দেশ

মণিপুরের পরিস্থিতি নিয়ে উচ্চপর্যায়ের বৈঠক শাহের, রাষ্ট্রপতি শাসনের জল্পনা

নিজস্ব প্রতিনিধি, নয়াদিল্লি: অবশেষে মণিপুর নিয়ে নড়েচড়ে বসল কেন্দ্র। গত এক বছরেরও বেশি সময় ধরে অশান্ত উত্তর-পূর্বের এই রাজ্য। সোমবার বিকেলে উত্তপ্ত মণিপুরের পরিস্থিতি নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকে একটি উচ্চপর্যায়ের বৈঠক হয়। কেন্দ্র ও রাজ্যের উচ্চপর্যায়ের সুরক্ষা ও প্রশাসনিক কর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। উপস্থিত ছিলেন সেনাপ্রধান ও গোয়েন্দা প্রধানও। তবে বৈঠকে ছিলেন না মণিপুরের মুখ্যমন্ত্রী এন বীরেন সিং। সূত্রের খবর, মণিপুরের পরিস্থিতি সামাল দিতে বৈঠকে উঠে এসেছে রাষ্ট্রপতি শাসনের প্রসঙ্গও। বৈঠকের পর শাহ বলেছেন, উত্তর-পূর্বের রাজ্যে জাতিগত দ্বন্দ্বের অবসানের লক্ষ্যে কেন্দ্র যত দ্রুত সম্ভব কুকি ও মেইতেই উভয়পক্ষের প্রতিনিধিদের সঙ্গে কথা বলবে।  সেইসঙ্গে হিংসার ঘটনার চক্রীদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা গ্রহণেরও নির্দেশ দিয়েছেন শাহ। প্রয়োজন হলে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েনও বাড়ানো হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। 
 হিংসার সূত্রপাতের পর এক বছরেরও বেশি সময় কেটে গিয়েছে। কিন্তু রাজ্য সরকারের আওতায় থাকা পুলিশ-প্রশাসন এখনও সেখানে শান্তি ফেরাতে পারেনি। সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে দু’টি আসনও হাতছাড়া হয়েছে বিজেপির। প্রশ্ন উঠছে, সেই কারণেই কি নড়েচড়ে বসছে কেন্দ্র? সেক্ষেত্রে বিকল্প পথ কী হতে পারে? সেই প্রসঙ্গেই এদিনের বৈঠকে উঠে আসে রাষ্ট্রপতি শাসনের কথা। যদিও এদিনের বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে চূড়ান্ত কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি বলে শীর্ষ আধিকারিক মহল সূত্রে জানা গিয়েছে।
মণিপুরের পরিস্থিতি এখনও উদ্বেগজনক। কয়েকদিন আগে স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী যেখানে সফর করবেন বলে স্থির ছিল, সেখানেই হয়েছে হামলা। বহুবার আগুনে পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে সরকারি ভবন, আধিকারিকদের বাংলো। উপত্যকা এবং পার্বত্যাঞ্চল, সম্পূর্ণভাবে বিভাজিত হয়ে গিয়েছে দুই জনজাতির আবাসভূমি। কেন রাজ্যে এখনও রাষ্ট্রপতি শাসন কেন জারি হচ্ছে না, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিরোধীরা। প্রধানমন্ত্রীর নীরবতা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে। কিন্তু গত ৪ জুনের পর আচমকা বদলে গিয়েছে পরিস্থিতি। লোকসভার ফলপ্রকাশের পর রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের সরসঙ্ঘচালক মোহন ভাগবত একঝাঁক তিরে বিদ্ধ করেন বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্বকে। ঔদ্ধত্যকে বিজেপির হারের অন্যতম কারণ হিসেবে ব্যাখ্যা করেন। এই আক্রমণাত্মক মন্তব্যের মধ্যে অন্যতম ছিল মণিপুর। উত্তর-পূর্বের এই রাজ্যকে যেভাবে উপেক্ষা করা হয়েছে, তার সমালোচনাও করেন। বলেন, মণিপুরে সকলের সঙ্গে আলোচনা করে, সব পক্ষের কথা শুনে সকলের আস্থা অর্জন করা উচিত ছিল। এখন সরকারের অন্যতম দায়িত্ব মণিপুরের পরিস্থিতিকে স্বাভাবিক করা। 
সরসঙ্ঘচালকের ওই তোপের কয়েকদিনের মধ্যেই মণিপুর নিয়ে বৈঠক করলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। সোমবারের বৈঠকে হাজির ছিলেন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দাকর্তা তপন ডেকা, সেনাপ্রধান মনোজ পান্ধে, মণিপুরের পুলিসকর্তা, মুখ্যসচিব, অসম রাইফেলসের ডিজি। এ পর্যন্ত মণিপুরে ২২৫ জনের প্রাণ গিয়েছে। ঘরছাড়া ৫০ হাজারের বেশি। কিছুদিন আগেই একের পর এক ভবন বিস্ফোরণে উড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। পরিস্থিতি এখনও জটিল। ফলে দিশাহারা কেন্দ্র এবার একটা বড়সড় সিদ্ধান্ত নিতে চাইছে বলেই অনুমান রাজনৈতিক মহলের। 
1Month ago
কলকাতা
রাজ্য
বিদেশ
খেলা
বিনোদন
ব্ল্যাকবোর্ড
শরীর ও স্বাস্থ্য
বিশেষ নিবন্ধ
সিনেমা
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
আজকের দিনে
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
mesh

পারিবারিক সম্পত্তি সংক্রান্ত আইনি কর্মে ব্যস্ততা। ব্যবসা সম্প্রসারণে অতিরিক্ত অর্থ বিনিয়োগের পরিকল্পনা।...

বিশদ...

এখনকার দর
ক্রয়মূল্যবিক্রয়মূল্য
ডলার৮২.৮৫ টাকা৮৪.৫৯ টাকা
পাউন্ড১০৬.৪৩ টাকা১০৯.৯৫ টাকা
ইউরো৮৯.৬৩ টাকা৯২.৭৮ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
*১০ লক্ষ টাকা কম লেনদেনের ক্ষেত্রে
দিন পঞ্জিকা