দক্ষিণবঙ্গ

সংকীর্ণ পথে বিশাল গর্ত, ঘটছে দুর্ঘটনা এক বছরেই বেহাল ‘পথশ্রী’র রাস্তা 

সংবাদদাতা, নবদ্বীপ: এক বছর আগে জেলা পরিষদের পথশ্রী প্রকল্পে তৈরি রাস্তার বেহাল দশা। নবদ্বীপ ব্লকের কলাতলা মোড় থেকে স্বরূপগঞ্জ পানশিলা বালিকা বিদ্যালয় পর্যন্ত প্রায় এক কিলোমিটার রাস্তাটি তৈরি হয়েছিল। স্থানীয়দের অভিযোগ, সেই রাস্তার দু’ধারে বেশকিছুটা অংশ ভেঙে গর্ত হয়ে গিয়েছে। অল্প বৃষ্টিতেই রাস্তার নিচু অংশে জলও জমে যাচ্ছে। এছাড়া রাস্তার বেশকিছু অংশ দখল করে একশ্রেণির ব্যবসায়ী দোকান বাড়িয়ে নিয়ে সেখানে কেউ চায়ের দোকান, কেউ মুদিখানা বা স্টেশনারি, আবার কেউবা খাবারের দোকান করে ব্যবসা করছেন। অনেকেই তাঁদের বাড়ির সীমানা বেশ কিছুটা বাড়িয়ে নিয়েছেন। এর ফলে খুব গুরুত্বপূর্ণ রাস্তাটি দিনদিন সংকীর্ণ হয়ে যাচ্ছে এবং ওই রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করতে গিয়ে মাঝেমধ্যেই দুর্ঘটনার কবলে পড়ছেন স্থানীয় বাসিন্দা, পড়ুয়া থেকে পথচারীরা। এ ব্যাপারে সম্পূর্ণ উদাসীন প্রশাসন। এলাকার মানুষের দাবি, অবিলম্বে রাস্তাটি মেরামতি করে চলাচলের উপযোগী করে তোলা হোক।
জানা গিয়েছে, এই রাস্তার পাশে রয়েছে স্বরূপগঞ্জ পানশিলা বালিকা বিদ্যালয়, স্বরূপগঞ্জ প্রাথমিক বিদ্যালয়, গাদিগাছা অঙ্গনারী সেন্টার, বেসরকারি নার্সারি কেজি স্কুল। এছাড়া ভাগীরথী বিদ্যাপীঠে যাওয়ার বাইপাস রাস্তা। এখান দিয়ে ভাগীরথী বিদ্যাপীঠের কয়েকশো ছাত্র যাতায়াত করে। এছাড়া অনেকেই ইলেকট্রিক অফিস, পোস্ট অফিস যান এই রাস্তা দিয়েই। প্রতিদিন এই রাস্তায় টোটো, অটো ও বিভিন্ন ছোট যানবাহন সহ বেশ কয়েক হাজার মানুষের যাতায়াত। বেহাল পরিস্থিতির কারণে প্রতিদিনই সমস্যায় পড়তে হচ্ছে সবাইকে। 
স্থানীয় বাসিন্দা সঞ্জিত সমাদ্দার বলেন, এই রাস্তা দিয়ে বিভিন্ন গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ প্রতিদিন যাতায়াত করেন। দিনের পর দিন রাস্তাটি ভেঙে সংকীর্ণ হয়ে যাচ্ছে। এমনকী রাস্তার কিছুটা অংশ বেদখল হয়ে যাওয়ার ফলে বিশেষ করে স্কুলের সময় ছাত্রছাত্রীদের সমস্যায় পড়তে হয়। এই রাস্তা দিয়ে যদি একটা কোন গাড়ি ঢোকে, অন্য কোনও গাড়ি যাতায়াত করতে পারে না। আমরা চাই রাস্তাটি একটু চওড়া হোক এবং দখলমুক্ত করা হোক। রাস্তার ধারে  বসবাসকারী কয়েকটি পরিবারকে অন্যত্র কোথাও সরানো হোক। স্থানীয় বাসিন্দা ঝন্টু হালদার বলেন, এই রাস্তাটি অনেক চওড়া ছিল। এখন নতুন তৈরি অনেক ঘর রাস্তার দিকে চলে এসেছে। ফলে রাস্তাটা ছোট হয়ে যাচ্ছে। খুবই গুরুত্বপূর্ণ এই রাস্তা দিয়ে নদী পার হয়ে অনেকেই মায়াপুর যান। আমরা চাই রাস্তাটি চওড়া হোক।
রাস্তা প্রসঙ্গে নদীয়া জেলা পরিষদের উপাধ্যক্ষ অজয় কর বলেন, পানশিলা স্কুল থেকে কলাতলা মোড় পর্যন্ত পথশ্রী প্রকল্পে ২০২৩ সালের এপ্রিল মাসে রাস্তাটি তৈরি হয়। পিচ রাস্তাটির ৫১০ মিটার দৈঘ্য এবং তিন মিটার প্রস্থ। বর্তমানে প্রায় এক কিলোমিটার এই রাস্তার খুবই বাজে পরিস্থিতি। আমি নিজে সরেজমিনে গিয়ে দেখেছি। দু’টি হাইস্কুল, প্রাথমিক বিদ্যালয়, বেসরকারি কেজি, স্কুল ইলেকট্রিক অফিস ও পোস্ট অফিস আছে। রাস্তাটি জরুরি ভিত্তিতে সারানোর প্রয়োজন। রাস্তাটি চওড়া এবং ঢালাই রাস্তা হলে ভালো হয়। কেননা একটা ছোট যানবাহন গেলে পাশ দিয়ে অন্য কোনও যানবাহন যেতে পারে না। রাস্তার বিষয়ে জেলা পরিষদকে জানানো হয়েছে। 
27d ago
কলকাতা
রাজ্য
দেশ
বিদেশ
খেলা
বিনোদন
ব্ল্যাকবোর্ড
শরীর ও স্বাস্থ্য
বিশেষ নিবন্ধ
সিনেমা
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
আজকের দিনে
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
mesh

বিকল্প উপার্জনের নতুন পথের সন্ধান লাভ। কর্মে উন্নতি ও আয় বৃদ্ধি। মনে অস্থিরতা।...

বিশদ...

এখনকার দর
ক্রয়মূল্যবিক্রয়মূল্য
ডলার৮৩.২৩ টাকা৮৪.৩২ টাকা
পাউন্ড১০৬.৮৮ টাকা১০৯.৫৬ টাকা
ইউরো৯০.০২ টাকা৯২.৪৯ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
*১০ লক্ষ টাকা কম লেনদেনের ক্ষেত্রে
21st     July,   2024
দিন পঞ্জিকা