচ্ছেন।
বিশদ

 বিমানবন্দরের গেটে যাত্রীদের দীর্ঘ লাইন, সমাধানে নয়া সিদ্ধান্ত সিআইএসএফের

  নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: গত বৃহস্পতিবার কলকাতা থেকে অন্তর্দেশীয় বিমান চলাচল শুরু হয়েছে। তবে গত চারদিনে যে সংখ্যায় বিমান কলকাতা থেকে উড়েছে বা এখানে নেমেছে, সোমবার তা অনেকটাই বাড়ানো হল। এদিন সন্ধ্যা পর্যন্ত শহরে ওঠানামা করেছে প্রায় ৬০টির কাছাকাছি বিমান। বিশদ

 ফাইনাল সেমেস্টারে সময় কমিয়ে লিখিত
পরীক্ষার পরিকল্পনা করছে রবীন্দ্রভারতী

  নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: বিশ্ববিদ্যালয়ে এসেই লিখিত পরীক্ষা দিতে হবে রবীন্দ্রভারতীর ফাইনাল সেমেস্টারের ছাত্রছাত্রীদের। সেক্ষেত্রে সময় কমিয়ে নেওয়া হবে পরীক্ষা। শিক্ষক ও ছাত্র প্রতিনিধিদের নিয়ে এক বৈঠকে এমনই সিদ্ধান্ত আপাতত গ্রহণ করা হয়েছে। বিশদ

পড়ুয়াদের গাছ লাগানোর নির্দেশ দিল
আবুল কালাম আজাদ বিশ্ববিদ্যালয়

  নিজস্ব প্রতিনিধি, বারাকপুর: প্রত্যেক পড়ুয়াকে চারাগাছ রোপণের নির্দেশ দিল মৌলানা আবুল কালাম আজাদ করিগরি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। সোমবার হরিণঘাটা ক্যাম্পাসে বৃক্ষরোপনের সূচনা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সৈকত মৈত্র।
বিশদ

আগস্টে ফুলবাগান পর্যন্ত ইস্ট ওয়েস্ট
মেট্রো চালাতে আশাবাদী কর্তারা

  নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: লকডাউনের জন্য ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর সল্টলেক স্টেডিয়াম থেকে ফুলবাগান পর্যন্ত সম্প্রসারিত পথে কমিশনার অফ রেলওয়ে সেফটির ইন্সপেকশন থমকে গিয়েছিল। মেট্রো রেল সূত্রের খবর, জুন মাসের মধ্যে এই ইন্সপেকশন হবে।
বিশদ

লকডাউনের জেরে পলতা জলপ্রকল্পের
পাড় বাঁধানো এখন শিকেয়

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: লকডাউনে আটকে গিয়েছে কলকাতা পুরসভার অন্যতম বৃহৎ জলাধার পলতা ইন্দিরা গান্ধী জলপ্রকল্পের ‘স্টিল পাইলিং’ করে পাড় বাঁধানোর কাজ। চীন থেকে আসার পথে মাঝপথেই আটকে পড়েছে ওই বিপুল পরিমাণ স্টিল।
বিশদ

চলতি সপ্তাহেই জঞ্জালমুক্ত হবে,
সল্টলেক, আশাবাদী পুরসভা

  নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: বর্ষা দরজায় কড়া নাড়ছে। এদিকে, লকডাউন আর উম-পুনের ধাক্কা সামলে এখনও পুরোপুরি স্বাভাবিক হতে পারেনি সল্টলেক। তবে পুরসভার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, পরিবেশ এবং জঞ্জাল অপসারণ বিভাগ যুদ্ধকালীন তৎপরতায় কাজ করছে। বিশদ

 উঃ ২৪ পরগনায় ঝড়ে ব্যাপক
ক্ষতি গবাদি পশু ও পোলট্রির

  নিজস্ব প্রতিনিধি,বারাসত: উমপুনের তাণ্ডবে উত্তর ২৪ পরগনা জেলায় গবাদি পশু ও পোলট্রির মুরগি চাষে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। পশুপালন দপ্তরের প্রাথমিক রিপোর্ট, এদের মৃত্যুর জন্য ক্ষতি হয়েছে প্রায় ২৯ কোটি টাকার। জেলার ২১টি ব্লকে প্রায় সাড়ে ১১ লক্ষ গবাদি পশু, হাঁস ও মুরগির মৃত্যু হয়েছে।
বিশদ

 আনলক ১-এর প্রথম দিনেই
হাওড়ার পথে মানুষের ঢল

  নিজস্ব প্রতিনিধি ও সংবাদদাতা, হাওড়া: ‘আনলক ১’-এর প্রথম দিন, সোমবার সকাল থেকে হাওড়া জেলা এবং শহরের মানুষ যেভাবে পথে নামল, তাতে রাস্তাঘাটের প্রায় স্বাভাবিক অবস্থা ফিরে এল বলা চলে।
বিশদ

 প্রায় দশ দিন নতুন করোনা সংক্রমণ নেই উঃ দমদমে

  নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২১ পেরলেও নতুন করে সংক্রমণ ছড়ানো রুখল উত্তর দমদম পুরসভা। প্রায় ১০-১২ দিন হয়ে গেল, নতুন কোনও সংক্রমণের খবর নেই এই এলাকায়। ফলে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছেন পুরবাসীরা। বিশদ

ঝড়ে বিধ্বস্ত চুঁচুড়ায়
সবুজ ফেরাতে উদ্যোগ

 নিজস্ব প্রতিনিধি, চুঁচুড়া: উম-পুন ঝড়ে বিধ্বস্ত চুঁচুড়া শহরের সবুজ ফেরাতে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা গাছের চারা বিতরণ করল। সোমবার ওই সংস্থার তরফে শহরের ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের ত্রিপল ও একটি করে গাছের চারা দেওয়া হয়। বিশদ

 ঠিকা সংস্থার বিদ্যুৎ কর্মীর মৃত্যু, বিক্ষোভ

  নিজস্ব প্রতিনিধি, চুঁচুড়া: বিদ্যুৎ বণ্টন কোম্পানির ঠিকা সংস্থার হয়ে কাজ করতে এসে হুগলির উত্তরপাড়ায় এক শ্রমিকের মৃত্যু হল। বিশদ

 হুগলিতে লকডাউন উঠতেই পথে জনতা

  নিজস্ব প্রতিনিধি, চুঁচুড়া: চতুর্থ দফার লকডাউন উঠতেই সোমবার হুড়মুড়িয়ে পথে নামল মানুষ। হুগলি জেলা সদর চুঁচুড়ার রাস্তাঘাটে থিকথিকে ভিড়। বাজারঘাট, মুদিখানা দোকান থেকে ওষুধের দোকানে ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো। ট্রেন না চলায় স্টেশন রোড তুলনায় ছিল শুনশান। বিশদ

Pages: 12345

একনজরে
  নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: করোনা খাতে কেন্দ্রের কাছে ৩০০ কোটি টাকা চাইল শিক্ষা দপ্তর। চিঠি দিয়ে তা জানানো হয়েছে। সুস্বাস্থ্য ও পরিবেশ বজায় রাখার জন্য স্কুলগুলিকে জীবাণুমুক্ত করা থেকে শুরু করে অন্যান্য নানা কাজের জন্যই এই বিপুল অর্থের প্রয়োজন। ...

অলকাভ নিয়োগী, বর্ধমান: সুপার সাইক্লোন উম-পুনের জেরে সম্পূর্ণ ক্ষতিগ্রস্ত বাড়ি মেরামতি তথা পুনর্গঠনের জন্য পূর্ব বর্ধমান জেলার দু’হাজারের বেশি পরিবার ২০ হাজার টাকা করে অনুদান পাবে। রাজ্যের বিপর্যয় মোকাবিলা দপ্তর পূর্ব বর্ধমান জেলার জন্য ৫ কোটি টাকা বরাদ্দও করেছে।  ...

সংবাদদাতা, দিনহাটা: দিনহাটা মহকুমার বিভিন্ন এলাকায় করোনা আক্রান্তের হদিশ মিলতেই শহরে লকডাউনকে আঁটোসাঁটো করল দিনহাটা পুর প্রশাসন। করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে সোমবার থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য শহরে বন্ধ করে দেওয়া হল অটো, টোটো ও বাইক চলাচল।  ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, নয়াদিল্লি, ১ জুন: এবার চলবে শতাব্দী এক্সপ্রেসও। শীঘ্রই শুরু হবে টিকিট বুকিং। পাশাপাশি অত্যধিক চাহিদা থাকায় বাছাই করা কিছু রুটে শুরু হতে চলেছে ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

বিদ্যার্থীরা কোনও বৃত্তিমূলক পরীক্ষার ভালো ফল করবে। বিবাহার্থীদের এখন ভালো সময়। ভাই ও বোনদের কারও ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯৪৭: লর্ড মাউন্টব্যাটেনের ভারতকে দ্বিখণ্ড করার পরিকল্পনা মেনে নিল কংগ্রেস ও মুসলিম লিগ
১৯৬৫ - অস্ট্রেলীয় প্রাক্তন ক্রিকেটার মার্ক ওয়ার জন্ম।
১৯৭৫ - বিশিষ্ট পদার্থ বিজ্ঞানী দেবেন্দ্র মোহন বসুর মৃত্যু
১৯৮৭: বলিউড অভিনেত্রী সোনাক্ষি সিনহার জন্ম
১৯৮৮: অভিনেতা ও নির্দেশক রাজ কাপুরের মৃত্যু
২০১১: গায়ক অমৃক সিং আরোরার মৃত্যু
২০১১: বিশিষ্ট সংবাদ পাঠক তথা আবৃত্তিকার তথা বাচিক শিল্পী দেবদুলাল বন্দ্যোপাধ্যায়ের মৃত্যু



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৪.৫২ টাকা ৭৬.২৩ টাকা
পাউন্ড ৯১.৭৩ টাকা ৯৫.০২ টাকা
ইউরো ৮২.৩৮ টাকা ৮৫.৪৫ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪১,৮৮০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৯,৭৩০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪০,৩৩০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৮,৮০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৮,৯০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
22nd  March, 2020

দিন পঞ্জিকা

১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ২ জুন ২০২০, মঙ্গলবার, একাদশী ১৭/৫৪ দিবা ১২/৫। চিত্রা নক্ষত্র ৪৪/৫৮ রাত্রি ১০/৫৫। সূর্যোদয় ৪/৫৫/২৮, সূর্যাস্ত ৬/১৩/৪৪। অমৃতযোগ দিবা ৭/৩৪ মধ্যে পুনঃ ৯/২১ গতে ১২/০ মধ্যে পুনঃ ৩/৩৩ গতে ৪/২৬ মধ্যে। রাত্রি ৬/৫৬ মধ্যে পুনঃ ১১/৫৫ গতে ২/৪ মধ্যে। বারবেলা ৬/৩৬ গতে ৮/১৫ মধ্যে পুনঃ ১/১৪ গতে ২/৫৪ মধ্যে। কালরাত্রি ৭/৩৪ গতে ৮/৫৪ মধ্যে।
 ১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ২ জুন ২০২০, মঙ্গলবার, একাদশী দিবা ৯/৪৬। চিত্রা নক্ষত্র রাত্রি ৯/২১। সূর্যোদয় ৪/৫৬, সূর্যাস্ত ৬/১৫। অমৃতযোগ দিবা ৭/৩৬ মধ্যে ও ৯/২৪ গতে ১২/৪ মধ্যে ও ৩/৩৮ গতে ৪/৩২ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/২ মধ্যে ও ১১/৫৮ গতে ২/৬ মধ্যে। বারবেলা ৬/৩৬ গতে ৮/১৬ মধ্যে ও ১/১৫ গতে ২/৫৫ মধ্যে। কালরাত্রি ৭/৩৫ গতে ৮/৫৫ মধ্যে।
৯ শওয়াল।

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
করোনা:আপনার জেলার হাল কী, জানুন 
রাজ্যে নতুন করে আরও ২৭১ জনের শরীরে মিলল করোনা ভাইরাস। ...বিশদ

10:01:00 AM

ভারতে করোনা আক্রান্ত ১,৯৮,৭০৬ 
ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১,৯৮,৭০৬। এর মধ্যে ৯৭,৫৮১ জন সক্রিয় ...বিশদ

09:44:18 AM

শিলিগুড়ির ডি আই মার্কেটের ৭ টি দোকানে আগুন 
শিলিগুড়িতে নতুন করে দুইটি দোকান সহ ৭ টি দোকানে আগুন ...বিশদ

09:21:00 AM

ভারত না ইন্ডিয়া, শুনানি আজ 
ভারতের ইংরেজি শব্দ ‘ইন্ডিয়া’। কিন্তু সেই শব্দে আপত্তি জানিয়েছেন নামাহ ...বিশদ

09:06:18 AM

নির্ধারিত সময়েই রাজ্যে বর্ষা ঢুকছে
আন্দামান ও নিকোবরে বর্ষা এসেছিল আগেই। এবার নির্দিষ্ট সময়েই ভারতের ...বিশদ

08:25:15 AM

 নাসার ভেন্টিলেটর তৈরির লাইসেন্স পেল ৩ ভারতীয় সংস্থা

করোনা আক্রান্তদের জন্য নাসার তৈরি ভেন্টিলেটর উৎপাদনের লাইসেন্স পেল তিনটি ...বিশদ

08:20:02 AM